× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

বাংলাদেশ
3 passengers with gold worth Tk 25 crore detained in Shahjalal
hear-news
player

শাহজালালে স্বর্ণসহ ৩ যাত্রী আটক

শাহজালালে-স্বর্ণসহ-৩-যাত্রী-আটক হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। ফাইল ছবি
হ্যান্ড লাগেজ তল্লাশি করে প্রত্যেকের কাছে দুটি করে স্বর্ণের বার এবং স্বর্ণালংকার পাওয়া যায়। পরে প্রত্যেক যাত্রীর পায়ুপথ থেকে স্বর্ণের পেস্ট উদ্ধার করা হয়।

রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তিন যাত্রীর কাছ থেকে সাড়ে তিন কেজি স্বর্ণ জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তর।

এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করা হয়েছে।

শুক্রবার রাতে দুবাই থেকে আসা এমিরেটস এয়ারলাইনসের একটি ফ্লাইটে দেশে আসার পর বিমানবন্দরে তল্লাশিতে তাদের কাছ থেকে স্বর্ণ জব্দ করা হয়।

আটকরা হলেন নূর হোসাইন খান, মামুনুর রশীদ ও আজিজুল হক রানা।

শনিবার শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো. আবদুর রউফ এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শুল্ক গোয়েন্দা জানায়, দুবাই থেকে এমিরেটসের ইকে৫৮৪ ফ্লাইটে স্বর্ণের চোরাচালান আসতে পারে বলে তারা খবর পায়। এই তথ্যে ইমিগ্রেশন শেষ করার পর তিন যাত্রীকে শনাক্ত করা হয়। তাদের গ্রিন চ্যানেলে এনে হ্যান্ড লাগেজ তল্লাশি করে প্রত্যেকের কাছে দুটি করে স্বর্ণের বার এবং স্বর্ণালংকার পাওয়া যায়।

আবদুর রউফ জানান, যাত্রীদের কাছে ব্যাগেজ সুবিধার অতিরিক্ত স্বর্ণ আছে কি না তা জিজ্ঞাসা করলে তারা অস্বীকার করেন। পরে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তারা তাদের পায়ুপথে স্বর্ণ থাকার কথা স্বীকার করেন।

পরে প্রত্যেক যাত্রীর পায়ুপথ থেকে স্বর্ণের পেস্ট উদ্ধার করা হয়।

শুল্ক গোয়েন্দা জানায়, তিন যাত্রীর কাছে মোট ৩ কেজি ৬৩৩ গ্রাম স্বর্ণ পাওয়া যায়।

জব্দ করা স্বর্ণের বাজারমূল্য ২ কোটি ৫৪ লাখ ৩১ হাজার টাকা বলে দাবি করেছে শুল্ক গোয়েন্দা।

তিনজনকে আসামি করে ঢাকা বিমানবন্দর থানায় মামলা করা হয়েছে বলে জানান আবদুর রউফ।

আরও পড়ুন:
স্বর্ণ পাচারের শাস্তি: শুধু বেতন কমল বেবিচক কর্মকর্তার
বিমানবন্দরের টয়লেটে ৪৬টি স্বর্ণের বার
বাজুস সদস্য ছাড়া স্বর্ণালংকার না কেনার পরামর্শ
স্বর্ণের দাম কমল ভরিতে ১১৬৬ টাকা
বিমানের ভেতর কাপড়ে লুকানো ছিল ১০ কেজি স্বর্ণ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Journalists want discounts to save newspapers

সংবাদপত্র বাঁচাতে করে ছাড় চান সাংবাদিকরা

সংবাদপত্র বাঁচাতে করে ছাড় চান সাংবাদিকরা ছবি: সংগৃহীত
আলোচনায় সংবাদপত্রশিল্পে বিজ্ঞাপনের বকেয়া বিল পরিশোধ, করপোরেট কর ও অগ্রিম কর কমানো, আমদানি করা নিউজপ্রিন্টের মূল্য সংযোজন কর–ভ্যাট কমানো, যানজট নিরসন ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ ও বরাদ্দ বাড়ানোর পরামর্শ দেন সাংবাদিকরা।

সংবাদপত্রশিল্প অত্যন্ত খারাপ সময় পার করছে। সাম্প্রতিক প্রেক্ষাপটে এই শিল্পে একটা বেদনাদায়ক পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে।

সংবাদপত্রশিল্পকে বাঁচাতে হলে কর ছাড়ের সুবিধা দিতে হবে। তা না হলে এ শিল্প বাচঁবে না।

অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে প্রাক-বাজেট আলোচনায় বৃহস্পতিবার রাতে বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিকরা এমন আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন।

আলোচনায় সংবাদপত্রশিল্পে বিজ্ঞাপনের বকেয়া বিল পরিশোধ, করপোরেট কর ও অগ্রিম কর কমানো, আমদানি করা নিউজপ্রিন্টের মূল্য সংযোজন কর–ভ্যাট কমানো, যানজট নিরসন ও দুর্ঘটনা প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ ও বরাদ্দ বাড়ানোর পরামর্শ দেন সাংবাদিকরা।

অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ সচিব আবদুর রউফ তালুকদার।

চ্যানেল আইয়ের পরিচালক (বার্তা) শাইখ সিরাজ রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে আসন্ন বাজেটে খাদ্যনিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দেয়ার পরামর্শ দেন। পাশাপাশি সারের সঙ্গে খাদ্যপণ্যে ব্যাপক ভর্তুকি দেয়ার প্রস্তাব করেন।

যানজট নিরসন ও দুর্ঘটনা রোধে বাজেটে পৃথক বরাদ্দের প্রস্তাব করেন সমকাল ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মোজাম্মেল হোসেন।

জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক নাইমুল ইসলাম খান বলেন, ‘সংবাদশিল্প অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় কঠিন সময় পার করছে।’ সংবাদপত্রশিল্পে পঞ্জিভূত বকেয়া বিজ্ঞাপনের বিলের টাকা দ্রুত ছাড়ের দাবি জানান তিনি।

সংবাদপত্রশিল্পের অস্তিত্ব রক্ষার জন্য করপোরেট করহার ১০ শতাংশ, অগ্রিম আয়কর ২ শতাংশ ও আমদানি করা নিউজপ্রিন্টের মূল্য সংযোজন কর কমানোর দাবি জানিয়ে বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নঈম নিজাম বলেন, ‘সংবাদশিল্প গভীর সংকটের দিকে যাচ্ছে। কর ছাড় না দিলে এই শিল্প বাঁচবে না।’

বিদ্যুতের দাম সহনীয় মাত্রায় কমানোর প্রস্তাব করেন ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেস পত্রিকার সম্পাদক শামসুল হক জাহিদ।

আরও পড়ুন:
‘প্রতিদিনের বাংলাদেশ’ পত্রিকার সম্পাদক মুস্তাফিজ শফি
অনুমোদন পেল আরও ৮৫ সংবাদভিত্তিক ওয়েবসাইট
বাতিলের তালিকায় ২১০ পত্রিকা
ভূতুড়ে পত্রিকার কী দরকার: তথ্যমন্ত্রী
১০ দৈনিক পত্রিকার ডিক্লারেশন বাতিল

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Land tax is being waived up to 25 bighas

২৫ বিঘা পর্যন্ত জমির কর মওকুফ হচ্ছে

২৫ বিঘা পর্যন্ত জমির কর মওকুফ হচ্ছে নতুন আইন পাস হলে কৃষিজমির পরিমাণ ২৫ বিঘা পর্যন্ত ট্যাক্স দিতে হবে না। ছবি: নিউজবাংলা
জমি ২৫ বিঘার ওপরে থাকলে সব জমির জন্য ট্যাক্স দিতে হবে। তিন বছর ভূমি উন্নয়ন কর না দিলে ৬ দশমিক ২ শতাংশ হারে জরিমানা করে আদায় করা হবে।’

পরিবারভিত্তিক কৃষিজমির পরিমাণ ২৫ বিঘা পর্যন্ত জমির কর মওকুফের বিধান রেখে ভূমি উন্নয়ন কর আইন, ২০২২-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

পরে সচিবালয়ে বৈঠকের বিস্তারিত তুলে ধরেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘আগের একটি অধ্যাদেশকে পরিমার্জন করে নতুন আইন করা হচ্ছে। নতুন আইন পাস হলে কৃষিকাজের ওপর নির্ভরশীল ব্যক্তি ও পরিবারভিত্তিক কৃষিজমির পরিমাণ ৮ দশমিক ২৫ একর বা ২৫ বিঘা পর্যন্ত ট্যাক্স দিতে হবে না।

‘তবে জমি ২৫ বিঘার ওপরে থাকলে সব জমির জন্য ট্যাক্স দিতে হবে। তিন বছর ভূমি উন্নয়ন কর না দিলে ৬ দশমিক ২ শতাংশ হারে জরিমানা করে আদায় করা হবে।’

তিনি বলেন, ‘সরকারি করবরস্থান, শ্মশান, মসজিদ, ঈদগাহ মাঠ, মন্দির, গির্জা বা সর্বসাধারণের প্রার্থনার স্থানকে ভূমি উন্নয়ন করের আওতামুক্ত রাখা হয়েছে। ব্যক্তিগত বা পারিবারিক কবরস্থানকে ট্যাক্স দিতে হবে।’

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ‘পারিবারিক কবরস্থানের রেকর্ড ব্যক্তিনামে থাকে। এলাকাবাসী মিলে মসজিদের পাশে যে কবরস্থান করে সেটি মসজিদের নামে হওয়ায় সেটির কর দিতে হবে না।’

একজনের নামে ৬০ বিঘার বেশি কৃষিজমি থাকলে সরকার তা নিয়ে নেবে বলে আগের যে অধ্যাদেশ ছিল, সেটি পরিমার্জন করে নতুন আইন করা হবে বলেও জানান সচিব। বলেন, ‘৬০ বিঘার বেশি কৃষিজমি একজনের নামে রাখা না গেলে রপ্তানিমূলক কৃষিপণ্য বা অন্য কোনো প্রক্রিয়াজাতকরণ শিল্প হয়, তবে সে ক্ষেত্রে ৬০ বিঘার বেশি জমি রাখা যাবে।’

তিনি বলেন, ‘পল্লি এলাকায় বাস্তুভিটা হিসেবে ব্যবহারের জন্য কোনো খাস জমি পাওয়া গেলে সরকার ভূমিহীন, মুক্তিযোদ্ধা বা তার পরিবার, ভূমিহীন কৃষক ও তাদের পরিবারকে অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে লিজ দেবে। তবে কাউকে ৫ শতাংশের বেশি লিজ দেয়া যাবে না।’

এই আইন পাস হলে পাঁচ বছরের চুক্তি করে জমি বর্গা দিতে হবে। বর্গাদার মারা গেলে তার ওয়ারিশদারের ওপর বর্গার চুক্তি বর্তাবে।

এই আইনের আদেশ লঙ্ঘন করলে সর্বোচ্চ ১ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে এক মাস পর্যন্ত বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হবে হবে বলে জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Imam stole the mobile of Kamalapur station manager

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজারের মোবাইল চুরিতে ইমাম

কমলাপুর স্টেশন ম্যানেজারের মোবাইল চুরিতে ইমাম কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজারের মোবাইল ফোন চুরির অভিযোগে গ্রেপ্তার আজিজ মোহাম্মদ। ছবি: নিউজবাংলা
পুলিশ জানায়, বিদেশে থাকাকালীন গাড়ি চুরির মামলায় তিন বছর সাজা খেটেছেন আজিজ। দেশে এসে মাদ্রাসায় চাকরি করতে গিয়ে মোবাইল চুরি করে সেটিও হারান। পরে মাদকাসক্ত হয়ে মোবাইল চুরির সংঘবদ্ধ চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন।

কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনে সংবাদ সম্মেলনের সময় স্টেশন ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ারের মোবাইল ফোন এক ইমাম চুরি করেছিলেন বলে জানিয়েছে পুলিশ।

মোবাইল ফোন চুরি হওয়ার ২৫ দিন পর এটি উদ্ধার করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের গুলশান বিভাগ। চুরির অভিযোগে সেই ইমামকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে।

গ্রেপ্তার ইমামের নাম আজিজ মোহাম্মদ। তিনি একসময় প্রবাসে মসজিদে ইমামতি করতেন।

পুলিশ জানায়, বিদেশে থাকাকালীন গাড়ি চুরির মামলায় তিন বছর সাজা খেটেছেন তিনি। দেশে এসে মাদ্রাসায় চাকরি করতে গিয়ে মোবাইল চুরি করে সেই চাকরিও হারান। পরে মাদকাসক্ত হয়ে মোবাইল চুরির সংঘবদ্ধ চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন।

আজিজের সঙ্গে মোবাইল চোর চক্রের আরও দুইজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তারা হলেন রনি হাওলাদার ও মো. জাকির হোসেন।

গোয়েন্দা গুলশান বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার মো. মশিউর রহমান জানান, গত ২৩ মার্চ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ারের অফিসে ঈদুল ফিতরের অগ্রিম টিকিট বিক্রি সংক্রান্ত প্রেস কনফারেন্সের সময় দুটি মোবাইল ফোন, একটি ওয়ালেটের ভেতর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র এবং নগদ ৪৫ হাজার টাকা চুরি হয়। এ ঘটনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ বিভিন্ন প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়ায় ভাইরাল হয়। গোয়েন্দা গুলশান বিভাগ ঘটনাটির ছায়া তদন্ত করতে থাকে।

ঘটনার ২৫ দিন পর তথ্যপ্রযুক্তির সহায়তায় বুধবার চোরাই মোবাইলসহ আজিজ মোহাম্মদকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মশিউর রহমান বলেন, ‘জিজ্ঞাসাবাদে আজিজ স্বীকার করেছেন, তিনি সংবাদ সম্মেলন চলাকালে স্টেশন ম্যানেজারের ফোন এবং ওয়ালেট চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যান।’

তিনি আরও বলেন, ‘আজিজ একজন কোরআনে হাফেজ। তিনি দীর্ঘ ৩৩ বছর সৌদি আরবের বিভিন্ন মসজিদে ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। সৌদি আরবে ইমামের দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি গাড়িচালকের কাজও করতেন তিনি। ড্রাইভিং করতে গিয়ে তার গাড়ি চুরির নেশা হয়। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের দামি গাড়িও চুরি করতেন তিনি। ২০১৫ সালে গাড়ি চুরির মামলায় সৌদি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন আজিজ। গাড়ি চুরির মামলায় তিন বছর সাজা হয় তার।

‘সাজা ভোগ করে ২০১৮ সালে বাংলাদেশে এসে কক্সবাজার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে অবস্থান নেন। সেখানে একটি মাদ্রাসায় শিক্ষকতা শুরু করেন। কিছুদিন পরে মাদ্রাসায় মোবাইল চুরি করে ধরা পড়লে চাকরি চলে যায় তার। এর পর থেকে আজিজ মাদকাসক্ত হয়ে পড়েন। ঢাকা শহরে এসে বিভিন্ন মেসে থেকে মোবাইল চুরি শুরু করেন।’

তিনি তিন বছর ধরে রাজধানীর কমলাপুর স্টেশন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, টিএসসি চত্বর, নগর ভবন, গুলিস্তান, ধানমন্ডি লেক, যাত্রাবাড়ীসহ বিভিন্ন স্থান থেকে প্রতি সপ্তাহে ৮ থেকে ১০টি করে মোবাইল চুরি করতেন। এরপর চোরাই মোবাইলগুলো গ্রেপ্তার রনি ও জাকিরের কাছে বিক্রি করতেন বলে জানায় পুলিশ।

আসামিরা একটি সংঘবদ্ধ চোর চক্রের সদস্য। তার বিরুদ্ধে রাজধানীর কমলাপুর স্টেশন থানায় মামলা আছে বলেও জানান এই গোয়েন্দা কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
এনআইডির মাধ্যমে দেয়ায় ট্রেনের টিকিটে ধীরগতি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The child died after bathing in the pond

পুকুরে গোসলে নেমে শিশুর মৃত্যু

পুকুরে গোসলে নেমে শিশুর মৃত্যু প্রতীকী ছবি
শিশুর বাবা বিপ্লব হোসেন বলেন, ‘আলুবাজার পুকুরপাড় এলাকার একটি পুকুরে কয়েকজন শিশু মিলে গোসলের সময় পানিতে ডুবে যায়। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।’

রাজধানীর বংশাল আলুবাজার পুকুরপাড় এলাকায় পুকুরে গোসলের সময় পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ওই শিশুর নাম মো. ইয়াসিন। তার বয়স আট বছর।

অচেতন অবস্থায় শিশুকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে যাওয়া হয়। পরে চিকিৎসক বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শিশুর বাবা বিপ্লব হোসেন বলেন, ‘আলুবাজার পুকুরপাড় এলাকার একটি পুকুরে কয়েকজন শিশু মিলে গোসলের সময় পানিতে ডুবে যায়। পরে অচেতন অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।

‘আমাদের বাসা বংশালের লুৎফর রহমান লেনে। তার (শিশুর) মা নেই। নানি রুমা বেগম লালনপালন করে বড় করেছেন।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
আগুনে পুড়ছে চট্টগ্রাম ইপিজেডের পাশের এলাকা
শিশু হত্যায় ৩ জনের মৃত্যুদণ্ড
মারামারি থামাতে গিয়ে মারা গেলেন নিজেই
আম কুড়াতে বেরিয়ে ডুবে মৃত্যু ভাই-বোনের
খেলতে গিয়ে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Mental health policy policy approval

মানসিক স্বাস্থ্যপলিসি নীতিগত অনুমোদন

মানসিক স্বাস্থ্যপলিসি নীতিগত অনুমোদন প্রতীকী ছবি
মানসিক স্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয়তা ও সেই সেবা প্রাপ্তি কীভাবে সহজ করা যায়, মাঠ পর্যায়ে কীভাবে অভিজ্ঞতা অর্জন করা যায় এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে কীভাবে তাদেরও সমাজজীবনের অংশ করা যায় সেই জন্য এই স্বাস্থ্যনীতিটা।’

স্বাস্থ্যসেবার পাশাপাশি মানসিক সমস্যাকে গুরুত্ব দিতে জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্যনীতি, ২০২২'-এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভা বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়।

পরে সচিবালয়ে বৈঠকের বিস্তারিত তুলে ধরে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘এটা স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে নিয়ে আসা হয়েছে। এটা বিশ্বব্যাপী একটা ট্রেন্ড যে মানসিক স্বাস্থ্য ছাড়া স্বাস্থ্যসেবা অসম্পূর্ণ। সুতরাং যখনই স্বাস্থ্যের কথা আসবে, তখনই মানসিক স্বাস্থ্যের কথা আসবে।

‘আমাদের যেটা সার্ভে আছে সেখানে দেখা যায় যে প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে ১৮ দশমিক ০৭ শতাংশ এবং শিশু-কিশোরদের মধ্যে প্রায় ১২ দশমিক ০৬ শতাংশ মানসিক রোগে অসুস্থ। এই সংখ্যাকে অ্যাড্রেস করা দরকার।’

তিনি বলেন, ‘সেই জন্য মানসিক স্বাস্থ্যের প্রয়োজনীয়তা ও সেই সেবা প্রাপ্তি কীভাবে সহজ করা যায়, মাঠ পর্যায়ে কীভাবে অভিজ্ঞতা অর্জন করা যায় এই বিষয়ে বিশেষজ্ঞদের মতামত নিয়ে কীভাবে তাদেরও সমাজজীবনের অংশ করা যায় সেই জন্য এই স্বাস্থ্যনীতিটা।

‘এখানে বিশেষজ্ঞদের একটি দল গঠন করে তাদের নিয়ে চার-পাঁচ বছর ধরে কাজ করে বিশেষজ্ঞ মতামত নিয়ে তারপর এটা করা হয়েছে। জাতিসংঘের ইউএনসিআরপিডির কনভেনশন আছে যে মানসিক প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের মানবাধিকার বিষয়টিকে যেন বিবেচনা করা হয়।’

আরও পড়ুন:
করোনায় মানসিক সমস্যায় ৮৪ শতাংশ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Construction worker dies after falling from building under construction

নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে নির্মাণশ্রমিকের মৃত্যু

নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে নির্মাণশ্রমিকের মৃত্যু মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা
শিপনের স্ত্রী সালমা বেগম বলেন, ‘আমার স্বামী পেশায় নির্মাণশ্রমিক। মোহাম্মদপুর চন্দ্রিমা উদ্যান এলাকায় একটি আটতলা ভবনে মাচায় দাঁড়িয়ে আস্তরের কাজ করছিলেন। ওই সময় মাচা ভেঙে নিচে পড়ে যায়। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।’

রাজধানীর মোহাম্মদপুরে ঢাকা উদ্যান এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবনের আট তলার মাচায় কাজ করার সময় নিচে পড়ে এক নির্মাণশ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনাটি ঘটে।

মারা যাওয়া নির্মাণশ্রমিকের নাম মো. শিপন। তার বয়স ২৫ বছর।

তিনি ভোলা সদরের ফুলবাড়ী সিকদার বাড়ি এলাকার বাসিন্দা। বর্তমানে মোহাম্মদপুর চন্দ্রিমা উদ্যান এলাকায় সপরিবার থাকতেন।

গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে চিকিৎসক বেলা সাড়ে ১২টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

শিপনের স্ত্রী সালমা বেগম বলেন, ‘আমার স্বামী পেশায় নির্মাণশ্রমিক। মোহাম্মদপুর চন্দ্রিমা উদ্যান এলাকায় একটি আটতলা ভবনে মাচায় দাঁড়িয়ে আস্তরের কাজ করছিলেন।

‘ওই সময় মাচা ভেঙে নিচে পড়ে যায়। তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
ছুরিকাঘাতের দেড় মাস পর স্কুলছাত্রের মৃত্যু 
‘সাপের কামড়ে’ কৃষকের মৃত্যু
‘অতিরিক্ত মদ খেয়ে’ তরুণীর মৃত্যু, দুই বন্ধু আটক
প্রাণ নিয়ে থামল চট্টগ্রাম ইপিজেডের পাশের এলাকার আগুন
আগুনে পুড়ছে চট্টগ্রাম ইপিজেডের পাশের এলাকা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Anwar dies of gas leak

গ্যাসের লিকেজের আগুনে দগ্ধ আনোয়ারের মৃত্যু

গ্যাসের লিকেজের আগুনে দগ্ধ আনোয়ারের মৃত্যু শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট ভবন। ছবি: নিউজবাংলা
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন আইয়ুব হোসেন বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ হয়ে এসেছিলেন। তাদের মধ্যে আনোয়ার আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে মারা যান। তার শরীরে ১৭ শতাংশ দগ্ধ ছিল।’

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা পাইলট স্কুলের পাশে একটি বাসায় গ্যাসলাইন লিকেজ থেকে আগুনের ঘটনায় দগ্ধ একজনের মৃত্যু হয়েছে।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে মারা যান তিনি।

মারা যাওয়া ব্যক্তির নাম আনোয়ার হোসেন। তার বয়স ৪০ বছর।

এ ঘটনায় তার স্ত্রী রোজিনা আক্তার ও ৯ বছরের ছেলে মো. রুহান শেখ হাসিনা জাতীয় বার্নে চিকিৎসাধীন। আরেক ছেলে ১৭ বছরের রোমানকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।

গত ১০ মে ভোরের দিকে গ্যাসলাইনের লিকেজ থেকে আগুনের সূত্রপাত। দগ্ধ অবস্থায় তাদের চারজনকে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটে সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ভর্তি করানো হয়।

আনোয়ারের বোন ফাতেমা বেগম বলেন, ‘আমার ভাই রিকশাচালক। সকালের দিকে উঠে ফ্রিজ থেকে সেমাই বের করে খাওয়ার সময় জানালা দিয়ে গ্যাসের বুদবুদ শব্দ শুনতে পায়, এর কিছুক্ষণ পরেই হঠাৎ একটি শব্দ হয়। আগুন লেগে যায়, পরে তার ছেলে ও স্ত্রীকে ডাকতে ডাকতেই পুরা রুমে আগুন লেগে যায়।

‘সবাইকে দগ্ধ অবস্থায় শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ইনস্টিটিউটে নিয়ে এলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ আমার ভাই মারা যান।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের গ্রামের বাড়ি বরিশালের হিজলা থানার নসুনপুর গ্রামে। আনোয়ার বর্তমানে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার পাইলট স্কুলের পাশে পরিবার নিয়ে থাকতেন।’

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন আইয়ুব হোসেন বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লা থেকে একই পরিবারের চারজন দগ্ধ হয়ে এসেছিলেন। তাদের মধ্যে আনোয়ার আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকাল ১০টার দিকে মারা যান। তার শরীরে ১৭ শতাংশ দগ্ধ ছিল।

‘নিহতের স্ত্রী রোজিনার শরীরে ২৪ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে, তার ছেলে রুহান ৩৫ শতাংশ দগ্ধ ও রোমান ৬ শতাংশ দগ্ধ হয়েছেন। তাদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। রোমানকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।’

মন্তব্য

উপরে