× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Increase in bus fare in the district anger and suffering
hear-news
player
print-icon

বাসে বাড়তি ভাড়া, জেলায় জেলায় ক্ষোভ-দুর্ভোগ

বাসে-বাড়তি-ভাড়া-জেলায়-জেলায়-ক্ষোভ-দুর্ভোগ
কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী বাসগুলোর ভাড়া অন্তত ৫০ টাকা করে বাড়িয়ে দেয়া হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা
জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাস ভাড়াও বাড়িয়ে দিয়েছেন আন্তজেলা পরিবহন মালিকরা। এতে বিভিন্ন জেলার বাসস্ট্যান্ডগুলোতে যাত্রী অসন্তোষ দেখা গেছে। কুমিল্লা, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নেত্রকোণা, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, সাভার ও রংপুরের প্রতিনিধিরা যাত্রী দুর্ভোগের চিত্রও তুলে ধরেছেন।

শুক্রবার রাতে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার ঘোষণায় কুমিল্লা থেকে ছেড়ে যাওয়া দূরপাল্লার সব যাত্রীবাহী বাসের ভাড়া বাড়িয়েছেন পরিবহন ব্যবসায়ীরা। হঠাৎ ভাড়া বাড়ার প্রতিবাদে বাসস্ট্যান্ডজুড়ে অসন্তোষ প্রকাশ করছেন সাধারণ যাত্রীরা।

শনিবার সকাল ১০টায় নগরীর শাসনগাছা এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, কুমিল্লা থেকে ঢাকার ভাড়া আদায় করা হচ্ছে আড়াই শ টাকা। গত শুক্রবার পর্যন্ত শাসনগাছা থেকে ঢাকাগামী তিশা ও এশিয়া পরিবহনের ভাড়া ছিল ২০০ টাকা।

নগরীর জাঙ্গালিয়া বাসস্ট্যান্ডের পরিবহনসংশ্লিষ্টরা জানান, বাসগুলো ডিজেলে চলে। প্রতি লিটার ডিজেল ৩৪ টাকা বেড়ে যাওয়ায় এশিয়া এয়ারকন যাত্রীপ্রতি ৩০০ টাকা করে নিচ্ছে। তাদের আগের ভাড়া ছিল আড়াই শ টাকা।

এশিয়া এয়ারকনের ম্যানেজার জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমাদের কিছু করার নেই। তেলের দাম বাড়লে বাস ভাড়াও বাড়াতে হয়। আমরা তো আর ভর্তুকি দিয়ে বাস চালাতে পারি না।’

খবর নিয়ে জানা গেছে, শনিবার থেকেই কুমিল্লা-চাঁদপুর রুটে ৪০ টাকার ওপরে বাস ভাড়া বাড়তে পারে।

এদিকে তেলের দাম বাড়ায় প্রায় বন্ধ রয়েছে প্রিন্স সৌদিয়ার বাস চলাচল। প্রিন্স সৌদিয়ার ম্যানেজার টিপু সুলতান বলেন, ‘আগে আমরা কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রামের ভাড়া নিতাম ২৬০ টাকা। শনিবার সকাল থেকে ৩০০ টাকা করে নিচ্ছি। সকাল থেকে আমাদের ১০টি গাড়ি ছেড়ে গেছে। তবে চট্টগ্রামে আন্দোলনের ফলে চট্টগ্রাম থেকে বাস আসতে পারছে না।’

বাস সংকট ও ভাড়া বাড়ার ঘটনায় বিপাকে পড়েছেন অনেক যাত্রী। জাঙ্গালিয়া বাসস্ট্যান্ডে দেখা যায়, অনেকেই বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন।

বাসস্ট্যান্ডে অপেক্ষারত চট্টগ্রাম কলেজের স্নাতকের শিক্ষার্থী কাজী নাজিয়া আক্তার বলেন, ‘সকাল ১০টায় এসেছি বাসস্ট্যান্ডে। এখনও কোনো বাস পাচ্ছি না। আমার মতো আরও অনেকেই এই সমস্যায় পড়েছেন।’

কক্সবাজারে চাকরি করা আহমেদ উল্লাহ বলেন, ‘একদিকে ভাড়া বেড়েছে। অন্যদিকে বাস নেই। বড় ঝামেলায় আছি।’

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: জ্বালানি তেলের দাম বাড়ার খবরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় কয়েকটি পরিবহনের বাস ভাড়া বাড়ালেও বাসের সংখ্যা খুবই কম। শহরের পৈরতলা ও ভাদুঘর বাস টার্মিনাল ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

বাসের ভাড়া বেশি নেয়ার বিষয়ে তিশা বাসের কাউন্টার মাস্টার জানিয়েছেন, মালিকপক্ষের নির্দেশেই তারা বেশি ভাড়া নিচ্ছেন।

তিশা বাসের কাউন্টার ম্যানেজার জানান, ঢাকাগামী তিশা বাসের নরমাল সিটের ভাড়া ২৫০ টাকা, সেটি এখন বাড়িয়ে ৩০০ টাকা এবং এসি সিটের আগের ভাড়া ছিল ৩০০ টাকা, তা এখন ৩৫০ টাকা করা হয়েছে।

তবে পরিবহন মালিক সমিতির সিদ্ধান্ত না থাকায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে চট্টগ্রামগামী অনেক বাসের ভাড়া এখনও বাড়ানো হয়নি বলে জানিয়েছেন আন্তজেলা বাস মালিক সমিতির কার্যালয়ে দায়িত্ব থাকা মো. বাবুল মিয়া।

এদিকে সকাল ৬টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে চট্টগ্রামের বাস বন্ধ ছিল বলে জানান পরিবহন মালিকরা। এতে দুর্ভোগে পড়েন বেশ কিছু যাত্রী।

বাসে বাড়তি ভাড়া, জেলায় জেলায় ক্ষোভ-দুর্ভোগ
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় চট্টগ্রামগামী যাত্রীরা দুর্ভোগে পড়েন

নেত্রকোণা: তেলের দাম বাড়ায় নেত্রকোণার অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লার সব রুটেই বাস ভাড়া বেড়েছে। চলাচলরত বাসের সংখ্যাও অর্ধেকের নিচে নেমে এসেছে। এতে বাসের বিকল্প হিসেবে ট্রেন, সিএনজিসহ অন্যান্য গণপরিবহনের ওপর চাপ বেড়েছে।

নেত্রকোণা বাস মালিক সমিতির নেতারা জানিয়েছেন, সরকার এবং বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির পক্ষ থেকে কোনো সিদ্ধান্ত না আসায় তারা কোনো বাস ভাড়া বাড়ানোর ঘোষণা দেননি। তবে চালক ও শ্রমিকরা রুটভেদে ১০ থেকে ৫০ টাকা পর্যন্ত বেশি নিচ্ছেন।

সরেজমিন নেত্রকোণার আন্তজেলা বাসস্ট্যান্ড, রাজুরবাজার বাসস্ট্যান্ড ও বনোয়াপাড়া বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে বাস ভাড়া বেশি নেয়ার প্রমাণ মিলেছে। আন্তজেলা বাসস্ট্যান্ডে নেত্রকোণা-ময়মনসিংহ রুটের কাউন্টারে গিয়ে দেখা গেছে, টিকিট বিক্রেতা জুয়েল মিয়া পূর্বনিধারিত ৬৫ টাকার বদলে ৮০ টাকা করে টিকিটি বিক্রি করছেন। অন্যদিকে নেত্রকোণা-ঢাকা রুটের কাউন্টারে টিকিট বিক্রি হচ্ছে ৩০০ টাকার বদলে ৩৫০ টাকায়।

এ ছাড়া রাজুরবাজার বাসস্ট্যান্ডে নেত্রকোণা-মোহনগঞ্জ ও নেত্রকোণা-কলমাকান্দা রুটের এবং বনোয়াপাড়া বাসস্ট্যান্ডে নেত্রকোণা-মদন রুটের বাস ভাড়া ১০-১৫ টাকা করে বেশি নেয়া হচ্ছে।

বাস ভাড়া বাড়ানোর ফলে পরিবহন শ্রমিকদের সঙ্গে যাত্রীদের বচসা হতেও দেখা গেছে। আন্তজেলা বাসস্ট্যান্ডের শাহজালাল ও মহুয়া কাউন্টারে গিয়ে দেখা গেছে, অনেক যাত্রীই টিকিট বিক্রেতার সঙ্গে তর্ক-বিতর্ক করছেন।

মিলন কুমার দাস নামে পঞ্চগড় থেকে নেত্রকোণায় আসা এক যাত্রী অভিযোগ করেন, ‘গাজীপুর থেকে নেত্রকোণায় আসতে আমার কাছ থেকে ৩৮০ টাকা ভাড়া নিয়েছে। অর্থাৎ ৮০ টাকা বেশি নিয়েছে। এটা ডিজেলের দাম বাড়ানোর সঙ্গে অসামঞ্জস্যপূর্ণ।’

এদিকে বাস ভাড়া বাড়ানোর ফলে সিএনজি, ট্রেন, ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেলসহ অন্যান্য গণপরিবহনের ওপর চাপ বেড়েছে। অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে বাসের বদলে অনেকে সিএনজি বা মোটরসাইকেলে চলাচল করছেন। এ অবস্থায় সিএনজি ভাড়াও ২০ টাকা করে বেশি নেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

বাসে বাড়তি ভাড়া, জেলায় জেলায় ক্ষোভ-দুর্ভোগ
নেত্রকোণায় অর্ধেকের বেশি বাস রাস্তায় না নামায় বিকল্প পরিবহনে চাপ বেড়েছে

রংপুর: রংপুর থেকেও ঢাকা, চট্টগ্রামসহ দূরপাল্লার সব বাসের ভাড়া বেড়েছে। শনিবার সকাল থেকেই এসি বাসে ২০০ আর নন-এসি বাসে আপাতত ৪০ টাকা বাড়িয়েছেন তারা।

ভাড়া বাড়ানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সংশ্লিষ্ট বাস কাউন্টারের ম্যানেজাররা।

টার্মিনাল ঘুরে দেখা গেছে, বাসের ভাড়া বাড়ানোর ফলে যাত্রীরা ক্ষুব্ধ।

ঢাকাগামী যাত্রী সীমা বলেন, ‘আমি আগামীকাল ঢাকা যাব। এ জন্য এসআর ট্র্যাভেলসে এসির টিকিট নিলাম। ভাড়া নিল ১ হাজার ৫০০ টাকা। কাউন্টার থেকে বলছে তেলের দাম বাড়ানোর কারণে ভাড়া বেশি নিচ্ছে।’

যাত্রী ফরহাদ হোসেন সুমন বলেন, ‘আমি বেশ কয়েকটি বাসের কাউন্টারে গেছি। সবাই ভাড়া বাড়িয়েছে। ফতেহ আলী পরিবহনে ৪০ টাকা বেশিতে টিকিট নিলাম।’

আজিজুল ইসলাম নামে এক যাত্রী অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেন, ‘কার কাছে অভিযোগ বা কার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করব? করার কিছু নাই। যা আদেশ হবে তাই মানতে হবে। তবে এভাবে জনগণকে চিপায় ফেলে জিনিসের দাম বাড়ানো উচিত নয়।’

বাসে বাড়তি ভাড়া, জেলায় জেলায় ক্ষোভ-দুর্ভোগ
ভাড়া নিয়ে ক্ষুব্ধ ছিলেন রংপুর থেকে ঢাকাগামী যাত্রীরা

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার অভ্যন্তরীণ রুটের পরিবহন মালিকরা বলছেন, বাসের ভাড়াও বাড়ানো হবে। যদিও ভাড়া বাড়ালে তারা যাত্রী সংকটে পড়বেন বলেও আশঙ্কা করছেন।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ শহরের বিশ্বরোড মোড়ে রহনপুর ও নাচোল রুটে চলাচল করা বাসের স্ট্যান্ডে দেখা যায়, পরিবহন শ্রমিকরা যাত্রীদের ডাকছেন টিকিট কেনার জন্য।

২৪ বছর থেকে গাড়ি চালাচ্ছেন মোহাম্মদ রাজু নামে এক চালক। তিনি জানান, ‘যে গাড়িটার তেল লাগত ১ হাজার ৭৫০ টাকার, সেটির এখন লাগবে ২ হাজার ৫১০ টাকার তেল। ছোট গাড়িগুলোর জন্য আমরা তো এমনিতেই যাত্রী পাই না। ভাড়া বাড়ালে তো আরও যাত্রী পাব না।’

এ অবস্থায় জেলার অভ্যন্তরীণ রুটে বাস চলাচল বন্ধ হয়ে যাওয়ারও আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

এদিকে তেলের দাম বাড়লেও চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে রাজশাহী ও অন্যান্য জেলাগামী বাসগুলোতে আগের ভাড়া রাখতে দেখা গেছে। তবে কিছুটা শিডিউল বিপর্যয় ছিল। পরিবহনসংশ্লিষ্টরা বলছেন, রোববার থেকে বাসের ভাড়া না বাড়ানো হলে তারা আর বাস চালাতে পারবেন না।

বাসে বাড়তি ভাড়া, জেলায় জেলায় ক্ষোভ-দুর্ভোগ
চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতেও বাস ভাড়া বাড়ালে যাত্রী সংকটের আশঙ্কা করছেন পরিবহন মালিকরা

সাভার: ঢাকার সাভারে বিভিন্ন রুটের গণপরিবহনগুলোতে অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা। ভাড়া নিয়ে বাসের স্টাফদের সঙ্গে তর্ক-বিতর্কও করছেন তারা। অন্যদিকে সিন্ডিকেট করে সড়কে বাসের সংখ্যাও কমিয়ে দেয়া হয়েছে বলে যাত্রীদের অভিযোগ।

শনিবার সকাল থেকে সাভারের বিভিন্ন রুটে চলাচলরত যাত্রীরা কোথাও দ্বিগুণ আবার কোথাও তিন গুণ বেশি ভাড়া আদায়ের কথাও জানিয়েছেন।

ধামরাইয়ের বাসিন্দা সাভারের গণবিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী লাকী আক্তার বলেন, ‘আমি গণবিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি। ধামরাইয়ের জয়পুরা থেকে সাভারের বাইশমাইল বিশ্ববিদ্যালয়ে গণপরিবহনেই যাতায়াত করি। গতকাল জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির ঘোষণার পর আজ বাসে ভাড়া দিতে গিয়ে বাসের লোকদের সঙ্গে আমার ঝগড়া হয়েছে। ১০ টাকার ভাড়া যাত্রীসেবা নামের বাসের কন্ডাক্টর ৩০ টাকা চাচ্ছে। পরে অনেক তর্ক-বিতর্কের পর ২০ টাকা দিয়েছি। এভাবে তিন গুণ বেশি ভাড়া হলে আমরা সাধারণ শিক্ষার্থীরা কীভাবে চলাচল করব?’

এই রুটের তাসনুভা তাবাসসুম নামে আরেক যাত্রী বলেন, ‘সাভারের রেডিও কলোনি থেকে ধামরাই গিয়েছি সকালে ডি লিংক পরিবহনের বাসে। ১০ টাকার ভাড়া ২০ টাকা চাইছে। অনেক চিল্লাপাল্লা করে ১৫ টাকা দিয়েছি। তা ছাড়া অন্য দিনের তুলনায় আজ রাস্তায় বাস অনেক কম। ফলে বাসের জন্য অনেক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়েছে।’

আশুলিয়ার নবীনগর-চন্দ্রা মহাসড়কের বাইপাইল এলাকাতেও বেশি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা।

এসব অভিযোগ নিয়ে সাভার পরিবহনের বাসচালক নাদিম বলেন, ‘তেলের দাম বাড়লে আমরা কী করুম? আমরা ১০-২০ টাকা বেশি ভাড়ার কথা বলে যাত্রী তুলছি।’

আশুলিয়া এক্সপ্রেস পরিবহনের পরিচালক জি এম মিন্টু বলেন, ‘এখনও ভাড়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত আমরা পাইনি। রাতে মালিক সমিতির বৈঠক আছে। সেখানে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে। কিছু ড্রাইভার নিজেদের মতো করে গাড়ি রোডে নামিয়ে চালাচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
ভাড়া সমন্বয়ে বৈঠকে বসতে চান লঞ্চমালিকরাও
রেলের দেড় হাজার লিটার তেলসহ আটক ৩
জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি সরকারের নির্দয় সিদ্ধান্ত: জি এম কাদের
জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভ
তেলের দাম বাড়ানোর ব্যাখ্যা জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
4 women died in Srimangal mountain collapse

চা বাগানে পাহাড় ধসে ৪ নারীর মৃত্যু

চা বাগানে পাহাড় ধসে ৪ নারীর মৃত্যু শ্রীমঙ্গলের লাখাইছাড়া চা বাগানে পাহাড় ধসে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা
বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের সহসভাপতি পংকজ কন্দ জানান, ওই চার নারীর মধ্যে একজন লাখাইছড়া চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সাধারণ সম্পাদক অরুন মালীর স্ত্রী রাধামনি মালী।

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পাহাড় ধসে একই পরিবারের তিনজনসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার কালীঘাট ইউনিয়নের লাখাইছাড়া চা বাগানে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

শ্রীমঙ্গল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি-তদন্ত) হুমায়ুন কবির নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পাহাড় ধসে প্রাণ হারানো চার নারী হলেন লাখাইছাড়ার ৩৪ বছর বয়সী হীরা রানী ভৌমিক, ২০ বছরের রীনা ভৌমিক, ২৩ বছরের পূর্ণিমা ভূমিজ ও ৩৪ বছর বয়সী রাধামনি মালী।

বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের সহসভাপতি পংকজ কন্দ জানান, ওই চার নারীর মধ্যে একজন লাখাইছড়া চা বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সাধারণ সম্পাদক অরুন মালীর স্ত্রী রাধামনি মালী।

আরও আসছে…

আরও পড়ুন:
চা শ্রমিকদের আন্দোলনে শাবি শিক্ষার্থীদের একাত্মতা
‘দুটি পাতা একটি কুঁড়ি, শুনতে কি পাও আহাজারি’
গুলশানে মধ্যরাতে ১৪ তলা থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু
পল্টনে প্রিন্টিং প্লেটের বান্ডেল পড়ে যুবকের মৃত্যু
১৮ তলা থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
2 kg gold was being smuggled in the body

শরীরে লুকিয়ে পাচার হচ্ছিল ২ কেজি স্বর্ণ

শরীরে লুকিয়ে পাচার হচ্ছিল ২ কেজি স্বর্ণ বিজিবির হাতে আটক মোনতাজ হোসেন
‘অভিযানে স্বর্ণ চোরাকারবারি সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়। এ সময় তার শরীরে কৌশলে লুকিয়ে রাখা ১৭ পিস স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। মোট ১ কেজি ৯৮৫ গ্রাম ওজনের এ সোনার বাজারমূল্য প্রায় দুই কোটি টাকা।’

যশোরের সীমান্ত এলাকা থেকে পাচারের সময় ১৭টি স্বর্ণের বারসহ একজনকে আটক করা হয়েছে। শার্শার রুদ্র সীমান্ত থেকে শুক্রবার বেলা ১১টার দিকে তাকে আটক করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

২১- বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল তানভীর রহমান পিএসসি বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, উদ্ধার হওয়া স্বর্ণের বারের ওজন এক কেজি ৯৮৫ গ্রাম। বাজারমূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা।

আটক ৪৫ বছরের মোনতাজ হোসেন বেনাপোল পোর্ট থানার পুটখালী গ্রামের বাসিন্দা।

বিজিবি অধিনায়ক বলেন, ‘সকালে শার্শার রুদ্রপুর সীমান্ত দিয়ে স্বর্ণের একটি বড় চালান পাচার হয়ে ভারতে যাচ্ছে বলে জানতে পারে বিজিবি। এ তথ্যের ভিত্তিতে রুদ্রপুর ক্যাম্পের একটি দল ওই এলাকার পাকা রাস্তার ওপর অভিযান চালায়।

‘অভিযানে স্বর্ণ চোরাকারবারি সন্দেহে একজনকে আটক করা হয়। এ সময় তার শরীরে কৌশলে লুকিয়ে রাখা ১৭ পিস স্বর্ণের বার পাওয়া যায়। মোট ১ কেজি ৯৮৫ গ্রাম ওজনের এ সোনার বাজারমূল্য প্রায় ২ কোটি টাকা।’

সোনাসহ আটক মোনতাজকে শার্শা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে বলেও জানান বিজিবি কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
বিমানের ভেতর ৯০টি স্বর্ণের বার
৩০ স্বর্ণের বারসহ যাত্রী এবং বিমানকর্মী আটক
দুবাই ফেরত যাত্রীর কাছে মিলল ৩৮ সোনার বার
শাহ আমানতে বিমানে ৮০ সোনার বার
বিমান থেকে ২৮টি স্বর্ণের বার উদ্ধার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Foreign Minister says truth from heaven Rizvi

‘বেহেশত’ থেকে সত্যটাই বলছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী: রিজভী

‘বেহেশত’ থেকে সত্যটাই বলছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী: রিজভী বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ফাইল ছবি
রিজভী বলেন, ‘এই অবৈধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী অনেক সময় তার অজান্তেই অনেক সত্য কথা বলে বসেন। এই সরকার সম্পর্কে বিএনপি এবং দেশের গণতন্ত্রকামী মানুষের যে ধারণা, সেটাই এই সরকারের মন্ত্রীরা প্রমাণ করছেন। বেহেশতে থেকে তো আর মিথ্যা কথা বলা যায় না। তাই সত্যটাই বলে দিচ্ছেন অবৈধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।’

দেশে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারকে টিকিয়ে রাখতে ভারতকে অনুরোধ করা নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন যে বক্তব্য দিয়েছেন, তাকে সত্য মনে করছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ৪২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে ফুল দিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ অবস্থান ব্যক্ত করেন তিনি।

চট্টগ্রাম নগরীর জে এম সেন হলে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় জন্মাষ্টমী উৎসবের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেন বলেন, ‘আমি ভারতে গিয়ে বলেছি, শেখ হাসিনাকে টিকিয়ে রাখতে হবে। শেখ হাসিনা আমাদের আদর্শ। তাকে টিকিয়ে রাখতে পারলে আমাদের দেশ উন্নয়নের দিকে যাবে এবং সত্যিকারের সাম্প্রদায়িকতামুক্ত, অসাম্প্রদায়িক একটা দেশ হবে।

‘শেখ হাসিনার সরকার টিকিয়ে রাখার জন্য যা যা করা দরকার, আমি ভারতবর্ষের সরকারকে সেটা করতে অনুরোধ করেছি।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ওই বক্তব্য নিয়ে জানতে চাইলে রিজভী সাংবাদিকদের বলেন, ‘এ কথাটা (পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য) কিন্তু আজকে দেশের প্রত্যেকটি গণমাধ্যমে এসেছে। তার মানে কী? জনগণের সমর্থন নেই। শেখ হাসিনার পায়ের নিচে মাটি নেই—এই কথাটাই তো সত্য প্রমাণিত হয়েছে।

‘এই অবৈধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী অনেক সময় তার অজান্তেই অনেক সত্য কথা বলে বসেন। এই সরকার সম্পর্কে বিএনপি এবং দেশের গণতন্ত্রকামী মানুষের যে ধারণা, সেটাই এই সরকারের মন্ত্রীরা প্রমাণ করছেন। বেহেশতে থেকে তো আর মিথ্যা কথা বলা যায় না। তাই সত্যটাই বলে দিচ্ছেন অবৈধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী।’

আরও পড়ুন:
পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য জনগণের সঙ্গে তামাশা: ফখরুল
আওয়ামী লীগ বেহেশতে, জনগণ নরকে: রিজভী
বাংলাদেশের মানুষ বেহেশতে আছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
সুইস রাষ্ট্রদূত মিথ্যা বলেছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী
ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক রক্তের, প্রভাব পড়বে না: তথ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Disabled girl arrested in rape case

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় গ্রেপ্তার

প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণের মামলায় গ্রেপ্তার
হোসেনপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আসাদুজ্জামান টিটু বলেন, ‘২৭ বছর বয়সী ওই বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী তরুণীকে একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে বিষয়টি মাকে ওই তরুণী ইশারায় সব বুঝিয়ে বলেন। এ ঘটনায় তার মা রাতেই মামলা করলে হারেঞ্জা এলাকা তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।’

কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী তরুণীকে ধর্ষণ মামলায় এক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

উপজেলার হারেঞ্জা এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার রাতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার ৩৯ বছর বয়সী এই ব্যক্তির নাম লুৎফর রহমান রুক্তন। তিনি উপজেলার হারেঞ্জা গ্রামের বাসিন্দা। চার সন্তানের জনক তিনি।

এর আগে বিকেলে ওই তরুণীকে ধর্ষণ করেন লুৎফর। পরে রাতেই ওই তরুণীর মা হোসেনপুর থানায় লুৎফরকে একমাত্র আসামি করে মামলা করেন।

হোসেনপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আসাদুজ্জামান টিটু নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘২৭ বছর বয়সী ওই বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী তরুণীকে একটি ঘরে নিয়ে ধর্ষণ করেন। পরে বিষয়টি মাকে ওই তরুণী ইশারায় সব বুঝিয়ে বলেন। এ ঘটনায় তার মা রাতেই মামলা করলে হারেঞ্জা এলাকা তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।’

ওই তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য শুক্রবার কিশোরগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আসামিকে আদালতে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
ধর্ষণ মামলায় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র গ্রেপ্তার
ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন
ধর্ষণ মামলায় ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার
বাসে ডাকাতি-সংঘবদ্ধ ধর্ষণ: আরও ২ আসামির স্বীকারোক্তি
ধর্ষণের পর শিশু হত্যার অভিযোগ, আসামি গ্রেপ্তার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
275 million people in the world will need humanitarian assistance

বিশ্বে সাড়ে ২৭ কোটি মানুষের মানবিক সহায়তা লাগবে

বিশ্বে সাড়ে ২৭ কোটি মানুষের মানবিক সহায়তা লাগবে সহিংসতা ও সংঘাতের কারণে চলতি বছর আফগানিস্তানের কান্দাহারে এই তিনবোনসহ তাদের পরিবার বাস্তুচ্যুত হয়। ছবি: ওসিএইচএ
২০২১ সালে বিশ্বে সাড়ে ২৩ কোটি মানুষের এমন সুরক্ষার প্রয়োজন ছিল। চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণেই মূলত এই বছর আরও সাড়ে চার কোটি মানুষের এমন সহায়তা নিতে হতে পারে বলে সংস্থাটি জানিয়েছে। এই তালিকায় বাংলাদেশের নাম নেই।

চলতি বছর বিশ্বজুড়ে প্রায় ২৭ কোটি ৪০ লাখ মানুষের মানবিক সহায়তা এবং সুরক্ষার প্রয়োজন হবে। বিশ্ব মানবতা দিবসের এক দিন আগে বৃহস্পতিবার জাতিসংঘ এ তথ্য দিয়েছে।

গ্লোবাল হিউম্যানিটেরিয়ান ওভারভিউ-২০২২ শিরোনামের একটি প্রতিবেদনে বিশ্বসংস্থাটির মানবিকবিষয়ক সমন্বয় কার্যালয় (ওসিএইচএ) বলেছে, ‘২০২২ সালে ২৭ কোটি ৪০ লাখ মানুষের মানবিক সহায়তা এবং সুরক্ষা প্রয়োজন হতে পারে।’

ওসিএইচএ জানিয়েছে, ডেমোক্রেটিক রিপাবলিক কঙ্গোর (ডিআরসি) সবচেয়ে বেশি ২ কোটি ৭০ লাখ বাসিন্দার এমন সহায়তা লাগবে। কঙ্গো থেকে ১০ লাখ কম এমন সহায়তাপ্রত্যাশী নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে আফ্রিকার আরেকটি দেশ ইথিওপিয়া।

আফগানিস্তানে তালেবানের ক্ষমতা নেয়া এক বছর পর অর্থনৈতিক ও মানবিক সংকটে পড়ে যায় দেশটির বাসিন্দারা। এতে করে চলতি বছর প্রায় আড়াই কোটি মানুষের এমন জরুরি সহায়তা প্রয়োজন হতে পারে।

চতুর্থ অবস্থানে থাকা ইয়েমেনের দুই কোটির বেশি মানুষের সাহায্যের প্রয়োজন হতে পারে।

মিয়ানমারের প্রায় দেড় কোটি মানুষ মানবিক বিপর্যয়ে পড়ে যেতে পারে।

সুদান ও সিরিয়ার প্রায় তিন কোটি মানুষের এমন সহায়তা প্রয়োজন হতে পারে।

এই তালিকায় বাংলাদেশের নাম নেই। তবে মিয়ানমার সামরিক বাহিনীর হামলা, নিপীড়ন ও হত্যার শিকার হয়ে প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশের কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া প্রায় ১৪ লাখ রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী জরুরি মানবিক সহায়তার এ তালিকায় রয়েছে।

২০২১ সালে বিশ্বে সাড়ে ২৩ কোটি মানুষের এমন সুরক্ষার প্রয়োজন ছিল। চলমান রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের কারণেই মূলত এই বছর আরও সাড়ে চার কোটি মানুষের এমন সহায়তা নিতে হতে পারে বলে সংস্থাটি জানিয়েছে।

গত বছরের সংখ্যাটিই কয়েক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ ছিল।

জাতিসংঘের সংস্থাটি গত বছরের প্রতিবেদনেও উল্লেখ করেছে, সারা বিশ্বে প্রতি ৩৩ জনের মধ্যে একজনের মানবিক সহায়তার প্রয়োজন হয়েছে।

২০১৯ সালে বিশ্বব্যাপী মানবিক সহায়তার প্রয়োজন এমন মানুষের সংখ্যা ছিল ১৩ কোটি ২০ লাখ। কেবল তিন বছরের ব্যবধানে এই বছর প্রায় সাড়ে ২৭ কোটি হয়ে যেতে পারে বলে শঙ্কা জানিয়েছে সংস্থাটি।

২০০৩ সালের ১৯ আগস্ট ইরাকের রাজধানী বাগদাদে দেশটিতে জাতিসংঘের কার্যালয়ে চালানো বোমা হামলায় ২২ আন্তর্জাতিক সহায়তা কর্মী নিহতের পঞ্চম বছরে ২০০৮ সালে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ নিন্দা প্রস্তাব গৃহীত হয়। এর পর প্রতি বছর ওই সহায়তা কর্মীদের আত্মদানের স্মরণে ওই দিনটিতে বিশ্ব মানবতা দিবস পালিত হয়ে আসছে।

ওসিএইচএর আরেকটি প্রতিবেদনে গেল বছর হামলার শিকার হওয়া জরুরি সহায়তা ও ত্রাণকর্মীর সংখ্যা প্রকাশ করেছে। এতে বলা হয়েছে ২০২১ সালে কমপক্ষে ৪৬০ জনেরও বেশি মানবিক সহায়তা কর্মী হামলার শিকার হন। এদের মধ্যে ১৪০ জন নিহত হন।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The body of the old woman was recovered from the pond

পুকুর থেকে বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার

পুকুর থেকে বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার পুকুর থেকে এক বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। ছবি: নিউজবাংলা
সদর থানার ওসি বলেন, ‘মরদেহের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। সে কারণে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে না। তবে ওই বৃদ্ধা কোথা থেকে কীভাবে এখানে এলো তার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। তার পরিচয় শনাক্তকরণে কাজ করা হচ্ছে।’

নাটোরে পুকুর থেকে এক বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস।

শহরের পৌর এলাকার মীরপাড়া দারুস সালাম জামে মসজিদের পেছনের পুকুর থেকে শুক্রবার সকাল ৭টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

ওই বৃদ্ধার আনুমানিক বয়স ৬০ বছর। এখন পর্যন্ত তার পরিচয় নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাছিম আহম্মেদ নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে পুকুরের পানিতে কেউ পড়ে গেছে এমন সংবাদ পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে যান। কিন্তু সেখানে কাউকে দেখতে না পেয়ে ফিরে যান তারা। শুক্রবার সকালে এলাকাবাসী পুকুরে একটি মরদেহ ভাসতে দেখে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসে খবর দেয়।

ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করে। পরে পুলিশ প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহটি সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

ওসি বলেন, ‘মরদেহের মাথায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। সে কারণে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন না পাওয়া পর্যন্ত মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে না। তবে ওই বৃদ্ধা কোথা থেকে কীভাবে এখানে এলো তার তদন্ত শুরু করা হয়েছে। তার পরিচয় শনাক্তকরণে কাজ করা হচ্ছে।’

আরও পড়ুন:
নিজ ঘরেই সিঁধ কেটে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ
মামুনের বিরুদ্ধে আত্মহত্যায় প্ররোচনা মামলা হচ্ছে!
খায়রুনের প্রথম স্বামী ছিলেন সহপাঠী, চালিয়েছেন অটোরিকশাও
খায়রুনকে লাথি মেরে সেই রাতে বাইরে যান স্বামী
শালবনে অজ্ঞাত ব্যক্তির অর্ধগলিত দেহ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A league leader died while opening the auto line

অটোরিকশার লাইন খুলতে গিয়ে আ.লীগ নেতার মৃত্যু

অটোরিকশার লাইন খুলতে গিয়ে আ.লীগ নেতার মৃত্যু আবুল কাশেম। ছবি: সংগৃহীত
ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, ‘আবুল কাশেম ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফিরে আসেন। পরে গ্যারেজে গিয়ে চার্জ দেয়া অটোরিকশার লাইন খুলতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।’

কুমিল্লায় চার্জে থাকা ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার লাইন খুলতে গিয়ে তারে জড়িয়ে এক ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু হয়েছে।

আদর্শ সদর উপজেলার বসন্তপুর গ্রামে শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

মৃত আবুল কাশেম উপজেলার ৫ নম্বর পাঁচথুবী ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও সাবেক ইউপি সদস্য ছিলেন।

পাঁচথুবী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. হাছান রফি রাজু নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

পরিবারের বরাতে তিনি বলেন, ‘আবুল কাশেম ফজরের নামাজ পড়ে বাড়ি ফিরে আসেন। পরে গ্যারেজে গিয়ে চার্জ দেয়া অটোরিকশার লাইন খুলতে গিয়ে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হন। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়।’

কোতোয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাদেকুর রহমান বলেন, ‘পরিবারের কোনো অভিযোগ না থাকায় ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহ দাফনের প্রস্তুতি চলছে।’

আরও পড়ুন:
বিদ্যুতের খুঁটিতে ঝুলছিল যুবকের দেহ
পিকনিকের লঞ্চ বিদ্যুতায়িত: নিখোঁজ কিশোরের মরদেহ উদ্ধার
পিকনিকের লঞ্চ বিদ্যুতায়িত, নিখোঁজ ১
বিদ্যুৎস্পৃষ্টে প্রাণ গেল গৃহবধূর 
মোটরের সুইচ দিতে গিয়ে প্রাণ গেল যুবকের

মন্তব্য

p
উপরে