× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Allegation of beating the intern doctor of Dhaka Medical at Shahid Minar
hear-news
player
google_news print-icon

শহীদ মিনারে ঢাকা মেডিক্যালের ইন্টার্ন চিকিৎসককে মারধরের অভিযোগ

শহীদ-মিনারে-ঢাকা-মেডিক্যালের-ইন্টার্ন-চিকিৎসককে-মারধরের-অভিযোগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার। ফাইল ছবি/নিউজবাংলা
সাজ্জাদ হোসেন বলেন, ‘আমাকে যখন মারা হচ্ছে, তখন তারা বলেছে এটা ঢাবি ক্যাম্পাস। আমি সেখানে কী করছি? এ সময় তাদের গায়ে ঢাবির লোগো সংবলিত টিশার্ট ছিল।’

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বসে থাকাকে কেন্দ্র করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের এক ইন্টার্ন চিকিৎসককে মারধর করে কান এবং নাক ফাটিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭-৮ জন শিক্ষার্থীর বিরুদ্ধে।

গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এই ঘটনা ঘটে বলে অভিযোগ করেন ইন্টার্ন চিকিৎসক এ কে এম সাজ্জাদ হোসেন।

তিনি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। বর্তমানে তিনি একই হাসপাতালে ইন্টার্ন চিকিৎসক হিসেবে কর্মরত আছেন।

অবশ্য মারধরের শিকার হলেও অভিযুক্তদের নাম জানাতে পারেননি সাজ্জাদ হোসেন।

তিনি বলেন, ‘আমাকে যখন মারা হচ্ছে, তখন তারা বলেছে এটা ঢাবি ক্যাম্পাস। আমি সেখানে কী করছি? এ সময় তাদের গায়ে ঢাবির লোগো সংবলিত টিশার্ট ছিল।’

এই ঘটনায় সাজ্জাদ মঙ্গলবার শাহবাগ থানায় জিডি এবং আগামীকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ দেবেন বলে জানান।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে সাজ্জাদ হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গতকাল সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত আমি হাসপাতালের রিডিংরুমে পড়াশোনা করি। ৯টার পর ইচ্ছে হলো, একটু চা খেয়ে আসি। এরপর চা খেতে শহীদ মিনারে যাই। চা খেয়ে শহীদ মিনারের নিচে বসে বাদাম খাচ্ছিলাম।

‘কিছুক্ষণ পর দেখি, সাত-আটজন ছেলে এসে সেখানে বসা সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করছিল। আর কাউকে কাউকে তুলে দিচ্ছিল। তাদের কয়েকজনের গায়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের লোগো সংবলিত টিশার্ট ছিল।’

তিনি বলেন, ‘পরে দুই-তিনজন ছেলে আমার কাছেও আসে। এসে জিজ্ঞেস করে, আমি সেখানে কী করছি? আমার পরিচয় কী, আমি কোথাকার? আমি নিজের পরিচয় দিলে তারা আমার পরিচয়পত্র দেখতে চায়। সে সময় আমার সাথে কার্ড ছিল না।’

সাজ্জাদ বলেন, ‘আমার কাছে পরিচয়পত্র নেই জানালে তারা আমাকে বলে, পরিচয়পত্র নেই কেন? আমাদের কাছে তো পরিচয়পত্র আছে। তখন আমি বললাম, সবাই কি সব সময় পরিচয়পত্র নিয়ে ঘোরে?’

‘তাকে এই প্রশ্ন কেন করলাম সে জন্য একজন সাথে সাথে আমাকে থাপ্পড় মেরে বলে আমার সাথে তো আইডি কার্ড আছে, তোর সাথে থাকবে না কেন? এরপর পাশে থাকা দুই-তিনজন এসে আমাকে চড়-থাপ্পড় মারা শুরু করে।’

সাজ্জাদ বলেন, ‘মারধরের একপর্যায়ে আমি চিৎকার করে বলি, আমি কী করেছি? আমাকে মারছেন কেন? আপনারা চাইলে আমার সঙ্গে ঢাকা মেডিক্যালে গিয়ে আমার পরিচয়পত্র দেখে আসতে পারেন।

‘এই কথা বলার পর তাদের একজন বলে, আপনি আবার কথা বলেন! এটা বলেই আরও কয়েকটা থাপ্পড় দিল। এ সময় আমার চিল্লানি শুনে তাদের সাথে আসা বাকিরাও আমার সামনে চলে আসে। তারা এসে ইচ্ছেমতো আমাকে চড়-থাপ্পড় মারতে থাকে। এর মধ্যে একজন কানের নিচে থাপ্পড় দিলে আমি ভারসাম্য হারিয়ে পড়ে যাই।’

সাজ্জাদ বলেন, ‘আমি কেন বসে যাই এবং কেন সেখান থেকে যাচ্ছি না, সে কথা বলে একজন আমাকে তার জুতা পায়ে মুখ বরাবর লাথি মারে। আমার মুখে স্যান্ডেলের বালি পর্যন্ত লেগে ছিল।

‘এরপর তারা আমাকে ধাক্কিয়ে ফুটপাত পর্যন্ত নিয়ে আসে। এই আনা পর্যন্ত যে যেভাবে পারছে আমারে মারছে। পরে তারা আমাকে একটা রিকশায় তুলে দিলে আমি আমার হলে ফিরে আসি।’

সাজ্জাদ বলেন, ‘হলে আসার পর আমি এক কানে কম শুনতেছি, নাক থেকে রক্ত বের হচ্ছিল। মাড়িও কেটে গেছে। গালের পাশে ফুলে আছে। চোখ ডান পাশেরটা লাল হয়ে আছে। এরপর ইমার্জেন্সিতে গেলাম। পুলিশ কেস সিলসহ ইঞ্জুরি নোট লিখল। নাক-কান-গলায় রেফার করল। নাক দেখে বলল, নাকের সেপ্টাম ইনজুর্ড হয়েছে।

‘কান দেখে বলেছে, কানের পর্দায় ব্লিডিং স্পট আছে, হিয়ারিং লস আছে কি না বুঝতে অডিওগ্রাম করতে হবে।’

বিষয়টি নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বিষয়টা আমি শুনেছি। তবে এখনো কোনো অভিযোগ আমরা পাইনি। কেউ থানায় অভিযোগ দিলে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের শনাক্ত করতে সার্বিক সহযোগিতা করবে।’

আরও পড়ুন:
পিকআপের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু
খিলগাঁওয়ে ট্রাকের ধাক্কায় রিকশাচালক নিহত
ফতুল্লায় ছুরিকাঘাতে যুবক নিহত
রাজধানীর ফুটপাত থেকে দুজনের মরদেহ উদ্ধার
কম দামে মোবাইল কিনতে গিয়ে ছুরিকাঘাতে শিক্ষার্থী আহত

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Jailed for wife murder attempted murder of a woman again

স্ত্রী হত্যায় জেল খেটে ফের এক নারীকে ‘হত্যাচেষ্টা’

স্ত্রী হত্যায় জেল খেটে ফের এক নারীকে ‘হত্যাচেষ্টা’
ছালমা বলেন, ‘বাসায় আমি একা থাকি, আমর ছেলে ডাক্তার, সে ঢাকায় থাকে। এই সুযোগে বাড়িতে ঢুকে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে চয়েন। ২০১০ সালে চয়েন তার স্ত্রীকে হত্যার দায়ে জেল খেটে গত বছরের শেষের দিকে মুক্তি পায়। তখন আমার স্বামীসহ গ্রামের অনেকেই চয়েনকে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে পুলিশকে সহায়তা করেছিল। এ কারণেই সে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে।’

নওগাঁর রাণীনগরে স্ত্রী হত্যা মামলার আসামি চয়েন আলী সরদার কারাভোগের পর বেরিয়ে আবারও এক নারীকে হত্যা চেষ্টা চালিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এ ঘটনায় চয়েনের বিরুদ্ধে শুক্রবার বিকেলে রাণীনগর থানায় মামলা করেছেন ছালমা আক্তার নামের এক নারী।

ছালমা উপজেলার মালশন গ্রামের প্রয়াত ইব্রাহিম হোসেনের স্ত্রী। ৩৫ বছর বয়সী চয়েন একই গ্রামের বাসিন্দা।

২০১০ সালের জানুয়ারিতে স্ত্রী হত্যার দায়ে আদালত তাকে ১৪ বছর কারাদণ্ড দেয়। কারাবিধি মেনে চলার কারণে দুই বছর কম সাজাভোগ করতে হয় তাকে। গত বছরের ডিসেম্বরে কারাগার থেকে বের হন চয়েন।

ছালমার করা মামলার বিবরণে বলা হয়, গত মঙ্গলবার রাত ৮টার দিকে বাড়িতে তিনি একা ছিলেন। এ সময় চয়েন বাড়িতে ঢুকে দড়ি দিয়ে ছালমার শরীর বেঁধে ফেলার চেষ্টা করেন। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে ছালমার একটি দাঁত ভেঙে যায়। তিনি চিৎকার শুরু করলে হত্যার হুমকি দিয়ে পালিয়ে যান চয়েন।

ছালমা বলেন, ‘বাসায় আমি একা থাকি, আমর ছেলে ডাক্তার, সে ঢাকায় থাকে। এই সুযোগে বাড়িতে ঢুকে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে চয়েন। ২০১০ সালে চয়েন তার স্ত্রীকে হত্যার দায়ে জেল খেটে গত বছরের শেষের দিকে মুক্তি পায়।

‘তখন আমার স্বামীসহ গ্রামের অনেকেই চয়েনকে গ্রেপ্তারের ব্যাপারে পুলিশকে সহায়তা করেছিল। এ কারণেই সে আমাকে হত্যার চেষ্টা করে। এমন অপরাধীকে দ্রুত আটক করে কঠিন শাস্তি দেয়া হোক, নইলে আমরা কেউই নিরাপদ নই।’

রাণীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘ছালমা আক্তারকে হত্যা চেষ্টার অভিযোগে চয়েনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। তাকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছি। শিগগিরই তাকে আইনের আওতায় আনা হবে।’

আরও পড়ুন:
ইউএনওকে হত্যাচেষ্টা মামলা: তদন্ত কর্মকর্তার সাক্ষ্য নিতে সমন
বিষাক্ত ইনজেকশন দিয়ে রোগীকে হত্যাচেষ্টা, স্ত্রী আটক
কৃষককে গুলি করে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ
২০০ টাকা নিয়ে বাকবিতণ্ডা, চা দোকানির গলায় পোচ
কপালে টিপ, হত্যাচেষ্টার অভিযোগ শিক্ষকের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The new DG of RAB took charge

দায়িত্ব নিলেন র‍্যাবের নতুন ডিজি

দায়িত্ব নিলেন র‍্যাবের নতুন ডিজি র‍্যাবের নতুন মহাপরিচালক খুরশীদ হোসেন। ছবি: সংগৃহীত
খুরশীদ হোসেন ১২তম বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা। এর আগে পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত আইজিপি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

এলিট ফোর্স র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন বা র‍্যাবের মহপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন অতিরিক্ত আইজিপি এম খুরশীদ হোসেন।

শুক্রবার বিকেলে তিনি নতুন এ দায়িত্ব গ্রহণ করেন।

বাহিনীটির আইন ও গণমাধ্যম শাখা থেকে পাঠানো এক ক্ষুদেবার্তায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

গত ২২ সেপ্টেম্বর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এম খুরশীদ হোসেনকে র‍্যাবের মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব দেয়ার কথা জানায়। এরপর র‍্যাবের সদ্য সাবেক ডিজি চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুনের স্থলাভিষিক্ত হন তিনি।

খুরশীদ হোসেন ১২তম বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা। এর আগে পুলিশ সদর দপ্তরের অতিরিক্ত আইজিপি (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশনস) হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

র‍্যাব প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পাওয়া খুরশীদ হোসেনের জন্ম গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে।

দায়িত্ব নিয়ে শনিবার সকালে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি, বনানী কবরস্থান ও রাজারবাগে পুলিশ স্মৃতিস্তম্ভে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন তিনি।

আরও পড়ুন:
ঘরের দরজা ভেঙে যুবদল নেতাকে তুলে নেয় র‍্যাব: বিএনপি
এসডিজি-৬ অর্জনে পানি ও স্যানিটেশনে অর্থায়ন বাড়ানোর পরামর্শ
কল রেকর্ড সংক্রান্ত তথ্যটি গুজব: র‍্যাব
নারিন্দায় র‍্যাবের অভিযান, বাড়ি ঘেরাও
স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজিসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য শুরু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Accused of beating younger brother to death

ছোট ভাইকে টেঁটা মেরে হত্যার অভিযোগ

ছোট ভাইকে টেঁটা মেরে হত্যার অভিযোগ রায়পুরায় শহিদ মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে টেঁটা মেরে হত্যা করা হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা
পুলিশ জানায়, দুপুরে শহিদ মিয়ার সঙ্গে তার স্ত্রীর ঝগড়া শুরু হয়। কলহ মেটাতে সেখানে যান শহিদের বড় ভাই ইদ্রিস মিয়া। এক পর্যায়ে ইদ্রিস উত্তেজিত হয়ে শহিদ মিয়াকে টেঁটা মেরে আঘাত করেন। তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নরসিংদীর রায়পুরায় শহিদ মিয়া নামের এক ব্যক্তিকে টেঁটা মেরে হত্যার অভিযোগ উঠেছে তার বড় ভাই ইদ্রিস মিয়ার বিরুদ্ধে।

শুক্রবার দুপুরে উপজেলার উত্তর বাখরনগর এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

৪২ বছর বয়সী শহিদ মিয়া ওই এলাকার বাসিন্দা ছিলেন।

রায়পুরা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গোবিন্দ চন্দ্র সরকার নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

পরিবারের সদস্যদের বরাতে পুলিশ জানায়, দুপুরে শহিদ মিয়ার সঙ্গে তার স্ত্রীর ঝগড়া শুরু হয়। কলহ মেটাতে সেখানে যান শহিদের বড় ভাই ইদ্রিস মিয়া। এক পর্যায়ে ইদ্রিস উত্তেজিত হয়ে শহিদ মিয়াকে টেঁটা মেরে আঘাত করেন।

আশপাশের লোকজন তাকে উদ্ধার করে রায়পুরা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখান থেকে তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

পুলিশ কর্মকর্তা গোবিন্দ জানান, পারিবারিক কলহের জেরে টেঁটার আঘাতে শহিদ মিয়া নিহতের ঘটনায় অভিযুক্ত ইদ্রিস মিয়াকে আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরও পড়ুন:
শিশুদের দ্বন্দ্বের জেরে যুবক নিহত
টেঁটাযুদ্ধে নারী-শিশুসহ আহত ৫০

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Housewifes body in the pond husband missing

পুকুরে গৃহবধূর মরদেহ, স্বামী উধাও

পুকুরে গৃহবধূর মরদেহ, স্বামী উধাও নরসিংদী সদরে শুক্রবার দুপুরে পুকুর থেকে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা
দিনার স্বজনরা জানান, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী আরমান গাজীর হাতে খুন হয়েছেন ৩২ বছর বয়সী দিনা আক্তার। বৃহস্পতিবার রাতে কোনো একসময় দিনাকে হত্যা করে বিছানার তোশক মুড়িয়ে মরদেহ বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দেয়া হয়। এ ঘটনার পর পালিয়েছেন আরমান।

নরসিংদী সদরে পুকুর থেকে দিনা আক্তার নামে গৃহবধূর তোশকে মোড়ানো মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

সদর উপজেলার নজরপুর ইউনিয়নের বুদিয়ামারা গ্রামের কালাইগোবিন্দপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

শুক্রবার দুপুরে মরদেহ উদ্ধার করে সদর হাসপাতাল মর্গে নিয়েছে পুলিশ।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নরসিংদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাশেম ভূঁইয়া।

দিনার স্বজনরা জানান, পারিবারিক কলহের জেরে স্বামী আরমান গাজীর হাতে খুন হয়েছেন ৩২ বছর বয়সী দিনা আক্তার। বৃহস্পতিবার রাতে কোনো একসময় দিনাকে হত্যা করে বিছানার তোশক মুড়িয়ে মরদেহ বাড়ির পাশে পুকুরে ফেলে দেয়া হয়। এই ঘটনার পর পালিয়েছেন আরমান।

দিনার মা রিনা বেগম জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি নরসিংদীর আলোকবালী ইউনিয়নে। ১৫ বছর আগে নজরপুর ইউনিয়নের বুদিয়ামারা গ্রামের কালাইগোবিন্দপুর এলাকার বাসিন্দা আরমান গাজীর সঙ্গে দিনার বিয়ে হয়। তাদের দুই মেয়ে ও এক ছেলে রয়েছে। সম্প্রতি আরমান গাজী ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এ নিয়ে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত ছিলেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার রাতে তুচ্ছ বিষয় নিয়ে তাদের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। আরমান রাতে দিনাকে হত্যা করে পালিয়েছেন।

ওসি আবুল কাশেম ভূঁইয়া জানান, দুপুর ১২টার দিকে তিনি ঘটনাস্থলে যান। এ সময় পুকুর থেকে গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

আরও পড়ুন:
বাইরে তালা, ঘরে দম্পতির হাত-মুখ বাঁধা মরদেহ
কিশোরীকে ‘খুন’ করে নিখোঁজ মামলা, পরে ধরা  
বস্তাবন্দি মরদেহ মরিয়ম মান্নানের মায়ের কি না সংশয়
কলেজশিক্ষকের মরদেহ উদ্ধার, আটক শিক্ষার্থী
শহীদ মিনারের ফুটপাতে নবজাতকের মরদেহ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Chowdhury Abdullah Al Mamun took charge as IGP

আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন

আইজিপি হিসেবে দায়িত্ব নিলেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। ছবি: সংগৃহীত
স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ২২ সেপ্টেম্বর প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে আবদুল্লাহ আল-মামুনকে বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) হিসেবে মনোনীত করা হয়।

বাংলাদেশ পুলিশের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন।

শুক্রবার তিনি পুলিশ সদর দপ্তরে নতুন দায়িত্ব গ্রহণ করেছেন বলে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। বেনজীর আহমেদের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন আবদুল্লাহ আল-মামুন।

এর আগে র‌্যাব মহাপরিচালক হিসেবে দুই বছরের বেশি সময় দায়িত্ব পালন করেছেন আবদুল্লাহ আল-মামুন।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে ২২ সেপ্টেম্বর প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে আবদুল্লাহ আল-মামুনকে বাংলাদেশ পুলিশের ইন্সপেক্টর জেনারেল (আইজিপি) হিসেবে মনোনীত করা হয়।

আইজিপি হিসেবে নিয়োগের আগে চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন ২০২০ সালের ১৫ এপ্রিল করোনা মহামারির সময় র‌্যাব মহাপরিচালকের দায়িত্ব নেন। দুই বছর পর তাকে এই পদে নিয়োগ দেয় সরকার।

চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন অষ্টম বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা। ১৯৬৪ সালের ১২ জানুয়ারি সুনামগঞ্জের শাল্লা উপজেলার শ্রীহাইল গ্রামে তিনি জন্মগ্রহণ করেন।

তিনি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সমাজবিজ্ঞান বিষয়ে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি পুলিশ সদর দপ্তরের ডিআইজি (প্রশাসন), রেঞ্জ ডিআইজি হিসেবে ময়মনসিংহ ও ঢাকা রেঞ্জের মতো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে ছিলেন। এরপর পদোন্নতি পেয়ে অতিরিক্ত আইজিপির দায়িত্ব পান।

র‌্যাবের ডিজি হিসেবে যোগদানের আগে তিনি সিআইডি প্রধান হিসেবে সফলভাবে দায়িত্ব পালন করেন।

অন্যদিকে শুক্রবারই চাকরির মেয়াদ শেষ হয় বিদায়ী আইজিপি বেনজীর আহমেদের।

আরও পড়ুন:
অবসরে যাচ্ছেন আইজিপি বেনজীর
সন্ত্রাসবাদ মাথাচাড়ার চেষ্টা করলে অবাক হওয়ার কিছু নেই: আইজিপি
স্বাধীনতার ৩০ বছরই আমরা গণতন্ত্রের দেখা পাইনি: আইজিপি
সাইবার অপরাধ দমনে পুলিশের সক্ষমতা বাড়াবে ইন্টারপা: আইজিপি
আইজিপি ও জাতিসংঘ পুলিশ প্রধানের বৈঠক

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Five businessmen of cannabis factory arrested in Tongi

টঙ্গীতে গাঁজার কারখানা, পাঁচ কারবারি গ্রেপ্তার

টঙ্গীতে গাঁজার কারখানা, পাঁচ কারবারি গ্রেপ্তার টঙ্গীতে গাঁজার প্রক্রিয়াকরণ কারখানায় অভিযানে গ্রেপ্তার পাঁচ কারবারি। ছবি: সংগৃহীত
মাহবুব উজ জামান আরও বলেন, ‘গ্রেপ্তার ফোরকান হোসেন শান্তর নামে দুটি মাদক মামলাসহ মোট তিনটি এবং ইসমত আরা ওরফে সাবিনার নামে একটি মাদক মামলা আছে।’

গাজীপুরের টঙ্গীতে একটি গাঁজা প্রক্রিয়াকরণ কারখানায় অভিযান চালিয়ে ২৫ কেজি গাঁজাসহ পাঁচ কারবারিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তারের সময় ২৫ কেজি গাঁজা, একটি বাস, একটি নোয়া মাইক্রোবাস, দুইটি পিকআপ ও তিনটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে।

শুক্রবার টঙ্গী পূর্ব থানায় এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার (অপরাধ-দক্ষিণ) মাহবুব উজ জামান।

এ সময় অতিরিক্ত উপ-কমিশনার হাসিবুল আলম, টঙ্গী পূর্ব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশরাফুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিরা হলেন ৩৫ বছর বয়সী ফোরকান হোসেন শান্ত, ১৫ বছরের কামরুল ইসলাম ইয়াছিন, ৩০ বছরের হনুফা, ২৫ বছরের ইসমত আরা ওরফে সাবিনা এবং ২৮ বছর বয়সী শহিদুল ইসলাম।

মাহবুব উজ জামান বলেন, ‘টঙ্গীতে অভিযান চালিয়ে একটি গাঁজা প্রক্রিয়াকরণ কারখানার সন্ধান পায় পুলিশ। এ সময় ২৫ কেজি গাঁজা ও ২৮ হাজার ৩৩০ টাকা, একটি বাস, একটি নোয়া মাইক্রোবাস, দুইটি পিকআপ, দুটি মোবাইল, দুটি স্বর্ণের চেইন, মাদক কেনাবেচার নয়টি হিসাব রেজিস্ট্রার ও একটি গাড়ির ভুয়া নেমপ্লেট উদ্ধার করা হয়।’

পরে টঙ্গী ও ডিএমপির মিরপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে পাঁচজন মাদক কারবারিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান তিনি।

মাহবুব উজ জামান আরও বলেন, ‘গ্রেপ্তার ফোরকান হোসেন শান্তর নামে দুটি মাদক মামলাসহ মোট তিনটি এবং ইসমত আরা ওরফে সাবিনার নামে একটি মাদক মামলা আছে।’

তিনি জানান, ফোরকান হোসেন শান্ত দীর্ঘ দিন ধরে তার সহযোগীদের সঙ্গে নিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মাদক সংগ্রহ করে টঙ্গীসহ বিভিন্ন জায়গায় কেনাবেচা করে আসছে।

গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে টঙ্গী পূর্ব থানায় একটি নিয়মিত মামলার পর শুক্রবার দুপুরে গাজীপুর আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
নিখোঁজের দুই বছর পর মিলল যুবকের বস্তাবন্দি দেহ
গাজীপুরে ৯ ডাকাত গ্রেপ্তার, আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার
মাদক মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন
মানিকগঞ্জে মাদকসহ গ্রেপ্তার ৫
স্ত্রীর সঙ্গে পুড়ে ‘মৃত’ ব্যক্তিকে ৫০ দিন পর গ্রেপ্তার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Transgender killed by stabbing in Paribaug

পরীবাগে ছুরিকাঘাতে ট্রান্সজেন্ডার নিহত

পরীবাগে ছুরিকাঘাতে ট্রান্সজেন্ডার নিহত ট্রান্সজেন্ডার নীলাকে মৃত বলে জানান ঢামেক হাসপাতালের চিকিৎসক। ফাইল ছবি
২৪ বছর বয়সী নীলাকে নিয়ে ঢামেকে যাওয়া সাথী নামের ট্রান্সজেন্ডার জানান, পরীবাগ ফুটওভার ব্রিজের ওপর দুই যুবক নীলার গলায় ছুরিকাঘাত করেন। কী কারণে তাকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে, তা জানা যায়নি।

রাজধানীর পরীবাগ ফুটওভার ব্রিজের ওপর ছুরিকাঘাতে নীলা নামের এক ট্রান্সজেন্ডার নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার রাত সোয়া ১টার দিকে ছুরিকাহত হন নীলা। পরে রক্তাক্ত অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে জানান।

২৪ বছর বয়সী নীলাকে নিয়ে ঢামেকে যাওয়া সাথী নামের ট্রান্সজেন্ডার জানান, পরীবাগ ফুটওভার ব্রিজের ওপর দুই যুবক নীলার গলায় ছুরিকাঘাত করেন।

তিনি আরও জানান, পরীবাগে ওই যুবকদের আগে দেখা যায়নি। কী কারণে নীলাকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে, তা জানা যায়নি।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ বাচ্চু মিয়া জানান, নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
জমি বিরোধের জেরে ছুরিকাঘাতে খুন
জেনেভা ক্যাম্পে ৩ যুবককে ছুরিকাঘাত
রাজধানীতে ছুরিকাঘাতে কিশোর নিহত
‘ঝগড়া না থামায়’ ছুরিকাঘাত, আহত বাবার মৃত্যু
বেঞ্চে বসা নিয়ে দ্বন্দ্ব, সহপাঠীকে স্কুলছাত্রের ছুরিকাঘাত

মন্তব্য

p
উপরে