ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার পোস্ট দেয়ায় ৩ জনের কারাদণ্ড

ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার পোস্ট দেয়ায় ৩ জনের কারাদণ্ড

রাজশাহীতে ধর্ম অবমাননার দায়ে কারাদণ্ড দেয়া হয় আসামিদের। ছবি: নিউজবাংলা

পুলিশি তদন্তে জানা যায় আসামি আমিনুল এহসান আতাইকুলার স্থানীয় বাজারে নিজের ফটোকপির দোকান থেকে মহানবীকে অবমাননা করা ছবিটি বিক্রি করেন অপর আসামি খোকনের কাছে। পরে খোকন একই বাজারের আরেক দোকানদার ও মামলার আরেক আসামি জহিরুলের কম্পিউটারের দোকান থেকে রাজীবের ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে ওই ছবি আপলোড করেন।

পাবনার আতাইকুলায় এক যুবকের আইডি ব্যবহার করে ফেসবুকে ধর্ম অবমাননার পোস্ট দেয়ায় তিনজনকে ১০ বছর করে কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। একই সঙ্গে তাদের এক লাখ টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে।

রাজশাহী সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক জিয়াউর রহমান সোমবার দুপুরে এ রায় দেন।

আসামিরা হলেন পাবনার সুজানগর উপজেলার ভবানীপুর গ্রামের আমিনুল ইসলাম, আতাইকুলা উপজেলার বনগ্রামের জহিরুল ইসলাম এবং বনগ্রাম পূর্বপাড়া গ্রামের মো. খোকন। এর মধ্যে খোকন পলাতক।

নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ইসমত আরা।

তিনি জানান, ২০১৩ সালের ২ নভেম্বর পাবনার আতাইকুলা উপজেলায় রাজীব নামের এক হিন্দু ধর্মাবলম্বী যুবকের ফেসবুক আইডি থেকে ধর্ম অবমাননাকর ছবি পোস্ট দেয়া হয়। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী রাজীবের বাড়িতে ও স্থানীয় বাজারে হামলা, ভাঙচুরের পর আগুন লাগিয়ে দেয়।

এ বিষয়ে আতাইকুলা থানায় তথ্য-প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারায় ৪ নভেম্বর ১০ জনের বিরুদ্ধে মামলা করে পুলিশ।

পুলিশি তদন্তে জানা যায় আসামি আমিনুল এহসান আতাইকুলার স্থানীয় বাজারে নিজের ফটোকপির দোকান থেকে ওই ছবিটি বিক্রি করেন অপর আসামি খোকনের কাছে। পরে খোকন একই বাজারের আরেক দোকানদার আসামি জহিরুলের কম্পিউটারের দোকান থেকে রাজীবের ফেসবুক আইডি ব্যবহার করে ওই ছবি আপলোড করেন।

এরপর পুলিশ বিভিন্ন সময় মামালায় আটজনকে গ্রেপ্তার করে। এদের মধ্যে আমিনুল ও জহিরুল দায় স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেন।

আদালত ১৫ জনের সাক্ষ্য নেয়া শেষে সোমবার এ রায় ঘোষণা করে। অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় সাতজনকে খালাস দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

মন্তব্য

৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ

৪২ যাত্রী নিয়ে চট্টগ্রামে বিমানের ফ্লাইটের জরুরি অবতরণ

চট্টগ্রাম বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করেছে বাংলাদেশ বিমানের এই ফ্লাইটটি। ছবি: নিউজবাংলা

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটির ল্যান্ডিং গিয়ারে সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে সেটি জরুরি অবতরণ করে। তবে প্রথমবার অবতরণের চেষ্টা সফল হয়নি।

ঢাকা থেকে ছেড়ে যাওয়া যাত্রীবাহি একটি উড়োজাহাজে যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়ার পর সেটি চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে জরুরি অবতরণ করেছে।

রাত ৯টা ৪০ মিনিটে বিমানটি অবতরণ করে বলে নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন বিমানবন্দরে বিমান বাংলাদেশের সহকারী ম্যানেজার ওমর ফারুক।

তিনি জানান, বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইটটির ল্যান্ডিং গিয়ারে সমস্যা দেখা দেয়। এ কারণে সেটি জরুরি অবতরণ করে। তবে প্রথমবার অবতরণের চেষ্টা সফল হয়নি।

তিনি আরও জানান, ফ্লাইটিতে ৪২ জন যাত্রী ছিল। ঢাকা থেকে রাত পৌনে ৯টায় এটি চট্টগ্রাম বিমানবন্দরের উদ্দেশে যাত্রা করে।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

বল ভেবে ককটেল হাতে নিয়েছিল শিশুটি

বল ভেবে ককটেল হাতে নিয়েছিল শিশুটি

শরীয়তপুরে কুড়িয়ে পাওয়া ককটেল বিস্ফোরণে আঙুল হারিয়েছে শিশুটি। ছবি: নিউজবাংলা

দুপুরে বাড়ির পাশের ক্ষেতে খেলতে যায় ৬ বছরের মাহিম। এ সময় লাল স্কচটেপে মোড়ানো ককটেলটিকে বল ভেবে কুড়িয়ে নেয় সে। বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে সেটি বিস্ফোরিত হয়। আশপাশের লোকজন ও তার বাবা-মা গিয়ে তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেয়।

শরীয়তপুরে কুড়িয়ে পাওয়া ককটেল বিস্ফোরণে এক শিশু আহত হয়েছে। তার একটি হাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে আঙ্গুল, দগ্ধ হয়েছে শরীরের কিছু অংশ।

সদর উপজেলার আংগারিয়া ইউনিয়নের দাদপুর গ্রামে বুধবার দুপুরে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

শিশুটির নাম মাহিম বলে জানান পালং মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকতার হোসেন।

স্থানীয়দের বরাতে তিনি জানান, দুপুরে বাড়ির পাশের ক্ষেতে খেলতে যায় ৬ বছরের মাহিম। এ সময় লাল স্কচটেপে মোড়ানো ককটেলটিকে বল ভেবে কুড়িয়ে নেয় সে। বাড়ির কাছাকাছি পৌঁছালে সেটি বিস্ফোরিত হয়। আশপাশের লোকজন ও তার বাবা-মা গিয়ে তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে নেয়।

ওসি বলেন, ‘বিস্ফোরণে শিশুটির ডান হাতের একটি আঙ্গুল বিচ্ছিন্ন হয়েছে। হাতের বিভিন্ন অংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্তে কাজ শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

ছাত্রীকে ‘ধর্ষণচেষ্টা’, মাদ্রাসাশিক্ষক কারাগারে

ছাত্রীকে ‘ধর্ষণচেষ্টা’, মাদ্রাসাশিক্ষক কারাগারে

বাদী বলেন, ‘মেয়ে আমার স্ত্রীকে জানায়, মাদ্রাসায় যাওয়ার ২০ মিনিট পর পাঁচতলার একটি কক্ষে নিয়ে রাকিবুল ধর্ষণের চেষ্টা করে। সে পালিয়ে বের হয়। ঘটনা শুনেই আমি ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশকে জানাই।’

নারায়ণগঞ্জ বন্দরে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে মাদ্রাসাশিক্ষকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

তাকে বুধবার বিকালে নারায়ণগঞ্জের জ্যেষ্ট বিচারিক হাকিম আদালতে তোলা হলে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন বিচারক বিচারক নুর নাহার ইয়াসমিন।

আদালত পুলিশের পরির্দশক মো. আসাদুজ্জামান নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, শিশুটিকে ধর্ষণচেষ্টার অভিযোগে তার বাবা মাদ্রাসাশিক্ষক রাকিবুল ইসলামের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

বাদী বলেন, ‘আমার মেয়ে বন্দরের ওই মাদ্রাসায় চতুর্থ শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। মঙ্গলবার সকালে আমি মেয়েকে মাদ্রাসায় নামিয়ে দিয়ে কাজে যাই। আমার প্রতিবেশীর মেয়েও ওই মাদ্রাসায় পড়ে।

‘বেলা ১১ টার দিকে আমার প্রতিবেশী তার মেয়েকে আনতে গেলে দেখেন আমার মেয়ে কান্নাকাটি করছে। তাকে বাড়ি নিয়ে আসলে মেয়ে আমার স্ত্রীকে জানায়, মাদ্রাসায় যাওয়ার ২০ মিনিট পর পাঁচতলার একটি কক্ষে নিয়ে রাকিবুল ধর্ষণের চেষ্টা করে। সে পালিয়ে বের হয়। ঘটনা শুনেই আমি ৯৯৯ এ কল দিয়ে পুলিশকে জানাই।’

বন্দর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দিপক চন্দ্র সাহা জানান, গত রাতে ৯৯৯ নাম্বারে ফোন করে ওই ব্যক্তি ঘটনাটি জানান। পুলিশ গিয়ে ওই মাদ্রাসা থেকে রাকিবুলকে আটক করে। পরে তার নামে মামলা হয়।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় পথচারী আহত

এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় পথচারী আহত

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, সুজন নামে ওই পথচারী দুই পায়ে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত পেয়েছেন। আহতাবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় দুজনের প্রাণহানির রেশ কাটতে না কাটতেই এবার চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের গাড়ির ধাক্কায় এক পথচারী আহত হয়েছেন।

নগরীর দেওয়ানহাট সেতুর নিচে বুধবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতের নাম মো. সুজন, তবে তার বিস্তারিত পরিচয় পাওয়া যায়নি। তার আনুমানিক বয়স ৬০ বছর।

পাঁচলাইশ থানার পরিদর্শক (তদন্ত) সাদেকুর রহমান নিউজবাংলাকে জানান, সুজন নামে ওই পথচারী দুই পায়ে ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত পেয়েছেন। আহতাবস্থায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাকে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

সিটি করপোরেশনের গাড়িটি সড়কবাতি সংস্কারের কাজে নিয়োজিত ছিল বলেও জানান তিনি।

নিরাপদ সড়ক আন্দোলন নিয়ে এমনিতেই এখন উত্তাল দেশ। ঘটনার শুরু গত ২৪ নভেম্বর রাজধানীর গুলিস্তানে হল মার্কেটের কাছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নটর ডেম কলেজের নাঈম হাসান নামে এক শিক্ষার্থীর মৃত্যুতে।

সেই ঘটনার বিচার দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মধ্যেই ২৫ নভেম্বর ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় প্রাণ যায় আহসান কবির খান নামে আরেক ব্যক্তির।

এরপর নিরাপদ সড়কের দাবিতে সড়কে নামে শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন সংগঠন। এর মধ্যেই আজ দেশের দ্বিতীয় প্রধান নগরীতে সরকারি প্রতিষ্ঠানের গাড়ির ধাক্কায় আহত হলেন একজন।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

বহুতল ভবন থেকে পড়ে প্রাণ গেল শ্রমিকের

বহুতল ভবন থেকে পড়ে প্রাণ গেল শ্রমিকের

চট্টগ্রামে বহুতল ভবন থেকে পড়ে নিহত রিয়াদ হোসাইন রনি। ছবি: নিউজবাংলা

রনির বড় ভাই কাইছার হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, বেলা ১১টার দিকে চুনতি এলাকায় পাঁচতলা একটি ভবনে রঙের কাজ করার সময় নিচে পড়ে আহত হন রনি। তাকে উদ্ধার করে পরে আমিরাবাদের একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চট্টগ্রামের লোহাগাড়ায় বহুতল ভবন থেকে পড়ে রিয়াদ হোসাইন রনি নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার চুনতি এলাকায় বুধবার বেলা ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ২২ বছরের রনির বাড়ি একই উপজেলার আমিরাবাদ এলাকায়।

রনির বড় ভাই কাইছার হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, বেলা ১১টার দিকে চুনতি এলাকায় পাঁচতলা একটি ভবনে রঙের কাজ করার সময় নিচে পড়ে আহত হন রনি। তাকে উদ্ধার করে পরে আমিরাবাদের একটি ক্লিনিকে নিয়ে গেলে চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত রনির বন্ধু আব্দুর রহিম বলেন, ‘পারিবারিক অভাব-অনটনের কারণে পড়াশোনা বন্ধ করে রনি রঙের কাজ করত। চলতি মাসে তার দুবাই চলে যাওয়ার কথা ছিল। সব কিছু সম্পন্ন হয়েছে, শুধু ফ্লাইটের তারিখ ফিক্সড হয়নি। এর মধ্যেই এই দুর্ঘটনা ঘটে গেল।’

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকির হোসেন নিউজবাংলাকে জানান, তারা এমন কোনো তথ্য পাননি। নিহতের পরিবার থেকেও তাদের কিছু জানানো হয়নি।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

বাঁশখালীতে ফের মৃত হাতি

বাঁশখালীতে ফের মৃত হাতি

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে আবারও মিলল মৃত হাতি। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একদল লোক ওই হাতিকে মাটিচাপা দিচ্ছিল। সেই খবর পেয়ে বনবিভাগের লোকজন সেখানে যায়। মাটি খুঁড়ে হাতির মৃতদেহটি তোলা হয়। তবে কাউকে সেখানে পাওয়া যায়নি।’ 

চট্টগ্রামের বাঁশখালীর পাহাড়ি এলাকা থেকে আবারও একটি মৃত বন্যহাতি উদ্ধার করেছে বনবিভাগ।

বাঁশখালীর সাধনপুর ইউনিয়নের লটমনি এলাকা থেকে মঙ্গলবার দুপুরে হাতির মৃতদেহটি পাওয়া গেলে বুধবার বিকালে তা সংবাদমাধ্যমকে জানান বনবিভাগ কর্মকর্তারা।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ বন বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একদল লোক ওই হাতিকে মাটিচাপা দিচ্ছিল। সেই খবর পেয়ে বনবিভাগের লোকজন সেখানে যায়। মাটি খুঁড়ে হাতির মৃতদেহটি তোলা হয়। তবে কাউকে সেখানে পাওয়া যায়নি।

‘হাতিটির শরীরের আঘাতে চিহ্ন নেই। প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, বৈদ্যুতিক ফাঁদ ব্যবহার করে মেরে ফেলা হয়েছে। এরপর বিষয়টি গোপন করার জন্য মাটিতে পুতে ফেলা হচ্ছিল।’

হাতিটি মাঝবয়সী বলে জানান এই কর্মকর্তা।

তিনি আরও জানান, ময়নাতদন্তের জন্য আলামত রেখে মৃতদেহটি মাটিচাপা দেয়া হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য ডুলাহাজরা সাফারি পার্ক থেকে চিকিৎসক আনা হয়েছে।

বন কর্মকর্তা বলেন, ‘সাধনপুর বিট কর্মকর্তা দেলোয়ার হোসেন এই ঘটনায় বাঁশখালী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। ময়নাতদন্ত রিপোর্টের পর আমরা পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা নেব।’

এই নভেম্বরেই শেরপুর, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজারে গুলিতে ও বিদ্যুতায়িত হয়ে ৮টি হাতি মারা গেছে।

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন

জাবিতে ভর্তি হতে ৪ লাখ টাকায় ‘চুক্তি’, সাক্ষাৎকারের সময় ধরা

জাবিতে ভর্তি হতে ৪ লাখ টাকায় ‘চুক্তি’, সাক্ষাৎকারের সময় ধরা

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্য পেয়ে কামালকে আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে (জাবি) ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষার জালিয়াতি করে ভর্তি হতে আসা এক শিক্ষার্থীকে আটক করা হয়েছে।

বুধবার বেলা ১১টার দিকে গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদে সাক্ষাৎকার দিতে আসা ওই শিক্ষার্থীকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

আটক শিক্ষার্থীর নাম মোস্তফা কামাল উৎস। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল সদর উপজেলার উত্তর তারুটিয়া গ্রামে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সুদীপ্ত শাহীন জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্য পেয়ে কামালকে আটক করা হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তিনি ভর্তি পরীক্ষায় জালিয়াতি করার বিষয়টি স্বীকার করেছেন।

জিজ্ঞাসাবাদে কামাল জানিয়েছেন, তার দুই বন্ধু চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ডি’ ইউনিটে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি হয়েছেন। তাদের মাধ্যমে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চতুর্থ বর্ষের শিক্ষার্থী মেহেদী এবং জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ১২ ব্যাচের শিক্ষার্থী শামীম নামে দুজনের খোঁজ পান।

তিনি আরও জানান, দুই বন্ধুর মাধ্যমে পরে মেহেদী ও শামীমের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। তাদের সঙ্গে ৪ লাখ টাকার বিনিময়ে জাবিতে চান্স পাইয়ে দেয়ার চুক্তি হয় তার। পরে তার প্রবেশপত্র নিয়ে আরেকজন জাবির গাণিতিক ও পদার্থবিষয়ক অনুষদের ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেন। পরীক্ষায় তার মেধাক্রম আসে ৩০০। পরে চুক্তি অনুযায়ী পুরো টাকা শোধ করেন তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ-উল-হাসান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আশুলিয়া থানায় মামলা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। পরে পুলিশ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে। এ ছাড়া জালিয়াতি চক্রের বাকি সদস্যদের আটক করার চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।’

আরও পড়ুন:
অস্ত্র মামলায় ৯ বছর পর আসামির কারাদণ্ড
স্ত্রী হত্যায় মৃত্যুদণ্ড
দিনমজুরকে হত্যায় আসামির যাবজ্জীবন
মাকে পিটিয়ে হত্যা করায় মৃত্যুদণ্ড
ধর্ষণচেষ্টার মামলায় এবার তার ৪০ বছর সাজা

শেয়ার করুন