ধানমন্ডিতে গিয়ে শেষ হলো আ. লীগের বিজয় শোভাযাত্রা

player
ধানমন্ডিতে গিয়ে শেষ হলো আ. লীগের বিজয় শোভাযাত্রা

জাতীয় পতাকা মাথায় নিয়ে বিজয় শোভাযাত্রায় অংশ নেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা। ছবি: সাইফুল ইসলাম/নিউজবাংলা

শোভাযাত্রায় অংশ নিতে থানা-ওয়ার্ডের আলাদা ব্যানারে নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে ধীরে ধীরে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সামনে যান। শোভাযাত্রাটি শাহবাগ, সায়েন্স ল্যাব হয়ে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে গিয়ে শেষ হয়।

বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী ও মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সামনে থেকে শুরু হওয়া আওয়ামী লীগের বিজয় শোভাযাত্রা শেষ হয়েছে ধানমন্ডিতে।

শোভাযাত্রা শনিবার দুপুর ২টায় শুরুর কথা ছিল, তবে তা শুরু হয় বেলা সাড়ে ৩টার পর। শেষ হয় সন্ধ্যা ৫টা ৫০ মিনিটে।

থানা-ওয়ার্ডের আলাদা ব্যানারে নেতা-কর্মীরা মিছিল নিয়ে ধীরে ধীরে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সামনে যান।

শোভাযাত্রাটি শাহবাগ, সায়েন্স ল্যাব হয়ে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে গিয়ে শেষ হয়। একে কেন্দ্র করে মৎস্য ভবন থেকে শাহবাগ পর্যন্ত যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়।

আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতা আমির হোসেন আমু বিজয় শোভযাত্রার উদ্বোধন করে বলেন, বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র থেমে নেই। অসাম্প্রদায়িক শক্তি থেমে নেই। তাদের রুখে দিতে সবাইকে এক থাকতে হবে।

বিজয় শোভাযাত্রায় নেতা-কর্মীদের ঢল নামে। এতে ঢাকা ও আশপাশের এলাকা থেকে দলে দলে অংশ নেন আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা।

তাদের হাতে ছিল ব্যানার, ফেস্টুন, পতাকা, নৌকা, বাদ্যযন্ত্র। তারা বাদ্যের তালে তালে নেচে-গেয়ে ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে যান।

নেতা-কর্মীদের এ যাত্রায় আশেপাশের এলাকায় তীব্র যানজট সৃষ্টি হয়।

বিজয় শোভাযাত্রা বাস্তবায়ন নিয়ে শুক্রবার সকালে ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে জরুরি প্রস্তুতি সভা শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন জাহাঙ্গীর কবির নানক।

বিজয় শোভাযাত্রা সফল করতে সবার সহযোগিতা চেয়ে আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর এ সদস্য বলেন, ‘ঐতিহাসিক বিজয় শোভাযাত্রার জন্য জনগণের যে ট্রাফিক অসুবিধা হবে তার জন্য আমরা দুঃখ প্রকাশ করছি। আমরা ঢাকার জনগণকে এই বিজয় শোভাযাত্রায় অংশ নেয়ার উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি।’

নানক জানান, ঢাকার উত্তর প্রান্ত থেকে কর্মসূচিতে যোগ দিতে আসা দলীয় নেতা-কর্মীদের হাতিরঝিল, মগবাজার ও মৎস্য ভবনের সড়ক এবং ঢাকার দক্ষিণ প্রান্ত থেকে আগতদের গুলিস্তান, হাইকোর্ট মাজার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকার সড়ক ব্যবহার করতে হবে।

সাধারণ মানুষের চলাচলে যাতে বিঘ্ন না হয়, সেদিকটা মাথায় রেখে নেতা-কর্মীদের শোভাযাত্রায় অংশ নেয়ার আহ্বান জানান আওয়ামী লীগের এ নেতা। সেই সঙ্গে শোভাযাত্রাটি বর্ণাঢ্য ও জাঁকজমকপূর্ণভাবে আয়োজন এবং বাস্তবায়নে সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি সাংগঠনিক নির্দেশনাও দেয়া হয় বৈঠক থেকে।

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ট্রান্সজেন্ডার নারীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা

ট্রান্সজেন্ডার নারীকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা

শুক্রবার রাজধানীর ভাটারা থানায় ভুক্তভোগীর দায়ের করা মামলায় এমন অভিযোগ করা হয়েছে। এ সময় তার মোবাইলসহ মূল্যবান জিনিস ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে বলেও জানানো হয়েছে।

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার এক বাসায় ট্রান্সজেন্ডার এক নারীকে নির্যাতন ও হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে এক নারীসহ তিনজনের বিরুদ্ধে। অভিযুক্ত ওই নারী এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

শুক্রবার রাজধানীর ভাটারা থানায় ভুক্তভোগীর দায়ের করা মামলায় এমন অভিযোগ করা হয়েছে। এ সময় তার মোবাইলসহ মূল্যবান জিনিস ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ভাটারা থানার ওসি সাজেদুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘মামলাটি আজই (শুক্রবার) হয়েছে। তদন্তে অভিযুক্তদের সম্পৃক্ততা পাওয়া গেলে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মামলার আসামিদের দু’জনের নাম জানা গেছে। তারা হলেন রিশু ও সাইমা নিরা। অপরজন অজ্ঞাত।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ভুক্তভোগী ট্রান্সজেন্ডার নারী একজন মেকাপ আর্টিস্ট। সে সূত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ইনস্টাগ্রামে এক যুবকের সঙ্গে পরিচয় হয় তার। ১০ জানুয়ারি বিকেলে ওই যুবকের সঙ্গে নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটি সংলগ্ন একটি রেস্টুরেন্টের সামনে তার দেখা হয়। ওই যুবক কথার এক পর্যায়ে জানান, তার স্ত্রী ওই ট্রান্সজেন্ডার নারীর ভক্ত। স্ত্রীকে সারপ্রাইজ দেয়ার জন্য তাকে তার বাসায় যাওয়ার অনুরোধ করেন।

এজাহারে ভুক্তভোগী জানান, তিনি ওই যুবকের কথা বিশ্বাস করে বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার সি ব্লকে ৫ নম্বর সড়কের এক বাসার দ্বিতীয় তলার ফ্ল্যাটে যান। সেখানে যাওয়ার পর তিনি এক নারী ও আরেকজন পুরুষকে দেখতে পান।

ওই তিনজন ভুক্তভোগীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণ করে। এতে বাধা দিলে তিনজন তাকে মারধর শুরু করে এবং বলতে থাকে এই ভিডিও তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেবে। এ সময় তিনজন নিজেদেরকে আইনের লোক পরিচয় দেয়। তাদের কাছে অস্ত্র ও ওয়াকিটকি ছিল বলে জানান তিনি।

মামলায় আরো অভিযোগ করা হয়, ভুক্তভোগীর কাছে থাকা মোবাইল ফোন, সোনার চেইন, নগদ টাকা ছিনিয়ে নেয়া হয়। এরপর তার কাছে এক লাখ টাকা দাবি করে বলা হয়, না দিলে মেরে পূর্বাচলে ফেলে দেয়া হবে।

পরবর্তীতে প্রাণ ভিক্ষা চাইলে তাকে থানায় নিয়ে যাবে বলে ঢাকার বিভিন্ন রাস্তায় ঘুরিয়ে রাত ৮টার দিকে রামপুরা এলাকায় একটি হাসপাতালের সামনে ফেলে যায়।

এদিকে ট্রান্সজেন্ডার ওই অভিযোগকে মিথ্যা ও বানোয়াট বলে দাবি করছেন সংশ্লিষ্ট ফ্ল্যাটের অভিযুক্ত নারী। একটি রেডিওতে আরজে হিসেবে কাজ করেছেন দাবি করে তিনি বলেন, ‘আমার সঙ্গে তার কখনও দেখা হয়নি। আমাকে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে ফাঁসানো হচ্ছে।’

কোনো পরিচয় না থাকলে কেন তাকে ফাঁসানো হচ্ছে- এমন প্রশ্নে ওই নারী বলেন, ‘আমার কাছ থেকে টাকা আদায় করার জন্য এমনটি করতে পারে। আর ওই ট্রান্সজেন্ডার যে মিথ্যাচার করছে, তার সব প্রমাণসহ আমার ফেসবুকে পোস্ট দেব। মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকেও জানাব।’

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

দুই বাসের চাপায় মৃত্যু: মামলার প্রতিবেদন ২২ ফেব্রুয়ারি

দুই বাসের চাপায় মৃত্যু: মামলার প্রতিবেদন ২২ ফেব্রুয়ারি

দুর্ঘটনায় পড়া বাসটিকে রেকারে করে সরিয়ে নিচ্ছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

বৃহস্পতিবার বিকেলে মগবাজার মোড়ে এসে প্রতিযোগিতা করতে থাকে আজমেরী গ্লোরী পরিবহনের দু’টি বাস। এই রেষারেষির পাল্লায় বাস দুটির মাঝখানে চাপা পড়ে কিশোর রাকিব।

রাজধানী মগবাজারে দুই বাসের রেষারেষিতে চাকায় পিষ্ট হয়ে কিশোর মো. রাকিবের মৃত্যুর ঘটনায় হওয়া মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ২২ ফেব্রুয়ারি তারিখ ঠিক করেছে আদালত।

ঢাকার মহানগর হাকিম মোহাম্মদ নুরুল হুদা চৌধুরী শুক্রবার মামলার এজাহার গ্রহণ করে রমনা থানার উপ-পরিদর্শক আবুল খায়েরকে ২২ ফেব্রুয়ারি প্রতিবেদন জমার নির্দেশ দেন।

বৃহস্পতিবার বিকেলে মগবাজার মোড়ে এসে প্রতিযোগিতা করতে থাকে আজমেরী গ্লোরী পরিবহনের দু’টি বাস। এই রেষারেষির পাল্লায় বাস দুটির মাঝখানে চাপা পড়ে কিশোর রাকিব। গুরুতর অবস্থায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক জানান যে সে মারা গেছে।

এ ঘটনায় রাকিবের বাবা নুরুল ইসলাম বৃহস্পতিবার রাতে রমনা থানায় সড়ক দুর্ঘটনা আইনে মামলা করেন।

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

শিমু হত্যার দায় স্বীকার করে স্বামীর জবানবন্দি

শিমু হত্যার দায় স্বীকার করে স্বামীর জবানবন্দি

স্বামী খন্দকার শাখাওয়াত আলীম নোবেলের সঙ্গে অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমু। ছবি: সংগৃহীত

আদালত পরিদর্শক মেজবাহ উদ্দিন বলেন, ‘রিমান্ড চলাকালেই বৃহস্পতিবার আসামিরা স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। এরপর শেষ বিকেলে তদন্ত কর্মকর্তা তাদের আদালতে হাজির করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য সংশ্লিষ্ট আদালতে আবেদন করেন।’

অভিনেত্রী রাইমা ইসলাম শিমু হত্যা মামলায় স্বামী খন্দকার শাখাওয়াত আলীম নোবেল ও তার বন্ধু এস এম ওয়াই আব্দুল্লাহ ফরহাদ আদালতে দায় স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন।

২১ শুক্রবার ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের আদালত পরিদর্শক মেজবাহ উদ্দিন নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘রিমান্ড চলাকালেই গতকাল বৃহস্পতিবার আসামিরা স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। এরপর শেষ বিকেলে তদন্ত কর্মকর্তা তাদের আদালতে হাজির করে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ড করার জন্য সংশ্লিষ্ট আদালতে আবেদন করেন।

‘সেই আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ঢাকার মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতের হাকিম সাইফুল ইসলাম নোবেলের এবং আরেক জ্যেষ্ঠ হাকিম মিশকাত শুকরানা আব্দুল্লাহ ফরহাদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন। এরপর তাদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।’

গত ১৮ জানুয়ারি এ দুই আসামিকে মামলার তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদ করতে তিন দিনের হেফাজতে নেয় পুলিশ।

শিমুকে খুনের বিষয়ে পুলিশ সুপার মারুফ হোসেন সরদার বলেন, ‘১৭ জানুয়ারি সকাল ১০টার দিকে স্থানীয়ভাবে সংবাদ পেয়ে কলাতিয়া ফাঁড়ির পুলিশ এবং কেরানীগঞ্জ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ও কেরানীগঞ্জ সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হযরতপুর ইউনিয়ন পরিষদের আলীপুর ব্রিজ থেকে ৩০০ গজ উত্তর পাশে পাকা রাস্তাসংলগ্ন ঝোপের ভেতর থেকে বস্তাবন্দি অবস্থায় অজ্ঞাতনামা ৩২ বছর বয়সী এক নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে।

‘মৃতদেহের পরিচয় শনাক্ত করার জন্য আঙুলের ছাপ নেয়া হয়। পোস্টমর্টেমের জন্য মৃতদেহটি মিটফোর্ড হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরবর্তী সময়ে তথ্যপ্রযুক্তির সাহায্যে মৃতদেহের নাম-পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হয়। তদন্তকালে জানা যায়, মৃতদেহটি চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমুর।’

তিনি বলেন, ‘খুনিরা যদিও খুবই পরিকল্পিতভাবে লাশটি কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন হযরতপুরে ফেলে যায়। তবে তারা কিছু চিহ্ন রেখে যায়। আমরা গুরুত্বপূর্ণ আলামত জব্দ করি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিমুর স্বামী নোবেল এবং তার বাল্যবন্ধু এস এম ওয়াই আব্দুল্লাহকে রাতেই কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় নিয়ে আসি। তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের ফলে শিমুর স্বামী ও তার বন্ধুর এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া যায়।

‘বিভিন্ন পারিবারিক বিষয়কে কেন্দ্র করে নোবেলের সঙ্গে দাম্পত্য কলহ শুরু হয় শিমুর। দাম্পত্য কলহের জেরে ১৬ জানুয়ারি সকাল আনুমানিক ৭-৮টার মধ্যে যেকোনো সময় খুন হন শিমু। তার লাশ গুম করতে সহায়তা করেন আব্দুল্লাহ ফরহাদ।’

তারা খুন করার পর শিমুর বস্তাবন্দি লাশ গাড়িতে নিয়ে গুম করা ও আলামত নষ্ট করার জন্য ২ ঘণ্টা ধরে ঘোরাঘুরির পর উল্লিখিত স্থানে ঝোপের মধ্য লাশ ফেলে আসেন।

এরপর লাশ শনাক্ত হলে শিমুকে হত্যার ঘটনায় তার ভাই হারুনুর রশীদ কেরানীগঞ্জ মডেল থানায় বাদী হয়ে মামলা করেন।

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

অটোরিকশায় বাসের ধাক্কা, এক পরিবারের তিনজন নিহত

অটোরিকশায় বাসের ধাক্কা, এক পরিবারের তিনজন নিহত

রাজধানীর মাতুয়াইলে সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত তিনজনের মৃত্যু হয় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। ফাইল ছবি

একই পরিবারের চার সদস্য বরিশাল থেকে ভোরে লঞ্চে করে ঢাকায় আসেন। তারা সদরঘাট থেকে অটোরিকশায় মাতুয়াইলের বাসার উদ্দেশে রওনা হন। গন্তব্যে পৌঁছানোর আগে মাতুয়াইল এলাকাতেই দুর্ঘটনার শিকার হন তারা।

রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানার মাতুয়াইলে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় বাসের ধাক্কায় একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন।

শুক্রবার সকাল ৭টা ৫ মিনিটে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছেন যাত্রাবাড়ী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আয়ান মাহমুদ দীপ।

নিহত তিনজন হলেন ৬০ বছর বয়সী আব্দুর রহমান, ৪০ বছরের রিয়াজুল ইসলাম ও ৩৫ বছর বয়সী মোছাম্মৎ শারমিন। তারা বরিশাল থেকে লঞ্চে ঢাকায় এসে অটোরিকশায় করে বাসায় যাচ্ছিলেন।

দুর্ঘটনায় আহত হন অটোরিকশার চালক ৩৫ বছর বয়সী রফিকুল ইসলাম ও ছয় বছরের বৃষ্টি। তাদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

দুর্ঘটনায় হতাহত চারজনেরই গ্রামের বাড়ি বরিশালের উজিরপুরে৷ মাতুয়াইলে ভাড়া বাসায় থাকতেন তারা।

নিহত তিনজনের মরদেহ ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

যাত্রাবাড়ী থানার পরিদর্শক (অপারেশন) আয়ান মাহমুদ দীপ নিউজবাংলাকে জানান, একই পরিবারের চার সদস্য বরিশাল থেকে ভোরে লঞ্চে করে ঢাকায় আসেন। তারা সদরঘাট থেকে অটোরিকশায় মাতুয়াইলের বাসার উদ্দেশে রওনা হন। গন্তব্যে পৌঁছানোর আগে মাতুয়াইল এলাকাতেই দুর্ঘটনার শিকার হন তারা।

তিনি আরও জানান, গুরুতর আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যালে নেয়ার পর চিকিৎসক তিনজনকে মৃত ঘোষণা করেন। দুজনের চিকিৎসা চলছে।

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

ভাড়া নিয়ে তর্ক, পিটিয়ে রাস্তায় ফেলার পর যাত্রীর মৃত্যু

ভাড়া নিয়ে তর্ক, পিটিয়ে রাস্তায় ফেলার পর যাত্রীর মৃত্যু

গ্রিনবাংলা পরিবহনের বাসে ভাড়া নিয়ে তর্কাতর্কি হয়। বাসটি জব্দ করার পাশাপাশি চালক ও তার সহকারীকে থানায় নিয়েছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

বাসে ইরফানের সঙ্গে ছিলেন আব্দুল কাদের। তিনি জানান, সকালে ডেমরা থেকে নবাবপুরের কর্মস্থলে যেতে গ্রিনবাংলা পরিবহনে উঠেন তারা। টিকাটুলির জয়কালী মন্দিরের সামনে আসার পর ভাড়া নিয়ে ইরফানের সঙ্গে তর্ক-বিতর্ক হয় ভাড়া তুলতে থাকা সহকারীর। এক পর্যায়ে হাতাহাতি শুরু হলে ইরফানকে কিল, ঘুষি দিয়ে ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে নিচে ফেলে দেয়া হয়।

রাজধানীতে ভাড়া নিয়ে তর্কাতর্কির পর এক যাত্রীকে বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে ধেয়ার পর তার মৃত্যুর অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার নাম ইরফান আহমেদ।

এই ঘটনায় সন্দেহভাজনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছে স্থানীয়রা।

পুলিশ বাসটি জব্দ করার পাশাপাশি চালক ও তার সহকারীকেও থানায় নিয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে ওয়ারীর টিকাটুলির জয়কালী মন্দিরের সামনে সেই যাত্রীকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেয়ার আগে কিল, ঘুষিও দেয়া হয় বলে জানিয়েছেন নিহতের সঙ্গী।

আহত ইরফানকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এলে দুপুরের দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

বাসে ইরফানের সঙ্গে ছিলেন আব্দুল কাদের। তিনি জানান, সকালে ডেমরা থেকে নবাবপুরের কর্মস্থলে যেতে গ্রিনবাংলা পরিবহনে উঠেন তারা। টিকাটুলির জয়কালী মন্দিরের সামনে আসার পর ভাড়া নিয়ে ইরফানের সঙ্গে তর্ক-বিতর্ক হয় ভাড়া তুলতে থাকা সহকারীর।

এক পর্যায়ে হাতাহাতি শুরু হলে ইরফানকে কিল, ঘুষি দিয়ে ধাক্কা দিয়ে বাস থেকে নিচে ফেলে দেয়া হয় বলে অভিযোগ করেন কাদের। বলেন, ‘গুরুতর অবস্থায় টিকাটুলি সালাউদ্দিন হাসপাতাল নিয়ে যাই। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসার পর চিকিৎসক তাকে মৃত বলে জানান।’

এই ঘটনায় বাসে চালকের সহকারী মোজাম্মেল হোসেনকে স্থানীয় লোকজন আটক করে পুলিশে দেয় বলেও জানান কাদের।

নিহতের ভাই এনাম আহমেদ জানান, ইরফান নবাবপুর এলাকায় একটি ইলেকট্রিক দোকানে চাকরি করেন। তাদের বাড়ি ডেমরার দেউল্লা বামৈল এলাকায়।

ইরফান এক কন্যা সন্তানের জনক ছিলেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বলেন, ‘টিকাটুলি এলাকায় বাস থেকে ফেলে দেয়া এক ব্যক্তিকে আহত অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল নিয়ে আসলে চিকিৎসক মৃত বলে জানান। এই ঘটনায় হেলপারকে ওয়ারী পুলিশ আটক করেছে।’

ওয়ারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা কবির হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কন্ডাক্টরের সঙ্গে ঝামেলাটা হয়েছিল। আমরা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সেই বাসের ড্রাইভার ও হেলপারকে থানায় এনেছি। বাসটাও জব্দ করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

রাজধানীতে দুই বাসের প্রতিযোগিতায় আবার মৃত্যু

রাজধানীতে দুই বাসের প্রতিযোগিতায় আবার মৃত্যু

দুর্ঘটনায় পড়া বাসটিকে রেকারে করে সরিয়ে নিচ্ছে পুলিশ। ছবি: সংগৃহীত

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘দুটি বাসই পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছিল। সিগন্যাল ছাড়ার পর বাস দুটো সামনে এগিয়ে যেতে টান দেয়। তখনই রাকিব নিচে পড়ে।’

রাজধানীর মগবাজারে আজমেরী গ্লোরী পরিবহনের দুটি বাসের প্রতিযোগিতায় এক বাসের চাপায় এক কিশোরের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে। দুর্ঘটনার পর বাস ফেলে পালিয়ে গেছেন দুই চালক ও তাদের সহকারীরা।

বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে মৌচাক থেকে মগবাজার আসার পথে ঘরোয়া হোটেলের পাশে প্রিমিয়ার ব্যাংকের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রাজধানীর সদরঘাট থেকে গাজীপুরের চন্দ্রা রুটে যাত্রী বহন করা বাস দুটি মৌচাক থেকে মগবাজারের দিকে আসছিল।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘দুটি বাসই পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছিল। সিগন্যাল ছাড়ার পর বাস দুটো সামনে এগিয়ে যেতে টান দেয়। তখনই রাকিব নিচে পড়ে।’

রাজধানীতে একই রুটে চলা দুই বাসের যাত্রী তোলার প্রতিযোগিতায় মৃত্যু এর আগেও ঘটেছে নানা সময়। পুলিশ ও পরিবহন মালিকরা এই সমস্যার সমাধানে দৃশ্যত কিছুই করতে পারছেন না।

রাকিবকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা এক মুদি দোকানদার মো. হারুন ঢাকা মেডিক্যালে বলেন, এই শিশু রাস্তায় মাস্ক, চিপস বিক্রি করে। আজমেরী পরিবহনের দুটি বাসের প্রতিযোগিতায় চাপা পড়ে গুরুতর আহত হয় রাকিব। পরে আমি তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মগবাজারে নিহত কিশোর রাকিব বাসে বাসে নানা পণ্য বিক্রি করত। সে আজমেরীর একটি বাসে উঠেছিল। সেই বাস থেকে নেমে অন্য বাসে ওঠার চেষ্টায় ছিল। এ সময় যাত্রী তোলার চেষ্টায় পেছনে থাকা একই পরিবহনের আরেকটি বাসের ধাক্কায় আহত হয়।

দুর্ঘটনার পর দুটি বাস রমনা থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

ট্রাফিক রমনা জোনের সহকারী কমিশনার রেফাতুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘রাকিব ওই এলাকায় ফেরি করত। আজমেরী গ্লোরী পরিবহনের একটি বাসের পেছনের চাকায় আঘাত পায়। আশপাশের লোকজন আদদ্বীন হাসপাতালে নিয়ে গেলে তারা ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।’

রাকিবকে উদ্ধার করে নিয়ে আসা এক মুদি দোকানদার মো. হারুন ঢাকা মেডিক্যালে বলেন, ‘এই শিশু রাস্তায় মাস্ক, চিপস বিক্রি করে। আজমেরী পরিবহনের দুটি বাসের প্রতিযোগিতায় চাপা পড়ে গুরুতর আহত হয় রাকিব। পরে আমি তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে এলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।’

নিহতের মরদেহ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের মর্গে রাখা হয়েছে বলে জানান ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া। তিনি বলেন, ‘মগবাজার থেকে গুরুতর আহত অবস্থায় এক শিশুকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসা হয়েছিল। আনার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।’

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন

গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগ গৃহকর্ত্রী গ্রেপ্তার

গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগ গৃহকর্ত্রী গ্রেপ্তার

গৃহকর্মী নির্যাতনের অভিযোগে বৃহস্পতিবার গ্রেপ্তার করা হয় সামিয়া ইউসুফ ওরফে সুমিকে। ছবি: নিউজবাংলা

র‌্যাব জানায়, খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার হাসপাতালে গিয়ে খোঁজ নেয়া হয়। এরপর নির্যাতনের শিকার গৃহকর্মীর বাবা মামলা করলে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রাজধানীর কলাবাগানে গৃহকর্মীকে নির্যাতনের অভিযোগে এক গৃহকর্ত্রীকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব-২।

গত সোমবারের এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার মামলার পর তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

গৃহকর্মী মোছা. ফারজানার বাবার মামলায় গ্রেপ্তার সামিয়া ইউসুফ ওরফে সুমি রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের বাসিন্দা।

র‌্যাব-২-এর অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবু নাঈম মো. তালাত জানান, র‌্যাব গোয়েন্দা তথ্য ও গণমাধ্যমের মাধ্যমে জানতে পারে, এলিফ্যান্ট রোডের একটি বাসায় একজন গৃহকর্মীকে নির্যাতন করা হয়েছে। তাকে শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

তিনি জানান, খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার ওই হাসপাতালে গিয়ে খোঁজ নেয়া হয়। এরপর নির্যাতনের শিকার গৃহকর্মীর বাবা মো. বেলাল হোসেন কলাবাগান থানায় একটি মামলা করেন। পরে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা হয়।

আরও পড়ুন:
মহানন্দার বুকে সেরা আবু মাঝির দল
কেমন আছেন শহীদ আজাদের মা
প্রতিবেশীর আনন্দ দেখতে পাওয়া সৌভাগ্যের: রামনাথ
বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তীতে শতাধিক রোগীকে বিনা মূল্যে চিকিৎসা
একাত্তর দু’দেশকে এক সুতোয় বেঁধে রাখবে: কোবিন্দ

শেয়ার করুন