জুস পান করে অজ্ঞান দুই শিশু

player
জুস পান করে অজ্ঞান দুই শিশু

অচেনা ব্যক্তির দেয়া জুস পান করে অজ্ঞান দুই শিশুর ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। ছবি: নিউজবাংলা

মোহাম্মদ হাসান বলেন, ‘আমি যখন ঘটনাস্থল থেকে শিশুদেরকে কোলে তুলে নিয়ে বলি বাবা তোদের কী হয়েছে। তখন জিলানি আস্তে আস্তে বলেছিল, দুই লোক আমাদেরকে ঠান্ডা জুস খাওয়াইসে।’

রাজধানীর খিলগাঁও বনশ্রী এলাকায় অপরিচিত ব্যক্তির দেয়া জুস পান করে জ্ঞান হারিয়েছে দুই শিশু। তারা এখন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। স্বজনরা বলছেন, শিশু দুটি অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছিল।

শুক্রবার রাত ৮টার দিকে এ ঘটনা ঘটে বলে নিউজবাংলাকে জানান দুই শিশু মোহাম্মদ জিলানি ও মোহাম্মদ সাব্বির হোসেনের স্বজনরা।

অচেতন অবস্থায় শিশুদের উদ্ধার করে রাতেই ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসা হয়। দুজনকেই শিশু ওয়ার্ডে ভর্তি করে দেন চিকিৎসকেরা। শনিবার ভোর পর্যন্ত তাদের জ্ঞান ফেরেনি।

জিলানির বাবা মোহাম্মদ হাসান বলেন, ‘আমি দিনমজুরের কাজ করি। কাজ শেষে বাসায় আসি। এর কিছুক্ষণ পর এলাকার দুই শিশু এসে বলেন, আপনারা তাড়াতাড়ি আসেন সাব্বির ও জিলানি বনশ্রী ভূঁইয়া পাড়া এলাকায় রাস্তার ওপর অচেতন হয়ে পড়ে আছে। সঙ্গে সঙ্গে আমি জিলানির মা তাদের দুজনকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল জরুরি বিভাগে নিয়ে আসি।’

হাসান বলেন, ‘আমি যখন ঘটনাস্থল থেকে শিশুদেরকে কোলে তুলে নিয়ে বলি বাবা তোদের কী হয়েছে। তখন জিলানি আস্তে আস্তে বলেছিল, দুই লোক আমাদেরকে ঠান্ডা জুস খাওয়াইসে।’

শিশু দুটি খিলগাঁও বনশ্রী ভূইয়াপাড়া একটি টিনশেড বাড়িতে পরিবারের সঙ্গে থাকেন। শিশু সাব্বিরের বাবা কুতুবউদ্দিন একটি ফার্নিচার দোকানে বার্নিশের কাজ করেন।

জিলানীর বাবা হাসান বলেন, ‘আমার ক্ষুদ্র ধারণা বলে, এই দুই শিশুকে অপহরণ করার প্ল্যান ছিল। তারা ওদেরকে জিম্মি করে আমাদের কাছে টাকা চাইত। লোকজন ভিড় জমায় তাদেরকে নিয়ে যেতে পারেনি।’

কান্নাজড়িত কণ্ঠে তিনি বলেন, ‘কী অপরাধ করেছিল আমার এই অবুঝ শিশু। কেনইবা অজ্ঞান পার্টির লোকেরা আমার ছেলেকে ঠান্ডা জুস খাওয়ানো হয়েছে। ওদের উদ্দেশ্য কী ছিল বুঝে উঠতে পারছিনা।’

ঢামেক পুলিশ ক্যাম্প ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া জানান, দুই শিশুকে অজ্ঞান অবস্থায় তাদের বাবা-মা হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তাদের চিকিৎসা চলছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানাকে অবগত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

মন্তব্য

সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় আবার মৃত্যু

সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় আবার মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে পুলিশ জানায়, শিখা রানী মহাখালী ফ্লাইওভারের ওপরে রাস্তা ঝাড়ু দিচ্ছিলেন। এ সময় একটা ময়লার গাড়ি বেপরোয়া গতিতে এসে তাকে চাপা দেয়। তার মাথা ফেটে যায়। সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাজধানীর মহাখালীতে সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় ফের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে। এবার প্রাণ গেছে শিখা রানী নামে এক পরিচ্ছন্নতাকর্মীর।

মহাখালীর ফ্লাইওভারের মুখে শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে ঝাড়ু দেয়ার সময় একটি ময়লার গাড়িতে চাপা পড়েন শিখা রানী। তিনি ডিএনসিসির পরিচ্ছন্নতাকর্মী বলে জানা গেলেও ময়লার গাড়িটি কোন সিটি করপোরেশনের ছিল তা জানা যায়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে পুলিশ জানায়, শিখা রানী মহাখালী ফ্লাইওভারের ওপরে রাস্তা ঝাড়ু দিচ্ছিলেন। এ সময় একটা ময়লার গাড়ি বেপরোয়া গতিতে এসে তাকে চাপা দেয়। তার মাথা ফেটে যায়। সোহরাওয়ার্দী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তেজগাঁও থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শাহ আলম নিউজবাংলাকে বলেন, এ ঘটনায় অজ্ঞাত চালককে আসামি করে মামলা হয়েছে। চালককে গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে। ময়নাতদন্তের জন্য শিখা রানীর মরদেহ শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে রাখা হয়েছে।

গত কয়েক মাসে রাজধানীর দুই সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির চাপায় কয়েকজনের প্রাণ গেছে।

গত ২৩ ডিসেম্বর ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) ময়লার গাড়ির ধাক্কায় স্বপন কুমার সরকার নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়। ৬২ বছর বয়সী স্বপন কুমার থাকতেন গেণ্ডারিয়ায়। তার গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগরে।

এর আগে ২৪ নভেম্বর রাজধানীর গুলিস্তান এলাকায় ডিএসসিসির এক ময়লার গাড়ির ধাক্কায় নাঈম হাসান নামের নটর ডেমের এক শিক্ষার্থী নিহত হন।

পরের দিনই ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের এক ময়লার গাড়ির ধাক্কায় বসুন্ধরা সিটি কমপ্লেক্সের উল্টো পাশে প্রাণ যায় আহসান কবির খানের। তিনি একটি জাতীয় দৈনিকের সাবেক কর্মী ছিলেন।

২ ডিসেম্বর উত্তর সিটি করপোরেশনেরই এক ময়লার গাড়ি যাত্রীবাহী একটি বাসকে ধাক্কা দিলে আরজু বেগম নামের ৬৫ বছর বয়সী এক বৃদ্ধা আহত হন।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

সেন্টমার্টিন বাসের চালক রিমান্ডে, সহকারী কারাগারে

সেন্টমার্টিন বাসের চালক রিমান্ডে, সহকারী কারাগারে

শনিবার দেলোয়ার হোসেনকে এবং কোরবান আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ছবি: নিউজবাংলা

শনিবার মানিকগঞ্জ সদর থানার চিকারঘোনা থেকে দেলোয়ার হোসেনকে এবং যাত্রাবাড়ী থানার মীরহাজিরবাগ থেকে কোরবান আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

রাজধানীর মাতুয়াইলে সেন্টমার্টিন পরিবহনের বাসের ধাক্কায় সিএনজিচালিত অটোরিকশার তিন যাত্রী নিহতের মামলায় বাসের চালক দেলোয়ার হোসেন দিনারকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে এক দিনের হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

ঢাকার মহানগর হাকিম তরিকুল ইসলাম রোববার শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। আদালত একই সঙ্গে বাসটির চালকের সহকারী কোরবান আলীর রিমান্ড আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে।

এদিন যাত্রাবাড়ী থানায় করা মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের উপপরিদর্শক বিশ্বজিৎ সরকার দুই আসামিকে আদালতে হাজির করে প্রত্যেককে তদন্তের স্বার্থে পাঁচ দিন করে হেফাজতে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের আবেদন করেন।

দেলোয়ারের পক্ষে আইনজীবী মারুফ বিল্লাহ রহিম এবং কোরবান আলীর পক্ষে মোহাম্মদ নাসির উদ্দিন মুন্সী রিমান্ড বাতিল চেয়ে জামিন আবেদন করেন। রাষ্ট্রপক্ষ থেকে এর বিরোধিতা করা হয়।

উভয়পক্ষের শুনানি শেষে আদালত দেলোয়ারের এক দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। আর কোরবান আলীর রিমান্ড ও জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়।

যাত্রাবাড়ী থানার আদালতের সাধারণ নিবন্ধন শাখার কর্মকর্তা পুলিশের পরিদর্শক শাহ আলম এসব তথ্য নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন।

এর আগে শনিবার মানিকগঞ্জ সদর থানার চিকারঘোনা থেকে দেলোয়ার হোসেনকে এবং যাত্রাবাড়ী থানার মীরহাজিরবাগ থেকে কোরবান আলীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

মামলা সূত্রে জানা যায়, ২১ জানুয়ারি সকাল সোয়া ৭টার দিকে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে গুরুতর আহত হন আব্দুর রহমান বেপারী, তার মেয়ে ৩৮ বছর বয়সী শারমিন আক্তার এবং জামাতা ৪০ বছর বয়সী রিয়াজুল ইসলাম।

আহতদের উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) জরুরি বিভাগে নেয় পুলিশ। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন। শারমিনের মেয়ে বৃষ্টি এবং সিএনজিচালক রফিকুল ইসলাম গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

এ ঘটনায় আব্দুর রহমান বেপারীর ছেলে নজরুল ইসলাম ওই দিনই যাত্রাবাড়ী থানায় মামলা করেন।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

বারিধারায় ভবনে অগ্নিকাণ্ড

বারিধারায় ভবনে অগ্নিকাণ্ড

বারিধারায় বহুতল ভবনে রোববার বিকেলে আগুন লেগেছে। ছবি: নিউজবাংলা

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

রাজধানীর বারিধারায় একটি বহুতল ভবনে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে।

রোববার বিকেল ৪টা ২৪ মিনিটে বারিধারার জে ব্লকের পাঁচ নম্বর রোডের ওই ভবনে পাঁচ ও ছয়তলায় ভিট্রা ফার্নিচারের শোরুমে আগুন লাগে।

খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ইউনিট ঘটনাস্থলে পৌঁছে সাড়ে ৫টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। তাৎক্ষণিকভাবে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের মিডিয়া সেলের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শাহজাহান শিকদার এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘ওই ভবনে ফার্নিচারের শোরুমে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। ছয়টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে।’

কী কারণে অগ্নিকাণ্ড তা তাৎক্ষণিকভাবে জানাতে পারেননি তিনি।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

পল্লবীর ওসির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন খারিজ

পল্লবীর ওসির বিরুদ্ধে মামলার আবেদন খারিজ

রাজধানীর পল্লবী থানা। ছবি: সংগৃহীত

অভিযোগে বলা হয়, ওসি পারভেজ ইসলামের নেতৃত্বে আসামিরা বাদীর ঘরের মালামাল তছনছ এবং শাড়ি, টাকা, স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। এতে বাদীর ১২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়। বাদীকে না পেয়ে পুলিশ তার ভাই দুলারাকে গ্রেপ্তার করে এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দেয়।

রাজধানীর পল্লবী থানার ওসির বিরুদ্ধে আসামির বাসা থেকে মালামাল লুটের অভিযোগ খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম তোফাজ্জল হোসেন রোববার এ আদেশ দেন।

মামলার বাদী পারভেজ আহম্মদ বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন।

ব্যবসায়ী পারভেজ আহম্মদ গত বৃহস্পতিবার পল্লবী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) পারভেজ ইসলামসহ ১৭ জনের বিরুদ্ধে মামলার জন্য আদালতে আবেদন করেন। আদালত বাদীর জবানবন্দি রেকর্ড করে রোববার আদেশের জন্য রাখেন।

আবেদন খারিজের আদেশে বিচারক বলেন, ‘আসামিদের সঙ্গে বাদীর পূর্বশত্রুতার তথ্য নালিশি দরখাস্তে উল্লেখ নেই। আসামিরা সরকারি দায়িত্ব পালন করছিলেন বলেই দেখা যায়। তাদের বিরুদ্ধে মামলায় সরকারি অনুমোদন নেই।

‘মাদক উদ্ধার অভিযান পরিচালনা ও বাদীর ভাইয়ের বিরুদ্ধে মামলার কারণে পুলিশের বিরুদ্ধে অভিযোগের সৃষ্টি। সার্বিক বিবেচনায় এ মামলা অগ্রসর হওয়ার কোনো কারণ নেই। ফৌজদারি কার্যবিধির ২০৩ ধারা মতে মামলাটি খারিজ করা হলো।’

পারভেজ আহম্মদ আবেদনে অভিযোগ করেন, গত বছর ৩১ অক্টোবর সন্ধ্যায় পরিবারসহ তিনি বিয়ের দাওয়াতে যান। রাত সাড়ে ১০টার পর তার পল্লবীর বাসা ও দোকানের চারদিকে পুলিশ অবস্থান নেয়।

রাত একটায় বাসায় ফিরে তিনি দেখতে পান বাসার সব মালামাল এলোমেলো। ঘরের বিভিন্ন গোপন স্থানে থাকা কাপড়, টাকা ও স্বর্ণালংকার লুট হয়েছে। পুলিশ সদস্যরা বাসার সিসিক্যামেরা ভাঙচুর করেছেন। এতে তার ১২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়।

পুলিশ তার ভাইকে ধরে নিয়ে যায় এবং মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পল্লবী থানায় মামলা দেয় বলে পারভেজ অভিযোগে উল্লেখ করেন।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

মাথায় পাইপ পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

মাথায় পাইপ পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

প্রতীকী ছবি

সহকর্মী সাইদুল ইসলাম জানান, একটি নির্মাণাধীন ভবনের পাইলিংয়ের কাজ করার সময় শফিকুলের মাথায় পাইপ পড়ে। পরে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ভবনের পাইলিং কাজ করার সময় দুর্ঘটনায় শফিকুল ইসলাম নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে।

রোববার সকাল ৯টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

সহকর্মী সাইদুল ইসলাম জানান, একটি নির্মাণাধীন ভবনের পাইলিংয়ের কাজ করার সময় শফিকুলের মাথায় পাইপ পড়লে গুরুতর জখম হন। উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

৩৫ বছর বয়সী শফিকুল দুই সন্তানের জনক। তার বাড়ি নেত্রকোণা সদর উপজেলার উত্তর কিশোর গ্রামে। নির্মাণশ্রমিক হিসেবে বেশ কিছুদিন ধরেই শফিকুল বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় কাজ করছিলেন।

হাসপাতালের পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া জানান, শফিকুলের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে রাখা হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

জন্মদিনে ‘বন্ধুদের দেয়া জুস খেয়ে’ কিশোরীর মৃত্যু

জন্মদিনে ‘বন্ধুদের দেয়া জুস খেয়ে’ কিশোরীর মৃত্যু

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল। ছবি: নিউজবাংলা

মোমোর মৃত্যুর জন্য তার বন্ধুদের দিকে আঙুল তুলছেন স্বজনরা। তাদের দাবি, শুক্রবার জন্মদিনে বন্ধুদের দেয়া জুস খেয়ে মোমোর বমি শুরু হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসার পর রোববার ভোরের দিকে চিকিৎসকরা মোমোকে মৃত ঘোষণা করেন।

রাজধানীর কামরাঙ্গীরচরে বন্ধুদের সঙ্গে নিজের জন্মদিন উদযাপনের পর হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন মরিয়ম আক্তার সুইটি ওরফে মোমো নামে এক কিশোরী। পরে হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।

মোমোর মৃত্যুর জন্য তার বন্ধুদের দিকে আঙুল তুলছেন স্বজনরা। তাদের দাবি, শুক্রবার জন্মদিনে বন্ধুদের দেয়া জুস খেয়ে মোমোর বমি শুরু হয়। পরে তাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসার পর রোববার ভোরের দিকে চিকিৎসকরা মোমোকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত ১৫ বছর বয়সী মোমো তার মা-বাবার একমাত্র মেয়ে ছিল। তাদের গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর উপজেলার গ্রামে। তিনি কামরাঙ্গীরচর মডার্ন উচ্চ বিদ্যালয় অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থী ছিলেন। পরিবারের সঙ্গে থাকতেন ওই এলাকার মুসলিমবাগ ১ নম্বর গলির একটি বাসায়।

ওই কিশোরীর মা পারভীন বেগম জানান, শুক্রবার মোমোর ১৫তম জন্মদিন ছিল। এদিন ওই এলাকারই কয়েকজন বন্ধুবান্ধব ফোনে একজনের বাসায় দাওয়াতের কথা বলে তাকে বাসা থেকে নিয়ে যায়।

‘সেখানে খাওয়া-দাওয়া শেষে মোমোকে জুস খাওয়ানো হয়, পরে অসুস্থ হয়ে পড়লে বিকেল ৪টার দিকে তারা ওকে বাসায় পৌঁছে দেয়। বাসায় আসার পর বমি হতে থাকে। অবস্থার অবনতি হলে শনিবার রাতে তাকে ঢাকা মেডিক্যালে নিয়ে আসার পর চিকিৎসক মোমোকে মৃত বলে জানান’- কাঁদতে কাঁদতে বলেন পারভীন।

এ ঘটনার বিচার চেয়ে তিনি বলেন, ‘আমার স্বামী একজন বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী। সে কোনো কাজ করতে পারে না, আমি নিজে বাসা বাড়িতে কাজ করে মেয়েটাকে ভালো একটা স্কুলে লেখাপড়া করাইতেছিলাম। একমাত্র মেয়ে, তারা আমার মেয়েকে নিয়ে এই সর্বনাশ করল। আমি এটার অবশ্যই বিচার চাই।’

এ ঘটনায় তিনজনকে আটক করেছে কামরাঙ্গীরচর থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলেন হানিফ, শিপন, ব্রেন কালু ওরফে কালু দেওয়ান। আল আমিন নামে আরও একজন পলাতক রয়েছেন।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের পুলিশ ক্যাম্পের (পরিদর্শক) বাচ্চু মিয়া বলেন, মোমোর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি কামরাঙ্গীরচর থানাকে জানানো হয়েছে।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন

‘আলিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষা অধিদপ্তরের ভবন হলে আন্দোলন’

‘আলিয়া মাদ্রাসায় শিক্ষা অধিদপ্তরের ভবন হলে আন্দোলন’

সরকারি আলিয়া মাদ্রাসায় মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের ভবন স্থাপনের পরিকল্পনার প্রতিবাদ জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির সাবেক শিক্ষার্থীরা। ছবি: সংগৃহীত

সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানটির প্রাক্তন ছাত্র ফোরামের সদস্যসচিব মাওলানা মোহাম্মদ সুরুজুজ্জামান বলেন, ‘অবিলম্বে এ ধরনের হঠকারী, অযৌক্তিক ও অমানবিক সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি জোরালো আহ্বান জানাচ্ছি। অন্যথায় ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন এ বিদ্যাপীঠকে রক্ষায় এই প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র এ দেশের ধর্মপ্রাণ জনতাকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে।’

রাজধানীর বকশীবাজারের সরকারি আলিয়া মাদ্রাসার নিজস্ব জমিতে মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তরের ভবন স্থাপনের সিদ্ধান্ত অবিলম্বে বাতিলসহ ৫ দফা দাবি জানিয়েছে মাদ্রাসা-ই-আলিয়া ঢাকার প্রাক্তন ছাত্র ফোরাম।

রাজধানীর সেগুনবাগিচার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) রোববার সংবাদ সম্মেলনে দাবিগুলো তুলে ধরেন প্রাক্তন ছাত্র ফোরামের সদস্যসচিব মাওলানা মোহাম্মদ সুরুজুজ্জামান।

তাদের দাবিগুলো হচ্ছে:

০১. সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়া ঢাকার নামে ৪ একর জমি দখলমুক্ত করা।

০২. ছাত্রদের আবাসনসংকট নিরসনে কমপক্ষে আরও দুটি হল নির্মাণ করা।

০৩. বর্তমান ছাত্রদের নামে হয়রানিমূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করা।

০৪. ছাত্রাবাস অবিলম্বে খুলে দেয়া।

০৫. ২৫০ বছরের ইতিহাস ও ঐতিহ্য রক্ষায় সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়া ঢাকাকে ‘ঢাকা আলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়’ করা।

লিখিত বক্তব্যে আলিয়া মাদ্রাসা ঢাকার জায়গায় শিক্ষা অধিদপ্তরের ভবন স্থাপনের পরিকল্পনাকে ‘হটকারী’ বলে উল্লেখ করেন সুরুজুজ্জামান।

তিনি বলেন, ‘অবিলম্বে এ ধরনের হটকারী, অযৌক্তিক ও অমানবিক সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি জোরালো আহ্বান জানাচ্ছি। অন্যথায় সংগত কারণে ঐতিহ্যবাহী প্রাচীন এ বিদ্যাপীঠকে রক্ষায় এই প্রতিষ্ঠানের হাজার হাজার প্রাক্তন ও বর্তমান ছাত্র এ দেশের ধর্মপ্রাণ জনতাকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলনে নামতে বাধ্য হবে।’

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, বর্তমান সরকার সাধারণ শিক্ষাব্যবস্থার উন্নয়নে নানা উদ্যোগ নিলেও সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা ঢাকার উন্নয়নে তেমন কিছুই করেনি।

প্রাক্তন ছাত্র ফোরামের সদস্যসচিব বলেন, ‘সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়া ঢাকার ছাত্রাবাসসহ ঐতিহ্যবাহী এই প্রতিষ্ঠানের অবকাঠামোগত উন্নয়নের পরিবর্তে এর ভেতর মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর স্থাপনের পরিকল্পনা সরকারের দ্বিমুখী আচরণ ও মাদ্রাসা শিক্ষাকে অবজ্ঞা করার শামিল।’

আলিয়া মাদ্রাসায় ভবন নির্মাণ সরকারের সঙ্গে মাদ্রাসা শিক্ষক, ছাত্র ও সাধারণ ধর্মপ্রাণ জনতার মাঝে ভুল বোঝাবুঝি ও দূরত্ব সৃষ্টির জন্য আমলাদের কূটকৌশল কি না তা ক্ষতিয়ে দেখার জন্য প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, মাদ্রাসা-ই-আলিয়া ঢাকার জমি দখল করে অন্য প্রতিষ্ঠান করার উদ্যোগ বাস্তবায়ন করলে দেশের আপামর জনতার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হবে এবং সরকার ও জনতাকে মুখোমুখি অবস্থায় দাঁড় করিয়ে দেবে, যা সরকারের জন্য সুফল বয়ে আনবে না।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন প্রতিষ্ঠানটির প্রাক্তন ছাত্র ফোরামের আহ্বায়ক মাওলানা আজিজুল হক মুরাদ, সদস্য মাওলানা ইসমাইল ফারুক, মাওলানা আমিনুল হক, শহিদুল ইসলাম কবির, মাওলানা আহমদ আব্দুল কাইয়ুমসহ আরও অনেকে।

আরও পড়ুন:
সন্তানের চিকিৎসা করাতে গিয়ে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে
চলন্ত বাসে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ সদস্য
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে গরু ব্যবসায়ী

শেয়ার করুন