× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

বাংলাদেশ
National Memorial ready to pay homage to the martyrs
google_news print-icon

শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

শহীদদের-শ্রদ্ধা-জানাতে-প্রস্তুত-জাতীয়-স্মৃতিসৌধ
গণপূর্ত বিভাগের সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধের উপসহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান বলেন, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য জাতীয় স্মৃতিসৌধ প্রস্তুত। ১৫ ডিসেম্বর ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশে আসবেন। দুদিন আগেই আমরা সব প্রস্তুতি শেষ করেছি।’

সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে নিয়মিত চলছে তিন বাহিনীর সদস্যদের কুচকাওয়াজের প্রস্তুতি ও মোটরসাইকেল মহড়া।

ধুয়েমুছে পরিষ্কার করা হয়েছে পুরো স্মৃতিসৌধ এলাকা। রাখা হয়েছে রঙিন ফুলের গাছ।

এই সাজসজ্জা ১৬ ডিসেম্বর বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে। প্রথম প্রহরে স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিজয়ের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে বুধবার বাংলাদেশ সফরে এসে প্রথম দিনই সাভারে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা জানাবেন ভারতের রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

তাই দুদিন আগেই জাতীয় স্মৃতিসৌধের সব ধরনের কাজ শেষ করেছে গণপূর্ত বিভাগ। স্মৃতিসৌধের ফটক থেকে মিনার পর্যন্ত পুরো এলাকা ধুয়েমুছে চকচকে করা হয়েছে। সৌধ চূড়া পরিষ্কার করার কাজ শেষ। লেকও পরিষ্কার করা হয়েছে। লাগানো হয়েছে লাল-সবুজ আলো। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকেও জোরদার করা হয়েছে নিরাপত্তাব্যবস্থা।

শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

গণপূর্ত বিভাগের সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধের উপসহকারী প্রকৌশলী মিজানুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, বিজয়ের সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে দুই মাস আগেই স্মৃতিসৌধ পরিষ্কারের কাজ শুরু হয়েছে। ফুল দিয়ে সাজানো, লেক সংস্কার, ক্লোজড সার্কিট টেলিভিশন (সিসিটিভি) ক্যামেরা স্থাপনসহ সব কাজ পুরোপুরি শেষ।

নবম পদাতিক ডিভিশনের নেতৃত্বে তিন বাহিনীর সদস্যরা কুচকাওয়াজের শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। মোটরসাইকেল মহড়ার প্রস্তুতিও চলছে।

মিজানুর রহমান বলেন, ‘মহামান্য রাষ্ট্রপতি ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য জাতীয় স্মৃতিসৌধ প্রস্তুত। ১৫ ডিসেম্বর ভারতের রাষ্ট্রপতি বাংলাদেশে আসবেন। আমরা আশা করছি তিনি বেলা ১টা থেকে দেড়টার মধ্যেই স্মৃতিসৌধে শহীদদের সম্মানে পুষ্পস্তবক অর্পণ করবেন। তাই দুদিন আগেই আমরা সব প্রস্তুতি শেষ করেছি।

‘১ ডিসেম্বর থেকে পুরো স্মৃতিসৌধ এলাকায় সিকিউরিটি ডেপ্লয় করা হয়েছে। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিজয় উদযাপন নির্বিঘ্ন করতে কাজ করে যাচ্ছেন।’

শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রস্তুত জাতীয় স্মৃতিসৌধ

১৯৭২ সালের ১৬ ডিসেম্বর সাভারের পাথালিয়া ইউনিয়নে জাতীয় স্মৃতিসৌধের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

৮৪ একর জায়গাজুড়ে নির্মিত এই স্মৃতিসৌধে প্রতি বিজয় দিবসে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, তিন বাহিনীর প্রধান থেকে শুরু করে সব স্তরের মানুষ ফুল দিয়ে শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

আরও পড়ুন:
স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রীর
শহিদদের গণকবর, সৌধ চূড়ায় সেলফি
বিজয় দিবস উদযাপনে প্রস্তুত স্মৃতিসৌধ
বাবলাবন বধ্যভূমিতে মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতিসৌধ উদ্বোধন
বিজয় দিবসের আগে তিন দিন স্মৃতিসৌধে প্রবেশ নিষেধ

মন্তব্য

আরও পড়ুন

বাংলাদেশ
The bulkhead sank due to the impact of the launch in Kirtankhola

কীর্তনখোলায় লঞ্চের ধাক্কায় ডুবল বাল্কহেড

কীর্তনখোলায় লঞ্চের ধাক্কায় ডুবল বাল্কহেড দুর্ঘটনাকবলিত লঞ্চ থেকে নৌকায় করে তীরে যাওয়ার চেষ্টায় যাত্রীরা। ছবি: নিউজবাংলা
শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটলে পারাবত ল‌ঞ্চের যাত্রীদের ঢাকায় পরিবহনে প্রিন্স আওলাদ ১০ লঞ্চ ঘটনাস্থ‌লে যাচ্ছে বলে জানিয়েছেন বিআইডব্লিউটিএর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার পরিদর্শক কবির হোসেন।

ব‌রিশা‌লের কীর্তন‌খোলা নদী‌তে ঢাকাগামী যাত্রীবা‌হী পারাবত ১১ ল‌ঞ্চের ধাক্কায় বালুবা‌হী বাল্কহেড ডু‌বির ঘটনা ঘটেছে। এতে ল‌ঞ্চটির তলা ফে‌টে গেছে।

শনিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। লঞ্চটিকে সদর উপ‌জেলার চরবা‌ড়িয়ায় নোঙর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত সদর নৌ থানার ওসি আব্দুল জলিল বলেন, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।’

পারাবত ১১ লঞ্চের যাত্রী পুলক ও তারেক বলেন, ‘বরিশাল নদীবন্দর থেকে রাত ৯টায় ছেড়ে আসার পরে লামছড়ি এলাকায় একটি বাল্কহেডকে ধাক্কা দেয় লঞ্চটি। ধাক্কায় কার্গোটি সঙ্গে সঙ্গে ডুবে যায়।

‘আমরা তিনজনকে নদী সাঁতরে উপরে উঠতে দেখেছি। তবে তারা কার্গোর নাকি লঞ্চের যাত্রী, তা বলতে পারছি না।’

তারা আরও বলেন, ‘লঞ্চটি আর ঢাকার উদ্দেশে যাত্র করবে না বলে কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে। ফলে যাত্রীরা অন্যান্য নৌ-যানের মাধ্যমে তীরে ফিরছেন।’

বিআইডব্লিউটিএর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনার পরিদর্শক কবির হোসেন বলেন, ‘কেউ নিখোঁজ বা হতাহত হয়েছে কিনা তা এখনই নিশ্চিত করে বলতে পারছি না।

পারাবত ল‌ঞ্চের যাত্রীদের ঢাকায় পরিবহনে প্রিন্স আওলাদ ১০ লঞ্চ ঘটনাস্থ‌লে যাচ্ছে বলে জানান এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
সদরঘাটে এসে আক্কেলগুড়ুম যাত্রীদের
বরিশালের লঞ্চে ‘তালা’, কারণ ‘অজানা’

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Ran away from Astana the bully hypocrite victimized by the pressure of the powerful

আস্তানা ছেড়ে পালিয়েছে ধর্ষক ভণ্ড পীর, প্রভাবশালীদের চাপে ভুক্তভোগী

আস্তানা ছেড়ে পালিয়েছে ধর্ষক ভণ্ড পীর, প্রভাবশালীদের চাপে ভুক্তভোগী ঘটনার পর থেকে পলাতক ভণ্ড পীর ইকবাল হোসেন। ছবি: নিউজবাংলা
এলাকার প্রভাবশালী একটি চক্র ভুক্তভোগীর পরিবারকে মামলা না করে নিজেরাই মীমাংসা করতে চাপ দিয়ে আসছিল বলে অভিযোগ মামলার বাদী শিশুটির মায়ের।

কুমিল্লা দেবিদ্বারে এক ভণ্ড পীরের আস্তানায় ধর্ষণের শিকার হয়েছে সাত বছরের এক শিশু। নির্যাতনের শিকার শিশুটির পরিবারের অভিযোগ, ঘটনার পর এক সপ্তাহ পার হলেও এখনও মামলায় অভিযুক্ত ভণ্ড পীর ইকবালকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ।

এলাকার প্রভাবশালী একটি চক্র ভুক্তভোগীর পরিবারকে মামলা না করে নিজেরাই মীমাংসা করতে চাপ দিয়ে আসছিল বলে অভিযোগ মামলার বাদী শিশুটির মায়ের।

মামলার বিবরণে বলা হয়, ২ জুন দুপুর ১২টার দিকে দেবিদ্বার উপজেলার ফতেহাবাদ ইউনিয়নের সাইচাপাড়া গ্রামের মৃত শরাফত আলীর ছেলে ইকবাল শাহ স্থানীয় একটি কিন্ডারগার্টেনের দ্বিতীয় শ্রেণির ওই ছাত্রীকে লিচু দেয়ার কথা বলে তার আস্তানায় নিয়ে ধর্ষণ করে। পরে শিশুটি বাড়িতে গিয়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে তার পরিবার চিকিৎসকের নিকট নিয়ে যায়।

ভুক্তভোগীর পরিবারের অভিযোগ, এ বিষয়ে সেদিন রাতেই মামলা করতে চাইলেও স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্রের চাপের কারণে তা করতে বিলম্ব হয়। মামলা না করে স্থানীয়ভাবে মীমাংসা করতে নানাভাবে তারা চাপ দিয়ে আসছিল।

পরে ৬ জুন রাতে দেবিদ্বার থানায় মামলা দায়ের করেন শিশুটির মা।

স্থানীয়রা জানায়, হঠাৎ একদিন নিজেকে পীর দাবি করে বিশ বছর ধরে নিজের বাড়িতে ‘সাইচাপাড়া দরবার শরীফ’ নামে আস্তানা তৈরি করে মানুষের সাথে প্রতারণা করে আসছিলেন ইকবাল শাহ।

বাড়িতে প্রায়ই গাঁজার আসর বসাতেন তিনি। এ ছাড়া ওরসের নামে নারীদের নিয়ে অসামাজিক কাজে লিপ্ত হতেন। তার এসব কাজে সহায়তা করত স্থানীয় একটি প্রভাবশালী চক্র। তাদের কারণেই ভণ্ড পীর ইকবালের অসামাজিক কর্মকাণ্ডে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস করত না।

এ ঘটনায় পর থেকে নিজের আস্তানা, এমনকি এলাকা থেকেও হাওয়া হয়ে গিয়েছেন ইকবাল শাহ। তার মোবাইল ফোন নম্বরে একাধিকবার ফোন করলেও সেটি বন্ধ রয়েছে বলে যোগাযোগ করা যায়নি।

শনিবার বিকেলে দেবিদ্বার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) খাদেমুল বাহার বলেন, ‘ডাক্তারি পরীক্ষায় শিশুটিকে ধর্ষণের আলামত মিলেছে। আস্তানা ছেড়ে পালিয়ে যাওয়ায় ওই পীরকে গ্রেপ্তার করা যাচ্ছে না।’

তবে এ বিষয়ে পুলিশের অভিযান অব্যাহত আছে বলে জানান পুলিশের এ কর্মকর্তা।

আরও পড়ুন:
বাতাসা খাইয়ে স্কুল শিক্ষার্থী ধর্ষণ, কবিরাজ কারাগারে
হাসপাতালে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে যুবকের নামে মামলা
ধর্ষণের শিকার চিকিৎসাধীন শিশুর মৃত্যু, অভিযুক্ত আটক
মায়ের সামনে মেয়েকে ধর্ষণচেষ্টা, যুবক গ্রেপ্তার

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Autorickshaw hit by covered van kills 2

অটোরিকশায় কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কা, নিহত ২

অটোরিকশায় কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কা, নিহত ২ কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় দুমড়ে-মুচড়ে যাওয়া অটোরিকশাটি। ছবি: নিউজবাংলা
মানিকছড়ি থানার ওসি আনসারুল করিম জানান, দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে মানিকছড়ি থানায় নেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুইটি খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।      

খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে সিএনজিচালিত অটোরিকশায় কাভার্ড ভ্যানের ধাক্কায় দুইজন নিহত হয়েছেন।

খাগড়াছড়ি-চট্টগ্রাম সড়কে মানিকছড়ির গাড়িটানা এলাকায় শনিবার সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

প্রাণ হারানো দুজন হলেন সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক ৩৫ বছর বয়সী বাছা মিয়া ও ৪৫ বছর বয়সী আম ব্যবসায়ী মো. মোতালেব।

মানিকছড়ি থানার ওসি আনসারুল করিম জানান, খাগড়াছড়িগামী একটি কাভার্ড ভ্যান বিপরীত দিক আসা চট্টগ্রামের হাটহাজারীগামী একটি আমবোঝাই অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই বাছা মিয়া ও মো. মোতালেব নিহত হন।

তিনি আরও জানান, দুজনের মরদেহ উদ্ধার করে মানিকছড়ি থানায় নেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ দুইটি খাগড়াছড়ি জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হবে।

আরও পড়ুন:
তেজগাঁওয়ে ট্রেনে কাটা পড়ে যুবকের মৃত্যু
সিলেটে পিকআপে ট্রাকের ধাক্কা, নিহত বেড়ে ১৫
সিলেটে পিকআপে ট্রাকের ধাক্কা, নিহত ১২
নওগাঁয় ট্রাকের ধাক্কায় অটোরিকশার ৪ যাত্রী নিহত
উখিয়ায় ক্যাম্পে দুর্বৃত্তদের হামলায় রোহিঙ্গা কিশোর নিহত

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Letter to the Secretary on Extending the Economic Life of Vehicles

যানবাহনের অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল বৃদ্ধিতে সচিবকে চিঠি

যানবাহনের অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল বৃদ্ধিতে সচিবকে চিঠি যানবাহনের অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল বৃদ্ধিতে সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরুকে চিঠি দিচ্ছেন চট্টগ্রামের পরিবহন নেতারা। ছবি: নিউজবাংলা
সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরু বলেন, ‘দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন আজ দৃশ্যমান। এই মুহূর্তে ঢাকা শহরে লক্কর-ঝক্কর গাড়ি পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণ। তবে চট্টগ্রাম এদিক থেকে অনেক ভাল পর্যায়ে আছে।’

যানবাহনের অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল বৃদ্ধির বিষয়ে পুনর্বিবেচনা করার অনুরোধ জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরুকে চিঠি দিয়েছেন চট্টগ্রামের পরিবহন নেতারা।

শনিবার সকালে চট্টগ্রাম নগরীর সার্কিট হাউসে যানবাহনের অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল পুনর্বিবেচনা শীর্ষক মতবিনিময় সভায় সরাসরি সচিবের হাতে চিঠি তুলে দেন পরিবহন নেতারা।

চট্টগ্রাম সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের মহাসচিব মনজুরুল আলম চৌধুরী ও চট্টগ্রাম বন্দর ট্রাক কাভার্ড ভ্যান মালিক ও কন্ট্রাক্টর অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক জহুর আহমদ পরিবহন নেতাদের পক্ষে সচিবের কাছে চিঠি হস্তান্তর করেন।

এসময় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব এ বি এম আমিন উল্লাহ নুরু বলেন, ‘দেশের অভূতপূর্ব উন্নয়ন আজ দৃশ্যমান। এই মুহূর্তে ঢাকা শহরে লক্কর-ঝক্কর গাড়ি পরিবেশ বিপর্যয়ের কারণ। তবে চট্টগ্রাম এদিক থেকে অনেক ভাল পর্যায়ে আছে।’

এসময় জেলা প্রশাসন, বিআরটিএ এবং সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকতারা উপস্থিত ছিলেন। এ ছাড়া পরিবহন নেতাদের মধ্যে ছিলেন মোরশেদুল আলম কাদরী, আহসানুল্লাহ চৌধুরী হাসান, আবদুর রহমান, আজিম খান, মোশারাফ, ফারুক খান, মো. শওকত, আবুল বসর, মো. জাফর, মো. মনসুর রহমান, মো. শাহজাহান, হাসান, জাবের, মো. ইসহাক, মনছুর আলমসহ আরও অনেকে।

সম্প্রতি দুর্ঘটনার হার কমিয়ে আনা, সড়কে নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, পরিবেশ দূষণ হ্রাস এবং সড়কে শৃঙ্খলা আনার লক্ষ্যে যাত্রীবাহী বাস ও পণ্যবাহী মোটরযানের আয়ুষ্কাল নির্ধারণ করে দেয় সরকার। যাত্রীবাহী বাস-মিনিবাসের ২০ বছর এবং পণ্যবাহী ট্রাক-কাভার্ড ভ্যানের ২৫ বছর অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল নির্ধারণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করেছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ। পরিবহন নেতারা শুরু থেকেই এই দুই শ্রেণির যানবাহনের অর্থনৈতিক আয়ুষ্কাল ৩০ বছর করার দাবি জানিয়ে আসছিলেন।

আরও পড়ুন:
৮ মাসের এমপি হলেন নোমান আল মাহমুদ
চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপনির্বাচনে চলছে ভোট
শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কারাগারে মাদ্রাসা শিক্ষক
প্লেনের খালি সিটে মিলল সোয়া কোটি টাকার স্বর্ণ
ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে বরখাস্ত ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ

মন্তব্য

বাংলাদেশ
The businessman was called and killed by slitting his throat

‘কল করে ডেকে নিয়ে’ ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা

‘কল করে ডেকে নিয়ে’ ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা প্রতীকী ছবি
রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক আতাউর রহমান জানান, হত্যাকাণ্ডে কারা জড়িত তাদের খোঁজ করা হচ্ছে। তাদের দ্রুতই আইনের আওতায় আনা হবে। পাশাপাশি হত্যার রহস্য উৎঘাটনে তদন্ত করছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বজনরা থানায় হত্যা মামলা করবেন।

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এক ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

নিহতের স্বজনদের দাবি, তাকে মোবাইল ফোনে কল করে ডেকে নিয়ে হত্যা করা হয়।

উপজেলার কাঞ্চন পৌরসভার কালাদি এলাকার এশিয়ান হাইওয়ে বাইপাস সড়কে শুক্রবার রাতে এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে।

প্রাণ হারানো ৫৮ বছর বয়সী সোলায়মান মিয়া রূপগঞ্জের কাঞ্চন পৌরসভার কালাদি বড়বাড়ী এলাকার বাসিন্দা ছিলেন। তিনি জমি বেচা-কেনার ব্যবসা করতেন।

সোলায়মানের স্বজনদের অভিযোগ, সোলায়মান বাড়ি থেকে কাঞ্চন বাজারে গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তাকে মোবাইল ফোনে ডেকে নিয়ে যাওয়া হয়। বাজারের লোকজন দেখেছেন মোবাইল ফোনে কল আসার পর সোলায়মান এশিয়ান হাইওয়ে বাইপাস সড়কের দিকে যাচ্ছিলেন।

রূপগঞ্জ থানার পরিদর্শক আতাউর রহমান জানান, রাত আটটার দিকে কাঞ্চন পৌরসভার কালাদি এলাকার এশিয়ান হাইওয়ে বাইপাস সড়কের পাশে জমি ব্যবসায়ী সোলায়মান মিয়াকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে হত্যার পর ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। পথচারীরা তার রক্তাক্ত মরদেহ দেখতে পেয়ে থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল পৌঁছে সোলায়মানের মরদেহ উদ্ধার করে সুরতহাল করে।

তিনি আরও জানান, নিহতের গলায় আঘাতের ক্ষত রয়েছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ সদর জেনালের হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

পরিদর্শক জানান, হত্যাকাণ্ডে কারা জড়িত তাদের খোঁজ করা হচ্ছে। তাদের দ্রুতই আইনের আওতায় আনা হবে। পাশাপাশি হত্যার রহস্য উৎঘাটনে তদন্ত করছে পুলিশ। এ ঘটনায় নিহতের স্বজনরা থানায় হত্যা মামলা করবেন।

আরও পড়ুন:
মধ্যরাতে ফল ব্যবসায়ীকে ঘুম থেকে উঠিয়ে কুপিয়ে হত্যা
স্বামীর বিরুদ্ধে মেটলাইফ ইন্স্যুরেন্সের কর্মীকে কুপিয়ে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ
স্বামী-স্ত্রীর ঝগড়া মীমাংসা করতে এসে খুন
স্ত্রীর প্রেমিক খুন, শ্বশুরবাড়িতে স্বামীর আত্মগোপন
ব্যাগের সূত্রে খুলল মেছের হত্যা রহস্যের জট

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Information Minister calls on BNP to check its popularity in elections

বিএনপিকে নির্বাচনে এসে জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর

বিএনপিকে নির্বাচনে এসে জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের আহ্বান তথ্যমন্ত্রীর শনিবার চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সিরাজুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোক সভায় বক্তব্য দেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি: নিউজবাংলা
বিএনপিকে উদ্দেশ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘নির্বাচনে অংশ নিয়ে নিজেদের জনপ্রিয়তা যাচাই করুন, ১০ শতাংশ ভোট পান কিনা পরখ করে দেখুন। আগামী নির্বাচনে আমরা ওয়াকওভার চাই না। আপনারা নির্বাচনী খেলায় আসুন। আমরা খেলে বিজয় লাভ করতে চাই।’

বিএনপিকে নির্বাচনে এসে জনপ্রিয়তা যাচাইয়ের আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এবং তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। একইসঙ্গে তিনি বলেছেন, নির্বাচনী খেলায় আওয়ামী লীগ খেলে গোল দিতে চায়। কিন্তু বিএনপি চায় খেলা থেকে পালিয়ে যেতে।’

শনিবার চট্টগ্রামের বোয়ালখালীতে সিরাজুল ইসলাম ডিগ্রি কলেজ মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি প্রয়াত সংসদ সদস্য মোসলেম উদ্দিন আহমদ ও বোয়ালখালী উপজেলার প্রয়াত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. নূরুল আলম স্মরণে এই কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

বিএনপিকে উদ্দেশ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দয়া করে নির্বাচনের খেলা থেকে পালিয়ে যাবেন না। নির্বাচনে অংশ নিয়ে নিজেদের জনপ্রিয়তা যাচাই করুন, ১০ শতাংশ ভোট পান কিনা সেটি পরখ করে দেখুন। আগামী নির্বাচনে আমরা ওয়াকওভার চাই না। আপনারা নির্বাচনী খেলায় আসুন, আমরা খেলে বিজয় লাভ করতে চাই।’

চট্টগ্রাম-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপির এখন দুই ভীতি। একটি হচ্ছে নির্বাচন, আরেকটি হচ্ছে জনগণ। সেজন্য বিএনপি মহাসচিবসহ তাদের নেতাদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে।

‘বিশেষ করে যুক্তরাষ্ট্র নতুন ভিসা নীতি ঘোষণার পর বিএনপির মাথা আরও বেশি খারাপ হয়েছে। কারণ এখন বিএনপি আর নির্বাচন প্রতিহত এবং বর্জন করার কথা বলতে পারবে না। তাদেরকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘মির্জা ফখরুল সাহেব বলেছেন যে সুষ্ঠু নির্বাচন হলে আওয়ামী লীগ ১০ শতাংশ ভোটও পাবে না। বাস্তবে আগামী নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করলে তারাই ১০ শতাংশের বেশি ভোট পাবে না।’

হাছান মাহমুদ বলেন, ‘বিএনপি ঘাপটি মেরে বসে আছে। তারা আবার বের হয়ে জনগণের ওপর হামলা পরিচালনা করবে। তারা জানে নির্বাচনে জিতবে না, এখন তারা গণ্ডগোল লাগিয়ে দেশে একটা বিশেষ পরিস্থিতি তৈরির চেষ্টা করবে। কিন্তু জনগণ তাদেরকে সেই সুযোগ আর দেবে না।’

ড. হাছান বলেন, ‘আওয়ামী লীগের তৃণমূলের নেতাদের সঙ্গে অন্যদের পার্থক্য আছে। সেই পার্থক্য প্রয়াত মোসলেম উদ্দিন আহমদ ও নূরুল আলমের জীবন নিয়ে আলোচনা করলে আমরা দেখতে পাই। এখন অনেকেই রেডিমেড নেতা হতে চান, টাকা দিয়ে রাজনীতি কিনতে চান।

‘আওয়ামী লীগের রাজনীতি কখনও টাকার কাছে বিক্রি হয় না, হবে না এবং বিক্রি হতে দেব না। রেডিমেড নেতা হওয়ার জন্য আওয়ামী লীগ নয়। সেখানেই হচ্ছে আওয়ামী লীগের সঙ্গে বিএনপি কিংবা জাতীয় পার্টির পার্থক্য।’

এলাকা নিয়ে প্রয়াত মোসলেম উদ্দিন আহমদের অনেক স্বপ্ন ছিল উল্লেখ করে হাছান মাহমুদ বলেন, ‘তার মধ্যে অন্যতম কালুরঘাট সেতু ইতোমধ্যে নীতিগতভাবে একনেকের প্রাথমিক স্তর অনুমোদিত হয়েছে, চূড়ান্ত অনুমোদনও হবে। সড়ক এবং রেল দুটি মিলেই একটি সেতু হবে। এই সেতুর বিষয়টি প্রধানমন্ত্রী নিজেই গুরুত্ব সহকারে দেখছেন।’

বোয়ালখালী আওয়ামী লীগের সভাপতি নুরুল আমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক উপজেলা চেয়ারম্যান রেজাউল করিমের সঞ্চালনায় সভায় চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক নোমান আল মাহমুদ এমপি, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, সাবেক সহ-সভাপতি এস. এম. আবুল কালাম প্রমুখ বক্তব্য দেন।

আরও পড়ুন:
মির্জা ফখরুল জনগণকে বিভ্রান্ত করতে চান: তথ্যমন্ত্রী
আন্তর্জাতিক সমর্থন না পেয়ে নিরপেক্ষ সরকার চায় বিএনপি: তথ্যমন্ত্রী
বিএনপির অপরাজনীতির কারণেই যুক্তরাষ্ট্রের ভিসা নীতি: তথ্যমন্ত্রী
পরিবেশ রক্ষায় ব্যর্থ হলে আগামী প্রজন্ম কাঠগড়ায় দাঁড় করাবে: তথ্যমন্ত্রী
যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আরও ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক চায় সরকার: তথ্যমন্ত্রী

মন্তব্য

বাংলাদেশ
Rasik election 36 promises in Japa candidates manifesto

রাসিক নির্বাচন: জাপা প্রার্থীর ইশতেহারে ৩৬ প্রতিশ্রুতি

রাসিক নির্বাচন: জাপা প্রার্থীর ইশতেহারে ৩৬ প্রতিশ্রুতি শনিবার রাজশাহী নগরীর গণকপাড়ায় জাতীয় পার্টি কার্যালয়ে ইশতেহার ঘোষণা অনুষ্ঠানে হট্টগোল বাধে। ছবি: নিউজবাংলা
লাঙ্গলের মেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, ‘জাতীয় পার্টির শাসনামলে রাজশাহীবাসী ব্যাপক উন্নয়ন দেখেছে। জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে রাজশাহী সিটিকে দেশের মধ্যে মডেল সিটি হিসেবে গড়ে তোলা আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। নতুন সব স্বপ্ন ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নে নগরবাসীর দোয়া, সহযোগিতা ও ভোট প্রার্থনা করছি।’

রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে জাতীয় পার্টির (জাপা) মেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম স্বপন তার নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। তাতে কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও হোল্ডিং ট্যাক্স কমানোসহ ৩৬ দফা প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি।

শনিবার নগরীর গণকপাড়ায় মহানগর ও জেলা জাতীয় পার্টি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে এই ইশতেহার ঘোষণা করেন লাঙ্গল প্রতীকের এই মেয়র প্রার্থী।

এ সময় অন্যদের উপস্থিত ছিলেন জেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক ও সাবেক এমপি অধ্যাপক আবুল হোসেন, সদস্য সচিব সামসুদ্দিন রেন্টু এবং মহানগরের যুগ্ম আহ্বায়ক সালাউদ্দিন মিন্টু।

সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, ‘জাতীয় পার্টির শাসনামলে রাজশাহীবাসী ব্যাপক উন্নয়ন দেখেছে। জাতীয় পার্টির প্রার্থী হিসেবে রাজশাহী সিটিকে দেশের মধ্যে মডেল সিটি হিসেবে গড়ে তোলা আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। নতুন সব স্বপ্ন ও পরিকল্পনা বাস্তবায়নে নগরবাসীর দোয়া, সহযোগিতা ও ভোট প্রার্থনা করছি।’

নেতার পদবি ঘোষণা নিয়ে হট্টগোল

এদিকে ইশতেহার ঘোষণা শেষে উপস্থিত নেতাদের নাম ঘোষণাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষে বাকবিতণ্ডা শুরু হয়। এ সময় একে অপরের ওপর চড়াও হয়। এই হট্টগোলের মাঝেই সংবাদ সম্মেলন শেষ করেন জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী স্বপন।

সংবাদ সম্মেলনে জাতীয় পার্টির রাজশাহী জেলার আহ্বায়ক আবুল হোসেনের পরিচয় তুলে ধরার সময় তাকে পার্টি চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা পরিচয় দেয়া হয়নি। এ নিয়ে তিনি ক্ষিপ্ত হন এবং অনুষ্ঠানের পরিচালক মহানগর জাপার যুগ্ম আহ্বায়ক সালাউদ্দিন মিন্টুর ওপর চড়াও হন। এ সময় সালাউদ্দিন মিন্টু বলে ওঠেন, ‘আপনি যে উপদেষ্টা তার কোনো কাগজ আছে? কাগজ দেখান।’

এ নিয়ে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে সংবাদ সম্মেলন শেষ করে সেখান থেকে বেরিয়ে যান জাতীয় পার্টির প্রার্থী স্বপন।

হট্টগোল সম্পর্কে চানতে চাইলে সালাউদ্দিন মিন্টু বলেন, ‘জেলার সভাপতি আবুল হোসেন নিজেকে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা দাবি করেন। তিন্তু তার কোনো কাগজ নেই। তাহলে তাকে কেন আমরা উপদেষ্টা বলব?

‘অনুষ্ঠানটি আমি উপস্থাপনা করছিলাম। তিনি তার পদবি দাবি করছিলেন। অন্য কিছু না। এখন চিঠি ছাড়া আমরা তো কাউকে উপদেষ্টা বলতে পারি না। এ নিয়েই হট্টগোল।’

এ বিষয়ে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী সাইফুল ইসলাম স্বপন বলেন, ‘ইশতেহার ঘোষণার সময় কিছু হয়নি। ইশতেহার ঘোষণার পর আমাদের জেলা সভাপতির সঙ্গে পইব নিয়ে আমাদের এক কর্মীর গ্যানজাম হয়। যা হয়েছে এটা বড় কিছু না।’

মন্তব্য

p
উপরে