শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ৩ বছর ক্লাস নিতে পারবেন না ফারহানা

player
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ৩ বছর ক্লাস নিতে পারবেন না ফারহানা

শিক্ষার্থীদের চুল কাটায় অভিযুক্ত শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, রবীদ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যায়ন বিভাগের ২০১৭-১৮, ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষা কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রভাষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন শিক্ষার্থীদের পাঠদান, পরীক্ষা গ্রহণসহ যাবতীয় অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকবেন।

সিরাজগঞ্জের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেয়ায় শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে স্বপদে বহাল রাখলেও তিন বছর শিক্ষা কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যাকাডেমিক ভবনের নোটিশ বোর্ডে রোববার সন্ধ্যায় এ বিষয়ে অফিস আদেশ দেখা যায়। রেজিস্ট্রার মো. সোহরাব আলীর সই করা অফিস আদেশ সূত্রে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে।

অফিস আদেশে বলা হয়, রবীদ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যায়ন বিভাগের ২০১৭-১৮, ২০১৮-১৯ ও ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষা কার্যক্রম শেষ না হওয়া পর্যন্ত প্রভাষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন শিক্ষার্থীদের পাঠদান, পরীক্ষা গ্রহণসহ যাবতীয় অ্যাকাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম থেকে বিরত থাকবেন।

অফিস আদেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার সই করেছেন ২১ নভেম্বর।

২৬ সেপ্টেম্বর দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যায়ন বিভাগের প্রথম বর্ষের ফাইনাল পরীক্ষার হলে প্রবেশের সময় কাচি দিয়ে ১৪ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেয়ার ঘটনা ঘটে।

এ বিষয়ে অভিযোগ উঠলে ওই বিভাগের চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে বরখাস্তের দাবিতে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।

পরীক্ষা বর্জন করে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে প্রায় এক মাস অচল থেকে বিশ্ববিদ্যালয়।

বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের ১৬তম বিশেষ সভায় শিক্ষক ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হলেও উত্তেজনা কমেনি। বিশ্ববিদ্যালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটির প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানায় প্রশাসন।

ইয়াসমিন বাতেন মোবাইল ফোন রিসিভ না করায় এ বিষয়ে তার বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

১৪ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেয়ার ঘটনা গণমাধ্যমে প্রকাশ হলে জড়িতদের বিরুদ্ধে কেন ব্যবস্থা নেয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট।

সেই সঙ্গে ১৪ শিক্ষার্থীকে ২০ লাখ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবে না তাও জানতে চায় আদালত।

এ সংক্রান্ত এক আবেদনের ওপর শুনানি শেষে বিচারপতি মো. মুজিবর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লার হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

একই সঙ্গে সারা দেশে এ ধরনের ঘটনা প্রতিরোধে একটি গাইড লাইন তৈরিতে কেন নির্দেশ দেয়া হবেনা তাও জানতে চায় হাইকোর্ট। অভিযুক্ত শিক্ষকদের বিরুদ্ধে কী পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে তা ৩০ দিনের মধ্যে জানাতে বলা হয়।

এছাড়াও মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নাছিমা বেগমের সই করা এক আদেশে ২৯ নভেম্বরের মধ্যে ইউজিসিকে ঘটনা তদন্ত করে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তদন্তের পর অভিযুক্ত শিক্ষকের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থার অফিস আদেশ জারি করেছে।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরাও শাস্তির বিষয়ে কথা বলতে রাজি হননি।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে কয়েকজন শিক্ষক নিউজবাংলাকে বলেন, ‘পরিস্থিতি পর্যালোচনায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন এ ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটি সম্মানজনক সমাধান বলে ধরা যায়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছিল, তা আশা করা যায় নিরসন সম্ভব হবে।’

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

মন্তব্য

শাবি ভিসির ‘আপত্তিকর মন্তব্য’: জাবি শিক্ষকদের প্রতিবাদ

শাবি ভিসির ‘আপত্তিকর মন্তব্য’: জাবি শিক্ষকদের প্রতিবাদ

শাবিতে শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে আন্দোলন করেছে জাবি শিক্ষার্থীরাও।

শিক্ষক সমিতির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, তা অত্যন্ত  অবমাননাকর ও অসম্মানজনক।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ছাত্রীদের নিয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির ‘আপত্তিকর মন্তব্যের’ প্রতিবাদ জানিয়েছে জাবি শিক্ষক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ। একই সঙ্গে ক্ষোভও জানিয়েছেন শিক্ষকরা।

সংগঠন দুটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বৃহস্পতিবার এই প্রতিবাদ ও ক্ষোভ জানানো হয়।

শিক্ষক সমিতির বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রীদের নিয়ে যে মন্তব্য করেছেন, তা অত্যন্ত অবমাননাকর ও অসম্মানজনক।

‘শাবি উপাচার্য আপত্তিকর মন্তব্যের বিরুদ্ধে আমরা তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং ক্ষোভ প্রকাশ করছি। আমরা আশা করি, তিনি প্রকাশ্যে তার ভুল স্বীকার করে অশোভন মন্তব্য প্রত্যাহার করবেন।’

বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সম্প্রতি শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদউদ্দিন আহমদ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের তার সন্তানতুল্য শিক্ষার্থীদের সম্পর্কে অবমাননাকর ও কুরুচিপূর্ণ বক্তব্য দেন। বঙ্গবন্ধু শিক্ষক পরিষদ তার বক্তব্যের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে।

‘ওই মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যম বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যপক আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে, যা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করছে।’

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবি) উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমদের পদত্যাগের দাবিতে চলা আন্দোলনের মধ্যে একটি অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। এতে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রীদের নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করতে শোনা যায় এক ব্যক্তিকে।

যারা এই অডিওটি ফাঁস করেছেন তাদের দাবি, এটি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের। ছাত্রীদের রাতে বাইরে থাকা নিয়ে কটাক্ষ করছেন উপাচার্য।

বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্রীর সঙ্গে কথা হয় নিউজবাংলার। তারা জানিয়েছেন, অডিওটি উপাচার্য ফরিদ উদ্দিনের, তবে এটি ২০১৯ সালের।

অডিওতে শোনা যায়, ‘যারা এই ধরনের দাবি তুলেছে, যে বিশ্ববিদ্যালয় সারারাত খোলা রাখতে হবে, এইটা একটা জঘন্য রকম দাবি। আমরা মুখ দেখাইতে পারতাম না। এখানে আমাদের ছাত্রনেতা বলছে যে, জাহাঙ্গীরনগরের মেয়েদের সহজে কেউ বউ হিসেবে চায় না। কারণ সারারাত এরা ঘোরাফেরা করে। বাট আমি চাই না যে আমাদের যারা এত ভালো ভালো স্টুডেন্ট, যারা এত সুন্দর, এত সুন্দর ডিপার্টমেন্টগুলো, বিখ্যাত সব শিক্ষক... তারা যাদের গ্র্যাজুয়েট করবে, এরকম একটা কালিমা লেপুক তাদের মধ্যে।

‘ওই জায়গাটা কেউ চায় না, কোনো গার্ডিয়ানও চান না কিন্তু। এখন আমরা যদি কোনো মেয়েকে বলি তোমার বাবা-মা কাউকে ফোন করব... তখন তোমরাই তো এতে বাধা দিবা... না না না এইটা হবে না, দেখ হয়রানি করতেছে। কিন্তু এইটা তো প্রত্যেকের নৈতিক দায়িত্ব। তোমাদেরও নৈতিক দায়িত্ব যে, এই মেয়ে কেন রাতের বেলা সোয়া দশটা পর্যন্ত স্যাররে সময় দিসে?’

ওই ক্লিপে আরও শোনা যায়, ‘আমি মাঝে মাঝে ঢাকা থেকে যখন আসি, রাতে ১২টা-১টা বেজে যায়। আমি দেখি যে আমাদের ওয়ান কিলোমিটার রাস্তা দিয়া ছেলে-মেয়ে হাত ধরাধরি করে কনসালটিং করতাছে। একটা অঘটন ঘটে গেলে দায়দায়িত্ব ভাইস চ্যান্সেলরকে নিতে হবে। যত দোষ, নন্দ ঘোষ। ভাইস চ্যান্সেলর দায়ী সে জন্য।’

এই ক্লিপের বিষয়ে উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদের বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। আন্দোলনকারীরা তাকে বাসভবনে অবরুদ্ধ করে রেখেছেন। ফোনে যোগাযোগের একাধিক চেষ্টা করা হলেও রিসিভ করেননি তিনি।

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

বাবার গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার, ছেলে আটক

বাবার গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার, ছেলে আটক

বাবাকে হত্যার অভিযোগে ছেলেকে আটক করেছে পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা

দামকুড়া থানার ওসি মাহবুব আলম বলেন, ‘এ হত্যার পেছনে আর কোনো ঘটনা আছে কি না তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পরে আরও বিস্তারিত জানা যাবে।’

রাজশাহী নগরীর একটি বাড়ির সেফটিক ট্যাংক থেকে এক ব্যক্তির গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নগরীর দামকুড়া এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার সকালে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে নিহতের ছেলে ৩২ বছরের স্বপনকে আটক করা হয়েছে।

নিহতের নাম সাজ্জাদ হোসেন। তার বয়স ৬৫ বছর।

নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন দামকুড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব আলম।

তিনি জানান, গত মঙ্গলবার রাত থেকে সাজ্জাদ হোসেন নিখোঁজ ছিলেন। এ ঘটনায় বুধবার তার ছেলে আব্দুল হাদী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। জিডির সূত্র ধরে পুলিশ তার অন্য ছেলে স্বপনকে জিজ্ঞাসাবাদ করে।

স্বপনের আচরণ সন্দেহজনক ছিল। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি একপর্যায়ে বাবাকে প্রথমে শ্বাসরোধ ও পরে গলা কেটে হত্যা করার কথা স্বীকার করেন। হত্যার পর মরদেহ বাড়ির সেফটিক ট্যাংকে ভরে রাখেন।

পুলিশ কর্মকর্তা আরও জানান, স্বপন পুলিশকে জানিয়েছেন, এক বছর আগে তার মা মারা যান। এরপর তার বাবা দ্বিতীয় বিয়ে করার কথা বলেন। কিন্তু দ্বিতীয় বিয়ে করলে সম্পত্তি ভাগ হয়ে যাবে- এমন চিন্তা থেকেই স্বপন তার বাবাকে হত্যা করেন।

ওসি মাহবুব বলেন, ‘এ হত্যার পেছনে আর কোনো ঘটনা আছে কি না তা তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। পরে আরও বিস্তারিত জানা যাবে।’

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

শ্রীপুরে ট্রেন লাইনচ্যুত

শ্রীপুরে ট্রেন লাইনচ্যুত

গাজীপুরে ময়মনসিংহগামী মহুয়া এক্সপ্রেস ট্রেন লাইনচ্যুত হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা

ঢাকা রেলওয়ে কন্ট্রোল রুমের কর্মকর্তা মো. মোখলেস জানান, রাজধানীর কমলাপুর থেকে মোহনগঞ্জের উদ্দেশে যাচ্ছিল মহুয়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি। কাওরাইদ স্টেশনে পৌঁছানোর পর দুই নম্বর লাইনে ইঞ্জিনসহ পেছনের বগি লাইনচ্যুত হয়।

গাজীপুরে ময়মনসিংহগামী মহুয়া এক্সপ্রেস ট্রেন লাইনচ্যুত হয়েছে।

শ্রীপুরের কাওরাইদ রেলস্টেশনে বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

আতঙ্কিত হয়ে ট্রেন থেকে তাড়াহুড়ো করে নামতে গিয়ে বেশ কয়েকজন যাত্রী আহত হয়েছেন।

ঢাকা রেলওয়ে কন্ট্রোল রুমের কর্মকর্তা মো. মোখলেস নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, ঢাকার কমলাপুর থেকে মোহনগঞ্জের উদ্দেশে যাচ্ছিল মহুয়া এক্সপ্রেস ট্রেনটি। কাওরাইদ স্টেশনে পৌঁছানোর পর দুই নম্বর লাইনে ইঞ্জিনসহ পেছনের বগি লাইনচ্যুত হয়।

মো. মোখলেস জানান, এ ঘটনার পর ট্রেন যোগাযোগ বন্ধ হয়নি। বিকল্প লাইনে ট্রেন গন্তব্যস্থলে যাচ্ছে।

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

ছুরিকাঘাতে রোহিঙ্গা যুবক খুন, গ্রেপ্তার ২

ছুরিকাঘাতে রোহিঙ্গা যুবক খুন, গ্রেপ্তার ২

রোহিঙ্গা যুবককে খুনের ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। ছবি: নিউজবাংলা

৮ এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরান হোসেন বলেন, রোহিঙ্গা যুবক খুনের ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হত্যা মামলার পর তাদের উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।’

কক্সবাজারের উখিয়া রোহিঙ্গা শিবিরে ছুরিকাঘাতে এক যুবকের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছেন আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের (এপিবিএন) সদস্যরা।

জামতলী ক্যাম্প-১৫-এর এইচ ব্লকে বুধবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। বৃহস্পতিবার ভোরে ওই দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়।

নিহত যুবকের নাম মৌলভী মনির হোসেন। তার বয়স ৩৫ বছর।

গ্রেপ্তার দুজন হলেন ৩৫ বছরের মোহাম্মদ ইউনুস ও ৪৪ বছরের মোহাম্মদ ইয়াসিন।

নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন ৮ এপিবিএনের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কামরান হোসেন। তিনি জানান, প্রতিবেশী কেফায়েত উল্লাহর সঙ্গে মনিরের দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। গত বুধবার ঝাড়ু দেয়াকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে আবারও কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে কেফায়েত এবং তার সহকারী ইউনুস ও ইয়াসিন মনিরকে ধরে পেটে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যান।

পরে রক্তাক্ত অবস্থায় মনিরকে উদ্ধার করে ক্যাম্পের এমএসএফ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ‘এ ঘটনায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। হত্যা মামলার পর তাদের উখিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

পেলোডার উল্টে চালক নিহত

পেলোডার উল্টে চালক নিহত

দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদীর ১ নম্বর বালুমহাল। ছবি: নিউজবাংলা

দুর্গাপুর থানার ওসি মাহবুব জানান, নিহতের স্বজনরা মরদেহ নিয়ে যাবার আবেদন করেছেন। তাই ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহ হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

নেত্রকোণায় দুর্গাপুরে পেলোডার উল্টে চালক নিহত হয়েছেন।

দুর্গাপুর সদর ইউনিয়নের ত্রিনালী এলাকায় বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

দুর্গাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) মীর মাহবুব নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিহতের নাম খোকন মিয়া। ৩৫ বছর বয়সী খোকন একই ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুর গ্রামের বাসিন্দা। খোকন দুর্গাপুরে সোমেশ্বরী নদীর ১ নম্বর বালুমহালে পেলোডার দিয়ে কাজ করতেন।

স্থানীয়দের বরাতে ওসি জানান, বালু লোডের কাজের সময় একটি চাকা হঠাৎ বালির গর্তে পড়ে পেলোডারটি উল্টে যায়। তখন চালক খোকন মিয়া পেলোডারের নিচে চাপা পড়েন।

পরে বালুমহালের অন্য শ্রমিকরা তাকে উদ্ধার করে দুর্গাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি মীর মাহবুব জানান, নিহতের স্বজনরা মরদেহ নিয়ে যাবার আবেদন করেছেন। তাই ময়নাতদন্ত ছাড়াই মরদেহ হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

মেরিন ড্রাইভে মাইক্রোবাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২

মেরিন ড্রাইভে মাইক্রোবাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ২

মেরিন ড্রাইভ সড়কে মাইক্রোবাস ও অটোরিকশার সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

টেকনাফ মডেল থানার ওসি হাফিজুর রহমান বলেন, ‘পুলিশ ঘটনাস্থল গিয়ে দুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে। আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।’

কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কে মাইক্রোবাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে দুজন নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও তিনজন।

টেকনাফের লম্বরি মেরিন ড্রাইভ অংশে বৃহস্পতিবার সকালে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত দুজন অটোরিকশার যাত্রী।

তাৎক্ষণিকভাবে তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন টেকনাফ মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) হাফিজুর রহমান।

তিনি বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুজনের মরদেহ উদ্ধার করেছে। আহতদের উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তাদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। দুর্ঘটনাকবলিত গাড়ি দুটি জব্দ করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন

শীতে জবুথবু, তবু অনশনে শাবির শিক্ষার্থীরা

শীতে জবুথবু, তবু অনশনে শাবির শিক্ষার্থীরা

তীব্র শীতেও অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪ শিক্ষার্থী। ছবি: নিউজবাংলা

অনশনকারী শিক্ষার্থী জাহিদুল হাসান অপূর্ব বলেন, ‘দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা অনশন চালিয়ে যাব। কোনো প্রতিবন্ধকতাই আমাদের টলাতে পারবে না। শুধু ওয়াশরুমের প্রয়োজন ছাড়া আমরা এই জায়গা থেকে উঠব না। কোনো ধরনের খাবারও গ্রহণ করব না।’

কয়েক দিন ধরেই শীত পড়েছে খুব। সিলেটে শহরের বাইরে টিলাঘেরা শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সেটা আরও বেশি অনুভূত হয়। শরীরে কাঁপুনি ধরিয়ে দেয়া শীতের সঙ্গে বৃষ্টির ফোঁটার মতো পড়ছে কুয়াশা। সকাল ১০টায়ও দেখা নেই সূর্যের।

এমন বৈরী পরিস্থিতিতেও অনশন চালিয়ে যাচ্ছেন শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪ শিক্ষার্থী। গত বুধবার বেলা ৩টা থেকে উপাচার্যের বাসভবনের সামনে উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে অনশন শুরু করেন তারা, যা এখনও অব্যাহত রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় উপাচার্যের বাসভবনের সামনে গিয়ে দেখা যায়, শীত থেকে বাঁচতে সড়কের মধ্যেই লেপ মুড়ি দিয়ে শুয়ে আছেন অনশনকারীরা।

কুয়াশার হাত থেকে রক্ষা পেতে মাথার ওপরে টানিয়েছেন সামিয়ানা। তবু শীতে কাঁপছেন তারা। এর মধ্যেই শুয়ে শুয়ে বই পড়ছেন কেউ কেউ।

এ সময় অনশনকারী জাহিদুল হাসান অপূর্ব বলেন, ‘দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা অনশন চালিয়ে যাব। কোনো প্রতিবন্ধকতাই আমাদের টলাতে পারবে না। শুধু ওয়াশরুমের প্রয়োজন ছাড়া আমরা এই জায়গা থেকে উঠব না। কোনো ধরনের খাবারও গ্রহণ করব না।’

তবে অনশনকারীরা নিজ অবস্থানে থাকলেও আন্দোলনকারী অন্য শিক্ষার্থীদের সকালে উপাচার্য ভবনের সামনে দেখা যায়নি।

অনশনকারীরা জানিয়েছেন, অন্য শিক্ষার্থীরা রাতভর বিক্ষোভ করেছেন। ভোরের দিকে হলে গেছেন। কিছুক্ষণ পর আবার এখানে এসে বিক্ষোভ শুরু করবেন।

এর আগে বুধবার রাতে আন্দোলন চলাকালে অসুস্থ হয়ে পড়েন দুই শিক্ষার্থী। তাদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরপরই শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙাতে ও আলোচনার প্রস্তাব নিয়ে এসেছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শতাধিক শিক্ষক।

কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক আনোয়ারুল ইসলামের নেতৃত্বে শিক্ষকরা উপাচার্য ভবনের সামনে এসে শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলতে চান। তবে শিক্ষার্থীরা তাদের দাবির সঙ্গে সংহতি প্রকাশ না করলে শিক্ষকদের সঙ্গে কোনো কথা বলবেন না বলে সাফ জানিয়ে দেন। প্রায় দুই ঘণ্টা সেখানে অবস্থান করে ব্যর্থ হয়ে ফিরে যান শিক্ষকরা।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের বেগম সিরাজুন্নেসা হলের প্রাধ্যক্ষ জাফরিন লিজার বিরুদ্ধে খাবারের খারাপ মান, অব্যবস্থাপনা ও দুর্ব্যবহারের অভিযোগ আনেন আবাসিক শিক্ষার্থীরা। তারা প্রাধ্যক্ষের পদত্যাগসহ তিন দফা দাবিতে গত ১৩ জানুয়ারি রাত থেকে বিক্ষোভ শুরু করেন।

পরের দিন সন্ধ্যায় ২৪ ঘণ্টার আলটিমেটাম দিয়ে সরে যান। দাবি পূরণ না হওয়ায় ১৫ জানুয়ারি সন্ধ্যায় ফের বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের সড়ক আটকে শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ শুরু করেন।

এরপর মধ্যরাতে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ঘোষণা দিয়ে সরে গেলেও ১৬ জানুয়ারি সকাল থেকে ফের শুরু হয় তাদের বিক্ষোভ।

বিকেলে তারা উপাচার্য ফরিদ উদ্দিন আহমেদকে অবরুদ্ধ করলে পুলিশ তাদের লাঠিপেটা করে। শিক্ষার্থীরাও ইট-পাটকেল ছুড়তে থাকে। এরপর শুরু হয় ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া।

শিক্ষার্থীদের লক্ষ্য করে কয়েকটি রাবার বুলেট ছোড়া হয়। এ ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ উপদেষ্টা অধ্যাপক জহির উদ্দিন আহমেদ গুলিবিদ্ধ হন। এরপর পুলিশ উপাচার্যকে বের করে তার বাসভবনে নিয়ে যায়।

পুলিশ-শিক্ষার্থী সংঘর্ষের পর অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শিক্ষার্থীদের পরদিন ১৭ জানুয়ারি সোমবার দুপুর ১২টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দেয় কর্তৃপক্ষ।

এদিকে জরুরি সিন্ডিকেট সভা শেষে উপাচার্য ফরিদ প্রাধ্যক্ষ জাফরিনের পদত্যাগের বিষয়টি জানান। এরপর থেকেই শিক্ষার্থীরা উপাচার্যের পদত্যাগের দাবিতে নামেন।

এর মাঝে পুলিশের ওপর হামলার অভিযোগ এনে বিশ্ববিদ্যালয়ের অজ্ঞাতপরিচয় ২০০ থেকে ৩০০ শিক্ষার্থীকে আসামি করে ১৭ জানুযারি রাতে সিলেটের জালালাবাদ থানায় মামলা করে পুলিশ।

পরদিন বিকেলে এই মামলা প্রত্যাহারের জন্য পুলিশকে সময় বেঁধে দেন শিক্ষার্থীরা। রাত সাড়ে ১০টার দিকে সংবাদ সম্মেলন করে উপাচার্যের পদত্যাগের সময় বেঁধে দেন শিক্ষার্থীরা। এর জেরেই ১৯ জানুয়ারি বুধবার থেকে আমরণ অনশনে যান শিক্ষার্থীরা।

এদিকে শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ের এ আন্দোলন অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়েও ছড়িয়ে পড়েছে। শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার প্রতিবাদে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা তাদের ক্যাম্পাসে প্রতিবাদ মিছিল করেন।

আরও পড়ুন:
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বিরুদ্ধে প্রমাণ মিলেছে
চুল কর্তন: মহাসড়ক অবরোধ করে আন্দোলনের চেষ্টা
চুল কর্তন: দ্বিতীয় দিনের মতো অনশনে শিক্ষার্থীরা
চুল কর্তন: ফারহানার শাস্তি চেয়ে ফের আন্দোলনে শিক্ষার্থীরা
শিক্ষার্থীদের চুল কর্তন: ফারহানার বক্তব্য ছাড়াই তদন্ত প্রতিবেদন

শেয়ার করুন