× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

বাংলাদেশ
A bus conductor was killed in a bus collision in the capital
hear-news
player
print-icon

রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় বাস কন্ডাক্টর নিহত

রাজধানীতে-বাসের-ধাক্কায়-বাস-কন্ডাক্টর-নিহত
ভিক্টোরিয়া ক্লাসিক বাসের ধাক্কায় ভিক্টর পরিবহনের বাসের কন্ডাক্টর মো. সিরাজ ভূঁইয়া নিহত হয়েছেন। ছবি: সংগৃহীত
গুরুতর আহত মো. সিরাজকে হাসপাতালে নিয়ে আসা মো. ওয়াসিম বলেন, ‘সিরাজ ভিক্টর ক্লাসিক বাসের কন্ডাক্টর ছিলেন। সকাল ৯ টার দিকে ওখানেই রাস্তায় দাঁড়ানো ছিল ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের বাস ঢাকা মেট্রো-ব -১৪-৩৬৭৭)। এ সময় ভিক্টোরিয়া ক্লাসিক পরিবহনের বাসের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন সিরাজ। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে প্রথমে একটি স্থানীয় হাসপাতাল, পরে অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।’

রাজধানীর কোতোয়ালি ন্যাশনাল হাসপাতালের সামনে ভিক্টোরিয়া ক্লাসিক বাসের ধাক্কায় ভিক্টর পরিবহনের বাসের কন্ডাক্টর (সহকারী) মো. সিরাজ ভূঁইয়া নিহত হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে এই দুর্ঘটনাটি ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসার পর চিকিৎসক সকাল সোয়া ১০টায় মৃত ঘোষণা করেন।

একই গ্রুপের অধীনে ‘ভিক্টোরিয়া ক্লাসিক’ ও ‘ভিক্টর’ এই দুটি পরিবহন রাজধানীতে যাত্রী পরিবহন করে।

গুরুতর আহত মো. সিরাজকে হাসপাতালে নিয়ে আসা মো. ওয়াসিম বলেন, ‘সিরাজ ভিক্টর ক্লাসিক বাসের কন্ডাক্টর ছিলেন। সকাল ৯ টার দিকে ওখানেই রাস্তায় দাঁড়ানো ছিল ভিক্টর ক্লাসিক পরিবহনের বাস ঢাকা মেট্রো-ব -১৪-৩৬৭৭)। এ সময় ভিক্টোরিয়া ক্লাসিক পরিবহনের বাসের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন সিরাজ। দ্রুত তাকে উদ্ধার করে প্রথমে একটি স্থানীয় হাসপাতাল, পরে অবস্থার অবনতি হলে দ্রুত ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।’

তিনি আরও বলেন, ‘নিহতের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার গোবিন্দপুর থানার গোসাই নগর গ্রামে। বর্তমানে গাজীপুর বোর্ড বাজারের গাছা এলাকায় থাকতেন তিনি।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবগত করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
লেগুনায় ট্রাকের ধাক্কা, নিহত ৫ শ্রমিক
বাসচাপায় কলেজছাত্র নিহত
ইট বোঝাই ট্রলির ধাক্কায় নিহত ৩

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
He died after falling from a building in Shahbag

শাহবাগে ভবন থেকে পড়ে মৃত্যু

শাহবাগে ভবন থেকে পড়ে মৃত্যু প্রতীকী ছবি
ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি শাহবাগ থানায় জানানো হয়েছে।

রাজধানীর শাহবাগে বাসার বারান্দা থেকে ছিটকে পড়ে গিয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে শাহবাগের পরীবাগে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, বাসার দ্বিতীয় তলা থেকে পাশে আম গাছ থেকে আম পাড়তে গিয়ে বারান্দা থেকে পড়ে যান ৫৫ বছর বয়সী আব্দুর রাজ্জাক।

তাকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যান সহকর্মী ইমরান হোসেন। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন। তার পায়ে জুতা ছিল।

রাজ্জাকের সহকর্মী ইমরান হোসেন জানান, রাজ্জাক ডানকান ব্রাদার লিমিটেডের মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি জামালপুর সদর।

ঢামেক হাসপাতালের পুলিশ ফাড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, মরদেহ হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি শাহবাগ থানায় জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
নদীতে ভাসছিল যুবলীগ নেতার বস্তাবন্দি মরদেহ
প্রবাসীর বাড়িতে ব্যবসায়ীর মরদেহ
মোবাইল হাতিয়ে নিতে কৌশলে ডেকে বন্ধুকে খুন

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The government is telling the myth of development

‘সরকার উন্নয়নের কল্পকাহিনি শোনাচ্ছে’

‘সরকার উন্নয়নের কল্পকাহিনি শোনাচ্ছে’
মোস্তফা মোহসীন মন্টু বলেন, ‘উৎপাদনহীন খাতে বরাদ্দের নামে মহা লুটপাট করছে, কিন্তু বেকার-যুবকদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্যোগ নেই। উন্নয়নের যে কল্পকাহিনি শোনাচ্ছেন এগুলো জনগণের উন্নয়ন নয়, আপনাদের সুবিধাভোগী দুর্নীতিবাজদের উন্নয়ন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে দুঃশাসনের রাজত্ব কায়েম করে মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার থেকে বহুদূর চলে গেছেন।’

সরকার উন্নয়ন নয়, উন্নয়নের কল্পকাহিনি শোনাচ্ছে বলে মনে করেন গণফোরামের একাংশের সভাপতি ও গত নির্বাচনে সরকারবিরোধী জোট ঐক্যফ্রন্টের নেতা মোস্তফা মোহসীন মন্টু।

শুক্রবার গণফোরামে তার নেতৃত্বাধীন ঢাকা মহানগর দক্ষিণের ত্রিবার্ষিক সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেন ড. কামাল হোসেনকে ছেড়ে আসা এই গণফোরাম নেতা।

মন্টু গত নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করেছেন। নির্বাচনের পর থেকেই গণফোরাম নিয়ে ‘নাটকীয়’ পরিস্থিতি তৈরি হয়। যার এক পক্ষের নেতা তিনি।

গত বছরের ৩ ডিসেম্বর ড. কামালকে ছাড়াই সম্মেলন করে দলের সভাপতি হন তিনি। দল হয়ে যায় দুই টুকরো।

গত ১২ মার্চ ড. কামাল হোসেনপন্থিদের সম্মেলনে মন্টুপন্থিদের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ পাওয়া যায়। এরপর দুই অংশ বিভিন্ন স্থানে কাউন্সিলও করছে।

মন্টু বলেন, ‘উৎপাদনহীন খাতে বরাদ্দের নামে মহা লুটপাট করছে, কিন্তু বেকার-যুবকদের জন্য কর্মসংস্থান সৃষ্টির উদ্যোগ নেই। উন্নয়নের যে কল্পকাহিনি শোনাচ্ছেন এগুলো জনগণের উন্নয়ন নয়, আপনাদের সুবিধাভোগী দুর্নীতিবাজদের উন্নয়ন। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা বলে দুঃশাসনের রাজত্ব কায়েম করে মুক্তিযুদ্ধের অঙ্গীকার থেকে বহুদূর চলে গেছেন।’

তিনি বলেন, ‘ছয় দফাকে কবর দিয়ে তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়ন হয় না। আপনারা বলুন তো এই সরকারের আমলে ছয় দফার একটি দফাও কি জীবিত আছে? পাকিস্তান আমলে ভোট-ভাতের অধিকার নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করেছি, আজ ৫০ বছর পরেও একইভাবে ভোটের অধিকার আদায়ে লড়াই করছি, বেঁচে থাকার জন্য লড়াই করছি। তাহলে আপনারা কীভাবে, কোন মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বাস্তবায়নের কথা বলছেন? মুক্তিযুদ্ধ কোটার নামে তরুণ মেধাবীদের দেশের সেবা করা ও নেয়া থেকে বঞ্চিত করছেন। এটা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নয়, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা হলো সাম্য, মানবিক মর্যাদা ও সামাজিক সুবিচারের মাধ্যমে কার্যকরী গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা করা।’

সকাল ১০টায় ইনস্টিটিউশন অফ ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান বক্তা ছিলেন গণফোরাম নির্বাহী সভাপতি অধ্যাপক ড. আবু সাইয়িদ।

তিনি বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলাম ধনী-গরিবের বৈষম্য কমাতে; কিন্তু এরা দুর্নীতির মাধ্যমে আরও বৈষম্য সৃষ্টি করছে। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে বিপক্ষের সনদপত্র দিচ্ছে তা স্রেফ জনগণের সঙ্গে ধোঁকাবাজি ব্যতীত আর কিছুই নয়।’

আবু সাইয়িদ বলেন, ‘পদ্মা সেতু তৈরিতে আপনাদের ভূমিকার প্রশংসা করছি, কিন্তু পদ্মা সেতুর শ্বেতপত্র জনগণের সামনে প্রকাশ করতে হবে।’

বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন গণফোরাম সাধারণ সম্পাদক সুব্রত চৌধুরী। এ ছাড়া গণফোরাম নির্বাহী সভাপতি মহসীন রশিদ, নির্বাহী সভাপতি মহিউদ্দিন আবদুল কাদেরসহ ঢাকা মহানগর ও কেন্দ্রীয় নেতারা বক্তব্য দেন।

গণফোরাম ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সম্মেলনে হাবিবুর রহমান বুলুকে সভাপতি ও তাজুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করে ৫১ সদস্যবিশিষ্ট জেলা কমিটি ঘোষণা করা হয়।

আরও পড়ুন:
কার্যালয় মন্টুদের দখলে, নতুন ঠিকানায় ড. কামালপন্থিরা
গণফোরামের সভাপতি মণ্টু, সাধারণ সম্পাদক সুব্রত
গণফোরামে মন্টুপন্থিদের সম্মেলনে কামালের শুভকামনা
মাঠে নামলেই বিজয়, ধারণা কামাল-জাফরুল্লাহর
জাতীয় ঐক্য চাওয়া ড. কামালের দলেই বিভেদ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Attack on Ratan Siddiquis house Demand for arrest of those involved

ভুয়া অভিযোগে তাণ্ডব মৌলবাদীদের: উদীচী

ভুয়া অভিযোগে তাণ্ডব মৌলবাদীদের: উদীচী নাট্যকার, গবেষক, শিক্ষক রতন সিদ্দিকী। ছবি: সংগৃহীত
বিবৃতিতে উদীচী শিল্পী গোষ্ঠী এ ধরনের জঘন্য হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে এবং এ ঘৃণ্য কাজের সাথে জড়িত সবার দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছে। এ ছাড়া, অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকী এবং তার পরিবারের সদস্যদের পূর্ণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিও জানাচ্ছে।

শিক্ষাবিদ, নাট্যকার, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকীর বাসায় হামলা এবং ভাঙচুরের ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছে বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী।

ভুয়া অভিযোগ তুলে, মৌলবাদী গোষ্ঠী এই হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেছে উদীচী। এই ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিও জানায় সংগঠনটি।

শুক্রবার রাতে উদীচীর সভাপতি অধ্যাপক বদিউর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক অমিত রঞ্জন দে স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়েছে।

দুপুরে একদল মুসল্লি জুমার নামাজের পর রাজধানীর উত্তরায় ৫ নম্বর সেক্টরে ৬এ রোডে ড. রতন সিদ্দিকীর বাসায় হামলা চালায়।

উদীচীর বিবৃতিতে বলা হয়, বাসার গেটের সামনে ভ্যানে সবজির দোকান বসানো এবং গাড়ি রাখাকে কেন্দ্র করে যে বচসার শুরু, তা থেকে রতন সিদ্দিকীকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করা ছাড়াও তার স্ত্রী, উদীচী কেন্দ্রীয় সংসদের সাবেক সদস্য নাট্যকর্মী, শিক্ষক ফাহমিদা হক কলিকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করা এবং অধ্যাপক রতন সিদ্দিকীর বাসার দারোয়ান, গাড়িচালককেও মারধর করেছে একদল দুর্বৃত্ত।

নামাজের সময় বাধা সৃষ্টি করার ভুয়া অভিযোগ তুলে এসব তাণ্ডব চালিয়েছে একদল মৌলবাদী বলেও বিবৃতিতে জানায় উদীচী।

বিবৃতিতে বলা হয়, উদীচী এ ধরনের জঘন্য হামলার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে এবং এ ঘৃণ্য কাজের সাথে জড়িত সবার দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানাচ্ছে। এ ছাড়া, অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকী এবং তার পরিবারের সদস্যদের পূর্ণ নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবিও জানাচ্ছে।

ভবিষ্যতে এ ধরনের হামলা হলে সব প্রগতিশীল মানুষকে সাথে নিয়ে দুর্বার আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেয় উদীচী।

সিপিবির নিন্দা

অধ্যাপক ড. রতন সিদ্দিকী ও তার সহধর্মিণী ফাহমিদা হক কলির উপর হামলায় ক্ষোভ ও নিন্দা প্রকাশ করেছে সিপিবি।

সিপিবি ঢাকা নগর উত্তর বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি, সিপিবি ঢাকা মহানগর উত্তর কমিটির সভাপতি ডা. সাজেদুল হক রুবেল ও সাধারণ সম্পাদক লুনা নুর বিবৃতিতে হামলার নিন্দা জানান।

হামলাকে উগ্র সাম্প্রদায়িক বলে দাবি করে বিবৃতিতে নেতারা বলেন, 'ড. রতন সিদ্দিকীর উপর এ হামলা প্রকৃত অর্থে বাংলাদেশের মুক্তবুদ্ধিচর্চা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক-সাংস্কৃতিক আন্দোলনের উপর হামলা! অনতিবিলম্বে হামলাকারীদের গ্রেপ্তার, বিচার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং তার পরিবারের নিরাপত্তার ব্যবস্থার জোর দাবি জানাই।'

যেভাবে হামলা

রতন সিদ্দিকী নিউজবাংলাকে বিকেলে বলেন, ‘‘আজকে দুপুরের সময় এক দল মুসল্লি ‘নারায়ে তাকবির’ স্লোগান দিয়ে আমার বাসায় হামলা করে। তারা আমার কলাপসিবল গেইট ভাঙার চেষ্টা করে। এক ঘণ্টা চলার পর পুলিশ-র‌্যাব এসে তাদেরকে সরিয়ে দেয়। প্রায় শ দুয়েক লোক ছিল।’

কেন হামলা চালিয়েছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘হঠাৎ করে একজন এসে বলেছে, আমি নাকি বলেছি, এখানে ধর্মের নামে ভণ্ডামি হয়। অথচ আমি কিছুই বলিনি। আমার বাসার সামনে একটি মোটরসাইকেল রাখা ছিল, সেটি সরানোর জন্য ড্রাইভার হর্ন দেয়। একজন মসজিদ থেকে এসে বলেছে, নামাজের সময় কেনো হর্ন দিল। এরপরই আরেকজন এসে বলে, আমি নাাকি ধর্মের বিরুদ্ধে বলি। এই বলে হামলা করে।’

রতন সিদ্দিকীর মেয়ে পূর্ণাভা হক সিদ্দিকী তার বাবা ও তাদের বাসায় হামলার অভিযোগ নিয়ে ফেসবুকে একটি পোস্ট দিয়েছেন।

সেখানে তিনি লেখেন, ‘আজকে জুম্মার পর আমাদের গেটের সামনে সাম্প্রদায়িক হামলা হয়, আমার বাবাকে ঘুষি দেয়, ধাক্কা দেয়, নাস্তিক মালাউন হিন্দু বলে অকথ্য ভাষায় গালি দেয়, আমার আম্মুকে অশ্লীল ভাষায় গালি দেয়, আমাদের ড্রাইভার এবং দারোয়ানের উপর হামলা করে।’

এই হামলার নেপথ্যে বাসার গেটের সামনে ভ্যানে করে বাজার বসানোকে বাধা দেয়াকে কারণ বলে জানান।

লেখেন, ‘আমাদের গেটের সামনে ভ্যান দিয়ে বাজার বসে আর শুক্রবার আমাদের রাস্তা পুরোটা ব্লক করে রাখে। আমাদের গাড়ি ঢোকার জন্য দুইবার হর্ন দেয়ার সাথে সাথে একজন এসে বলল গাড়ি ঢুকতে দিবে না। গাড়িতে আম্মু-বাবা ছিল, একটা বাইক গেটের সামনে। সরানোর জন্য বলল। মুহূর্তেই বলল নামাজের সময় গাড়ি ঢুকবে না।

‘বাবা গাড়ি থেকে নামার পর পর আম্মুকে আর বাবাকে মালাউন হিন্দু নাস্তিক বলে গালাগাল করে। একপর্যায়ে বলে এই বাড়িতে নাস্তিক থাকে, এরা ইসলাম অবমাননা করেছে। বলেই নারায়ে তাকবির বলে হামলা শুরু করে।’

হামলাকে পূর্বপরিকল্পিত বলে দাবি করেন তিনি। এ ছাড়া এটি মৌলবাদীদের কাজ বলেও দাবি করেন। লেখেন, ‘আমার বাবার উপর আজকে এই সাম্প্রদায়িক হামলার জন্য দায়ী কারা? বাবার রাজনৈতিক আদর্শ, সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ, মৌলবাদের প্রতি সোচ্চার হওয়া, কুকুর খাওয়ানো, মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে কথা এগুলো অপরাধ?’

এ ছাড়া ঘটনার প্রায় দেড় ঘণ্টা পর বাসার সামনে পুলিশ ও র‍্যাব উপস্থিত হয় বলে জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনার গাড়িবহরে হামলা: অস্ত্র ও বিস্ফোরক মামলার সাক্ষ্য শুরু
নৌকার সমর্থকদের বাড়িতে বিজয়ী প্রার্থীর ‘হামলা’
শেখ হাসিনার বহরে হামলা: অস্ত্র আইনে বিচার শুরু
রমনায় বোমা হামলা: বিস্ফোরক মামলার যুক্তি উপস্থাপন ১৪ জুলাই
আ.লীগের সম্মেলনে ইমাম-ওলামাদের হামলা-ভাঙচুর: গ্রেপ্তার ৫

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Russell of Evali is not giving the password the customers money is stuck

পাসওয়ার্ড দিচ্ছেন না ইভ্যালির রাসেল, আটকে গ্রাহকের টাকা

পাসওয়ার্ড দিচ্ছেন না ইভ্যালির রাসেল, আটকে গ্রাহকের টাকা সংবাদ সম্মেলনে ইভ্যালির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক। ছবি: নিউজবাংলা
বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, ‌‘এক পাসওয়ার্ডেই আটকে আছে ইভ্যালির গ্রাহকদের অর্থ। বারবার ধরনা দিয়েও সিইও মোহাম্মদ রাসেলের কাছ থেকে পাসওয়ার্ড উদ্ধার করতে পারেনি পরিচালনা পর্ষদ।’

বারবার ধরনা দিয়েও ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান ইভ্যালির সাবেক প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মোহাম্মদ রাসেলের কাছ থেকে মূল সার্ভারের পাসওয়ার্ড উদ্ধার করা যায়নি, এ কারণে আটকে আছে গ্রাহকদের টাকা।

ইভ্যালির পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক প্রতিষ্ঠানের ধানমন্ডি কার্যালয়ে অডিটের সবশেষ পরিস্থিতি নিয়ে শুক্রবার বিকেলে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।

বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, ‌‘এক পাসওয়ার্ডেই আটকে আছে ইভ্যালির গ্রাহকদের অর্থ। বারবার ধরনা দিয়েও সিইও মোহাম্মদ রাসেলের কাছ থেকে পাসওয়ার্ড উদ্ধার করতে পারেনি পরিচালনা পর্ষদ।’

তিনি বলেন, ‘ইভ্যালিরর কাছে এখন প্রায় ২৫ কোটি টাকার পণ্য রয়েছে। পাওনাদারদের তথ্য না পাওয়ায় ২৫ কোটি টাকার পণ্য থাকলেও তা দেয়া যাচ্ছে না। এর ব্যাংকে যে টাকা আছে, তা দিয়ে গ্রাহকদের পাওনা মেটানো সম্ভব নয়।’

এ মাসেই ইভ্যালির অডিট কার্যক্রম শেষ হবে এমন আশা প্রকাশ করে বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক বলেন, ‘আমরা কাজ করে যাচ্ছি। চলতি মাসের শেষ নাগাদ ইভ্যালির অডিটের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্ট পাওয়া যাবে।’

সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন বোর্ডের সদস্য সাবেক সচিব মোহাম্মদ রেজাউল আহসান, মাহবুবুল করিম, চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ ও আইনজীবী ব্যারিস্টার খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।

সংবাদ সম্মেলনের আগে ইভ্যালির প্রধান কার্যালয়ের সামনে প্রতিষ্ঠানটির সাবেক সিইও রাসেলের মুক্তির দাবিতে বিক্ষোভ করেন গ্রাহকরা।

তাদের দাবি, ইভ্যালির রাসেলকে মুক্তি দিয়ে ব্যবসা পরিচালনার সুযোগ দিলে প্রতিষ্ঠান ঘুরে দাঁড়াবে। গ্রাহকরা তাদের টাকা ফেরত পাবেন। মার্চেন্ডরাও পাবেন। মিলবে বিনিয়োগকারীও।

অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে করা এক মামলায় ২০২১ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর ইভ্যালির চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন ও সিইও রাসেলকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। এরপর তাদের বিরুদ্ধে দেশের বিভিন্ন জেলায় বেশ কয়েকটি মামলা হয়।

পণ্য অর্ডার দিয়ে টাকা জমার পর পণ্য ও অর্থ ফেরত না পেয়ে গত সেপ্টেম্বরে ইভ্যালির অবসায়ন চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করেন এক গ্রাহক। এর ধারাবাহিকতায় গত ১৮ অক্টোবর আদালত ইভ্যালির ব্যবস্থাপনায় পাঁচ সদস্যের নতুন পরিচালনা পর্ষদ গঠন করে দেয়।

আরও পড়ুন:
ইভ্যালির রাসেল-শামীমার নামে রংপুরে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা
ইভ্যালির লেনদেনের তথ্য জানাতে হাইকোর্টের নির্দেশ
৯ মামলায় জামিন, তবে কারাগারেই থাকছেন ইভ্যালির রাসেল

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Fugitive JMB member arrested after 5 years

পলাতক জেএমবি সদস্যকে ৫ বছর পর গ্রেপ্তার

পলাতক জেএমবি সদস্যকে ৫ বছর পর গ্রেপ্তার
২০১৭ সালের ২১ আগস্ট রাতে লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানার টংতাশা এলাকায় অভিযান চালায় স্থানীয় ডিবি পুলিশ। ওই সময় জেএমবি এর কয়েকজন সক্রিয় সদস্য বৈঠকে বসেছিলেন। এই বৈঠকে মেহেদী ছিলেন। তারা সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং নাশকতামূলক কার্যক্রমের উদ্দেশ্যে বৈঠকে মিলিত হয়। ডিবির অভিযান পরিচালনার সময় পালিয়ে যান মেহেদী।

গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অভিযানের সময় পালিয়ে যাওয়া জামায়াতুল মুজাহিদিন বাংলাদেশের (জেএমবি) এক সদস্যকে ৫ বছর পর গ্রেপ্তার করেছে অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (এটিইউ)।

বৃহস্পতিবার বিকেলে তাকে যশোর জেলার অভয়নগরের নওয়াপাড়া সুন্দলীবাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার আসামির নাম মেহেদী হাসান। তার বাড়ি লামনিরহাটের হাতিবান্ধা থানায়।

এটিইউর পুলিশ সুপার (মিডিয়া অ্যান্ড অ্যাওয়ারনেস উইং) মোহাম্মদ আসলাম খান শুক্রবার দুপুরে সই করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

তিনি জানান, মেহেদী গ্রেপ্তারি পরোয়ানাভুক্ত আসামি। গ্রেপ্তারের সময় তার কাছ থেকে একটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

এটিইউ জানায়, ২০১৭ সালের ২১ আগস্ট রাতে লালমনিরহাট জেলার হাতিবান্ধা থানার টংতাশা এলাকায় অভিযান চালায় স্থানীয় ডিবি পুলিশ। ওই সময় জেএমবির কয়েকজন সক্রিয় সদস্য বৈঠকে বসেছিলেন। এই বৈঠকে মেহেদী ছিলেন। তারা সরকার ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং নাশকতামূলক কার্যক্রমের উদ্দেশ্যে বৈঠকে মিলিত হয়। ডিবির অভিযান পরিচালনার সময় পালিয়ে যান মেহেদী।

এরপর ৫ বছর যশোরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আত্মগোপন ছিলেন মেহেদী। বগুড়া, যশোর ও লালমনিরহাটের বিভিন্ন স্থানে জঙ্গি তৎপরতা ও পরিকল্পনায় তার উপস্থিতি ও অংশগ্রহণের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

তার নামে আইনি ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

আরও পড়ুন:
ধর্মান্তরিত মুক্তিযোদ্ধাকে কুপিয়ে হত্যা: ৬ জেএমবি সদস্যের ফাঁসি
৫ জেএমবি সদস্যকে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা
মৃত্যুদণ্ড পাওয়া জেএমবি নেতা গ্রেপ্তার
জেএমবি সদস্যের সাড়ে ২৬ বছর জেল
খুলনা জেএমবি-প্রধানের ২০ বছরের কারাদণ্ড

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The drivers associate died in a truck accident at Jatrabari

যাত্রাবাড়ীতে ট্রাকচাপায় চালকের সহযোগীর মৃত্যু

যাত্রাবাড়ীতে ট্রাকচাপায় চালকের সহযোগীর মৃত্যু
নিহত সিদ্দিকের সহকর্মী আব্দুল জলিল জানান, যাত্রাবাড়ীর মাতুয়াইল ডেমরা রোডে একটি ট্রাক সিদ্দিককে চাপা দেয়। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে ট্রাকচাপায় সিদ্দিক আলী নামে এক ট্রাকচালকের সহযোগী নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। সকাল পৌনে ১০টার দিকে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

নিহতের সহকর্মী আব্দুল জলিল জানান, সিদ্দিক পেশায় ট্রাকচালকের সহযোগী। যাত্রাবাড়ীর মাতুয়াইল ডেমরা রোডে একটি ট্রাক তাকে চাপা দেয়। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।

তিনি জানান, সিদ্দিকের বাড়ি ঝিনাইদহ জেলায়।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) মো. বাচ্চু মিয়া বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে জানানো হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, নিহতের পূর্ণাঙ্গ পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
An old woman was killed when an autorickshaw hit her in Khilgaon

খিলগাঁওয়ে অটোরিকশার ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত

খিলগাঁওয়ে অটোরিকশার ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত ছবি: সংগৃহীত
এসআই সোনিয়া পারভীন বলেন, নন্দিপাড়া এলাকায় স্বামী জহির উদ্দিনসহ পরিবার নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন ৮০ বছর বয়সী আমেনা বিবি। সকালে হাঁটাহাঁটি করতেন তিনি। আজ সকালে বাসার সামনে দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময়ে একটি অটোরিকশা তাকে ধাক্কা দেয়।

রাজধানীর খিলগাঁও নন্দিপাড়া এলাকায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় আমেনা বিবি নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

খিলগাঁও থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সোনিয়া পারভীন বলেন, নন্দিপাড়া এলাকায় স্বামী জহির উদ্দিনসহ পরিবার নিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতেন ৮০ বছর বয়সী আমেনা বিবি। সকালে হাঁটাহাঁটি করতেন তিনি। আজ সকালে বাসার সামনে দিয়ে রাস্তা পার হওয়ার সময়ে একটি অটোরিকশা তাকে ধাক্কা দেয়। এতে তিনি গুরুতর আহত হন। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে মুগদা হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

তিনি জানান, ঘটনার পর স্থানীয়রা চালককে আটক করে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
কাভার্ড ভ্যানের চাপায় সমবায় কর্মকর্তা নিহত
চাকা ফেটে বাস উল্টে আহত ২০
পুঠিয়ায় বাসচাপায় লেগুনার ২ আরোহী নিহত
গাছের সঙ্গে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় শ্রমিক নিহত
প্রবাসীকে আনতে গিয়ে খুঁটিতে মাইক্রোর ধাক্কা, নিহত ৩

মন্তব্য

p
উপরে