ফের চালু ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’, এসি চেয়ার না থাকায় অসন্তোষ

player
ফের চালু ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’, এসি চেয়ার না থাকায় অসন্তোষ

বেনপোল স্টেশন মাস্টার সাইদুর রহমান নিউজবাংলাকে বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে বেনাপোল এক্সপ্রেসটি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আজ পুনরায় চালু হয়েছে। আগে এ রুটে যে বেনাপোল এক্সপ্রেসটি চলতো সেটিতে এসি আসন ছিল। কিন্তু নতুন চালু হওয়া ট্রেনে এসি কেবিন থাকলেও এসি চেয়ার নেই।

দীর্ঘ ৮ মাস পর বেনাপোল-ঢাকা রুটে পুনরায় চালু হয়েছে ‘বেনাপোল এক্সপ্রেস’ ট্রেন। বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টা ৪৫ মিনিটে ট্রেনটি বেনাপোল থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়।

দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে গত বছরের ৫ এপ্রিল থেকে ঢাকা-বেনাপোল রুটে আন্তঃনগর ট্রেনটিও বন্ধ করে দেয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।

দীর্ঘদিন পর ট্রেনটি পুনরায় চালু হওয়ায় স্থানীয় যাত্রীসাধারণ খুশি হলেও সেবা সুবিধা নিয়ে সন্তুষ্ট নন তারা।

রেল সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৯ সালের ১৭ জুলাই ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বেনাপোল এক্সপ্রেস উদ্বোধন করেন। ৮৮৬ আসন বিশিষ্ট ট্রেনটির ১২টি বগিতে ৪৮টি কেবিন আসন, ৭৮টি এসি চেয়ার আসন, ৭৬০টি নন এসি চেয়ার আসন ছিল।

কিন্তু বৃহস্পতিবার যে ট্রেন দিয়ে বেনাপোল এক্সপ্রেস পুনরায় চালু করা করা হয়েছে সেটিতে আগের ট্রেনের তুলনায় যাত্রী সুবিধার ঘাটতি রয়েছে।

যাত্রীরা বলছেন, নতুন করে চালু হওয়া ট্রেনটিতে কোনো এসি বগি নেই। ৮টি বগিতে ৪৮টি কেবিন আসন আছে। বাকি ৭৪৫টি ননএসি চেয়ার আসন আছে। ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে ননএসি আসন প্রতি ৪৮৫ টাকা ও কেবিন প্রতি ১ হাজার ১১৬ টাকা।

নিউজবাংলাকে ট্রেনের যাত্রী হাবিব চৌধুরী বলেন, ব্যবসায়িক কাজে প্রতিমাসে ৪ থেকে ৫ বার ঢাকায় যাতায়াত করতে হয়। বেনাপোল এক্সপ্রেস চালু হওয়ার পর থেকে আমি ঢাকায় প্লেনে না গিয়ে ট্রেনে চলাচল শুরু করি। অনেকদিন পর আজ পুনরায় ট্রেনটি চালু হওযার পর স্টেশনে এসে ট্রেনে এসি নাই শুনে অবাক হলাম।

'বেনাপোলে নানা শ্রেণির মানুষকে চাকরির সুবাদে বিভিন্ন এলাকা থেকে আসতে হয়। কাস্টমস ও বন্দরের অনেক কর্মকর্তা এসি ট্রেনে চলাচল করতেন। এখন এসি চেয়ার না থাকলে আগের মতোই ভোগান্তি হবে যাত্রীদের। কেউ ওই সুবিধাটুকু নিয়ে ট্রেনে ঢাকায় যাতায়াত করতে চাইলে তাকে যশোর থেকে এসি ট্রেনে উঠতে হবে। এতে খরচ বাড়ার পাশাপাশি ভোগান্তির শিকার হতে হবে।
বেনাপোল স্টেশনমাস্টার সাইদুর রহমান এ ব্যাপারে নিউজবাংলাকে বলেন, 'করোনা ভাইরাসের কারণে বেনাপোল এক্সপ্রেসটি দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর আজ পুনরায় চালু হয়েছে। আগে এ রুটে যে বেনাপোল এক্সপ্রেস চলতো সেটি ইন্দোনেশিয়ার তৈরি। আর নতুন যাত্রা শুরু করা ট্রেনটি তৈরি হয়েছে ভারতে। আগের ট্রেনে এসি আসন ছিল। এটিতে এসি কেবিন থাকলেও এসি চেয়ার নেই।'

বেনাপোল এক্সপ্রেসটি আগের মত সপ্তাহে ছয় দিন চলবে বলেও জানান তিনি।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ছাত্র লাঞ্ছনায় জাবির দুই ছাত্রী বহিষ্কার

ছাত্র লাঞ্ছনায় জাবির দুই ছাত্রী বহিষ্কার

বহিষ্কৃত সুমাইয়া বিনতে ইকরাম (বামে) ও আনিকা তাবাসসুম। ছবি: নিউজবাংলা

রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ বলেন, ‘সুমাইয়াকে এক বছর ও আনিকাকে ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। এই সময়ে তারা কোনো ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না এবং হলে অবস্থান ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। একইসঙ্গে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহনসহ অন্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন না।’

ছাত্র লাঞ্ছনায় জড়িত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) দুই ছাত্রীকে শাস্তি দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এক শিক্ষার্থীকে এক বছর এবং অন্যজনকে ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে।

উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক জরুরি সিন্ডিকেট সভায় মঙ্গলবার রাতে এই সিদ্ধান্ত হয়।

বহিষ্কৃত ওই দুই ছাত্রীর নাম সুমাইয়া বিনতে ইকরাম ও আনিকা তাবাসসুম। তারা দুজনই নৃবিজ্ঞান বিভাগের স্নাতক চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী।

সুমাইয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রীতিলতা হল এবং আনিকা নওয়াব ফয়জুন্নেসা হলের আবাসিক ছাত্রী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার রহিমা কানিজ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘সুমাইয়াকে এক বছর ও আনিকাকে ৬ মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়েছে। এই সময়ে তারা কোনো ক্লাস-পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে না এবং হলে অবস্থান ও বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। একইসঙ্গে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহনসহ অন্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন না।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বটতলায় সোমবার রাত ৮টার দিকে রাস্তার জায়গা ছেড়ে দেয়াকে কেন্দ্র করে সরকার ও রাজনীতি বিভাগের স্নাতকোত্তর পর্বের এক ছাত্রকে থাপ্পড় মারেন সুমাইয়া।

এ ঘটনায় শিক্ষার্থীরা সেখানে উপস্থিত হয়ে সুমাইয়া ও তার সহযোগী আনিকার শাস্তির দাবি জানান। পরে রাত ১১টার দিকে প্রক্টর অফিসে উভয় পক্ষই তাদের লিখিত বক্তব্য জমা দেয়।

শেয়ার করুন

শীতলক্ষ্যা থেকে নারী ও যুবকের মরদেহ উদ্ধার

শীতলক্ষ্যা থেকে নারী ও যুবকের মরদেহ উদ্ধার

নৌপুলিশের এসআই ফোরকান মিয়া জানান, ওই নারীর আনুমানিক বয়স ৩২ বছর। তার পায়ে ও পেটে আঘাতের চিহ্ন আছে। যুবকের দেহে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তার আনুমানিক বয়স ২৮ বছর।

নারায়ণগঞ্জের শীতলক্ষ্যা নদী থেকে পাশাপাশি ভাসমান নারী ও যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে নৌপুলিশ।

সদর উপজেলার নবীগঞ্জ গুদারাঘাটের পশ্চিম পাশ থেকে বুধবার দুপুরে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়।

নারায়ণগঞ্জ নৌপুলিশের পুলিশ সুপার মিনা মাহমুদ নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, স্থানীয়রা বুধবার দুপুরে শীতলক্ষ্যায় এক নারী ও যুবকের মরদেহ পাশাপাশি ভাসতে দেখে। মরদেহ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

নৌপুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ফোরকান মিয়া জানান, ওই নারীর আনুমানিক বয়স ৩২ বছর। তার পায়ে ও পেটে আঘাতের চিহ্ন আছে। যুবকের দেহে কোনো আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়নি। তার আনুমানিক বয়স ২৮ বছর। দুজনের পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে।

শেয়ার করুন

অটোরিকশায় ট্রেনের ধাক্কা: মৃত বেড়ে ৪

অটোরিকশায় ট্রেনের ধাক্কা: মৃত বেড়ে ৪

নীলফামারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউপ বলেন, ‘অটোরিকশায় ৮ জন যাচ্ছিলেন উত্তরা ইপিজেডে। কুয়াশার কারণে বুঝতে না পারায় লেভেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়েন তারা।’

নীলফামারীতে অটোরিকশায় ট্রেনের ধাক্কায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে চারজনে দাঁড়িয়েছে।

নিউজবাংলাকে সৈয়দপুর জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রহমান বিশ্বাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বুধবার সকালে ঘটনাস্থলে একজন এবং হাসপাতালে নেয়ার পথে দুজনের মৃত্যু হয়। সবশেষ রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে মারা যান মিনারা আকতার।

মৃতরা হলেন রোমানা আকতার, সায়েরা বেগম, শেফালী বেগম ও মিনারা আকতার।

সৈয়দপুর-চিলাহাটি রেলপথের সোনারা ইউনিয়নের দারোয়ানীতে একটি অরক্ষিত লেভেলক্রসিংয়ে বুধবার সকাল ৭টার দিকে একটি অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয় সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেন। অটোরিকশায় ৮ জন যাত্রী ছিলেন।

ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা আমির আলী বলেন, ‘সৈয়দপুর-চিলাহাটি রেলপথের দারোয়ানীতে খোলা একটি রেলগেট আছে। একটি অটোরিকশায় করে শ্রমিকরা সবাই কাজে যাচ্ছিলেন। লেভেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় খুলনা থেকে চিলাহাটিগামী সীমান্ত এক্সপ্রেস ট্রেনটি অটোরিকশাটিকে ধাক্কা দেয়।’

এতে ঘটনাস্থলে একজন এবং নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে নেয়ার পথে দুজনের মৃত্যু হয়। আহত হন মিনারা আকতার, নাসরিন আক্তার, কুলসুমা, অহিদুল ইসলাম ও রওশন আরা।

আহত পাঁচজনের তিনজনকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যালে এবং দুজনকে নীলফামারী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকে মিনারা আকতারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রংপুর মেডিক্যালে নেয়ার সময় তার মৃত্যু হয়।

বর্তমানে রংপুর মেডিক্যালে তিনজন ও নীলফামারী হাসপাতালে একজন চিকিৎসা নিচ্ছেন।

নিউজবাংলাকে নীলফামারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউপ বলেন, ‘অটোরিকশায় ৮ জন যাচ্ছিলেন উত্তরা ইপিজেডে। কুয়াশার কারণে বুঝতে না পারায় লেভেলক্রসিং অতিক্রম করার সময় ট্রেন দুর্ঘটনায় পড়েন তারা।’

দেড় মাস আগেও নীলফামারীতে ট্রেনে কাটা পড়ে ভাই-বোনসহ চারজনের মৃত্যু হয়েছিল। গত ৮ ডিসেম্বর নীলফামারী সদরের বৌবাজার মনসাপাড়ায় ওই দুর্ঘটনা ঘটেছিল।

শেয়ার করুন

ট্রাকচাপায় কলেজশিক্ষক নিহত

ট্রাকচাপায় কলেজশিক্ষক নিহত

ট্রাকচাপায় নিহত হয়েছেন মোটরসাইকেল আরোহী কলেজশিক্ষক। ছবি: নিউজবাংলা

গান্না বাজারের ব্যবসায়ী সোলাইমান হোসেন জানান, মহিদুল দুপুরে মোটরসাইকেলে কলেজ থেকে বাসায় ফিরছিলেন। পথে একটি ট্রাক তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়।

ঝিনাইদহ সদরে কলেজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে ট্রাকচাপায় এক শিক্ষক নিহত হয়েছেন।

গান্না ইউনিয়নের মাধবপুর পশুর হাটের পাশে বুধবার দুপুরে এ ঘটনা ঘটে।

৫০ বছর বয়সী নিহত মহিদুল ইসলামের বাড়ি ঝিনাইদহের কোটচাঁদপুর উপজেলার জালালপুর গ্রামে। তিনি আলহাজ মশিউর রহমান ডিগ্রি কলেজের সমাজকল্যাণ বিভাগের শিক্ষক ছিলেন।

গান্না বাজারের ব্যবসায়ী সোলাইমান হোসেন জানান, মহিদুল দুপুরে মোটরসাইকেলে কলেজ থেকে বাসায় ফিরছিলেন। পথে একটি ট্রাক তাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে মৃত্যু হয়।

বেতাই পুলিশ ক্যাম্পের উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। পুলিশ ট্রাকটি জব্দ করেছে, তবে এর চালক পালিয়েন।

শেয়ার করুন

ধানক্ষেতে নারীর মাথাবিহীন দেহ

ধানক্ষেতে নারীর মাথাবিহীন দেহ

ফাইল ছবি

ফুলতলা থানার ওসি ইলিয়াস তালুকদার জানান, স্থানীয় লোকজন সকালে ধানক্ষেতে মাথাবিহীন বিবস্ত্র দেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। ধারণা করা হচ্ছে, ওই নারীর বয়স ২৫ থেকে ৩০ বছর।

খুলনার ফুলতলায় ধানক্ষেত থেকে নারীর মাথাবিহীন বিবস্ত্র দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

ফুলতলা উপজেলার উত্তরডিহি থেকে বুধবার সকাল ৮টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

ওই নারীর পরিচয় শনাক্ত করতে পারেনি পুলিশ।

ফুলতলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস তালুকদার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, স্থানীয় লোকজন সকালে ধানক্ষেতে এভাবে মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশকে খবর দেয়। মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ওসি বলেন, ‘ধারণা করা হচ্ছে, ওই নারীর বয়স ২৫ থেকে ৩০ বছর। তার বিচ্ছিন্ন মাথা খোঁজা হচ্ছে। পেলে পরিচয় শনাক্ত করা যাবে।’

শেয়ার করুন

‘ওই টেন হুসেল দেয় নাই, হামার কী হইবে’

‘ওই টেন হুসেল দেয় নাই, হামার কী হইবে’

হাসপাতালে গুরুতর আহত অটোচালক অহিদুল। ছবি: নিউজবাংলা

ট্রেন দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত অটোচালক অহিদুল ইসলামের স্ত্রী পারুল বলেন, ‘ওই গেট থাকি এহনা দূরে হামার বাড়ি। খবর শুনি দৌড়ি যায়া দেখি সগাই পড়ি আছে। গেট নাগালে এমন হইল না হয়। এ্যালা হামার কী হইবে, কাই দেখপে।’

‘অটোত করি টেনের (ট্রেন) লাইন পার হবার ধরছিল। টেন হুসেল দেয় নাই, আর শীতোত কিছু দেখা যায় নাই, তখন মারি দিচে। দৌড়ি যায়া দেখি তিন জন পড়ি আছে। ও আল্লাহ এ্যালা হামার কী হইবে...’

নীলফামারীতে বুধবার ট্রেন দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত অটোচালক অহিদুল ইসলাম আপনসহ তিনজনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

সেখানে গুরুতর আহত আপনের স্ত্রী পারুল বিলাপ করতে করতে এসব কথা বলছিলেন।

নিউজবাংলাকে পারুল আরও বলেন, ‘ওই গেট থাকি এহনা দূরে হামার বাড়ি। খবর শুনি দৌড়ি যায়া দেখি সগাই পড়ি আছে। গেট নাগালে এমন হইল না হয়। এ্যালা হামার কী হইবে, কাই দেখপে।’

রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে দেখা গেছে, গুরুতর আহত অটোর যাত্রী নাজনীন আক্তার ও কুলছুমা বেগম ১৮ নম্বর সার্জারি ওয়ার্ডে ভর্তি রয়েছেন। আর অহিদুল ইসলাম ভর্তি ৬ নম্বর ওয়ার্ডে।

এর মধ্যে নাজনীনের অবস্থা গুরুতর। আর অহিদুলের ডান পা প্রায় বিচ্ছিন্ন।

কুলছুমার বাবা সায়েদ আলী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ওমরা অটোত করি দৈনিক নীলফামারীর ইপিজেটোত কাজোত যাইত। আইজো সকালে খায়া দায়া বের হইচে, একনা পড়ে শুনে এই ঘটনা।’

নাজনীনের চাচা দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘ওই গেটোত ঘুণ্টি নাই, ঘরো নাই। শুনচি আগোত আচলো, অন্তপক্ষ ৫০ বচর ধরি দেখি ঘুণ্টি নাই। ঘুণ্টি থাকলে কী এত বড় ঘটনো ঘটে। এইলা দায় কাই নিবে, হামাকে পোহা নাগবে।

‘আর টেন যে আসিল তো হুসেল দিবের নয়, তা তো দেয় নাই, যত শীত থাক, হুসেল কী শীতোত আটকে? হুসেল দিলে সবাই দাঁড়াইলে হয়।’

সৈয়দপুর-চিলাহাটী রেলপথের দারোয়ানিতে বুধবার সকালে ট্রেনের ধাক্কায় অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহত হন। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও এক নারীর মারা যান।

নিউজবাংলাকে রংপুর মেডিক্যালে কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. রেজাউল করিম বলেন, ‘আহতদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এখন পর্যন্ত তারা ভালো আছেন।’

শেয়ার করুন

কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

কারাগারে কয়েদির মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

জেল সুপার মোকাম্মেল হোসেন জানান, চেক জালিয়াতি মামলায় সফিকুলকে দেড় বছরের সাজা দেন বিচারক। গত বছরের ২৩ জুলাই তাকে দিনাজপুর জেলা কারাগারে আনা হয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় টয়লেটে গিয়ে পড়ে যান তিনি। হাসপাতালে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

দিনাজপুর জেলা কারাগারে চেক জালিয়াতি মামলায় দেড় বছর সাজা পাওয়া এক কয়েদির মৃত্যু হয়েছে।

এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে ময়নাতদন্ত শেষে বুধবার দুপুরে তার মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

৫০ বছর বয়সী সফিকুল ইসলাম জেলার বিরামপুর উপজেলার চকপাতলা গ্রামের হাসান আলীর ছেলে।

দিনাজপুর জেল সুপার মোকাম্মেল হোসেন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, সফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে ১৬ লাখ ও ৩ লাখ টাকার দুটি চেক জালিয়াতির মামলা হয়। রায়ে তাকে দেড় বছরের সাজা দেন বিচারক। গত বছরের ২৩ জুলাই তাকে দিনাজপুর জেলা কারাগারে আনা হয়। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় টয়লেটে গিয়ে তিনি আর ফেরত আসেননি। খোঁজ করতে গিয়ে দেখা যায়, তিনি টয়লেটে পড়ে আছেন।

তাকে উদ্ধার করে দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

শেয়ার করুন