কক্সবাজার বিমানবন্দর: নিরাপত্তা নিয়ে অভিযোগ পাইলটদেরও

player
কক্সবাজার বিমানবন্দর: নিরাপত্তা নিয়ে অভিযোগ পাইলটদেরও

কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়েতে মঙ্গলবার বিকেলে উড়োজাহাজের ধাক্কায় দুটি গরু মারা যায়। ছবি: নিউজবাংলা

কক্সবাজার বিমানবন্দরে কর্মরত একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার অভিযোগ, বিমানবন্দরের রানওয়েতে অবতরণের সময় নানা সমস্যা নিয়ে মৌখিক ও লিখিতভাবে পাইলটরা অভিযোগ দিলেও তা আমলে নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

কক্সবাজার বিমানবন্দর আন্তর্জাতিক মর্যাদা পেলেও নিরাপত্তা ব্যবস্থার দুর্বলতা নিয়ে অভিযোগ দীর্ঘদিনের। দুই দিন আগে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটের পাখার ধাক্কায় দুই গরুর মৃত্যুর পর তা ফের আলোচনায় উঠে এসেছে।

এ নিয়ে সমালোচনার মুখে পড়েছে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। উঠেছে নতুন অভিযোগও।

কক্সবাজার বিমানবন্দরে কর্মরত একটি বেসরকারি এয়ারলাইন্সের এক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার অভিযোগ, বিমানবন্দরের রানওয়েতে অবতরণের সময় নানা সমস্যা নিয়ে মৌখিক ও লিখিতভাবে পাইলটরা অভিযোগ দিলেও তা আমলে নেয়নি কর্তৃপক্ষ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে তিনি জানান, দুই সপ্তাহ আগেও অভিযোগ করা হয়েছিল গরু, ছাগলসহ বিভিন্ন প্রাণীর রানওয়েতে উঠে পড়ার কারণে পাইলটদের অবতরণে সমস্যা হচ্ছে। বিমানবন্দরের কাছে স্থানীয়দের অবাধ চলাচল এবং ভিড়ও বড় সমস্যা।

একাধিক পাইলট জানিয়েছিলেন, চারদিকে প্রচুর মানুষের মধ্যে শঙ্কা নিয়ে বিমান অবতরণ করতে হয় তাদের। বিকেল হলেই বিমানবন্দরের রানওয়ের পাশের সীমানাপ্রাচীর ঘেঁষে ভেতরে চলে ফুটবল খেলা। সেই খেলা দেখতে আবার ভিড় করে অন্তত দুই শতাধিক মানুষ।

তার অভিযোগ, বিভিন্ন সময় এসব বিষয় নিয়ে কক্সবাজার বিমানবন্দরের সিকিউরিটি ইনচার্জকে মৌখিক বা লিখিত অভিযোগ দিলেও কোনো সমাধান আসেনি।

মঙ্গলবার রাতের ওই ঘটনার পর নির্দিষ্ট সীমানাপ্রাচীরের কাছে দায়িত্বে থাকা চার আনসার সদস্যকে চাকরিচ্যুত করেছে কর্তৃপক্ষ। এ ছাড়া গঠন করা হয়েছে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি, তবে তাদের বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি কক্সবাজার বিমানবন্দরের দায়িত্বরতরা।

এ ছাড়া ওই ঘটনার পর ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে এভিয়েশনের উচ্চপর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল। বুধবার বিকেলে তারা বিমানবন্দর পরিদর্শন করেন। বৃহস্পতিবার সকালে বিমানবন্দরের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে তারা ঢাকার উদ্দেশে কক্সবাজার ছাড়েন।

এ প্রতিনিধি দলে ছিলেন বাংলাদেশ বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের সদস্য (সিকিউরিটি) গ্রুপ ক্যাপ্টেন আবু সালেহ মাহমুদ মান্নাফি।

কক্সবাজার বিমানবন্দর: নিরাপত্তা নিয়ে অভিযোগ পাইলটদেরও
বিমানবন্দরের সীমানা প্রাচীরের ভাঙা অংশ দিয়ে অবাধে চলছে যাতায়াত, ঢুকে পড়ছে পশু

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কক্সবাজার বিমানবন্দরের এক জ্যেষ্ঠ নিরাপত্তা কর্মকর্তা নিউজবাংলাকে জানান, মূলত রানওয়েতে গরু ঢুকেছে সংস্কার কাজের জন্য অরক্ষিত হয়ে পড়া সীমানা প্রচীরের অংশ দিয়ে। পাইলটদের অভিযোগের বিষয়ে অবশ্য কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি।

আকাশপথ ব্যবহার করে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকতে বেড়াতে আসা পর্যটকরা শঙ্কা প্রকাশ না করলেও বিমানবন্দরের নিরাপত্তায় প্রয়োজনে চারদিকে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের দাবি তুলেছেন।

ঢাকা থেকে আসা জাহিদুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আন্তর্জাতিক মানের একটি বিমানবন্দরে এমন ঘটনা কখনও কাঙ্ক্ষিত হতে পারে না। শুধু চার আনসার নয়, দায়িত্ব অবহেলার দায় ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের ওপরও পড়ে। প্রয়োজনে তাদেরও পরিবর্তন করা হোক।’

নাদিরা জামান নামে আরেক যাত্রী বলেন, ‘একটি বিদেশি এনজিও সংস্থায় কাজ করার কারণে নিয়মিতই বিমানে কক্সবাজার আসি, কিন্তু বিমানের ধাক্কায় গরুর মৃত্যুর বিষয়টি দেখে নিজের মধ্যে ভীতি সৃষ্টি হয়েছে। ভাগ্য ভালো ওই বিমানযাত্রীদের। আমরা মনে করি এ বিমানবন্দরে আরও নিরাপত্তা বাড়ানো উচিত।

তবে বারবরের মতোই কক্সবাজার বিমানবন্দরের ব্যবস্থাপক গোলাম মোর্তজা হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কয়েকটি পয়েন্টে সীমানাপ্রাচীর সংস্কারের কাজ চলছে। দ্রুত তা শেষ হলে এসব গবাদিপশু বা বিমানবন্দরের নিরাপত্তাঝুঁকি কেটে যাবে।

কক্সবাজার বিমানবন্দর: নিরাপত্তা নিয়ে অভিযোগ পাইলটদেরও
কক্সবাজার বিমানবন্দরের রানওয়েতে মঙ্গলবার বিকালে উড়োজাহাজের ধাক্কায় দুটি গরু মারা গেছে

তার কাছেও পাইলটদের অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে তিনি কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

২০০৫ সালে কক্সবাজার বিমানবন্দরের উত্তরে বঙ্গোপসাগরে একটি কার্গো উড়োজাহাজ বিধ্বস্ত হয়ে বিদেশি পাইলটসহ তিনজনের মৃত্যু হয়। কার্গো উড়োজাহাজটি কক্সবাজার থেকে চিংড়ির পোনা নিয়ে যশোর যাচ্ছিল। এ ছাড়া ২০১৭ সালে একটি বেসরকারি উড়োজাহাজের চাকায় পিষ্ট হয়ে রানওয়েতে তিনটি কুকুরের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

মন্তব্য

সাত জেলায় বিয়ে করে অভিনব প্রতারণা, যুবক গ্রেপ্তার

সাত জেলায় বিয়ে করে অভিনব প্রতারণা, যুবক গ্রেপ্তার

প্রতারণা অভিযোগে আটক শাকিল আজাদ। ছবি: নিউজবাংলা

অভিযুক্ত শাকিল আজাদ বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে প্রথমেই নিম্ন আয়ের পরিবার খুঁজেন। পরে সেই পরিবারের মেয়েকে বিয়ে করে শুরু করেন আসল প্রতারণা।

প্রতারণার মাধ্যম হিসেবে বিয়েকেই বেছে নিয়েছিলেন অভিযুক্ত যুবক। যেখানে বিয়ে করেন সেখানেই নিজেকে কাতার প্রবাসী পরিচয় দেন। পরে এলাকার বেকার যুবকদের কাতারে নেয়ার কথা বলে হাতিয়ে নেন টাকা পয়সা।

এভাবে একে একে সাত জেলায় সাতটি বিয়ে করেন ২৯ বছর বয়সী শাকিল আজাদ। তার বাড়ি কুমিল্লার বড়ুরা উপজেলায়।

ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করলে মঙ্গলবার গভীর রাতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ উপজেলার পদুয়ার বাজার বিশ্বরোড এলাকা থেকে শাকিলকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। এ সময় তার কাছ থেকে ৭টি পাসপোর্টও জব্দ করা হয়।

বুধবার বেলা ১টার দিকে কুমিল্লা র‌্যাব-১১ এর কোম্পানি কমান্ডার মেজর মোহাম্মদ সাকিব হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

মেজর সাকিব জানান, গ্রেপ্তার শাকিল আজাদ প্রতারণার মাধ্যমে এখন পর্যন্ত কুমিল্লা, রাজশাহী, খুলনা, রংপুর, নীলফামারী ও ফরিদপুরে বিয়ে করেছেন।

প্রথমে তিনি বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে ওই এলাকার নিম্ন আয়ের পরিবার খুঁজেন। পরে সেই পরিবারের মেয়েকে বিয়ে করেন। বিয়ের পর শ্বশুরবাড়ির এলাকার বিভিন্ন মসজিদ মাদ্রসায় দান খয়রাত করেন। নিজেকে পরিচয় দেন কাতার প্রবাসী হিসেবে।

এভাবে শ্বশুরবাড়ির এলাকার বেকার যুবকদের কাতার নেয়ার কথা বলে টাকা পয়সা হাতিয়ে উধাও হয়ে যান। পরে প্রতারণার শিকার বেকার যুবকরা তার শ্বশুরবাড়ি গিয়ে টাকার জন্য চাপ দেন।

এসব ঘটনায় একদিকে কন্যাকে নিয়ে দুঃচিন্তা, অন্যদিকে টাকা ফেরত দেয়ার জন্য এলাকার যুবকদের চাপে অসহ্য হয়ে উঠতো ওই পরিবারের মানুষদের জীবন।

২০১৮ সালে আজাদ চতুর্থ বিয়েটি করেন খুলনায়। ওই এলাকা থেকে তিনি বেশ কয়েক লাখ টাকা হাতিয়ে উধাও হন। পরে এলাকাবাসীর রোষানলে পড়ে ওই পরিবারটি এলাকা ছাড়তে বাধ্য হয়।

গত ১৫ দিন আগে আজাদের চতুর্থ স্ত্রী কুমিল্লার র‌্যাব অফিসে একটি অভিযোগ করেন। এই অভিযোগের ভিত্তিতেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

কমান্ডার সাকিব আরও জানান, বিভিন্ন অভিযোগের প্রেক্ষিতে ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ ইতোপূর্বে আজাদের পাসপোর্টটি বাতিল করেছে। বর্তমানে তিনি ছদ্মবেশে চট্টগ্রামে একটি বেকারি খুলে ব্যবসা করছিলেন।

শাকিলের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বরড়া থানায় হস্তান্তর করা হবে।

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

‘নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করলে এলাকায় থাইকেন না’

‘নৌকার বিরুদ্ধে কাজ করলে এলাকায় থাইকেন না’

ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা প্রলয় কুমার সাহা বলেন, ‘আমি প্রশিক্ষণে আছি। অভিযোগ দিয়ে থাকলে সেটা অফিসে থাকতে পারে। তবে আমি এই বিষয়ে অবগত নই।’

কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজেলার একটি ইউনিয়নে ‘বিদ্রোহী প্রার্থীর’ কর্মী-সমর্থকদের এলাকায় না থাকার হুমকি দেয়ার অভিযোগ উঠেছে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর বিরুদ্ধে।

তবে নৌকার প্রার্থী বলছেন, তিনি এ ধরনের কোনো কথাই বলেননি।

নারান্দী ইউনিয়নের শালংকা গ্রামে ২১ জানুয়ারি উঠান বৈঠক করেন ক্ষমতাসীন দলের প্রার্থী শফিকুল ইসলাম। এ সময় তার দেয়া বক্তব্য পরদিন ‘সত্যের সন্ধান’ নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট হয়।

ভিডিওতে প্রার্থীকে বলতে শোনা যায়, ‘মুখে জয় বাংলা বলবেন, আর কাজ করবেন নৌকার বিরুদ্ধে, আমি লালু, ভুলু ও শাকিলকে বলে দিতে চাই- আগামীকালের পর এলাকায় থাইকেন না।’

যাদেরকে এলাকায় না থাকার হুমকি দেয়া হয়েছে তাদের একজন শাকিল রেজা। তিনি নারান্দী ইউনিয়ন যুবলীগের সহসভাপতি।

তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘শফিক গত নির্বাচনে যখন চেয়ারম্যান প্রার্থী হয়েছিলেন তখন আমি, লালু আর কালু দিনরাত পরিশ্রম করে তাকে চেয়ারম্যান বানিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ার পর বিভিন্ন সময়ে অসহায়দের কাছ থেকে ঘর দেবেন বলে টাকাপয়সা নিয়েছেন।

‘আমরা সেগুলোর প্রতিবাদ করেছি। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন অনিয়মের অভিযোগ আছে। তাই এবারের নির্বাচনে আমরা তার সঙ্গে নাই। আর এ জন্যই তিনি গ্রামে এসে আমাদেরকেই হুমকি দিচ্ছেন।’

স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী মো. মুছলেহ উদ্দিন উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য। তিনি দল থেকে মনোনয়ন না পেয়ে আনারস প্রতীকে নির্বাচন করছেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘পুরো ইউনিয়নে ঘুরে নৌকার প্রার্থী বুঝতে পেরেছেন তার কোনো জনসমর্থন নাই। নির্বাচনে নিশ্চিত ভরাডুবি জেনে রাজনৈতিক প্রভাব এবং পেশিশক্তি ব্যবহারের এমন হীন তৎপরতায় জড়িয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘শফিক প্রতিনিয়ত আমার কর্মী-সমর্থকদের বিভিন্ন মাধ্যমে হুমকি-ধমকি দিচ্ছেন। আমার প্রচারে বাধা দিচ্ছেন। এ বিষয়ে আমি উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করেছি।’

আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শফিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এই ধরনের বক্তব্য আমি দেইনি। আপনি খোঁজ নিয়ে দেখেন তারা এখনো নিজেদের এলাকায় অবস্থান করছেন। আমি বলেছি আপনারা আওয়ামী লীগ করবেন আবার দলের বিপক্ষে অবস্থান নিয়ে নির্বাচন করবেন এমনটা ঠিক না।’

পাকুন্দিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা সাখাওয়াৎ হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

কোনো প্রার্থীর পক্ষ থেকে অভিযোগ পেয়েছেন কি না এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘অভিযোগ দিয়ে থাকলে সেটা আমার কাছে নয় দেবেন ওই ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে।’

ইউনিয়নের রিটার্নিং কর্মকর্তা প্রলয় কুমার সাহা বলেন, ‘আমি প্রশিক্ষণে আছি। অভিযোগ দিয়ে থাকলে সেটা অফিসে থাকতে পারে। তবে আমি এই বিষয়ে অবগত নই।’

আগামী ৩১ জানুয়ারি ষষ্ঠ ধাপে জেলার পাকুন্দিয়া উপজেলার ৯টি ইউনিয়ন পরিষদে প্রথমবারের মতো ভোট হবে ইভিএমে।

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

লোকালয়ের ‘নাগরিক’ বুনোহাতির শাবক

লোকালয়ের ‘নাগরিক’ বুনোহাতির শাবক

মায়ের সঙ্গে ছয় দিন আগে জন্ম নেয়া হাতি। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রাম দক্ষিণ অঞ্চলের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বুনোহাতি সাধারণত জঙ্গলেই সন্তান প্রসব করে। লোকালয়ে শাবক জন্ম দেয়া বিরল ঘটনা। শাবক ও মা হাতি দুটোই সুস্থ আছে। বনকর্মীরা তাদের ওপর নজর রাখছেন।’

শীতের ভোরে হালকা কুয়াশার মাঝে ছোট্ট শাবককে নিয়ে ঘুরছে মা হাতি। কদিন আগেই জন্ম নিয়েছে এই শাবক।

তবে জঙ্গলে নয়, এই শাবকের জন্ম হয়েছে লোকালয়ে। বন কর্মকর্তা বলছেন, লোকালয়ে হাতির বাচ্চা প্রসব বেশ বিরল ঘটনা।

চট্টগ্রামের আনোয়ারা উপজেলার দেয়াং পাহাড়ে রাডার অফিসের সামনে এলাকায় গত বৃহস্পতিবার হাতিটির জন্ম। বিষয়টি স্থানীয়দের নজরে আসে শনিবার।

স্থানীয় বাসিন্দা এইচ এম জাহিদ জানান, মঙ্গলবার ভোরে মা হাতি তার শাবক নিয়ে রাডার অফিস ও গুচ্ছগ্রাম এলাকায় ঘুরছিল। দুজনের চলাফেরাই বেশ শান্ত ছিল। তাদের সঙ্গে আরও কয়েকটি হাতি ছিল।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ অঞ্চলের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম বলেন, ‘বৃহস্পতিবার বনকর্মীরা হাতিকে বাচ্চা প্রসব করতে দেখেন। তবে স্থানীয়রা বিরক্ত করতে পারে ভেবে প্রকাশ করা হয়নি।

‘বুনোহাতি সাধারণত জঙ্গলেই সন্তান প্রসব করে। লোকালয়ে শাবক জন্ম দেয়া বিরল ঘটনা। শাবক ও মা হাতি দুটোই সুস্থ আছে। বনকর্মীরা তাদের ওপর নজর রাখছেন।’

তিনি জানান, সম্প্রতি বন্য হাতির দল চট্টগ্রামের আনোয়ারা, সাতকানিয়া ও বাঁশখালীর সংরক্ষিত বন ছেড়ে লোকালয়ে আশ্রয় নিয়েছে। বিশেষ করে বিলের ফসলসংলগ্ন এলাকায় তারা ঘোরাফেরা করছে। স্থানীয়দের বাধায় এরা অনেক সময় জনবসতিতেও হামলা করছে। পাল্টা আক্রমণে মারাও পড়ছে।

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অফ ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্সের সহযোগী অধ্যাপক ও হাতি বিশেষজ্ঞ ড. এ এইচ এম রায়হান সরকার বলেন, ‘লোকালয়ে হাতির বাচ্চা প্রসব বেশ বিরল ঘটনা। সম্ভবত জঙ্গলে যাওয়ার আগেই বাচ্চা প্রসব হয়ে গেছে।’

বন বিভাগের চট্টগ্রাম দক্ষিণ রেঞ্জ কর্মকর্তা মিজানুর রহমান জানান, পাহাড় ও জঙ্গল কেটে বসতি নষ্ট করায় হাতিরা লোকালয়ে চলে আসছে। হাতির খাবার জোগান দিতে একটি প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। হাতি নিয়ন্ত্রণেও বন বিভাগ কাজ করছে।

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

ধষর্ণের ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ায় বৃদ্ধের ১৪ বছরের জেল

ধষর্ণের ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ায় বৃদ্ধের ১৪ বছরের জেল

প্রেমের সম্পর্ক জোড়া লাগানোর টোটকা দেয়ার কথা বলে ২০১৫ সালের নভেম্বরের বিভিন্ন সময় এলাকার দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করে আল আমিন। সেসব ঘটনার ভিডিও ধারণ করে সেগুলো স্থানীয়দের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেন।

কবিরাজি চিকিৎসার নামে দুই কিশোরীকে ধর্ষণের ভিডিও ধারণ করে ছড়িয়ে দেয়ার দায়ে বৃদ্ধের ১৪ বছরের কারাদণ্ড হয়েছে। সেইসঙ্গে তাতে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায় আরও এক বছরের কারাদণ্ড দেয় আদালত।

রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়াউর রহমান বুধবার দুপুরে এই রায় দেন।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী (পিপি) ইসমত আরা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আসামির নাম আল আমিন আকিল। ৬৬ বছরের আকিলের বাড়ি নাটোরের বড়াইগ্রামের চান্দাই গ্রামে। তিনি পলাতক।

প্রেমের সম্পর্ক জোড়া লাগানোর টোটকা দেয়ার কথা বলে ২০১৫ সালের নভেম্বরের বিভিন্ন সময় এলাকার দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করে আল আমিন। সেসব ঘটনার ভিডিও ধারণ করে সেগুলো স্থানীয়দের মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেন।

এ ঘটনার পর ওই কিশোরীদের একজনের বাবা বড়াইগ্রাম থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন এবং তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ নাটোরের আদালতে আল আমিনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেয়।

তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ধারার অংশটির বিচারের জন্য মামলাটি নাটোরের আদালত থেকে ঢাকার সাইবার ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হয়। পরে রাজশাহীতে সাইবার ট্রাইব্যুনাল গঠন হলে এটি এখানে যায়।

৯ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষে তথ্য-প্রযুক্তি আইনের মামলাটির রায় ঘোষণা করেছে আদালত।

পিপি ইসমত বলেন, রাজশাহীর আদালতে শুধু ভিডিও ছড়িয়ে দেয়ার বিচার হলো। ধর্ষণের জন্য মামলার অংশটির বিচার চলছে নাটোরের আদালতে। মামলা একটি হলেও ধারা আলাদা থাকার কারণে বিচারকাজ দুই আদালতে হয়েছে।

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

টেন্ডার বিক্রির আগেই কাজ শুরু

টেন্ডার বিক্রির আগেই কাজ শুরু

স্কুলের মাঠে চলছে নির্মাণ কাজ। ছবি: নিউজবাংলা

স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) বেতাগী উপজেলা প্রকৌশলী মো. রাইসুল ইসলাম বলেন, ‘ওইখানে এখন কে কাজ করে সেটা আমার দেখার বিষয় না। ব্যক্তিগতভাবে কেউ এই কাজ করতে পারে। টেন্ডার সম্পন্ন হবার পর আমি ঠিকাদারকে কাজ বুঝিয়ে দিব।’

বরগুনার বেতাগীতে টেন্ডারের শিডিউল বিক্রির আগেই কাজ শুরু করেছেন ঠিকাদার।

অভিযোগ, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) কর্মকর্তাদের যোগসাজশে প্রায় অর্ধ কোটি টাকার ওই কাজটি পছন্দের ঠিকাদারের মাঝে বণ্টন করা হয়েছে।

ইতিমধ্যে ওই ঠিকাদার কাজও শুরু করেছেন। গত ১৫ দিন ধরে চলছে এ সব কাজ।

দরপত্রে অংশগ্রহণ ছাড়া এভাবে হঠাৎ করে কাজ শুরু করায় ক্ষুব্ধ স্থানীয় ঠিকাদাররা।

বিষয়টি স্বীকার করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা বলেন, টেন্ডার সম্পন্ন হবার পর ঠিকাদারকে কাজ বুঝিয়ে দেয়া হবে।

এলজিইডি বেগাতী উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, ৯ জানুয়ারি বিবিচিনি ইউনিয়নের বেগম লুৎফুন্নেছা মেমোরিয়াল ব্রিট স্কুলের সীমানা প্রাচীর ও স্কুলের ভেতরে আরসিসি রাস্তা নির্মাণের জন্য দরপত্র আহবান করে এলজিইডি বেতাগী উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয়। এর সম্ভাব্য ব্যয় ধরা হয় প্রায় ৪৮ লাখ টাকা।

ওই দুইটি প্যাকেজের শিডিউল বিক্রির শেষ সময় উল্লেখ করা হয় চলতি বছরের ২৬ জানুয়ারি বিকাল ৫টা। দরপত্র জমা দেয়ার শেষ সময় আগামী ২৭ জানুয়ারি দুপুর ১টা।

ই-টেন্ডার পদ্ধতি হওয়ায় সারাদেশ থেকেই অনলাইনে টেন্ডার শিডিউল ক্রয় ও জমা দেয়ার কথা। সেই হিসেবে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদাররাও প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন।

কিন্ত দরপত্র বিক্রির মেয়াদ শেষ হওয়ার আগেই জাকির হোসেন নামের একজন ঠিকাদার গত ১৯ জানুয়ারি ওই স্কুলের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করেন।

টেন্ডার বিক্রির আগেই কাজ শুরু

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেশ কয়েকজন ঠিকাদার অভিযোগ করেন, দরপত্র আহবান করার পর এতে অংশগ্রহণ ছাড়াই কাজ শুরু করা নজিরবিহীন। এলজিইডি কর্মকর্তাদের যোগসাজশে অনৈতিকভাবে কাজটি বন্টন করা হয়েছে।

নিয়মতান্ত্রিকভাবে দরপত্রে অংশণে প্রতিযোগীতার মাধ্যমে কাজটির ঠিকাদার নির্বাচিত হলে সরকারের অনেক টাকা সাশ্রয় হতো বলে মনে করেন তারা।

মঙ্গলবার বেগম লুৎফুন্নেছা মেমোরিয়াল ব্রিট স্কুলে গিয়ে দেখা গেছে, স্কুলের সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ চলছে। ইতিমধ্যে সীমানা প্রাচীর নির্মাণের জন্য স্কুলের চারপাশে কলাম ঢালাই এবং মাটি কাটার কাজ চলছে। সেখানে ৭/৮ জন শ্রমিক কাজ করছেন। শ্রমিকরা জানান, ঠিকাদার জাকির এই কাজ করছেন।

নিউজবাংলাকে প্রতিষ্ঠানটির (ব্রিট সেন্টার) ইনচার্জ মো. মাইনুল ইসলাম বলেন, ‘সরকারিভাবে এই প্রতিষ্ঠানের সীমানা প্রাচীর নির্মাণের কাজ চলছে। এরপর রাস্তার কাজ শুরু হবে।’

গত ১৫ দিন আগে এই কাজ শুরু হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এই কাজের টেন্ডার এখনও সম্পন্ন হয়েছে কিনা সে বিষয়ে আমি কিছু জানি না।’

যোগাযোগ করা হলে ঠিকাদার মো. জাকির বলেন, ‘কর্তৃপক্ষ আমাকে কাজ করতে বলেছে, তাই আমি কাজ করছি। আমি নিজেও দরপত্র ক্রয় করেছি। পরবর্তীতে যে কাজ পাবে তার সাথে সমন্বয় করে নিব।’

টেন্ডার বিক্রির আগেই কাজ শুরু

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) বেতাগী উপজেলা প্রকৌশলী মো. রাইসুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ওইখানে এখন কে কাজ করে সেটা আমার দেখার বিষয় না।’

ব্যক্তিগতভাবে কেউ এই কাজ করতে পারে দাবি করে তিনি বলেন, ‘টেন্ডার সম্পন্ন হবার পর আমি ঠিকাদারকে কাজ বুঝিয়ে দিব।’

নিউজবাংলাকে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর বরগুনার নির্বাহী প্রকৌশলী এসকে আরিফুল ইসলাম বলেন ‘এই কাজটি আমার দপ্তরের না। আমি এই বিষয়ে কিছু জানি না।’

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

বরিশালে ছিনতাইয়ের অভিযোগে ২ নারী আটক

বরিশালে ছিনতাইয়ের অভিযোগে ২ নারী আটক

ছিনতাইয়ের ঘটনায় আটক রিনা ও আরজিনা। ছবি: নিউজবাংলা

ছিনতাইয়ের শিকার নগরীর ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক নারী কাউন্সিলর তাসলিমা কালাম পলি জানান, সকালে ব্যাংক থেকে ৫০ হাজার টাকা তুলে গির্জা মহল্লা এলাকা দিয়ে তিনি যাচ্ছিলেন। এ সময় অভিযুক্ত দুই নারীসহ আরও কয়েকজন তার পিছু নেয়।

বরিশাল নগরীতে সাবেক এক নারী কাউন্সিলরের ব্যাগ থেকে টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগে দুই নারী ছিনতাইকারীকে আটক করেছে সাধারণ মানুষ। পরে তাদের পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

বুধবার দুপুরে নগরীর গির্জা মহল্লা এলাকায় ওই ছিনতাই ও আটকের ঘটনা ঘটে। এ সময় আটক হওয়া দুই নারীর কাছ থেকে ছিনতাই করা ৫০ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়েছে।

আটক হওয়া রিনা ও আরজিনা বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলায় রহমতপুর রামপট্টি এলাকার বেদেপল্লিতে বাস করেন বলে জানিয়েছেন।

ছিনতাইয়ের শিকার নগরীর ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক নারী কাউন্সিলর তাসলিমা কালাম পলি জানান, সকালে ব্যাংক থেকে ৫০ হাজার টাকা তুলে গির্জা মহল্লা এলাকা দিয়ে তিনি যাচ্ছিলেন। এ সময় অভিযুক্ত দুই নারীসহ আরও কয়েকজন তার পিছু নেয়।

বিষয়টি সন্দেহজনক হলে তিনি তাদের পিছু নেয়ার কারণ জানতে চান। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি দেখেন তার বহন করা ব্যাগের চেইন খোলা এবং সেখানে রাখা ৫০ হাজার টাকাও নেই।

এ অবস্থায় সন্দেহজনক ওই দুই নারী রিনা ও আরজিনাকে ধরে ফেলেন পলি। পরে তাদের একজনের ওড়নায় পেঁচানো অবস্থায় ওই টাকা উদ্ধার করা হয়।

এ সময় ঘটনাস্থলে উপস্থিত সাধারণ মানুষ রিনা ও আরজিনাকে কোতোয়ালি থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে।

এ ঘটনায় ছিনতাইয়ের শিকার সাবেক নারী কাউন্সিলর বাদী হয়ে মামলা করবেন বলে জানিয়েছেন।

বরিশাল কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিমুল করিম জানান, দুই নারীকে থানায় রাখা হয়েছে। ভুক্তভোগী মামলা করলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন

বাসচাপায় অটোরিকশার ৪ যাত্রী নিহত

বাসচাপায় অটোরিকশার ৪ যাত্রী নিহত

বগুড়ায় বাসচাপায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার চার যাত্রী নিহত হয়েছেন।

মির্জাপুর ইউনিয়নের রানীরহাট মোড়ে বুধবার বিকেল পাঁচটার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন শেরপুর হাইওয়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ বানীউল ইসলাম।

বিস্তারিত আসছে...

আরও পড়ুন:
‘বোমার তথ্যের সত্যতা পাওয়া যায়নি, এয়ারক্র্যাফট নিরাপদ’
‘আপনার সঙ্গে কথা বলব, এটা আসলে ভাবি নাই তখন’ 
জরুরি অবতরণ করা মালয়েশীয় ফ্লাইটে ‘বোমা’ মেলেনি
৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ
উড়োজাহাজে গরুর ধাক্কায় চাকরি গেল আনসারের চার জনের

শেয়ার করুন