গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় কুবিতে অনুপস্থিত ১১৪ জন

গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষায় কুবিতে অনুপস্থিত ১১৪ জন

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বি’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা

পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এমরান কবির চৌধুরী বলেন, ‘আমরা কড়া নিরাপত্তার আওতায় সব বিধি সম্পন্ন করে এবং সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করতে পেরেছি।’

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত হয়েছে ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বি’ ইউনিটের (মানবিক বিভাগ) গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা।

এক ঘণ্টার এই পরীক্ষা রোববার দুপুর ১২টায় শুরু হয়ে শেষ হয় দুপুর ১টায়। এই কেন্দ্রে ২ হাজার ৫০৫ পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ২ হাজার ৩৯১ জন। অনুপস্থিত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১১৪। উপস্থিতির হার প্রায় ৯৬ শতাংশ।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, পরীক্ষা শুরু হওয়ার ৭ এবং ২২ মিনিট পর দুইজন শিক্ষার্থী পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ মানবিক বিবেচনায় তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করার সুযোগ দেয়।

এ ছাড়া বিভিন্ন কারণে দেরিতে আসা শিক্ষার্থীদের সঠিক সময়ে হলে পৌঁছে দেয় বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের জয় বাংলা বাইক সার্ভিস।

এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের ফটক থেকেই বিভিন্ন আঞ্চলিক সংগঠন, রোভার, বিএনসিসি সার্বিক সহায়তা করেছে।

পরীক্ষা দিতে আসা শিক্ষার্থী উম্মে হানি বলেন, ‘পরীক্ষা দিতে এসে কোনো ধরনের সমস্যা হয়নি। স্বাস্থ্যবিধি মেনে সঠিকভাবে পরীক্ষা দিতে পেরেছি এবং সকলেই সহযোগিতাপূর্ণ আচরণ করেছে।’

মো. মোস্তফা নামের এক অভিভাবক বলেন, ‘পরীক্ষা দিতে আসার পর কোনো প্রতিবন্ধকতা আসেনি। সবকিছু ঠিক ছিল।’

পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হওয়ার বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এমরান কবির চৌধুরী বলেন, ‘আমরা কড়া নিরাপত্তার আওতায় সব বিধি সম্পন্ন করে এবং সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করতে পেরেছি।’

‘বি’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা কমিটির আহ্বায়ক এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক এম এম শরীফুল করীম বলেন, “সবার সার্বিক সহযোগিতায় আমরা ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষা সুষ্ঠভাবে শেষ করতে পেরেছি।”

দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবারই প্রথম গুচ্ছভুক্ত হয়ে ভর্তি পরীক্ষা নিচ্ছে। এতে বিজ্ঞান, মানবিক ও বাণিজ্য বিভাগ মিলিয়ে আসন রয়েছে ২২ হাজার ১৩টি। এর বিপরীতে আবেদন করেছেন ২ লাখ ৩২ হাজার ৪৫৫ জন শিক্ষার্থী।

এর মধ্যে ‘এ’ ইউনিটে ১ লাখ ৩১ হাজার ৯০১ জন, ‘বি’ ইউনিটে ৬৭ হাজার ১১৭ জন এবং ‘সি’ ইউনিটে ৩৩ হাজার ৪৩৭ শিক্ষার্থী আবেদন করেছেন।

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

মন্তব্য

ডেমু-বাস-অটোরিকশার সংঘর্ষ: বাস চালকের বিরুদ্ধে মামলা

ডেমু-বাস-অটোরিকশার সংঘর্ষ: বাস চালকের বিরুদ্ধে মামলা

খুলশীতে শনিবার ডেমু,বাস ও অটোরিকশার সংঘর্ষে তিনজন নিহত হয়েছেন। ছবি: নিউজবাংলা

রেলওয়ে থানার ওসি নাজিম উদ্দীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুযায়ী বাসটি দ্রুতগতিতে এসে দাড়িয়ে থাকা সিএনজি চালিত অটোরিকশার পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে বাস ও অটোরিকশা রেললাইনের উপর উঠে যায়। তাই মামলার একমাত্র আসামি বাসচালক। তবে তাকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি।’

চট্টগ্রাম নগরের খুলশীতে ডেমু ট্রেন, বাস ও সিএনজিচালিত অটোরিকশার সংঘর্ষে তিনজন নিহতের ঘটনায় বাস চালকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

শনিবার রাতে চট্টগ্রাম রেলওয়ে থানায় উপপরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম বাদী হয়ে মামলাটি করেন।

মামলায় বাস চালককে আসামি করা হলেও তাকে এখনও চিহ্নিত করতে পারেনি পুলিশ।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজিম উদ্দীন নিউজবাংলাকে বলেন, ‘প্রত্যক্ষদর্শীদের বর্ণনা অনুযায়ী বাসটি দ্রুতগতিতে এসে দাড়িয়ে থাকা সিএনজি চালিত অটোরিকশার পেছনে ধাক্কা দেয়। এতে বাস ও অটোরিকশা রেললাইনের উপর উঠে যায়। তাই মামলার একমাত্র আসামি বাসচালক। তবে তাকে এখনও চিহ্নিত করা যায়নি।’

এর আগে শনিবার দুপুরে রেলওয়ে পুলিশের চট্টগ্রামের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আব্দুল গফুরকে প্রধান করে এ সংঘর্ষের ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

রেলওয়ে পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সদর) ও চট্টগ্রামের রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কমকর্তাকেও তদন্ত কমিটির সদস্য করা হয়েছে।

তদন্ত কমিটিকে তিন কর্ম দিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

এ বিষয়ে রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, ‘এ ঘটনায় গেটম্যানের কোনো অবহেলা থাকলে তার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে নগরের ঝাউতলা এলাকায় ডেমু ট্রেন, বাস ও অটোরিকশার সংঘর্ষে ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবলসহ তিনজন নিহত হন। এতে আহত হন অন্তত ছয়জন।

নিহতরা হলেন চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের ট্রাফিক উত্তর বিভাগের কনস্টেবল মনির হোসেন। তার বাড়ি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে। বাকি দুজন নগরীর হামজারবাগ এলাকার সৈয়দ বাহাউদ্দিন আহমেদ ও পাহাড়তলী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছাত্র সাতরাজ উদ্দিন।

দুর্ঘটনার পরই স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি নাজিম উদ্দিন জানান, একটি ডেমু ট্রেন ষোলশহর থেকে চট্টগ্রাম স্টেশনে যাচ্ছিল। এ সময় জাকির হোসেন রোডের ওই লেভেল ক্রসিংয়ের দুই দিকের গেট আটকানো ছিল।

তবে এর মধ্যেও একটি অটোরিকশা উল্টোপথে লাইন অতিক্রম করার চেষ্টা করে। এর পেছনে একটি বাসও লাইনের ওপর উঠে যায়। এসময় ট্রেনটি বাস ও অটোরিকশাকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই সৈয়দ বাহাউদ্দিন আহমেদের মৃত্যু হয়।

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

বিদেশি সিগারেটসহ চীনা নাগরিক আটক

বিদেশি সিগারেটসহ চীনা নাগরিক আটক

কোস্টগার্ড পূর্বজোনের মিডিয়া কর্মকর্তা আব্দুর রউফ জানান, স্টেশন কামান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম উর হকের নেতৃত্বে শাহপরীর দ্বীপের সমুদ্র এলাকায় একটি ট্রলারে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ১০ হাজার ৮৪০ প্যাকেট ব্ল্যাক ব্র্যান্ডের সিগারেটগুলো উদ্ধার করা হয়। এ সময় চীনা নাগরিক ইয়াপেংকে আটক করা হয়।

কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্ত এলাকা থেকে অনুমোদনহীন বিদেশি সিগারেটসহ এক চীনা নাগরিককে আটক করেছে কোস্ট গার্ড।

রোববার বেলা ১১টার দিকে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়।

নিউজবাংলাকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কোস্টগার্ড পূর্বজোনের মিডিয়া কর্মকর্তা আব্দুর রউফ।

তিনি জানান, বিসিজি স্টেশন কামান্ডার লেফটেন্যান্ট কমান্ডার নাঈম উর হকের নেতৃত্বে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শাহপরীর দ্বীপের সমুদ্র এলাকায় একটি ট্রলারে অভিযান চালানো হয়। এ সময় ১০ হাজার ৮৪০ প্যাকেট ব্ল্যাক ব্র্যান্ডের সিগারেটগুলো উদ্ধার করা হয়। এ সময় চীনা নাগরিক ইয়াপেংকে আটক করা হয়।

মিডিয়া কর্মকর্তা আব্দুর রউফ বলেন, আটক চীনা নাগরিকের বিরুদ্ধে পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা শেষে টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হবে।

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

সাতরাজ নিহতের ঘটনায় বিচারের দাবি শিক্ষার্থীদের

সাতরাজ নিহতের ঘটনায় বিচারের দাবি শিক্ষার্থীদের

সাতরাজ নিহতের ঘটনায় বিচারের দাবি জানায় শিক্ষার্থীরা। ছবি: নিউজবাংলা

খুলশী থানার ওসি শাহিনুজ্জামান শাহিন বলেন, ‘কয়েকজন শিক্ষার্থী তাদের কিছু দাবি নিয়ে সড়কের এক পাশে অবস্থান নিয়েছে ৷ যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।’

চট্টগ্রামের খুলশীতে রেল দুর্ঘটনায় এইচএসসি পরীক্ষার্থী সাতরাজ উদ্দিন নিহতের ঘটনায় বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল করেছেন শিক্ষার্থীরা।

নগরীর ওয়ারলেসে রোববার বেলা ১১টার দিকে মিছিলটি শুরু হয়ে দুর্ঘটনাস্থল ঝাউতলায় এসে সমাবেশ করেন তারা।

সমাবেশে সাতরাজকে হত্যা করা হয়েছে দাবি করে দোষীদের বিচার ও নিরাপদ সড়কের দাবিতে তারা স্লোগান দেন।

এ সময় সাতরাজের সহপাঠী পার্থ সারথী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘একটার পর একটা খুন হচ্ছে সড়কে। এর সর্বশেষ শিকার সাতরাজ উদ্দিন। এটি নিছক দুর্ঘটনা নয়, এটি হত্যা। বাসের চালক ও হেলপারদের অবহেলায় তাকে মরতে হয়েছে৷ আমরা দোষীদের বিচার ও নিরাপদ সড়ক চাই।’

মো. আফিফ নামে পাহাড়তলী কলেজের এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘সিসিটিভি ফুটেজে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে যে, বাস দ্রুতগতিতে অটোরিকশাকে ধাক্কা দিয়ে সেটি সঙ্গে নিয়ে চলন্ত ট্রেনকে ধাক্কা দিয়েছে। এর দায় বাসচালকের। ওরা সড়কে যাচ্ছেতাই করে, কেউ দেখার নেই। সাতরাজসহ এখন পর্যন্ত সড়কে যারা খুন হয়েছে, আমরা সবার বিচার দাবি করছি।’

খুলশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি শাহিনুজ্জামান শাহিন বলেন, ‘কয়েকজন শিক্ষার্থী তাদের কিছু দাবি নিয়ে সড়কের এক পাশে অবস্থান নিয়েছে৷ যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।’

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

ভোটে হেরে নৌকা মার্কার বিরুদ্ধে আ.লীগ প্রার্থী

ভোটে হেরে নৌকা মার্কার বিরুদ্ধে আ.লীগ প্রার্থী

মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আড়িয়ল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দ্বীন ইসলাম শেখ।

আওয়ামী লীগ সভাপতি হাফিজ আল আসাদ বারেক বলেন, ‘অনেক নেতা-কর্মী আমার কাছে ভিডিওটি পাঠাচ্ছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে এমন কথা বলা আমাদের জন্য অত্যন্ত কষ্টদায়ক। তিনি আমাদের দলীয় প্রতীক নিয়ে কটূক্তি করেছেন। আমি আশা করি উনি এ বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইবেন।’

‘আগামীতে মনোনয়ন লাগব না। ভোটও চাওয়া লাগবে না। এমনি পাস করুম। যদি পিছা মার্কা থাকে তবে পিছা মার্কা আনুম, নৌকা মার্কা আনুম না। নৌকা মার্কা না আনলে আমরা পাস করব নিশ্চিত।’

নির্বাচনে পরাজয়ের পর এক সভায় এই বক্তব্য দিয়েছেন মুন্সীগঞ্জের টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আড়িয়ল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী দ্বীন ইসলাম শেখ। তিনি আড়িয়ল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

অনুষ্ঠানে দেয়া তার বক্তব্যের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে এরই মধ্যে। এ নিয়ে স্থানীয় নেতা-কর্মীদের মধ্যে তৈরি হয়েছে তীব্র প্রতিক্রিয়া।

ভিডিওতে তাকে নির্বাচনে পরাজয়ের কারণ সম্পর্কেও বলতে শোনা গেছে। তিনি বলেন, ‘ভোট যা হইছে বাদ, আজকা থেকে পেছনে কী হইছে সেটা দেখব না। আমি আশাবাদী মানুষ, আমি খালি সামনে দেখি। সামনে দেখব এগিয়ে যাব। আজকে আমরা চেয়ারম্যান হাইরা গিয়া মন খারাপ করছে অনেকে। ভাগ্য থাকলে তো আগামীবার উপজেলাও করতে পারি, কী বলেন?

‘চেয়ারম্যানি নিয়া চিন্তা করার কিছু নাই। চাইলে আল্লাহরেও পাওয়া যায়, এটা তো চেয়ারম্যানই। এবারও পারতাম, তয় দুই-চারটা মরতো হয়তো। এ জন্য করি নাই।’

এই বক্তব্য প্রসঙ্গে দ্বীন ইসলাম শেখ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমাদের ইউনিয়ন থেকে ১০ জন নৌকা চাইছিলাম। আমি নৌকা পাওয়ার পর বাকি ৯ জনই আমার বিপক্ষে কাজ করেছে। একজন বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল। সবাই মিলে আমাকে অনেকটা ঘরবন্দি করে রাখছিল। আমার ভাগনেকে মারধর করা হয়েছিল।

‘স্থানীয় নেতা-কর্মীরা ও উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মী কেউ আমাকে সহযোগিতা করেনি। প্রশাসন থেকেও অসহযোগিতা করা হয়েছে। নৌকার বিপক্ষে কাজ করা নেতা-কর্মীদের বিষয়ে জেলার নেতাদের কাছে লিখিত অভিযোগ করেছিলাম। মনের কষ্টে কথা তাই বলেছি।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কবির হালদার নিউজবাংলাকে বলেন, নির্বাচনে পাস-ফেল থাকবে। তবে তার এ বক্তব্য কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য না। দলকে অবমাননা করা হয়েছে। এ বিষয়ে সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি হাফিজ আল আসাদ বারেক বলেন, ‘অনেক নেতা-কর্মী আমার কাছে ভিডিওটি পাঠাচ্ছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে এমন কথা বলা আমাদের জন্য অত্যন্ত কষ্টদায়ক। তিনি আমাদের দলীয় প্রতীক নিয়ে কটূক্তি করেছেন। আমি আশা করি উনি এ বক্তব্যের জন্য ক্ষমা চাইবেন। এ বিষয়ে নেতাদের থেকে যে সিদ্ধান্ত আসবে, সে অনুযায়ী সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

গত ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে টঙ্গীবাড়ী উপজেলার আড়িয়ল ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বিজয়ী হন আনারস প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী কাদির হাওলাদার। পরাজিত হন দ্বীন ইসলাম শেখ।

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

তালা ভেঙে দোকানে চুরির অভিযোগ

তালা ভেঙে দোকানে চুরির অভিযোগ

কালকিনিতে দোকানের তালা ভেঙ্গে চুরির ঘটনার অভিযোগ উঠেছে।ছবি: নিউজবাংলা

কালকিনি থানার ওসি (তদন্ত) নাসির হোসেন বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। চুরির বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। আইনগত উপায়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

মাদারীপুরের কালকিনিতে ইলেকট্রনিকস পণ্যের একটি দোকানে তালা ভেঙে চুরির অভিযোগ উঠেছে।

উপজেলার কুন্ডুবাড়ি নামক স্থানে শনিবার মধ্যরাতে এ ঘটনা ঘটে।

এ সময় তারা ওই দোকান থেকে প্রায় ৬ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে গেছে বলে জানা যায়।

খবর পেয়ে রোববার সকালে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

তালা ভেঙে দোকানে চুরির অভিযোগ

দোকান মালিকের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, পৌর এলাকার পূয়ালী মাদারীপুর গ্রামের হাবিবুর রহমান মুন্সি অনেক দিন ধরেই ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের পাশে ‘মক্কা ট্রেডার্স’ নামের একটি দোকান দিয়ে ব্যবসা পরিচালনা করে আসছিলেন। শনিবার মধ্যরাতে ৭ থেকে ৮ জনের একটি চক্র তার দোকান থেকে ১৯০টি এলপি গ্যাস, ১টি আইপিএস ব্যাটারি, ৩টি ক্যামেরা ও নগদ ৪৮ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে গেছে।

দোকানের মালিক হাবিবুর রহমান মুন্সি বলেন, ‘অনেক কষ্ট করে এই ব্যবসা গড়ে তুলেছিলাম। কিন্তু চোররা আমার সর্বনাশ করেছে। তাদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে মালামাল উদ্ধার করতে পুলিশ ও প্রশাসনের কাছে জোর দাবি জানাচ্ছি।’

কালকিনি থানার ওসি (তদন্ত) নাসির হোসেন বলেন, ‘আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। চুরির বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। আইনগত উপায়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

এমপির সামনে ‘লাঞ্ছিত’ ব্যাংক কর্মকর্তা: প্রতিবাদে মানববন্ধন

এমপির সামনে ‘লাঞ্ছিত’ ব্যাংক কর্মকর্তা: প্রতিবাদে মানববন্ধন

সোনালী ব্যাংক পলাশবাড়ি শাখার অফিসার মকবুল হোসেন বলেন, ‘সোনালী ব্যাংক পলাশবাড়ি শাখার ম্যানেজার রওশন জামিলকে গালিগালাজ করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোকসেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় ইউএনও কামরুজ্জামান নয়নকেও অপদস্ত করা হয়। স্থানীয় এমপির উপস্থিতিতে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় চেয়ারম্যানের এমন কর্মকাণ্ড মেনে নেয়া যায় না।’

গাইবান্ধা-৩ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) ও কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক উম্মে কুলসুম স্মৃতির উপস্থিতিতে এক ব্যাংক কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত এবং ইউএনওকে অপদস্ত করার অভিযোগ এনে মানববন্ধন করা হয়েছে।

পলাশবাড়ি উপজেলার সোনালী ব্যাংক লিমিটেড কার্যালয়ের সামনে রোববার সকালে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

এ সময় সোনালী ব্যাংক পলাশবাড়ি শাখার অফিসার মকবুল হোসেন বলেন, ‘সোনালী ব্যাংক পলাশবাড়ি শাখার ম্যানেজার রওশন জামিলকে গালিগালাজ করেছেন উপজেলা চেয়ারম্যান মোকসেদ চৌধুরী বিদ্যুৎ। এ ঘটনার প্রতিবাদ করায় ইউএনও কামরুজ্জামান নয়নকেও অপদস্ত করা হয়।

‘স্থানীয় এমপির উপস্থিতিতে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভায় চেয়ারম্যানের এমন কর্মকাণ্ড মেনে নেয়া যায় না। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘এ ঘটনায় যদি উপজেলা চেয়ারম্যানকে শাস্তির আওতায় না আনা হয়, তাহলে আগামীতে কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি দেয়া হবে।’

ব্যাংক কর্মকর্তা মকবুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন পলাশবাড়ি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি শহীদুল ইসলাম বাদশা, সোনালী ব্যাংক গাইবান্ধা শাখার ম্যানেজার ছাবিনা ইয়াসমিন ছন্দা, সোনালী ব্যাংক কর্মকর্তা শান্তনা ও আইটি অফিসার এ টি এম আরিফুজ্জামান মণ্ডলসহ অনেকে।

এ সময় গ্রাহকদের মধ্যে হযরত আলী, খয়রাজ্জামান, ইব্রাহিম মিয়া, সেলিম মিয়া, রহিমা বেগম, রাবেয়া বেগম, মমতা বেগমসহ প্রায় অর্ধশতাধিক গ্রাহক অংশ নেন।

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন

যুবলীগ নেতা টিটু হত্যা মামলা: প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

যুবলীগ নেতা টিটু হত্যা মামলা: প্রধান আসামি গ্রেপ্তার

পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম বলেন, শুক্রবার রাতে রাজধানীর দারুস সালাম থানা এলাকা থেকে জামাল উদ্দিন চকেটকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে আদালতে তুলে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

ভোলার মেঘনায় যুবলীগ নেতা খোরশেদ আলম টিটু হত্যা মামলার প্রধান আসামিকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে পুলিশ। এ নিয়ে হত্যা মামলায় দুজনকে গ্রেপ্তার করা হলো।

রোববার সকালে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সাইফুল ইসলাম।

তিনি বলেন, শুক্রবার রাতে রাজধানীর দারুস সালাম থানা এলাকা থেকে জামাল উদ্দিন চকেটকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে আদালতে তুলে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়েছে।

গত ২৬ নভেম্বর বিকেলে দৌলতখানের মদনপুর ইউনিয়ন থেকে খেয়া ট্রলারে ভোলা সদরে ফেরার পথে সন্ত্রাসীদের গুলিতে নিহত হন সদর উপজেলার ধনিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম টিটু।

এ ঘটনায় টিটুর ভাই হানিফ ভুট্টো বাদী হয়ে সদর থানায় ১৬ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

আরও পড়ুন:
গুচ্ছ পদ্ধতির ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা শুরু
শেষ হলো ‘এ’ ইউনিটের গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা
গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষায় বসছেন লাখো শিক্ষার্থী
গুচ্ছ ভর্তি পরীক্ষা: শাবি ও খুলনায় ১২ হাজার শিক্ষার্থী
গোপালগঞ্জে ব‌শেমুর‌বিপ্র‌বিতে গুচ্ছ ভ‌র্তি পরীক্ষা রোববার

শেয়ার করুন