প্রসূতির পাশে যাত্রীরা, বাসেই জন্ম শিশুর

প্রসূতির পাশে যাত্রীরা, বাসেই জন্ম শিশুর

পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আরএমও জানান, রাত আড়াইটার দিকে যাত্রীরা বাস নিয়ে হাসপাতালে হাজির। নার্স গিয়ে বাসেই ওই নারীর সন্তান প্রসব করান।

ঢাকা থেকে বাসে চড়ে বাবার বাড়ি কক্সবাজার যাচ্ছিলেন এক অন্তঃসত্ত্বা। পথেই তার প্রসব বেদনা শুরু হয়। বাসটি চট্টগ্রামের পটিয়ায় পৌঁছলে তীব্র হয় ব্যথা। যাত্রীদের কথায় চালক সেই বাস নিয়ে যান উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনে।

তখন রাত প্রায় আড়াইটা। বাসেই জন্ম নেয় ওই নারীর সন্তান।

ঘটনাটি সোমবার রাতের বলে জানিয়েছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) সাদিয়া আক্তার।

ওই নারীর নাম ফারেছা বেগম। স্বামী মো. আব্দুল্লাহর সঙ্গে তিনি থাকেন নারায়ণগঞ্জে।

নিউজবাংলাকে তিনি বলেন, ‘ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা রিলাক্স পরিবহনের বাসে স্বামীর সঙ্গে ছিলেন ওই নারী। চকরিয়ায় বাবার বাড়ি যেতে তারা রওনা হয়েছিলেন। পথে তার লেবার পেইন ওঠায় যাত্রীরাই বাস হাসপাতালের সামনে নিয়ে আসেন।

‘কয়েক যাত্রী নেমে রাতে দায়িত্বে থাকা চিকিৎসক রাজীব দেকে জানালে তিনি গিয়ে ওই নারীকে চেক করেন। তিনি দেখেন প্রসূতিকে নড়াচড়া করানোর মতো অবস্থা নেই। তাই মিডওয়াইফ ও নার্সদের নিয়ে বাসেই তার নরমাল ডেলিভারি করানো হয়।’

আরএমও জানান, মা ও নবজাতক সুস্থ আছেন। নবজাতকটি ছেলে; তার নাম এখনও রাখা হয়নি। পর্যবেক্ষণের জন্য তাদের হাসপাতালে রাখা হয়েছে।

নিজেদের যাত্রা বিলম্বিত করে বাসে এভাবে প্রসূতির সাহায্যে এগিয়ে আসার জন্য বাসচালক ও যাত্রীদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন আরএমও সাদিয়া।

শেয়ার করুন

মন্তব্য

পদ্মার ভাঙনে রাজবাড়ীতে ১০০ মিটার বিলীন

পদ্মার ভাঙনে রাজবাড়ীতে ১০০ মিটার বিলীন

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল আহাদ বলেন, ‘পদ্মায় পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে প্রচণ্ড ঢেউ সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে বেড ম্যাটেরিয়াল সরে গিয়ে ওপরের সিসি ব্লকগুলো দেবে ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙনকবলিত স্থানে বালুভর্তি ব্যাগ ফেলা হচ্ছে।’

রাজবাড়ীতে পদ্মা নদীর ভাঙনে তীর রক্ষা বাঁধের প্রায় ১০০ মিটার বিলীন হয়ে গেছে।

পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে ভাঙন শুরু হয়। দুপুরের মধ্যে ১০০ মিটার ভেঙে যায়।

তীর রক্ষা বাঁধে ভাঙন শুরু হওয়ায় ঝুঁকিতে রয়েছে শহর রক্ষা বাঁধ। স্থানীয়রা অন্য জায়গায় সরে যাচ্ছেন।

৯ নম্বর ওয়ার্ডের মাকসুদা আক্তার নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আগে নদী অনেক দূরে ছিল। ভাঙতে ভাঙতে এত কাছে চলে এসেছে যে আমাদের বসতভিটাও নদীতে চলে যাচ্ছে। আমাদের আর যাওয়ার কোনো জায়গা নেই।’

একই এলাকার রাসেল শেখ বলেন, ‘আমরা আতঙ্কে আছি কখন শহর রক্ষা বাঁধ নদীগর্ভে বিলীন হয়ে যায়। স্থায়ী কোনো কাজ না হওয়ায় এই অবস্থা।’

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) নির্বাহী প্রকৌশলী আব্দুল আহাদ বলেন, ‘পদ্মায় পানি কমার সঙ্গে সঙ্গে প্রচণ্ড ঢেউ সৃষ্টি হয়েছে। এর ফলে বেড ম্যাটেরিয়াল সরে গিয়ে ওপরের সিসি ব্লকগুলো দেবে ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙনকবলিত স্থানে বালুভর্তি ব্যাগ ফেলা হচ্ছে।’

পাউবোর তথ্য অনুযায়ী, ১৯৮৫ সাল থেকে ২০২১ সালের সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত নদীতে বিলীন হয়েছে ৯ হাজার ৯৬০ হেক্টর জমি। এর মধ্যে আছে সদর উপজেলা থেকে গোয়ালন্দ উপজেলা পর্যন্ত ৮ হাজার হেক্টর, সদর থেকে কালুখালী পর্যন্ত ২৬০ হেক্টর, কালুখালী থেকে পাংশা উপজেলা পর্যন্ত ১ হাজার ৭ শ হেক্টর জমি।

২০০৮ সাল থেকে ২০১৮ পর্যন্ত স্থায়ীভাবে নদী ভাঙন রোধে তিনটি প্রকল্পে ৫৫০ কোটি ৬৩ লাখ টাকা বরাদ্দ এসেছে।

শেয়ার করুন

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল গুজব: প্রকল্প পরিচালক

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল গুজব: প্রকল্প পরিচালক

চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‍্যাম্পের পিলারে ফাটলের কারণে সোমবার রাত ১০টা থেকে যান চলাচল বন্ধ। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রামের ফ্লাইওভারে ফাটলের অভিযোগ নাকচ করছেন প্রকল্প পরিচালক মাহফুজুর রহমান। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এটা যদি ক্র‌্যাক হতো, কলাম-ই ভেঙে পড়ত, হেলে যেত। তবু একটা যেহেতু রিউমার উঠছে, এটা ভালো করে চেক করে তারপর চালু করা হবে।’

ফ্লাইওভারে দেখা যাওয়া ফাটলকে গুজব বলে দাবি করেছেন চট্টগ্রাম নগর উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (সিডিএ) নির্বাহী প্রকৌশলী ও প্রকল্প পরিচালক মাহফুজুর রহমান।

নিউজবাংলাকে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তিনি বলেন, ‘যে ফাটলের কথা বলা হচ্ছে সেটি আসলে কোনো ফাটল না। যা দেখা যাচ্ছে তা আসলে ফলস কাস্টিং। কলাম যখন একটা লিফট থেকে আরেকটা লিফটে ঢালাই হয় তখন কিছু ফলস কাস্টিং বের হয়ে যায়। সাটারের ভেতর দিয়ে বা কোনো রকম গ্যাস-ট্যাস থেকে এরকম কিছু ফলস কাস্টিং বের হতে পারে। এটা ফলস কাস্টিংয়েরই একটা ক্র‌্যাক দেখা যাচ্ছে। এটা কলামের ক্র্যাক না।’

তাহলে এটাকে বিপজ্জনক বলা হচ্ছে কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘এটা বিপজ্জনক না, কিছুই না। এটা কী ভেঙে পড়ছে? এটা তো ভেঙে পড়ে নাই। কোনো কিছু হেলে পড়ছে? কলামে কোনো ডিসমিস হয়েছে?’

ওই র‌্যাম্প দিয়ে যান চলাচল বন্ধের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘তবু যেহেতু একটা কথা উঠছে, আমাদের এক্সপার্টরা আছেন, তারা দেখে মতামত দিলে তারপর ব্যবস্থা নেব।’

‘একটা ফ্লাইওভারে যদি ক্র‌্যাক দেখা দেয়, সেটাকে আনক্র‌্যাক বলতে পারবেন? আবার যদি আনক্র‌্যাক হয়, সেটাকে ক্র‌্যাক বলতে পারবেন? এটা সেন্সিটিভ ব্যাপার। এটা যদি ক্র‌্যাক হতো, কলাম-ই ভেঙে পড়ত, হেলে যেত। তবু একটা যেহেতু রিউমার উঠছে, এটা ভালো করে চেক করে তারপর চালু করা হবে।’

চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারে আরাকান সড়কমুখী র‌্যাম্পের একটি পিলারে সোমবার ফাটল দেখা দেয়। এর পর থেকে আরাকান সড়কমুখী র‌্যাম্পে যান চলাচল বন্ধ করে দেয় পুলিশ।

ফ্লাইওভারের ফাটলস্থল পরিদর্শন করেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র রেজাউল করিম। এ সময় ফাটলের জন্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (সিডিএ) দোষারোপ করে বলেন, ‘ফ্লাইওভারের মূল নকশায় র‍্যাম্পের অস্তিত্ব ছিল না। সিডিএ এটা যুক্ত করেছে। তাই তারা ত্রুটি বের করে ব্যবস্থা নেবে।’

ফাটলের ঘটনা তদন্তে সিটি করপোরেশন সহযোগিতা করবে জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘যেসব ঠিকাদার এখানে কাজ করেছেন তাদের ত্রুটি আছে কি না, তা খুঁজে বের করবে সিডিএ। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতা করা হবে।’

তবে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস নিউজবাংলাকে বলেছেন, ‘ফ্লাইওভারটা আগের চেয়ারম্যানের সময় তৈরি করা হয়েছিল। তাই এ বিষয়ে কথা বলা যাচ্ছে না। ঘটনাস্থলে আমাদের লোক আছে। আমরা মন্ত্রণালয়ের একটি মিটিংয়ে যোগ দিতে ঢাকায় এসেছি। চট্টগ্রামে ফিরে পিলারগুলো পরীক্ষা করার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

শেয়ার করুন

‘বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়’ হত্যা, সহকর্মী কারাগারে

‘বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায়’ হত্যা, সহকর্মী কারাগারে

যশোর জেলা ও দায়রা জজ আদালত। ফাইল ছবি

কারখানার শ্রমিকরা জানান, সোমবার দুপুরে বিরতির সময় কারখানার ক্যান্টিনে বসেছিলেন কেয়া। এ সময় তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন শামীম। প্রস্তাবে রাজি না হলে তাদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে শামীম একটি লোহার রড দিয়ে কেয়ার মাথায় আঘাত করে। পরে কারখানার ভেতর থেকে এক মগ অ্যাসিড এনে তার শরীর ও মুখে ঢেলে দেন।

যশোরের অভয়নগরে চামড়ার কারখানার এক নারী শ্রমিককে হত্যার ঘটনায় অভিযুক্ত সহকর্মীকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

যশোর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে এ আদেশ দেন।

এর আগে সোমবার দুপুরে উপজেলার তালতলা এলাকায় যশোর-খুলনা মহাসড়কের পাশে এসএএফ ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে চামড়া কারখানার এক নারী শ্রমিককে রড দিয়ে মাথায় আঘাত ও পরে মুখে অ্যাসিড নিক্ষেপ করে তারই এক সহকর্মী। সন্ধ্যায় খুলনার আদ-দ্বীন হাসপাতালে মৃত্যু হয় তার।

নিহত নারীর নাম কেয়া খাতুন। তিনি অভয়নগর উপজেলার পায়রা ইউনিয়নের কাদিরপাড়া গ্রামের আবুল কালামের মেয়ে। আর আসামি শামীম হোসেনের বাড়ি উপজেলার রাজঘাট মাইলপোস্ট এলাকায়।

ঘটনার পর পরই শামীমকে আটক করে পুলিশে দেয় কারখানা কর্তৃপক্ষ। রাতে অভয়নগর থানায় তার বিরুদ্ধে মামলা করেন কেয়ার মামা হাবিবুর রহমান মজুমদার।

কারখানার শ্রমিকরা জানান, সোমবার দুপুরে বিরতির সময় কারখানার ক্যান্টিনে বসেছিলেন কেয়া। এ সময় তাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন শামীম। প্রস্তাবে রাজি না হলে তাদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা শুরু হয়। এক পর্যায়ে শামীম একটি লোহার রড দিয়ে কেয়ার মাথায় আঘাত করেন।

পরে কারখানার ভেতর থেকে এক মগ অ্যাসিড এনে তার শরীর ও মুখে ঢেলে দেন শামীম। কেয়ার চিৎকারে ক্যান্টিনের শ্রমিকরা শামীমকে আটক করে কারখানা কর্তৃপক্ষকে খবর দেয়। আর আহত কেয়াকে খুলনার আদ-দ্বীন হাসপাতালে পাঠানো হয়। পরে শামীমকে অভয়নগর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করে কারখানা কর্তৃপক্ষ।

কেয়ার মামা হাবিবুর বলেন, ‘সোমবার সন্ধ্যায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় কেয়া মারা যায়। ১০ বছর আগে তার বিবাহ বিচ্ছেদ হয়। ১১ বছরের মেয়েকে নিয়ে কেয়া বাবার বাড়িতেই থাকত। একই কারখানার সমকর্মী শামীম দীর্ঘদিন ধরে কেয়াকে বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। রাজি না হওয়ায় শামীম তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে।’

অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম শামীম হাসান বলেন, ‘প্রেমের কারণে এ হত্যাকাণ্ড হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদে শামীম ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেছেন। তাকে আজ (মঙ্গলবার) কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছে আদালত।’

শেয়ার করুন

শুঁটকি আহরণে দুবলার পথে জেলেরা

শুঁটকি আহরণে দুবলার পথে জেলেরা

শুঁটকি আহরণে সুন্দরবনের দুবলার চরের উদ্দেশে উপকূল ছেড়েছেন জেলেরা। ছবি: নিউজবাংলা

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, অন্যান্য বছর নভেম্বর থেকে শুরু হলেও এ বছর ইলিশের প্রজনন রক্ষায় নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় আজ থেকে সুন্দরবনে শুটকি আহরণ মৌসুম শুরু হয়েছে। এবারের মৌসুমে দুবলার চরে জেলেদের জন্য ৯৮০টি ঘর ও ৬৬টি ডিপোর তৈরির অনুমোদন দেয়া হয়েছে

সুন্দরবনের দুবলার চরে শুরু হয়েছে শুঁটকি আহরণ মৌসুম, যা চলবে ৩১ মার্চ পর্যন্ত।

মৌসুম ঘিরে সুন্দরবনের দুবলার চরের উদ্দেশে উপকূল ছেড়েছেন জেলে-মহাজনরা। বন বিভাগ বলছে, শুধু বাগারহাট থেকেই দুবলার চরে যাবেন ৮ থেকে ১০ হাজার জেলে। সব মিলে উপকূলীয় এলাকা থেকে সেখানে সমাগম হবে ২০ হাজারের বেশি মানুষের।

বনবিভাগের কাছ থেকে অনুমতি পাওয়ার পর অনেক জেলে মঙ্গলবার সকালেই চরের উদ্দেশে রওনা দেন। কেউ কেউ আবার যাত্রা করেছেন রাত ১২টার দিকে।

বাগেরহাট পূর্ব সুন্দরবন বিভাগ সূত্রে জানা যায়, প্রতিবছর শীত মৌসুমে সুন্দরবনের দুবলা, মেহের আলীর চর, আলোরকোল, অফিস কিল্লা, মাঝের কিল্লা, শেলার চর, নারিকেলবাড়িয়া, ছোট আমবাড়িয়া, বড় আমবাড়িয়া, মানিক খালী, কবরখালী, চাপড়াখালীর চর, কোকিলমনি ও হলদাখালীর চরে জেলে ও মহাজনরা জড়ো হন সমুদ্রে মাছ ধরতে। এ সব চরে অস্থায়ী ঘর নির্মাণ করেন জেলেরা। পরে সুন্দরবনের চরগুলোতে শুরু করেন শুঁটকি তৈরির কাজ। পর তা দেশের বিভিন্ন এলাকাসহ বিদেশেও পাঠানো হয়।

পূর্ব সুন্দরবনের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন নিউজবাংলাকে বলেন, অন্যান্য বছর নভেম্বর থেকে শুরু হলেও এ বছর ইলিশের প্রজনন রক্ষায় নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়ায় আজ থেকে সুন্দরবনে শুটকি আহরণ মৌসুম শুরু হয়েছে। এবারের মৌসুমে দুবলার চরে জেলেদের জন্য ৯৮০টি ঘর ও ৬৬টি ডিপোর তৈরির অনুমোদন দেয়া হয়েছে। মৌসুম জুড়ে চরে প্রায় ১০ হাজার জেলের সমাগম থাকবে।

তিনি আরও বলেন, গত বছর শুটকি মৌসুম থেকে ৩ কোটি ২২ লাখ টাকা রাজস্ব আদায় হয়েছিল। এবার যেহেতু একটু আগে ভাগে মৌসুম শুরু হয়েছে তাই এবার ৪ কোটি টাকা রাজস্ব আদায় হতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

শেয়ার করুন

বিয়েবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগে ছাত্রদল নেতাকে পিটুনি

বিয়েবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগে ছাত্রদল নেতাকে পিটুনি

মারধরের শিকার মাসুদ রানা জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি ও বেড়া উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক। ছবি: নিউজবাংলা

ওসি রওশন আলী জানান, কিছুদিন ধরে রূপপুর ইউনিয়নের এক প্রবাসীর স্ত্রী সঙ্গে মাসুদ রানার বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক চলছিল। সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূর এক ভাইয়ের বাসা থেকে তাদের দুজনকে ‘আপত্তিকর অবস্থায়’ আটক করেন স্থানীয়রা। পরে মাসুদ উত্তেজিত লোকজনের পিটুনির শিকার হন।

বিয়েবহির্ভূত সম্পর্কের অভিযোগ তুলে পাবনার আমিনপুরে ছাত্রদলের এক নেতাকে পিটুনি দিয়েছে এলাকাবাসী।

পুলিশ বলছে, উপজেলার রূপপুর ইউনিয়নের ভূয়াপাড়া এলাকায় সোমবার ঘটনাটি ঘটে।

মারধরের শিকার মাসুদ রানা জেলা ছাত্রদলের সহসভাপতি ও বেড়া উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক।

এলাকাবাসীর বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, কিছুদিন ধরে রূপপুর ইউনিয়নের এক প্রবাসীর স্ত্রী সঙ্গে মাসুদ রানার বিয়েবহির্ভূত সম্পর্ক চলছিল। সোমবার দুপুরে ওই গৃহবধূর এক ভাইয়ের বাসা থেকে তাদের দুজনকে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করেন স্থানীয়রা।

পরে মাসুদ রানা উত্তেজিত লোকজনের পিটুনির শিকার হন। একপর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে দৌড়ে পালান মাসুদ।

পুলিশ ওই গৃহবধূকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আমিনপুর থানায় নিয়ে যায়।

মাসুদ রানার দলীয় পরিচয় নিশ্চিত করে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান প্রিন্স বলেন, ‘এ বিষয়ে আমরা কোনো অভিযোগ পাইনি। ফেসবুকে বিষয়টি জেনেছি। তদন্ত সাপেক্ষে দলীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

আমিনপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রওশন আলী জানান, ওই নারীকে রোষাণল থেকে বাঁচাতে পুলিশি হেফাজতে নেয়া হয়। রাতে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে তাকে পরিবারের জিম্মায় ছেড়ে দেয়া হয়। অভিযোগের ভিত্তিতে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল: সিডিএকে দুষছেন সিটি মেয়র

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল: সিডিএকে দুষছেন সিটি মেয়র

চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‍্যাম্পের পিলারে ফাটলের কারণে সোমবার রাত ১০টা থেকে যান চলাচল বন্ধ। ছবি: নিউজবাংলা

চট্টগ্রাম সিটি মেয়র রেজাউল করিম বলেন, ‘যেসব ঠিকাদার এখানে কাজ করেছেন তাদের ত্রুটি আছে কি না, তা খুঁজে বের করবে সিডিএ। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতা করা হবে।’

চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‍্যাম্পের পিলারে ফাটলের ঘটনায় চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (সিডিএ) দুষছেন সিটি মেয়র রেজাউল করিম।

তিনি বলেন, ‘ফ্লাইওভারের মূল নকশায় র‍্যাম্পের অস্তিত্ব ছিল না। সিডিএ এটা যুক্ত করেছে। তাই তারা ত্রুটি বের করে ব্যবস্থা নেবে।’

ফ্লাইওভারের ফাটলস্থল পরিদর্শন করে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে সাংবাদিকদের এসব জানান রেজাউল করিম।

তিনি বলেন, ‘ফ্লাইওভারের নির্মাণকাজ করেছে সিডিএ। ফাটলের বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে আজকেই তাদের চিঠি দেব। কারণ যেকোনো সময় এখানে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’

ফাটলের ঘটনা তদন্তে সিটি করপোরেশন সহযোগিতা করবে জানিয়ে মেয়র বলেন, ‘যেসব ঠিকাদার এখানে কাজ করেছেন তাদের ত্রুটি আছে কি না, তা খুঁজে বের করবে সিডিএ। আমাদের পক্ষ থেকে তাদের সহযোগিতা করা হবে।’

এ বিষয়ে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের প্রধান প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস মুঠোফোনে নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ফ্লাইওভারে র‌্যাম্পে ফাটলের বিষয়টি শুনেছি। ফ্লাইওভারটা আগের চেয়ারম্যানের সময় তৈরি করা হয়েছিল। তাই এ বিষয়ে কথা বলা যাচ্ছে না। ঘটনাস্থলে আমাদের লোক আছে। আমরা মন্ত্রণালয়ের একটি মিটিংয়ে যোগ দিতে ঢাকায় এসেছি। চট্টগ্রামে ফিরে পিলারগুলো পরীক্ষা করার পর সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।’

ফাটলের কারণে চট্টগ্রামের এম এ মান্নান ফ্লাইওভারের আরাকান সড়কমুখী র‌্যাম্পে সোমবার রাত ১০টা থেকে যান চলাচল বন্ধ। মঙ্গলবার সকাল থেকে ফ্লাইওভারের দুই পাশের সড়কে দেখা গেছে যানবাহনের তীব্র চাপ।

চট্টগ্রামে ফ্লাইওভারে ফাটল: সিডিএকে দুষছেন সিটি মেয়র

চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (ট্রাফিক-উত্তর) মমতাজ উদ্দিন বলেন, ‘আমরা প্রকল্প ম্যানেজারের কাছ থেকে খবর পেয়ে রাতেই ওই র‌্যাম্পে যান চলাচল বন্ধের ব্যবস্থা করি। এতে মুরাদপুরমুখী ও আরাকান সড়কমুখী গাড়িগুলো ফ্লাইওভারে উঠতে পারছে না।’

ফ্লাইওভারের যে পিলারে ফাটল দেখা দিয়েছে তার কাছাকাছি ফুটপাতে জুতা সেলাইয়ের কাজ করেন নির্মল গুরাইয়া। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘এই পিলারে ফাটল আসলে অনেক দিন ধরেই ছিল। তবে গতকাল ফাটলটা কিছুটা বেড়ে গেছে।’

ফুটপাতে মাস্ক বিক্রেতা মো. মাসুদ বলেন, ‘আমি ৩ মাস আগে থেকে এই পিলারে ফাটল দেখতেছি। তবে গতকাল ফাটলটা বেড়ে গেছে বলে মনে হচ্ছে।’

বহদ্দারহাটের চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার বাসিন্দা ছানোয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রতিদিন প্রাইভেট কারে করে ফ্লাইওভার হয়ে কালামিয়া বাজারে কর্মস্থলে যাই। কিন্তু আজকে তো দেখতেই পাচ্ছেন, পুরা রোড জ্যাম।’

শেয়ার করুন

সাম্প্রদায়িক হামলার পরিকল্পনা লন্ডনে বসে: তথ্যমন্ত্রী

সাম্প্রদায়িক হামলার পরিকল্পনা লন্ডনে বসে: তথ্যমন্ত্রী

রাজশাহী সার্কিট হাউসে এক সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। ছবি: নিউজবাংলা

মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্য শুনলে মনে হয়, ঠাকুর ঘরে কে রে, আমি কলা খাইনি। কাজটা তারা করে, তারপর টেলিভিশনের সামনে গিয়ে বড় বড় কথা বলে।’

দুর্গাপূজার সময় কুমিল্লাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে যে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা হয়েছে, তার পরিকল্পনা লন্ডনে বসে করা হয় বলে অভিযোগ করেছেন তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

তিনি বলেন, ‘সম্প্রতি সাম্প্রদায়িক হামলা দেশের শান্তি নষ্ট করার জন্যই ঘটানো হয়েছে। এর পরিকল্পনা হয়েছে লন্ডনে বসে। আপনারা দেখেছেন না, বিএনপি প্রায় এক মাস ধরে বৈঠক করছে? প্রকাশ্যে বৈঠক করেছে আর গোপনে ষড়যন্ত্র করেছে।

‘সেই ষড়যন্ত্রেরই অংশ হচ্ছে এই সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যে দুর্গাপূজার সময় পূজামণ্ডপে হামলা করা, আমাদের পবিত্র কোরআন শরিফ পূজামণ্ডপে রেখে আসা।’

রাজশাহী সার্কিট হাউসে মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে তথ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

দুর্গাপূজায় সারা দেশে উৎসবমুখর পরিবেশের মধ্যে গত ১৩ অক্টোবর ভোরে কুমিল্লার একটি পূজামণ্ডপে পবিত্র কোরআন শরিফ পাওয়ার পর ছড়িয়ে পড়ে সহিংসতা।



নানুয়ার দিঘির পাড়ের ওই মণ্ডপে চলে ব্যাপক ভাঙচুর, আক্রান্ত হয় নগরীর আরও বেশকিছু পূজামণ্ডপ। পরে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়ে চাঁদপুর, নোয়াখালী, চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন জেলায়।

মন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি মহাসচিবের বক্তব্য শুনলে মনে হয়, ঠাকুর ঘরে কে রে, আমি কলা খাইনি। কাজটা তারা করে, তারপর টেলিভিশনের সামনে গিয়ে বড় বড় কথা বলে।’

সাম্প্রদায়িক সহিংসতার সঙ্গে জড়িত সবাইকে খুঁজে বের করা হবে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘সাম্প্রদায়িকতা নিয়ে রাজনীতি করে বিএনপি-জামায়াত, ধর্মান্ধ-উগ্রবাদীরা। দেশের কোনো সম্প্রদায়ের লোক একে অপরের ধর্মগ্রন্থ অবমাননা করার মানসিকতা পোষণ করে না।

‘সরকার দেশের বিভিন্ন জেলায় সাম্প্রদায়িক সংঘাতের ঘটনার পর ১০২টি মামলা করেছে, সাত শ’র মতো দুষ্কৃতিকারীকে গ্রেপ্তার করেছে। কঠোর হস্তে সরকার এটি দমন করেছে। সরকারের এই ভূমিকা আন্তর্জাাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছে।’

সংবাদ সম্মেলনে টেলিভিশনের ক্লিনফিড নিয়েও কথা বলেন মন্ত্রী। হাছান মাহমুদ বলেন, ‘দেশে ১৭ বছর পর ক্লিনফিড কার্যকর হয়েছে। এটি সহজ কাজ ছিল না। আমাদের দেশের আকাশ অবশ্যই উন্মুক্ত। দেশের আইন মেনেই উন্মুক্ত আকাশের সুবিধা নিতে হবে। ক্লিনফিড কার্যকর করায় দেশের গণমাধ্যম উপকৃত হচ্ছে।

‘এর সুফল আপনারা কিছুদিন পরেই দেখতে পাবেন। এরই প্রেক্ষিতে প্রতি বছর এই খাতে দুই হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ হবে। দেশের স্বার্থে জনগণের স্বার্থে এটি করা হয়েছে। এখান থেকে সরকারও ভ্যাট হিসেবে ৫০০ কোটি টাকা পাবে।’

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিলসহ স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা।

এর আগে সকালে বাংলাদেশ টেলিভিশনের রাজশাহী উপকেন্দ্র পরিদর্শন করেন মন্ত্রী। আগামী নির্বাচনের আগে এই কেন্দ্র চালু করা যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

শেয়ার করুন