জাবির বি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাসের হার ২৬ শতাংশ

জাবির বি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাসের হার ২৬ শতাংশ

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার। ছবি: সংগৃহীত

এ বছর বি ইউনিটের পরীক্ষায় ৩২৬টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেন ২৩ হাজার ৭৯১ শিক্ষার্থী। প্রতি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ১০৫ জন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষায় সমাজবিজ্ঞান অনুষদভুক্ত বি ইউনিটের ফলাফল প্রকাশ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ জানায়, জাবির ওয়েবসাইটে সোমবার দুপুরে ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ফলাফল দেখা যাবে https://juniv.edu/ ওয়েবসাইটে।

এ বছর বি ইউনিটের পরীক্ষায় ৩২৬টি আসনের বিপরীতে আবেদন করেন ২৩ হাজার ৭৯১ শিক্ষার্থী। প্রতি আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন ১০৫ জন।

পরীক্ষায় পাস করেছেন ৬ হাজার ২২৬ জন। পাসের হার ২৬ শতাংশ। মোট আসনের ১০ গুণ শিক্ষার্থীর ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক রাশেদা আখতার নিউজবাংলাকে জানান, বি ইউনিটে ছেলেদের মধ্যে ৭৭ দশমিক ৩৬ নম্বর পেয়ে এবং মেয়েদের মধ্যে ৭৫ দশমিক ০২ নম্বর পেয়ে দুইজন প্রথম হয়েছেন।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

মন্তব্য

এইচএসসির দ্বিতীয় দিনে অনুপস্থিত ৮ হাজার

এইচএসসির দ্বিতীয় দিনে অনুপস্থিত ৮ হাজার

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে জানানো হয়, সকালের পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৩ হাজার ১১৯ জন। বিকেলের পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৫ হাজার ৫৮ জন। দুই শিফটে মোট অনুপস্থিত ছিল ৮ হাজার ১৭৭ জন শিক্ষার্থী।

এইচএসসি পরীক্ষার দ্বিতীয় দিনে দেশের নয়টি শিক্ষা বোর্ডে আট হাজারের বেশি পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিল। নকল করার অভিযোগে সকালের শিফটের পরীক্ষায় বরিশাল বোর্ডের দুই শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রোববার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে এসব তথ্য জানানো হয়।

এদিন সকালের পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৩ হাজার ১১৯ জন। বিকেলের পরীক্ষায় অনুপস্থিত ছিল ৫ হাজার ৫৮ জন। দুই শিফটে মোট অনুপস্থিত ছিল ৮ হাজার ১৭৭ জন শিক্ষার্থী।

রোববার সকালে অনুষ্ঠিত হয় যুক্তিবিদ্যা প্রথম পত্র পরীক্ষা। এতে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডে অনুপস্থিত থাকে ৫৪৩ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৪৯২ জন, রাজশাহী বোর্ডে ৩৫৬ জন, বরিশাল বোর্ডে ১৭৫ জন।

এ ছাড়া সিলেট বোর্ডে অনুপস্থিত ৩২৭ জন, দিনাজপুর বোর্ডে ৪৩৮ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ৩২৭ জন, ময়মনসিংহ বোর্ডে ১৪৫ জন, যশোর বোর্ডে ৩১৬ জন।

বিকেলে অনুষ্ঠিত হয় হিসাববিজ্ঞান প্রথম পত্র পরীক্ষা। এতে ঢাকা বোর্ডে অনুপস্থিত ছিল ১ হাজার ৫৪৮ জন, চট্টগ্রাম বোর্ডে ৫৯৪ জন, রাজশাহী বোর্ডে ৫১৪ জন, বরিশাল বোর্ডের ৩৬০ জন, সিলেট বোর্ডের ২০০ জন, দিনাজপুর বোর্ডের ৪৫০ জন, কুমিল্লা বোর্ডে ৯৪৪ জন, ময়মনসিংহ বোর্ডের ৭১ জন, যশোর বোর্ডে ৩৮৪ জন।

সাধারণত প্রতি বছর এপ্রিল মাসে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হলেও এ বছর করোনা মহামারির কারণে এই পাবলিক পরীক্ষা ডিসেম্বরের প্রথম সপ্তাহে নেয়ার ঘোষণা দেয় সরকার।

এবারের এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় অংশ নিতে নিবন্ধন করেছে ১৩ লাখ ৯৯ হাজার ৬৯০ শিক্ষার্থী। এদের মধ্যে ছাত্র ৭ লাখ ২৯ হাজার ৭৩৮ জন এবং ছাত্রী ৬ লাখ ৬৯ হাজার ৯৫২ জন।

সাধারণ নয়টি শিক্ষা বোর্ডের অধীনে এইচএসসি পরীক্ষার জন্য নিবন্ধন করেছে ১১ লাখ ৩৮ হাজার ১৭ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ৫ লাখ ৬৩ হাজার ১১৩ জন এবং ছাত্রী ৫ লাখ ৭৪ হাজার ৯০৪ জন।

মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে আলিমের জন্য নিবন্ধন করেছে ১ লাখ ১৩ হাজার ১৪৪ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ৬১ হাজার ৭৩৮ জন এবং ছাত্রী ৫১ হাজার ৪০৬ জন।

এইচএসসি (বিএম/ভোকেশনাল) পরীক্ষার জন্য নিবন্ধন করেছে ১ লাখ ৪৮ হাজার ৫২৯ জন। এদের মধ্যে ছাত্র ১ লাখ ৪ হাজার ৮২৭ জন এবং ছাত্রী ৪৩ হাজার ৬৪২ জন।

দেশে ৯ হাজার ১৮৩টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের ২ হাজার ৬২১টি কেন্দ্রে এই পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়। দেড় বছর পর ১২ সেপ্টেম্বর খুলে দেয়া হয় প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

খুলল চট্টগ্রাম মেডিক্যাল ছাত্রাবাস, নতুন করে সিট বরাদ্দ

খুলল চট্টগ্রাম মেডিক্যাল ছাত্রাবাস, নতুন করে সিট বরাদ্দ

চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের প্রধান ছাত্রাবাস খুলে দেয়া হয়েছে। ছবি: নিউজবাংলা

হোস্টেল কমিটির তত্ত্বাবধায়ক জানান, প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের নাছিরাবাদ হোস্টেলে সিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। রোববার সকালে দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার শেষে প্রধান ছাত্রাবাসে বরাদ্দ দেয়া হয়। আগামী তিন দিনে তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার নিয়ে যাচাই-বাছাই করে সিট দেয়া হবে।

ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষে বন্ধ হওয়ার ৩৫ দিন পর চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের প্রধান ছাত্রাবাস খুলে দেয়া হয়েছে। সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের নতুন করে সিট বরাদ্দ দিচ্ছে কর্তৃপক্ষ।

রোববার সকালে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে হোস্টেলে ওঠার অনুমতি পান দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীরা।

হোস্টেল কমিটির তত্ত্বাবধায়ক সহকারী অধ্যাপক ডা. রিজওয়ান রেহান বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, ৩০ অক্টোবর চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজের সঙ্গে হোস্টেলও অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হয়। ২৩ নভেম্বর অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সভায় হোস্টেলের সব সিট বরাদ্দ বাতিল করে শিক্ষার্থীদের নতুন করে আবেদনের জন্য বলা হয়।

শিক্ষার্থীদের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ২৭ অক্টোবর অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সভায় সাক্ষাৎকার গ্রহণের সময় নির্ধারণ হয়। শনিবার থেকে সাক্ষাৎকারের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের হল বরাদ্দ শুরু হয়।

তিনি বলেন, ‘প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থীদের নাছিরাবাদ হোস্টেলে সিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। রোববার সকালে দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার শেষে প্রধান ছাত্রাবাসে বরাদ্দ দেয়া হয়। আগামী তিন দিনে তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম বর্ষের শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার নিয়ে যাচাই-বাছাই করে সিট দেয়া হবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘নতুন করে সিট বরাদ্দ দেয়ার ক্ষেত্রে প্রতিটি ব্যাচের শিক্ষার্থীদের সিট একসঙ্গে রাখা হয়েছে। সংঘর্ষের ঘটনায় করা মামলার আসামি এবং চট্টগ্রাম মহানগরীর বাসিন্দাদের সিটের আবেদন গ্রহণ করা হয়নি।’

নূরশাদ জামান লিখন নামের দ্বিতীয় বর্ষের এক শিক্ষার্থী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘কলেজ খোলার পর ঢাকা থেকে এসে হোস্টেল বন্ধ থাকায় মসজিদে ছিলাম। আমার সঙ্গে আরও কয়েকজন ছিল। এর মধ্যে মসজিদেও তালা দেয়া হয়েছে। এই কদিন অনেক কষ্টে ক্লাস করেছি। অবশেষে হোস্টেল খোলায় বাঁচলাম।’

এর আগে ২৯ অক্টোবর রাত ও ৩০ অক্টোবর সকালে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপে দুই দফায় সংঘর্ষ হয়। ওই সংঘর্ষের জেরে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ করা হয়। ৩০ অক্টোবর বিকেল ৫টার মধ্যে শিক্ষার্থীদের হল ত্যাগের নির্দেশ দেয়া হয়েছিল।

এদিন বিকেলে অ্যাকাডেমিক কাউন্সিলের সভায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়।

এই ঘটনায় পাঁচলাইশ থানায় একটি ও চকবাজার থানায় দুটি মামলা করা হয়েছে। পাঁচলাইশ থানার মামলায় দুজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পরে দুই দফায় সময় বাড়ানোর পর ২২ নভেম্বর প্রতিবেদন জমা দেয় তদন্ত কমিটি। পরদিন অ্যাকাডেমিক কাউন্সিল ঘটনায় জড়িত ৩১ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে বহিষ্কার এবং ২৭ নভেম্বর কলেজ খোলার সিদ্ধান্ত নেয়।

শিক্ষার্থীরা জানান, ২৭ নভেম্বর কলেজ খোলা হলেও হোস্টেল বন্ধ থাকায় দুর্ভোগে পড়েন চট্টগ্রামের বাইরের শিক্ষার্থীরা।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

করোনায় ঢাবি অধ্যাপক মাহমুদ হাসানের মৃত্যু

করোনায় ঢাবি অধ্যাপক মাহমুদ হাসানের মৃত্যু

অধ্যাপক মাহমুদ হাসান। ছবি: সংগৃহীত

মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘স্যারের করোনা পজিটিভ ছিল। প্রায় সাত দিন ধরে উনি হাসাপাতালে ভর্তি ছিলেন। শেষের দিকে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। আজ সাড়ে ১২টায় তিনি মারা যান।’

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক মাহমুদ হাসান।

রাজধানীর একটি হাসপাতালে রোববার দুপুর সাড়ে ১২টায় তার মৃত্যু হয় বলে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন মৎস্যবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো মনিরুল ইসলাম।

তিনি বলেন, ‘স্যারের করোনা পজিটিভ ছিল। প্রায় সাত দিন ধরে উনি হাসাপাতালে ভর্তি ছিলেন। শেষের দিকে তিনি কথা বলতে পারছিলেন না। আজ সাড়ে ১২টায় তিনি মারা যান।’

আসরের নামাজের পর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদ প্রাঙ্গণে মাহমুদ হাসানের নামাজে জানাজা হওয়ার কথা রয়েছে। জানাজা শেষে তার মরদেহ গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীতে নিয়ে যাওয়া হবে।

অবিবাহিত ছিলেন মাহমুদ হাসান। বিশ্ববিদ্যালয়ের ফুলার রোডের মনিরুজ্জামান ভবনের একটি বাসায় থাকতেন তিনি।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজের যাত্রা শুরু

সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজের যাত্রা শুরু

শিক্ষা সভ্যতার অগ্রযাত্রার মূল উপাদান বলে উল্লেখ করেন ক্যাম্পাস নিউজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নাহিদ হাসান। তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পাস নিউজ রাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ কর্ণধার শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র হিসেবে আপসহীনভাবে কাজ করে যাবে।’

ক্যাম্পাস আর ক্যারিয়ারবিষয়ক সকল সংবাদে পাঠকের চাহিদা পূরণের অঙ্গীকার নিয়ে যাত্রা শুরু করল সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজ।

রাজধানীর পান্থপথে প্রতিষ্ঠানটির কার্যালয়ে সীমিত পরিসরে সাপ্তাহিক ক্যাম্পাস নিউজের শুভ সূচনা করেন জনপ্রিয় সাহিত্যিক ও জাতীয় দৈনিক প্রথম আলোর সহযোগী সম্পাদক আনিসুল হক এবং সোনারগাঁও ইউনিভার্সিটির প্রতিষ্ঠাতা ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল আজিজ।

ক্যাম্পাস নিউজ শিক্ষাঙ্গন ও শিক্ষার্থীদের কল্যাণে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন আনিসুল হক। শিক্ষা নিয়ে এমন উদ্যোগের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘আমি আশা করি ক্যাম্পাস নিউজ শিক্ষা ক্ষেত্রের সংগতি ও অসংগতি তুলে ধরবে।’

ক্যাম্পাস নিউজ দেশ ও দেশের মানুষের জন্য সৎভাবে কাজ করবে বলে জানান আব্দুল আজিজ। ক্যাম্পাস নিউজকে সত্য প্রকাশে আপসহীন থাকার নির্দেশনা দেন তিনি।

শিক্ষা সভ্যতার অগ্রযাত্রার মূল উপাদান বলে উল্লেখ করেন ক্যাম্পাস নিউজের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক নাহিদ হাসান। তিনি বলেন, ‘ক্যাম্পাস নিউজ রাষ্ট্রের ভবিষ্যৎ কর্ণধার শিক্ষার্থীদের মুখপাত্র হিসেবে আপসহীনভাবে কাজ করে যাবে।’

ক্যাম্পাস নিউজের নির্বাহী সম্পাদক মাহমুদ কবীর উপস্থিত সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে সবার সহযোগিতা কামনা করেন।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন জবির ৪০০ শিক্ষার্থী

টিকার দ্বিতীয় ডোজ নিলেন জবির ৪০০ শিক্ষার্থী

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আধুনিক মেডিক্যাল সেন্টারে করোনার টিকা নিচ্ছেন এক শিক্ষার্থী। ছবি: নিউজবাংলা

মেডিক্যাল সেন্টার সূত্রে জানা যায়, সোমবার ৬০০ শিক্ষার্থীকে টিকা দেয়ার পর মঙ্গলবার শেষদিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছাড়াও শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া হবে। যারা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন শুধুমাত্র তারা দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আধুনিক মেডিক্যাল সেন্টারে রোববার দ্বিতীয় ডোজ টিকা নিয়েছেন ৪০০ শিক্ষার্থী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অস্থায়ী টিকাদান কেন্দ্রে শিক্ষার্থী, শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া চলবে মঙ্গলবার পর্যন্ত।

মেডিক্যাল সেন্টার সূত্রে জানা যায়, টিকাদানের দ্বিতীয় পর্বের প্রথম দিনে রোববার সকাল ৯ টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত টিকা নেন ৪০০ শিক্ষার্থী। এরমধ্যে ২৪৯ জন ছাত্র ও ১৫১ জন ছাত্রী। তাদের সিনোফার্মের টিকা দেয়া হয়েছে।

সোমবার ৬০০ শিক্ষার্থীকে টিকা দেয়ার পর মঙ্গলবার শেষদিনে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছাড়াও শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দ্বিতীয় ডোজের টিকা দেয়া হবে। যারা টিকার প্রথম ডোজ নিয়েছেন শুধুমাত্র তারা দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন।

টিকার এ কার্যক্রম পরিচালনায় সহায়তা করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচালক (ছাত্র-কল্যাণ) অধ্যাপক ড. মো. আইনুল ইসলামসহ মেডিকেল সেন্টার, আইসিটি সেল ও ঢাকা জেলা সিভিল সার্জন অফিসের কর্মকর্তারা।

গত ২১ অক্টোবর বিশ্ববিদ্যালয় দিবস উদযাপনের দিনে করোনার টিকা কেন্দ্র উদ্বোধন করেন উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক। এরপর ২৫ থেকে ৩০ অক্টোবর পর্যন্ত টিকাদান কর্মসূচি চলে। তখন প্রথম ডোজের টিকা নেন মোট ১ হাজার ৯৬০ জন।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

আলিম পরীক্ষার তারিখে পরিবর্তন

আলিম পরীক্ষার তারিখে পরিবর্তন

আলিমের দুটি পরীক্ষায় পরিবর্তন আনা হয়েছে। ফাইল ছবি

মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক কায়সার আহমেদ নিউজবাংলাকে বলেন, অনিবার্য কারণবসত চলমান আলিম পরীক্ষার দুটি তারিখ পরিবর্তন করা হয়েছে।

অনিবার্য কারণবশত মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের আওতায় চলতি বছরের আলিম পরীক্ষার দুটি তারিখে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

এ বিষয়ে রোববার মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ডের পরীক্ষানিয়ন্ত্রক কামাল উদ্দিনের সই করা সংশোধিত রুটিন প্রকাশ করা হয়।

জানতে চাইলে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক কায়সার আহমেদ নিউজবাংলাকে বলেন, অনিবার্য কারণবসত চলমান আলিম পরীক্ষার দুটি তারিখ পরিবর্তন করা হয়েছে।

সংশোধিত রুটিনে দেখা যায়, ৬ ডিসেম্বর (সোমবার) হাদিস ও উসুলুল হাদিস পরীক্ষাটি ২১ ডিসেম্বর (মঙ্গলবার) অনুষ্ঠিত হবে। অন্যদিকে আল ফিকহ ও পদার্থ বিজ্ঞান (তত্ত্বীয়) পরীক্ষাটি ৯ ডিসেম্বরের পরিবর্তে ২৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে।

দুটি পরীক্ষাই হবে সকাল ১০টা থেকে বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত। এছাড়াও অন্যান্য পরীক্ষার সময়সূচি অপরিবর্তিত থাকবে।

আলিম পরীক্ষা শুরু হয় ২ ডিসেম্বর। নতুন রুটিন অনুযায়ী যা শেষ হবে ২৩ ডিসেম্বর।

পরীক্ষা হবে শুধু নৈর্বাচনিক বিষয়ে। নির্ধারিত দিনে সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১১টা পর্যন্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

কবে কোন পরীক্ষা (সংশোধিত রুটিন)

২ ডিসেম্বর: কুরআন মাজিদ

১২ ডিসেম্বর: আল ফিক্‌হ ২য় পত্র, আরবি সাহিত্য ও পদার্থবিজ্ঞান ২য় পত্র

১৫ ডিসেম্বর: ইসলামের ইতিহাস, রসায়ন ১ম পত্র ও তাজভিদ ১ম পত্র

১৯ ডিসেম্বর: বালাগাত ও মানতিক, রসায়ন ২য় পত্র এবং তাজভিদ ২য় পত্র

২১ ডিসেম্বর: হাদিস ও উসূলুল হাদিস

২৩ ডিসেম্বর: আল ফিক্‌হ ১ম পত্র ও পদার্থবিজ্ঞান ১ম পত্র

পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্দেশনা

০১. করোনা মহামারির কারণে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি মেনে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।

০২. পরীক্ষা শুরুর ৩০ মিনিট আগে অবশ্যই পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা কক্ষে আসন গ্রহণ করতে হবে।

০৩. পরীক্ষার সময় হবে ১ ঘণ্টা ৩০ মিনিট। এমসিকিউ ও লিখিত পরীক্ষার মধ্যে কোনো বিরতি থাকবে না। পরীক্ষার দিন সকাল ৯টা ৩০ মিনিটে শিক্ষার্থীদের উত্তরপত্র এবং ওএমআর শিট বিতরণ করা হবে।

০৪. পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা শুরুর তিন দিন আগে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের কাছ থেকে প্রবেশপত্র সংগ্রহ করতে হবে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরু হলে ২০২০ সালের ১৭ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়। দেড় বছর পর ১২ সেপ্টেম্বর খুলে দেয়া হয়েছে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন

‘শিক্ষক রাজনীতির স্বার্থে শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করবেন না’

‘শিক্ষক রাজনীতির স্বার্থে শিক্ষার্থীদের ব্যবহার করবেন না’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন রামেন্দু মজুমদার। ছবি: নিউজবাংলা

রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘শিক্ষক রাজনীতি যেটা আছে, সেটা অনেক সময় খুবই পীড়াদায়ক মনে হয়। এটা আপনারা নিজেরাই ভাববেন। তবে আমার অনুরোধ, ছাত্রদের কোনো দিনই শিক্ষক রাজনীতির স্বার্থে কাজে লাগাবেন না।’

শিক্ষক রাজনীতির স্বার্থে শিক্ষার্থীদের ব্যবহার না করতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার।

তিনি বলেছেন, ‘শিক্ষক রাজনীতি যেটা আছে, সেটা অনেক সময় খুবই পীড়াদায়ক মনে হয়। এটা আপনারা নিজেরাই ভাববেন। তবে আমার অনুরোধ, ছাত্রদের কোনো দিনই শিক্ষক রাজনীতির স্বার্থে কাজে লাগাবেন না।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শতবর্ষপূর্তি ও বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে পাঁচ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার চতুর্থ দিন শনিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় খেলার মাঠে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় রামেন্দু মজুমদার এসব কথা বলেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো শাহাদত আলী আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন।

রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘আজ গোটা বাংলাদেশরই দুর্ভাগ্য যে মুক্তবুদ্ধির চর্চা এবং পরমতসহিষ্ণুতা আমাদের এখান থেকে উঠে গেছে। আমরা একেবারেই কারও কথা সহ্য করতে পারি না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তো আর বিচ্ছিন্ন দ্বীপ নয়। সংস্কৃতি চর্চা থেকে আমরা দূরে চলে যাচ্ছি বলেই এই সংকটগুলো আসছে। লেখাপড়ার পাশাপাশি সহশিক্ষা কার্যক্রম খুবই জরুরি।’

সংস্কৃতি চর্চার পাশাপাশি নিয়মিত ডাকসু নির্বাচন ও গণতান্ত্রিক চর্চা অব্যাহত রাখারও আহ্বান জানান রামেন্দু।

তিনি বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০ বছরের অভিজ্ঞতা থেকে আমাদের ভবিষ্যতের দিকে তাকানোর সুযোগ এসেছে। অতীত নিয়ে আমরা অবশ্যই গৌরব করব। তবে দৃষ্টিটা ভবিষ্যতের দিকে রাখতে হবে। আগামী ১০০ বছরে কী করে আমরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়কে আরও বেশি অর্থবহ করে তুলতে পারি, সেটি নিয়ে আমাদের ভাবতে হবে।’

রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক অপ্রয়োজনীয় বিভাগ এবং ইনস্টিটিউট আছে। এগুলো একটু দেখা উচিত। বর্তমান সময়ের সঙ্গে সঙ্গতিপূর্ণ রেখেই যেন আমরা নতুন নতুন বিভাগ খুলি। উপাচার্য মহোদয় নিঃসন্দেহে সেটি খেয়াল রাখবেন।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের গবেষণার মধ্যে থাকা প্রয়োজন উল্লেখ করে এই সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব বলেন, ‘জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আমাদের আলাদা একটি ইনস্টিটিউট আছে। সেখানে গবেষণার জন্য বৃত্তি দেয়া হয়। কিন্তু গবেষণা করার লোক পাওয়া কঠিন। সহজে মানুষ আসতে চান না। এটা একটা বিপজ্জনক ব্যাপার। আমি যদি বিশ্ববিদ্যালয়ে থাকি বা শিক্ষকতাই করতে চাই, তাহলে অবশ্যই আমাকে গবেষণার মধ্যে থাকা প্রয়োজন।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা এবং নৃত্যকলা বিভাগ নিয়ে আলাদা একটা অনুষদ করার আহ্বানও জানান রামেন্দু মজুমদার।

তিনি বলেন, ‘এই অনুষদের নাম হতে পারে ফ্যাকাল্টি অফ ফাইন অ্যান্ড পারফর্মিং আর্টস। তাহলেই এই বিশেষায়িত শিক্ষার প্রতি আরও গুরুত্ব দেয়া যাবে।’

আলোচনা সভায় যোগ দিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘রাষ্ট্রভাষাসহ বাংলাদেশের যা কিছু অর্জন হয়েছে, সব অর্জনের মূল চালিকাশক্তি ছিল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। এই বিশ্ববিদ্যালয়ই আলোকবর্তিকা হয়ে জাতিকে সব সময় পথ দেখিয়েছে। শুধু বাংলাদেশেই নয়, সারা বিশ্বেই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের খ্যাতি রয়েছে। যেসব তরুণ দেশের জন্য অবদান রাখছে, তাদের অধিকাংশই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন সাবেক ছাত্র হিসেবে আমি গর্ববোধ করি।’

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেন, ‘দেশের প্রতিটি আন্দোলন-সংগ্রামে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নেতৃত্ব দিয়েছে। যেখানেই রাষ্ট্র সংকটে পড়েছে, সেখানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষকরা সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করেনি। দেশের গণতন্ত্রকে আজকের এই পর্যায়ে নিয়ে আসার জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-শিক্ষক এবং প্রতিটা ছাত্র সংগঠনের একটা বিশাল অবদান আছে। যেটা ইতিহাস লেখা আছে। এটাকে ম্লান করা যাবে না।’

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘অতীতের দিকে তাকিয়ে, বর্তমানকে বিশ্লেষণ করে এবং ভবিষ্যতের দিকে তাকিয়ে যে মুক্তবুদ্ধির চর্চা সেটা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অব্যাহত রাখবে বলে আমি আশাবাদী।’

অগ্নিকন্যাখ্যাত সাবেক এই নেত্রী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ‘স্কাই ইজ দ্য লিমিট। আকাশ ছোঁবে তোমরা; আকাশ ছুঁতে হবে তোমাদের। সেই পরিবেশ একদিকে সরকার যেমন রচনা করবে, মুক্তবুদ্ধির চর্চা করে তোমরাও এটি করবে।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. শামীম রেজার সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা রাশেদা কে চৌধুরী, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. মশিউর রহমান এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূঁইয়া।

আরও পড়ুন:
জাবির জি ও এইচ ইউনিটের ফল প্রকাশ
জাবির ডি ইউনিটের ফল প্রকাশ, পাস ৪২ শতাংশ
জাবিতে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার তারিখ ফের পরিবর্তন
জাবিতেও শুরু হলো সশরীরে ক্লাস
‘মাদক কারবারে বাধা দেয়ায়’ শিক্ষককে গুলি, গ্রেপ্তার ১

শেয়ার করুন