× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ পৌর নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য

বাংলাদেশ
Biden wishes Momen a Happy New Year
hear-news
player
print-icon

মোমেনকে নববর্ষের শুভেচ্ছা বাইডেনের

মোমেনকে-নববর্ষের-শুভেচ্ছা-বাইডেনের- বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন ও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।
পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন ও তার স্ত্রী সেলিনা মোমেনকে পাঠানো বার্তায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেনকে খ্রিষ্টীয় নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের দেয়া সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের দপ্তর হোয়াইট হাউস থেকে পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন ও তার স্ত্রী সেলিনা মোমেনকে পাঠানো বার্তায় যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন এবং ফার্স্ট লেডি জিল বাইডেন নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

এর আগে বুধবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও তার স্ত্রীকে শুভেচ্ছাপত্র পাঠান যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন।

আরও পড়ুন:
মোমেনকে নববর্ষের শুভেচ্ছা ব্লিঙ্কেনের

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
Dudfa trafficking young woman about love marriage Radhab

প্রেম-বিয়ের সম্পর্কে দুদফা পাচার তরুণী: র‍্যাব

প্রেম-বিয়ের সম্পর্কে দুদফা পাচার তরুণী: র‍্যাব
র‍্যাব জানায়, মামলা পর পুলিশ লালমনিরহাট থেকে তিনজনকে এবং র‌্যাব হবিগঞ্জ থেকে প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।মঙ্গলবার সকালে প্রধান আসামি সোহেল মিয়াকে মৌলভীবাজার থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব সদস্যরা। সোহেলের বাড়ি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জের বেতাপুর গ্রামে।

ফেসবুক ও টিকটকের মাধ্যমে পরিচয়। পরে গড়ে ওঠে প্রেমের সম্পর্ক। সেই সম্পর্কের সূত্রে ভারতে নিয়ে যাওয়া হয় তরুণীকে। সেখানে তাকে দিয়ে করানো হয় যৌন ব্যবসা।

কিছুদিন পর দেশে ফিরে বিয়ে করে দুজন। পরে আবারও তরুণীকে কৌশলে ভারত পাচার করে দেয়া হয়। সেখানে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে কিছুদিন পর দেশে পালিয়ে এসে পাঁচ যুবকের নামে মামলা করে তরুণী।

হবিগঞ্জে মঙ্গলবার দুপুরে প্রেস ব্রিফিংয়ে সংবাদমাধ্যমকে এ তথ্য জানান র‌্যাব-৯ এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট নাহিদ হাসান।

তিনি জানান, মামলা পর পুলিশ লালমনিরহাট থেকে তিনজনকে এবং র‌্যাব হবিগঞ্জ থেকে প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।মঙ্গলবার সকালে প্রধান আসামি সোহেল মিয়াকে মৌলভীবাজার থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব সদস্যরা। সোহেলের বাড়ি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জের বেতাপুর গ্রামে।

লেফটেন্যান্ট নাহিদ হাসান জানান, সোহেল প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, ৩ বছর আগে ফেসবুক ও টিকটকের মাধ্যমে তার সঙ্গে পরিচয় হয় পাবনার সাথিয়া উপজেলার ডেমরা গ্রামের এক তরুণীর। পরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

প্রেমিক সোহেল গত বছরের মার্চ মাসে সাতক্ষীরার সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ভারতের কলকাতায় নিয়ে যায় ওই তরুণীকে। এ সময় সেখানে তাকে আটকে রেখে যৌন ব্যবসা করতে বাধ্য করা হয়।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে দেশে ফিরে সোহেল এবং ওই তরুণী বিয়ে করে। পরে তরুণীকে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম সীমান্ত দিয়ে কৌশলে ভারতে পাচার করে দেয় সোহেল। পাচারের আগে তাকে ধর্ষণ করে সোহল ও চার সহযোগী।

ভারতে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে ১৫ মে দেশে পালিয়ে আসে তরুণী।

২১ মে লালমনিরহাটের পাটগ্রাম থানায় পাঁচ যুবকের নামে পাচার, ধর্ষণ ও নির্যাতনের অভিযোগে মামলা করে মেয়েটি।

আরও পড়ুন:
তরুণীকে সৌদি আরবে পাচার করে নির্যাতনের অভিযোগ
ধর্ষণ-মানবপাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার ৩
২ হোটেলে দুই নারীর মরদেহ: আলাদা হত্যা মামলা পরিবারের
রয়েল টিউলিপ হোটেলে তরুণীর মরদেহ, প্রেমিক আটক
মানব পাচার মামলায় দম্পতির ফাঁসি

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Four students abducted 4 detained

দুই শিক্ষার্থীর অপহরণ, ৪ জন আটক

দুই শিক্ষার্থীর অপহরণ, ৪ জন আটক
র‍্যাব জানায়, সোমবার রাত ৯টার দিকে সাটুরিয়ায় কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের এক ছাত্র ও এক ছাত্রী বাড়ি ফিরছিলেন। ধামরাইয়ের বারোবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নামার পর তাদের অপহরণ করা হয়। তাদের নিয়ে রাখা হয় বারোবাড়িয়া এলাকার পুরোনো একটি বাড়িতে।

মানিকগঞ্জের সাটুরিয়ায় দুই শিক্ষার্থীকে অপহরণের অভিযোগে ৪ জনকে আটক করেছে র‍্যাব।

মানিকগঞ্জের র‌্যাব-৪ এর কোম্পানি কমান্ডার লেফট্যানান্ট কমান্ডার আরিফ হোসেন মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠিয়ে এ তথ্য জানিয়েছেন। তাতে বলা হয়েছে, মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে ধামরাইয়ের বারোবাড়িয়া এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

তারা হলেন, ধামরাইয়ের দক্ষিণ হাতকোড়া এলাকার আল আমিন, কৃষ্ণপুরা এলাকার পিন্টু মিয়া, বারোবাড়িয়া এলাকার আবু বকর সিদ্দিক ও চরিপাড়া এলাকার আরিফুল ইসলাম।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সোমবার রাত ৯টার দিকে সাটুরিয়ায় কৃষি প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউটের এক ছাত্র ও এক ছাত্রী বাড়ি ফিরছিলেন। ধামরাইয়ের বারোবাড়িয়া বাসস্ট্যান্ডে বাস থেকে নামার পর তাদের অপহরণ করা হয়। তাদের নিয়ে রাখা হয় বারোবাড়িয়া এলাকার পুরোনো একটি বাড়িতে।

সে রাতেই ওই শিক্ষার্থীদের পরিবারের কাছে ফোন করে দেড় লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করা হয়। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৫টার দিকে বাড়িতে ফোন করার কথা বলে র‌্যাবকে ফোন করে ওই শিক্ষার্থীদের একজন।

র‍্যাব কর্মকর্তা আরিফ জানান, ফোন পেয়ে র‍্যাবের একটি দল ঘটনাস্থলে গিয়ে দুই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে। আটক করা হয় ৪ জনকে। তাদের কাছ থেকে একটি মোটরসাইকেল, ৩২ হাজার টাকা ও ৫টি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়েছে।

ধামরাই থানায় মামলা দিয়ে তাদের সেখানে হস্তান্তর করা হবে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।।

আরও পড়ুন:
৫ মাসের শিশুকে অপহরণ, ৩৫ হাজারে বিক্রি
ব্যবসায়ী শিবু অপহরণ: ল্যাংড়া মামুন রিমান্ডে
বান্দরবানের ইউপি সদস্যকে ‘অপহরণ’
ব্যবসায়ী শিবু অপহরণ, ল্যাংড়া মামুন ছাড়াই রিমান্ডে ৬
অপহৃত কিশোরী উদ্ধার, গ্রেপ্তার ৩

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Seized oil is directed to be sold in the open market

জব্দ তেল খোলা বাজারে বিক্রির নির্দেশ

জব্দ তেল খোলা বাজারে বিক্রির নির্দেশ জব্দ ভোজ্যতেল খোলাবাজারে ১১০ টাকা লিটার দরে বিক্রির নির্দেশ দিয়েছে আদালত। ছবি নিউজবাংলা
গত ৯ মে রাতে তাহেরপুর বাজারপাড়া ও তেলিপাড়া এলাকার দুটি গুদামে অভিযান চালিয়ে ২৬ হাজার ৭২৪ লিটার সয়াবিন ও সরিষার তেল জব্দ করে পুলিশ। আদালত পরিদর্শক আব্দুর রফিক জানান, জব্দ করা এসব তেল আগামী ২৮ ও ২৯ মে ট্রেডিং করপোরেশন অফ বাংলাদেশের (টিসিবি) স্থানীয় দুই ডিলারের মাধ্যমে বিক্রি করতে হবে। ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি লিটার তেলের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১১০ টাকা। একজন ভোক্তার কাছে সর্বোচ্চ ২ লিটার তেল বিক্রি করা যাবে।

রাজশাহীর বাগমারা উপজেলার তাহেরপুরে পুলিশের অভিযানে জব্দ ২৬ হাজার ৭২৪ লিটার ভোজ্যতেল খোলাবাজারে বিক্রির নির্দেশ দিয়েছে আদালত। পুলিশের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে এ রায় দেয়া হয়েছে।

রাজশাহীর জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আমলি আদালত-২-এর বিচারক মারুফ আল্লাম মঙ্গলবার দুপুরে এ নির্দেশ দেন।

আদালত পরিদর্শক আব্দুর রফিক নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

গত ৯ মে রাতে তাহেরপুর বাজারপাড়া ও তেলিপাড়া এলাকার দুটি গুদামে অভিযান চালিয়ে ২৬ হাজার ৭২৪ লিটার ভোজ্যতেল জব্দ করে পুলিশ। এর মধ্যে সয়াবিন তেল ছিল ১৯ হাজার ২২৪ লিটার এবং সরিষার তেল ৭ হাজার ৫০০ লিটার।

আদালত পরিদর্শক জানান, জব্দ করা এসব তেল আগামী ২৮ ও ২৯ মে ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) স্থানীয় দুই ডিলারের মাধ্যমে বিক্রি করতে হবে। ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি লিটার তেলের দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ১১০ টাকা। একজন ভোক্তার কাছে সর্বোচ্চ ২ লিটার তেল বিক্রি করা যাবে।

তিনি বলেন, ‘থানার একজন এসআই তেল বিক্রি কার্যক্রম তদারকি করবেন। এ ছাড়া প্রত্যেক ডিলার পয়েন্টে পুলিশ মোতায়েন থাকবে। তেলের বাড়তি মূল্য যেন আদায় না হয়, সেটিও নিশ্চিত করবে পুলিশ। তেল বিক্রি শেষে সংশ্লিষ্ট থানার ওসিকে আদালতে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলা হয়েছে।’

বাগমারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাক আহমেদ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘অবৈধভাবে মজুত করা এসব তেল জব্দ করার পর পুলিশের পক্ষ থেকে এগুলো খোলা বাজারে সাধারণ মানুষের মাঝে বিক্রির জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছিল। এরই পরিপ্রেক্ষিতে মঙ্গলবার আদালত অনুমতি দিয়েছে। আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী এসব তেল এখন বিক্রির ব্যবস্থা করা হবে।’

রাজশাহী জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ইফতেখায়ের আলম বলেন, ‘আদালতের নির্দেশনা অনুযায়ী এসব তেল বাগমারা এলাকাতেই বিক্রি করা হবে। এ ছাড়া সম্প্রতি উদ্ধার হওয়া আরও বেশ কিছু তেল খোলা বাজারে বিক্রির অনুমতি চেয়ে আদালতে আবেদন করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
দুই জেলায় ১০ হাজার ৩৬৪ লিটার সয়াবিন জব্দ
সরিষা তেলের দামও আকাশমুখী
মজুত ২ হাজার লিটার তেল জব্দ, জরিমানা
অবৈধ মজুত: আরও ৪৭ হাজার লিটার সয়াবিন জব্দ
৮ ভোজ্যতেল কোম্পানির বিরুদ্ধে মামলা

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The body of a person in a drum in the capital

রাজধানীতে ড্রামে ব্যক্তির মরদেহ

রাজধানীতে ড্রামে ব্যক্তির মরদেহ ঢাকা মেডিক্যাল হাসপাতালের মর্গ। ফাইল ছবি
এসআই এরশাদ আলম বলেন, ‘মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে আমার খবর পেয়ে যাত্রাবাড়ী মৃধাবাড়ি জিয়া সরণি এলাকার প্রতিবাদী ক্লাব সংলগ্ন খালের পাড় থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সেখানে নীল রঙের প্লাস্টিকের ড্রামের ভেতর থেকে মরদেহ উদ্ধার করি।’

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীর মৃধাবাড়ি এলাকার একটি খালের পাড় হতে প্লাস্টিকের ড্রামের ভেতর থেকে এক ব্যক্তির মরদেহ উদ্ধার পুলিশ।

ওই ব্যক্তির বয়স ৩০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে হতে পারে বলে ধারণা করেছে পুলিশ।

যাত্রাবাড়ী থানার পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) এরশাদ আলম বলেন, ‘মঙ্গলবার সকাল ৬টার দিকে আমার খবর পেয়ে যাত্রাবাড়ী মৃধাবাড়ি জিয়া সরণি এলাকার প্রতিবাদী ক্লাব সংলগ্ন খালের পাড় থেকে মরদেহ উদ্ধার করা হয়। সেখানে নীল রঙের প্লাস্টিকের ড্রামের ভেতর থেকে মরদেহ উদ্ধার করি।’

তিনি জানান, পরে আইনি প্রক্রিয়া শেষে মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়।

তিনি আরও বলেন, ‘নিহতের নাম-পরিচয় আমরা এখনো জানতে পারিনি বিস্তারিত জানার চেষ্টা চলছে। ফিঙ্গারপ্রিন্টের মাধ্যমে তার নাম পরিচয় জানা যাবে।’

ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃত্যুর সঠিক কারণ জানা যাবে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, ‘মরদেহের কাছ থেকে একটি চাদর, একটি কাঁথা ও এক টুকরো কাপড় পাওয়া গেছে।’

আরও পড়ুন:
কক্সবাজার সৈকতে দুই যুবকের মরদেহ
উত্তরায় তরুণীর মরদেহ উদ্ধার
স্ত্রী-দুই সন্তান হত্যা, পুলিশ হেফাজতে স্বামী-প্রতিবেশী
নিখোঁজের ২৪ ঘণ্টা পর নদীতে যুবকের মরদেহ
নদীতে যুবকের অর্ধগলিত মরদেহ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
I dont want relief I want salvation

‘ত্রাণ চাই না, পরিত্রাণ চাই’

‘ত্রাণ চাই না, পরিত্রাণ চাই’ আশাশুনিতে কপোতাক্ষ নদের ভাঙন। ছবি: নিউজবাংলা
'ত্রাণ চাই না, পরিত্রাণ চাই' এই স্লোগানে সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবের সামনে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে মানববন্ধন করেছেন কপোতাক্ষপাড়ের মানুষ।

সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলায় টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণের দাবি জানিয়েছেন কপোতাক্ষপাড়ের মানুষ।

‘ত্রাণ চাই না, পরিত্রাণ চাই’ স্লোগানে সাতক্ষীরা প্রেস ক্লাবের সামনে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে মানববন্ধন করেছেন তারা।

জেলা নাগরিক কমিটি, নারী কমিটি, আশাশুনি সদর ও শ্রীউলা ইউনিয়নবাসী এই কর্মসূচির আয়োজন করেন।

জেলা নাগরিক কমিটির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আনিসুর রহিমের সভাপতিত্বে ও যুগ্মসচিব আলী নুর খান বাবলুর সঞ্চালনায় মানববন্ধন হয়।

অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন নাগরিক কমিটির সদস্যসচিব আবুল কালাম আজাদ, পানি কমিটির সভাপতি অধ্যক্ষ আশেক ই এলাহী, আশাশুনি সদর ইউপি চেয়ারম্যান এস এম হোসেনুজ্জামান, জাসদ নেতা অধ্যাপক ইদ্রিস আলী।

আনিসুর রহিম বলেন, ‘আমরা ত্রাণ চাই না, টেকসই বেড়িবাঁধ চাই। নদনদীর ভাঙন আর দেখতে চাই না। আশাশুনির নদনদী খনন প্রয়োজন। জলাবদ্ধতা নিরসনে সরকারের বরাদ্দের অর্থ যথাযথভাবে ব্যয় করতে হবে।’

তিনি আরও বলেন, সাতক্ষীরা পৌরসভার বিভিন্ন পাড়া-মহল্লা জলাবদ্ধ। অনেকের ঘরের মধ্যে পানি। জলাবদ্ধতায় জীবন দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে।

মানববন্ধন শেষে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হুমায়ুন কবিরের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে স্মারকলিপি পাঠিয়েছেন নাগরিক নেতারা।

আরও পড়ুন:
পদ্মার ভাঙন: হঠাৎ বিলীন ১৫০ মিটার
পদ্মার ভাঙনে রাজবাড়ীতে ১০০ মিটার বিলীন
তিস্তার ঢলে মহাসড়কে ভাঙন, দুর্ভোগ
তিস্তার পানির তোড়ে আঞ্চলিক সড়কে ধস
ঘাঘটের ভাঙনে নিঃস্ব হাজারো পরিবার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Aedes mosquito control mobile court from June 15 Tapas

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ১৫ জুন থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত: তাপস

এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে ১৫ জুন থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত: তাপস নগর ভবনে বোর্ড সভায় ডিএসসিসি মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। ছবি: নিউজবাংলা
তাপস বলেন, ‘১৫ জুন থেকেই কার্যক্রম আমরা পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু করব। আমাদের ১০টি অঞ্চলে ১০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের জন্য আমরা এরই মাঝে জানিয়েছি। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি পেয়ে যাব। এছাড়াও আমাদের চিরুনি অভিযান পরিচালিত হবে।’

ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা নিয়ন্ত্রণে আগামী ১৫ জুন থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) আওতাধীন ১০টি অঞ্চলে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে বলে জানিয়েছেন মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস।

ডিএসসিসির প্রধান কার্যালয় নগর ভবনে মঙ্গলবার দুপুরে করপোরেশনের দ্বিতীয় পরিষদের চতুর্দশ বোর্ড সভায় মেয়র এ তথ্য জানান।

তাপস বলেন, ‘আমাদের কাছে জনগণের প্রত্যাশা অনেক বেশি। এজন্য আমরা মনে করি, আমাদের আরও করণীয় রয়েছে এবং সেভাবেই এবারের কর্মপরিকল্পনা সাজিয়েছি। কর্মপরিকল্পনার আলোকে ১৫ জুন থেকেই কার্যক্রম আমরা পূর্ণাঙ্গভাবে শুরু করব। আমাদের ১০টি অঞ্চলে ১০ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের জন্য আমরা এরই মাঝে জানিয়েছি। আশা করছি খুব তাড়াতাড়ি পেয়ে যাব। এছাড়াও আমাদের চিরুনি অভিযান পরিচালিত হবে।’

গতবারের তুলনায় এবার বেশি সময় ধরে চিরুনি অভিযান চালানো হবে জানিয়ে ডিএসসিসি মেয়র বলেন, ‘গতবার আমরা এক মাস নিয়ন্ত্রণকক্ষ পরিচালনা করেছিলাম। এবার সেটা আমরা দুই মাস ধরে পরিচালনা করব। এই নিয়ন্ত্রণ কক্ষের মাধ্যমে আমরা চিরুনি অভিযানগুলো তদারকি করব।’

এ সময় ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে জনগণকে সহযোগিতার আহ্বান জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘আপনারা যারা বাসাবাড়ির মালিক এটা আপনাদেরই দায়িত্ব যে আপনার আঙিনা, ছাদে, টবে পরিত্যক্ত জায়গায় যাতে কোনো পানি না জমে সেটা খেয়াল রাখা। বৃষ্টি হলে কোথাও পানি জমেছে কিনা সেটা দেখবেন। পানি জমে থাকলে সেটা ফেলে দিন। তিন দিনের জন্য অপেক্ষা না করে নিয়মিত জমা পানি ফেলে দিন।’

২০১৯ সালের তুলনায় ২০২১ সালে ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে তুলনামূলক সফলতার জন্য মেয়র তাপস বোর্ড সভায় কাউন্সিলরদের ধন্যবাদ জানিয়ে এবার আরও বেশি সজাগ থাকার আহ্বান জানান।

বোর্ড সভায় করপোরেশনের কাউন্সিলররা ছাড়াও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ফরিদ আহাম্মদ, প্রধান বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কর্মকর্তা এয়ার কমডোর সিতওয়াত নাঈম, প্রধান প্রকৌশলী সালেহ আহম্মেদ, সচিব আকরামুজ্জামান, ভারপ্রাপ্ত প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ফজলে শামসুল কবির, প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা আরিফুল হক, প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা রাসেল সাবরিন, প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ সিরাজুল ইসলাম উপস্থিত ছিলেন।

আরও পড়ুন:
জুনের প্রথম সপ্তাহে ডিএসসিসিতে ভিটামিন ‘এ’ প্লাস ক্যাম্পেইন
নগর ভবনে পুলিশ আটক
একটি দুর্নীতিমুক্ত প্রতিষ্ঠান থাকলে সেটি ঢাকা দক্ষিণ: মেয়র
পরিচর্যাহীন ছাদবাগান ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে বাধা: তাপস
অনুমোদনহীন বিজ্ঞাপন বোর্ডের বিরুদ্ধে দক্ষিণ সিটির অভিযান

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Court case in the name of UNO Aceland

ইউএনও-এসিল্যান্ডের নামে আদালতে মামলা

ইউএনও-এসিল্যান্ডের নামে আদালতে মামলা
মামলার আবেদনে বলা হয়, গত ১০ মে বেলা আড়াইটার দিকে কসবা উজিরপুর হাটের ৩০-৪০টি দোকান উচ্ছেদ করার সময় তার দুটি পাকা ঘর বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলা হয়। এতে তার ১৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। সে সময় তার বাড়ি থেকে ৫০ হাজার টাকাসহ ১২টি জিনিসপত্র লুট হয়। 

চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও সহকারী কমিশনারের (ভূমি) বিরুদ্ধে আদালতে মামলার আবেদন করেছেন স্থানীয় এক ব্যক্তি। তাতে অভিযোগ করেছেন, একটি হাটের অবৈধ দোকানপাট উচ্ছেদের সময় তার বসতঘর ভাঙা হয়েছে। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছে।

ইউএনও শরিফ আহম্মেদ ও এসিল্যান্ড মিথিলা দাসসহ পাঁচজনের নামে মঙ্গলবার আদালতে মামলার এই আবেদন করেন নাচোলের কসবা উজিরপুর এলাকার আব্দুর রশীদ।

বাদীর আইনজীবী আব্দুর রহমান এসব নিশ্চিত করেছেন।

আবেদনে বলা হয়, গত ১০ মে বেলা আড়াইটার দিকে কসবা উজিরপুর হাটের ৩০-৪০টি দোকান উচ্ছেদ করার সময় তার দুটি পাকা ঘর বুলডোজার দিয়ে ভেঙে ফেলা হয়। এতে তার ১৫ লাখ টাকা ক্ষতি হয়েছে। সে সময় তার বাড়ি খেকে ৫০ হাজার টাকাসহ ১২টি জিনিসপত্র লুট হয়।

বাদী অভিযোগ করেন, হাটের জমির সঙ্গে তার বসতবাড়ির জমির দাগের কোনো মিল নেই। তার বসতবাড়ি আরএস ১৬৬, যা ৬০ বছরের বেশি সময় থেকে তিনি ভোগদখল করে আসছেন।

নাচোলের ইউএনও শরিফ বলেন, ‘ওটা সরকারি ইজারা দেয়া হাট। ওই হাটে অবৈধ স্থাপনা ছিল। বারবার নোটিশ দেয়া হয়েছে। এরপর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সহায়তায় উচ্ছেদ করা হয়েছে।

‘ওখানে কারও বাড়িঘর ছিল না। তারা কেন এ কথা বলছে আমি জানি না। আর ওই জমি হাটের শতভাগ খাস খতিয়ানের জায়গা। আমি যদি অপরাধ করে থাকি, আদালত আমাকে শান্তি দেবে। মহান সৃষ্টিকর্তা আমাকে শাস্তি দিক। কারও বসতবাড়ি নির্বাহী কর্মকর্তা, এসিল্যান্ড ভেঙে দেবে, লুটপাট করবে এমন অভিযোগ দুঃখজনক। এতে সরকারি দায়িত্ব পালনে বিব্রতবোধ করবে।’

বাদীর আইনজীবী আব্দুর রহমান জানান, জেলা জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম আমলি আদালতের বিচারক হুমায়ন কবীর মামলাটি আমলে নিয়ে নাচোল থানার ওসিকে তদন্ত করে ১৫ জুনের মধ্যে আদালতে প্রতিবেদন জমা দেয়ার আদেশ দিয়েছেন।

আরও পড়ুন:
শ্রমিক নেতা শহিদুল হত্যা: প্রধান অভিযুক্ত গ্রেপ্তার
সাত খুন: ‘শাস্তির দাবি নিয়ে আর কতদিন ঘুরব?’
ভাইকে হত্যা: স্বামী-স্ত্রী গ্রেপ্তার
ছাত্রলীগ নেতা খুনের ঘটনায় মামলা
বিচারকের বিরুদ্ধে নির্যাতন মামলা গ্রহণের শুনানি ফের পেছাল

মন্তব্য

p
উপরে