৩২ সরকারি কলেজে নতুন অধ্যক্ষ

৩২ সরকারি কলেজে নতুন অধ্যক্ষ

নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগের পাশাপাশি ৩২টি সরকারি কলেজে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারভুক্ত শিক্ষকদের পদায়ন দেয়া হয়েছে। বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ প্রজ্ঞাপনটি জারি করে।

৩২টি সরকারি কলেজে নতুন অধ্যক্ষ নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এসব কলেজে বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারভুক্ত শিক্ষকদের পদায়ন দেয়া হয়েছে। নতুন পদায়নকৃত অধ্যক্ষদের ৫ অক্টোবরের মধ্যে বর্তমান কর্মস্থল থেকে অবমুক্ত হতে বলা হয়েছে।

বুধবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ প্রজ্ঞাপনটি জারি করে।

কে কোন কলেজে অধ্যক্ষ হলেন

রাজধানীর তিতুমীর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের উপাধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্বপালনরত তালাত সুলতানা আর সরকারি আজিমপুর গালর্স স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন ঢাকা কলেজের অধ্যাপক হোসনে আরা খাতুন।

ফেনীর পরশুরাম সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক আবু কাওছার মোহাম্মদ হারেছ। খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন সিলেট সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ মিছবাহুদ্দীন আহমদ।

নোয়াখালীর কবিরহাট সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন চৌমুহনীর সরকারি ছালেহ আহমেদ কলেজের অধ্যাপক মোহাম্মদ হানিফ। নোয়াখালীর সেনবাগ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা অধ্যাপক এ কে এম সেলিম চৌধুরী।

বরিশালের ফজলুল হক সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন বরিশাল ব্রজমোহন কলেজের অধ্যপক মোহাম্মদ আবদুর রব। বরিশালের আলেকান্দা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন ভোলার লালমোহনের সরকারি শাহবাজপুর কলেজের অধ্যাপক মো. মাসুদ রেজা।

বরিশালের সরকারি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন খুলনা সরকারি টিচার্স ট্রেনিং কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. নজরুল ইসলাম।

ভোলার চরফ্যাশন সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন ভোলা সরকারি কলেজের অধ্যাপক আবদুল গফুর। ঝালকাঠী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন বরিশাল সরকারি ব্রজমোহন কলেজের অধ্যাপক মো. ইউনুছ আলী সিদ্দিকী।

পিরোজপুরের সরকারি স্বরূপকাঠি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন বরিশাল গৌরনদী সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ মোহাম্মদ নিজামুল হায়দার। পিরোজপুর ভান্ডারিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের মো. অধ্যাপক আমানুল্লাহ খান।

পিরোজপুর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের অধ্যাপক তৌহিদুল ইসলাম খান। ফেনী টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন ঢাকা টিচার্স ট্রেনিং কলেজের অধ্যাপক নূরতাজ আরা।

ব্রাহ্মণবাড়ীয়ার নবীনগর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন। লক্ষ্মীপুরের রায়পুর সরকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যাপক মোহাম্মদ আলাউদ্দিন।

ফরিদপুরের সরকারি রাজেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক আসীম কুমার সাহা। গোপালগঞ্জের নজরুল সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন মাদারীপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক রেবতী মোহন সরকার।

মানিকগঞ্জের সরকারি দেবেন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের উপাধ্যক্ষ ড. মো. রেজাউল করিম। গোপালগঞ্জের সরকারি বঙ্গবন্ধু কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের অধ্যাপক মো. ওহিদ আলম লস্কর।

খুলনার সরকারি ব্রজলাল কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের উপাধ্যক্ষ শরীফ আতিকুজ্জামান। খুলনার সরকারি সুন্দরবন আদর্শ কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের অধ্যাপক মাসুদা সুলতানা। কুষ্টিয়ার সরকারি সেন্ট্রাল কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন সরকারি সুন্দরবন আদর্শ কলেজের অধ্যাপক মাসুদা সুলতানা।

কুষ্টিয়া সরকারি সেন্ট্রাল কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন ওএসডি কর্মকর্তা অধ্যাপক মো. আজমল গণি। কুষ্টিয়ার আমলা সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যাপক মো. বাদশা জাহাঙ্গীর।

মাগুরা সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন যশোরের সরকারি মাইকেল মধুসূদন কলেজের অধ্যাপক মো. আবদুস সাত্তার এবং সাতক্ষীরার আশাশুনি সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন আবুল কালাম আজাদ।

গোপালগঞ্জের কাশিয়ানির রামদিয়া সরকারি শ্রীকৃষ্ণ কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন একই কলেজের অধ্যাপক নিত্যানন্দ রায়। যশোর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন যশোর সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যাপক নার্গিস শিরীন।

বাগেরহাটের প্রফুল্ল চন্দ্র কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন নগরকান্দা মহাবিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ মো. আসাদুল আলম খান। খুলনার সরকারি এল বি কে ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন নায়েমে কর্মরত অধ্যাপক খান রফিকুল ইসলাম।

খুলনার আজম খান বাণিজ্য কলেজের অধ্যক্ষ হয়েছেন খুলনার পাইওনিয়ার সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ অধ্যাপক জাহানারা।

শেয়ার করুন

গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা: ‘বি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষা: ‘বি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ

ফাইল ছবি

‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষায় ৪০ এর উপরে নম্বর পেয়েছেন ১৯ হাজার ৫৩ জন পরীক্ষার্থী। প্রথম স্থান অধিকারী পেয়েছেন ৯৩.৭৫ নম্বর।

দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে গুচ্ছ পদ্ধতির ভর্তি পরীক্ষার ‘বি’ ইউনিটের ফল প্রকাশ করা হয়েছে।

ফল ভর্তি বিষয়য় ওয়েবসাইটে (https://gstadmission.ac.bd/) পাওয়া যাচ্ছে।

ভর্তি পরীক্ষা আয়োজক কমিটির যুগ্ম আহ্বায়ক ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘গত ২৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিত ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষায় ৬৩ হাজার ৫১৮ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে ২ জনের ওএমআর বাতিল হয়েছে রোল কিংবা সেট কোড না লেখায়। এ ছাড়া, ৩ পরীক্ষার ওএমআর রিপোর্টিংয়ের জন্য বাতিল হয়েছে। তাই ৬৩ হাজার ৫১৩ জনের ফলাফল আমরা প্রকাশ করছি।’

‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষায় ৪০ এর উপরে নম্বর পেয়েছেন ১৯ হাজার ৫৩ জন পরীক্ষার্থী। প্রথম স্থান অধিকারী পেয়েছেন ৯৩.৭৫ নম্বর।

গত রোববার (২৪ অক্টোবর) ‘বি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

গুচ্ছভুক্ত ২০ বিশ্ববিদ্যালয়

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, পটুয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়, কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়।

এ ছাড়া, রয়েছে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বেগম রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয়, পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়, রাঙামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ডিজিটাল ইউনিভার্সিটি, শেখ হাসিনা বিশ্ববিদ্যালয় এবং বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়।

শেয়ার করুন

সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিক নিহত

সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে নির্মাণাধীন ভবন থেকে পড়ে শ্রমিক নিহত

সহকর্মী আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘দুপুরের দিকে আমরা কয়েকজন মাচান বেঁধে প্লাস্টারের কাজ করছিলাম। হঠাৎ উপর থেকে তার মাথার উপরে একটি ইট পড়ে। তখন মোশারফ মাচান থেকে নিচে পড়ে যায়।’

রাজধানীর নিউ মার্কেট এলাকায় সায়েন্স ল্যাবরেটরিতে নির্মাণাধীন একটি ভবনের সাত তলা থেকে পড়ে এক নির্মাণ শ্রমিক নিহত হয়েছেন।

২৮ বছর বয়সী ওই শ্রমিকের নাম মোশারফ হোসেন। তার গ্রামের বাড়ি চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায়।

সহকর্মীরা জানান, মঙ্গলবার দুপুর ১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত অবস্থায় মোশারফকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগে আনলে চিকিৎসক দুপুর ২টার দিকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহতের সহকর্মী আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘দুপুরের দিকে আমরা কয়েকজন মাচান বেঁধে প্লাস্টারের কাজ করছিলাম। হঠাৎ উপর থেকে তার মাথার উপরে একটি ইট পড়ে। তখন মোশারফ মাচান থেকে নিচে পড়ে যায়।’

তিনি বলেন, ‘মোশারফ এর আগে আট মাস এই ভবনে কাজ করে গেছে। বাড়িতে ছুটিতে গিয়েছিল। আবার দেড় মাস ধরে কাজ করছে। কে জানে আজ এভাবে তার মৃত্যু হবে।’

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এএসআই আব্দুল্লাহ খান মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, ‘মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রাখা হয়েছে। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট থানায় জানানো হয়েছে।’

শেয়ার করুন

ফ্লাইটে ফিরলেন বিমানের পাইলটরা

ফ্লাইটে ফিরলেন বিমানের পাইলটরা

বাপা সভাপতি ক্যাপ্টেন মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘এটা একটা মোটামুটি কনক্লুশনে আমরা আসতে পেরেছি। এ কারণে আমাদের ফ্লাইটগুলো, আমাদের সবারই ৭৫ ঘণ্টা ফ্লাইং আওয়ার হয়ে গেছে। মাসের কোটা আমরা ফিলআপ করেছি, তারপরেও আমরা ফ্লাইটগুলো করে দেব। অর্থাৎ চুক্তির বাহিরে যে ফ্লাইটগুলো সেগুলো আমরা চালাব আজ থেকে। শনিবারের সিদ্ধান্ত পর্যন্ত আমরা অপেক্ষা করছি।’

করোনার সময় পাইলটদের বেতন কাটার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা না করায় বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের পাইলটরা চুক্তির অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনা না করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন, কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে তা প্রত্যাহার করেছেন।

বিমান কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন বাংলাদেশ পাইলট অ্যাসোসিয়েশনের (বাপা) সভাপতি ক্যাপ্টেন মাহবুবুর রহমান।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘বিমানের ব্যবস্থাপনা পরিচালকের সঙ্গে আমরা কথা বলেছি। সেখানে পরিচালকরাও ছিলেন। সবার সঙ্গে বাপার নির্বাহী কমিটির বৈঠক হয়েছে। সেখানে সর্বসম্মত ভাবে সকলেই একমত হয়েছেন, আমাদের যে ওভারসিজ অ্যালায়েন্স যেটা আমাদের বেতনের অংশ, এটি আগামী শনিবারের বোর্ড মিটিংয়ে তোলা হবে। সেখানে এটি সমন্বয় করে দেয়া হবে বলে আমাদের আশ্বাস দেয়া হয়েছে।

‘এটা একটা মোটামুটি কনক্লুশনে আমরা আসতে পেরেছি। এ কারণে আমাদের ফ্লাইটগুলো, আমাদের সবারই ৭৫ ঘণ্টা ফ্লাইং আওয়ার হয়ে গেছে। মাসের কোটা আমরা ফিলআপ করেছি, তারপরেও আমরা ফ্লাইটগুলো করে দেব। অর্থাৎ চুক্তির বাহিরে যে ফ্লাইটগুলো সেগুলো আমরা চালাব আজ থেকে। শনিবারের সিদ্ধান্ত পর্যন্ত আমরা অপেক্ষা করছি।’

গত বছর দেশে করোনাভাইরাসের মহামারি শুরুর পর ব্যয় সংকোচন করতে অন্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে নির্দিষ্ট হারে পাইলটদেরও বেতন কাটছিল বিমান কর্তৃপক্ষ।

সে জন্য এর আগে, গত জুলাইয়ে একবার চুক্তির বাহিরে ফ্লাইট চালাতে অস্বীকৃতি জানায় পাইলটরা। তবে সে সময় বিমান কর্তৃপক্ষের আশ্বাসে সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসেন তারা।

গত তিন মাসেও কর্তৃপক্ষ বেতন কাটার সিদ্ধান্ত থেকে সরে না আসায় সোমবার থেকে আবারও চুক্তির অতিরিক্ত ফ্লাইট চালানো বন্ধ করে দেয় বিমানের পাইলটরা। এতে মধ্যপ্রাচ্যগামী অন্তত দুটি ফ্লাইটের সিডিউল ওলট-পালট করতে হয় বিমান কর্তৃপক্ষকে। ভোগান্তিতে পড়েন ফ্লাইট দুটির শতাধিক যাত্রী।

বেতন কাটা নিয়ে বিমানের আদেশে বলা হয়, বিমানে কর্মরত ‘কর্মকর্তা’ এবং যেসব ককপিট ক্রুর চাকরির বয়স শূন্য থেকে পাঁচ বছর, জুলাই মাসে তাদের কোনো বেতন কাটা হবে না। তবে যেসব ককপিট ক্রুর চাকরির বয়স পাঁচ থেকে দশ বছর, জুলাই মাসে তাদের বেতন থেকে ৫ শতাংশ এবং যারা দশ বছরের বেশি সময় ধরে চাকরি করছেন, তাদের ২৫ শতাংশ কাটা হবে। এ সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা নিয়েই প্রশ্ন তোলেন পাইলটরা।

বিমান ব্যবস্থাপনা বিভাগের তথ্য অনুযায়ী, পাইলটদের মধ্যে যাদের চাকরির বয়স পাঁচ বছরের মধ্যে স্বাভাবিক সময়ে তাদের বেতন ২ লাখ ৬ হাজার ৮৪ টাকা। যাদের চাকরির বয়স ৫ থেকে ১০ বছর, তারা ওভারসিজ ভাতা হিসেবে অতিরিক্ত পান ২ লাখ ১৬ হাজার টাকা। এতে তাদের বেতন হয় ৫ লাখ ৭৩ হাজার টাকা।

যাদের চাকরির বয়স ১০ থেকে ২০ বছর, তাদের বেতন ওভারসিজ ভাতাসহ ১০ লাখ ৭০ হাজার টাকা। আর যাদের চাকরির বয়স এর চেয়ে বেশি, তারা পান ১২ লাখ ১ হাজার টাকা।

এ ছাড়া চুক্তির অতিরিক্ত সময় দায়িত্ব পালন করলে তাদের আলাদা করে দেয়া হয় প্রোডাক্টিভিটি অ্যালাওয়েন্স।

আগে পাইলটদের নির্দিষ্ট হারে যে ওভারসিজ ভাতা দেয়া হতো, সেটি করোনায় আয় কমে যাওয়ায় পরিবর্তন করে বর্তমানে ফ্লাইং ঘণ্টা হিসেবে দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিমান বোর্ড।

বর্তমানে বিমানে সব মিলিয়ে ১৫৭ জন পাইলট কর্মরত রয়েছেন। বাপার সঙ্গে বিমানের যে চুক্তি, সেটি অনুযায়ী একজন পাইলটের দৈনিক সর্বোচ্চ ১৩ ঘণ্টা কাজ করার কথা। সপ্তাহে একজন পাইলট কাজ করবেন সর্বোচ্চ ৭৫ ঘণ্টা। এর বাইরেও তিনি সপ্তাহে দুদিন ছুটি পাবেন।

শেয়ার করুন

বিয়েবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগে ছাত্রদল নেতাকে পিটুনি

বিয়েবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগে ছাত্রদল নেতাকে পিটুনি

মারধরের শিকার মাসুদ রানা জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি ও বেড়া উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক। ছবি: নিউজবাংলা

ওসি রওশন আলী জানান, কিছুদিন ধরে রূপপুর ইউনিয়নের এক প্রবাসীর স্ত্রী সঙ্গে মাসুদ রানার বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক চলছিল। সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূর এক ভাইয়ের বাসা থেকে তাদের দুজনকে ‘আপত্তিকর অবস্থায়’ আটক করেন স্থানীয়রা। পরে মাসুদ উত্তেজিত লোকজনের পিটুনির শিকার হন।

বিয়েবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগ তুলে পাবনার আমিনপুরে ছাত্রদলের এক নেতাকে পিটুনি দিয়েছে এলাকাবাসী।

পুলিশ বলছে, উপজেলার রূপপুর ইউনিয়নের ভূয়াপাড়া এলাকায় সোমবার ঘটনাটি ঘটে।

মারধরের শিকার মাসুদ রানা জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি ও বেড়া উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, কিছুদিন ধরে রূপপুর ইউনিয়নের এক প্রবাসীর স্ত্রী সঙ্গে মাসুদ রানার বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক চলছিল। সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূর এক ভাইয়ের বাসা থেকে তাদের দুজনকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করেন স্থানীয়রা।

পরে মাসুদ রানা উত্তেজিত লোকজনের পিটুনির শিকার হন। একপর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালান মাসুদ।

পুলিশ ওই গৃহবধূকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমিনপুর থানায় নিয়ে যায়।

মাসুদ রানার দলীয় পরিচয় নিশ্চিত করে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান প্রিন্স বলেন, ‘এ বিষয়ে আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। ফেসবুকে বিষয়টি জেনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী জানান, ওই নারীকে রোষাণল থেকে বাঁচাতে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়। রাতে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং পুরস্কার পেলেন ২২ সাংবাদিক

নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং পুরস্কার পেলেন ২২ সাংবাদিক

নগদ-ডিআরইউ সেরা রিপোর্ট পুরস্কার বিতরণে অতিথিরা। ছবি: নিউজবাংলা

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তির এক সুবর্ণ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এখন দেশে অনলাইন পোর্টালসহ নিত্যনতুন গণমাধ্যমের সঙ্গে পরিচিত হচ্ছি। আমাদের চলার পথে সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাংবাদিকতা তাই গুরুত্বপূর্ণ। গণমাধ্যম থেকে তথ্য পাওয়ার পর আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারি। তবে এখন দায়িত্বশীল ও নৈতিকতাপূর্ণ সাংবাদিকতা খুবই জরুরি। কারণ ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে নাশকতা ঘটানো হচ্ছে‌। এজন্য প্রয়োজন উপযুক্ত সাংবাদিকতা।’

পেশাদার সাংবাদিকদের সংগঠন ঢাকা রির্পোটার্সি ইউনিটির (ডিআরইউ) গত এক বছরের সেরা প্রতিবেদকের পুরস্কার পেয়েছেন বিভিন্ন গণমাধ্যমের ২২ সাংবাদিক।

‘নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ পুরস্কারে এবার প্রিন্ট-অনলাইন ক্যাটাগরিতে ১৩ জন এবং টেলিভিশন-রেডিও ক্যাটাগরিতে ৯ জন এই পুরস্কার জিতেছেন।

মঙ্গলবার ফার্মগেটস্থ কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থেকে সাংবাদিকদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী।

ডিআরইউ সভাপতি মুরসালিন নোমানীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন জুরি বোর্ডের চেয়ারম্যান ও বাংলাদেশ জার্নালের সম্পাদক শাহজাহান সরদার, নগদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভির এ মিশুক, নির্বাহী পরিচালক নিয়াজ মোর্শেদ এলিট, ডিআরইউ-এর সাধারণ সম্পাদক মসিউর রহমান খান, অ্যাওয়ার্ড কমিটির আহ্বায়ক ও ডিআরইউ সাংগঠনিক সম্পাদক মাইনুল হাসান সোহেলসহ অন্যরা।

অনুষ্ঠানে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, ‘বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তির এক সুবর্ণ সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। এখন দেশে অনলাইন পোর্টালসহ নিত্যনতুন গণমাধ্যমের সঙ্গে পরিচিত হচ্ছি। আমাদের চলার পথে সিদ্ধান্ত গ্রহণে সাংবাদিকতা তাই গুরুত্বপূর্ণ। গণমাধ্যম থেকে তথ্য পাওয়ার পর আমরা সিদ্ধান্ত নিতে পারি। তবে এখন দায়িত্বশীল ও নৈতিকতাপূর্ণ সাংবাদিকতা খুবই জরুরি। কারণ ফেসবুকে পোস্ট দিয়ে নাশকতা ঘটানো হচ্ছে‌। এজন্য প্রয়োজন উপযুক্ত সাংবাদিকতা।’

তিনি বলেন, ‘গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ গণমাধ্যম। গণমাধ্যম জনজীবনের অন্যতম অনুষঙ্গ। এখন অবাধে সংবাদ প্রচার করা যাচ্ছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কারণে অনেক নতুন চ্যালেঞ্জ আসছে। তবে সংবাদের প্রবাহ বেগবান হয়েছে তথ্যপ্রযুক্তির কল্যাণে। এ বছরের প্রতিযোগিতা, অন্য বছরের তুলনায় অনেক কঠিন ছিল। কারণ করোনা বাস্তবতার মধ্যেই কাজ করতে হয়েছে। গণমাধ্যমের দায়িত্বশীল ভূমিকা সমাজে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে পারে।’

এবারের আয়োজনে ডিআরইউ-এর অংশীদার ছিল ডাক বিভাগের মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’। নানান উদ্ভাবন দিয়ে ইতিমধ্যে সাড়া ফেলে ‘নগদ’। ডিআরইউ’র পেমেন্ট পার্টনার হিসেবে কাজ করছে।

নগদ দেশের ডিজিটাল লেনদেন খাতে অল্প সময়েই বড় জায়গা করে নিয়েছে। মাত্র আড়াই বছরের মধ্যে ‘নগদ’ সাড়ে ৫ কোটি গ্রাহক পেয়েছে। একই সঙ্গে দৈনিক গড় লেনদেন পৌঁছে গেছে ৭৫০ কোটি টাকায়।

নগদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভির এ মিশুক বলেন, ‘একটি ভালো রিপোর্টের মাধ্যমে সমাজ ও রাষ্ট্রের অনেক জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয় সামনে চলে আসে; যা সমাজ বদলের হাতিয়ার হিসেবে কাজ করে। আজ যারা সেরা রিপোর্টের জন্য সম্মানিত হয়েছেন, তাদের তালিকা থেকেই সামনের দিনের মানিক মিয়া বা জহুর হোসেন চৌধুরীর মতো প্রথিতযশা সাংবাদিক বেরয়ে আসবে বলে আমার বিশ্বাস।’

এবারের ‘নগদ-ডিআরইউ বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড-২০২১’ এ প্রিন্ট-অনলাইন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছেন দৈনিক সমকালের আবু সালেহ রনি, দ্য বিজনেস স্ট্যান্ডার্ডের আব্বাস উদ্দিন নয়ন ও জেবুন নেসা আলো, ডেইলি স্টারের একেএম রাশেদুল হাসান, প্রথম আলোর আদুজ্জামান, রোজিনা ইসলাম ও নাজনীন আখতার; আমাদের সময়ের কবির হোসেন, ঢাকা পোস্টের জোবায়ের হোসেন, বাংলা ট্রিবিউনের মো. শাহেদুল ইসলাম, যুগান্তরের এসএএম হামিদ-উজ-জামান, কালের কণ্ঠের জিয়াদুল ইসলাম এবং সময়ের আলোর রফিকুল ইসলাম সবুজ।

টেলিভিশন ও রেডিও ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড পাওয়া ৯ জন হলেন- যমুনা টিভির সুশান্ত সিনহা ও আবু সালেহ মো. পারভেজ সাজ্জাদ; একাত্তর টেলিভিশনের কাবেরী মৈত্রেয় ও আদনান খান; মাছরাঙ্গা টেলিভিশনের মাজহারুল ইসলাম ও কাওসার সোহেলী, নাগরিক টেলিভিশনের শাহনাজ শারমিন, চ্যানেল টোয়েন্টিফোরের সাদমান সাকিব, এনটিভির শফিক শাহীন।

দেশের ১০ জন সিনিয়র সম্পাদক জমা পড়া রিপোর্টের মধ্য থেকে যাচাই-বাছাই করে সেরা রিপোর্ট নির্বাচন করেন।

শেয়ার করুন

নূররা ক্ষমতায় যেতে পারে, ধারণা জাফরুল্লাহর

নূররা ক্ষমতায় যেতে পারে, ধারণা জাফরুল্লাহর

মঙ্গলবার রাজধানীর পল্টনে রেজা কিবরিয়া ও নূরের নেতৃত্বাধীন নতুন রাজনৈতিক দলের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘কিবরিয়াকে দেখে আমার প্রত্যাশা, এখন থেকে নতুন কমিটি করে আমাদের পরিবর্তনগুলো আনতে হবে। আজকে দেশের সবার উন্নতি হতে পারে যদি ভালো সরকার হয়, তরুণরা ক্ষমতায় যেতে পারে। এই নতুন উদ্যোগকে আমি আন্তরিকভাবে শুভেচ্ছা জানাই।’

দেশের বর্তমান প্রেক্ষাপটে ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নূরের মতো তরুণরা ক্ষমতায় যেতে পারে বলে মনে করছেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী।

মঙ্গলবার রাজধানীর পল্টনে রেজা কিবরিয়া ও নূরের নেতৃত্বাধীন নতুন রাজনৈতিক দলের আত্মপ্রকাশ অনুষ্ঠানে দেয়া বক্তব্যে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

পল্টনে নুরুল হক নূরের নেতৃত্বাধীন ছাত্র অধিকার পরিষদ কার্যালয়ে আত্মপ্রকাশ করে নতুন রাজনৈতিক দল গণ-অধিকার পরিষদ। এর আহ্বায়ক গণফোরামের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ডা. রেজা কিবরিয়া ও সদস্যসচিব নুরুল হক নূর।

নতুন দলকে শুভেচ্ছা জানিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘কিবরিয়াকে দেখে আমার প্রত্যাশা, এখন থেকে নতুন কমিটি করে আমাদের পরিবর্তনগুলো আনতে হবে। আজকে দেশের সবার উন্নতি হতে পারে যদি ভালো সরকার হয়, তরুণরা ক্ষমতায় যেতে পারে। এই নতুন উদ্যোগকে আমি আন্তরিভাবে শুভেচ্ছা জানাই।’

নতুন দলটির উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘দলে কেউ যদি অন্যায় করে থাকে, তাকে অবশ্যই বিচারের আওতায় আনতে হবে। আজকে জাতীয় সরকারের অধীনে দুই বছর সময় না পেলে বাংলাদেশে কোনো কিছু ঠিক করা যাবে না।’

কুমিল্লার ঘটনা সরকারের ব্যর্থতা অভিযোগ করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে বলেছিলাম, আসাদ তুমি তো কথা দিয়েছিলা যে প্রত্যেকটা মন্দির সুরক্ষিত থাকবে। জানি তুমি ভালো মানুষ। তোমার আমলে এটা কীভাবে হলো? কোনো কথা বলেননি তিনি।’

শেয়ার করুন

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল: সিডিএকে দুষছেন সিটি মেয়র

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল: সিডিএকে দুষছেন সিটি মেয়র

চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‍্যাম্পের পিলারে ফাটলের কারণে সোমবার রাত ১০টা থেকে যান চলাচল বন্ধ। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রাম সিটি মেয়র রেজাউল করিম বলেন, ‘যেসব ঠিকাদার এখানে কাজ করেছেন তাদের ত্রুটি আছে কি না, তা খুঁজে বের করবে সিডিএ। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতা করা হবে।’

চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‍্যাম্পের পিলারে ফাটলের ঘটনায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (সিডিএ) দুষছেন সিটি মেয়র রেজাউল করিম।

তিনি বলেন, ‘ফ্লাইওভারের মূল নকশায় র‍্যাম্পের অস্তিত্ব ছিল না। সিডিএ এটা যুক্ত করেছে। তাই তারা ত্রুটি বের করে ব্যবস্থা নেবে।’

ফ্লাইওভারের ফাটলস্থল পরিদর্শন করে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে সাংবাদিকদের এসব জানান রেজাউল করিম।

তিনি বলেন, ‘ফ্লাইওভারের নির্মাণকাজ করেছে সিডিএ। ফাটলের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আজকেই তাদের চিঠি দেব। কারণ যেকোনো সময় এখানে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’

ফাটলের ঘটনা তদন্তে সিটি করপোরেশন সহযোগিতা করবে জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘যেসব ঠিকাদার এখানে কাজ করেছেন তাদের ত্রুটি আছে কি না, তা খুঁজে বের করবে সিডিএ। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতা করা হবে।’

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস মুঠোফোনে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ফ্লাইওভারে র‌্যাম্পে ফাটলের বিষয়টি শুনেছি। ফ্লাইওভারটা আগের চেয়ারম্যানের সময় তৈরি করা হয়েছিল। তাই এ বিষয়ে কথা বলা যাচ্ছে না। ঘটনাস্থলে আমাদের লোক আছে। আমরা মন্ত্রণালয়ের একটি মিটিংয়ে যোগ দিতে ঢাকায় এসেছি। চট্টগ্রামে ফিরে পিলারগুলো পরীক্ষা করার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

ফাটলের কারণে চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‌্যাম্পে সোমবার রাত ১০টা থেকে যান চলাচল বন্ধ। মঙ্গলবার সকাল থেকে ফ্লাইওভারের দুই পাশের সড়কে দেখা গেছে যানবাহনের তীব্র চাপ।

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল: সিডিএকে দুষছেন সিটি মেয়র

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) মমতাজ উদ্দিন বলেন, ‘আমরা প্রকল্প ম্যানেজারের কাছ থেকে খবর পেয়ে রাতেই ওই র‌্যাম্পে যান চলাচল বন্ধের ব্যবস্থা করি। এতে মুরাদপুরমুখী ও আরাকান সড়কমুখী গাড়িগুলো ফ্লাইওভারে উঠতে পারছে না।’

শেয়ার করুন