× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

বাংলাদেশ
One lakh mosque based maktabs Information Minister
hear-news
player
print-icon

এক লাখ মসজিদভিত্তিক মক্তব হয়েছে: তথ্যমন্ত্রী

এক-লাখ-মসজিদভিত্তিক-মক্তব-হয়েছে-তথ্যমন্ত্রী
চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় শনিবার আলোচনা সভায় অংশ নেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। ছবি: নিউজবাংলা
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ক্ষমতায় থাকাকালে খালেদা জিয়া আলেম-ওলামাদের ডেকে নিয়ে ভাত খাওয়াতেন, কিন্তু দাবি পূরণ করেননি। জননেত্রী শেখ হাসিনা কওমি সনদের স্বীকৃতি দিলেন। তিনি শুধু সনদের স্বীকৃতি দেননি, তাদের চাকরিও দিয়েছেন। তারা এখন সরকারি বেতন পাচ্ছেন। এটি কল্পনার বাইরে ছিল।’

আওয়ামী লীগ সরকার ইসলামের জন্য যা করেছে, অতীতে কেউ তা করেনি বলে মন্তব্য করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা অডিটোরিয়ামে শনিবার দুপুরে বিভিন্ন মাদ্রাসার শিক্ষক ও আলেমদের সঙ্গে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আলেম-ওলামাদের শত বছরের পুরোনো দাবি ছিল বাংলাদেশে একটি স্বতন্ত্র ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার। ব্রিটিশ ভেঙে পাকিস্তান, এরপর বাংলাদেশ হয়েছে, তবে ইসলামি আরবি বিশ্ববিদ্যালয় হয়নি। জামায়াতকে নিয়ে বিএনপি সরকার গঠন করল, এরশাদ সাহেব মাওলানা মান্নানকে ধর্মমন্ত্রী করলেন, তাতেও কিছু হয়নি। অবশেষে শেখ হাসিনার সরকার এ বিশ্ববিদ্যালয় করেছে।

‘কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতির দাবি ছিল অনেক পুরোনো। ক্ষমতায় থাকাকালে খালেদা জিয়া আলেম-ওলামাদের ডেকে নিয়ে ভাত খাওয়াতেন, কিন্তু দাবি পূরণ করেননি। মাওলানা আহমদ সফি সাহেব প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে এ দাবি তুললেন। আর জননেত্রী শেখ হাসিনা কওমি সনদের স্বীকৃতি দিলেন। আমাদের নেত্রী শুধু কওমি সনদের স্বীকৃতি দেননি, তাদের চাকরিও দিয়েছেন। তারা এখন সরকারি বেতন পাচ্ছেন। এটি কল্পনার বাইরে ছিল।’

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘সারা দেশে এক লাখ মসজিদভিত্তিক মক্তব করা হয়েছে। শুধু রাঙ্গুনিয়াতেই দুই শতাধিক মসজিদভিত্তিক মক্তব হয়েছে। প্রতিটি মক্তবের আলেম ৫ হাজার ২০০ টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন। এটি আলেম সমাজ কখনও ভাবেনি। দারুল আরকাম এবতেদায়ি মাদ্রাসার প্রতিটিতে দুজন করে শিক্ষক ১২ হাজার টাকা করে ভাতা পাচ্ছেন। ৫৬০টি মডেল মসজিদ করা হয়েছে। পাকিস্তান আমলেও জেলা-উপজেলা পর্যায়ে সরকারিভাবে এমন মসজিদ হয়নি।’

আলেমদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার সরকার ইসলামের জন্য এবং আলেম-ওলামাদের জন্য যে কাজগুলো করেছে, তা আপনারা অন্যদের কাছে বলবেন। আপনাদের কাছে এটুকুই ফরিয়াদ থাকল।’

নিজের নির্বাচনি এলাকা রাঙ্গুনিয়ায় মসজিদ, মক্তবসহ ইসলামের খেদমতে নানা কাজের উদাহরণ তুলে ধরেন তথ্যমন্ত্রী।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি লোকমানুল হক তালুকদারের সভাপতিত্বে ধর্মবিষয়ক সম্পাদক জসিম উদ্দিন তালুকদার এ সভা সঞ্চালনা করেন।

রাঙ্গুনিয়ার বেতাগী দরবার-এ-আস্তানা শরিফের পির গোলামুর রহমান আশরাফ শাহ, মেহেরিয়া মাদ্রাসার পরিচালক মাওলানা আনাস মাদানী, উপজেলা চেয়ারম্যান স্বজন কুমার তালুকদার, ইউএনও আতাউল গণি ওসমানি, পৌরসভার মেয়র শাহজাহান সিকদার, ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রিছ আজগর, ইঞ্জিনিয়ার শামসুল আলম তালুকদার, মাওলানা নজমুল হক নঈমী, ড. মাওলানা আবদুল মাবুদ, মাওলানা মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, মাওলানা নজরুল ইসলাম আলকাদেরী, মাওলানা মো. সুলতান, মাওলানা আবদুল কাদের, মাওলানা গোলাম কিবরিয়া, মাওলানা সৈয়দ আইয়ুব নুরী, মাওলানা গোলাম কিবরিয়া সভায় উপস্থিত ছিলেন।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
The date of Eid ul Adha will be known on Thursday

কোরবানি ঈদ কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার

কোরবানি ঈদ কবে, জানা যাবে বৃহস্পতিবার প্রতীকী ছবি
বাংলাদেশের আকাশে কোথাও জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেলে সংশ্লিষ্ট জেলার ডিসি অথবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানাতে অনুরোধ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

১৪৪২ হিজরির জিলহজের চাঁদ দেখে ঈদুল আজহা বা কোরবানির ঈদের দিন ঠিক করতে বৈঠকে বসতে যাচ্ছে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটি।

জাতীয় মসজিদ বায়তুল মুকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় বৈঠকটি শুরু হবে।

এতে সভাপতিত্ব করবেন ধর্মবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. ফরিদুল হক খান।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সহকারী জনসংযোগ কর্মকর্তা শায়লা শারমীন।

বাংলাদেশের আকাশে কোথাও জিলহজ মাসের চাঁদ দেখা গেলে সংশ্লিষ্ট জেলার ডিসি অথবা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানাতে অনুরোধ করেছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন।

চাঁদ দেখা যাওয়ার তথ্য জানাতে টেলিফোন নম্বরও দিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি।

এ সম্পর্কিত কোনো তথ্য থাকলে ​০২-২২৩৩৮১৭২৫, ০২-৪১০৫০৯১২, ০২-৪১০৫০৯১৬ এবং ০২-৪১০৫০৯১৭ নম্বরে জানানোর পরামর্শ দিয়েছে ইসলামিক ফাউন্ডেশন। এ ছাড়া ফ্যাক্স করা যাবে ​০২-২২৩৩৮৩৩৯৭ ও ০২-৯৫৫৫৯৫১ নম্বরে।

আরও পড়ুন:
২২ ঘণ্টা পর বালাসী-বাহাদুরাবাদে লঞ্চ চলাচল শুরু
চাপ কমেছে বাংলাবাজার-শিমুলিয়ায়
দৌলতদিয়ায় ৬ কিলোমিটার জট
ঈদযাত্রা হয় না সামিরনের
ডুবোচরে আটকে ২ লঞ্চ, নৌকায় বাড়ল ভাড়া

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Another Bangladeshi died while performing Hajj in Saudi Arabia

হজে গিয়ে সৌদিতে আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু

হজে গিয়ে সৌদিতে আরেক বাংলাদেশির মৃত্যু আব্দুল গফুর মিয়া
এ নিয়ে এখন পর্যন্ত এবারের হজযাত্রায় সাতজনের মৃত্যুর খবর জানাল মন্ত্রণালয়।

সৌদি আরবে হজ করতে গিয়ে আরও এক বাংলাদেশির মৃত্যু হয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের হজ ব্যবস্থাপনাসংক্রান্ত পোর্টালে বুধবার এ তথ্য জানানো হয়।

মারা যাওয়া মো. আব্দুল গফুর মিয়ার বাড়ি টাঙ্গাইলের সখিপুরে। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত এবারের হজযাত্রায় সাতজনের মৃত্যুর খবর জানাল মন্ত্রণালয়।

এর আগে ২১ জুন দুজন, ১৭ জুন দুজন আর ১৬ ও ১১ জুন আরও দুই বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু হয়।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার হজ হতে পারে ৮ জুলাই। ৫ জুন থেকে দেশ থেকে সৌদি আরবে যাওয়ার ফ্লাইট শুরু হয়েছে।

স্বাভাবিক সময়ে প্রতি বছর বিশ্বের ২০ থেকে ২৫ লাখ মুসল্লি পবিত্র হজ পালনের সুযোগ পেলেও করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে গত দুই বছর সৌদি আরবের বাইরের কেউ হজ করার সুযোগ পাননি।

পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ায় সৌদি সরকার এবার সারা বিশ্বের ১০ লাখ মানুষকে হজ পালনের অনুমতি দিয়েছে। বাংলাদেশ থেকে এ বছর সাড়ে ৫৭ হাজার মুসল্লি হজ পালনের সুযোগ পাচ্ছেন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন চার হাজার মুসল্লি।

সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের জন্য দুটি প্যাকেজ ঘোষণা করে ধর্ম মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে সর্বোচ্চ প্যাকেজটি হলো ৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ টাকা। সর্বনিম্নটি ৪ লাখ ৬২ হাজার ১৫০ টাকার।

বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালনে জনপ্রতি ন্যূনতম খরচ ৪ লাখ ৬৩ হাজার ৭৪৪ টাকা নির্ধারণ করেছে হজ এজেন্সিস অফ বাংলাদেশ।

সৌদি আরবে যাত্রার শেষ ফ্লাইট ৩ জুলাই। হজ শেষে ফিরতি ফ্লাইট শুরু হবে আগামী ১৪ জুলাই। ফিরতি ফ্লাইট শেষ হবে ৪ আগস্ট।

আরও পড়ুন:
হজে গিয়ে ভিক্ষা: মন্টু হাত হারান নিজের বানানো বোমায়
হজে গিয়ে ভিক্ষা, মুচলেকায় ছাড়া বাংলাদেশি
ব্যাংকের হজ সংশ্লিষ্ট শাখা খোলা থাকবে শনিবার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Tailor murder in Rajasthan Section 144 for taking the side of that anklet

সেই নূপুরের পক্ষ নেয়ায় রাজস্থানে দর্জি খুন, ১৪৪ ধারা

সেই নূপুরের পক্ষ নেয়ায় রাজস্থানে দর্জি খুন, ১৪৪ ধারা   নূপুর ইস্যুতে রাজস্থানে এক দর্জিকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। ছবি: সংগৃহীত
পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত দুজন কানহাইয়ালাল নামে পরিচিত এক দর্জির সঙ্গে কাপড়ের মাপ দেয়ার কথা বলে দেখা করেছিলেন। তাদের একজনের করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, দর্জি এক ব্যক্তির মাপ নিচ্ছেন। কিছুক্ষণ পর ব্যক্তিটি একটি ক্লেভার বের করে দর্জির ঘাড়ে আঘাত করেন। এমন সময় দর্জিকে বলতে শোনা যায়, ‘কেয়া হুয়া বাতাও তো সাহি (কী হয়েছে? আমাকে বলুন!)’

ভারতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে মহানবীকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্যের জেরে ক্ষমতাসীন বিজেপির বহিষ্কৃত মুখপাত্র নূপুর শর্মার পক্ষে স্ট্যাটাস দিয়ে খুন হয়েছেন এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় গ্রেপ্তার করা হয়েছে দুজনকে। তাদের রাজসমন্দ জেলা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজস্থানের উদয়পুরে মঙ্গলবার এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তি পেশায় দর্জি। তার শিরোশ্ছেদ করা হয়।

এক টেলিভিশন বিতর্কে গত মাসের শেষ দিকে মহানবীকে নিয়ে নূপুর শর্মা এমন এক মন্তব্য করেন, যা ভারতের মুসলিমদের পাশাপাশি গোটা মুসলিম বিশ্বকে চরম ক্ষুব্ধ করে। বাধ্য হয়ে তাকে মুখপাত্রের পদ থেকে বহিষ্কার করে বিজেপি। জোরদার করা হয় তার নিরাপত্তা।

মঙ্গলবারের ঘটনায় শহরজুড়ে থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। রাজস্থানজুড়ে ২৪ ঘণ্টার জন্য ইন্টারনেট পরিষেবা স্থগিত রাখা হয়েছে। রাজ্যজুড়ে জারি হয়েছে এক মাসের ১৪৪ ধারা।

এডিজি ’ল অ্যান্ড অর্ডার হাওয়া সিং ঝুমারিয়া বলেছেন, ‘জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তাদের সঙ্গে ৬০০ পুলিশ সদস্যকে উদয়পুরে পাঠানো হচ্ছে। রাজস্থান সতর্ক অবস্থায় রয়েছে।’

পুলিশ জানিয়েছে, অভিযুক্ত দুজন কানহাইয়ালাল নামে পরিচিত এক দর্জির সঙ্গে কাপড়ের মাপ দেয়ার কথা বলে দেখা করেছিলেন। তাদের একজনের করা একটি ভিডিওতে দেখা যায়, দর্জি এক ব্যক্তির মাপ নিচ্ছেন। কিছুক্ষণ পর ব্যক্তিটি একটি ক্লেভার বের করে দর্জির ঘাড়ে আঘাত করেন। এমন সময় দর্জিকে বলতে শোনা যায়, ‘কেয়া হুয়া বাতাও তো সাহি (কী হয়েছে? আমাকে বলুন!)’

দ্বিতীয় ভিডিওতে দেখা যায়, একজন নিজেকে মোহাম্মদ রিয়াজ বলে পরিচয় দেন, অন্যজন তার বন্ধু। এই ‘শিরোশ্ছেদ’ নিয়ে গর্ব করতে দেখা যায়। পরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতি ‘একটি সতর্কবাণী’ দেন তারা।

সেই নূপুরের পক্ষ নেয়ায় রাজস্থানে দর্জি খুন, ১৪৪ ধারা
নূপুর শর্মা ২০১৫ সালে দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। ছবি: সংগৃহীত

এক টুইটে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট বলেন, ‘আমি উদয়পুরে এক যুবকের জঘন্য হত্যার নিন্দা জানাচ্ছি। এ ঘটনায় জড়িত সব অপরাধীর বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে। পুলিশ অপরাধের তলানিতে যাবে।

‘আমি সব পক্ষকে শান্তি বজায় রাখার আহ্বান জানাই। এ ধরনের জঘন্য অপরাধের সঙ্গে জড়িত প্রত্যেককে কঠোরতম শাস্তি দেয়া হবে। এই পরিস্থিতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের জাতির উদ্দেশে ভাষণ দেয়া উচিত।’

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এই ঘটনার ভিডিও ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে গেহলট বলেন, ‘এসব ভিডিও শেয়ার না করার আহ্বান জানাচ্ছি। শেয়ার করলে অপরাধীদের সমাজে ঘৃণা ছড়ানোর উদ্দেশ্য সফল হবে।’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Iraq Iran close on Saudi issue

সৌদি ইস্যুতে ঘনিষ্ঠ ইরাক-ইরান

সৌদি ইস্যুতে ঘনিষ্ঠ ইরাক-ইরান ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আল-কাদিমি (ডানে) ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির সঙ্গে দেখা করেছেন। ছবি: সংগৃহীত
মধ্যপ্রাচ্যের কূটনীতিতে বড় পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে সম্প্রতি সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা করছেন সৌদি আরবের পরবর্তী বাদশাহ মোহাম্মদ বিন সালমান। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে বেশ কয়েকটি দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যিক চুক্তি করছে ইসরায়েল। এবার সৌদি থেকে সরাসরি ইরানে গেছেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আল-কাদিমি।

করোনার প্রাথমিক ধাক্কা সামলে উঠতে না উঠতেই মুদ্রাস্ফীতির কবলে পড়েছে গোটা বিশ্ব। এই পরিস্থিতিতে ইউক্রেনে চালানো রাশিয়ার ‘বিশেষ অভিযানে’ ব্যাহত হচ্ছে পণ্য রপ্তানি। কৃষ্ণ সাগর অনেকটায় অচল করে রেখেছে মস্কো।

এই অবস্থায় মধ্যপ্রাচ্যের কূটনীতিতে বড় পরিবর্তন দেখা যাচ্ছে। আরব রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে সম্প্রতি সম্পর্কোন্নয়নের চেষ্টা করছেন সৌদি আরবের পরবর্তী বাদশাহ মোহাম্মদ বিন সালমান। সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে বেশ কয়েকটি দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যিক চুক্তি করছে ইসরায়েল।

এবার প্রতিবেশী ইরান সফর করছেন ইরাকের প্রধানমন্ত্রী মোস্তফা আল-কাদিমি। এর আগে রিয়াদ ঘুরে আসেন ইরাকি প্রধানমন্ত্রী।

আল জাজিরার খবরে বলা হয়, উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে রোববার তেহরানে পৌঁছান মোস্তফা আল-কাদিমি।

ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম আল-কাদিমি বলছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফুয়াদ হুসেইন এবং অন্যদের সঙ্গে রাজধানীর সাদাবাদ প্রাসাদে প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসির আনুষ্ঠানিক অভ্যর্থনা গ্রহণ করেন কাদিমি।

জেদ্দায় শনিবার রাতে সংক্ষিপ্ত সফরে সৌদি ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান ব্যক্তিগতভাবে ইরাকি নেতাকে স্বাগত জানানোর পর এই সফর হলো।

ইরাকের প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় বলছে, কাদিমি এবং যুবরাজ সালমান শান্ত ও গঠনমূলক সংলাপের চেষ্টা করছেন। দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের পাশাপাশি আঞ্চলিক নিরাপত্তা ও স্থিতিশীলতার মতো বিষয়গুলো নিয়ে দুই নেতা আলোচনা করেছেন।

ইরাকি প্রধানমন্ত্রীর সফরটিকে আঞ্চলিক শত্রু তেহরান এবং রিয়াদের সম্পর্ক উন্নয়নের চেষ্টা হিসেবে দেখছেন অনেকে। ইয়েমেন ইস্যুতে সাত বছর ধরে ইরান-সৌদি পরস্পরবিরোধী অবস্থানে আছে।

আলোচনার পর সংবাদ সম্মেলনে রাইসি এবং কাদিমি সৌদি আরবের কথা বিশেষভাবে উল্লেখ না করলেও অঞ্চলজুড়ে সম্পর্কোন্নয়নে জোর দিয়েছেন। ইয়েমেনে জাতিসংঘের প্রস্তাবিত শান্তি আলোচনায় বিষয়টি পুনর্বিবেচনার কথাও জানান তারা।

ইয়েমেন ইস্যুতে দুই নেতাই বলেছেন, ‘যুদ্ধ চালিয়ে যাওয়া বুদ্ধিমানের কাজ না, সংলাপই কেবল যুদ্ধের সমাধান করতে পারে।’

দুই নেতা দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের প্রশংসা করেন বলেন, ‘ আর্থিক লেনদেনের প্রতিবন্ধকতা দূর করা, ধর্মীয় তীর্থযাত্রা সহজতর করা, ইরানের শালামচেহ এবং ইরাকের বসরাকে সংযুক্ত করে এমন একটি রেলপথের কাজ করার বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছে।’

বাদদাদের মধ্যস্থতায় ২০২১ সালের এপ্রিলে তেহরান-রিয়াদ সরাসরি আলোচনা শুরু হয়। এখন পর্যন্ত পাঁচ দফা আলোচনা হলেও ২০১৬ সালে ছিন্ন হওয়া আনুষ্ঠানিক কূটনৈতিক সম্পর্ক কীভাবে পুনঃপ্রতিষ্ঠা করা যায়, সে বিষয়ে এখনও কোনো চুক্তিতে আসতে পারেনি তারা।

সেই সময়ে বিক্ষোভকারীরা সৌদি আরবের পর ইরানে সৌদি কূটনৈতিক মিশনে হামলা চালায়। প্রখ্যাত এক শিয়া ধর্মীয় নেতাকে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয় সেখানে।

এখন পর্যন্ত এই আলোচনার একমাত্র অর্জন, জেদ্দাভিত্তিক অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কো-অপারেশনে ইরানের প্রতিনিধি অফিস পুনরায় চালু করা।

আরও পড়ুন:
ইরানকে ছাড়াই গ্যাস তুলবে সৌদি-কুয়েত
ইরাকে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার দায় নিল ইরান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Hajj without begging bond

হজে গিয়ে ভিক্ষা, মুচলেকায় ছাড়া বাংলাদেশি

হজে গিয়ে ভিক্ষা, মুচলেকায় ছাড়া বাংলাদেশি ফাইল ছবি
২২ জুন মতিয়ার মদিনায় ভিক্ষা করতে গিয়ে সৌদি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন। তিনি সবাইকে বলছিলেন, তার মানিব্যাগটি ছিনতাই হয়ে গেছে। খবর নিয়ে জানা গেছে, মতিয়ার সৌদিতে কোনো হোটেল বুক করেননি। তাকে গাইড করার মতো কোনো মোয়াজ্জেমও ছিল না।

হজের সময় ভিক্ষা করার অপরাধে এক বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করে সৌদি পুলিশ। পরে বাংলাদেশ হজ মিশনের হস্তক্ষেপে মুচলেকা নিয়ে ওই ব্যক্তিকে ছেড়ে দেয়া হয়।

কাউন্সিলর (হজ) জহরুল ইসলামের বরাতে বাংলা ট্রিবিউনের খবরে বলা হয়, ওই ব্যক্তির নাম মতিয়ার রহমান, বাড়ি মেহেরপুর জেলায়। ধানসিঁড়ি ট্র্যাভেল এয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে হজ করতে সৌদি গিয়েছিলেন তিনি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ২২ জুন মতিয়ার মদিনায় ভিক্ষা করতে গিয়ে সৌদি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হন। তিনি সবাইকে বলছিলেন, তার মানিব্যাগটি ছিনতাই হয়ে গেছে।

খবর নিয়ে জানা গেছে, মতিয়ার সৌদিতে কোনো হোটেল বুক করেননি। তাকে গাইড করার মতো কোনো মোয়াজ্জেমও ছিল না।

ধর্মবিষয়ক মন্ত্রাণলয় ইতোমধ্যে ওই হজ এজেন্সিকে নোটিশ পাঠিয়েছে। জানতে চাওয়া হয়েছে, কেন তাদের বিরুদ্ধে হজ ও ওমরাহ আইন, ২০২১-এর ১৩ ধারার অধীনে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে না।

উপসচিব আবুল কাশেম মুহাম্মদ শাহীন স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এ ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে বাংলাদেশিদের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয়েছে। তিন দিনের মধ্যে তাদের নোটিশের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

হজ অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশের সভাপতি শাহাদাত হোসেন তাসলিম বলেন, ‘বিষয়টি তদন্ত করে এজেন্সির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এর আগে জননিরাপত্তার অধীনে এক সৌদি নাগরিকসহ ২৭ জনকে গ্রেপ্তার করে সৌদি পুলিশ। এদের বেশির ভাগের সৌদিতে থাকার বৈধতা নেই।

তাদের বিরুদ্ধে ভুয়া হজ প্রচার চালানোর অভিযোগ আনা হয়েছে। ভুয়া হজ ও ওমরাহ প্রচার কার্যালয় পর্যবেক্ষণের জন্য নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে তারা গ্রেপ্তার হন।

সৌদি গ্যাজেটের খবরে বলা হয়, রিয়াদের চারটি স্থান এবং আল-কাসিম অঞ্চলের দুটি এলাকায় জাল হজ প্রচারণার বিজ্ঞাপন এবং বিপণনের সঙ্গে জড়িত ছিল তারা। তাদের গ্রাহকদের কাছ থেকে অর্থও হাতিয়ে নিচ্ছিল।

হজে গিয়ে ভিক্ষা, মুচলেকায় ছাড়া বাংলাদেশি

প্রসিকিউশন জানিয়েছে, গ্রেপ্তার অবৈধ বিদেশিদের মধ্যে ১১ জন মিসরীয়, ১০ জন সিরিয়ান, ২ জন করে পাকিস্তানি ও সুদানি এবং একজন ইয়েমেনি ও বাংলাদেশি রয়েছেন। তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সৌদি দূতাবাসের রাস্তার নাম ‘খাশোগজি ওয়ে’
হজযাত্রীদের আসন রিজার্ভের তথ্য চায় ধর্ম মন্ত্রণালয়
হজে গিয়ে সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু
হজের খুতবায় বাংলাসহ ১০ ভাষা
হজযাত্রীদের জন্য এক্সিম ব্যাংকের বাস উপহার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Hajj pilgrims increased from 2415 to 60 thousand

বাংলাদেশি হজযাত্রী ২৪১৫ বেড়ে ৬০ হাজার

বাংলাদেশি হজযাত্রী ২৪১৫ বেড়ে ৬০ হাজার ৪১০ হজযাত্রী নিয়ে সৌদি আরবের উদ্দেশে গত ৫ জুন ঢাকা ছাড়ে বিমানের প্রথম হজ ফ্লাইট। ছবি: নিউজবাংলা
কোটা বাড়ানোর ফলে এখন বাংলাদেশ থেকে হজে যেতে পারবেন মোট ৬০ হাজার জন। আগে হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন।

চলতি বছরের হজ কার্যক্রমে বাংলাদেশ থেকে আরও ২ হাজার ৪১৫ জনকে হজে যাওয়ার সুযোগ দিয়েছে সৌদি আরব সরকার। ফলে এ বছর বাংলাদেশি হজযাত্রীর সংখ্যা বেড়ে হবে ৬০ হাজার।

সম্প্রতি সৌদি আরবের হজ কাউন্সিল বাংলাদেশিদের জন্য হজের কোটা বাড়িয়েছে।

গত বুধবার ধর্ম মন্ত্রণালয় হজ কাউন্সিলের কাছে পাঠানো চিঠিতে অতিরিক্ত কোটা গ্রহণ করার কথা জানায়।

কোটায় নতুন যুক্ত হওয়া ২ হাজার ৪১৫ জনের মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে সুযোগ পাবেন ১১৫ জন আর বেসরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য সুযোগ পাবেন ২ হাজার ৩০০ জন। অতিরিক্ত এ যাত্রীদের কোটা নির্ধারণ করে পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য হজ কাউন্সিলরকে অনুরোধ জানানো হয়েছে চিঠিতে।

কোটা বাড়ানোর ফলে এখন বাংলাদেশ থেকে হজে যেতে পারবেন মোট ৬০ হাজার জন। আগে হজযাত্রীর সংখ্যা ছিল ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন।

সৌদি আরব সরকার এবার অভ্যন্তরীণ ও বাইরে থেকে আসা হজযাত্রী মিলিয়ে ১০ লাখ মানুষকে হজ পালনের অনুমতি দিয়েছে।

গত ৫ জুন প্রথম দফায় ৪১০ হজযাত্রী নিয়ে সৌদি আরবের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ে রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী প্রতিষ্ঠান বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইট বিজি-৩০০১।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে এবার হজ হতে পারে ৮ জুলাই। সৌদি আরবের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী ৫৭ হাজার হজযাত্রীর অর্ধেক বহন করবে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। বাকি অর্ধেক করবে সৌদি রাষ্ট্রীয় বিমান সংস্থা সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইনস ও ফ্লাই নাস।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের সংবাদ বিজ্ঞাপ্তিতে বলা হয়, এবার বাংলাদেশ থেকে হজ পালনের সুযোগ পারবেন ৫৭ হাজার ৫৮৫ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় চার হাজার ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫৩ হাজার ৫৮৫ জন হজে যেতে পারবেন।

আরও পড়ুন:
হজে যাওয়া আরও ২ বাংলাদেশির মৃত্যু
সৌদিতে বাংলাদেশি আরেক হজযাত্রীর মৃত্যু
হজযাত্রীদের আসন রিজার্ভের তথ্য চায় ধর্ম মন্ত্রণালয়
হজে গিয়ে সৌদি আরবে বাংলাদেশির মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The husband was beaten in Ayodhya for kissing his wife

‘পবিত্র নদীতে’ স্ত্রীকে চুম্বন, মার খেলেন স্বামী

‘পবিত্র নদীতে’ স্ত্রীকে চুম্বন, মার খেলেন স্বামী অযোধ্যায় পবিত্র সরায়ু নদীতে স্ত্রীকে চুম্বন করায় এক ব্যক্তিকে মারধর করে জনতা। ছবি: এনডিটিভি
ভিডিওতে দেখা যায়, ঘাটের কাছে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে গোসল করছে এক যুবক। পানিতে ডুব দিয়ে ওঠার পর খানিকটা ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন স্ত্রী। তিনি স্বামীকে আঁকড়ে ধরার চেষ্টা করেন। ওই সময় স্ত্রীর ঠোঁটে চুমু খান যুবক। এতে মুহূর্তেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে গোসলরত অনেকে।

ভারতের উত্তর প্রদেশের অযোধ্যায় পবিত্র সরায়ু নদীতে গোসল করার সময় স্ত্রীকে চুম্বন করায় এক ব্যক্তিকে মারধর করে ক্ষিপ্ত জনতা। নিপীড়নের এই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে এবং নিন্দার ঝড় ওঠে। ভিডিও হাতে পেয়েই তদন্তে নামে অযোধ্যা পুলিশ।

গঙ্গার সাতটি উপনদীর একটি সরায়ু। হিন্দুধর্মাবলম্বীদের কাছে এটি পবিত্র নদী বলে বিবেচিত হয়। বলা হয়ে থাকে, ভগবান রামের জন্মস্থান এই সরায়ু নদীর তীরে।

গত বুধবার সরায়ু নদীর ‘রাম কি পায়দি’ ঘাটে এই ঘটনা ঘটে। ভিডিওতে দেখা যায়, ঘাটের কাছে স্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে গোসল করছে এক যুবক। পানিতে ডুব দিয়ে ওঠার পর খানিকটা ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন স্ত্রী। তিনি স্বামীকে আঁকড়ে ধরার চেষ্টা করেন। ওই সময় স্ত্রীর ঠোঁটে চুমু খান যুবক। এতে মুহূর্তেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে গোসলরত অনেকে। প্রথমে এক ব্যক্তি এগিয়ে যুবককে আঘাত করেন এবং হুঁশিয়ারি দেন, ‘এটা অযোধ্যা, এখানে এমন অসভ্যতামি, অশ্লীলতা চলবে না।’

এ কথা বলতে না বলতে যুবককে মারতে শুরু করেন ওই ব্যক্তি। স্ত্রী তাকে বাধা দেয়ার চেষ্টা করেন। কিন্তু আরও কয়েকজন এগিয়ে এসে মারতে থাকেন যুবককে। চলতে থাকে একের পর এক চড়, ঘুষি আর লাথি।

ভিডিওতে দেখা যায় প্রাণপণে তাদের হাত থেকে স্বামীকে বাঁচানোর চেষ্টা করে ব্যর্থ হচ্ছেন তরুণী। ততক্ষণে অনেকে ঘিরে ফেলে যুবককে। শেষ পর্যন্ত ওইভাবে মারতে মারতেই তাকে পানি থেকে টেনে-হিঁচড়ে ঘাটে তুলে দেয়া হয়। ওই দম্পতিকে ঘাট এলাকা ছাড়তে বাধ্য করেন ওই দলে থাকা ১০-১২ জন পুরুষ।

নিপীড়নের এই ভিডিও সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়তেই অনেকে প্রশ্ন তোলেন, ‘অযোধ্যা হোক বা অন্য কোনো পবিত্র স্থানই হোক, স্ত্রীকে চুমু খেয়েছেন বলে স্বামীকে মারধর করা হবে? কিসের ভিত্তিতে এই কাজকে অপরাধ বলা হচ্ছে?

এরই মধ্যে ঘটনার ভিডিও পৌঁছায় পুলিশের কাছে। অপরাধীদের শনাক্ত করতে তদন্ত শুরু করে পুলিশ।

অযোধ্যার সিনিয়র সুপারিনটেনডেন্ট অব পুলিশ (এসএসপি) শাইলেস পান্ডে বলেন, ‘ভিডিওটি এক সপ্তাহ আগের, তবে এখন পর্যন্ত এ ঘটনায় কেউ কোনো অভিযোগ করেননি। অযোধ্যা কোতোয়ালি থানার পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। অভিযোগ করলে নিপীড়নের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
স্কুলে শিশুকে ‘যৌন নিপীড়ন’, দপ্তরিকে গ্রেপ্তারের দাবি
স্কুলে শিশুকে ‘যৌন নিপীড়ন’, দপ্তরির নামে মামলা
স্ত্রীর টাকায় নেশা-জুয়া, হিসাব চাইতে গিয়ে খুন
গৃহবধূকে ‘যৌন নিপীড়ন’, আ. লীগ নেতা কারাগারে
যৌন পেশায় ‘বাধ্য করায়’ ফুপু-ফুপার বি‌রু‌দ্ধে মামলা

মন্তব্য

p
উপরে