× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট

বাংলাদেশ
Withdrawal of the boats candidacy by the A League leader
hear-news
player
print-icon

নৌকার প্রার্থিতা প্রত্যাহার আ.লীগ নেতার

নৌকার-প্রার্থিতা-প্রত্যাহার-আলীগ-নেতার
আলেকজান্ডার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন। ছবি: সংগৃহীত
রামগতি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী হেকমত আলী বলেন, ‘অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে আকবর হোসেন লিখিতভাবে তার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।’

রামগতি উপজেলার আলেকজান্ডার ইউনিয়ন পরিষদের উপনির্বাচন আগামী ১৫ জুন। ২৬ মে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। তবে এক দিন আগে বুধবার মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আকবর হোসেন।

তিনি বর্তমানে আলেকজান্ডার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

আকবরের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের পর এখন মাঠে রয়েছেন স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী শামীম আব্বাছ, রিয়াজ হোসেন, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আবুল ফাতাহ।

রামগতি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা কাজী হেকমত আলী বুধবার বেলা আড়াইটার দিকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, ‘অসুস্থতার কারণ দেখিয়ে আকবর হোসেন লিখিতভাবে তার প্রার্থিতা প্রত্যাহার করে নিয়েছেন। বিষয়টি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।’

আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মীদের অভিযোগ, আকবর ২০ লাখ টাকার বিনিময়ে তদবির করে ঢাকা থেকে মনোনয়ন এনেছেন। অথচ দুঃসময়ের নির্যাতিত নেতা আবু নাসেরের নাম তালিকার এক নম্বরে পাঠানো হলেও তাকে মনোনয়ন দেয়া হয়নি। এটি অত্যন্ত দুঃখজনক। আকবরের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়ার দাবি তৃণমূল নেতাকর্মীদের।

গত ৭ জানুয়ারি আলেকজান্ডার ইউপির চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। এরপর ওই ইউনিয়নের তফসিল ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। আগামী ১৫ জুন এই ইউনিয়নে উপনির্বাচন হবে।

তৃণমূল থেকে তিনজন চেয়ারম্যান প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠায় উপজেলা আওয়ামী লীগ। তারা হলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু নাসের, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি জহির উদ্দিন বাবর, আলেকজান্ডার ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আকবর হোসেন। তাদের মধ্যে আকবরকে মনোনয়ন দেয় কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ।

প্রার্থিতা প্রত্যাহার নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাস দিয়েছেন আকবর। সেখানে তিনি লেখেন, ‘শারীরিক অসুস্থতার কারণে উপনির্বাচন থেকে প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছি। যারা রাতদিন কষ্ট করেছেন, তাদের কাছে আজীবন ঋণী থাকব। চিকিৎসার জন্য ঢাকার উদ্দেশে রওনা দিয়েছি।’

আকবরের সঙ্গে কথা বলতে তার মোবাইল নাম্বারে একাধিকবার কল করা হলেও তা বন্ধ পাওয়া যায়।

রামগতি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবদুল ওয়াহেদ বলেন, ‘আমরা ওয়ার্ড পর্যায় থেকে নির্বাচনের সব প্রস্তুতি নিয়েছি। হঠাৎ আকবর আমাদের সঙ্গে পরামর্শ না করেই প্রার্থিতা প্রত্যাহার করেছেন। এটি দলের জন্য অমঙ্গল হবে।

‘আকবরের নাম তিন নম্বরে পাঠানো হলেও তদবির করে মনোনয়ন এনেছেন। বিষয়টি জেলা ও কেন্দ্রীয় নেতাদের জানানো হবে। তারপর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
টাঙ্গাইল-৭ আসনে উপনির্বাচনের ভোট শুরু
মির্জাপুর আসন ধরে রাখতে মরিয়া আ.লীগ
টাঙ্গাইল-৭ আসনে উপনির্বাচন: কেন্দ্রে কেন্দ্রে যাচ্ছে সরঞ্জাম
টাঙ্গাইল-৭: ঘাঁটিতে আ.লীগের প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল
ভোটের অপেক্ষায় সিরাজগঞ্জ-৬ আসন

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Today is the day of release of Abbas Uddin

আজ আব্বাস উদ্দিনের ‘মুক্তির দিন’

আজ আব্বাস উদ্দিনের ‘মুক্তির দিন’ পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন। ছবি; নিউজবাংলা
বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন বলেন, ‘আমার কাছে এই বিজয় ঈদের আনন্দের চেয়ে কম নয়। সারা জীবন ঘাটে এসে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তির দিন আজ। এমন দিনে আসনে না পারলে মনে দুঃখ থেকে যেত। এখন মনে হয় পরিপূর্ণতা পেয়েছে।’

খুলনা থেকে মাদারীপুরের বাংলাবাজার ঘাটে পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসেছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্বাস উদ্দিন। বয়স ৭০ ছুঁই ছুঁই।

শনিবার সকাল ৮টার দিকে কথা হয় তার সঙ্গে। তিনি বলেন, ‘আমি সারা রাত ঘুমাতে পারে নাই। কখন আসব, আর মুক্তির গান শুনব।’

‘পদ্মা সেতু ঘোষণার দিন থেকেই ইচ্ছে ছিল প্রধানমন্ত্রীকে দেখতে আসব। শুক্রবারই আসার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু পরিবারের লোকজন আসতে দেয় নাই। পরে রাত ৩টার দিকে গাড়িতে করে রওনা দেই। সকাল ৭টায় শিবচর উপজেলার পাচ্চর নামিয়ে দেয়। পরে প্রায় ৫ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে সভামঞ্চের কাছে এসেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এখন শান্তি পাচ্ছি। প্রশাসনের ভাইরা খুব সহযোগিতা করছে, না হলে মঞ্চের কাছে আসতে পারতাম না।’

আজকের দিনটি এই বীর মুক্তিযোদ্ধার কাছে মুক্তির দিন। আর এমন দিনে না আসলে আক্ষেপ থেকে যেত আজীবন। তাই এখানে আসতে পেরে উচ্ছ্বসিত বীর মুক্তিযোদ্ধা। যে উচ্ছ্বাস তার কাছে ঈদের আনন্দের চেয়েও কম নয়।

তিনি বলেন, ‘আমার কাছে এই বিজয় ঈদের আনন্দের চেয়ে কম নয়। সারা জীবন ঘাটে এসে অনেক দুর্ভোগ পোহাতে হয়েছে। এই দুর্ভোগ থেকে মুক্তির দিন আজ। এমন দিনে আসনে না পারলে মনে দুঃখ থেকে যেত। এখন মনে হয় পরিপূর্ণতা পেয়েছে। আর কয় দিনই বাঁচব। যে কয় দিন আসি, সেই কয় দিন শান্তিতে পার হতে পারব।’

আরও পড়ুন:
নিরাপত্তার চাদরে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্ত
পদ্মাপাড়ে বৃষ্টির ছাট
পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠান বঞ্চিত মুন্সীগঞ্জের এসপি
পদ্মার কাঁঠালবাড়ী প্রান্ত জনসমুদ্র
পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আগে সুধী সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Colorful procession on the occasion of inauguration of Padma Bridge

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে মানিকগঞ্জে বর্ণাঢ্য র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: নিউজবাংলা
মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ বলেন, ‘পদ্মা সেতু আমাদের গর্ব। কারণ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু আমরা নির্মাণ করতে পেরেছি। বিশ্বকে আমরা আমাদের সক্ষমতার কথা জানিয়ে দিলাম। আমরা পিছিয়ে নেই, আমরাও এগিয়ে যাচ্ছি।’

পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শনিবার সকাল ৯টার দিকে মানিকগঞ্জ সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠ থেকে শোভাযাত্রাটি বের হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

জেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রশাসনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের আয়োজনে শোভাযাত্রায় সরকারি-বেসরকারি কর্মকর্তা ছাড়াও স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীরা অংশ গ্রহণ করেন।

শোভাযাত্রায় জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ, পুলিশ সুপার মুহাম্মদ গোলাম আজাদ খাঁন, সিভিল সার্জন মোয়াজ্জেম আলী খাঁন চৌধুরী, র‌্যাব-৪ এর লেফটেন্যান্ট কোম্পানি কোমান্ডার মো. আরিফ হোসেন, পৌর মেয়র মো. রমজান আলী, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট গোলাম মহিউদ্দীন ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালামসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ আব্দুল লতিফ বলেন, ‘পদ্মা সেতু আমাদের গর্ব। কারণ নিজস্ব অর্থায়নে পদ্মা সেতু আমরা নির্মাণ করতে পেরেছি। বিশ্বকে আমরা আমাদের সক্ষমতার কথা জানিয়ে দিলাম। আমরা পিছিয়ে নেই, আমরাও এগিয়ে যাচ্ছি।’

আরও পড়ুন:
নিরাপত্তার চাদরে পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্ত
পদ্মাপাড়ে বৃষ্টির ছাট
পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠান বঞ্চিত মুন্সীগঞ্জের এসপি
পদ্মার কাঁঠালবাড়ী প্রান্ত জনসমুদ্র
পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আগে সুধী সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Munshiganj SP deprived of Padma bridge inauguration ceremony

পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠান বঞ্চিত মুন্সীগঞ্জের এসপি

পদ্মা সেতু উদ্বোধন অনুষ্ঠান বঞ্চিত মুন্সীগঞ্জের এসপি
এসপি মোমেন বলেন, ‘সন্ধ্যা ৬টার দিকে জানতে পারি আমার করোনা পজিটিভ। তাই হোম আইসোলেশনে আছি। তবে যেহেতু জেলার আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর দায়িত্বে আছি, তাই ঘরে থেকেও কাজ করছি।’

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে থাকতে পারছেন না মুন্সীগঞ্জের পুলিশ সুপার আব্দুল মোমেন।

শুক্রবার বিকেল ৬টায় আব্দুল মোমেনের করোনা পরীক্ষার ফল পজিটিভ আসে।

সেতুর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যারা অংশ নেবেন তাদের সবার করোনা পরীক্ষা বাধ্যতামূলক হওয়ায় অনুষ্ঠানের ৪৮ ঘণ্টা আগে নমুনা পাঠান এসপি।

এসপি মোমেন বলেন, ‘সন্ধ্যা ৬টার দিকে জানতে পারি আমার করোনা পজিটিভ। তাই হোম আইসোলেশনে আছি। তবে যেহেতু জেলার আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর দায়িত্বে আছি, তাই ঘরে থেকেও কাজ করছি।

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্বপ্নের পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করবেন। এই অনুষ্ঠানে থাকতে পারলে পরিপূর্ণ পরিতৃপ্তি পেতাম।’

আরও পড়ুন:
পুকুরে পদ্মার আদলে সেতু
পদ্মা সেতুর খরচ উঠতে কতদিন লাগবে?
পদ্মার পারে খুলনার ৫০ হাজার মানুষ
১২ হাজার মানুষ নিয়ে পদ্মা সেতু অভিমুখে এমপি শাওন
মাহেন্দ্রক্ষণের প্রতীক্ষা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The open kirtan is open in the fireworks

আতশবা‌জি‌তে আ‌লো‌কিত কীর্তনখোলা

আতশবা‌জি‌তে আ‌লো‌কিত কীর্তনখোলা আতশবাজিতে আলোকিত ব‌রিশা‌লের কীর্তনখোলা নদী। ছবি: নিউজবাংলা
ব‌রিশাল সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের মেয়র সের‌নিয়াবাত সা‌দিক আব্দুল্লাহ নিউজবাংলাকে ব‌লেন, ‘ব‌রিশাল বিভাগ থে‌কে এক লাখ মানুষ যাচ্ছেন পদ্মা সেতু উ‌দ্বোধনী সমা‌বেশস্থ‌লে। জনসমা‌বে‌শে যোগ দি‌তে আন‌ন্দিত দ‌ক্ষিণাঞ্চ‌লের মানুষ ল‌ঞ্চে ক‌রে রওনা হ‌য়ে‌ছেন। আমরা নিরাপত্তা নি‌শ্চি‌তে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছি।’

আর কিছু মুহূর্তের অপেক্ষা; উ‌দ্বোধন হতে যাচ্ছে দ‌ক্ষিণাঞ্চলবাসীর স্ব‌প্নের পদ্মা সেতু। শ‌নিবারের উ‌দ্বোধনী জনসভায় যোগ দি‌তে শুক্রবার রাতে ব‌রিশাল বিভা‌গের বি‌ভিন্ন এলাকা থে‌কে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী ও সাধারণ মানুষ রওনা হ‌ন তিন‌টি লঞ্চে ক‌রে।

শুক্রবার রাত ১১টার দি‌কে ব‌রিশা‌লের কীর্তনখোলা নদী‌তে এ‌সে পৌঁছায় লঞ্চগু‌লো। এরপর প্রতি‌টি লঞ্চ থে‌কে ফোটানো হয় আতশবা‌জি। এ সময় ব‌রিশাল নদীবন্দ‌রে নোঙর করা অন্যান্য লঞ্চ থে‌কেও আতশবা‌জি প্রদর্শন করা হয়; আ‌লো‌কিত হয়ে ওঠে কীর্তনখোলা।

টানা ২০ মি‌নি‌ট আতশবা‌জি ফোটানো হয়। এরপর এক এক ক‌রে সমা‌বেশস্থ‌লের উ‌দ্দে‌শে রওনা হয় লঞ্চগুলো।

প্রথ‌মে সুরভী-৭ লঞ্চ ব‌রিশা‌লের কীর্তণনখোলা নদী অ‌তিক্রম ক‌রে। চোখ ধাঁধানো আলোকসজ্জা করা হয় লঞ্চ‌টি‌তে। প্রতি‌টি ল‌ঞ্চেই এমন আ‌লোকসজ্জার সঙ্গে নাচ-গানে মেতে ওঠেন মানুষ।

কেন্দ্রীয় লঞ্চ মা‌লিক সমি‌তির সহসভাপ‌তি ও ব‌রিশাল মহানগর আওয়ামী লী‌গের সহসভাপ‌তি সাইদুর রহমান রিন্টু নিউজবাংলাকে ব‌লেন, ‘ব‌রিশাল বিভাগ থে‌কে ৬০‌টি লঞ্চ পদ্মা সেতু উ‌দ্বোধনী সমা‌বেশস্থ‌লে যাচ্ছে। এর ম‌ধ্যে অ‌নেক লঞ্চ রওনা হ‌য়ে‌ছে নেতা-কর্মী‌দের নি‌য়ে। আমরা ই‌তিহা‌সের সাক্ষী হ‌তে উচ্ছ্ব‌সিত হ‌য়ে সমা‌বেশস্থ‌লে যা‌চ্ছি।’

ব‌রিশাল নদীবন্দ‌রে রা‌তে গি‌য়ে আওয়ামী লী‌গ ও এর অঙ্গসংগঠ‌নের নেতা-কর্মী‌দের ব্যাপক সমাগম দেখা গে‌ছে। ত‌বে নিরাপত্তার স্বা‌র্থে ব‌রিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামী লী‌গের পাস কার্ড ছাড়া ব‌রিশাল নদীবন্দ‌রে প্রবেশ কর‌তে পা‌রে‌নি কেউ। এই নদীবন্দর থে‌কে ৮‌টি লঞ্চ ছে‌ড়ে গেছে পদ্মা সেতু উদ্বোধনী সমা‌বেশস্থ‌লের উ‌দ্দে‌শে।

ব‌রিশাল সি‌টি কর‌পো‌রেশ‌নের মেয়র সের‌নিয়াবাত সা‌দিক আব্দুল্লাহ নিউজবাংলাকে ব‌লেন, ‘ব‌রিশাল বিভাগ থে‌কে এক লাখ মানুষ যাচ্ছে পদ্মা সেতু উ‌দ্বোধনী সমা‌বেশস্থ‌লে। জনসমা‌বে‌শে যোগ দি‌তে আন‌ন্দিত দ‌ক্ষিণাঞ্চ‌লের মানুষ ল‌ঞ্চে ক‌রে রওনা হ‌য়ে‌ছেন। আমরা নিরাপত্তা নি‌শ্চি‌তে যথাযথ ব্যবস্থা নিয়েছি।’

আরও পড়ুন:
পদ্মার পারে খুলনার ৫০ হাজার মানুষ
১২ হাজার মানুষ নিয়ে পদ্মা সেতু অভিমুখে এমপি শাওন
মাহেন্দ্রক্ষণের প্রতীক্ষা
পদ্মা সেতু উদ্বোধন ঘিরে পুলিশের ট্রাফিক নির্দেশনা
সেতু দেখে লঞ্চডুবির ভয়াল স্মৃতি মনে ভাসে

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Narsingdi in colorful attire at the inauguration of Padma Bridge

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণিল সাজে নরসিংদী

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণিল সাজে নরসিংদী পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে নরসিংদীর মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে জ্বলে উঠে আলো। ছবি: নিউজবাংলা
মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে আজ বিকেল ৩টায় দেশের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড দল ‘মাইলস’ এর শিল্পীদের মধ্যে গান পরিবেশন করবেন শাফিন আহমেদ। কনসার্টটি দর্শকের জন্য উন্মুক্ত থাকবে বলে জানা গেছে নরসিংদী জেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে।

পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে বর্ণিল সাজে সেজেছে নরসিংদী। শনিবার আত্মমর্যাদা ও প্রত্যয়ের পদ্মা সেতু উদ্বোধন উপলক্ষে নানা আয়োজনের অংশ হিসেবে শুক্রবার গভীর রাতেই জেলার মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে জ্বলে ওঠে আলো।

এদিকে পদ্মা সেতু উদ্বোধনের আনন্দ জেলায় দ্বিগুণ করতে জেলা প্রশাসন আয়োজন করছে ‘প্রত্যয়ের জয়গান’ নামের একটি কনসার্ট।

মোসলেহ উদ্দিন ভূইয়া স্টেডিয়ামে আজ বিকেল ৩টায় দেশের জনপ্রিয় ব্র্যান্ড দল ‘মাইলস’-এর শিল্পীদের মধ্যে গান পরিবেশন করবেন শাফিন আহমেদ। কনসার্টটি দর্শকের জন্য উন্মুক্ত থাকবে বলে জানা গেছে নরসিংদী জেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে।

নরসিংদী বিভিন্ন উপজেলাসহ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে রয়েছে দিনব্যাপী কর্মসূচি। এর মধ্যে শনিবার সকাল ৯টার দিকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় প্রাঙ্গণ থেকে স্টেডিয়াম পর্যন্ত এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রারও আয়োজন করা হয়েছে।

এরপর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নের পদ্মা সেতু উদ্বোধনের কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠান বড় পর্দায় উপভোগ করবেন নরসিংদীবাসী।

বর্ণিল এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে নরসিংদী জেলা প্রশাসক আবু নইম মোহাম্মদ মারুফ খানসহ স্থানীয় সম্মানিত ব্যক্তিরা ও জনপ্রতিনিধিরা অংশ নেবেন।

আরও পড়ুন:
‘ভারতীয় নাচনেওয়ালিকে দেবেন ৩ কোটি, মানবে না জনগণ’
রাতে লঞ্চ বন্ধ শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌপথে

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The journey towards the assembly with the light shining
পদ্মা সেতু উদ্বোধন

আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে জনসভায় যাত্রা

আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে জনসভায় যাত্রা
ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী বাংলাবাজার ঘাটে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করা হয়েছে। সতর্ক অবস্থানে পুলিশ, র‍্যাবসহ বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্য। মোড়ে মোড়ে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। পুরো ৮ কিলোমিটার এলাকার পুরোটাই আনা হয়েছে সিসিটিভির আওতায়। এ ছাড়া বসানো হয়েছে ২৬টি বড় পর্দার মনিটর।

আর ঘণ্টাদুয়েক পর পদ্মা সেতু উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন ঘিরে বর্ণিল সাজে সেজেছে মাদারীপুরের বাংলাবাজার ঘাট। পদ্মা সেতুর আদলে প্রস্তুত করা হয়েছে জনসভা মঞ্চ। সেখানে বক্তব্য রাখবেন প্রধানমন্ত্রী।

সমাবেশ সফল করতে শনিবার ভোর থেকেই জনসভাস্থলে আসতে শুরু করেছেন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের মানুষ। ভোরের আলো ফোটার সঙ্গে সঙ্গে মিছিল নিয়ে ব্যানার, প্ল্যাকার্ডসহ সভায় যোগ দিচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ।

ভোর ৫টার দিকে প্রায় হাজারখানেক মানুষের জটলা দেখা যায় সেখানে। সবার মুখে মুখে স্লোগান, পুরো এলাকাজুড়ে উৎসব উৎসব রব। সকাল ৬টার পর খুলে দেয়া হয় জনসভার জমায়েতের স্থান। দীর্ঘ লাইনে সবাইকে চেক করে ঢুকতে দিতে দেখা গেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্যদের।

পদ্মা সেতুর কাঁঠালবাড়ী সংযোগ সড়ক থেকে হেঁটে আসতে হচ্ছে তাদের। কোনো যানবাহন প্রবেশ করতে দেয়া হচ্ছে না।

বরিশালসহ দক্ষিণাঞ্চলের কয়েকটি জেলা থেকে লঞ্চযোগে সাধারণ মানুষ আসছেন পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে। সকল ৭টার মধ্যেই জনসভাস্থলের প্রায় অর্ধেক এলাকা পূর্ণ হয়ে যায়।

ইলিয়াস আহমেদ চৌধুরী বাংলাবাজার ঘাট নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা বেষ্টনী তৈরি করা হয়েছে। সতর্ক অবস্থানে পুলিশ, র‍্যাবসহ বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর সদস্য। মোড়ে মোড়ে বসানো হয়েছে চেকপোস্ট। পুরো ৮ কিলোমিটার এলাকার পুরোটাই আনা হয়েছে সিসিটিভির আওতায়। এ ছাড়া বসানো হয়েছে ২৬টি বড় পর্দার মনিটর।

বরিশাল থেকে আসা রমিজউদ্দিন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘রাত ১টায় লঞ্চে উঠছি। সারা রাত নাচ-গান করে সকালে ঘাটে নামছি। এটা ঈদের আনন্দের চেয়ে কোনো অংশেই কম না, বরং আমাদের মুক্তির দিন আজ। অনেক কষ্ট আর ভোগান্তি থেকে বাঁচার দিন। যে কারণে আমাদের ফুর্তি কোনো অংশেই কম নয়। বরিশাল থেকে প্রায় এক লাখ মানুষ সভায় আসব।’

মাদারীপুর পৌর শহর থেকে এসেছেন নান্নু মুন্সি। তিনি বলেন, ‘সকালে আলো ফোটার আগেই চলে আসছি। প্রায় ৫ থেকে ৭ কিলোমিটার হেঁটে আসতে হয়েছে। এখন মাঠে আসছি, এতেই খুশি আমরা।’

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল নিউজবাংলাকে বলেন, ‘মূল মঞ্চের সামনে সেনাবাহিনী, পুলিশ, র‍্যাবসহ অন্তত ছয় স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে। সব ধরনের নিরাপত্তার ব্যবস্থা আমরা করেছি। পুলিশের অন্তত ১৫ হাজার কর্মী সভায় নিরাপত্তার দায়িত্বে রয়েছে। এ ছাড়ার র‍্যাবের ২ হাজারসহ সব মিলিয়ে অন্তত ৪০ হাজার প্রশাসনের কর্মী মাঠে রয়েছে।’

আরও পড়ুন:
পদ্মা সেতু উদ্বোধন ঘিরে পুলিশের ট্রাফিক নির্দেশনা
সেতু দেখে লঞ্চডুবির ভয়াল স্মৃতি মনে ভাসে
বাংলাদেশের আকাশছোঁয়া অহংকারের দিন
যৌবনে সেতু না পাওয়ার আক্ষেপ
পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিন এক গৌরবোজ্জ্বল দিন: প্রধানমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Padma bridge in the pond

পুকুরে পদ্মার আদলে সেতু

পুকুরে পদ্মার আদলে সেতু পদ্মা সেতুর আদলে এবার পটুয়াখালীর একটি পুকুরে নির্মাণ করা হয়েছে সেতু। ছবি: নিউজবাংলা
পটুয়াখালী‌র জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, ‘পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে জেলাবাসীর কা‌ছে স্মরণীয় ক‌রে রাখ‌তে ব্যতিক্রম এই আ‌য়োজন করা হয়েছে।’

পদ্মা সেতুর আদলে এবার পুকু‌রের ওপর নির্মাণ করা হ‌য়ে‌ছে সেতু। বাঁশ ও কাঠ দি‌য়ে নি‌র্মিত সেতু‌টির দেখা মেলে পটুয়াখালী‌ শহ‌রের সা‌র্কিট হাউসের সাম‌নের পুকু‌রে।

শনিবার পদ্মা সেতু উদ্বোধনকে কেন্দ্র করে জেলা প্রশাস‌নের উদ্যোগে জনমানুষের দৃ‌ষ্টি আকর্ষণে সেতু‌টি নির্মিত হয়েছে বলে জানা গেছে। সেতু‌টি দেখতে ভিড় করতে দেখা যায় স্থানীয় বি‌ভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষকে। সেতুতে উঠে অনেকে তুলছেন সেল‌ফি, আবার গোটা সেতু‌কেও ক‌্যা‌মেরাবন্দি করছেন অনেকে।

জেলা প্রশাসন কার্যালয় থেকে জানা যায়, পদ্মা সেতুর উদ্বোধন উপলক্ষে শনিবার সকালে পুকুরের এই সেতুতে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন ও পৌরসভার যৌথ এই আয়োজনে অনেক মানুষ অংশ নেবেন বলে প্রত‌্যাশা কর‌ছেন সেতু সং‌শ্লিষ্ট ব্যক্তিরা।

পুকুরে পদ্মার আদলে সেতু

সেতু নির্মাণের দায়িত্বে থাকা গোবিন্দ ঘোষাল জানান, ২৪ জন মানুষের ছয় দিন সময় লেগেছে সেতু‌টি নির্মাণ কর‌তে। শুক্রবার কাজ শেষ করে জেলা প্রশাসকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এরপ‌র সেখা‌নে আলোকসজ্জা করা হ‌য়ে‌ছে।

তিনি আরও জানান, বাঁশ ও কাঠ দিয়ে ১৯টি স্প্যানের ওপরে নির্মাণ করা সেতুর দৈর্ঘ্য প্রায় ৪০০ ফুট। পানি থেকে ছয় ফুট উপরে সেতুতে নির্মাণ করা হয়েছে নমুনা রেললাইন। উপরে দুই পাসে ২০টি ল্যাম্পপোস্ট বসানো হয়েছে। সেতুটি আলোকিত ও দৃষ্টিনন্দন করতে বিভিন্ন রঙের লাইটিং করা হয়েছে।

এ‌টি নির্মাণে ৪৮৫টি বাঁশ, ৫০০ ঘনফুট কাঠ এবং ১৫০টি প্লাইউড ব্যবহার করা হয়েছে বলে জানান সেতুর নির্মাতা গো‌বিন্দ।

পুকুরে পদ্মার আদলে সেতু

সেতু দেখ‌তে আসা শহ‌রের মিঠাপুকুর পাড় এলাকার মাজহারু‌ল ইসলাম বলেন, ‘সময় ও সক্ষমতার অভা‌বে সরাসরি পদ্মার পা‌ড়ে গি‌য়ে পদ্মা সেতু দেখ‌তে পা‌রিনি। কিন্তু কা‌ঠের এ সেতু, এর নিচের পিলার ও রেললাইনের অংশ দেখে ম‌নে হয়, এ যেন হুবুহু পদ্মা সেতু।’

পটুয়াখালী‌র জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামাল হোসেন বলেন, ‘পদ্মা সেতুর উদ্বোধনকে জেলাবাসীর কা‌ছে স্মরণীয় ক‌রে রাখ‌তে ব্যতিক্রম এই আ‌য়োজন করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
সেতু দেখে লঞ্চডুবির ভয়াল স্মৃতি মনে ভাসে
বাংলাদেশের আকাশছোঁয়া অহংকারের দিন
যৌবনে সেতু না পাওয়ার আক্ষেপ
পদ্মা সেতু উদ্বোধনের দিন এক গৌরবোজ্জ্বল দিন: প্রধানমন্ত্রী
সেতু অভিমুখে পটুয়াখালীর ৮ লঞ্চে পিকনিক মুড

মন্তব্য

p
ad-close 20220623060837.jpg
উপরে