৯০ আর ২০২১ এক নয়, বিএনপিকে কাদের

৯০ আর ২০২১ এক নয়, বিএনপিকে কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

আওয়ামী লীগ সরকারকে হটিয়ে ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে’ ১৯৯০ সালের মতো একটি গণঅভ্যুত্থান ঘটানো দরকার বলে গত রোববার এক আলোচনায় মন্তব্য করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ নেতা এই মন্তব্য করলেন।

১৯৯০ এর পটভূমি আর ২০২১ সাল এক নয় জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘গণ-অভ্যুত্থান করে সরকার পতনের দিবা স্বপ্ন বিএনপির রঙিন খোয়াবে পরিণত হবে।’

মঙ্গলবার সরকারি বাসভবনে ভার্চুয়াল ব্রিফিংয়ে তিনি এই মন্তব্য করেন।

আওয়ামী লীগ সরকারকে হটিয়ে ‘গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করতে’ ১৯৯০ সালের মতো একটি গণঅভ্যুত্থান ঘটানো দরকার বলে গত রোববার এক আলোচনায় মন্তব্য করেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তার প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ নেতা এই মন্তব্য করলেন।

সরকারকে আর সময় দেয়া যায় না বলে ফখরুলের বক্তব্যের জবাব কাদের, ‘সরকারকে সময় নির্ধারণ করে দেয়ার উনি কে?’

তিনি বলেন, ‘সরকারকে সময় নির্ধারণ করে দিয়েছে দেশের সংবিধান ও এদেশের জনগণ। আর ক্ষমতা দেওয়ার মালিক সর্ব শক্তিমান আল্লাহ এবং দেশের ভোটারগণ।’

জাতীয় প্রেসক্লাবে সাধারণত সাংবাদিক, সাংস্কৃতিক, সামাজিক ও বিভিন্ন সংগঠন সভার আয়োজন করে থাকলেও বিএনপি একে রাজনৈতিক মঞ্চ বানিয়ে ফেলেছে বলেও মন্তব্য করেন কাদের। প্রেসক্লাবের ভেতরে রাজনৈতিক সমাবেশকে ‘অবৈধ ও অগ্রহণযোগ্য’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে বিভিন্ন জেলা থেকে তথ্য গোপন এবং নানা অনিয়ম ও জালিয়াতি করে কেন্দ্রে নাম পাঠানো হচ্ছে বলেও জানান আওয়ামী লীগ নেতা। বলেন, যারা এ ধরনের অনিয়মের সঙ্গে জড়িত, তাদের বিষয়ে খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে। অভিযোগের সত্যতা প্রমাণিত হলে সঙ্গে সঙ্গে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ড্রাইভিং লাইসেন্সের জন্য যারা প্রায় দুই বছর যারা অপেক্ষা করেছে, তাদের ভোগান্তি শেষ হতে যাচ্ছে জানিয়ে বলেন, প্রিন্টিং এর জন্য প্রায় সাড়ে ১২ লাখ ড্রাইভিং লাইসেন্সের প্রিন্টিং ও বিতরণ কার্যক্রম গত ১০ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে। আগামী ৬ মাসের মধ্যে ড্রাইভিং লাইসেন্সের প্রিন্টিং ও বিতরণ কাজ শেষ হবে।

গ্রাহকদের ভোগান্তি কমাতে প্রয়োজনে সাপ্তাহিক ছুটির দিনগুলোতেও ড্রাইভিং লাইসেন্স প্রিন্টিং ও বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিআরটিএ সহ সংশ্লিষ্ট সকলকে নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের।

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

খাঁটিহাতা হাইওয়ে পুলিশ জানায়, রবিউল বিজয়নগর থেকে মোটরসাইকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া যাচ্ছিলেন। হাইওয়ে থানার সামনে সিলেটগামী একটি কাভার্ডভ্যান তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই রবিউলের মৃত্যু হয়।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সরাইলে কাভার্ডভ্যানের ধাক্কায় মোটরসাইকেলের এক আরোহী নিহত হয়েছেন।

সরাইল উপজেলার ইসলামাবাদ এলাকায় ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের খাঁটিহাতা হাইওয়ে থানার সামনে সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ৩১ বছর বয়সী রবিউল ইসলামের বাড়ি রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলার পাঁচগাছি ইউনিয়নের শাহপুর গ্রামে। তিনি ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় গাজী পাম্প ও মোটরসের মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ ছিলেন। শহরেই বাসা ভাড়া নিয়ে থাকতেন।

খাঁটিহাতা হাইওয়ে পুলিশ জানায়, রবিউল বিজয়নগর থেকে মোটরসাইকেলে ব্রাহ্মণবাড়িয়া যাচ্ছিলেন। হাইওয়ে থানার সামনে সিলেটগামী একটি কাভার্ডভ্যান তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই রবিউলের মৃত্যু হয়।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহাজালাল আলম নিউজবাংলাকে জানান, মরদেহ থানায় রাখা হয়েছে। কাভার্ডভ্যান নিয়ে পালিয়ে যাওয়ায় চালককে আটক করা যায়নি।

তিনি বলেন, ‘নিহতের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা চলছে। মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হবে।’

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

ছেলেকে তুলে নিয়ে তরুণীর বিয়ে

ছেলেকে তুলে নিয়ে তরুণীর বিয়ে

নাজমুলের আইনজীবী আবদুল্লাহ আল নোমান জানান, আসামি দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাজমুলকে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন। নাজমুল রাজি না হওয়ায় গত ২৭ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালী লঞ্চঘাট এলাকা থেকে ৭-৮ জন অপরিচিত লোক তাকে তুলে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যান। সেখানে জোর করে তার কাছ থেকে একটি নীল কাগজে সই নেয়া হয়।

পটুয়াখালীতে কলেজছাত্রকে তুলে নিয়ে গিয়ে জোর করে বিয়ে করার অভিযোগে এক তরুণীর বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

পটুয়াখালী জেষ্ঠ্য বিচারিক হাকিম আদালতে ৩ অক্টোবর অভিযোগ দেন ওই যুবক। আদালতের নির্দেশে রোববার রাতে মামলাটি নেয় পটুয়াখালী সদর থানা।

মামলার বাদি মো. নাজমুল আকন পটুয়াখালী সরকারি কলেজের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের শিক্ষার্থী। তার বাড়ি পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলা সদরে। আসামি তরুণীর বাড়িও একই উপজেলায়।

নাজমুলের আইনজীবী আবদুল্লাহ আল নোমান জানান, আসামি দীর্ঘদিন ধরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নাজমুলকে প্রেম ও বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলেন।

নাজমুল রাজি না হওয়ায় গত ২৭ সেপ্টেম্বর পটুয়াখালী লঞ্চঘাট এলাকা থেকে ৭-৮ জন অপরিচিত লোক তাকে তুলে নিয়ে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যান। সেখানে জোর করে তার কাছ থেকে একটি নীল কাগজে সই নেয়া হয়। পরে ওই দিনই তাকে শহরে ছেড়ে দেয়া হয়।

নোমানের ধারণা, ওই কাগজ দিয়ে তারা একটি কাবিননামা তৈরি করবেন।

তিনি আরও জানান, এ ঘটনায় পর নাজমুল গত ৩ অক্টোবর পটুয়াখালী জেষ্ঠ্য বিচারিক হাকিম আদালতে মামলার আবেদন করেন। পরে বিচারক মামলাটি নথিভুক্ত করতে পটুয়াখালী সদর থানাকে নির্দেশ দেন।

মামলার কাগজপত্রের সঙ্গে বিয়ের একটি ভিডিও ক্লিপও আদালতে উপস্থাপন করা হয়েছে জানিয়েছেন নাজমুলের আইনজীবী।

ওই ভিডিওতে দেখা গেছে, নাজমুল ও ওই তরুণী পাশাপাশি দুটি চেয়ারে বসে আছেন। নাজমুলের পেছনে দাঁড়ানো একজন তার ঘাড়ের দুই পাশ ধরে আছে। অন্য পাশ থেকে একজন তরুণী ও নাজমুলের মুখে মিষ্টি জাতীয় কিছু তুলে দিচ্ছেন। সেখানে নাজমুলকে চুপচাপ দেখা গেলেও তরুণী ছিলেন চঞ্চল।

এ বিষয়ে তরুণী বা তার পরিবারের কারও সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

পটুয়াখালী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুজ্জামান জানান, রোববার আদালতের নির্দেশের কপি পাওয়ার পরই মামলা নেয়া হয়েছে। তদন্ত কর্মকর্তা নির্ধারণ করা হয়েছে। তিনি কাজও শুরু করেছেন।

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

কৃষক হত্যায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

কৃষক হত্যায় একজনের মৃত্যুদণ্ড

কিশোরগঞ্জে কৃষক হত্যা মামলায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। ছবি: নিউজবাংলা

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে স্থানীয় বাজারে ধান বিক্রি করতে যাচ্ছিলেন কৃষক বাচ্চু মিয়া। এ সময় রাস্তায় তার গতিরোধ করে তাকে কুপিয়ে হত্যা করেন জসিম উদ্দিন ও তার ভাইয়েরা। ওই দিন রাতেই বাচ্চুর বড় ভাই হারুনুর রশীদ ছয়জনকে আসামি করে কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন।

কিশোরগঞ্জে কৃষক হত্যা মামলায় একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। মামলায় অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় চারজনকে বেকসুর খালাস দেয়া হয়েছে।

আসামিদের উপস্থিতিতে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালতের হাকিম নার্গিস ইসলাম ১৮ অক্টোবর সোমবার সকালে এ রায় দেন।

মৃত্যুদণ্ড পাওয়া জসিম উদ্দিন সদর উপজেলার কর্শাকড়িয়াইল ইউনিয়নের মনাকর্ষা গ্রামের বাসিন্দা।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে জসিম উদ্দিনের লোকজনের সঙ্গে বিরোধ ছিল একই এলাকার বাচ্চু মিয়ার লোকজনের। আর এ ঘটনার জেরেই হত্যাকাণ্ড।

মামলার বিবরণে জানা যায়, ২০০৮ সালের ১৫ সেপ্টেম্বর বিকেলে স্থানীয় বাজারে ধান বিক্রি করতে যাচ্ছিলেন কৃষক বাচ্চু মিয়া। এ সময় রাস্তায় তার গতিরোধ করে তাকে কুপিয়ে হত্যা করেন জসিম উদ্দিন ও তার ভাইয়েরা।

ওই দিন রাতেই বাচ্চুর বড় ভাই হারুনুর রশীদ ছয়জনকে আসামি করে কিশোরগঞ্জ মডেল থানায় হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্ত শেষে ২০১০ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি পাঁচজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ দেয় পুলিশ। দীর্ঘ ১৩ বছর পর সোমবার এ রায় দেন বিচারক।

রাষ্ট্রপক্ষে আইনজীবী ছিলেন রাখাল চন্দ দেবনাথ ও আসামিপক্ষের আইনজীবী মিজানুর রহমান।

বাদীপক্ষের রাখাল চন্দ্র দেবনাথ জানান, এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ ন্যায়বিচার পেয়েছে। এতে বাদীপক্ষ অত্যন্ত খুশি। তবে এই রায়ের দ্রুত বাস্তবায়ন চান তারা।

আসামি উচ্চ আদালতে গেলে ন্যায়বিচার পাবেন বলে মনে করেন আসামিপক্ষের আইনজীবী মিজানুর রহমান।

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

ফারইস্টের পুনর্গঠিত কমিটির চেয়ারম্যানের পদত্যাগ

ফারইস্টের পুনর্গঠিত কমিটির চেয়ারম্যানের পদত্যাগ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের অধ্যাপক ও ডিন রহমত উল্লাহ লেখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতা ও প্রশাসনিক দায়িত্ব পালনে তাকে অনেক বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়। তাই সময়ের অভাবে ফারইস্টের দায়িত্ব পালন একেবারেই অসম্ভব।

পুঁজিবাজার তালিকাভুক্ত বিমা খাতের কোম্পানি ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির পুনগঠন করা বোর্ডের চেয়ারম্যান মুহাম্মদ রহমত উল্লাহ পদত্যাগ করেছেন।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) ও বিমা খাতের নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইডিআরএ এ সক্রান্ত চিঠি পাঠানো হয়েছে। এতে এই সিদ্ধান্তের কারণ হিসেবে ‘ব্যক্তিগত ব্যস্ততার’ কথা তুলে ধরা হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের অধ্যাপক ও ডিন রহমত উল্লাহ লেখেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতা ও প্রশাসনিক দায়িত্ব পালনে তাকে অনেক বেশি ব্যস্ত থাকতে হয়। তাই সময়ের অভাবে ফারইস্টের দায়িত্ব পালন একেবারেই অসম্ভব।

বিষয়টি নিশ্চিত করে আইডিআরএ নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র এস এম শাকিল আক্তার নিউজবাংলাকে বলেন, ‘বিষয়টি সম্পর্কে আমরা অবগত।’

রহমত উল্লাগ যে কারণ দেখিয়ে পদত্যাগ করেছেন তার বাইরে কোনো বিষয় আছে কি না, এই প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘কিছু কারণ তো থাকেই। পুনর্গঠন করা বোর্ডের চেয়ারম্যান কিন্তু কোম্পানির চেয়ারম্যানের মতো স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারে না, তারা শুধু পরামর্শ দিতে পারে।

তিনি বলেন, ‘বিমা কোম্পানি চালানোর জন্য এ খাতের দক্ষ লোক প্রয়োজন। বাইরে থেকে কাউকে এনে বাসলে তার সেটি আয়ত্বে নিতে অনেক সময় প্রয়োজন হয়। সে সময়টা অনেকে দিতে চান না।’

গত ১ সেপ্টেম্বর বিএসইসি ফারইস্ট ইসলামী লাইফ ইন্স্যুরেন্সে রহমত উল্লাহসহ নয়জন স্বতন্ত্র পরিচালক নিয়োগ দেয়ার মাধ্যমে আগের পর্ষদ ভেঙে দেয় বিএসইসি।

নতুন বোর্ডকে আগামী ৬ মাসের মধ্যে তাদের কোম্পানির শীর্ষ ব্যবস্থাপনা পুনর্গঠন, করপোরেট ক্যাশ ও সম্পদ ফিরিয়ে আনা, যারা গত ১০ বছরে কোম্পানিতে আর্থিক অপরাধ ও মানি লন্ডারিং করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

নবনির্বাচিত পর্ষদ কোম্পানিটির করপোরেট গভর্নেন্স ২০১৮ আইন অনুসারে একটি নিরীক্ষা কমিটি গঠন করবে বলেও জানানো হয়। একটি নমিনেশন ও রিমুন্যারেশন কমিটি গঠন করার জন্যও বলা হয়।

পুনগঠন করা বোর্ড দায়িত্ব নেয়ার ১৫ দিনের মধ্যে নানা অনিয়মের অভিযোগে কোম্পানিটির মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হেমায়েত উল্লাহকে অপসারণ করে বিমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)।

এর আগে বিএসইসি যেসব কোম্পানির পর্ষদ পুনগঠন করেছিল সেগুলো ছিল লোকসানি অথবা বন্ধ। উদ্যোক্তা পরিচালকদের ৩০ শতাংশ শেয়ার না থাকলেও পর্ষদ পুনর্গঠন করা হয়েছে।

এসব কোম্পানির মধ্যে আলহাজ্ব টেক্সটাইল ও রিংসাইন টেক্সটাইল এরই মধ্যে উৎপাদন শুরু করেছে। এমারেল্ড অয়েল ১ সেপ্টেম্বর উৎপাদনের ঘোষণা দিয়েও পারেনি।

বাকিগুলোর মধ্যে সিঅ্যান্ডএ টেক্সটাইলকে অধিগ্রহণে অনুমতি দেয়া হয়েছে আলিফ গ্রুপকে। ফ্যামিলি টেক্স চালু আছে বলে নতুন পর্ষদ দেখতে পেয়েছে।

এই বোর্ড পুনর্গঠন ইস্যুতে প্রায় সবগুলো কোম্পানির শেয়ার দর অস্বাভাবিক বেড়ে গেছে। আদৌ উৎপাদনে আসা নিয়ে সংশয় থাকা, বা কার্যক্রম চালু হলেও কবে মুনাফায় ফিরবে এ নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকার পরেও কোনো কোনো কোম্পানির শেয়ারদর দ্বিগুণ, কোনোটির তিন গুণ, কোনোটির চারগুণ হয়েছে।

ফারইস্ট ইসলামী লাইফের ক্ষেত্রে উদ্যোক্তা পরিচালকদের হাতে ৩০ শতাংশ শেয়ার আছে। ২০২০ সালে লভ্যাংশ ছাড়া বাকি বছরগুলোর নিয়মিত লভ্যাংশও দিয়ে আসছে। কোম্পানিটি পুনর্গঠন করার উদ্দেশ্য আর্থিক অনিয়ম ঠেকানো।

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

সম্প্রীতি শোভাযাত্রার ডাক যুবলীগের

সম্প্রীতি শোভাযাত্রার ডাক যুবলীগের

গত কিছু দিনে বিভিন্ন মন্দির-মণ্ডপে হামলার ঘটনা ঘটেছে। ফাইল ছবি

মঙ্গলবার সকাল ১১টায় ২৩, বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক কর্মসূচি পালিত হবে। সারা দেশে যুবলীগের প্রতিটি ইউনিটকেও একই কর্মসূচি পালন করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের উপর হামলার প্রতিবাদে সারা দেশে শান্তি ও সম্প্রীতি শোভাযাত্রার ঘোষণা দিয়েছে যুবলীগ।

আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠনটির দপ্তর সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মাসুদের সই করা এক বিজ্ঞপ্তিতে সোমবার এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়, মঙ্গলবার সকাল ১১টায় রাজধানীর গুলিস্তানের ২৩, বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে কর্মসূচি পালিত হবে। সারা দেশে যুবলীগের প্রতিটি ইউনিটকেও একই কর্মসূচি পালন করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

কেন্দ্রীয়ভাবে আয়োজিত শোভাযাত্রায় যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ ও সাধারণ সম্পাদক মাইনুল হোসেন খান নিখিল উপস্থিত থাকবেন।

দুর্গাপূজা চলাকালে কুমিল্লা, নোয়াখালী, চাঁদপুরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মন্দির, পূজামণ্ডপ ও ঘরবাড়িতে হামলার ঘটনা ঘটে। রোববার রাতে রংপুরের পীরগঞ্জে আগুনে পুড়িয়ে দেয়া হয় হিন্দুদের অন্তত ২০টি ঘর।

সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও সংসদ সদস্যরা হামলার প্রতিবাদে বেশ সরব হয়েছেন। তবে হামলা ঠেকাতে ব্যর্থ হওয়ায় সমালোচনার মুখে পড়েছে সরকার।

আওয়ামী লীগ দাবি করছে, সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে এ হামলাগুলোতে ইন্ধন দিয়েছে বিএনপি। আর বিএনপি দায়ী করছে সরকারকে।

এ ঘটনায় আলোচনা-সমালোচনার মধ্যে ফেইসবুকে সাম্প্রদায়িক স্ট্যাটাস দেয়ায় পদ হারিয়েছেন ছাত্রলীগের অন্তত ১২ জন নেতা।

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

মেঘনা নদী থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ২

মেঘনা নদী থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগে আটক ২

ভোলায় চাঁদাবাজির অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে কোস্ট গার্ড

কোস্ট গার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট এস এম তাহসিন রহমান বলেন, ‘গতকাল (রোববার) লঞ্চঘাট এলাকায় সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী সাতটি বালুবাহী বাল্কহেডকে একদল চাঁদাবাজ মেঘনা নদীর ইলিশা ও ভাংতির খাল এলাকায় নোঙর করতে বলেছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় জামান এবং কামরুলকে ৭ হাজার ৯০০ টাকা ও ২টি মোবাইল ফোনসহ আটক করা হয়।’

ভোলা সদরের মেঘনা নদী থেকে চাঁদাবাজির অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।

সদর উপজেলার ইলিশা লঞ্চঘাটের ভাংতির খাল এলাকা থেকে কোস্ট গার্ডের দক্ষিণ জোন রোববার রাতে ওই দুই ব্যক্তিকে আটক করে। পরে তাদের ভোলা সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়।

আটক দুজন হলেন মো. জামান ও মো. কামরুল। তাদের বাড়ি ভোলা সদর উপজেলার ইলিশা জংশন এলাকায়।

সোমবার বেলা ১১টার দিকে নিউজবাংলাকে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন কোস্ট গার্ড দক্ষিণ জোনের মিডিয়া কর্মকর্তা লেফটেন্যান্ট এস এম তাহসিন রহমান।

তিনি বলেন, ‘ইলিশা লঞ্চঘাট এলাকায় কিছু চাঁদাবাজ সিলেট, ঢাকা ও চট্টগ্রামগামী বাল্কহেডগুলো থেকে বিভিন্ন সময়ে চাঁদাবাজির জন্য আটক করছে এমন খবর পাই।

‘এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল (রোববার) লঞ্চঘাট এলাকায় সিলেট থেকে চট্টগ্রামগামী সাতটি বালুবাহী বাল্কহেডকে একদল চাঁদাবাজ মেঘনা নদীর ইলিশা ও ভাংতির খাল এলাকায় নোঙর করতে বলেছে, এমন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালানো হয়। এ সময় জামান এবং কামরুলকে ৭ হাজার ৯০০ টাকা ও ২টি মোবাইল ফোনসহ আটক করা হয়।’

কোস্ট গার্ডের এই কর্মকর্তা জানান, আটকদের ভোলা সদর থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। তারা পুলিশি হেফাজতে রয়েছেন। এখনও মামলা হয়নি।

বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের এখতিয়ারভুক্ত এলাকাগুলোতে কোস্ট গার্ডের অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন

আঘাত দিয়ে বাংলাদেশকে দাবিয়ে রাখা যাবে না: খালিদ

আঘাত দিয়ে বাংলাদেশকে দাবিয়ে রাখা যাবে না: খালিদ

দুর্গাপূজায় কুমিল্লায় মণ্ডপে চালানো হয় প্রথম হামলা। ফাইল ছবি

‘তারা মাথা নিচু করে, কুকুরের মতো লেজ গুটিয়ে আজকে চোরাগোপ্তা হামলা করছে। এই চোরাগোপ্তা হামলাও বন্ধ হয়ে যাবে। কারণ, বাংলাদেশের জনগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ।’

সাম্প্রদায়িক আঘাত করে বাংলাদেশকে দাবিয়ে রাখা যাবে না বলে জানিয়ে দিয়েছেন নৌ প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

রাজধানীর বিআইডব্লিউটিসিতে সোমবার শেখ রাসেল দিবসের আলোচনায় তিনি এ কথা বলেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘সাম্প্রদায়িক আঘাত দিয়ে বাংলাদেশকে দাবিয়ে রাখা যাবে না। বাংলাদেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে, তখনই এই সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী আবার নতুনভাবে আঘাত হানছে।

‘তারা মাথা নিচু করে, কুকুরের মতো লেজ গুটিয়ে আজকে চোরাগোপ্তা হামলা করছে। এই চোরাগোপ্তা হামলাও বন্ধ হয়ে যাবে। কারণ, বাংলাদেশের জনগণ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ।’

খালিদ বলেন, ‘পঁচাত্তর থেকে আজকে ২০২১ পর্যন্ত দীর্ঘ ৪৬ বছর যাবত বাংলাদেশে একই গল্প শোনানো হয়েছে, সাম্প্রদায়িকতার গল্প। সংবিধানকে ক্ষত-বিক্ষত করা হয়েছে। সাম্প্রদায়িক বীজ ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছে। পারে নাই।

‘আমরা যখন প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। দারিদ্র্যকে দূর করে যখন একটা উন্নত দেশের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি, যখন এ বাংলাদেশ রাসেলের মতো শিশুদের জন্য একটি নিরাপদ দেশে পরিণত হচ্ছে, তখন সাম্প্রদায়িকতা দিয়ে এই বাংলাদেশকে আবার পেছনে টেনে ধরার চেষ্টা করা হচ্ছে।’

সব ধর্মের মানুষই এ দেশের নাগরিক উল্লেখ করে খালিদ বলেন, ‘সম্মিলিতভাবে এখানে এই মুক্তিযুদ্ধ হয়েছে। এই যে, সম্মিলিত রক্তের বিনিময়ে বাংলাদেশ একটি অসাম্প্রদায়িক রাষ্ট্র হিসেবে আত্মপ্রকাশ করেছিল। আমাদের অসাম্প্রদায়িক চেতনার ভিত্তিতে সংবিধান রচিত হয়েছিল।’

আরও পড়ুন:
বিএনপির দ্বিচারিতা বুঝতে পেরে জনগণ মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে : কাদের
ঘোমটা ছেড়ে প্রকাশ্যে আসুন: কাদের
জনগণ বিএনপি থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে: কাদের
নির্বাচন কমিশন গঠনে সার্চ কমিটিতে বিএনপির প্রতিনিধিও থাকবে: কাদের
সার্চ কমিটিই নির্বাচন কমিশন গঠন করবে: ওবায়দুল কাদের

শেয়ার করুন