× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
Unveiling of the book Bangladesh At 50
google_news print-icon

‘বাংলাদেশ অ্যাট ৫০’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

বাংলাদেশ-অ্যাট-৫০-গ্রন্থের-মোড়ক-উন্মোচন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শেরেবাংলা নগরে একনেক সভায় ‘বাংলাদেশ অ্যাট ৫০ : রিয়েলাইজেশন অব ড্রিমস থ্রো হিউম্যান অ্যান্ড পেট্রিয়টিক লিডাশিপ’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন। ছবি: পিআইডি
একনেক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, স্বাধীনতার পর দেশের অর্থনীতির বিভিন্ন ধাপ উঠে এসেছে এ গ্রন্থে। যুদ্ধবিধ্বস্ত ও ভঙ্গুর অর্থনৈতিক কাঠামোর ওপর দাঁড়িয়ে জাতির পিতা যেভাবে তার অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন দর্শনের রূপরেখা তুলে ধরেছিলেন এবং দ্রুত একটি শক্তিশালী অর্থনৈতিক কাঠামো গড়ে তুলেছিলেন তার বর্ণনা রয়েছে বইয়ের প্রথম দিকে।

‘বাংলাদেশ অ্যাট ৫০ : রিয়েলাইজেশন অব ড্রিমস থ্রো হিউম্যান অ্যান্ড পেট্রিয়টিক লিডারশিপ’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় ভার্চুয়ালি যুক্ত হয়ে গণভবন থেকে গ্রন্থটির মোড়ক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী।

অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলমসহ অনেকে এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে অর্থ মন্ত্রণালয় এবং পরিকল্পনা মন্ত্রণালয় যৌথভাবে বইটি প্রকাশ করেছে।

ইংরেজি ভাষায় প্রকাশিত ২৭০ পৃষ্ঠার এ বইতে বঙ্গবন্ধুর আজন্ম লালিত স্বপ্ন ’সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠায় তার অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন দর্শন এবং স্বাধীনতার পঞ্চাশ বছরে তা বাস্তবায়নে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে অর্জিত সাফল্য তুলে ধরা হয়েছে। এ তথ্য দেশ-বিদেশে আগ্রহী পাঠক ও গবেষকদের কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ রেফারেন্স পুস্তক হিসেবে সমাদৃত হবে বলে আশা করছে দুই মন্ত্রণালয়।

একনেক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান জানান, স্বাধীনতার পর দেশের অর্থনীতির বিভিন্ন ধাপ উঠে এসেছে এ গ্রন্থে। যুদ্ধবিধ্বস্ত ও ভঙ্গুর অর্থনৈতিক কাঠামোর ওপর দাঁড়িয়ে জাতির পিতা যেভাবে তার অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন দর্শনের রূপরেখা তুলে ধরেছিলেন এবং দ্রুত একটি শক্তিশালী অর্থনৈতিক কাঠামো গড়ে তুলেছিলেন তার বর্ণনা রয়েছে বইয়ের প্রথম দিকে।

তখন দ্রুত অর্থনীতিসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন আইন প্রণয়ন, আর্থিক ও অর্থনৈতিক খাতসংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা, পরিকল্পনা কমিশন, প্রথম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার বিবরণ উঠে এসেছে বর্ণনায়।

প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে অর্থনৈতিক নীতি অনুসরণের মাধ্যমে দেশ ১৩ বছরে সুদৃঢ় সামষ্টিক অর্থনৈতিক স্থিতিশীলতা বজায় রাখতে সক্ষম হয়েছে অর্থনৈতিক অগ্রগতির মাধ্যমে, যা বিশ্বব্যাপী প্রশংসা পেয়েছে। এসবের তথ্যবহুল চিত্র তুলেও ধরা হয়েছে বইটির কয়েক অধ্যায়ে।

এ ছাড়া আর্থিক খাতে সরকারের গৃহীত উল্লেখযোগ্য সংস্কার কর্মসূচির বিস্তারিত বিবরণ, নিম্ন আয়ের দেশ থেকে মধ্যম আয়ের দেশে বাংলাদেশের উত্তরণ এবং স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে উত্তরণের প্রেক্ষাপট ও সাফল্যের বিবরণ রয়েছে এ গ্রন্থে।

গ্রন্থটির ইলেকট্রনিক কপি অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইট (www.mof.gov.bd) সবার জন্য উম্মুক্ত।

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
An hour later the fire broke out at the Mutual Trust Bank in Dholaikhal

এক ঘণ্টা পর নিভল ধোলাইখালের মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের আগুন

এক ঘণ্টা পর নিভল ধোলাইখালের মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের আগুন ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট বেলা ১১টা ৫৭ মিনিটে ধোলাইখাল এলাকায় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের আগুন নিভিয়ে ফেলে। ছবি: মেহেরাবুল ইসলাম সৌদিপ/নিউজবাংলা
সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ব্যাংকটিতে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট বেলা ১১টা ৫৭ মিনিটে আগুন নিভিয়ে ফেলে।

রাজধানীর ধোলাইখাল এলাকায় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে শনিবার ধরা আগুন নিভিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ব্যাংকটিতে আগুন লাগে। ফায়ার সার্ভিসের পাঁচটি ইউনিট বেলা ১১টা ৫৭ মিনিটে আগুন নিভিয়ে ফেলে।

এর আগে নিউজবাংলাকে আগুন লাগার বিষয়টি নিশ্চিত করে ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার লিমা খানম জানান, ধোলাইখালের ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন লাগে। খবর পেয়ে বাহিনীর পাঁচটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করে।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি।

আরও পড়ুন:
ধোলাইখালে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন
‘যতটুকু খাবার দরকার নিয়ে যান, অপচয় করবেন না’
থানচির থুইসাপাড়ায় ভয়াবহ আগুন নিয়ন্ত্রণ বিজিবির
দেড় মাসে তৃতীয়বারের মতো আগুন ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু হাসপাতালে
সাংবাদিক প্রবেশে কড়াকড়ি ইস্যুতে যা জানাল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Dhaka air is bearable during holidays

ছুটির দিনে ‘সহনীয়’ ঢাকার বাতাস

ছুটির দিনে ‘সহনীয়’ ঢাকার বাতাস প্রাণভরে নিশ্বাস নিতে রাজধানীর অনেকেই যান রমনা পার্কে। ফাইল ছবি
আইকিউএয়ার জানিয়েছে, আজ সকালের ওই সময়ে ঢাকার বাতাসে মানবস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ অতি ক্ষুদ্র কণা পিএম২.৫-এর উপস্থিতি ছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আদর্শ মাত্রার চেয়ে ৬ দশমিক ১ গুণ বেশি।

বাতাসের নিম্ন মানের দিক থেকে আইকিউএয়ারের তালিকায় নিয়মিত শীর্ষ দশে থাকা ঢাকার বায়ুর মানের উন্নতি হয়েছে।

সরকারি ছুটির দিন শনিবার সকালে ‘সহনীয়’ বা ‘মধ্যম মানের’ বাতাস পেয়েছে রাজধানীবাসী।

সুইজারল্যান্ডভিত্তিক বাতাসের মানবিষয়ক প্রযুক্তি কোম্পানিটির র‌্যাঙ্কিংয়ে বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে ৯১ স্কোর নিয়ে বাতাসের মানের দিক থেকে ১১৯টি শহরের মধ্যে ১৮তম অবস্থানে ছিল ঢাকা।

একই সময়ে বাতাসের নিম্ন মানের দিক থেকে শীর্ষে ছিল ভারতের দিল্লি।

আইকিউএয়ার জানিয়েছে, আজ সকালের ওই সময়ে ঢাকার বাতাসে মানবস্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ অতি ক্ষুদ্র কণা পিএম২.৫-এর উপস্থিতি ছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) আদর্শ মাত্রার চেয়ে ৬ দশমিক ১ গুণ বেশি।

নির্দিষ্ট স্কোরের ভিত্তিতে কোনো শহরের বাতাসের ক্যাটাগরি নির্ধারণের পাশাপাশি সেটি জনস্বাস্থ্যের জন্য ভালো নাকি ক্ষতিকর, তা জানায় আইকিউএয়ার।

কোম্পানিটি শূন্য থেকে ৫০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘ভালো’ ক্যাটাগরিতে রাখে। অর্থাৎ এ ক্যাটাগরিতে থাকা শহরের বাতাস জনস্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর নয়।

৫১ থেকে ১০০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘মধ্যম মানের বা সহনীয়’ হিসেবে বিবেচনা করে কোম্পানিটি।

আইকিউএয়ারের র‌্যাঙ্কিংয়ে ১০১ থেকে ১৫০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘সংবেদনশীল জনগোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর’ ক্যাটাগরিতে ধরা হয়।

১৫১ থেকে ২০০ স্কোরে থাকা শহরের বাতাসকে ‘অস্বাস্থ্যকর’ ক্যাটাগরির বিবেচনা করা হয়।

র‌্যাঙ্কিংয়ে ২০১ থেকে ৩০০ স্কোরে থাকা শহরগুলোর বাতাসকে ‘খুবই অস্বাস্থ্যকর’ ধরা হয়।

তিন শর বেশি স্কোর পাওয়া শহরের বাতাসকে ‘বিপজ্জনক’ হিসেবে বিবেচনা করে আইকিউএয়ার।

আজ বেলা ১১টা ৫০ মিনিটে ঢাকার বাতাসের স্কোর ছিল ৯১। এর মানে হলো সে সময়টাতে মধ্যম মানের বা সহনীয় বাতাস নিতে পেরেছেন রাজধানীবাসী।

আরও পড়ুন:
ঢাকার বাতাস ‘সহনীয়’
তালিকায় উন্নতি, তবু অস্বাস্থ্যকর ঢাকার বাতাস
ছুটির দিনেও ‘অস্বাস্থ্যকর’ ঢাকার বাতাস
ঢাকার বাতাস সংবেদনশীল জনগোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর
সংবেদনশীল জনগোষ্ঠীর জন্য অস্বাস্থ্যকর ঢাকার বাতাস

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Fire at Dholaikhal Mutual Trust Bank

ধোলাইখালে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন

ধোলাইখালে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন ধোলাইখাল এলাকায় ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় শনিবার সকালে মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে লাগা আগুন নেভাতে কাজ করছেন ফায়ার সার্ভিস সদস্যরা। ছবি: ফায়ার সার্ভিস
নিউজবাংলাকে আগুন লাগার বিষয়টি নিশ্চিত করে ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার লিমা খানম জানান, ধোলাইখালের ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন লেগেছে। খবর পেয়ে বাহিনীর পাঁচটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

রাজধানীর ধোলাইখাল এলাকায় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে শনিবার আগুন ধরার খবর জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

সকাল ১০টা ৪০ মিনিটে ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় ব্যাংকটিতে আগুন লাগে।

নিউজবাংলাকে আগুন লাগার বিষয়টি নিশ্চিত করে ফায়ার সার্ভিসের ডিউটি অফিসার লিমা খানম জানান, ধোলাইখালের ছয় তলা ভবনের দ্বিতীয় তলায় মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকে আগুন লেগেছে। খবর পেয়ে বাহিনীর পাঁচটি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে।

তিনি আরও জানান, প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। ফায়ার সার্ভিসের ফাইটাররা আগুন নেভাতে কাজ করে যাচ্ছেন।

আরও পড়ুন:
নতুন করে রিজার্ভ চুরির খবর সত্য নয়: বাংলাদেশ ব্যাংক
সোনালী ব্যাংকের সঙ্গে বিডিবিএলকে একীভূত করতে চুক্তি সই
ইসলামী ব্যাংকের বরিশাল জোনের কর্মকর্তা সম্মেলন অনুষ্ঠিত
ইসলামী ব্যাংকের হজ বুথ উদ্বোধন
সোনালী ব্যাংকের বিশেষ পর্ষদ সভা অনুষ্ঠিত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
A businessman died after falling from the roof of a 6 storey building in Old Dhaka

পুরান ঢাকায় ৬ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে ব্যবসায়ী নিহত

পুরান ঢাকায় ৬ তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে ব্যবসায়ী নিহত ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের প্রবেশমুখ। ফাইল ছবি
ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মোহাম্মদ বাচ্চু মিয়া জানান, যুবকের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি চকবাজার থানাকে জানানো হয়েছে।

পুরান ঢাকার চকবাজার থানাধীন এলাকায় ছয় তলা ভবনের ছাদ থেকে পড়ে এক কাপড় ব্যবসায়ী নিহত হয়েছেন বলে জানিয়েছেন স্বজনরা।

ইসলামবাগে শুক্রবার রাত পৌনে ৯টার দিকে ভবন থেকে পড়ে যান শফিকুল ইসলাম (২৩)।

স্বজনরা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে এলে রাত পৌনে ১০টার দিকে তাকে মৃত বলে জানান চিকিৎসক।

শফিকুলকে ঢামেক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া তার চাচা হাজি মুহাম্মদ বাদল মিয়া বলেন, ‘আমার ভাতিজা শফিকুল ইসলাম ইসলামপুরে আমার সাথে কাপড়ের ব্যবসা করত। আজ ছুটির দিন থাকায় রাতে প্রচণ্ড গরমে সে ছয় তলার ছাদে উঠে সেখান থেকে অসাবধানতাবশত নিচে পড়ে যায়। পরে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসলে চিকিৎসক তাকে মৃত বলে জানান।’

তিনি জানান, তাদের গ্রামের বাড়ি মাদারীপুরের কালকিনি থানার সাহেব রামপুর গ্রামে। শফিকুল ৯৭/১ ইসলামবাগের পঞ্চম তলায় ভাড়া বাসায় থাকতেন।

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ মোহাম্মদ বাচ্চু মিয়া জানান, যুবকের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি চকবাজার থানাকে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
গাইবান্ধার দুই উপজেলায় বজ্রপাতে দুইজনের মৃত্যু
কুড়িগ্রামে পুকুরের পানিতে খেলতে গিয়ে প্রাণ গেল দুই শিশুর
গলায় লিচুর বিচি আটকে আওয়ামী লীগ নেতার মৃত্যু
মৃত্যুদণ্ডাদেশ চূড়ান্ত হওয়ার আগে আসামিকে কনডেম সেলে রাখা যাবে না: হাইকোর্ট
ময়মনসিংহে বন্য হাতির আক্রমণে কৃষক নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Uttara will not have gas for 15 hours on Saturday

উত্তরায় শনিবার ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না

উত্তরায় শনিবার ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না
তিতাস কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্প কাজের জন্য রাজধানীর উত্তরা, উত্তরখান ও দক্ষিণখান এলাকায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

রাজধানীর উত্তরা ও আশপাশ এলাকায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত টানা ১৫ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না।

ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ প্রকল্পের সেকশন-১-এর অ্যালাইনমেন্টে গ্যাস পাইপলাইন জরুরি স্থানান্তরের জন্য সংশ্লিষ্ট এলাকায় এই সময়কালে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে।

তিতাস গ্যাস ট্রান্সমিশন অ্যান্ড ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি সূত্রে জানা গেছে, রাজধানীর উত্তরা, উত্তরখান ও দক্ষিণখান এলাকায় শনিবার সকাল ৯টা থেকে রাত ১২টা পর্যন্ত গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকবে। সংলগ্ন এলাকার বাসাবাড়িতে গ্রাহকদের গ্যাস সরবরাহে চাপ কম থাকতে পারে।

গ্যাস সরবরাহ বিঘ্নিত হওয়ায় গ্রাহকদের অসুবিধার জন্য দুঃখ প্রকাশ করছে তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষ।

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The high price of daily products is increasing the sweat of the consumer Dozen 160 eggs
বাজার দর

নিত্যপণ্যের উচ্চ মূল্যে ভোক্তার ঘাম বাড়ছে, ডিমের ডজন ১৬০

নিত্যপণ্যের উচ্চ মূল্যে ভোক্তার ঘাম বাড়ছে, ডিমের ডজন ১৬০
বেসরকারি চাকুরে আবুল হোসেন বলেন, ডলারের বিপরীতে টাকার মান ৮৪ থেকে ১১৭ টাকায় দাঁড়িয়েছে, যা ভোক্তদের ওপর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পাশাপাশি জ্বালানির দামও বেড়েছে, বেড়েছে সুদ হার। এসবের প্রভাব পড়েছে ভোক্তা বাজারে।

উচ্চ সুদ হারের মধ্যে দ্রব্যমূল্য বাড়তে থাকায় মূল্যস্ফীতির প্রভাবে হিমশিম খাচ্ছেন রাজধানী ঢাকার বাসিন্দারা।

গত এক দশকের মধ্যে সর্বোচ্চ বেড়েছে মাছ, ডিম, শাকসবজিসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যসহ প্রায় সব ভোগ্যপণ্যের দাম। বিশেষ করে ডিমের বাজারে ভয়াবহ অস্থিরতা। ডজনে দাম বেড়েছে ২৫ টাকা।

শাকসবজি, মাংস, মুরগি ও মাছের দাম অপরিবর্তিত থাকলেও চড়া দাম রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিভিন্ন পেশার একাধিক ক্রেতা।

ইউএনবির সঙ্গে আলাপকালে তারা বলেন, প্রায় সব ধরনের শাকসবজি, মাছ, মুরগি, মাংসসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দাম অনেক বেড়েছে।

একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠানের মধ্যম পর্যায়ের কর্মকর্তা আবুল হোসেন বলেন, ডলারের বিপরীতে টাকার মান ৮৪ থেকে ১১৭ টাকায় দাঁড়িয়েছে, যা ভোক্তদের ওপর মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পাশাপাশি জ্বালানির দামও বেড়েছে, বেড়েছে সুদ হার। এসবের প্রভাব পড়েছে ভোক্তা বাজারে।

আবুল হোসেনের মতো একই কথা জানালেন আরও অনেকে।

গত ১০ দিন ধরে ডিমের দাম বেড়েই চলেছে। শুক্রবার রাজধানীতে প্রতি ডজন ডিম ১৬০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। সে হিসাবে গত দুই সপ্তাহে দাম বেড়েছে ২৫ টাকা।

কারওয়ান বাজার, মোহাম্মদপুর, মহাখালী, মালিবাগসহ বিভিন্ন কাঁচাবাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি ডজন ডিম বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকায়।

ব্রয়লার মুরগি ও পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত সোনালি মুরগির দাম গত দুই সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে ১০ থেকে ২০ টাকা বেড়েছে। আকার ও মান ভেদে প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ২২০ থেকে ২৩৫ টাকায়। সোনালি মুরগি আকার ও মান ভেদে কেজিপ্রতি ৩৪৫ থেকে ৩৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

অন্যদিকে প্রতি কেজি কক মুরগি ৩৭০ থেকে ৩৯০ টাকা, লেয়ার মুরগি ৩০০ থেকে ৩৫০ টাকা, ও দেশি মুরগি প্রতি কেজি ৬৭০ থেকে ৭৬৫ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সংশ্লিষ্ট খাতের ব্যবসায়ীরা জানান, মুরগির খাবার ও ব্রয়লার মুরগির বাচ্চার দাম বাড়ায় বাজারে এর প্রভাব পড়েছে।

শুক্রবার মান ভেদে প্রতি কেজি গরুর মাংস বিক্রি হয়েছে ৭৫০ থেকে ৭৮০ টাকায়, যা সপ্তাহের অন্যান্য দিনের চেয়ে কেজিতে ৩০ টাকা বেশি।

মান ভেদে খাসির মাংস প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে এক হাজার থেকে ১ হাজার ১৮০ টাকায়। সে হিসাবে কেজিতে ৫০ টাকা বেড়েছে।

শুক্রবার কারওয়ান বাজার মাছের বাজারে ৪৫০ গ্রাম ওজনের ইলিশ ৬৫০ টাকা এবং এক কেজি ওজনের ইলিশ এক হাজার ৮০০ থেকে দুই হাজার টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। ৭০০ থেকে ৮০০ গ্রাম ওজনের ইলিশ বিক্রি হয় ৯০০ থেকে এক হাজার টাকায়।

রুই ও কার্প জাতীয় মাছ কেজি হিসেবে ও মান অনুযায়ী ৩০০ থেকে ৪৫০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। নদীর ছোট মাছসহ অন্যান্য মাছ বিক্রি হচ্ছে ৪০০ থেকে ৭০০ টাকা কেজি দরে।

বিগত বছরগুলোর তুলনায় সবজির দাম এখনও চড়াই রয়েছে। অন্যদিকে দাম বাড়ার জন্য মূল্যস্ফীতিকে দায়ী করেছেন ব্যবসায়ীরা।

শুক্রবার প্রতি কেজি বেগুন, ঢেঁড়স, সজনে, শিম, করলাসহ সবজি ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গোল বেগুন বিক্রি হয়েছে ৮০ টাকা কেজি।

অন্যদিকে মৌসুম শেষ হওয়ায় বেড়েছে টমেটোর দাম। ভালো মানের টমেটো বিক্রি হচ্ছে ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে।

অন্যান্য সবজি প্রতি কেজি ৫০ থেকে ৬০ টাকা এবং লাউ, চালকুমড়া ও ফুলকপি ৫০ থেকে ৬০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

মানভেদে দেশি পেঁয়াজ ৭০ থেকে ৮০ টাকা, রসুন ১৮০ থেকে ২৫০ টাকা ও আদা ২০০ থেকে ২৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে।

চাল, গম, আটা, দুধ, সয়াবিন, সুগন্ধি চালসহ অন্যান্য নিত্যপণ্যের দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।

আরও পড়ুন:
মেহেরপুরে গরুর মাংস ৭৩০, পেঁয়াজের সেঞ্চুরি
পেঁয়াজ: রোববার কোন জেলায় কত ছিল দাম
দেশজুড়ে পেঁয়াজের বাজারে নৈরাজ্য চলছে
আলু পেঁয়াজ ডিমের দাম কঠোরভাবে তদারকি হচ্ছে: বাণিজ্যমন্ত্রী
বাজারে আগুন, ডিম-সবজি-মাছের দাম বাড়ছেই

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Sheikh Hasina Shaper of Changing Bangladesh Obaidul Quader

শেখ হাসিনা বদলে যাওয়া বাংলাদেশের রূপকার: ওবায়দুল কাদের

শেখ হাসিনা বদলে যাওয়া বাংলাদেশের রূপকার: ওবায়দুল কাদের ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে আয়োজিত আলোচনা সভায় শুক্রবার বিকেলে বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ছবি: সংগৃহীত
আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘অনেকে বলেন- বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতাবিরোধীদের ক্ষমা করে দিয়েছিলেন, এটা সত্যি নয়। ১১ হাজার স্বাধীনতাবিরোধী কারাগারে ছিল।’

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকে মুক্তিযুদ্ধের হারিয়ে যাওয়া মূল্যবোধের প্রত্যাবর্তন বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

শেখ হাসিনার ৪৪তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর তেজগাঁওয়ে অবস্থিত ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের কার্যালয়ে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। খবর বাসস

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বাংলাদেশের গত ৪৪ বছরে সবচেয়ে সাহসী রাজনীতিকের নাম শেখ হাসিনা, সবচেয়ে বিচক্ষণ নেতার নাম শেখ হাসিনা, সবচেয়ে দক্ষ প্রশাসকের নাম শেখ হাসিনা, সবচেয়ে জনপ্রিয় নেতার নাম শেখ হাসিনা, সবচেয়ে সফল কূটনীতিকের নাম শেখ হাসিনা।’

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশে গত ৪৪ বছরের ইতিহাসে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনের পর থেকে যে পরিবর্তন হয়েছে, এই পরিবর্তন, রূপান্তরের রূপকার শেখ হাসিনা। তিনি বদলে যাওয়া বাংলাদেশের রূপকার। বঙ্গবন্ধু পয়েট অফ পলিটিক্স আর শেখ হাসিনা ম্যাজিক অফ পলিটিক্স। শেখ হাসিনার প্রত্যাবর্তন মুক্তিযুদ্ধের হারিয়ে যাওয়া মূল্যবোধের প্রত্যাবর্তন।’

বেসামাল বিএনপি প্রতিনিয়ত আওয়ামী লীগকে আক্রমণ করছে অভিযোগ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি তাদের বলতে চাই, আপনারা মুক্তির কথা বলেন, লজ্জা করে না? জিয়াউর রহমান আওয়ামী লীগসহ অন্যান্য দলের ৬২ হাজার নেতাকে জেলে রেখেছিল। আপনাদের কতজন নেতা জেলে আছেন? আমাদের ৩ হাজার নেতাকর্মী ও সরকারি অফিসারদের গুম করেছিলেন জিয়াউর রহমান।’

আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘অনেকে বলেন- বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতাবিরোধীদের ক্ষমা করে দিয়েছিলেন, এটা সত্যি নয়। ১১ হাজার স্বাধীনতাবিরোধী কারাগারে ছিল। জিয়াউর রহমান ক্ষমতায় এসে এদের মুক্তি দিয়েছিল। যার মধ্যে মানবতাবিরোধী অপরাধে জড়িত ছিল ৭১৩ জন। এদের মুক্তি দিয়েছিল জিয়াউর রহমান।

‘১৯৭৫ সালের পর জিয়াউর রহমান নাস্তা খেতে খেতে আমাদের বিভিন্ন সামরিক বাহিনীর ১১ শ’ নেতাকর্মীকে ফাঁসি দিয়েছিল। এই ইতিহাস ভুলে গেছেন? কথায় কথায় আজ বলেন, কারাগার। আমি কি মিথ্যা বলেছি? জিয়াউর রহমান কী করেছিল এর প্রমাণ আছে।’

‘প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশকে নিয়ন্ত্রণ করে’ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের এমন বক্তব্যের জবাবে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ফখরুল সাহেবকে বলছি, শেখ হাসিনাকে কেউ নিয়ন্ত্রণ করতে পারে না। আমাদের নিয়ন্ত্রণ করে দেশের জনগণ, সংবিধান। এই সংবিধানের বাইরে আমরা যাব না। যত ষড়যন্ত্র করুক, বিদেশি শক্তির নামে হুমকি-ধমকি দিতে পারেন। তিনি কোনো বিদেশি শক্তির পরোয়া করেন না, বাংলাদেশের জনগণকে পরোয়া করেন।’

দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দেখেশুনে বলছি, নিজেদের শত্রু নিজেরা হবেন না। আপন ঘরে যাদের শত্রু, তাদের বাইরের শত্রুর দরকার হয় না। আজ শেখ হাসিনা, বঙ্গবন্ধুর জীবন থেকে শিক্ষা নিতে হবে। তার সততা, সাহস থেকে। সাহস আর সততায় শেখ হাসিনা বঙ্গবন্ধুর মতোই হয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘আমাদের শেখ হাসিনার নির্দেশ মেনে চলতে হবে। তার নির্দেশনার বাইরে যেন না যাই, অপকর্ম না করি, সতর্ক হয়ে যান। তিনি চুপচাপ আছেন বলে শাস্তি পাবেন না, তা নয়। শাস্তি ভোগ করতে হবে। যারা শাস্তি পেয়েছেন, তারা বুঝবেন। আর যারা পাননি, তারা স্মরণ করবেন।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, জাহাঙ্গীর কবির নানক, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, মাহবুব উল আলম হানিফ, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, ডা. দীপু মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম।

এছাড়া আরও বক্তব্য রাখেন শহীদ আলতাফ মাহমুদের কন্যা শাওন মাহমুদ, শহীদ বুদ্ধিজীবী ডাক্তার আলিমের কন্যা ডাক্তার নুজহাত, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বেনজির আহমেদ, দক্ষিণের সভাপতি আবু আহমেদ মন্নাফী, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান প্রমুখ।

আরও পড়ুন:
শেখ হাসিনা না থাকলে পদ্মা সেতু করার সাহস হতো না

মন্তব্য

p
উপরে