× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

বাংলাদেশ
From now on the activities of the United Nations in Bengal
hear-news
player
print-icon

এখন থেকে বাংলাতেও জাতিসংঘের কার্যক্রম

এখন-থেকে-বাংলাতেও-জাতিসংঘের-কার্যক্রম
জাতিসংঘের আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করা হবে বাংলা ভাষা। ছবি: সংগৃহীত
নতুন গৃহীত হওয়া এই প্রস্তাবের আলোকে জাতিসংঘের বৈশ্বিক যোগাযোগ বিভাগে এখন থেকে আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক যেকোনো কার্যক্রমে বাংলা ভাষা ব্যবহার হবে। বাংলার পাশাপাশি হিন্দি ও উর্দু ভাষাকেও যোগাযোগের ভাষা হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে।

জাতিসংঘের বৈশ্বিক যোগাযোগ বিভাগে এখন থেকে বাংলা ভাষাও ব্যবহার হবে। যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ও বার্তা পাঠাতে যোগাযোগের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার, বাংলা ভাষাকে বৈশ্বিক এই সংস্থায় প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেবে। বাংলার পাশাপাশি হিন্দি ও উর্দু ভাষাকেও যোগাযোগের ভাষা হিসেবে গ্রহণ করা হয়েছে।

দ্য প্রিন্টের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৬তম অধিবেশনে গণতান্ত্রিক প্রকৃতির প্রতীকী পদক্ষেপ হিসেবে বহুভাষা গ্রহণের প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। ভারতের পক্ষ থেকে অধিবেশনে এই প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়।

এ প্রস্তাবের আলোকে জাতিসংঘের বৈশ্বিক যোগাযোগ বিভাগে এখন থেকে আনুষ্ঠানিক ও অনানুষ্ঠানিক যেকোনো কার্যক্রমে বাংলা, হিন্দি ও উর্দু ভাষা ব্যবহার হবে। এ ছাড়া এই তালিকায় রয়েছে পর্তুগিজ, কিসওয়াহিলি ও ফার্সি ভাষাও।

জাতিসংঘে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস তিরুমূতি বলেন, জাতিসংঘের ছয়টি সরকারি ভাষা রয়েছে- ইংরেজি, রুশ, স্প্যানিশ, চীনা, আরবি ও ফরাসি। তবে বাংলা, হিন্দি ও উর্দু ভাষাকে জাতিসংঘের তথ্য প্রচারের মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার এই ভাষাগুলোকে প্রাতিষ্ঠানিক করে তুলবে।

প্রস্তাবের তাৎপর্য উল্লেখ করে তিরুমূতি বলেন, ‘বহু ভাষাবিদ জাতিসংঘের মৌলিক মূল্যবোধ হিসেবে স্বীকৃত। বহুভাষিকতাকে অগ্রাধিকার দেয়ার জন্য আমরা মহাসচিবকে (জাতিসংঘের মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস) ধন্যবাদ জানাই।’

বাংলা, হিন্দি ও উর্দুকে জাতিসংঘে যোগাযোগের ভাষা হিসেবে গ্রহণ করার প্রস্তাব গৃহীত হওয়াকে স্বাগত জানিয়েছে ভারত।

আরও পড়ুন:
আরও বাংলাদেশি সেনা চায় জাতিসংঘ
ইয়েমেনে আল কায়েদার অপহরণের শিকার জাতিসংঘের বাংলাদেশি কর্মী
পিবিসি চেয়ারম্যানের দায়িত্বে বাংলাদেশ
এলডিসির সুবিধা অব্যাহত রাখতে জাতিসংঘকে বাংলাদেশের আহ্বান
জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অবস্থান নেয়া বন্দুকধারীর আত্মসমর্পণ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
The bag was also stolen with a lock on the launch cabin

লঞ্চের কেবিনে তালা দিয়েও ব্যাগ চুরি

লঞ্চের কেবিনে তালা দিয়েও ব্যাগ চুরি ঢাকা ও পটুয়াখালী রুটে চলাচল করা সুন্দরবন লঞ্চ। ছবি: নিউজবাংলা
সুন্দরবন লঞ্চ কোম্পানির মালিক সাইদুর রহমান রিন্টু মিয়া জানিয়েছেন, চুরির ভিডিও ফুটেজটি সদরঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জকে দেয়া হয়েছে।

ঢাকা থেকে পটুয়াখালীগামী লঞ্চের কেবিন থেকে এক যাত্রীর ব্যাগ চুরি নিয়ে হৈ চৈ শুরু হয়েছে। লঞ্চের সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে এই চুরির ঘটনাটি। বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অনেকে।

মঙ্গলবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় ঢাকার সদরঘাট থেকে পটুয়াখালীর উদ্দেশে ছেড়ে আসার প্রায় ২০ মিনিট আগে বিলাসবহুল সুন্দরবন-৯ লঞ্চের ২১৯ নং কেবিনে ওই চুরির ঘটনাটি ঘটে।

পটুয়াখালী শহরের কাঠপট্টি এলাকার বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের সহ-সভাপতি মো. আবু নাইম জানান, তার স্ত্রী ইসমত আরা ঢাকার সদরঘাট থেকে পটুয়াখালী আসার পথে সুন্দরবন-৯ লঞ্চের ২১৯ নম্বর কেবিনে প্রবেশ করে মালামাল রাখেন। পরে কেবিনটি তালা মেরে লঞ্চের দোতলার সামনের অংশে গিয়ে তিনি মেয়ের জামাইকে বিদায় জানান।

মাত্র ১০ থেকে ১২ মিনিট পর কেবিনের তালা খুলে ভেতরে প্রবেশ করে হাতের পার্স (হাত ব্যাগ) না পেয়ে চিৎকার শুরু করেন ইসমত আরা। এক পর্যায়ে তিনি কান্নাকাটি শুরু করলে লঞ্চের সুপারভাইজারসহ অন্যান্য স্টাফ ও যাত্রীরা ঘটনাস্থলে আসেন। তাদের কাছে পুরো বিষয়টি খুলে বলেন ভুক্তভোগী।

স্ত্রীর বরাতে আবু নাইম জানান, ঘটনা শুনে লঞ্চের সুপারভাইজার কেবিনের পাশের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে চুরির বিষয়ে নিশ্চিত হন। চুরি যাওয়া ব্যাগটিতে ২ ভরি ওজনের একটি স্বর্ণের চেইন, নগদ আনুমানিক ৩০ হাজার টাকা, জাতীয় পরিচয়পত্র এবং একটি মোবাইলসহ অন্যান্য কাগজপত্র ছিল।

বুধবার ভোরে ওই লঞ্চটি পটুয়াখালী পৌঁছায়। পরে দুপুরে সুন্দরবন লঞ্চ কোম্পানির মালিক সাইদুর রহমান রিন্টু মিয়া জানান, ভিডিও ফুটেজটি সদরঘাট নৌ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জকে দেয়া হয়েছে। আশা করা হচ্ছে, খুব দ্রুত চুরির সঙ্গে জড়িতদের আইনের আওতায় আনা হবে।

আবু নাইম অভিযোগ করেন, ৭/৮ বছর আগেও তার এক নিকটাত্মীয়ের একটি ব্রিফকেস চুরি হয়েছিল লঞ্চের কেবিন থেকে। কিন্তু সেটির খোঁজ মেলেনি আজও।

তিনি বলেন, ‘আমরা সবসময় এই লঞ্চে আসা যাওয়া করি। লঞ্চের কেবিন বয় কিংবা স্টাফরা জড়িত না থাকলে বাইরের কেউ এভাবে কেবিনের জানালা খুলে চুরি করার সাহস রাখে না।’

তবে এ ঘটনায় লঞ্চের কোনো স্টাফ জড়িত থাকার বিষয়টি অস্বীকার করে সুন্দরবন-৯ লঞ্চের সুপারভাইজার মেহেদি হাসান সুমন বলেন, ‘এটি একটি অনাকাঙ্খিত ঘটনা। কারণ বরিশাল বিভাগে সুন্দরবন লঞ্চ কর্তৃপক্ষ যাত্রীদের সর্বোচ্চ সেবা দেয়। এই চুরির ঘটনা আমাদেরকেও হতবাক করেছে।’

বিষয়টি প্রশাসনকে জানানো হয়েছে বলেও জানান সুপারভাইজার।

আরও পড়ুন:
পদ্মা সেতুতে লোকারণ্যের দিন ফাঁকা সদরঘাট
দক্ষিণাঞ্চলের লঞ্চসেবাতেও উন্নতির আশা
তড়িঘড়ি বরিশাল ছেড়েছে ১২ বিলাসবহুল লঞ্চ
দাঁড়ানোর জায়গা নেই লঞ্চে
কেমন আছেন অভিযান-১০ লঞ্চে অগ্নিকাণ্ডে নিখোঁজদের স্বজনরা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Teacher harassment Questions of heroic freedom fighters about the indifference of the police

শিক্ষক নিপীড়ন: পুলিশের নির্লিপ্ততা নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশ্ন

শিক্ষক নিপীড়ন: পুলিশের নির্লিপ্ততা নিয়ে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশ্ন
সাভারে শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা ও নড়াইলে আরেক শিক্ষককে পরিকল্পিতভাবে নিগ্রহ করার ঘটনায় উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সেক্টর কমান্ডারস্‌ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১। সংগঠনটির পক্ষ থেকে দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানানো হয়েছে।

নড়াইলে শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসকে গলায় জুতার মালা দিয়ে অপদস্থ করার সময় পুলিশের নির্লিপ্ততা ও দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগ করেছে সেক্টর কমান্ডারস ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১। পুলিশের উপস্থিতিতে এই কাজ আতঙ্কজনক বলে মন্তব্য করেছে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠনটি।

বুধবার সেক্টর কমান্ডারস্‌ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১-এর যুগ্ম প্রচার সম্পাদক মুঈদ হাসান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বলা হয়, ‘সাভারে একজন শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা ও নড়াইলে আরেক শিক্ষককে পরিকল্পিতভাবে নিগ্রহ করার ঘটনায় চরম উদ্বেগ ও ক্ষোভ প্রকাশ করছে সেক্টর কমান্ডারস্‌ ফোরাম-মুক্তিযুদ্ধ ’৭১। সংগঠনের পক্ষ থেকে দোষীদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবি জানানো হচ্ছে।’

সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ‘এই দুই দুঃখজনক ঘটনা এবং সাম্প্রতিকালের আরও কিছু উদ্বেগজনক উগ্র সাম্প্রদায়িক ঘটনা প্রমাণ করে, যে প্রতিশ্রুতি নিয়ে মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল সেই রাষ্ট্রের নীতি-নৈতিকতা আজ কতটা বিপন্নের মুখোমুখি। এসব ঘটনা আরও প্রমাণ করে যে, বাংলাদেশকে কোনো মহল পরিকল্পিতভাবে অন্ধকারের দিকে ধাবিত করছে।

‘আরও উদ্বেগজনক যে, নড়া‌ইলে শিক্ষকের গলায় জুতার মালা পরানোর চরম অমানবিক ঘটনাটি আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কিছু সদস্যের উপস্থিতিতে ঘটেছে। অন্যদিকে একজন ছাত্রের বর্বরতায় প্রাণ হারিয়েছেন আরেক শিক্ষক।’

বিবৃতিতে আরও বলা হয়, ‘পালাক্রমিক এসব ঘটনা মুক্তিযুদ্ধবিরোধী উগ্র সাম্প্রদায়িক শক্তির সুচতুর ও পরিকল্পিত অপচেষ্টা। অনেক ক্ষেত্রে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নির্লিপ্ততা ও দায়িত্বে অবহেলা আরও বেশি আতঙ্কজনক, যা উগ্র সাম্প্রদায়িক ও অনৈতিক শক্তিকে উৎসাহিত করবে। ‘সব ধর্মের সহাবস্থান ও আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার স্বার্থে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে হবে।

‘আশুলিয়ায় শিক্ষক হত্যা ও নড়াইলে কলেজ অধ্যক্ষ নিগ্রহের ঘটনার দ্রুত সরকারি পদক্ষেপ দাবি করছি। একইসঙ্গে দোষীদের অবিলম্বে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি।’

বিবৃতিতে স্বাক্ষর করেছেন যেসব বীর মুক্তিযোদ্ধা

সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের নির্বাহী সভাপতি মো. নুরুল আলম, সহ-সভাপতি ম. হামিদ ও অধ্যাপক ডা. আমজাদ হোসেন, মহাসচিব হারুন হাবীব, যুগ্ম-মহাসচিব আবুল কালাম আজাদ পাটোয়ারী, আব্দুল মাবুদ ও শাহজাহান মুখ্য বেনু, সাংগঠনিক সম্পাদক মেজর জেনারেল মোহাম্মদ আলী সিকদার (অব.), কোষাধ্যক্ষ ডা. মনসুর আহমদ, কেন্দ্রীয় নারী কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক লায়লা হাসান ও ইফফাত আরা নার্গীস, সাংস্কৃতিক সম্পাদক জান্নাতুল ফেরদৌস লাকি, বরিশাল বিভাগীয় সভাপতি প্রদীপ কুমার ঘোষ, খুলনার বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক খয়রাত হোসেন, রাজশাহীর বিভাগীয় সভাপতি আবুল হাসান খন্দকার এবং কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় সদস্য সচিব বেদারুল আলম চৌধুরী বেদার।

আরও পড়ুন:
শিক্ষককে জুতার মালা: প্রধান অভিযুক্ত রনি গ্রেপ্তার
অধ্যক্ষের গলায় জুতার মালা ওসির সামনেই
শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যায় জিতু গ্রেপ্তার
শিক্ষক হত্যা ও অপদস্থের ঘটনায় চবি শিক্ষক সমিতির প্রতিবাদ
শিক্ষকের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
After making the young man unconscious he ran away with three and a half lakh rupees

যুবককে অজ্ঞান করে ‘সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়ে চম্পট’

যুবককে অজ্ঞান করে ‘সাড়ে তিন লাখ টাকা নিয়ে চম্পট’ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ। ফাইল ছবি
ভুক্তভোগী কবির নারায়ণগঞ্জ এলাকা থেকে টাকা সংগ্রহ করে উৎসব পরিবহনে ফিরে আসেন। পরে কাপ্তান বাজার ইলেট্রিক মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় গিয়ে অচেতন হয়ে পড়েন। তার কাছে সাড়ে তিন লাখ টাকা ছিল। সেই টাকা আর পাওয়া যায়নি।

রাজধানীর গুলিস্তানে একটি মার্কেটে গিয়ে অজ্ঞান হয়ে যাওয়ার পর এক যুবকের সাড়ে তিন লাখ টাকা খোয়া গেছে বলে জানিয়েছেন তার এক সহকর্মী। ধারণা করা হচ্ছে, তাকে কেউ অজ্ঞান করে টাকা নিয়ে গেছেন।

সেই যুবকের নাম কবির হোসেন। তিনি বর্তমানে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বুধবার বিকেলে এই ঘটনা ঘটে।

ভুক্তভোগী কবির কুইক লিংক টেকনোলজি নামে একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানের বিক্রয় প্রতিনিধি।

প্রতিষ্ঠানটির মার্কেটিং কর্মকর্তা আশরাফুল হায়দার জানান, তারা রাউটার এবং সিসি ক্যামেরা বিক্রি কনে। কবির বিভিন্ন মার্কেটে সরবরাহ করে টাকা সংগ্রহ করেন। পরে সেখানকার লোকজনের মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে তাকে উদ্ধার করে বিকালে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসা হয়।

আশরাফুল বলেন, নারায়ণগঞ্জ এলাকা থেকে টাকা সংগ্রহ করে উৎসব পরিবহনে ফিরে আসেন। পরে কাপ্তান বাজার ইলেট্রিক মার্কেটের দ্বিতীয় তলায় গিয়ে অচেতন হয়ে পড়েন।

অজ্ঞান হওয়ার আগে কবিরের কাছে সাড়ে তিন লাখ টাকা ছিল জানিয়ে আশরাফুল বলেন, ‘সেই টাকা আর পাওয়া যায়নি।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ পরিদর্শক মোহাম্মদ বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘গুলিস্তান থেকে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে অচেতন অবস্থায় এক যুবককে ঢাকা মেডিক্যালে আনা হয়। তার কাছ থেকে সাড়ে তিন লক্ষ টাকা খোয়া যাওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি ওয়ারী থানাকে জানানো হয়েছে।’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Shoe garland to teacher Ronnie arrested

শিক্ষককে জুতার মালা: প্রধান অভিযুক্ত রনি গ্রেপ্তার

শিক্ষককে জুতার মালা: প্রধান অভিযুক্ত রনি গ্রেপ্তার অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় প্রধান আসামি রহমত উল্লাহ রনি। ছবি: নিউজবাংলা
কলেজে হামলা ও শিক্ষক হেনস্তার ঘটনায় গত সোমবার দুপুরে নড়াইল সদর থানায় মামলা করেন পুলিশের উপপরিদর্শক ও মির্জাপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ শেখ মোরছালিন। রনিসহ এ নিয়ে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করে সদর থানা পুলিশ।

নড়াইল সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে জুতার মালা পরানোর ঘটনায় প্রধান অভিযুক্ত রহমত উল্লাহ রনিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ নিয়ে মামলায় ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ শওকত কবীর বুধবার রাতে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, খুলনা থেকে বুধবার দুপুরে গ্রেপ্তার করা হয় রনিকে।

তিনি আরও জানান, অধ্যক্ষ স্বপনকে জুতার মালা পরানোর ঘটনার ভিডিওতে কালো টিশার্ট পরা যুবকই হলেন রহমত উল্লাহ রনি।

কলেজে হামলা ও শিক্ষক হেনস্তার ঘটনায় গত সোমবার দুপুরে নড়াইল সদর থানায় মামলা করেন পুলিশের উপপরিদর্শক ও মির্জাপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ শেখ মোরছালিন।

দণ্ডবিধির ৩৪, ১৪৩, ৪৪৭, ৪৪৮, ৩২৩, ৩৪১, ৩৩২, ৩৫৩, ৩৫৫, ৪৩৬, ৪২৭, ৫০০ ধারায় করা এ মামলায় অজ্ঞাতপরিচয় ১৭০ থেকে ১৮০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এরপর রোববার রাতেই তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

শিক্ষককে জুতার মালা: প্রধান অভিযুক্ত রনি গ্রেপ্তার
শিক্ষক স্বপনকে জুতার মালা পরিয়ে দেয়ার সময় ধারণ করা ভিডিওতে কালো টিশার্ট পরা যুবকই হলেন গ্রেপ্তার রহমত উল্লাহ রনি।

গ্রেপ্তার তিনজনের মধ্যে আছেন কলেজের পাশের মির্জাপুর বাজারে মোবাইল ফোন ব্যবসায়ী শাওন খান। লাল গেঞ্জি পরা ৩০ বছর বয়সী শাওনকে স্বপন কুমার বিশ্বাসকে জুতার মালা পরানোর ভিডিওতে চিহ্নিত করা গেছে।

শাওনের মা হোসনেয়ারা বেগম মঙ্গলবার নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গতকাল রাতে আমার ছেলেকে দেখা করতে বলে মির্জাপুর ক্যাম্প পুলিশ। দেখা করতে গেলে তাকে আটকায় দিছে।’

হোসনেয়ারা বেগম দাবি করেন, তার ছেলে ঘটনার দিন শিক্ষক বা অভিযুক্ত ছাত্রকে বিক্ষুব্ধ লোকজনের হাত থেকে রক্ষার চেষ্টা করেছেন। এর পরেও ‘বিনা কারণে’ পুলিশ তাকে নিয়ে গেছে। তবে স্বপন কুমারকে জুতা পরানোর ভিডিওতে শাওনকে শনাক্ত করেন হোসনেয়ারা।

এ মামলায় গ্রেপ্তার আরও দুজন হলেন মির্জাপুর মধ্যপাড়ার মো. মনিরুল ইসলাম এবং মির্জাপুরের সৈয়দ রিমন আলী।


যা ঘটেছিল

ফেসবুকে ভারতীয় জনতা পার্টির (বিজেপি) বহিষ্কৃত মুখপাত্র নূপুর শর্মার সমর্থনে কলেজের এক হিন্দু শিক্ষার্থীর পোস্ট দেয়াকে কেন্দ্র করে গত ১৮ জুন দিনভর নড়াইল সদর উপজেলার মির্জাপুর ইউনাইটেড ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ, সহিংসতা চলে। গুজব ছড়িয়ে দেয়া হয় ওই শিক্ষার্থীর পক্ষ নিয়েছেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাস।

শিক্ষককে জুতার মালা: প্রধান অভিযুক্ত রনি গ্রেপ্তার

এরপর পুলিশ পাহারায় বিকেল ৪টার দিকে স্বপন কুমার বিশ্বাসকে ক্যাম্পাসের বাইরে নিয়ে যাওয়ার সময় তাকে দাঁড় করিয়ে গলায় জুতার মালা পরিয়ে দেয় একদল ব্যক্তি। শিক্ষক স্বপন কুমার হাত উঁচিয়ে ক্ষমা চাইতে থাকেন। পরে তাকে তুলে নেয়া হয় পুলিশের গাড়িতে।

মোবাইল ফোনে ধারণ করা এ ঘটনার ভিডিও ফুটেজ ছড়িয়ে পড়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। পুলিশের সামনে শিক্ষকের এমন অপদস্ত হওয়ার ঘটনায় তৈরি হয় তীব্র ক্ষোভ। তবে পুলিশের দাবি, শিক্ষকের গলায় জুতা পরানোর ঘটনা তারা ‘দেখেননি’।

যদিও ভিডিওতে শিক্ষককে জুতার মালা পরানোর সময় পাশেই দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা গেছে সদর থানার ওসিকে।


নূপুর শর্মাকে সমর্থন করে ফেসবুকে পোস্ট দেয়ায় অভিযুক্ত শিক্ষার্থী রাহুল দেবের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলার পর তাকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তবে ঘটনার সপ্তাহ পেরিয়ে গেলেও কলেজে সহিংসতা ও শিক্ষককে হেনস্তার ঘটনায় কোনো মামলা বা জড়িতদের চিহ্নিত করার বিষয়ে পুলিশের কোনো তৎপরতা ছিল না। এরই মধ্যে স্বপন কুমারকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের পদ থেকে সরিয়ে দেয়ার তোড়জোড় শুরু করে কলেজ পরিচালনা কমিটি।

বিষয়টি নিয়ে রোববার একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন প্রকাশ করে নিউজবাংলা।

শিক্ষক স্বপন কুমারকে নিয়ে নিউজবাংলার প্রতিবেদনটি নজরে আসে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক অধ্যাপক নেহাল আহমেদ সোমবার নিউজবাংলাকে জানান, স্বপন কুমারকে তার চলতি দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। কেউ এমন চেষ্টা করলেও মাউশি তাতে অনুমোদন দেবে না।

স্বপন কুমার ইস্যুতে সমালোচনার মুখে পড়া নড়াইলের প্রশাসনও এরপর নড়েচড়ে বসে। ঘটনার ৯ দিন পর কলেজে হামলা ও শিক্ষক হেনস্তার ঘটনায় মামলা করে পুলিশ।

আরও পড়ুন:
শিক্ষক হত্যায় জিতুর বাবা রিমান্ডে
শিক্ষক হত্যা: আলামত জব্দে দেরি, আসামির বয়সও ভুল
শিক্ষক উৎপল হত্যা: তৃতীয় দিনেও সড়কে শিক্ষার্থীরা
‘শিক্ষকের গলায় জুতার মালায় দুঃখিত, দায়িত্বে অবহেলায় ব্যবস্থা’
শিক্ষক নির্যাতনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চায় শিক্ষক সমিতি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Excavation started in the original Buriganga channel

আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেলে খনন শুরু

আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেলে খনন শুরু ঢাকার জলাবদ্ধতা দূর করতে বুড়িগঙ্গায় চলছে খনন সহ সংস্কার কাজ। ছবি: সংগৃহীত
মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেন,‘আদি বুড়িগঙ্গা, কামরাঙ্গীরচর, লালবাগ, হাজারীবাগ, চকবাজার ও পুরান ঢাকা ঘিরে কীভাবে একটি নান্দনিক পরিবেশ তৈরি করা যায়, সে চেষ্টা চলছে। নদীর প্রবাহ ও নদী পুনরুদ্ধার করে একটি বাসযোগ্য নগরী উপহার দেয়া হবে।’

খাল-নদী সংস্কারে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নিজস্ব অর্থায়নে শুরু করেছে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলের খনন। নগরীর জলাবদ্ধতা দূর করতে এ উদ্যোগ কার্যকর ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

নগরীর শহীদ নগর এলাকায় বুধবার বুড়িগঙ্গা আদি চ্যানেলের পুনর্খনন কাজের উদ্বোধন হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘আমাদের খাল-নদীগুলো সংস্কার করতে হবে। সংস্কারে কারও ব্যক্তিগত ক্ষতি করা সরকারের উদ্দেশ্য নয়। তবে যারা খাল-নদী দখলের মাধ্যমে অনৈতিক সুবিধা নিচ্ছেন, আমাদের কাজে তারা মনঃক্ষুণ্ন হতেই পারেন।

‘দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ নগরী ঢাকা। এর পরিবেশ ঠিক করতে হবে আমাদের। ঢাকার পরিবেশ সুন্দর করার মাধ্যমে আমাদের সুনাম ছড়িয়ে পড়বে। ঢাকাকে উন্নত নগরী হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। সে জন্য খাল এবং নদীগুলোর সংস্কার কাজ শুরু হয়েছে।’

আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেলে খনন শুরু
আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেলের খননকাজের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। ছবি: নিউজবাংলা

মেয়র ফজলে নূর তাপস বলেন, ‘সিএস ম্যাপ অনুযায়ী আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেল পুনর্খনন কাজ এগিয়ে নেয়া হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেলের ২ দশমিক ৭ কিলোমিটার অংশের খনন হবে। নদীর সীমানা নির্ধারণ করে বেষ্টনী দেব।

‘আদি বুড়িগঙ্গা, কামরাঙ্গীরচর, লালবাগ, হাজারীবাগ, চকবাজার ও পুরান ঢাকা ঘিরে কীভাবে একটি নান্দনিক পরিবেশ তৈরি করা যায়, সে চেষ্টা চলছে। নদীর প্রবাহ ও নদী পুনরুদ্ধার করে একটি বাসযোগ্য নগরী উপহার দেয়া হবে।’

দক্ষিণ সিটির নিজস্ব অর্থায়নে বুড়িগঙ্গায় খননকাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘সাড়ে ২১ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে আমরা কাজ শুরু করেছি। আগামী অর্থবছরে আরও বেশি বরাদ্দ রাখা হবে। আনন্দের বিষয় যে আমরা কাজটি শুরু করতে পেরেছি।’

পরে নগরীর ৬২ নম্বর ওয়ার্ডে অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য স্থানান্তর কেন্দ্রের উদ্বোধন করেন মেয়র। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঢাকা-৫ আসনের সংসদ সদস্য কাজী মনিরুল ইসলাম মনু, দক্ষিণ সিটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, প্রধান প্রকৌশলী সালেহ আহম্মেদ, সচিব আকরামুজ্জামান, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী খায়রুল বাকেরসহ বিভিন্ন ওয়ার্ডের কাউন্সিলররা।

আরও পড়ুন:
চলতি মাসেই আদি বুড়িগঙ্গা চ্যানেল পুনর্খনন: মেয়র তাপস
মার্চে শুরু আদি বুড়িগঙ্গা পুনরুদ্ধার কাজ
বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল পুনরুদ্ধার কাজ শুরু মার্চে

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A youth was shot dead by miscreants in Khulna

খুলনায় দুর্বৃত্তের গুলিতে যুবক নিহত

খুলনায় দুর্বৃত্তের গুলিতে যুবক নিহত দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত জুলফিকার নাইম মুন্না।
মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. অমিত।

খুলনা মহানগরীতে দুর্বৃত্তের গুলিতে এক যুবক নিহত হয়েছেন।

বুধবার রাত ৮টার দিকে নগরীর মুজগুন্নী এলাকায় গুলিবিদ্ধ হন ওই যুবক।

৩২ বয়সী নিহত ব্যক্তির নাম জুলফিকার নাইম মুন্না। তিনি খুলনার দিঘলিয়া উপজেলার সুগন্ধী গ্রামের সোহরাব মোল্লার ছেলে।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. অমিত।

নিহত মুন্না দুটি হত্যা মামলাসহ একাধিক মামলার আসামি বলে জানা গেছে।

তিনি খুলনা মহানগরীর দৌলতপুর থানা হুজি শহীদ হত্যা মামলার আসামি এবং খুলনার সেনহাটি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান গাজী আব্দুল হালিম হত্যা মামলার এজাহার ভুক্ত আসামি। এ ছাড়াও বিভিন্ন থানায় তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে।

এ ছাড়া বিভিন্ন সময়ে তিনি কারাগারেও ছিলেন।

এ ছাড়া তিনি চরমপন্থী দল পূর্ববাংলা কমিউনিস্ট পার্টির একজন সদস্য ছিলেন বলেও অভিযোগ আছে।

আরও পড়ুন:
শামীম ওসমানপুত্রের বিরুদ্ধে ফাঁকা গুলি ছোড়ার অভিযোগ
এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ানের জামিন
শপিং ব্যাগে গুলির ১৩৭ খোসা
‘আধিপত্য বিস্তারে ককটেল-গুলি’, আহত ৪
খুলনায় সন্ত্রাসীদের গুলিতে ব্যবসায়ী নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The scoundrels made by Chhatra League are insulting the teachers

‘ছাত্রলীগের বানানো বখাটেরাই শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করছে’

‘ছাত্রলীগের বানানো বখাটেরাই শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করছে’ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাষ্কর্যে বুধবার বিকেলে মানববন্ধন করে ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা। ছবি: নিউজবাংলা
‘ছাত্রলীগই কোটা সংস্কার আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করেছে। এই ছাত্রলীগই কুয়েটে একজন শিক্ষককে মানসিক নির্যাতন করে মৃত্যুর দিকেও ঠেলে দিয়েছে‍।’

সারা দেশে ছাত্রলীগ কিশোর-তরুণদের পড়াশোনা থেকে বিচ্যুত করে বখাটে বানাচ্ছে‍ বলে অভিযোগ করেছেন ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সহসভাপতি আসিফ মাহমুদ‍।

তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের বানানো এই বখাটে শিক্ষার্থীরাই শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করছে, প্রাণ কেড়ে নিচ্ছে‍।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যে বুধবার বিকেলে মানববন্ধনে তিনি ছাত্রলীগের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন।

নড়াইলে পুলিশের উপস্থিতিতে কলেজের অধ্যক্ষ স্বপন কুমার বিশ্বাসকে হেনস্তার প্রতিবাদ এবং সাভারে কলেজশিক্ষক উৎপল কুমার বিশ্বাসের হত্যাকারীর বিচারের দাবিতে এ মানববন্ধন করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখা।

মানববন্ধনে আসিফ বলেন, ‘ছাত্রলীগই কোটা সংস্কার আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করেছে। এই ছাত্রলীগই কুয়েটে একজন শিক্ষককে মানসিক নির্যাতন করে মৃত্যুর দিকেও ঠেলে দিয়েছে‍।

‘আমি নিশ্চিত, সাভারের শিক্ষক হত্যার ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত হলে, সেখানেও ক্ষমতাসীন দল কিংবা তাদের ছাত্রসংগঠনের সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যাবে‍।’

কলেজশিক্ষক উৎপল কুমারের হত্যার বিচারের দাবিতে আমরণ অনশনরত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সঙ্গে সংহতি জানান ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র অধিকার পরিষদের সভাপতি আখতার হোসেন। বলেন, ‘আজ দেশে সংখ্যাগুরু কিংবা সংখ্যালঘু, হিন্দু কিংবা মুসলিম কেউই নিরাপদে নেই‍।

‘বাংলাদেশে কেবল ভালো আছে ক্ষমতার উচ্ছিষ্টভোগীরা‍। বাংলাদেশে গণতন্ত্র ও ভোটাধিকার ফিরিয়ে আনতে হলে সংখ্যাগুরু-সংখ্যালঘু বিভাজন করা যাবে না‍।’

আখতার বলেন, ‘একজন হিন্দু ভাই নিপীড়িত হলে আমি একজন মুসলিম ভাই হিসেবে তার প্রতিবাদ জানাব‍। একজন মুসলিম ভাই নিপীড়িত হলে আমার একজন হিন্দু ভাই তার প্রতিবাদ জানাবে। আর এভাবেই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশ গড়ে উঠবে‍।’

সংগঠনের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন বলেন, ‘নড়াইলে ক্লাস থেকে তুলে নিয়ে একজন শিক্ষককে হেনস্তা, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস থেকে তুলে নিয়ে ছাত্র অধিকার পরিষদের একজন কর্মীকে ছাত্রলীগের হামলা সবই এক সূত্রে গাঁথা‍।

‘ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ দেশের মানুষের ভোটাধিকার ও মৌলিক মানবাধিকার হরণ করে দেশের মানুষকে বিভাজিত করে সাম্প্রদায়িক সংঘাতের দিকে ঠেলে দিচ্ছে‍।’

আরও পড়ুন:
ফাল্গুনীকে মারধর: ছাত্রলীগের পাঁচজনের বিচার শুরু
পুলিশ পেটানোর অভিযোগে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেপ্তার
সীতাকুণ্ডের ঘটনায় জড়িতদের বিচার দাবির মিছিলে হামলার অভিযোগ
চবি ছাত্রলীগের ২ নেতাকে ‘মারধর’: আটক ২
‘জমি দখল করে’ যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতার মাছের ঘের

মন্তব্য

p
উপরে