× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Demand for cancelation of technical center of Bafuf in Coxs Bazar
hear-news
player
print-icon

কক্সবাজারে বনের জায়গায় বাফুফের টেকনিক্যাল সেন্টার বাতিলের দাবি

কক্সবাজারে-বনের-জায়গায়-বাফুফের-টেকনিক্যাল-সেন্টার-বাতিলের-দাবি
জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ১১টি সংগঠনের ব্যানারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা। ছবি: নিউজবাংলা
গ্রিন কক্সবাজার সংগঠনের সভাপতি ফজলুল কাদের চৌধুরী বলেন, ‘দেশের বনভূমি রক্ষায় রয়েছে সাংবিধানিক প্রতিশ্রুতি। রয়েছে আইন, নীতি, আদালতের নির্দেশ ও প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত। দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্দোবস্তযোগ্য পতিত জমি ও অকৃষি খাস জমি থাকা সত্ত্বেও কেন বারবার চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলার বনভূমিকে উন্নয়নের নামে বনবিরুদ্ধ ব্যবহারের জন্য বেছে নেয়া হচ্ছে, তা বোধগম্য নয়।’

বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন বা বাফুফের ‘টেকনিক্যাল সেন্টার’ নির্মাণের জন্য পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় থেকে ২০ একর বনভূমি বরাদ্দের সিদ্ধান্ত বাতিল এবং কক্সবাজারের সব বনভূমি রক্ষায় উদ্যোগ নেয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি- বেলা।

বুধবার জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ১১টি সংগঠনের ব্যানারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত নিবন্ধ পাঠ করেন গ্রিন কক্সবাজার সংগঠনের সভাপতি ফজলুল কাদের চৌধুরী।

তিনি বলেন, ‘দেশের বনভূমি রক্ষায় রয়েছে সাংবিধানিক প্রতিশ্রুতি। রয়েছে আইন, নীতি, আদালতের নির্দেশ ও প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত। দেশের বিভিন্ন জেলায় বন্দোবস্তযোগ্য পতিত জমি ও অকৃষি খাস জমি থাকা সত্ত্বেও কেন বারবার চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলার বনভূমিকে উন্নয়নের নামে বনবিরুদ্ধ ব্যবহারের জন্য বেছে নেয়া হচ্ছে, তা বোধগম্য নয়।’

এ সিদ্ধান্ত থেকে সরকারকে সরে আসার আহ্বান জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে সমাজকর্মী খুশী কবির বলেন, ‘কক্সবাজারের বনভূমির সঙ্গে শুধু গাছপালা নয়, অন্য বন্যপ্রাণী, বায়ুদূষণ, পরিবেশদূষণের মত বিষয়গুলো জড়িত। আমরাও ফুটবলের উন্নয়ন চাই। অবশ্যই সেটা দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ বিনষ্ট করে নয়।’

ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশের (টিআইবি) নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘বন ও পরিবেশ রক্ষা সরকারের একটি পবিত্র দায়িত্ব। যেনতেন ভাবে যখন বন বরাদ্দ করা হয়, সেটি তো সংবিধানেরও লংঘন৷ এমন তো না যে, কক্সবাজার ছাড়া আর কোনো জায়গায় সরকারি জমি নেই।’

বাফুফে ‘ফেয়ার প্লে’ নীতি লংঘন করছে উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘ফুটবলের যে মৌলিক নীতি, ফেয়ার প্লে সেটিও তো বাফুফে লংঘন করছে। বাফুফে ফিফার দোহাই দিচ্ছে। ফিফা তো পরিবেশ ধ্বংস করে সেন্টার নির্মাণের নির্দেশ দেয়নি। বলতে চাই, বাফুফের সেন্টার নির্মাণের অনুমোদনের পর ফিফার অর্থায়ন বন্ধের মত বিব্রতকর পরিস্থিতির কথা তারা মাথায় রাখবে। আমরা সেটি মনে রাখার কথা বলব।’

বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দ রিজওয়ানা হাসান বলেন, ‘কক্সবাজারের বনটা হলো একটা প্রাকৃতিক বন। আপনি সেটি ধ্বংস করলে আর তৈরি করতে পারবেন না। তাহলে ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য আপনি কি রেখে যাচ্ছেন? ইতোমধ্যেই দেখা গেছে, অন্যান্য জেলার তুলনায় ঢাকার তাপমাত্রা এর আশেপাশের জেলাগুলোর তুলনায় ২ ডিগ্রি বৃদ্ধি পেয়েছে। শুধুমাত্র সবুজ না থাকার কারণে। আমরা এমনিতেও ২৫ শতাংশ বনভূমির যে মৌলিক শর্ত তার ধারেকাছেও নেই।’

স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, ‘বনকে টিকিয়ে রাখাই বড় উন্নয়ন। পৃথিবীতে দ্বিতীয় কোনো রাজধানী নেই, যেখানে পাঁচটি নদী আছে। ঢাকায় আছে৷ এই ঢাকায় প্রধানমন্ত্রী, রাষ্ট্রপতি থাকেন৷ তবুও এই নদীগুলোকে আমরা পরিশোধন করতে পারছি না। আমরা দুর্ভাগা যে আমরা বনভূমি তথা এ দেশের প্রাকৃতিক সম্পদ রক্ষা করতে পারিনি। কক্সবাজারের বায়ুদূষণ অন্যান্য সব জায়গার চেয়ে বর্তমানে বেশি।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বাপা সাধারণ সম্পাদক শরীফ জামিল, আসকের প্রধান নির্বাহী গোলাম মনোয়ার কামাল, ব্লাস্টের আইন উপদেষ্টা এসএম রেজাউল করিম, ইয়েস এর প্রধান নির্বাহী ইব্রাহীম খলিল মামুন, কক্সবাজার নাগরিক আন্দোলন এর সভাপতি নজরুল ইসলাম ও সেইভ দ্যা কক্সবাজারের সভাপতি আনছার হোসেনসহ আরও অনেকে।

আরও পড়ুন:
বাফুফের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় ফিক্সিংয়ে অভিযুক্ত ৫ ক্লাব
ব্রাজিল যাচ্ছে ১১ কিশোর ফুটবলার
গোল মিসের মহড়ায় জয় বঞ্চিত বাংলাদেশ
বাফুফের বেভারেজ স্পনসর ‘পুষ্টি’
এশিয়ান বাছাইয়ে বাংলাদেশের গ্রুপে বাহরাইন, তুর্কমেনিস্তান ও মালয়েশিয়া

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Elon joked about buying Manchester United

ম্যান ইউ কেনা নিয়ে মজা করেছিলেন মাস্ক

ম্যান ইউ কেনা নিয়ে মজা করেছিলেন মাস্ক বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক। ফাইল ছবি
টুইটারে একজন ব্যবহারকারী ইলন মাস্কের কাছে জানতে চান, ম্যানইউ কেনার ব্যাপারে তিনি সত্যিই আগ্রহী কি না। জবাবে স্পেসএক্স ও টেসলার সিইও লেখেন, ‘না, টুইটারে অনেকটা সময় ধরে চলতে থাকা একটি কৌতুক এটি। আমি কোনো ক্রীড়া দল কিনছি না।’

কিছু সময়ের জন্য ফুটবল বিশ্বকে ভাবিয়ে তুলেছিলেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক। ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কেনা নিয়ে টুইট করে বেশ আলোড়ন তুলেছিলেন তিনি, তবে কয়েক ঘণ্টার ব্যবধানে এ ধনকুবের জানিয়েছেন, ম্যানইউ কেনা নিয়ে যে টুইটটি তিনি করেছেন, তা আসলে রসিকতা।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে নিজের ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্টে করা টুইটে বুধবার মাস্ক লেখেন, ‘ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনছি। আপনাদের স্বাগতম।’

টুইটারে একজন ব্যবহারকারী মাস্কের কাছে জানতে চান, ম্যানইউ কেনার ব্যাপারে তিনি সত্যিই আগ্রহী কি না।

জবাবে স্পেসএক্স ও টেসলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) লেখেন, ‘না, টুইটারে অনেকটা সময় ধরে চলতে থাকা একটি কৌতুক এটি। আমি কোনো ক্রীড়া দল কিনছি না।’

যুক্তরাজ্যের গ্লেজার পরিবারের মালিকানাধীন ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। গত বছর দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য ডেইলি মিররের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, প্রায় ৫ বিলিয়ন (৫০০ কোটি) ডলারে ক্লাবটি বিক্রি করতে প্রস্তুত গ্লেজাররা।

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড রেকর্ড ২০ বার ইংল্যান্ডের লিগগুলোতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। তিনবার সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ক্লাব প্রতিযোগিতা ইউরোপিয়ান কাপ জিতেছে ক্লাবটি।

গেল মৌসুমে একের পর এক ব্যর্থতা দেখেছে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্লাবটি। চলতি মৌসুমের শুরুতে দুই ম্যাচ হেরে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে ম্যানইউ।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে গত মৌসুমে ষষ্ঠ স্থানে ছিল ক্লাবটি। ওই অবস্থানে মৌসুম শেষ করায় এবার তারা এই লিগে অংশ নিতে পারছে না। এ কারণে মালিকপক্ষ ও ভক্তদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে।

ক্লাবটির অন্যতম সেরা তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো প্রিমিয়ার লিগ খেলতে নতুন ক্লাব খুঁজছিলেন, তবে শেষমেশ কোনো ক্লাব না পেয়ে রোনালডো চলতি মৌসুমে ম্যানইউতেই থেকে যান।

আরও পড়ুন:
শিরোপা খরা কাটল ইংল্যান্ডের
টুইটারের বিরুদ্ধে ইলন মাস্কের মামলা
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয় দিয়ে শুরু বাংলাদেশ যুব দলের
ইলন মাস্কের প্রতিরূপ তৈরিতে শুক্রাণু দিচ্ছেন বাবা
ফিফার কাছে ৫ কোটি ইউরো দাবি শাখতারের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
This time Manchester United is buying Elon Musk

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনছি: ইলন মাস্ক

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনছি: ইলন মাস্ক ইলন মাস্ক ও ফুটবল ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ছবি কোলাজ: নিউজবাংলা
নিজ ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্টে করা টুইটে মাস্ক লেখেন, ‘ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনছি। আপনাদের স্বাগতম।’ এ টুইট নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি ক্লাবের মালিক গ্লেজার পরিবার।

গেল মৌসুমে একের পর এক ব্যর্থতা দেখেছে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। চলতি মৌসুমের শুরুতে দুই ম্যাচ হেরে পয়েন্ট টেবিলের তলানিতে ম্যানইউ। এমন দুর্দশায় পড়া ক্লাবটিকে কেনার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন বিশ্বের শীর্ষ ধনী ইলন মাস্ক।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম টুইটারে বুধবার এমন ইচ্ছার কথা জানান স্পেসএক্স ও টেসলার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও)।

নিজ ভেরিফায়েড অ্যাকাউন্টে করা টুইটে মাস্ক লেখেন, ‘ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিনছি। আপনাদের স্বাগতম।’

এর আগে টুইটার কেনার উদ্যোগ নিয়েছিলেন ইলন মাস্ক। ৪৪ বিলিয়ন ডলারের চুক্তি বাতিলের পর এবার ক্রিস্টিয়ানো রোনালডোর দল ম্যানইউতে নজর দিয়েছেন এ ধনকুবের।

যুক্তরাজ্যের গ্লেজার পরিবারের মালিকানাধীন ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। গত বছর দেশটির সংবাদমাধ্যম দ্য ডেইলি মিররের প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, প্রায় ৫ বিলিয়ন (৫০০ কোটি) ডলারে ক্লাবটি বিক্রি করতে প্রস্তুত গ্লেজাররা।

ইলন মাস্কের টুইটের পর গ্লেজার পরিবারের পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কিছু বলা হয়নি।

বর্তমানে প্রায় ২৬ হাজার ৯০০ কোটি ডলারের মালিক মাস্ক।

বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড রেকর্ড ২০ বার ইংল্যান্ডের লিগগুলোতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। তিনবার সবচেয়ে মর্যাদাপূর্ণ ক্লাব প্রতিযোগিতা ইউরোপিয়ান কাপ জিতেছে ক্লাবটি।

গেল মৌসুমে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে ক্লাবটি ষষ্ঠ স্থানে ছিল। ওই অবস্থানে মৌসুম শেষ করায় এবার তারা এই লিগে অংশ নিতে পারছে না। এ কারণে মালিকপক্ষ ও ভক্তদের মধ্যে অসন্তোষ সৃষ্টি হয়েছে।

ক্লাবটির অন্যতম সেরা তারকা ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো প্রিমিয়ার লিগ খেলতে নতুন ক্লাব খুঁজছিলেন, তবে শেষমেশ কোনো ক্লাব না পেয়ে রোনালডো চলতি মৌসুমে ম্যানইউতেই থেকে যান।

আরও পড়ুন:
এক দিন এগোল ফুটবল বিশ্বকাপ
সুপার লিগ শুরু হচ্ছে আফ্রিকায়
২০৩০ সালের বিশ্বকাপ আয়োজনে চার দেশের বিড

মন্তব্য

বাংলাদেশ
I also depended on Messi

‘আমি হলেও মেসির ওপর নির্ভর করতাম’

‘আমি হলেও মেসির ওপর নির্ভর করতাম’ আর্জেন্টিনার জার্সিতে গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা। ছবি: টুইটার
বাতিস্তুতা জানেন, মেসিকে কেমন চাপ নিতে হয়। তবে মেসি সেটা সামলে নিতে যথেষ্ট অভিজ্ঞ বলে মনে করেন তিনি।

নব্বইয়ের দশকে ডিয়েগো ম্যারাডোনা পরবর্তী যুগে আর্জেন্টিনার সবচেয়ে বড় তারকা ছিলেন গ্যাব্রিয়েল বাতিস্তুতা। নিজের প্রজন্মের অন্যতম সেরা এ স্ট্রাইকার জাতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপে সর্বোচ্চ গোল করার রেকর্ড গড়েন।

১৯৯৪, ১৯৯৮ ও ২০০২ বিশ্বকাপের আসরে খেলেন বাতিগোলখ্যাত এ তারকা। একসময় আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বোচ্চ আন্তর্জাতিক গোলের রেকর্ডও তার ছিল। পরে লিওনেল মেসি তার এ রেকর্ড ভাঙেন।

বাতিস্তুতা মনে করেন, মেসির নেতৃত্বে আর্জেন্টিনা এখন অনেকটাই নির্ভার। বিশ্বকাপে আলবিসেলেস্তেদের ভালো করার বিষয়ে আশাবাদী তিনি। আর্জেন্টিনার দৈনিক লা নাসিওনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে বিশ্বকাপে ১০ গোল করা এ স্ট্রাইকার বলেন, বর্তমান স্কোয়াডের প্রতিটি খেলোয়াড়ের আলাদা দক্ষতা আছে।

বাতিস্তুতা বলেন, ‘দলের বর্তমান সব খেলোয়াড়েরই আলাদা ব্যক্তিত্ব আছে। অনেক দিন ধরে তারা কষ্ট করছে। এখন পরিস্থিতি পাল্টেছে। মেসি নিজেও এদের সঙ্গে খেলাটা উপভোগ করছে। তারা সবাই মেসির ওপর নির্ভর করে। আমি দলে থাকলে আমিও তাই করতাম।’

চারটি বিশ্বকাপ খেলেছেন মেসি। ২০১৪ সালে দলকে ফাইনালে নিয়ে গিয়েছিলেন আর্জেন্টিনার তালিসমান। এবারও তার ওপর ভরসা আর্জেন্টিনার। বাতিস্তুতা জানেন, মেসিকে কেমন চাপ নিতে হয়। তবে মেসি সেটা সামলে নিতে যথেষ্ট অভিজ্ঞ বলে মনে করেন তিনি।

বাতিস্তুতা বলেন, ‘সবাই তার (মেসি) কাছ থেকেই সবকিছু প্রত্যাশা করে। মেসি সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলে এসেছে। সে জানে কীভাবে সামলাতে হবে। সবাই যদি একসঙ্গে খেলে তাহলে কতটা দারুণ হবে ভাবুন একবার।’

আরও পড়ুন:
ব্যালন ডরের সংক্ষিপ্ত তালিকায় নেই মেসি, নেইমার
মেসি উদাহরণ তৈরি করে: গলতিয়ে
আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল ম্যাচ হচ্ছে না

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Ten Hakh agreed to leave Ronaldo

রোনালডোকে ছাড়তে রাজি টেন হাখ

রোনালডোকে ছাড়তে রাজি টেন হাখ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের জার্সিতে ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো। ফাইল ছবি
ব্রিটিশ মিডিয়া জানাচ্ছে, টেন হাখ অবশেষে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রোনালডোকে ক্লাব ছাড়া করার। ব্রিটিশ ক্রীড়া রেডিও টক স্পোর্টস বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

মৌসুমের শুরু থেকে দল ছাড়তে চাচ্ছেন ক্রিস্টিয়ানো রোনালডো। গত বছর অনেক ঘটা করে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে ফেরার পর দল চ্যাম্পিয়ন্স লিগে কোয়ালিফাই করতে ব্যর্থ হওয়ায় জোর করেই দল বদল করতে চাচ্ছেন এ পর্তুগিজ তারকা।

কয়েক মাস ধরে ইউনাইটেড ও রোনালডোর মধ্যে এ নাটক চলছে। শুরুতে এরিক টেন হাখ রোনালডোকে ছাড়তে চাননি। রোনালডো এ মৌসুমে আক্রমণভাগে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবেন বলে বিশ্বাস এ ডাচ কোচের।

রোনালডো হাখের এ সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পারেননি। লিগের প্রথম দুই ম্যাচে বড় ব্যবধানে হেরেছে ইউনাইটেড। দুই ম্যাচে রোনালডো ছিলেন নিষ্প্রভ। গোল বা অ্যাসিস্ট পাননি উল্টো তাকে বদলি হিসেবে উঠিয়ে নেয়ার পর প্রতিক্রিয়াও দেখিয়েছেন ড্রেসিং রুমে।

সব মিলিয়ে ৩৭ বছর বয়সী এ তারকার এমন আচরণে ক্ষুব্ধ টেন হাখ। ব্রিটিশ মিডিয়া জানাচ্ছে, তিনি অবশেষে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন রোনালডোকে ক্লাব ছাড়া করার। ব্রিটিশ ক্রীড়া রেডিও টক স্পোর্টস বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

তবে রোনালডোকে ক্লাবছাড়া করাটা সহজ হবে না ইউনাইটেডের জন্য। একে তো তার বয়স বেশি। তার ওপর রয়েছে উচ্চ পারিশ্রমিক।

যে কারণে মৌসুমের শুরুতে একে একে রোনালডোর থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে পিএসজি, ইন্টার মিলান, মিলান ও আতলেতিকো মাদ্রিদের মতো ক্লাব। এমনকি নাপোলিও তাকে নিতে চায়নি।

রোনালডো ও তার এজেন্ট হোর্হে মেন্ডেসের হাতে সুযোগ কমে আসছে। পাঁচবারের ব্যালন ডরজয়ী তারকার মূল লক্ষ্য চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলা। সে ক্ষেত্রে তার পরবর্তী গন্তব্য হতে পারে সেল্টিকস, মার্শেই ও আরবি লাইপসিগের মতো ক্লাব। এ ছাড়া নিজ দেশ পর্তুগালের স্পোর্টিং লিসবনের কথাও ভেবে দেখতে পারেন রোনালডো।

আরও পড়ুন:
রোনালডোকে নামিয়েও হারল ইউনাইটেড
রোনালডোর প্রতি ক্ষুব্ধ ম্যানইউর কোচ টেন হাখ
সাড়ে ৫ কোটি ইউরোতে আয়াক্স থেকে ইউনাইটেডে মার্তিনেস

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Nunes red card is Liverpools second draw in a row

নুনিয়েসের লাল কার্ডে টানা দ্বিতীয় ড্র লিভারপুলের

নুনিয়েসের লাল কার্ডে টানা দ্বিতীয় ড্র লিভারপুলের ডারউইন নুনিয়েজকে লাল কার্ড দেখিয়ে মাঠ থেকে বের করে দিচ্ছেন রেফারি। ছবি: এএফপি
প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে মাথা দিয়ে গুঁতো দেয়ার কারণে লাল কার্ড পান নুনিয়েস। ১০ জন নিয়ে খেলে ম্যাচে জয় বঞ্চিত হয় লিভারপুল।

সাড়ে ৭ কোটি ইউরো খরচ করে ডারউইন নুনিয়েসকে দলে টানার পর তার কাছ থেকে পূর্বসূরি লুইস সুয়ারেসের মতোই গোলের বন্যার প্রত্যাশায় ছিল লিভারপুল। সুয়ারেসের মতো না হলেও গোওল করার দক্ষতার পরিচয় নিজের প্রথম ম্যাচে দিয়েছেন নুনিয়েস।

কমিউনিটি শিল্ডের ম্যাচে ম্যানচেস্টার সিটির বিপক্ষে ও লিগের প্রথম ম্যাচে ফুলহ্যামের বিপক্ষে গোল করে জানান দেন তার পেছনে টাকা ঢেলে ভুল করেনি লিভারপুল।

তবে নিজের আনুষ্ঠানিক তৃতীয় ম্যাচে এসে করে বসলেন অদ্ভূত এক কান্ড। প্রতিপক্ষের খেলোয়াড়কে মাথা দিয়ে গুঁতো দেয়ার কারণে লাল কার্ড পান এ উরুগুইয়ান। ১০ জন নিয়ে খেলে ম্যাচে জয় বঞ্চিত হয় লিভারপুল।

ফলে ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে টানা দ্বিতীয় ম্যাচ ড্র করেছে লিভারপুল। উদ্বোধনী ম্যাচে ফুলহ্যামের সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করার পর দ্বিতীয় ম্যাচে তাদেরকে ১-১ গোলে রুখে দিয়েছে ক্রিস্টাল প্যালেস।

লিভারপুলের মাঠে সোমবার রাতে স্বাগতিকদের চমকে দিয়ে সফরকারী প্যালেসকে লিড এনে দেন উইলফ্রেড জাহা। ৩২ মিনিটে তার করা গোলে প্রথমার্ধ শেষে এগিয়ে থাকে ক্রিস্টাল প্যালেস।

দ্বিতীয়ার্ধের ৫৭ মিনিটে ১০ জনের দলে পরিণত হয় লিভারপুল। প্যালেসের জোয়াকিম অ্যান্ডারসনকে ফাউল করে লাল কার্ড দেখেন নুনিয়েজ। ফলে, বাকি আধঘণ্টা এক জন কম নিয়েই খেলতে হয় ইংলিশ জায়ান্টদের।

৬১ মিনিটে আরেক নতুন রিক্রুট লুইস দিয়াসের গোলে ম্যাচে ফেরে লিভারপুল। শেষ পর্যন্ত ১-১ গোলেই শেষ হয় ম্যাচ।

ম্যাচশেষে বিষয়টি নিয়ে সন্তুষ্ট ছিলেন না লিভারপুল ম্যানেজার ইয়ুর্গেন ক্লপ। নুনিয়েসের মাঠ ছাড়ার হওয়ার পর সতীর্থদের জন্য বাড়তি চ্যালেঞ্জ ছিল প্যালেসের বিপক্ষে এমনটা বলেন লিভারপুল বস।

ক্লপ বলেন, ‘সে নিজেই জানে কী করেছে। অবশ্যই এটা লাল কার্ড ছিল। নুনিয়েসকে উত্যক্ত করা হচ্ছিল সেটা ঠিক। কিন্তু ওর এভাবে জবাব দেয়া ঠিক হয়নি।’

টানা দুই ম্যাচ ড্রয়ের ফলে ২ ম্যাচে ২ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের ১২তম অবস্থানে আছে লিভারপুল। সামনের মঙ্গলবার তারা খেলবে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে।

আরও পড়ুন:
হ্যারি কেইনের হেডে স্বপ্নভঙ্গ চেলসির
ড্র দিয়ে মৌসুম শুরু করল লিভারপুল
কমিউনিটি শিল্ড জিতে মৌসুম শুরু লিভারপুলের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Juventus joy of victory is dimmed by Di Marias injury

ইউভেন্তাসের জয়ের আনন্দ ম্লান দি মারিয়ার চোটে

ইউভেন্তাসের জয়ের আনন্দ ম্লান দি মারিয়ার চোটে চোট পেয়ে মাঠ ছাড়ছেন ইউভেন্তাসের ফরোয়ার্ড আনহেল দি মারিয়া। ছবি: এএফপি
ইউভেন্তাসের বড় জয়ের দিনে ধাক্কা হয়ে আসে দি মারিয়ার ইনজুরি। ৬১ মিনিটে অ্যাবডাক্টর পেশির চোটে পড়ে মাঠ ছাড়তে হয় এ আর্জেন্টাইন তারকাকে।

দলবদলের বাজারে আনহেল দি মারিয়ার মতো বড় তারকাকে দলে ভিড়িয়ে মৌসুম শুরুর আগে সেরি আর অন্য দলগুলোকে বেশ বড় বার্তা দিয়ে রেখেছিল ইউভেন্তাস। গতবারের হারানো লিগ শিরোপা ফিরে পেতে এবারে তারা বদ্ধপরিকর। হেড কোচ মাসিমিলানো আলেগ্রিও এ নিয়ে কোনো রাখঢাক করেননি।

লিগ শুরুর ম্যাচে ইউভেন্তাস তাদের ভক্তদের দারুণ এক পারফরম্যান্স উপহার দিয়ে কথা রেখেছে। লিগ শিরোপার দিকে তারা মনোযোগী শুরুর ম্যাচ থেকেই- এটা প্রমাণ করতেই যেন সাসুয়োলোকে ৩-০ গোলে বিধ্বস্ত করেছে তুরিনের ক্লাবটি।

নিজেদের মাঠে সোমবার রাতে দি মারিয়া ২৬ মিনিটে দলকে এগিয়ে দেন। প্রথমার্ধের শেষে আরেকটি গোল আসে দুসান ভ্লায়োভিকের পেনাল্টি থেকে। আর বিরতির পরপর ৫১ মিনিটে আরেকটি গোল করে দলের বড় জয় নিশ্চিত করেন ভ্লায়োভিক।

তবে ইউভেন্তাসের বড় জয়ের দিনে ধাক্কা হয়ে আসে দি মারিয়ার ইনজুরি। ৬১ মিনিটে অ্যাবডাক্টর পেশির চোটে পড়ে মাঠ ছাড়তে হয় এ আর্জেন্টাইন তারকাকে।

ম্যাচ শেষে আলেগ্রি অবশ্য জানিয়েছেন চোট গুরুতর নয়। দি মারিয়ার এ চোট পুরোনো। আলেগ্রির প্রত্যাশা দ্রুত আবার মাঠে ফিরতে পারবেন দি মারিয়া।

তিনি ম্যাচ শেষে সংবাদমাধ্যমকে বলেন, ‘আমি মোটেও চিন্তিত নই। মঙ্গলবার ওর চোট পরীক্ষা করানো হবে, তারপর বোঝা যাবে। এ ধরনের চোট ফুটবলে হয়েই থাকে।’

একই রাতে বড় জয় পেয়েছে নাপোলিও। ভেরোনাকে ৫-২ গোলে হারিয়েছে তারা।

আরও পড়ুন:
বিশ্বকাপজয়ী ফাব্রেগাস খেলবেন ইতালির দ্বিতীয় বিভাগে
ইউভেন্তাসকে হারিয়ে রিয়ালের জয়
রোমার তরুণদের কাছে অভিজ্ঞতার ঝুলি খুলতে প্রস্তুত দিবালা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Indian football faces FIFA ban

ভারতীয় ফুটবলের ওপর ফিফার নিষেধাজ্ঞা

ভারতীয় ফুটবলের ওপর ফিফার নিষেধাজ্ঞা
‘নিয়ম লঙ্ঘনের গুরুতর অভিযোগে নিষেধাজ্ঞার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যে দিন থেকে নির্বাচনের মাধ্যমে তৈরি হওয়া কমিটি এআইএফএফের দৈনন্দিন কাজকর্ম দেখতে শুরু করবে, সে দিন থেকে এই শাস্তি বাতিল হয়ে যাবে।’

সঙ্কটে পড়ে গেল ভারতীয় ফুটবল। সর্বভারতীয় ফুটবল ফেডারেশনের (এআইএফএফ) ওপর নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফা।

‘তৃতীয় পক্ষের হস্তক্ষেপের’ কারণে এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে ফিফার বিবৃতির বরাতে মঙ্গলবার জানিয়েছে দ্য হিন্দু

ফিফা বলেছে, ‘নিয়ম লঙ্ঘনের গুরুতর অভিযোগে নিষেধাজ্ঞার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। যে দিন থেকে নির্বাচনের মাধ্যমে তৈরি হওয়া কমিটি এআইএফএফের দৈনন্দিন কাজকর্ম দেখতে শুরু করবে, সে দিন থেকে এই শাস্তি বাতিল হয়ে যাবে।’

আগামী ১১ অক্টোবর থেকে ৩০ অক্টোবর ভারতে মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফুটবল হওয়ার কথা। তবে ফিফার পদক্ষেপে এই প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার পথ আপাতত বন্ধ হলো।

ফিফার বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ‘ফিফার শাস্তির অর্থ হলো, ভারত অক্টোবরে মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৭ বিশ্বকাপ ফুটবল আয়োজন করতে পারবে না। এই প্রতিযোগিতা নিয়ে পরবর্তী পদক্ষেপ কী হবে, তা নিয়ে চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে।’

ভারতের কেন্দ্রীয় ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার কথা জানিয়ে ফিফা বলছে, এখনও ইতিবাচক সমাধান সম্ভব।

দেশটির একাধিক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পরও ফেডারেশনের সভাপতি পদে বসেছিলেন প্রফুল্ল পটেল। এ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে মামলা হয়।

দেশের সর্বোচ্চ আদালত চলতি বছরের মে মাসে ফেডারেশনের কার্যকরী কমিটি ভেঙে দেয়। ভারতীয় ফুটবলের দায়িত্ব তিন সদস্যের কমিটি অব অ্যাডমিনিস্ট্রেটর্সকে দেয়। একই সঙ্গে বলা হয়, যত দ্রুত সম্ভব ফেডারেশনের নির্বাচন করতে হবে।

এর মধ্যে আদালতে অভিযোগ করা হয়, পটেল এখনও ফেডারেশনের কাজকর্মে হস্তক্ষেপ করছেন। তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগও ওঠে। এমন অবস্থাতে পদক্ষেপ নিল ফিফা।

আরও পড়ুন:
নির্ধারিত সূচির এক দিন আগে শুরু হচ্ছে কাতার বিশ্বকাপ
২০২৬ বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের কাঠামো চূড়ান্ত করেছে এএফসি
ফিফার কাছে ৫ কোটি ইউরো দাবি শাখতারের

মন্তব্য

p
উপরে