× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
400 houses lost in Jamuna
hear-news
player
print-icon

যমুনায় হারাল ৪০০ ঘর

যমুনায়-হারাল-৪০০-ঘর
কালিহাতীর বেলটিয়া গ্রামের ৫০ বছরের রাহেলা খাতুন বলেন, ‘এই নিয়ে ছয়বার বাড়ি নতুন করে করলাম, তাও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সহযোগিতা পাইনি। সরকারের লোকজন আসে ১০ কেজি চাল দিতে। আমরা চাল চাই না, বাঁধ চাই।’

বর্ষা না আসতেই টাঙ্গাইলে যমুনায় ব্যাপক ভাঙন শুরু হয়েছে। এক সপ্তাহ ধরে ঘরবাড়ি ও ফসলি জমি হচ্ছে বিলীন। ঘরহারা পরিবারগুলো পরিচিতজনদের বাড়ি গিয়ে আশ্রয় নিচ্ছে। যাদের যাওয়ার জায়গা নেই, তারা দিন কাটাচ্ছেন খোলা আকাশের নিচে।

অব্যাহত ভাঙনে হুমকির মধ্যে রয়েছে মসজিদ, ঈদগা মাঠ ও ইউনিয়ন পরিষদ ভবনসহ বিস্তীর্ণ ফসলি জমি।

প্রতি বছর বর্ষা মৌসুমে এমনিতেই যমুনার ভাঙনে ভিটেমাটি হারায় অসংখ্য পরিবার। এ বছর অসময়ের ভাঙনে দিশেহারা কালিহাতী, গোপালপুর, টাঙ্গাইল সদর, নাগরপুর ও ভূঞাপুর উপজেলার যমুনা তীরবর্তী লোকজন। সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে টাঙ্গাইল সদরের কাকুয়া ইউনিয়ন।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রানুয়ারা খাতুনের হিসাবে, সদরে এক সপ্তাহে ৩০০ একর আবাদি জমি ও অন্তত ৪০০ বসতঘর যমুনায় হারিয়েছে।

কাকুয়া ইউনিয়নের কলেজছাত্রী পাপিয়া আক্তার বলেন, ‘বাবা-মা সব সময় চিন্তায় থাকে, কখন না জানি নদীতে বাড়ি ভেঙে পড়ে যায়। সব সময় এই চিন্তা নিয়ে রাতে ঘুমাতে হয়। এই কয়েক দিনে প্রায় ৩০০ ঘরবাড়ি ভেঙে গেছে।’

যমুনায় হারাল ৪০০ ঘর

একই ইউনিয়নের মো. সাইফুলের অভিযোগ, মাঝে মাঝে কর্তৃপক্ষ নদীর পারে কিছু কাজ করে। তবে সেগুলো ফের ধসে যায়।

তিনি বলেন, ‘জানি না কী করে তারা। আর সব ভোগান্তি আমাদের পোহাতে হয়।’

সদরের চর পৌলীর কাঠমিস্ত্রি মো. সাব্বির বলেন, ‘কতবার বাড়ি সরাব? আর তো পারতেছি না। প্রতিবার বন্যা আসলেই বাড়ি নদীগর্ভে চলে যায়। আমরা এর স্থায়ী প্রতিকার চাই।’

কালিহাতীর বেলটিয়া গ্রামের ৫০ বছরের রাহেলা খাতুন বলেন, ‘এই নিয়ে ছয়বার বাড়ি নতুন করে করলাম, তাও সরকারের পক্ষ থেকে কোনো সহযোগিতা পাইনি। সরকারের লোকজন আসে ১০ কেজি চাল দিতে। আমরা চাল চাই না, বাঁধ চাই।’

যমুনায় হারাল ৪০০ ঘর

দ্রুতই স্থায়ী বাঁধ নির্মাণ করা হবে বলে আশ্বাস দিয়েছেন টাঙ্গাইল সদর আসনের সাংসদ সানোয়ার হোসেন।

তিনি বলেন, ‘বাঁধ তৈরির জন্য প্রকল্প একনেকে পাস হয়ে গেছে। এখন শুধু টেন্ডার বাদ আছে। আশা করছি আগামী শুকনো মৌসুমে বাঁধের কাজ শুরু করতে পারব।’

এ আশ্বাস দিয়েছেন জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলামও।

সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রানুয়ারা খাতুন জানান, অন্যান্য উপজেলার তুলনায় সদরেই বেশি ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। সেখানে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
আইনের মারপ্যাঁচে চরের জমির মালিকানা
সন্ধ্যা নদীর ভাঙনে দিশেহারা পাড়ের মানুষ
কংস নদের ভাঙনের মুখে শত শত বসতঘর
পদ্মার ভাঙন: হঠাৎ বিলীন ১৫০ মিটার
৫০ বছরে সংকুচিত হয়েছে পদ্মা, কমেছে ইলিশ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Head teacher in jail in molestation case

শ্লীলতাহানির মামলায় প্রধান শিক্ষক কারাগারে

শ্লীলতাহানির মামলায় প্রধান শিক্ষক কারাগারে
শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে প্রাইভেট পড়ানোর সময় দীপ্তিস্বর ছাত্রীদের সঙ্গে অসৌজন্য আচরণ করতেন। সবশেষ তিনি এক ছাত্রীকে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দেন।

খুলনার রূপসায় ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগে করা মামলায় গ্রেপ্তার ডোবা বহুমুখী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীপ্তিস্বর বিশ্বাসকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। একই সঙ্গে তাকে স্কুল থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে।

তাকে বৃহস্পতিবার দুপুরে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠিয়েছে পুলিশ। এসব নিশ্চিত করেছেন রূপসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সরদার মোশাররফ হোসেন।

প্রধান শিক্ষক দীপ্তিস্বরকে বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত বিদ্যালয়ে অবরুদ্ধ করে আন্দোলন করেন শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা।

তাদের অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে প্রাইভেট পড়ানোর সময় দীপ্তিস্বর ছাত্রীদের সঙ্গে অসৌজন্য আচরণ করতেন। সবশেষ তিনি এক ছাত্রীকে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রস্তাব দেন।

বিষয়টি জানাজানি হলে বুধবার সবাই মানববন্ধন ও বিক্ষোভ করে বিদ্যালয়ে। বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা অফিস কক্ষে ঢুকে বিদ্যালয়ের চেয়ার, টেবিল, ব্যবহারিক জিনিসপত্র ভাঙচুর করে। তারা প্রধান শিক্ষককে মারধরেরও চেষ্টা করে। পরে পুলিশ গিয়ে তাকে থানায় নিয়ে যায়।

ওসি মোশাররফ বলেন, ‘ওই শিক্ষককে থানায় আনার পর তার বিরুদ্ধে এক ছাত্রীর বাবা বুধবার রাতেই মামলা করেন। তাকে ওই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়।’

এজাহারে বলা হয়েছে, গত ৯ আগস্ট স্কুল শেষে প্রাইভেট পড়ানোর সময় নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে যৌনতার প্রস্তাব দেন দীপ্তিস্বর। তাতে রাজি না হওয়ায় ছুটির পর মেয়েটিকে তিনি শ্লীলতাহানির চেষ্টা করেন। ওই ছাত্রীর চিৎকারে অন্য শিক্ষার্থীরা এগিয়ে গেলে শিক্ষক সেখান থেকে চলে যান।

বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মো. কামাল উদ্দীন বাদশা বলেন, ‘প্রাথমিক ভাবে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে।’

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুবাইয়া তাছনিম বলেন, ‘শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে আমার কাছে একটি লিখিত অভিযোগ এসেছিল। আমি সেটা থানায় ফরওয়ার্ড করেছি। ওই প্রধান শিক্ষকের কার্যকলাপ তদন্তের জন্য উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে বলা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
ফুলের মালা পরিয়ে কলেজে ফেরানো হলো অধ্যক্ষ স্বপনকে
অধ্যক্ষ স্বপন কলেজে যাচ্ছেন বুধবার
ক্লাসরুমে বাঁশে বাঁধা ফ্যান ছিঁড়ে চোখ গেল শিক্ষকের
আ. লীগ নেতার বিরুদ্ধে শিক্ষকদের অপমানের অভিযোগ
বগুড়ায় অধ্যক্ষকে মারধরের নেপথ্যে কী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The sanitary engineer was collecting the outstanding gas bill

বকেয়া গ্যাসবিল আদায় করছিলেন স্যানিটারি মিস্ত্রি

বকেয়া গ্যাসবিল আদায় করছিলেন স্যানিটারি মিস্ত্রি
প্রত্যক্ষদর্শী তালবাগ এলাকার রুপা রাহামনি নামে এক গ্রাহক বলেন, ‘আজ দুপুরে ওই ব্যক্তি গ্যাস অফিসের পরিচয় দিয়ে বলেন, আমাদের গ্যাসের বিল বাকি রয়েছে। বিলের টাকা পরিশোধ না করলে গ্যাস লাইন কেটে দিয়ে যাবে।’

ঢাকার সাভার পৌর এলাকায় বিভিন্ন বাড়িতে গিয়ে তিতাস গ্যাসের কর্মকর্তা পরিচয়ে বকেয়া গ্যাসবিল আদায়ের অভিযোগে এক যুবককে আটক করেছে স্থানীয়রা। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়া হয়।

পৌরসভার তালবাগ এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার বিকেলে হাফিজুর রহমান নামে ওই যুবককে আটক করা হয়।

হাফিজুরের বাড়ি বরিশালে। তিনি রাজধানীর উত্তরা এলাকায় স্যানিটারি মিস্ত্রি হিসেবে কাজ করেন।

সাভার মডেল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবুল কালাম আজাদ এসব নিশ্চিত করেছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী তালবাগ এলাকার রুপা রাহামনি নামে এক গ্রাহক বলেন, ‘আজ দুপুরে ওই ব্যক্তি গ্যাস অফিসের পরিচয় দিয়ে বলেন, আমাদের গ্যাসের বিল বাকি রয়েছে। বিলের টাকা পরিশোধ না করলে গ্যাস লাইন কেটে দিয়ে যাবে।

‘আমার ৬ মাসের বিল বাকি ছিল ১৩ হাজার টাকা। পরে আমি টাকা নিয়ে এসে তাকে দেই। এ সময় অনেক মানুষের উপস্থিতি দেখে হঠাৎ তার গতিবিধি সন্দেহজনক মনে হয়। এর পরেই টাকা নিয়ে সে দৌড় দিলে উপস্থিত লোকজন তাকে ধাওয়া দিয়ে তাকে ধরে ফেলে।’

তিনি আরও বলেন, ‘ওই লোকের কাছে তিতাস গ্যাস অফিসের একটি আইডি কার্ড, তিতাস গ্যাসের টাকা পরিশোধের মেমো ও তিতাস অফিসের বই ছিল। আমরা তো সবাই ভেবেই নিয়েছিলাম তিনি তিতাসের লোক। পরে জানতে পারলাম তিনি প্রতারক।’

এসআই আবুল কালাম আজাদ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘তিতাস গ্যাস অফিসের কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা করেছে ওই ব্যক্তি। ভুক্তভোগীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
জনতার হাতে আটক ‘ডলার প্রতারক’ ডিবির এএসআই
টাকা নিয়ে জাল ডলার দিতেন ২ প্রতারক
প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছবি দেখিয়ে প্রতারণা
চিকিৎসক পরিচয়ে প্রতারণা, হাতেনাতে ধরা
‘বন্ধু’ ভয়ংকর

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Life sentence for youth in rape case

ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন

ধর্ষণ মামলায় যুবকের যাবজ্জীবন
২০২০ সালের ১২মে সদর উপজেলার রঘুনাথপুর শোলারচর গ্রামের নাওভাঙ্গা ব্রিজ থেকে এক কিশোরীকে অপহরণ করেন পাশের এলাকার টুটুল মিয়া। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা টুটুল মিয়াসহ ৪ জনকে আসামি করে সদর থানায় মামলা করেন।

শেরপুরে কিশোরীকে ধর্ষণ মামলায় টুটুল মিয়া নামের এক যুবকের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। অপহরণের আলাদা মামলায় তাকে ১৪ বছর কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে শেরপুরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. আখতারুজ্জামান আসামির অনুপস্থিতিতে এই রায় দেন।

রায়ে আসামিকে ধর্ষণের দায়ে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও ২০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ৬ মাসের কারাদণ্ড দেয়া হয়। অপহরণ মামলায় তাকে ১৪ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও ৩ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়। উভয় সাজা একই সঙ্গে চলবে।

সাজাপ্র‍াপ্ত ২৮ বছরের টুটুল মিয়ার বাড়ি সদর উপজেলার রৌহা ইউনিয়নের নাওভাঙ্গা গ্রামে।

ট্রাইব্যুনালের স্পেশাল পিপি গোলাম কিবরিয়া বুলু নিউজবাংলাক এসব তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ২০২০ সালের ১২মে শেরপুর সদর উপজেলার রঘুনাথপুর শোলারচর গ্রামের নাওভাঙ্গা ব্রিজ থেকে এক কিশোরীকে সিএনজি অটোরিকশায় তুলে অপহরণ করেন পাশের এলাকার টুটুল মিয়া। এ ঘটনায় কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে ১৪ মে টুটুল মিয়া এবং তার এক ভাই ও মা-বাবাকে আসামি করে সদর থানায় মামলা করেন।

ওই মামলায় পরদিন অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধার করে টুটুলকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

একই বছরের ২৬ সেপ্টেম্বর শুধু টুটুল মিয়ার বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেন তদন্ত কর্মকর্তা। পরে জামিনে বেরিয়ে পালিয়ে যান টুটুল।

আরও পড়ুন:
ধর্ষণ মামলায় ইউপি সদস্য গ্রেপ্তার
বাসে ডাকাতি-সংঘবদ্ধ ধর্ষণ: আরও ২ আসামির স্বীকারোক্তি
ধর্ষণের পর শিশু হত্যার অভিযোগ, আসামি গ্রেপ্তার
বাসে ডাকাতি-ধর্ষণ: ১০ জনকে আদালতে তোলা হচ্ছে বিকেলে  
চলন্ত বাসে ডাকাতির সময় ধর্ষণ ‘রতনের নির্দেশে’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Lighter ship fares increased

লাইটার জাহাজের ভাড়া বাড়ল

লাইটার জাহাজের ভাড়া বাড়ল লাইটার জাহাজের ভাড়া বাড়িয়েছে ডব্লিউটিসি। ছবি: নিউজবাংলা
ডব্লিউটিসি নির্বাহী পরিচালক মাহবুব রশিদ জানান, নভেম্বরের পর লাইটার জাহাজের যা ভাড়া ছিল, চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা, বরিশাল ও চাঁদপুরের জন্য তার ২২ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। এর বাইরের অন্যান্য গন্তেব্যের জন্য ১৫ শতাংশ হারে ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। তবে বহির্নোঙ্গর থেকে বন্দরের ভেতরের ভাড়া আগের মতই থাকছে।

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির পর এবার দেশের অভ্যন্তরীণ পরিবহনে ব্যবহৃত লাইটার জাহাজের ভাড়া ১৫ থেকে ২২ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেলের (ডব্লিউটিসি) সভায় ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্ত হয়।

ওয়াটার ট্রান্সপোর্ট সেল (ডব্লিউটিসি) অভ্যন্তরীণ পরিবহনে ব্যবহৃত লাইটার (ছোট আকারের) জাহাজগুলো পরিচালনা করে থাকে। এর আগে গেল নভেম্বরে লাইটার জাহাজের ভাড়া ১৫ শতাংশ বাড়ানো হয়েছিল।

প্রতিষ্ঠানটির নির্বাহী পরিচালক মাহবুব রশিদ বলেন, ‘জ্বালানি তেলের মূল্য বৃদ্ধির পর লাইটার জাহাজের ভাড়া সমন্বয় না করে উপায় ছিল না। তাই সভায় ভাড়া বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত হয়। এই সিদ্ধান্ত গত শনিবার থেকে কার্যকর ধরে নেয়া হচ্ছে।’

তিনি জানান, নভেম্বরের পর লাইটার জাহাজের যা ভাড়া ছিল, চট্টগ্রাম থেকে ঢাকা, বরিশাল ও চাঁদপুরের জন্য তার ২২ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। এর বাইরের অন্যান্য গন্তেব্যের জন্য ১৫ শতাংশ হারে ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়েছে। তবে বহির্নোঙ্গর থেকে বন্দরের ভেতরের ভাড়া আগের মতই থাকছে।

সাধারণত বিদেশ থেকে পণ্য আমদানির পর বড় জাহাজ বা মাদার ভেসেল থেকে বহির্নোঙ্গরে তা লাইটার জাহাজে লোড করা হয়। পরে দেশের বিভিন্ন গন্তব্যে এই লাইটার জাহাজেই পণ্য পৌঁছে দেয়া হয়।

আরও পড়ুন:
মোংলায় ভারতের ট্রায়াল রানের জাহাজ
যুদ্ধরত রাশিয়ার প্রথম জাহাজ এলো মোংলায়
আমিরাতের নাবিকহীন বার্জ ভোলায় কীভাবে
নেপালে বিধ্বস্ত উড়োজাহাজের ব্ল্যাক বক্স উদ্ধার
পাইলটের ফোনে খোঁজ মিলল নেপালের উড়োজাহাজের

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Earthquake in Khulna Chuadanga

খুলনা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গায় ভূমিকম্প

খুলনা, যশোর ও চুয়াডাঙ্গায় ভূমিকম্প
খুলনা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বলেন, ‘বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে খুলনার বিভিন্ন স্থানে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে, যা ৩ সেকেন্ড স্থায়ী ছিল।’

খুলনা ও চুয়াডাঙ্গার কয়েক স্থানে মৃদু ভূমিকম্প হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টা ২৯ মিনিটে এই ভূমিকম্প হয়েছে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এর স্থায়িত্ব ছিল ৩ সেকেন্ড।

জেলা আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ আমিরুল আজাদ বলেন, ‘বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে খুলনার বিভিন্ন স্থানে মৃদু ভূমিকম্প অনুভূত হয়েছে, যা ৩ সেকেন্ড স্থায়ী ছিল। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ১ দশমিক ৭।’

একই সময় ভূমিকম্প হয়েছে যশোর ও চুয়াডাঙ্গায়।

পশ্চিমবঙ্গের আলীপুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে, এর উৎপত্তিস্থল যশোর শহর থেকে ৯ কিলোমিটার দূরে। রিখটার স্কেলে এর মাত্রা ৪ দশমিক ৮।

যশোর শহরের বেজপাড়া এলাকার জয়দেব চক্রবর্ত্তী ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে জানান, ভূমিকম্পে ভয় পেয়ে তিনি ও তার পরিবারের সদস্যরা রাস্তায় বের হয়ে যান।

চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার পলাশপাড়ার তৈয়ব আলী বলেন, ‘৫টা ২৯ মিনিটে হঠাৎ করে ঘর কেঁপে ওঠে। ভূমিকম্প হচ্ছে বুঝতে পেরে আমি ঘর থেকে বাইরে বেরিয়ে আসি।’

আরও পড়ুন:
ইন্দোনেশিয়ায় ৭.৩ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা জারি
৭.৫ মাত্রার ভূমিকম্প পেরুতে, বাড়িঘর বিধ্বস্ত
ভূমিকম্পে চট্টগ্রামে হেলে পড়েছে ভবন
ভূমিকম্প: দোতলা থেকে লাফ দিয়ে আহত চবির ছাত্র
ভূমিকম্পে রাঙ্গামাটিতে ইউএনডিপি কর্মীসহ আহত ২

মন্তব্য

বাংলাদেশ
One day a week online class in Shabi on energy and electricity saving

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে শাবিতে সপ্তাহে এক দিন অনলাইনে ক্লাস

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ে শাবিতে সপ্তাহে এক দিন অনলাইনে ক্লাস শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ফটক। ছবি: সংগৃহীত
শাবিপ্রবি রেজিস্ট্রার বলেন, ‘সপ্তাহে এক দিন অনলাইনে ক্লাস নিলে ২০ শতাংশ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় হবে। সাশ্রয়ের লক্ষ্যে প্রতি সপ্তাহে বৃহস্পতিবার অনলাইনে ক্লাস নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবহন পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। সপ্তাহের অন্য দিনও পরিবহন সেবা কিছুটা হ্রাস করা হবে।’

জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয়ের লক্ষ্যে সপ্তাহে এক দিন অনলাইনে ক্লাস নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (শাবিপ্রবি) প্রশাসন।

শুধু বৃহস্পতিবার অনলাইনে ক্লাস নেয়া হবে। এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ের সব ধরনের পরিবহন সেবা বন্ধ থাকবে। সপ্তাহের অন্য দিনও পরিবহন সেবা কিছুটা শিথিল করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে এসব সিদ্ধান্তের কথা জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার মুহাম্মদ ইশফাকুল হোসেন।

তিনি বলেন, উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ারুল ইসলামসহ বিভিন্ন অনুষদের ডিন ও বিভাগীয় প্রধানরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন উপদেষ্টা কমিটির সুপারিশের আলোকে এসব সিদ্ধান্ত হয়।

রেজিস্ট্রার বলেন, ‘সপ্তাহে এক দিন অনলাইনে ক্লাস নিলে ২০ শতাংশ বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সাশ্রয় হবে। সাশ্রয়ের লক্ষ্যে প্রতি সপ্তাহে বৃহস্পতিবার অনলাইনে ক্লাস নেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নতুন সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এদিন বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিবহন পুরোপুরি বন্ধ থাকবে। সপ্তাহের অন্য দিনও পরিবহন সেবা কিছুটা হ্রাস করা হবে।’

এ বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘আন্তর্জাতিক সমস্যার কারণে সৃষ্ট জাতীয় এ সমস্যায় আমরা দেশবাসীর পাশে থাকতে চাই। করোনা মহামারিতে ক্যাম্পাসে করোনা পরীক্ষার ব্যবস্থা করে দেশের মানুষের পাশে ছিল এই বিশ্ববিদ্যালয়। এবারও জ্বালানি ও বিদ্যুৎ সাশ্রয় করে আমরা মানুষের পাশে থাকব।’

এই সিদ্ধান্তে শিক্ষার্থীরা যেন কোনো ধরনের ক্ষতির সম্মুখীন না হয় সে ব্যাপারে বিভাগীয় প্রধান ও শিক্ষকদের দৃষ্টি রাখার আহ্বান জানিয়েছেন ভিসি।

আরও পড়ুন:
বাড়তি ভাড়া: বাসমালিকদের সুমতির আশায় কাদের
বিআরটিএ ঘুমিয়ে, ফায়দা নিয়েই যাচ্ছে রাইদা
জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি চ্যালেঞ্জ করে রিট
ঢাকা-ব‌রিশাল রু‌টে লঞ্চের খরচ বেড়ে দ্বিগুণ
পাম্পে পাম্পে হানা, কম তেলে জরিমানা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
VC panel election in Jahangirnagar on Friday

জাহাঙ্গীরনগরে ভিসি প্যানেল নির্বাচন শুক্রবার

জাহাঙ্গীরনগরে ভিসি প্যানেল নির্বাচন শুক্রবার নির্বাচনে তিন প্যানেলে তিনজন করে নয় প্রার্থী অংশ নিচ্ছেন। ছবি: সংগৃহীত
বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ ১৯৭৩ এর ১১(১) ধারা অনুযায়ী এ নির্বাচন হবে। শুধু নির্বাচিত সিনেট সদস্যরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত তিনজনের প্যানেল মনোনয়ন শেষে তা রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের কাছে পাঠানো হবে।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আট বছর পর শুক্রবার হতে যাচ্ছে ভাইস-চ্যান্সেলর (ভিসি) প্যানেল নির্বাচন।

নির্বাচনে তিনটি প্যানেল অংশ নিচ্ছে। প্রতিটি প্যানেলে তিনজন করে প্রার্থী। তিনটি প্যানেলই আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের। প্যানেল তিনটি হলো, বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ এবং বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদের দুইটি প্যানেল।

বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ প্যানেলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক ও সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আমির হোসেন। প্যানেলের অন্য সদস্যরা হলেন, প্রত্নতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড. সুফি মোস্তাফিজুর রহমান ও বাংলা বিভাগের অধ্যাপক পৃথ্বিলা নাজনীন নীলিমা।

বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদের একাংশের প্যানেলে নেতৃত্বে আছেন বর্তমান ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য ড. মো. নূরুল আলম। প্যানেলের অন্যরা হলেন, গাণিতিক ও পদার্থবিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও পরিসংখ্যান বিভাগের অধ্যাপক ড. অজিত কুমার মজুমদার এবং শিক্ষক সমিতির সভাপতি ও গণিত বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. লায়েক সাজ্জাদ এন্দেল্লাহ্।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভোস্ট কমিটির সভাপতি ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক মো. আব্দুল্লাহ হেল কাফি বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদের আরেক অংশের প্যানেলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন ।
এই প্যানেলের অন্য সদস্যরা হলেন, রসায়ন বিভাগের অধ্যাপক তপন কুমার সাহা এবং শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও ইন্সটিটিউট অফ বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশনের (আইবিএ-জেইউ) অধ্যাপক ড. মো. মোতাহার হোসেন।

বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ ১৯৭৩ এর ১১(১) ধারা অনুযায়ী এ নির্বাচন হবে। শুধু নির্বাচিত সিনেট সদস্যরা ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সর্বোচ্চ ভোটপ্রাপ্ত তিনজনের প্যানেল মনোনয়ন শেষে তা রাষ্ট্রপতি ও বিশ্ববিদ্যালয়ের চ্যান্সেলরের কাছে পাঠানো হবে।

রাষ্ট্রপতি ক্ষমতাবলে প্যানেলের যে কাউকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাইস-চ্যান্সেলর হিসেবে চার বছরের জন্য নিয়োগ দেবেন। এবারের নির্বাচনে ৮১ জন সিনেটর ভোট প্রদান করবেন।

২০১৪ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বশেষ ভিসি প্যানেল নির্বাচনে সর্বোচ্চসংখ্যক ভোট পেয়ে নৃবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলাম নির্বাচিত হন। পরে রাষ্ট্রপতি তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি হিসেবে নিয়োগ দেন।

আরও পড়ুন:
জাবিতে র‍্যাগ উৎসবের নাচ ঘিরে ‘শ্লীল-অশ্লীল’ বিতর্ক
জাবিতে প্রথম নারী উপাচার্যের ৮ বছর
খাবারের দাম নিয়ে ভোগান্তিতে জাবি শিক্ষার্থীরা
৭ ফেব্রুয়ারি থেকে জাবিতে সশরীরে ব্যাবহারিক ক্লাস-পরীক্ষা
করোনা: জাবিতে মুক্তিযোদ্ধা কোটার সাক্ষাৎকার স্থগিত

মন্তব্য

p
উপরে