করোনায় শনাক্তের হার আরও কমে ২, মৃত্যু ৭

করোনায় শনাক্তের হার আরও কমে ২, মৃত্যু ৭

করোনা পরিস্থিতি অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসার পরিপ্রেক্ষিতে মানুষের জীবনযাপনও স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। রাজধানীর কমলাপুর রেলস্টেশন থেকে ছবিটি তুলেছেন সাইফুল ইসলাম

বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশের ৮১টি পরীক্ষাগারে মোট ১৮ হাজার ৯৮০ জন পরীক্ষা করেছেন। তাদের মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে ৩৯৬ জনের দেহে।

করোনাভাইরাসে পরীক্ষার বিপরীতে শনাক্তের হার আরও কমে ২.০৯ শতাংশে নেমেছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আঘাত হানার পর এই প্রথম শনাক্তের হার এত কম হলো।

শুক্রবার সন্ধ্যায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আগের ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের হার ছিল ২.১৬ শতাংশ।

এতে জানানো হয়, বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে শুক্রবার সকাল ৮টা পর্যন্ত দেশের ৮১টি পরীক্ষাগারে মোট ১৮ হাজার ৯৮০ জন করোনার পরীক্ষা করেছেন।

ভাইরাসটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়ে ভাইরাসটি শনাক্ত হয়েছে আরও ৩৯৬ জনের দেহে।

এখন পর্যন্ত দেশে ভাইরাসটিতে মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৭৪৬ জন। আর শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৬৪ হাজার ৮৮১ জনের দেহে।

২৪ ঘণ্টায় মারা যাওয়াদের মধ্যে পুরুষ ৪ জন ও নারী ৫ জন।

যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ঢাকায় আছেন ৬ জন। দুই জন চট্টগ্রামের আর একজন সিলেটের। অন্যান্য বিভাগে কেউ মারা যাননি।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

মন্তব্য

আফ্রিকা থেকে এক মাসে ফিরল ২৪০ জন

আফ্রিকা থেকে এক মাসে ফিরল ২৪০ জন

ফাইল ছবি

সংক্রমণের মধ্যেই আফ্রিকা থেকে গত এক মাসে ২৪০ জন দেশে ফিরেছেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এই তথ্য প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এদের কেউই সরকারের নির্দেশনা অনুসরণ করেননি। তাদেরকে আমরা কন্ট্যাক্ট ট্রেসিয়ের মাধ্যমে শনাক্তের চেষ্টা করছি। কিন্তু তারা সবাই নিজ নিজ মোবাইল ফোন বন্ধ করে রেখেছেন। তারা ঠিকানাও ভুল দিয়েছেন। তাদের খুঁজে বের করতে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আমাদেরকে আরও সতর্ক হতে হবে।’

করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ওমিক্রন প্রথম শনাক্ত হয়েছে আফ্রিকায়। আর মহাদেশটির একটিমাত্র দেশ সাউথ আফ্রিকা থেকেই গত এক মাসে দেশে ফিরেছেন ২৪০ জন।

সংক্রমণের মধ্যেই এই অঞ্চল থেকে গত এক মাসে ২৪০ জন দেশে ফিরেছেন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। এই তথ্য প্রকাশ করে মন্ত্রী বলেন, এদের কেউই সরকারের নির্দেশনা অনুসরণ করেননি।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার ওমিক্রন মোকাবিলার প্রস্তুতি সম্পর্কিত আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে গণমাধ্যমের সামনে এমনটি জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

জাহিদ মালেক বলেন, ‘গত এক মাসে ২৪০ জন মানুষ এসেছে দক্ষিণ (সাউথ) আফ্রিকা থেকে। তাদেরকে আমরা কন্ট্যাক্ট ট্রেসিয়ের মাধ্যমে শনাক্তের চেষ্টা করছি। কিন্তু তারা সবাই নিজ নিজ মোবাইল ফোন বন্ধ করে রেখেছেন। তারা ঠিকানাও ভুল দিয়েছেন। তাদের খুঁজে বের করতে স্থানীয় প্রশাসনকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আমাদেরকে আরও সতর্ক হতে হবে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘যারা আগে চলে গেছেন তারা তো ঘরে চলে গেছেই। এই যে লোকজন ফাঁকি দিয়ে যে চলে গেলেন আমরা ট্রেস করতে পারছি না। এ কারণে এ সব দেশের জন্য আমরা বেশি কড়াকড়ি করবো। আফ্রিকার জন্য ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিন তো থাকবেই, আমরা সেখান থেকে এখন আসতেই নিরুৎসাহিত করবো।

‘আমাদের সব কোয়ারেন্টিন সেন্টার এখন নেই। হোটেলগুলো আছে। আগে দিয়াবাড়িতে যেটা ছিলো ওটা এখন তো আমরা তুলে নিয়েছি, যদি ওটা অকুপাই না হয়ে থাকে তাহলে আমরা আবার এটাকে ব্যবহার করবো। আর হোটেল তো আছেই প্রায় ১০০টির মতো। খরচ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই নিজে বহন করবেন।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের কোয়ারেন্টিনের বিষয়ে আমরা দেখেছি, যাদের হোটেলে কোয়ারেন্টিন করতে বলা হয়েছে তারা সেটা মানেন নি। ফাঁকি দিয়ে তারা বের হয়ে গেছেন। বাড়িতে পর্যন্ত তারা চলে গেছেন। এ বিষয়ে আমরা শক্ত হতে বলেছি।

‘আপনারা দেখেছেন বিদেশ থেকে যারা এসেছে, ইন্ডিয়া থেকে যারা এসেছে আমরা রুখতে পারিনি। অনেক লোকের মৃত্যু হয়েছে, সংক্রমণ বৃদ্ধি পেয়েছে, আমাদের অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ অবস্থা আমরা চাই না। এ জন্যই আগে ভাগে সিদ্ধান্ত নিচ্ছি।’

ইউরোপের বিভিন্ন দেশে ওমিক্রন শনাক্ত হওয়ার প্রেক্ষিতে কি সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে জানতে চাইলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘ইউরোপের কয়েকটি দেশে অল্প ছড়িয়েছে আমরা জানি। তবে ঢালাওভাবে তো আমরা ফ্লাইট বন্ধ করতে পারবো না। আমাদের যারা সংক্রমিত দেশ থেকে আসবে তাদের পরীক্ষা নিরীক্ষার বিষয়টি আমরা জোর দেবো।

‘ওমিক্রন এখন পর্যন্ত প্রায় ১৫-২০টি দেশে ছড়িয়েছে। আমরা এগুলোর বিষয়ে পরীক্ষাটা জোরদার করবো এবং প্রয়োজন হলে কোয়ারেন্টিনেও জোর দেবো।’

বতসোয়ানায় প্রথম শনাক্ত হওয়া এই ভ্যারিয়েন্টের শুরুতে নাম ছিল ‘বি.১.১.৫২৯’ তবে আলোচনায় সুবিধার জন্য শুক্রবার বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এর নাম দেয় ‘ওমিক্রন’।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্পাইক প্রোটিনে ৩০ বারের বেশি মিউটেশনের মধ্য দিয়ে সার্স কভ টু ভাইরাসের নতুন ধরনটি তৈরি হয়েছে। সামগ্রিকভাবে এই ধরনটির মিউটেশন হয়েছে ৫০ বারের বেশি।

অত্যন্ত সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টের চেয়েও ওমিক্রনের মিউটেশন হয় চার গুণ বেশি। ফলে এটি দ্রুত মানুষকে আক্রান্ত করতে সক্ষম বলে আশঙ্কা বিশেষজ্ঞদের।

ওমিক্রন ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ আফ্রিকা অঞ্চলের দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে। বিষয়টি নিয়ে অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশও সতর্ক।

সাউথ আফ্রিকাসহ আফ্রিকার কোন দেশের সঙ্গেই বাংলাদেশের সরাসরি আকাশ পথে যোগাযোগ নেই। তবে ইউরোপ ও মধ্যপ্রাচ্যের বিভিন্ন দেশে ট্রানজিট নিয়ে দেশে আসার সুযোগ রয়েছে। আর এই বিষয়টিই ভাবাচ্ছে বিশেষজ্ঞদের।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

করোনায় মৃত্যু কমে ১, শনাক্ত ২৭৩

করোনায় মৃত্যু কমে ১, শনাক্ত ২৭৩

দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতি এখন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। ফাইল ছবি/নিউজবাংলা

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ২৮৪ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৯৮১ জনের।

প্রতিনিয়তই দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। এই ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। আর সংক্রমণ ধরা পড়েছে ২৭৩ জনের শরীরে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে মঙ্গলবার বিকেলে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ২৮৪ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৯৮১ জনের।

গত এক দিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছে ৩৬৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছে ১৫ লাখ ৪০ হাজার ৯৬৫ জন। সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী, কোনো দেশে টানা দুই সপ্তাহ নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে সে দেশের করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসছে বলে ধরা হয়।

সে অনুযায়ী বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ইতোমধ্যে নিয়ন্ত্রণে এসেছে। সরকারের লক্ষ্য এই হার শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

ষাটোর্ধ্বরা পাবেন বুস্টার ডোজ

ষাটোর্ধ্বরা পাবেন বুস্টার ডোজ

৬০ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের জন্য টিকার বুস্টার ডোজ চালুর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে, জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক। ফাইল ছবি

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘যারা ষাটোর্ধ্ব অথবা যারা অসুস্থ, তাদের বুস্টার ডোজের আওতায় আমরা নিয়ে আসতে চাই। এ বিষয়ে আমরা একটি সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। শিগগিরই যাতে তাদের বুস্টার ডোজ দিতে পারি। অনেক দেশেই এটা দিচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা মোটামুটি একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা ৬০ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের করোনা প্রতিরোধী টিকার বুস্টার ডোজ দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার দেশে ওমিক্রন ঠেকাতে এক আন্ত: মন্ত্রণালয় সভা শেষে এ কথা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

তিনি বলেন, ‘দেশে করোনা সংক্রমণের সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছেন বয়স্করা। তাই ৬০ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের জন্য টিকার বুস্টার ডোজ চালুর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আরেকটি বিষয় আমরা চিন্তা করেছি, যারা ষাটোর্ধ্ব অথবা যারা অসুস্থ, তাদের বুস্টার ডোজের আওতায় আমরা নিয়ে আসতে চাই। এ বিষয়ে আমরা একটি সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। শিগগিরই যাতে তাদের বুস্টার ডোজ দিতে পারি। অনেক দেশেই এটা দিচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা মোটামুটি একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

সভা শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক আরও জানান,দেশের সব মানুষকে করোনা টিকার আওতায় আনতে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিসের’ মতোই এবার ‘নো ভ্যাকসিন, নো সার্ভিস’ চালু করতে যাচ্ছে সরকার।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এরই মধ্যে ১০ কোটি ডোজ টিকা দেয়া হয়ে গেছে। এরমধ্যে সিঙ্গেল ডোজ প্রায় ৬ কোটির মতো আর ডাবল ডোজও প্রায় ৪ কোটির কাছাকাছি হয়ে গেছে। সব পর্যায়ের মানুষকে টিকা দেয়ার জন্য আমরা একেবারে কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যন্ত টিকা পৌঁছে দিচ্ছি।

‘এরপরেও দেখা যায় অনেকেই এখনও টিকা নেন নাই। টিকা দেয়ায় আগে যে আগ্রহ পেয়েছি সেটা এখন কম। একটা জিনিস আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যেটা সকলেই একমত হয়েছেন, সেটা হলো নো মাস্ক, নো সার্ভিস ছিল। এখন আমরা বলতে চাচ্ছি নো ভ্যাকসিন, নো সার্ভিস। এ কথাটা আমরা বলতে চাচ্ছি। এটা আমাদের পরামর্শ থাকলো। এটা করতে পারলে টিকা কার্যক্রমটা আরও বেগবান হবে এবং টিকা নেয়ার জন্য মানুষ হয়তো আরও বেশি আগ্রহ নিয়ে এগিয়ে আসবে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘নো ভ্যাকসিন, নো সার্ভিস যেটা বললাম, এটা এখানেই তৈরি হলো। আমরা চিঠির মাধ্যমে সব মন্ত্রণালয়ে জানিয়ে দেবো। তারা যে যার মতো করে এনফোর্স করবে। প্রাইভেট লেভেলে আমরা ব্যবসায়ীদের জানিয়ে দেবো।’

প্রতিনিয়তই দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। এ ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। আর সংক্রমণ ধরা পড়েছে ২৭৩ জনের শরীরে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে মঙ্গলবার বিকেলে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ২৮৪ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৯৮১ জনের।

গত একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৬৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৪০ হাজার ৯৬৫ জন। সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী, কোনো দেশে টানা দুই সপ্তাহ নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে সে দেশের করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসছে বলে ধরা হয়।

সে অনুযায়ী বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ইতোমধ্যে নিয়ন্ত্রণে এসেছে। সরকারের লক্ষ্য এই হার শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

ওমিক্রনে টিকা অকার্যকর: মডার্না

ওমিক্রনে টিকা অকার্যকর: মডার্না

করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বিশ্বজুড়ে বহুল ব্যবহৃত অন্যতম টিকা প্রস্তুত করছে যুক্তরাষ্ট্রের মডার্না। ছবি: এএফপি

সাউথ আফ্রিকায় প্রথম চিহ্নিত ভাইরাসটি অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্বের কমপক্ষে ১৬টি দেশে শনাক্ত হয়েছে। আফ্রিকা থেকে ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আমেরিকায় ছড়িয়ে পড়া ওমিক্রন সারা বিশ্বের জন্যই ‘উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ’ বলে সোমবার সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

করোনাভাইরাসের রূপ পরিবর্তিত নতুন ধরন ওমিক্রন প্রতিরোধে সাধারণ বিদ্যমান টিকা কাজ করবে না বলে ধারণা করছেন টিকা উদ্ভাবকরা। করোনা প্রতিরোধী টিকার অন্যতম উদ্ভাবক ও প্রস্তুতকারক যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রতিষ্ঠান মডার্নার প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা স্তেফানে ব্যাঁসেল জানিয়েছেন এ কথা।

আল জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়, মডার্না নির্বাহীর শঙ্কা সত্যি হলে ‘উচ্চ সংক্রামক’ ওমিক্রনের ওপর প্রচলিত টিকার সবগুলোই প্রায় অকার্যকর হবে। আর ওমিক্রন ঠেকানোর মতো কার্যকর নতুন টিকা উদ্ভাবনে লেগে যেতে পারে কয়েক মাস।

ফাইন্যানসিয়াল টাইমসকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেছেন ব্যাঁসেল। মঙ্গলবার প্রকাশিত সাক্ষাৎকারটিতে আরও উল্লেখ করা হয়, ওমিক্রন প্রতিরোধে বিদ্যমান টিকা কার্যকর কি না- সে বিষয়টি সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যে জানা যেতে পারে।

সাউথ আফ্রিকায় প্রথম চিহ্নিত ভাইরাসটি অল্প সময়ের মধ্যেই বিশ্বের কমপক্ষে ১৬টি দেশে শনাক্ত হয়েছে। আফ্রিকা থেকে ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আমেরিকায় ছড়িয়ে পড়া ওমিক্রন সারা বিশ্বের জন্যই ‘উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ’ বলে সোমবার সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

এমন পরিস্থিতিতে ওমিক্রনের বিস্তার রোধে পূর্বসতর্কতা হিসেবে ভ্রমণ নীতিমালা কঠোর করেছে বিভিন্ন দেশ। জাপান, ইসরায়েলের পর হংকংও আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল সম্পূর্ণ বন্ধের মতো পদক্ষেপ নিয়েছে।

এখন পর্যন্ত ওমিক্রন শনাক্ত করা দেশগুলো হলো অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, বতসোয়ানা, কানাডা, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, জার্মানি, হংকং, ইসরায়েল, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল, সাউথ আফ্রিকা, স্পেন ও যুক্তরাজ্য।

সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে সাউথ আফ্রিকায়, ৭৭ জনের দেহে। বতসোয়ানায় ১৯ জন এবং নেদারল্যান্ডস ও পর্তুগালে ১৩ জন করে মানুষের দেহে ওমিক্রনের উপস্থিতি নিশ্চিত হয়েছে।

আফ্রিকা, ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আমেরিকায় পৌঁছে গেলেও এখনও এশিয়ার কোনো দেশে ভাইরাসটি শনাক্ত করা হয়নি।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন বলেছেন, করোনাভাইরাসের রূপ পরিবর্তিত নতুন ধরন ওমিক্রন ‘উদ্বেগের কারণ হলেও আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নয়’। টিকা নেয়া থাকলে এবং মাস্ক পরলে ‘আপাতত’ লকডাউন আরোপের কোনো প্রয়োজন নেই বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

ওমিক্রনে আক্রান্ত হয়ে কারও মৃত্যু হয়েছে, এমন খবর এখনও পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, ২০১৯ সালে চীনের উহানে শনাক্ত কোভিড নাইনটিনের চেয়ে ওমিক্রন একেবারেই আলাদা।

ওমিক্রনের মধ্যে অনেক পরিবর্তন শনাক্ত হয়েছে, যা ভাইরাসটির আচরণেও প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। ভাইরাসটি প্রথম শনাক্ত করা সাউথ আফ্রিকার স্বাস্থ্যবিদদের মতে, এখন পর্যন্ত অর্ধশত পরিবর্তন শনাক্ত হয়েছে নতুন ধরনে। এর বহিঃ আবরণীতে থাকা আমিষের যে অংশটি ভাইরাসকে কোষের সঙ্গে যুক্ত থাকতে সাহায্য করে, সেই ‘স্পাইক প্রোটিন’-এর সংখ্যা ৩০টি।

করোনা প্রতিরোধী টিকা মূলত ভাইরাসের এই ‘স্পাইক প্রোটিন’কেই আক্রমণ করে। কারণ ‘স্পাইক প্রোটিন’ ব্যবহার করেই ভাইরাসটি দেহের কোষে প্রবেশের পথ উন্মুক্ত করে।

ভাইরাস তার যে অংশ ব্যবহার করে প্রথমবার মানবদেহের কোষের সংস্পর্শে আসে, করোনার নতুন ধরনেই সেই অংশে ১০টি পরিবর্তন শনাক্ত করেছেন বিজ্ঞানীরা। বিশ্বজুড়ে আতঙ্ক ছড়ানো আগের ধরনটি, অর্থাৎ করোনার ডেল্টা ভাইরাসে এ পরিবর্তনের সংখ্যা ছিল মাত্র দুই।

ফলে এসব পরিবর্তন ওমিক্রনকে আরও সহজে ও দ্রুত সংক্রমণযোগ্য করে তুলেছে কি না, এটি আরও গুরুতর অসুস্থতার কারণ হতে পারে কি না, এর ওপর বিদ্যমান করোনা প্রতিরোধী টিকা কতটা কার্যকর ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর খুঁজছেন বিজ্ঞানীরা।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

এবার টিকা ছাড়া সেবা নয়

এবার টিকা ছাড়া সেবা নয়

রাজধানীর কড়াইল বস্তিতে করোনাভাইরাস প্রতিরোধী গণটিকা কার্যক্রম। ছবি: পিয়াস বিশ্বাস/নিউজবাংলা

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, ‘এরই মধ্যে ১০ কোটি ডোজ টিকা দেয়া হয়ে গেছে। এরমধ্যে সিঙ্গেল ডোজ প্রায় ৬ কোটির মতো আর ডাবল ডোজও প্রায় ৪ কোটির কাছাকাছি হয়ে গেছে। সব পর্যায়ের মানুষকে টিকা দেয়ার জন্য আমরা একেবারে কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যন্ত টিকা পৌঁছে দিচ্ছি। এরপরেও দেখা যায় অনেকেই এখনও টিকা নেন নাই।’

দেশের সব মানুষকে করোনা টিকার আওতায় আনতে ‘নো মাস্ক, নো সার্ভিসের’ মতোই এবার ‘নো ভ্যাকসিন, নো সার্ভিস’ চালু করতে যাচ্ছে সরকার।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার দেশে ওমিক্রন ঠেকাতে এক আন্তঃমন্ত্রণালয় সভা শেষে এ কথা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এরই মধ্যে ১০ কোটি ডোজ টিকা দেয়া হয়ে গেছে। এরমধ্যে সিঙ্গেল ডোজ প্রায় ৬ কোটির মতো আর ডাবল ডোজও প্রায় ৪ কোটির কাছাকাছি হয়ে গেছে। সব পর্যায়ের মানুষকে টিকা দেয়ার জন্য আমরা একেবারে কমিউনিটি ক্লিনিক পর্যন্ত টিকা পৌঁছে দিচ্ছি।

‘এরপরেও দেখা যায় অনেকেই এখনও টিকা নেন নাই। টিকা দেয়ায় আগে যে আগ্রহ পেয়েছি সেটা এখন কম। একটা জিনিস আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, যেটা সকলেই একমত হয়েছেন, সেটা হলো নো মাস্ক, নো সার্ভিস ছিল। এখন আমরা বলতে চাচ্ছি নো ভ্যাকসিন, নো সার্ভিস। এ কথাটা আমরা বলতে চাচ্ছি। এটা আমাদের পরামর্শ থাকলো। এটা করতে পারলে টিকা কার্যক্রমটা আরও বেগবান হবে এবং টিকা নেয়ার জন্য মানুষ হয়তো আরও বেশি আগ্রহ নিয়ে এগিয়ে আসবে।’

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘নো ভ্যাকসিন, নো সার্ভিস যেটা বললাম, এটা এখানেই তৈরি হলো। আমরা চিঠির মাধ্যমে সব মন্ত্রণালয়ে জানিয়ে দেবো। তারা যে যার মতো করে এনফোর্স করবে। প্রাইভেট লেভেলে আমরা ব্যবসায়ীদের জানিয়ে দেবো।’

সংক্রমণের উচ্চ ঝুঁকিতে থাকা ৬০ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের করোনা প্রতিরোধী টিকার বুস্টার ডোজ দেয়া হবে বলেও জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।

তিনি বলেন, ‘দেশে করোনা সংক্রমণের সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে আছেন বয়স্করা। তাই ৬০ বছরের বেশি বয়সী নাগরিকদের জন্য টিকার বুস্টার ডোজ চালুর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আরেকটি বিষয় আমরা চিন্তা করেছি, যারা ষাটোর্ধ্ব অথবা যারা অসুস্থ, তাদের বুস্টার ডোজের আওতায় আমরা নিয়ে আসতে চাই। এ বিষয়ে আমরা একটি সিদ্ধান্ত নিচ্ছি। শিগগিরই যাতে তাদের বুস্টার ডোজ দিতে পারি। অনেক দেশেই এটা দিচ্ছে। এ বিষয়ে আমরা মোটামুটি একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

প্রতিনিয়তই দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি হচ্ছে। এ ভাইরাসে আক্রান্তদের মধ্যে সবশেষ ২৪ ঘণ্টায় একজনের মৃত্যু হয়েছে। আর সংক্রমণ ধরা পড়েছে ২৭৩ জনের শরীরে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে মঙ্গলবার বিকেলে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

দেশে এ পর্যন্ত করোনা শনাক্ত হয়েছে ১৫ লাখ ৭৬ হাজার ২৮৪ জনের শরীরে। এর মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ২৭ হাজার ৯৮১ জনের।

গত একদিনে করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ৩৬৮ জন। এখন পর্যন্ত মোট সুস্থ হয়েছেন ১৫ লাখ ৪০ হাজার ৯৬৫ জন। সুস্থতার হার ৯৭ দশমিক ৭৬ শতাংশ।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা অনুযায়ী, কোনো দেশে টানা দুই সপ্তাহ নমুনা পরীক্ষার বিবেচনায় শনাক্তের হার ৫ শতাংশের নিচে থাকলে সে দেশের করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসছে বলে ধরা হয়।

সে অনুযায়ী বাংলাদেশে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ইতোমধ্যে নিয়ন্ত্রণে এসেছে। সরকারের লক্ষ্য এই হার শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনা।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

ওমিক্রনের জন্য এখনই লকডাউন নয়: বাইডেন

ওমিক্রনের জন্য এখনই লকডাউন নয়: বাইডেন

হোয়াইট হাউজে সোমবার ওমিক্রন ইস্যুতে বক্তব্য দেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। ছবি: এএফপি

গত সপ্তাহেই সাউথ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, লেসোথো, ইসওয়াতিনি, মোজাম্বিক ও মালাউই- আট দেশের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। বাইডেন জানান, ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা জারির মাধ্যমে যতটুকু সময় মিলবে, সে সময়ে করোনার নতুন ধরনটি সম্পর্কে আরও জানার চেষ্টা করবে যুক্তরাষ্ট্র।

করোনাভাইরাসের রূপ পরিবর্তিত নতুন ধরন ওমিক্রন ‘উদ্বেগের কারণ হলেও আতঙ্কিত হওয়ার মতো কিছু নয়’ বলে মন্তব্য করেছেন জো বাইডেন। উত্তর আমেরিকার মধ্যে প্রতিবেশী কানাডায় ভাইরাসটি শনাক্ত হওয়ার একদিন পর একথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট।

টিকা নেয়া থাকলে এবং মাস্ক পরলে ‘আপাতত’ লকডাউন আরোপের কোনো প্রয়োজন নেই বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, টিকাদান কার্যক্রম গতিশীল থাকা এবং ভাইরাসকে ‘আটকে দিতে’ বাইডেন প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও গত বছরের চেয়ে চলতি বছর যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় প্রাণহানি বেশি হচ্ছে।

হোয়াইট হাউজে সোমবার ওমিক্রনকে ‘এড়ানোর সবচেয়ে অনুপযোগী’ আখ্যা দেন বাইডেন।

তিনি বলেন, ‘কোনো না কোনো সময়ে যুক্তরাষ্ট্রেও এটি শনাক্ত হবে। প্রয়োজনে নতুন টিকা উদ্ভাবনে বিকল্প পরিকল্পনা কাজে লাগাতে তৎপরতা শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো।’

গত সপ্তাহেই সাউথ আফ্রিকা, বতসোয়ানা, জিম্বাবুয়ে, নামিবিয়া, লেসোথো, ইসওয়াতিনি, মোজাম্বিক ও মালাউই- আট দেশের সঙ্গে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ ঘোষণা করে যুক্তরাষ্ট্র। কানাডা, যুক্তরাজ্য ও ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলোও পরে একই সিদ্ধান্ত নেয়।

বাইডেন জানান, ফ্লাইট নিষেধাজ্ঞা জারির মাধ্যমে যতটুকু সময় মিলবে, সে সময়ে করোনার নতুন ধরনটি সম্পর্কে আরও জানার চেষ্টা করবে যুক্তরাষ্ট্র।

ওমিক্রনকে উদ্বেগজনক ও উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ বলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) ঘোষণা করলেও ভাইরাসটি অধিকা সংক্রামক কি না বা টিকার কার্যক্ষমতা ভাঙতে সক্ষম কি না, সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন

১৬ দেশে ওমিক্রনের হানা

১৬ দেশে ওমিক্রনের হানা

নাইজেরিয়া ভ্রমণ করে কানাডায় পৌঁছানো দুই ব্যক্তি ওমিক্রনে আক্রান্ত। ছবি: সিবিসি নিউজ

আফ্রিকা, ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আমেরিকায় পৌঁছে গেলেও এখনও এশিয়ার কোনো দেশে ভাইরাসটি শনাক্ত করা হয়নি। শনাক্তদের বেশির ভাগই সম্প্রতি সাউথ আফ্রিকা, মোজাম্বিক, বতসোয়ানা, মালাউয়ি বা আফ্রিকা মহাদেশের দক্ষিণের কোনো না কোনো দেশ ভ্রমণ করেছেন।

করোনাভাইরাসের রূপ পরিবর্তিত নতুন ধরন ওমিক্রনকে উদ্বেগজনক ও উচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ আখ্যা দিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। সম্ভাব্য অধিক সংক্রামক করোনার এই ধরনটি প্রথম চিহ্নিত করে সাউথ আফ্রিকা।

এরপর গত কয়েক দিনে বিশ্বের বিভিন্ন অঞ্চলের কমপক্ষে ১৬টি দেশে ওমিক্রন নিশ্চিত শনাক্ত হয়েছে।

সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়, এখন পর্যন্ত ওমিক্রন শনাক্ত করা দেশগুলো হলো অস্ট্রেলিয়া, অস্ট্রিয়া, বেলজিয়াম, বতসোয়ানা, কানাডা, চেক প্রজাতন্ত্র, ডেনমার্ক, জার্মানি, হংকং, ইসরায়েল, ইতালি, নেদারল্যান্ডস, পর্তুগাল, সাউথ আফ্রিকা, স্পেন ও যুক্তরাজ্য।

সবচেয়ে বেশি শনাক্ত হয়েছে সাউথ আফ্রিকায়, ৭৭ জনের দেহে। বতসোয়ানায় ১৯ জন এবং নেদারল্যান্ডস ও পর্তুগালে ১৩ জন করে মানুষের দেহে ওমিক্রনের উপস্থিতি নিশ্চিত হয়েছে।

শনাক্তদের বেশির ভাগই সম্প্রতি সাউথ আফ্রিকা, মোজাম্বিক, বতসোয়ানা, মালাউয়ি বা আফ্রিকা মহাদেশের দক্ষিণের কোনো না কোনো দেশ ভ্রমণ করেছেন।

আফ্রিকা, ইউরোপ, মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আমেরিকায় পৌঁছে গেলেও এখনও এশিয়ার কোনো দেশে ভাইরাসটি শনাক্ত করা হয়নি।

যদিও সম্প্রতি সাউথ আফ্রিকা ভ্রমণ করে ভারতে পা রাখা ৩৯ বছর বয়স্ক এক ব্যক্তি চন্ডিগড়ে করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো। তার সংস্পর্শে আসা দুই ব্যক্তিও করোনা পজিটিভ। তারা ওমিক্রনে আক্রান্ত কি না, তা নিশ্চিতে তাদের দেহ থেকে সংগৃহীত নমুনা জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের জন্য পাঠানো হবে।

ওমিক্রনের বিস্তার ঠেকাতে বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ নীতিমালা কঠোর করাসহ নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে। এরই মধ্যে আফ্রিকার দক্ষিণের দেশগুলোর সঙ্গে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচল স্থগিত করেছে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্যসহ বিভিন্ন দেশ।

২০১৯ সালে চীনের উহানে প্রথম শনাক্ত কোভিড নাইনটিনের চেয়ে অনেকটাই আলাদা ওমিক্রন কোভিড ও কোভিডের অন্যান্য ধরনের চেয়ে অধিক সংক্রামক কি না, গুরুতর অসুস্থতা কারণ কি না, করোনা প্রতিরোধী বিদ্যমান টিকা ওমিক্রনের ওপর কার্যকর কি না, শনাক্তের উপায় ও সম্ভাব্য চিকিৎসা কী ইত্যাদি প্রশ্নের উত্তর পেতে লেগে যেতে পারে কয়েক সপ্তাহ বা আরও বেশি সময়।

আরও পড়ুন:
টিকা দিতে স্কুল শিক্ষার্থীদের তথ্য চেয়েছে মাউশি
করোনায় মৃত্যু কমে ৭, শনাক্ত ৪৬৬
স্কুল শিক্ষার্থীদের টিকা দেয়া শুরু
ভিনেগার শুঁকলে করোনার উপসর্গ সারে না
করোনায় মৃত্যু ১৭, শনাক্ত ৫১৮

শেয়ার করুন