রায়পুরায় ফের ভোটকেন্দ্রিক সংঘর্ষ

রায়পুরায় ফের ভোটকেন্দ্রিক সংঘর্ষ

রায়পুরায় শুক্রবার রাতে দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের সময় দোকান ভাঙচুর করা হয়। ছবি: নিউজবাংলা

শুক্রবার রাতে রায়পুরার পিরিজকান্দি বাজারে দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এ সময় পাঁচটি দোকান ও ২০টি বাড়ি ভাঙচুর করা হয়। আহত হয় পাঁচজন।

ভোটকেন্দ্রিক সন্ত্রাসের জনপদ হয়ে উঠেছে নরসিংদী। সর্বশেষ শুক্রবার রাতে সংঘর্ষ হয়েছে রায়পুরায়। ভাঙচুর করা হয়েছে দোকান ও বাড়িঘর। আহত হয়েছে কমপক্ষে পাঁচজন। একই উপজেলায় গত ২৮ অক্টোবর ভোট নিয়ে সংঘর্ষে নিহত হন তিনজন।

এর আগে বৃহস্পতিবার নরসিংদী সদরের আলোকবালি ইউপির নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষে চারজন নিহত হন। আহত হন অনেকে।

সর্বশেষ শুক্রবার রাত ৮টার দিকে আসন্ন মির্জাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রায়পুরায় দুই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ সময় পিরিজকান্দি বাজারে পাঁচটি দোকানসহ আশপাশ এলাকার অন্তত ২০টি বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়। আহত হয় কমপক্ষে পাঁচজন।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, স্থানীয় নির্বাচনের তৃতীয় ধাপে আগামী ২৮ নভেম্বর রায়পুরা উপজেলার ১২ ইউপিতে ভোটগ্রহণ হবে। শুক্রবার এই নির্বাচনে প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ করা হয়। এরপরই প্রার্থীরা নেমে পড়েন প্রচারে।

শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে সাবেক চেয়ারম্যান চশমা প্রতীকের প্রার্থী মঞ্জুর এলাহী ও তার সমর্থকরা মিছিল বের করেন। মিছিলটি পিরিজকান্দি বাজারে পৌঁছলে প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী আসাদুল্লাহ ভূইয়ার এক সমর্থকের সঙ্গে তাদের কথা-কাটাকাটি হয়। এ সময় উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় পাঁচটি দোকান ও ২০টি বাড়িঘর ভাঙচুরের শিকার হয়। একপর্যায়ে ডেকোরেশনের দোকানে থাকা ইঞ্জিনে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। খবর পেয়ে রায়পুরা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

খবর পেয়ে রায়পুরা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আজগর হোসেন ঘটনাস্থলে যান। পরবর্তী সহিংসতা এড়াতে এলাকায় পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

চেয়ারম্যান পদপ্রা‍‍থী আসাদুল্লাহ ভূইয়ার সমর্থক বাবুল মিয়া বলেন, ‘চেয়ারম্যান প্রার্থী মঞ্জুর এলাহী পরিকল্পিতভাবে মিছিলসহ এসে আমার দোকানে হামলা ও ভাঙচুর করেন। তারা আমার পাঁচটি দোকান ভাঙচুরসহ ডেকোরেশনের দোকানে থাকা ইঞ্জিনে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ ছাড়া বাজারের আরও কয়েকটি দোকানসহ আশপাশের অন্তত ২০টি ঘর মঞ্জুর এলাহীর সমর্থকরা ভাঙচুর করে।’

চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মঞ্জুর এলাহী বলেন, ‘প্রথমে আসাদুল্লাহ ভূইয়ার সমর্থকরা আমার মিছিলে হামলা চালায়। তাদের হামলায় আমার তিন সমর্থক গুরুতর আহত হয়। আমি বা আমার সমর্থকরা কোনো ভাঙচুর কিংবা অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটায়নি।’

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

মন্তব্য

তামাক আইন সংশোধন করে শিগগির সংসদে আনব: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

তামাক আইন সংশোধন করে শিগগির সংসদে আনব: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

জাতীয় সংসদের শপথকক্ষে সোমবার বিকেলে ‘২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন' শিরোনামে সেমিনারে বক্তব্য দেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ছবি: নিউজবাংলা

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অনেকের মতে তামাক সংশ্লিষ্টরা অনেক শক্তিশালী। তবে তারা সরকারের চেয়ে শক্তিশালী নয়। এরই মধ্যে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে আমরা তামাকের ব্যবহার অনেকটা কমিয়ে আনতে পেরেছি। আরও কমাতে হবে। আমরা খুব দ্রুত আপনাদের প্রস্তাবনা অনুযায়ী আইনটি সংশোধন করে সংসদে আনব। সংসদ সদস্যদের মাধ্যমেই তা পাস হবে।’

প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে বিদ্যমান তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন করে শিগগিরই সংসদে উপস্থাপন করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

জাতীয় সংসদের শপথকক্ষে সোমবার বিকেলে বাংলাদেশ পার্লামেন্টারি ফোরাম ফর হেলথ অ্যান্ড ওয়েলবিং আয়োজিত ‘২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে তামাক নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন' শিরোনামে জাতীয় সেমিনারে তিনি এ কথা জানান।

সংসদ সদস্য ডা. হাবিবে মিল্লাতের সভাপতিত্বে সভায় আরও বক্তব্য দেন সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক, ডা. প্রাণ গোপাল দত্ত, অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান ও জাতীয় তামাক নিয়ন্ত্রণ সেলের পরিচালক কাজী জেবুন্নেছা বেগম।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পড়েন ব্যারিস্টার শামীম হায়দার পাটোয়ারী।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা বাস্তবায়নে সবাইকে কাজ করতে হবে। তামাক থেকে আমরা যে রেভিনিউ পাই তার চেয়েও অনেক বেশি ব্যয় হয় চিকিৎসা খাতে। তাই তামাক মুক্তির কোনো বিকল্প নেই। তবে এক দিনে এগুলো বন্ধ করার উপায় নেই।

‘অনেকের মতে তামাক সংশ্লিষ্টরা অনেক শক্তিশালী। তবে তারা সরকারের চেয়ে শক্তিশালী নয়। এরই মধ্যে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে আমরা তামাকের ব্যবহার অনেকটা কমিয়ে আনতে পেরেছি। আরও কমাতে হবে। আমরা খুব দ্রুত আপনাদের প্রস্তাবনা অনুযায়ী আইনটি সংশোধন করে সংসদে আনব। সংসদ সদস্যদের মাধ্যমেই তা পাস হবে।’

দেশকে তামাকমুক্ত করতে সেমিনারে পার্লামেন্টারি ফোরামের পক্ষ থেকে ৭টি প্রস্তাবনা দেয়া হয়।

এর মধ্যে রয়েছে, পাবলিক প্লেস, পাবলিক ট্রান্সপোর্টসহ ধূমপানের জন্য সব নির্ধারিত স্থান বিলুপ্ত, বিক্রয়স্থলেও তামাকজাত পণ্য প্রদর্শন বন্ধ, তামাক কোম্পানির সব স্পন্সরশিপ ও করপোরেট সামাজিক দায়বদ্ধতা কার্যক্রম নিষিদ্ধ, তামাকজাত পণ্যের মোড়কে সচিত্র স্বাস্থ্য সতর্কবার্তার আকার ৯০ শতাংশের বেশি রাখা, খুচরা ও কম সংখ্যক সিগারেট বা বিড়ি বিক্রি বন্ধ করা, ই-সিগারেটসহ সব ধরনের হিটেড ট্যোবাকো বিক্রি ও আমদানি বন্ধ এবং ১৯৫৬ সালের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন সংশোধন করে তামাক পণ্যকে তালিকা থেকে বাদ দেয়া।

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

আড়াইহাজারে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ: দগ্ধ ১ জনের মৃত্যু

আড়াইহাজারে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণ: দগ্ধ ১ জনের মৃত্যু

সোলাইমানের শ্যালক মানসুর আহমেদ নিউজবাংলাকে জানান, ফজরের নামাজ পড়তে অজু করার জন্য গরম পানি করতে গিয়েছিলেন সোলাইমান। ওই সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ঘরে আগুন ধরে যায়।

নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে বাসায় গ্যাস সিলিন্ডারের লিকেজ থেকে বিস্ফোরণে দগ্ধ একজনের মৃত্যু হয়েছে।

রাজধানীর শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে তার মৃত্যু হয়। মৃত সোলাইমানের শরীরের ৯৫ শতাংশ পুড়ে গিয়েছিল।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আড়াইহাজারে ধুপতারা ইউনিয়নের কুমারপাড়া গ্রামের একটি বাসায় সোমবার ভোরে বিস্ফোরণের ওই ঘটনা ঘটে। এতে দুই শিশুসহ সোলাইমানের পরিবারের চারজন দগ্ধ হয়।

সোলাইমান ছাড়া দগ্ধ তিনজন হলো তার স্ত্রী রীমা আক্তার এবং তাদের দুই সন্তান মাহিত ও আরোজ।

শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের চিকিৎসক এস এম আইউব হোসেন নিউজবাংলাকে জানিয়েছিলেন, সোলাইমানের শরীরের ৯৫ শতাংশ, রিমার ১৫ শতাংশ, মাহিতের ১৬ শতাংশ ও আরোজের শরীরের ৫ শতাংশ পুড়ে গেছে।

তাদের মধ্যে ৩ জনকে ভর্তি করা হয়। আর শিশু আরোজকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়।

সোলাইমানের শ্যালক মানসুর আহমেদ নিউজবাংলাকে জানান, ফজরের নামাজ পড়তে অজু করার জন্য গরম পানি করতে গিয়েছিলেন সোলাইমান। ওই সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ঘরে আগুন ধরে যায়।

মানসুর বলেন, মনে হয় সিলিন্ডারের পাইপ লিকেজ ছিল। তাই রুমে গ্যাস জমে ছিল।

এই ঘটনার এক দিন আগে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি ছয়তলা ভবনে সিলিন্ডার থেকে বের হওয়া গ্যাস বিস্ফোরণের পর আগুন লেগে চারজন দগ্ধ হন।

ফতুল্লার বিলাসনগর এলাকায় শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওই ঘটনা ঘটে।

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

মুরাদের বিচার চেয়েছে ছাত্র অধিকার পরিষদ

মুরাদের বিচার চেয়েছে ছাত্র অধিকার পরিষদ

সোমবার রাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে প্রতিমন্ত্রী মুরাদের কুশপুতুল দাহ করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ। ছবি: নিউজবাংলা

বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, ‘প্রতিমন্ত্রী মুরাদকে অনেকে অনেকে বলে থাকেন পাগল। কিন্তু তিনি পাগল বা উন্মাদ নন। তিনি জাতে মাতাল তালে ঠিক। ধর্ম নিয়ে শুরু করে তিনি নারী সম্পর্কে ধারাবাহিকভাবে কুরুচিকর বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। ছাত্র অধিকার পরিষদ এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।’

নারীর প্রতি ‘অবমাননাকর’ ও ‘বর্ণবাদী’ মন্তব্য করায় তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হাসানের কুশপুতুল দাহ করেছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ। একই সঙ্গে তারা মুরাদ হাসানকে বিচারের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে।

সোমবার রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে এই কুশপুতুল পোড়ানো হয়।

এর আগে প্রতিমন্ত্রী মুরাদের কুশপুতুল নিয়ে জুতা মিছিল করেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। মিছিলটি বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকা থেকে শুরু হয়ে শামসুন নাহার হলের পাশ দিয়ে রাজু ভাস্কর্যে এসে শেষ হয়।

মিছিল শেষে মুরাদের কুশপুতুলে জুতা ছুড়ে মারেন সংগঠনটির নেতাকর্মীরা। এ সময় তারা ‘মুরাদের চামড়া, তুলে নিব আমরা’, ‘মুরাদের দুই গালে, জুতা মারো তালে তালে’, ‘ম তে মুরাদ, তুই ধর্ষক তুই ধর্ষক’ ইত্যাদি স্লোগান দেন।

ছাত্র অধিকার পরিষদ সভাপতি বিন ইয়ামিন মোল্লা ও সাধারণ সম্পাদক আরিফুল ইসলাম আদীবের নেতৃত্বে এতে অংশ নেন পরিষদের কেন্দ্রীয় ও ঢাবি শাখার অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী।

বিন ইয়ামিন মোল্লা বলেন, 'প্রতিমন্ত্রী মুরাদকে অনেকে অনেকে বলে থাকেন পাগল। কিন্তু তিনি পাগল বা উন্মাদ নন। তিনি জাতে মাতাল তালে ঠিক। ধর্ম নিয়ে শুরু করে তিনি নারী সম্পর্কে ধারাবাহিকভাবে কুরুচিকর বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। ছাত্র অধিকার পরিষদ এর তীব্র নিন্দা জানাচ্ছে।'

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আপনি এই লাগামহীন বলদকে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসুন। অন্যথায় আমরা ছাত্র সমাজের প্রতি আহ্বান জানাব- আপনারা তাকে (মুরাদ হাসান) যেখানে পাবেন সেখানে গণধোলাই দেবেন।’

ঢাবি ছাত্র অধিকার পরিষদের নাট্য ও বিতর্ক বিষয়ক সম্পাদক নুসরাত তাবাসসুম বলেন, ‘আমরা দেখেছি দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপিঠ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নারী শিক্ষার্থীদের নিয়ে তার কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য। এটা শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয়, বাংলাদেশের সব মেয়ের জন্য অপমানজনক।

‘এখন কেন ডিজিটাল আইনের প্রয়োগ দেখি না। কেন তথ্য প্রতিমন্ত্রীর বিচার হবে না। তাকে বিচারের আওতায় আনা না হলে আমরা নারী শিক্ষার্থীরা সারা দেশে আন্দোলন শুরু করব।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদকে পদত্যাগ করতে বলেছেন জানালে ছাত্র অধিকার পরিষদ ঢাবি শাখার দফতর সম্পাদক সালেহ উদ্দিন সিফাত বলেন, ‘তাকে অপসারণ করলেই হবে না। তিনি যে মন্তব্য করেছেন তা শাস্তিযোগ্য অপরাধ। তাকে অবশ্যই শাস্তির আওতায় আনতে হবে।’

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

আর্থসামাজিক সূচকে পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশ: রেহমান সোবহান

আর্থসামাজিক সূচকে পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশ: রেহমান সোবহান

বিজয় দিবসে জাতীয় সংসদ ভবনে আলোকসজ্জা। ফাইল ছবি

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক রেহমান সোবহান বলেন, ‘স্বাধীনতার সময় ১৯৭২ সালে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, দারিদ্য, মাথাপিছু আয়সহ অনেক সূচকে আমরা পাকিস্তানের তুলনায় পিছিয়ে ছিলাম। পরবর্তী ৫০ বছরে সেই অবস্থান থেকে অনেক এগিয়েছে বাংলাদেশ। এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে গত ২৫ বছরে। তবে লক্ষণীয় অগ্রগতি হয়েছে গত দশকে।’

মাথাপিছু জাতীয় আয়, গড় আয়ু, জিডিপির প্রবৃদ্ধিসহ আর্থসামাজিক অনেক সূচকে পাকিস্তানের তুলনায় বাংলাদেশ অনেক এগিয়েছে। অথচ স্বাধীনতার সময় এসব ক্ষেত্রে বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে ছিল।

সেন্টার ফর পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক রেহমান সোবহান আন্তর্জাতিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে এই সম্মেলনের আয়োজন করে সিপিডি। চার দিনব্যাপী ভার্চুয়ালি এ সম্মেলন সোমবার শুরু হয়েছে।

‘৫০ বছরে বাংলাদেশ: প্রত্যাবর্তন ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রবীণ এই অর্থনীতিবিদ।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অধ্যাপক রওনক জাহান। এতে স্বাগত বক্তব্য দেন সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন।

রেহমান সোবহান বলেন, ‘স্বাধীনতার সময় ১৯৭২ সালে শিক্ষা, স্বাস্থ্য, দারিদ্য, মাথাপিছু আয়সহ অনেক সূচকে আমরা পাকিস্তানের তুলনায় পিছিয়ে ছিলাম।

‘পরবর্তী ৫০ বছরে সেই অবস্থান থেকে অনেক এগিয়েছে বাংলাদেশ। এ ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি হয়েছে গত ২৫ বছরে। তবে লক্ষণীয় অগ্রগতি হয়েছে গত দশকে।’

১৯৭২ সালে বাংলাদেশের মাথাপিছু আয় পাকিস্তানের চেয়ে ৬১ শতাংশ কম ছিল। জিডিপির উচ্চ প্রবৃদ্ধির কারণে মাথাপিছু আয় বাড়তে থাকে এবং ২০২০ সালে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলে ৬২ শতাংশ বেশি হয়েছে মাথাপিছু আয়।

শুধু তা নয়, এই সময়ে সঞ্চয়, বিনিয়োগ এবং রপ্তানির ক্ষেত্রে পাকিস্তানকে টপকে বাংলাদেশ এগিয়ে আছে। এর ফলে বাংলাদেশের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ পাকিস্তানের চেয়ে দ্বিগুণ হয়েছে।

রেহমান সোবহান বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন আর বৈদেশিক সাহায্যনির্ভর দেশ নয়। যে পরিমাণ বিদেশি ঋণ আমরা পাচ্ছি, তা জিডিপির ২ শতাংশ। অথচ পাকিস্তান এখনও বিদেশি সহায়তার ওপর নির্ভরশীল।’

বাংলাদেশের অবকাঠামো খাতও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বলে জানান রেহমান সোবহান।

বলেন, ‘১৯৭২ সালে আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদনে পিছিয়ে ছিলাম। দ্রুত বিদ্যুৎ খাতের প্রসার ঘটায় গত ১০ বছরে পাকিস্তানের চেয়ে দ্বিগুণ উৎপাদন বেড়েছে।

মানবসম্পদ উন্নয়ন সূচকে ১৯৯০ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ পিছিয়ে ছিল। বর্তমানে এ ক্ষেত্রে পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে বাংলাদেশ। জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণেও পাকিস্তানের তুলনায় বাংলাদেশ এগিয়ে আছে। স্বাস্থ্যসেবা উন্নীতির ফলে আমাদের গড় আয়ু ও পাকিস্তানের তুলনায় ভালো অবস্থানে আছে বলে জানান রেহমান সোবহান।

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

সাভারে সড়ক-মহাসড়কে হাঁটু পানি, যানজট

সাভারে সড়ক-মহাসড়কে হাঁটু পানি, যানজট

টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে সাভারের সড়ক-মহাসড়ক। ছবি: নিউজবাংলা

সাভার বাজারে মো. মিলন নামের স্থানীয় একজন বলেন, ‘আমি শিমুলতলা যাচ্ছিলাম। পুরো সড়কে পানি জমে যাওয়ায় আমার সাইকেল তলিয়ে গেছে। প্যান্ট গুঁজেও লাভ হয়নি, সব ভিজে গেছে। এই জায়গাটায় একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে। অথচ কিছুদিন আগে সড়কে সুয়ারেজ লাইন তৈরি করা হয়েছে, সেই লাইন কোনো কাজে আসছে না। টানা বৃষ্টিতে মহাসড়কেই হাঁটু পানি হয়ে গেছে৷ বাস-ট্রাক গেলে বিশাল ঢেউ হয়। এতে পথচারীরা পুরো ভিজে যায়।’

ঘূর্ণিঝড় জাওয়াদের প্রভাবে টানা বৃষ্টিতে তলিয়ে গেছে সাভারের সড়ক-মহাসড়ক। হাঁটু পানিতে ভোগান্তিতে পড়েছেন শিল্পাঞ্চলের শ্রমিকসহ স্থানীয়রা।

সোমবার সকাল থেকে সারা দিন ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক এবং টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কে জলাবদ্ধতায় দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কে রাত সাড়ে ১১টার দিকেও জলাবদ্ধতার কারণে যানজট লেগে ছিল।

বৃষ্টির পানিতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভার বাসস্ট্যান্ড থেকে রেডিও কলোনি পর্যন্ত আরিচামুখী লেনে হাটুঁ পরিমাণ পানি জমে আছে। যানবাহন চলছে ধীরগতিতে। এতে সড়কের পাশ দিয়ে চলাচলেও চরম দুর্ভোগে পড়েন পথচারীরা।

অন্যদিকে টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের ইউনিক বাসস্ট্যান্ড থেকে জামগড়া পর্যন্ত সড়কের বিভিন্ন স্থানে পানি জমেছে। সড়কে আগে থেকেই খানাখন্দ থাকায় দিনভর যানবাহন চলাচলে ছিল ধীরগতি।

সাভার বাজারে মো. মিলন নামের স্থানীয় একজন বলেন, ‘আমি শিমুলতলা যাচ্ছিলাম। পুরো সড়কে পানি জমে যাওয়ায় আমার সাইকেল তলিয়ে গেছে। প্যান্ট গুঁজেও লাভ হয়নি, সব ভিজে গেছে।

‘এই জায়গাটায় একটু বৃষ্টি হলেই পানি জমে। অথচ কিছুদিন আগে সড়কে সুয়ারেজ লাইন তৈরি করা হয়েছে, সেই লাইন কোনো কাজে আসছে না। টানা বৃষ্টিতে মহাসড়কেই হাঁটু পানি হয়ে গেছে৷ বাস-ট্রাক গেলে বিশাল ঢেউ হয়। এতে পথচারীরা পুরো ভিজে যায়।’

জামগড়া এলাকার পোশাক শ্রমিক রোকেয়া বেগম বলেন, ‘সকালে অফিসে গেলাম হালকা পানি পাড়িয়ে। দুপুরে খাবারের সময় এসে দেখি অনেক পানি। ড্রেনের ময়লা পানিও রাস্তায় এসে পড়েছে।’

সৌরভ পরিবহনের বাসচালক ইসতিয়াক হোসেন বলেন, ‘রাস্তাটা এমনিতে ভাঙা। তার মধ্যে দুই দিন থেকে টানা বৃষ্টি। এতে রাস্তার বিভিন্ন স্থানে বড়বড় গর্ত তৈরি হইছে। গাড়ি খুব সাবধানে চালাইতে হইতেছে।’

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

ক্যানবেরায় বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস উদযাপন

ক্যানবেরায় বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস উদযাপন

ক্যানবেরায় হায়াত রিজেন্সী হোটেলে বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে অতিথিরা।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু কর্তৃক বাংলাদেশের উন্নয়নের সূচনা, বঙ্গবন্ধু-কন্যা শেখ হাসিনার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা এবং বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক বিষয়ে ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। বাংলাদেশি ও ভারতীয় শিল্পীরা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করেন।

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরায় উদযাপন হলো বাংলাদেশ-ভারত মৈত্রী দিবস। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী, বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং বাংলাদেশ ও ভারতের কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছরকে স্মরণীয় করে রাখতে হায়াত রিজেন্সী হোটেলে বাংলাদেশ ও ভারতের হাইকমিশন যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

ক্যানবেরার বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে কাউন্সিলর তৌহিদুলের পাঠানো এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিবৃতিতে বলা হয়, অনুষ্ঠানের শুরুতে ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে নিহত সব শহীদ স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। এ সময় আলোকচিত্র প্রদর্শনীতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে বাঙালির মুক্তির সংগ্রাম, ১৯৭১ সালে সংঘটিত গণহত্যা, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও এতে ভারতীয় সহায়তা, বঙ্গবন্ধু কর্তৃক স্বাধীনতার ঘোষণা, বিশ্ব মিডিয়ায় বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের পক্ষে প্রচারণা, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধ ও আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি অর্জনে তৎকালীন ভারত সরকারের ভূমিকা এবং স্বাধীনতা-পরবর্তী সময়ে দু’দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক ও উন্নয়ন সহযোগিতা তুলে ধরা হয়।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধু কর্তৃক বাংলাদেশের উন্নয়নের সূচনা, বঙ্গবন্ধু-কন্যা শেখ হাসিনার উন্নয়নের অগ্রযাত্রা এবং বাংলাদেশ-ভারত দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের বিষয়ে একটি ভিডিও প্রদর্শন করা হয়। বাংলাদেশি ও ভারতীয় শিল্পীরা পৃথকভাবে সংক্ষিপ্ত সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে নৃত্য পরিবেশন করেন।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মোহাম্মদ সুফিউর রহমান, ভারতের হাইকমিশনার মনপ্রীত ভোরা ও অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি হারিন্দার সিধু বক্তব্য দেন।

এছাড়া রাশিয়াসহ অস্ট্রেলিয়ায় নিযুক্ত ৩১টি দেশের মিশনপ্রধান, ঢাকায় নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার, অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, শিক্ষাবিদ, থিংকট্যাঙ্ক, মুক্তিযোদ্ধা, প্রবাসী বাংলাদেশি ও ভারতীয়সহ শতাধিক ব্যক্তি এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

হাইকমিশনার সুফিউর রহমান ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের ভূমিকা, স্বাধীন বাংলাদেশের যুদ্ধবিধ্বস্ত প্রেক্ষাপটে ভারতীয় সহায়তা এবং প্রধানমন্ত্রী মুজিব ও ইন্দিরা কর্তৃক দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের সুদৃঢ় ভিত্তি স্থাপনের বিষয়কে স্মরণ করেন। তিনি ভারত ও বাংলাদেশের জনগণের মধ্যে নিবিড় যোগাযোগ এবং দু’দেশের সব ক্ষেত্রে ঘনিষ্ঠ সম্পর্কের ওপর আলোকপাত করেন, যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির গতিশীল নেতৃত্বে বেগবান হয়েছে।

ভারতের হাইকমিশনার মনপ্রীত ভোরা বলেন, ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় বাংলাদেশের পাশে থাকতে পেরে ভারতের জনগণ গর্বিত। বাংলাদেশ ও ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ এবং বাংলাদেশ ভারতের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্যিক অংশীদার। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার গতিশীল নেতৃত্বে বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রার ভূয়সী প্রশংসা করেন।

অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি হারিন্দার সিধু বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে ভারতের মানবিক সহায়তার প্রশংসা করেন। তিনি মুক্তিযুদ্ধের সময় এবং পরবর্তীতে যুদ্ধবিধ্বস্ত বাংলাদেশের পুনর্গঠনে অস্ট্রেলিয়ার অবদানের কথা স্মরণ করেন। ১০ লাখ রোহিঙ্গাকে আশ্রয়দানের জন্য বাংলাদেশের উদারতার প্রশংসা করেন তিনি। শান্তি, নিরাপত্তা ও উন্নয়নের ক্ষেত্রে অস্ট্রেলিয়া বাংলাদেশ ও ভারতের সঙ্গে একযোগে কাজ করবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

অস্ট্রেলিয়াসহ ১৮টি দেশে বাংলাদেশ ও ভারতীয় দূতাবাস যৌথভাবে দিবসটি পালন করেছে। গত মার্চে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি যৌথভাবে ভারত কর্তৃক বাংলাদেশকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতির দিবস ৬ ডিসেম্বরকে মৈত্রী দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেন।

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন

ফরেন চেম্বারের নতুন সভাপতি নাসের এজাজ

ফরেন চেম্বারের নতুন সভাপতি নাসের এজাজ

এফআইসিসিআই নতুন সভাপতি নাসের এজাজ বিজয়।

নাসের এজাজ বিজয় বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির এই লগ্নে, আমরা নিজেদের ইতিহাস ও পরবর্তী অধ্যায় রচনার সুযোগ পেয়েছি। আমাদের আগামী দিনের সফলতার মূল ভিত্তি হবে দেশি ও বিদেশি উভয় ধরনের বিনিয়োগ আকর্ষণ ও তার বিকাশ। চেম্বারের পক্ষ থেকে এই গুরুত্বপূর্ণ মিশন পরিচালনার দায়িত্ব পাওয়ায় আমি গর্বিত। আমি আমার পূর্বসূরির সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’

ফরেন ইনভেস্টরস চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজের (এফআইসিসিআই) নতুন সভাপতি হয়েছেন নাসের এজাজ বিজয়। তিনি স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা।

সহসভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন ইউনাইটেড ঢাকা টোব্যাকো কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিল কোপল্যান্ড।

রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে এফআইসিসিআইয়ের ৫৮তম বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) সভাপতি, সহসভাপতিসহ ২০২২-২৩ মেয়াদের নতুন নির্বাহী কমিটির সদস্যদের নাম ঘোষণা করা হয় বলে সংগঠনের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

এফআইসিসিআইর নতুন সভাপতি নাসের এজাজ বিজয় ২৯ বছর ধরে এশিয়া, মধ্যপ্রাচ্য এবং আফ্রিকার বিভিন্ন দেশে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকে যুক্ত আছেন। বর্তমানে তিনি স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড বাংলাদেশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এ ছাড়া তিনি দ্য ডিউক অব এডিনবরা অ্যাওয়ার্ড ফাউন্ডেশন বাংলাদেশের বোর্ড; মেট্রোপলিটন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (এমসিসিআই) এবং ব্রিটিশ বিজনেস গ্রুপেও (বিবিজি) কাজ করেন।

সহসভাপতি নিল কোপল্যান্ড ইউনাইটেড ঢাকা টোব্যাকো কোম্পানি লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এবং জাপান টোব্যাকো ইন্টারন্যাশনাল গ্রুপের সদস্য। ভারতের কলকাতায় তার জন্ম ও বেড়ে ওঠা। এখন পর্যন্ত বিশ্বের ১৭টি দেশে থেকেছেন। তিনি দীর্ঘদিন জেটিআইয়ের জন্য কাজ করেছেন। রোমানিয়া, পোল্যান্ড, মধ্য আমেরিকা ও ক্যারিবিয়ান অঞ্চলে জেনারেল ম্যানেজার হিসেবে কাজ করেছেন।

নাসের এজাজ বিজয় বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তির এই লগ্নে, আমরা নিজেদের ইতিহাস ও পরবর্তী অধ্যায় রচনার সুযোগ পেয়েছি। আমাদের আগামী দিনের সফলতার মূল ভিত্তি হবে দেশি ও বিদেশি উভয় ধরনের বিনিয়োগ আকর্ষণ ও তার বিকাশ। চেম্বারের পক্ষ থেকে এই গুরুত্বপূর্ণ মিশন পরিচালনার দায়িত্ব পাওয়ায় আমি গর্বিত। আমি আমার পূর্বসূরির সাফল্যের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’

নিল কোপল্যান্ড বলেন, ‘গেল বছর এফআইসিসিআইর নির্বাহীর কমিটির সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর এবার সহসভাপতি হিসেবে নির্বাচিত হয়ে সম্মানিত বোধ করছি। নতুন সভাপতি নাসের এজাজ বিজয়ের নেতৃত্বে এবং অত্যন্ত সম্মানীয় একটি নির্বাহী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করব। আমাদের সম্মিলিত লক্ষ্য হলো সবার জন্য বাংলাদেশকে উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির দিকে নিয়ে যাওয়ার প্রচেষ্টায় সম্মুখভাগে থাকা।’

এফআইসিসিআইয়ের বিদায়ী সভাপতি রূপালী চৌধুরী বলেন, ‘গত দুই বছর এফআইসিসিআয়ের প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব পালনের সুযোগ পেয়ে আমি গর্বিত। এটি একটি ফলপ্রসূ এবং চমৎকার অভিজ্ঞতা। কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্যদের সহায়তায় আমরা মহামারির মধ্যেও বিভিন্ন মাইলফলক অর্জন করতে সক্ষম হয়েছি।

‘আমি নবনির্বাচিত সভাপতি, সহসভাপতি এবং কার্যনির্বাহী কমিটিকে অভিনন্দন জানাই। আশা করি, নতুন কমিটি ২০৪১-এর লক্ষ্য পূরণে ও সংগঠনের ভাবমূর্তি সমুন্নত রাখতে সরকারি সংস্থাগুলোর সঙ্গে উন্নত অংশীদারত্ব এবং সহযোগিতার জায়গা অব্যাহত রাখবে।’

আরও পড়ুন:
নির্বাচনে জয়ের পরদিন ইউপি সদস্যের মৃত্যু
দুই প্রার্থীর নিজেদের ভোট গেল কই
দুই প্রার্থীর ভোট সমান হওয়ার পর এক ভোট কারচুপির অভিযোগ
ভোট শেষেও থামেনি সহিংসতা
ইউপি ভোট: সিলেট বিভাগে আ.লীগের ভরাডুবির ‘যত কারণ’

শেয়ার করুন