গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬

গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৬

গাবতলীর তুরাগ নদে ডুবে যাওয়া ট্রলারের যাত্রীদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের অভিযান। ছবি: পিয়াস বিশ্বাস

আমিনবাজার নৌপুলিশের ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) আলমগীর শেখ এ বিষয়ে বলেন, ‘আজ (সোমবার) বসিলায় তুরাগ নদে ট্রলারডুবির ঘটনায় নিখোঁজ আরেক নারীর মরদেহ পাওয়া গেছে। ওখান থেকে ফায়ার সার্ভিসের একজন আমাকে জানিয়েছে। এর বেশী তথ্য এখনও পাওয়া যায়নি।’

রাজধানীর গাবতলীতে একটি যাত্রীবাহী ট্রলারডুবির ঘটনায় আরও এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করেছে ফায়ার সার্ভিস। এ নিয়ে ওই ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেরে দাঁড়ালো ছয়জনে।

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের বসিলার তুরাগ নদের থেকে সোমবার বেলা ১১টার দিকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ফায়ার সার্ভিসের গণমাধ্যম কর্মকর্তা মো. রায়হান।

আমিনবাজার নৌপুলিশের ফাঁড়ির ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) আলমগীর শেখ এ বিষয়ে বলেন, ‘আজ (সোমবার) বসিলায় তুরাগ নদে ট্রলারডুবির ঘটনায় নিখোঁজ আরেক নারীর মরদেহ পাওয়া গেছে। ওখান থেকে ফায়ার সার্ভিসের একজন আমাকে জানিয়েছে। এর বেশী তথ্য এখনও পাওয়া যায়নি।’

এখন পর্যন্ত চার শিশু ও দুই নারীর মরদেহ উদ্ধার হয়েছে।

একটি বাল্কহেডের ধাক্কায় শনিবার সকাল ৭টার দিকে ডুবে যায় ট্রলারটি।

এতে নিখোঁজ হন রুপায়ন বেগম ও তার চার বছরের ছেলে আরমান, ১৫ মাসের জেসমিন, ৩০ বছরের শায়লা বিবি, দুই বছরের রিপন, আট বছরের আরমিনা এবং পাঁচ বছরের ফারহান মনি।

তাদের মধ্যে শনিবার পাঁচজনের এবং সোমবার একজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সাভার ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তা ওয়্যারহাউস ইন্সপেক্টর মাহফুজুর রহমান মাহফুজ নিউজবাংলাকে জানান, শ্সনিবার সকালে একটি ট্রলারে ১৮ জন তুরাগ নদের উত্তর পাশে আমিনবাজার থেকে গাবতলী ল্যান্ডিং স্টেশনের দিকে যাচ্ছিলেন। তাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু। ওই নারীরা মূলত ল্যান্ডিং স্টেশনের পাশে কয়লার ডিপোতে কাজ করতেন। কাজের সময় তারা সন্তানদের পাশে বসিয়ে রাখতেন।

তুরাগ নদ পারাপারের সময় একটি বালুবাহী বাল্কহেডের সঙ্গে ধাক্কা লেগে ট্রলারটি ডুবে যায়। এ সময় দুই নারী ও পাঁচ শিশু তলিয়ে যায়। অন্যরা সাঁতরে নদের তীরে উঠে আসেন।

ফায়ার সার্ভিসের ওই কর্মকর্তা আরও জানান, ঘটনার পরপরই তাদের একটি ইউনিট উদ্ধারকাজ শুরু করে। পরে রাজধানীর সদর দপ্তর থেকে আরও তিনটি ইউনিট উদ্ধারকাজে যোগ দেয়।

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

মন্তব্য

হিন্দুদের উপর হামলা: ১৬ জেলায় গ্রেপ্তার ২৬৩

হিন্দুদের উপর হামলা: ১৬ জেলায় গ্রেপ্তার ২৬৩

কোরআন অবমাননার অভিযোগ তুলে গত বুধবার কুমিল্লার পূজামণ্ডপে ভাঙচুর করা হয়। ছবি: নিউজবাংলা

বিভিন্ন জেলায় মন্দির ও বাড়ি-ঘর ভাঙচুর এবং হামলার ঘটনা ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৬০টি মামলা হয়েছে। আর এই মামলাগুলোয় আসামি করা হয়েছে ৮ হাজার ৯৪৯ জনকে।

সারা দেশে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার জেরে হওয়া মামলায় এখন পর্যন্ত ২৬৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

সম্প্রতি কুমিল্লায় পূজামণ্ডপে কোরআন পাওয়ার ঘটনায় দেশের বিভিন্ন জেলায় মন্দির ও বাড়ি-ঘর ভাঙচুর এবং হামলার ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনায় এখন পর্যন্ত ৬০টি মামলা হয়েছে। আর এই মামলাগুলোয় আসামি করা হয়েছে ৮ হাজার ৯৪৯ জনকে।

সবশেষ রোববার রাতে রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দুদের বাড়িতে হামলা ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। সে ঘটনায় ৪৫ জনকে গ্রেপ্তারের কথা সোমবার দুপুরে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

কুমিল্লা

কুমিল্লা নগরীর নানুয়ার দিঘিরপাড়ে পবিত্র কোরআন অবমাননার অভিযোগের জেরে সহিংসতার ঘটনায় ৮টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের ৩ কাউন্সিলরসহ ১ হাজার ৫৫ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বিশেষ ক্ষমতা আইনে করা এসব মামলায় সোমবার দুপুর পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৪৪ জনকে।

কুমিল্লা জেলা পুলিশের ডিআইও-ওয়ান মনির আহমেদ এ তথ্য নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, পূজামণ্ডপে হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় কুমিল্লা কোতোয়ালি, সদর দক্ষিণ ও দাউদকান্দি থানায় ৮টি মামলা হয়েছে। এখন পর্যন্ত কোতোয়ালিতে ৪০ এবং সদর দক্ষিণে ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

নোয়াখালী

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ঘটনায় ১৮টি মামলা হয়েছে। এসব মামলায় ২৮৫ জনের নাম উল্লেখসহ ৫ হাজার আসামি করা হয়েছে।

নোয়াখালীর পুলিশ সুপার (এসপি) শহীদুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, মামলাগুলোতে এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ৯০ জনকে। ১০টি মামলার বাদী পুলিশ।

বাকি ছয় মামলার বাদী ক্ষতিগ্রস্ত মণ্ডপ, পূজা কমিটির সদস্য, একটি পূজা ঘরের মালিক ও ইসকন মন্দিরের এক অধ্যক্ষ।

বরিশাল

বরিশালের গৌরনদীতে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের একটি পোস্টে আপত্তিকর কমেন্ট করার অ‌ভি‌যোগে তিনটি মন্দির ও কয়েকটি বসতঘর ভাঙচুরের মামলা

গৌরনদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আফজাল হোসেন ব‌লেন, শুক্রবার দিবাগত রাতে বাড়িতে হামলার ঘটনায় সুভাষ বৈদ্য বাদী হয়ে ২৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরও ৬০ জনের বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা করেন।

পরে রোববার রা‌তে মামলার ৪ নম্বর আসামি সুজন ঢালী‌কে গ্রেপ্তার করে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে কারাগারে পাঠান।

বাগেরহাট

কুমিল্লার ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার রাত ১০টার দিকে বাগেরহাটের শরণখোলায় মিছিল করে উত্তেজনা ছড়ানোর চেষ্টা করে একটি মহল। এ সময় চার জনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

শরণখোলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সাইদুর রহমান জানান, এলাকায় উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে করা মামলায় গ্রেপ্তার চার জনকে বৃহস্পতিবার দুপুরে বাগেরহাট আদালতের মাধ‌মে কারাগা‌রে পাঠানো হয়েছে।

পাবনা

পাবনায় কৈটোলা পূজামণ্ডপে দুর্বৃত্তদের হামলা ও প্রতিমা ভাঙচুরের চেষ্টার অভিযোগে অজ্ঞাত ৮০ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত তিন জনকে আটক করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন বেড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) অরবিন্দ সরকার।

চাঁপাইনবাবগঞ্জ

চাঁপাইনবাবগঞ্জের মনাকষা ইউনিয়নের মনাকষা বৃন্দাপাড়া মণ্ডপে হামলার ঘটনায় মামলা করে মণ্ডপ কর্তৃপক্ষ।

মণ্ডপের সাধারণ সম্পাদক সুবির চন্দ্র সাহা বাদী হয়ে তিন জনের নাম উল্লেখসহ শতাধিক অজ্ঞাতনামা আসামি করে বৃহস্পতিবার বিকেলে মামলা করেন।

শিবগঞ্জ থানার ওসি ফরিদ হোসেন জানান, মণ্ডপে হামলার মামলায় এজাহারে নাম থাকা তিনজনসহ ১০ যুবককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরে তাদের আদালতে মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

সিলেট

কুমিল্লার ঘটনার বুধবার থেকে শুক্রবার পর্যন্ত সিলেট বিভাগের ৬টি উপজেলার বিভিন্ন পূজামণ্ডপে হামলা, ভাঙচুর করা হয়। এ তিন দিনে বিভাগের অন্তত ১৭টি মণ্ডপ ও মন্দিরে হামলা-ভাঙচুর করা হয়েছে। হামলা করা হয় পুলিশের উপরও। বিপুল সংখ্যক লোককে আসামি করা হলেও এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার করা হয়েছে ২১ জনকে।

সিলেটের জকিঞ্জের কালিগঞ্জে বিক্ষোভ মিছিলে বাধা দিলে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সংঘর্ষ হয়। এতে আহত হন পুলিশ সদস্যসহ অন্তত ২০ জন। এ ঘটনায় সাড়ে ৪০০ জনকে আসামি করে মামলা করে পুলিশ।

থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কাসেম জানান, মামলায় এ পর্যন্ত ৬ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যেমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকিদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

সিলেট নগরের আখালিয়ার হালদারপাড়ায় ভাটি বাংলা অগ্রদূত যুব সঙ্গের মণ্ডপে শুক্রবার হামলার ঘটনায় শনিবার রাতে পুলিশ বাদী হয়ে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করে।

জালালাবাদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নাজমুল হুদা খাঁন জানান, এ মামলায় ৪২ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা আরও ২৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। রোববার সকাল পর্যন্ত এ মামলায় ১২ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

হবিগঞ্জ

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার করগাঁও ইউনিয়নের গুমগুমিয়া গ্রামে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পূজামণ্ডপে হামলা ও ভাঙচুর চালায় স্থানীয় পাঞ্জারাই জিকে ওয়াই দাখিল মাদ্রাসার ছাত্ররা। এ সময় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষে নবীগঞ্জ থানার ওসিসহ ২০ জন আহত হন।

এ ঘটনায় নবীগঞ্জ থানার এসআই অমিতাভ বাদী হয়ে ১২০ জনকে আসামি করে মামলা করেন। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা যায়নি বলে জানিয়েছেন নবীগঞ্জ থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মো. আমিনুল ইসলাম।

মৌলভীবাজার

মৌলভীবাজারের কুলাউড়ার কর্মদা ইউনিয়নে বুধবার রাতে ৩টি মন্দিরে হামলার ঘটনায় ৪০০ জনকে আসামি করে মামলা করে পুলিশ।

কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিনয় ভূষণ রায় বলেন, পূজামণ্ডপে ভাঙচুর ও হামলার ঘটনায় ২২ জনের নামোল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪০০ জনকে আসামি করে তিনটি মামলা করা হয়েছে। এখন পর্যন্ত এক জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ওই রাতেই উপজেলার মুন্সীবাজার ইউনিয়নের মঈডাইল ও কামারছড়ায় পূজামণ্ডপ ভাঙচুরের অভিযোগে দুইটি মামলা হয়েছে বলে জানিয়েছেন কমলগঞ্জ থানার ওসি ইয়ারদৌস হাসান।

তিনি বলেন, একটিতে সাতজন এবং অন্যটিতে ১১ জনের নাম উল্লেখসহ ২০০ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। দুই মামলায় এ পর্যন্ত গ্রেপ্তার হয়েছে দুইজন। আসামিদের বেশিরভাগই এলাকা ছেড়ে পালিয়ে গেছে। তাদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

কুড়িগ্রাম

কুড়িগ্রামের উলিপুরে সাম্প্রদায়ির সহিংসতার জেরে ৫টি মামলা হয়েছে।

রংপুরের সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) জাহিদুল ইসলাম জানান, এলাকায় উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে এখন পর্যন্ত ২১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। অন্য আসামিদেরও আইনের আওতায় আনা হবে।

গাজীপুর

গাজীপুরে তিনটি মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাংচুরের ঘটনায় কাশিমপুর থানায় তিনটি মামলা ৬০০ জনকে আসামি করা হয়েছে। প্রতিটি মামলায় ১৫০ থেকে ২০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

কাশিমপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহবুবে খোদা জানান, এসব মামলায় ২০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা। তাদের মধ্যে ১৮ জনকে রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ। গ্রেপ্তার বাকি দুইজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

মুন্সিগঞ্জ

মুন্সীগঞ্জের সিরাজদিখান উপজেলার রাশুনিয়া ইউনিয়নে ধানিয়াপাড়া এলাকায় মহাশ্মশান কালী মন্দিরে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনায় শনিবার দুপুরে একটি মামলা হয়েছে। তবে এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।

সিরাজদিখান থানার পরির্দশক (তদন্ত) আজগর হোসেন নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

কিশোরগঞ্জ

কিশোরগঞ্জে কালী মন্দিরে হামলা চালিয়ে প্রতিমা ভাঙচুরের ঘটনায় ৯ জনের নামসহ ৩০ থেকে ৩৫ জনকে আসামি করে করিমগঞ্জ থানায় মামলা হয়েছে।

করিমগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামছুল আলম সিদ্দিকী নিউজবাংলাকে জানান, মন্দির পরিচালনা কমিটির সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা বীরেন্দ্র চন্দ্র বর্মনের শুক্রবার রাতে মামলা করেন। এ মামলায় চারজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

ফেনী

ফেনীতে মন্দির ভাঙচুর ও শহরের ট্রাংক রোডে দফায় দফায় সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে দুটি মামলা করেছে।

পুলিশ সদস্যকে আহত, বিস্ফোরক ও ভাঙচুরের অভিযোগে ফেনী মডেল থানায় করা মামলা দুটিতে ৪০০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বিষয়টি নিউজবাংলাকে নিশ্চিত করেন ফেনী মডেল থানায় ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মো. মনির হোসেন।

তিনি জানান, এক মামলায় অজ্ঞাত ২০০ থেকে ২৫০ জন এবং আরেক মামলায় অজ্ঞাত ১০০ থেকে ১৫০ জনকে আসামি করা হয়। মামলায় এখন পর্যন্ত কাউকে গ্রেপ্তার করা হয়নি।

তবে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ানোর অভিযোগে এক ছাত্রকে আটক করেছে র‌্যাব। তাকেই এ ঘটনার মূল পরিকল্পনাকারী বলে প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করেন র‌্যাবের ফেনী ক্যাম্পের ভারপ্রাপ্ত কোম্পানি অধিনায়ক জোনায়েদ জাহেদী।

মাদারীপুর

মাদারীপুরের কালকিনিতে ধর্মীয় সহিংসতার জেরে তৌহিদি জনতার ব্যানারে একটি বিক্ষোভ মিছিলে বাধা দিলে পুলিশের উপর হামলার ঘটনা ঘটে। এ সময় দুই পুলিশ সদস্য আহত হন।

এ ঘটনায় শুক্রবার রাতে কালকিনি থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সাঈদ বাদী হয়ে অর্ধশতাধিক ব্যাক্তিকে আসামি করে একটি মামলা করেন। এ মামলায় এখন পর্যন্ত চারজনকে আটক করা হয়েছে।

কালকিনি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ইসতিয়াক আসফাক রাসেল জানান, পুলিশের কাজে বাধা প্রদান ও সংঘর্ষের ঘটনায় ৫০ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। শনিবার দুপুরে বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে চার হামলাকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

রংপুর

রংপুরের পীরগঞ্জে রোববার রাতে এক হিন্দুপাড়ায় হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। সে ঘটনায় সোমবার দুপুর পর্যন্ত ৪৫ জনকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

পীরগঞ্জে হামলায় ২০টি বাড়িঘরে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

বালিশকাণ্ডে ৮ আসামির জামিন কেন বাতিল নয়: হাইকোর্ট

বালিশকাণ্ডে ৮ আসামির জামিন কেন বাতিল নয়: হাইকোর্ট

রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্প। ছবি: সংগৃহীত

রূপপুর বিদ্যুৎ প্রকল্পের বালিশকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ২০১৯ সালের ১২ ডিসেম্বর দুদক চারটি মামলা করে। এ মামলায় নিম্ন আদালত আসামিদের জামিন দিয়েছিল। ওই জামিন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করে দুদক।

রূপপুর পরমাণু বিদ্যুৎ প্রকল্পের বালিশকাণ্ডের মামলায় পাবনা গণপূর্ত বিভাগের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল আলমসহ আট আসামির জামিন কেন বাতিল করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাইকোর্ট।

জামিন বাতিল চেয়ে দুদকের আবেদনের শুনানি নিয়ে সোমবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি জাহিদ সরওয়ার কাজলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়।

আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন একেএম ফজলুল হক, রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল কে এম মাসুদ রুমি।

রূপপুর বিদ্যুৎ প্রকল্পের বালিশকাণ্ডে জড়িত থাকার অভিযোগে ২০১৯ সালের ১২ ডিসেম্বর দুদক চারটি মামলা করে। দুদকের উপপরিচালক নাসিরউদ্দিন ও উপসহকারী পরিচালক শাহজাহান মিরাজ বাদী হয়ে পাবনায় দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলাগুলো করেন।

এজাহারে বলা হয়, পরস্পর যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে লাভবান করতে চেয়েছিলেন গণপূর্ত অধিদপ্তরের কতিপয় প্রকৌশলী। রূপপুর গ্রিন সিটির ২০ তলা ফাউন্ডেশনের ৬ ইউনিটবিশিষ্ট এক নম্বর ভবনের কিছু সিভিল এবং ই/এম ওয়ার্কসহ আইটেম কেনাকাটার ক্ষেত্রে বাজারমূল্য থেকে অনেক বেশি মূল্য দেখান তারা। অতিরিক্ত পরিবহন খরচ, তলাভিত্তিক উত্তোলন খরচ ও শ্রমিকের মজুরি যোগ করে প্রাক্কলন প্রস্তুত করা হয়।

মামলায় আট আসামি হলেন পাবনা গণপূর্ত বিভাগের সাবেক নির্বাহী প্রকৌশলী মাসুদুল আলম, উপবিভাগীয় প্রকৌশলী আহমেদ সাজ্জাদ খান, মোস্তফা কামাল, উপসহকারী প্রকৌশলী জাহিদুল কবীর, সুমন কুমার নন্দী, শফিকুল ইসলাম, সহকারী প্রকৌশলী মো. তারেক ও আমিনুল ইসলাম।

এ মামলায় নিম্ন আদালত আসামিদের জামিন দিয়েছিল। ওই জামিন বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে আবেদন করে দুদক।

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

মণ্ডপে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে শাহবাগে অবরোধ

মণ্ডপে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে শাহবাগে অবরোধ

বিভিন্ন জেলার পূজামণ্ডপে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে শাহবাগ মোড়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অবরোধ। ছবি: নিউজবাংলা

অবরোধে যোগ দিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মিহির লাল শাহ বলেন, ‘আমরা রোহিঙ্গা নই, আমরা বাংলাদেশি। আমরা আমাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালনের অধিকার রাখি। আমাদের এই অধিকারে যারা হাত দিয়েছে, তাদের হাত আমরা ভেঙে দেব। আমরা এভাবে রাস্তা অবরোধ করতে চাইনি, কিন্তু আমাদের বাধ্য করা হয়েছে। যারা আমাদের কারণে যানজটে পড়ে আছে, তাদের কাছে আমরা ক্ষমা চাই।’

কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার পূজামণ্ডপে হামলাকারীদের শাস্তি নিশ্চিতের দাবিসহ ৭ দফা দাবিতে রাজধানীর শাহবাগ মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ করছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

রোববার সকাল ১০টা থেকে শিক্ষার্থীদের অবরোধের কারণে শাহবাগ থেকে পল্টন, সায়েন্স ল্যাব, বাংলামোটর ও টিএসসি অভিমুখী সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলসহ বিভিন্ন হলের আবাসিক শিক্ষার্থীরা টিএসসি এলাকায় জড়ো হন। সেখান থেকে তারা মিছিল নিয়ে শাহবাগ মোড়ে আসেন।

ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) রমনা বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) সাজ্জাদুর রহমান নিউজবাংলাকে বলেন, ‘গতকাল রাতে রংপুরের ঘটনার প্রতিবাদে শাহবাগ মোড়ে জগন্নাথ হলের ছাত্ররা অবস্থান নিয়েছে। যান চলাচল বেশ কিছুক্ষণ ধরে বন্ধ আছে। হলের প্রভোস্ট স্যারও আছেন।’

অবরোধে যোগ দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক মিহির লাল শাহ বলেন, ‘আমরা সবাই বাংলাদেশের মানুষ। সকলের শরীরে একই রক্ত প্রবাহিত হয়। তাহলে এ ধর্মীয় উন্মাদনা কেন? সরকারের প্রতি আমাদের দাবি, এই সাম্প্রদায়িক হামলা বন্ধ করতে হবে। দ্রুত হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক। আমাদের দাবি না মানা পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে।

‘আমরা রোহিঙ্গা নই, আমরা বাংলাদেশি। আমরা আমাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালনের অধিকার রাখি। আমাদের এই অধিকারে যারা হাত দিয়েছে, তাদের হাত আমরা ভেঙে দেব। আমরা এভাবে রাস্তা অবরোধ করতে চাইনি, কিন্তু আমাদের বাধ্য করা হয়েছে। যারা আমাদের কারণে যানজটে পড়ে আছে, তাদের কাছে আমরা ক্ষমা চাই।’

মোড়ে অবস্থান নেয়া শিক্ষার্থীরা ‘সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় করতে হবে’, ‘মন্দিরে হামলা কেন, প্রশাসন জবাব চাই’, ‘ভাইয়ের রক্ত বৃথা যেতে দেব না’সহ নানা স্লোগান দিচ্ছেন।

তাদের ৭ দফা হলো:

০১. হামলার শিকার মন্দিরগুলো প্রয়োজনীয় সংস্কার করা।

০২. বসতবাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাটের ক্ষতিপূরণ।

০৩. ধর্ষণ ও হত্যার শিকার পরিবারগুলোকে স্থায়ী ক্ষতিপূরণ।

০৪. দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করা।

০৫. জাতীয় সংসদে আইন প্রণয়নের মাধ্যমে মন্দির ও সংখ্যালঘুদের বসতবাড়িতে সাম্প্রদায়িক হামলার দায়ে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা।

০৬. সংখ্যালঘু মন্ত্রণালয় ও সংখ্যালঘু কমিশন গঠন, হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্ট্রের আধুনিকায়ন করে ফাউন্ডেশনে উন্নীত করা।

০৭. জাতীয় বাজেটে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের জন্য জিডিপির ১৫% বরাদ্দ রাখা।

আন্দোলনকারীরা বলছেন, তাদের এসব দাবি মানার আশ্বাস না আসা পর্যন্ত তারা অবরোধ চালিয়ে যাবেন।

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

শেখ রাসেল একটি ভালোবাসার নাম: অর্থমন্ত্রী

শেখ রাসেল একটি ভালোবাসার নাম: অর্থমন্ত্রী

শেখ রাসেল। ছবি: সংগৃহীত

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ রাসেল আজ বাংলাদেশের প্রতিটি শিশু-কিশোর, তরুণ, শুভবোধসম্পন্ন মানুষের কাছে একটি আদর্শ ও ভালোবাসার নাম। শেখ রাসেল অবহেলিত, পশ্চাৎপদ, অধিকার বঞ্চিত শিশু-কিশোরদের আলোকিত জীবন গড়ার প্রতীক হয়ে গ্রাম থেকে শহর তথা বাংলাদেশের প্রতিটি লোকালয়ে ছড়িয়ে পড়ুক, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’

বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ সন্তান শহিদ শেখ রাসেল বাংলাদেশের প্রতিটি শুভবোধসম্পন্ন মানুষের কাছে একটি আদর্শ ও ভালোবাসার নামে পরিণত হয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে সোমবার অর্থ মন্ত্রণালয় আয়োজিত ভার্চুয়াল আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ মন্তব্য করেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ রাসেল আজ বাংলাদেশের প্রতিটি শিশু-কিশোর, তরুণ, শুভবোধসম্পন্ন মানুষের কাছে একটি আদর্শ ও ভালোবাসার নাম। শেখ রাসেল অবহেলিত, পশ্চাৎপদ, অধিকার বঞ্চিত শিশু-কিশোরদের আলোকিত জীবন গড়ার প্রতীক হয়ে গ্রাম থেকে শহর তথা বাংলাদেশের প্রতিটি লোকালয়ে ছড়িয়ে পড়ুক, এটাই আমাদের প্রত্যাশা।’

সভায় মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অভ্যন্তরীণ সম্পদ বিভাগের সিনিয়র সচিব আবু হেনা রহমাতুল মুনিম, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব শেখ মোহাম্মদ সলীম উল্লাহ বক্তব্য রাখেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতা পরিবারের সর্বকনিষ্ঠ সদস্যের নাম দিয়েছিলেন বৃটিশ দার্শনিক বার্ট্রান্ড রাসেলের নামে। এই নামটিকে ঘিরে নিশ্চয়ই বঙ্গবন্ধুর মহৎ কোনো স্বপ্ন বা আকাঙ্ক্ষা ছিল। বঙ্গবন্ধু নিজেও ছিলেন বিশ্ব মানবতার উজ্জ্বল দ্যুতি, নিপীড়িত মানুষের বন্ধু, বাঙালি জাতির পিতা, মুক্তিকামী মানুষের মহান নেতা এবং গণতন্ত্র, স্বাধীনতা ও শান্তি আন্দোলনের পুরোধা।

‘সেই ছোট্ট বয়সে শেখ রাসেল যখন টুঙ্গিপাড়ায় বেড়াতে যেতেন, সেখানে বাচ্চাদের জড়ো করতেন, খেলনা বন্দুক তৈরি করে তাদেরকে প্যারেড করাতেন। পরিবারের সহায়তায় তিনি খুদে ওই বাহিনীর জন্য জামা-কাপড় ঢাকা থেকেই কিনে নিতেন, খাবারের ব্যবস্থাও করতেন। শেখ রাসেলের স্বভাব ও আচরণ ছিল অন্য আট দশজন থেকে ব্যতিক্রম, অনায়াসেই যে কেউ তার একনিষ্ঠ ভক্ত এবং বন্ধু হয়ে যেত।’

৭৫ এর পৈশাচিক হত্যাকাণ্ডের নিষ্ঠুরতা উল্লেখ করে অর্থমন্ত্রী বলেন, ‘মাত্র ১১ বছর বয়সে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র শেখ রাসেল, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যদের সঙ্গে ঘাতকদের হাতে হত্যার নির্মম শিকার হন। পৃথিবীতে যুগে যুগে রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড ঘটেছে, কিন্তু এমন নির্মম, নিষ্ঠুর এবং পৈশাচিক হত্যাকাণ্ড কোথাও ঘটেনি। মা, বাবা, দুই ভাই, ভাইয়ের স্ত্রী, চাচা সবার লাশের পাশ দিয়ে হেঁটে গিয়ে সবার শেষে নিষ্ঠুরভাবে ঘাতকেরা হত্যা করে শেখ রাসেলকে।

‘যাদের সান্নিধ্যে স্নেহ-আদরে হেসে খেলে বড় হয়েছেন তাদের নিথর দেহগুলো পড়ে থাকতে দেখে তার মনের কী অবস্থা হয়েছিল! কী কষ্টই না তিনি পেয়েছিলেন! ঘাতকেরা বঙ্গবন্ধুসহ পরিবারের অন্য সদস্যদের বুলেটের আঘাতে একবারই হত্যা করেছে, কিন্তু শিশু রাসেলকে বুলেটের আঘাতে হত্যা করার আগেই কয়েকবার হত্যা করেছে।’

অর্থমন্ত্রী আরও বলেন, ‘বেঁচে থাকলে আজ শেখ রাসেলের বয়স হত ৫৭ বছর, সামিল হতেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে। ভিশন ২০২১, ২০৩০, ২০৪১, ডেল্টা প্ল্যান, চতুর্থ শিল্পবিপ্লব নিয়ে তার হাসু আপা বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শেখ রেহানা, সজীব ওয়াজেদ জয় এখন যেমন দেশের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন, তিনিও নিঃসন্দেহে নিজেকে দেশের জন্য নিয়োজিত রাখতেন। তিনি হয়তো বিজ্ঞানী অথবা জাতির পিতার মতো বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার কাণ্ডারি হতেন। কিংবা হতে পারতেন বার্ট্রান্ড রাসেলের মতোই স্বমহিমায় উজ্জ্বল বিশ্বমানবতার প্রতীক।’

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

উপকূলে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

উপকূলে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

আবহাওয়া অফিস বলছে, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। ফাইল ছবি/নিউজবাংলা

আবহাওয়া সতর্কবার্তায় বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্য আধিক্য বিরাজ করছে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং সমুদ্র বন্দরগুলোর উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

গরমের পর সারা দেশে বৃষ্টিতে স্বস্তি ফিরেছে জনজীবনে। আবহাওয়া অফিস বলছে, থেমে থেমে বৃষ্টি হবে আরও কয়েকদিন। সেই সঙ্গে উপকূলে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।

সোমবার বিকেলে আবহাওয়া সতর্কবার্তায় বলা হয়, উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্য আধিক্য বিরাজ করছে। এর প্রভাবে বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং সমুদ্র বন্দরগুলোর উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে বলা হয়েছে, লঘুচাপটি বর্তমানে তেলেঙ্গনা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় বিরাজমান। দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বায়ু দেশের উত্তরাঞ্চল থেকে বিদায় নিয়েছে। অন্যত্র মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে তা মাঝারি অবস্থায় রয়েছে।

খুলনা ও বরিশাল বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়, চট্টগ্রাম, রাজশাহী ও ঢাকা বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, ময়মনসিংহ ও সিলেট বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি বৃষ্টি বা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

সেই সঙ্গে দেশের দক্ষিণাঞ্চলের কোথাও কোথাও মাঝারি থেকে ভারি বৃষ্টিপাত বর্ষণ হতে পারে। সারা দেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস হ্রাস পেতে পারে।

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪৫

পীরগঞ্জের ঘটনায় গ্রেপ্তার ৪৫

রংপুরের পীরগঞ্জে হিন্দু অধ্যুষিত গ্রামে হামলা চালিয়ে বেশ কিছু বাড়িঘর পুড়িয়ে দিয়েছে দুর্বৃত্তরা। হামলার শিকার এক পরিবার। ছবি: নিউজবাংলা

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রংপুরের ঘটনায় এলাকাবাসীর সহায়তায় এরই মধ্যে ৪৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরও কয়েকজনকে ধরার চেষ্টা করছি।’

রংপুরের পীরগঞ্জে এক হিন্দুপাড়ায় ঘরবাড়িতে আগুনের ঘটনায় এরই মধ্যে ৪৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

সম্প্রতি সারা দেশের মণ্ডপসহ সাম্প্রদায়িক হামলায় মুষ্টিমেয় কয়েকজন জড়িত এবং তাদের কয়েকজনকে চিহ্নিত করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

সোমবার সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের মন্ত্রী এসব কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘একটা বিশৃঙ্খল পরিবেশ সৃষ্টি করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার জন্যই এসব ঘটনা ঘটানো হচ্ছে। কুমিল্লার ঘটনাটি উদ্দেশ্যমূলকভাবে বিভ্রান্তি সৃষ্টির জন্য, একটা অরাজক পরিস্থিতি সৃষ্টির জন্য, আমাদের সম্প্রীতির ভেতর ফাটল সৃষ্টির কৌশল ছিল।

‘কিন্তু অনেকেই এখানে না বুঝে অনেক কিছু করে ফেলেছেন। চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে পুলিশ বাধ্য হয়ে ফায়ার ওপেন করেছে, সেখানে চারজন নিরীহ ব্যক্তির প্রাণ গেছে। নোয়াখালীতে নামাজ হয়ে গিয়েছিল, মুসল্লিরা চলে গিয়েছিল, নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা খাবার খাচ্ছিল, এমন সময় কিছু টিনএজ বয়সের ছেলে এসে বিশৃঙ্খলা তৈরি করেছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘রংপুরের ঘটনায় এলাকাবাসীর সহায়তায় এরই মধ্যে ৪৫ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আরও কয়েকজনকে ধরার চেষ্টা করছি।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেন, ‘আমাদের নিরাপত্তার যত ধরনের ব্যবস্থা সেটি আমরা নিয়েছি। ঘটনাটি আকস্মিকভাবেই ঘটেছে। দুষ্কৃতকারীরা ৯০-এর বেশি বাড়িঘর লুটপাট ও ভাঙচুর করেছে। এ ঘটনাগুলো পুলিশ যাওয়ার আগেই ঘটিয়েছে। রাতেই ঘটনাস্থলে অতিরিক্ত পুলিশ, এপিবিএন, র‍্যাব, বিজিবি গেছে। সেখানে কোনো জীবনহানি হয়নি। তবে সম্পদহানি হয়েছে, বাড়িঘর পুড়িয়েছে।’

সারা দেশের ঘটনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী কাজ করছে বলে জানান তিনি।

মন্ত্রী বলেন, ‘নোয়াখালীতে যা ঘটেছে, কুমিল্লায় যা ঘটেছে, হাজীগঞ্জে যা ঘটেছে, এগুলোকে আমরা এক সূত্র হিসেবে ধরে নিয়েছি। এগুলোর পেছনে কিছু ব্যক্তি রয়েছে। এরই মধ্যে আমরা সন্দেহজনক লোকদের চিহ্নিত করেছি, সম্পূর্ণ কনফার্ম হয়ে সবাইকে জানাব। এর জন্য কিছু সময় লাগবে। আমরা অনুমান করছি, আমাদের অনুমান সত্যি হবে।’

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘কুমিল্লার ঘটনাটি একটি সাজানো ঘটনা। এটা উদ্দেশ্যমূলকভাবেই করা হয়েছে। কোনো সম্প্রদায়ের লোক অন্য একটা সম্প্রদায়ের ধর্মগ্রন্থকে অপমান করবে, এই ধরনের মনমানসিকতার লোক বাংলাদেশে নেই। সম্প্রীতি নষ্ট করার জন্য, সরকারকে অস্থিতিশীল অবস্থায় ফেলার জন্য এটা করা হয়েছে।’

আসাদুজ্জামান বলেন, ‘এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নির্দেশ দিয়েছেন যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তাদের যথাযথ ব্যবস্থা নিতে। জেলা প্রশাসন তাদের তাৎক্ষণিক অর্থ, শাড়ি-কাপড় বিতরণ করেছে। সেখানকার এমপি-স্পিকার, তিনিও উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। খুব শিগগিরই আমরা তাদের বাড়িঘর তৈরি করে দেব।’

হামলার পরের দিনই নোয়াখালী ও রংপুরে এসপিকে বদলির ঘটনা নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘নোয়াখালীর এসপিকে বদলি করা হয়েছে আরও দুই মাস আগে। আর রংপুরের এসপিকেও বদলি করা হয়েছে। তিনি অসুস্থ ছিলেন, এ জন্য তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে একটু দেরি করা হয়েছে। দুই বছর পরপর পুলিশের বদলি হবে এটা স্বাভাবিক প্রক্রিয়া।’

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন

পদোন্নতি পেলেন র‌্যাব মহাপরিচালক-ডিএমপি কমিশনার

পদোন্নতি পেলেন র‌্যাব মহাপরিচালক-ডিএমপি কমিশনার

র‌্যাব মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন (বাঁয়ে) ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলাম

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

পদোন্নতি পেয়েছেন র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এর মহাপরিচালক চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন ও ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ কমিশনার মোহা. শফিকুল ইসলামকে। গ্রেড-১ পদে পদোন্নতি দেয়া হয়েছে তাদের।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে সোমবার এ তথ্য জানানো হয়।

এতে উল্লেখ করা হয়, বিসিএস (পুলিশ) ক্যাডারের অতিরিক্ত পুলিশ মহাপরিদর্শক গ্রেড-২ পদের বিপরীতে গ্রেড-১ এর দুইটি সুপারনিউমারারি পদে (অবসর, অপসারণ কিংবা অন্যকোনো কারণে পদ শূন্য হলে বিলুপ্তির শর্তে) তাদের উন্নীত করা হলো।

২০২০ সালের ৮ এপ্রিল র‌্যাবের প্রধান হিসেবে চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুনকে নিয়োগ দেয় সরকার। এর আগে সিআইডির প্রধান ছিলেন তিনি।

আর ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে ডিএমপি কমিশনার হিসেবে নিয়োগ পান শফিকুল ইসলাম। এর আগে বাংলাদেশ পুলিশের সিআইডির অতিরিক্ত আইজিপি হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন তিনি।

আরও পড়ুন:
তুরাগে একই স্থানে এবার ডুবল বাল্কহেড
তুরাগে নিহত পাঁচজনের পরিবারকে আর্থিক সহায়তা
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫
গাবতলীতে ট্রলারডুবি: শিশুসহ ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার
গাবতলীতে শ্রমিকবাহী ট্রলারের সংঙ্গে বাল্কহেডের ধাক্কা: নিখোঁজ ৭

শেয়ার করুন