ঘরে বসেই মিলবে ভূমির দলিল

ঘরে বসেই মিলবে ভূমির দলিল

ভূমি অফিস থেকে সার্টিফিকেটগুলো সংগ্রহ করে নাগরিকদের ঠিকানায় ডাকযোগে পৌঁছে দেবে ডাক বিভাগ। ডাকঘরের নিযুক্ত ব্যক্তি প্রতিদিন নিকটস্থ ভূমি অফিস থেকে সার্টিফিকেটগুলো সংগ্রহ করে নাগরিকদের ঠিকানায় পাঠাবে। সেবাটি পেতে অনলাইনে আবেদনের সময় নাগরিকরা অনুরোধ জানাবেন। এ জন্য খাম, প্রস্তুতি ও ডাকমাশুল বাবদ অতিরিক্ত সেবামূল্য পরিশোধ করতে হবে সেবাগ্রহীতাকে।

ভূমি অফিসে দৌড়ঝাঁপের দিন শেষ হতে যাচ্ছে। এখন ঘরে বসেই মিলবে ভূমিসংক্রান্ত প্রামাণ্য দলিল বা সার্টিফায়েড ডকুমেন্টস। পর্চা, খতিয়ান, সার্টিফিকেট বা ম্যাপের মতো গুরুত্বপূর্ণ দলিলগুলো সেবাগ্রহীতার কাছে পৌঁছে দেবে ভূমি মন্ত্রণালয়।

ভূমি অফিসে তৈরি করা প্রয়োজনীয় দলিল সেবাগ্রহীতার ঘরে পৌঁছে দেয়ার কাজটি করবে ডাক বিভাগ। তাই ডাক বিভাগের সঙ্গে একটি সমঝোতা করেছে ভূমি মন্ত্রণালয়।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার ভূমি মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মন্ত্রণালয় এবং ডাক বিভাগের মধ্যে এ-বিষয়ক একটি সমঝোতা স্মারক সই হয়। মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব প্রদীপ কুমার দাস ও ডাক বিভাগের অতিরিক্ত মহাপরিচালক এস এম শাহাব উদ্দীন নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে সমঝোতা স্মারকে সই করেন।

এ সময় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভূমি মন্ত্রণালয়ের সচিব মোস্তাফিজুর রহমান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন ডাক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক সিরাজ উদ্দিন।

এর মাধ্যমে ভূমি অফিস থেকে সার্টিফিকেটগুলো সংগ্রহ করে নাগরিকদের ঠিকানায় ডাকযোগে পৌঁছে দেবে ডাক বিভাগ। ডাকঘরের নিযুক্ত ব্যক্তি প্রতিদিন নিকটস্থ ভূমি অফিস থেকে সার্টিফিকেটগুলো সংগ্রহ করে নাগরিকদের ঠিকানায় পাঠাবে।

সেবাটি পেতে অনলাইনে আবেদনের সময় নাগরিকরা অনুরোধ জানাবেন। এ জন্য খাম, প্রস্তুতি ও ডাকমাশুল বাবদ অতিরিক্ত সেবামূল্য পরিশোধ করতে হবে সেবাগ্রহীতাকে।

ভূমি মালিক হিসাবে বিভিন্ন প্রয়োজনে বাংলাদেশের নাগরিকরা ভূমিসংক্রান্ত সব আবেদন ও তার ভিত্তিতে ডকুমেন্ট এবং ম্যাপ সংগ্রহ করে থাকেন। এ সেবা চালুর আগে নাগরিকদের একাধিকবার ভূমি অফিসে যেতে হতো।

নন-সার্টিফায়েড ডকুমেন্টগুলোও আরও সহজে ও দ্রুততর সময়ে বাড়িতে বসেই ডাকযোগে পাওয়ার পথও সুগম হয়েছে।

ভূমিসচিব নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ভূমি অফিসে না গিয়ে একই সেবা ঘরে বসে পেলে নাগরিক তার মূল্যবান অর্থ ও সময় বাঁচাতে পারবেন। এই ব্যস্ত জীবনে দেশের সব নাগরিকের জন্য ভূমিসেবাকে আমরা সহজ করতে চাই। সেবা পৌঁছে দিতে চাই ঘরে। তারই ধারাবাহিকতায় আজকে ডাক বিভাগের সঙ্গে এই সমঝোতা স্মারকে সই করা হয়েছে।’

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

মন্তব্য

গাজীপুরে কি অবস্থান হারাবেন মেয়র জাহাঙ্গীর

গাজীপুরে কি অবস্থান হারাবেন মেয়র জাহাঙ্গীর

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় গাজীপুর সিটি করপোরেশন মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করেন আওয়ামী লীগের একাংরে নেতা-কর্মীরা। ফাইল ছবি

মহানগর আওয়ামী লীগের যে নেতারা এতদিন জাহাঙ্গীরের বলয়ে ছিলেন, তারাও যোগ দিয়েছেন তার শাস্তি ও মেয়র পদ থেকে অপসারণের আন্দোলনে। ২০১৩ সালের সিটি নির্বাচনে তার ভূমিকা কী ছিল সেই প্রসঙ্গটি যেমন সামনে আসছে, তেমনি আগামী সিটি নির্বাচনের সমীকরণও সামনে আসছে। কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ কী করে, তার অপেক্ষায় আছেন এখনও কেউ কেউ।

মধ্যরাতে নিজ বাসায় বসে একজনের সঙ্গে কথোপকথনের ভিডিও ফেসবুকে ফাঁস হওয়াকে কেন্দ্র করে গাজীপুরের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে নিয়ে তুমুল আলোচনা।

প্রকাশিত রেকর্ডটিতে দেখা যায়, মুক্তিযুদ্ধে শহিদদের সংখ্যা ও আর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীকার আন্দোলনের উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন গাজীপুর আওয়ামী লীগের অন্যতম এই নেতা।

গাজীপুর আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল, মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ খানকে নিয়েও আপত্তিকর বক্তব্য আছে সেই ভিডিওতে।

স্বভাবতই বিষয়টি পছন্দ হয়নি স্থানীয় আওয়ামী লীগের বড় অংশের। তিন দিন ধরে নানাভাবে ক্ষোভ বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন তারা।

আজমত এরই মধ্যে কথা বলেছেন, কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে। জানিয়েছেন, কমিটিতে তার ডেপুটির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবেন শীর্ষ পর্যায় থেকে সংকেত আসার পরে।

গাজীপুরে কি অবস্থান হারাবেন মেয়র জাহাঙ্গীর
গাজীপুর সিটি মেয়রের বিরুদ্ধে মিছিল নিয়ে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাদের মিছিল। ফাইল ছবি

এই ভিডিওকে বানোয়াট বলে পার পেতে চাইছেন জাহাঙ্গীর। তিনি তার অনুসারীদেরকে নিয়ে একটি সমাবেশও করেছেন, যার পাশে তার বিরোধীদের অবস্থান ছিল পুলিশ বিরোধীদেরকে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়ার পর জাহাঙ্গীর নির্বিঘ্নে সমাবেশ করেছে।

বহুধাবিভক্ত গাজীপুর আওয়ামী লীগে নতুন সমীকরণ

দৃশ্যত শুক্রবার জয় হয়েছে জাহাঙ্গীরের। তবে গাজীপুরের রাজনীতিতে ক্ষমতাসীন দলে যে ফাটল ধরে গেছে, তার ইঙ্গিতও স্পষ্ট।

২০১৩ সালের সিটি নির্বাচনের আগেই তুমুল আলোচনায় ছিলেন জাহাঙ্গীর। আওয়ামী লীগের ঘাঁটিতে সে সময় দলের বড় পরাজয়ের পেছনে যেসব কারণ উঠে এসেছিল, তার মধ্যে ভোট থেকে সরে গেলেও জাহাঙ্গীর অনুসারীদের তৎপর না থাকা ছিল একটি।

পরে ২০১৮ সালে যখন জাহাঙ্গীরকে মনোনয়ন দেয় আওয়ামী লীগ, তখন তিনি তার প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী হাসানউদ্দিন সরকারকে বলতে গেলে উড়িয়ে দেন।

গাজীপুরে কি অবস্থান হারাবেন মেয়র জাহাঙ্গীর
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে 'কটূক্তির' অভিযোগে মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীদের মিছিল। ফাইল ছবি

এরপর থেকে মহানগর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের বড় অংশ ভিড়তে শুরু করে তার কাছেই। তবে এবার তার গুণমুগ্ধদের একটি অংশই বেঁকে বসেছেন।

মহানগর আওয়ামী লীগের যে নেতারা এতদিন জাহাঙ্গীরের বলয়ে ছিলেন, তারাও যোগ দিয়েছেন তার শাস্তি ও মেয়র পদ থেকে অপসারণের আন্দোলনে।

কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ কী করে, তার অপেক্ষায় আছেন এখনও কেউ কেউ।

টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রজব আলী নিউজবাংলাকে বলেন, ‘আমরা নিরপেক্ষরা চুপ আছি। আজকের বিক্ষোভ কর্মসূচিতেও যাইনি, আনন্দ মিছিলেও যাইনি। এত বড় ঘটনা ঘটছে, সেন্ট্রাল (কেন্দ্র) কিছু বলছে না। আমরা সেন্ট্রালের নির্দেশনার অপেক্ষায় আছি।’

জাহাঙ্গীর ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিকে বানোয়াট বললেও সেটা হালে পানি পাচ্ছে না। বরং এর আগে ৪ মিনিটের একটি ভিডিও ছড়িয়েছিল। এবার ছড়িয়েছে ১১ মিনিটের একটি। এখানে আরও বেশ কিছু কথা আছে, যা আরও ক্ষুব্ধ করছে তার বিরোধীদেরকে।

টঙ্গী থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক তুলে ধরেন সে কথাই। আওয়ামী লীগের প্রধান অর্জন মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে কটূক্তি তিনি মেনে নিতে পারছেন না।

বলেন, ‘আমরা বঙ্গবন্ধুর আদর্শে রাজনীতি করি। তাকে নিয়ে যে বক্তব্য শুনা যাচ্ছে, তা নিয়ে আমরা পার্টি ফোরামে কথা বলব। কিন্তু মিটিং কে ডাকবে? সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক দুই পক্ষে অবস্থান করছে। আজকে মহানগর আওয়ামী লীগের আয়োজনে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ ছিল। কিন্তু এতে সভাপতি আসে নাই।’

গাজীপুরে কি অবস্থান হারাবেন মেয়র জাহাঙ্গীর
বিক্ষোভের সময় ঢাকা থেকে গাজীপুর রুটে ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়। ফাইল ছবি

মেয়র জাহাঙ্গীর বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে যে মন্তব্য করেছে তা মিথ্যে প্রমাণ করা না পর্যন্ত তার সঙ্গে কোনো কর্মসূচিতে অংশ নেবেন না বলে সাফ জানিয়ে দিয়েছেন মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আজমত উল্লাহ। সে কথাও জানিয়ে দিলেন রজব আলী।

টঙ্গী পৌরসভার একাধিকবারের মেয়র আজমত গাজীপুরে ভীষণ জনপ্রিয় ছিলেন। ২০১৩ সালের মেয়র নির্বাচনে তার পরাজয় ছিল অপ্রত্যাশিত। সে সময় তিনি জাহাঙ্গীর অনুসারীদের সমর্থন পাননি বলে প্রচার আছে। এও প্রচার আছে যে, জাহাঙ্গীর সমর্থকরা তার বিপক্ষে কাজ করেছে। এই বিষয়টি আট বছর পর আবার সামনে আসছে।

মহানগর আওয়ামী লীগের সম্পাদকমণ্ডলীর একজন নেতা বলেন, ‘গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচনে আজমত উল্লাহ খান ও জাহাঙ্গীর মুখোমুখি অবস্থানে থাকলেও ২০১৫ তারা দুজন এক হয়ে যান দুজন। নিজেদের মধ্যে কমিটিকে কেন্দ্র করে একটা সমঝোতা হয়। যা দীর্ঘদিন ধরেই বলবৎ ছিল।

‘এই দুজনের সমঝোতার কারণে একই এলাকার একাধিক শীর্ষস্থানীয় নেতৃত্ব কিছুটা পাশে পড়ে যান। যা মেয়র জাহাঙ্গীরকে গাজীপুর এলাকায় আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে শীর্ষস্থানে নিয়ে যায়।’

আগামী সিটি নির্বাচনও আছে হিসেবে

আগামী সিটি নির্বাচনকে ঘিরে সমীকরণও আছে। ৩৫ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর আবদুল্লাহ আল মামুন মণ্ডল এবার মেয়র নির্বাচনে আগ্রহী। তিনি মেয়রের শাস্তির দাবিতে কর্মসূচিতে সবচেয়ে বেশি সোচ্চার। তারও একটি বড় সমর্থক গোষ্ঠী আছে সেখানে।

মামুন গাজীপুরের প্রভাবশালী একাধিক নেতা এমনকি আজমত উল্লাহ খানেরও সমর্থন পাচ্ছেন বলেও এলাকায় প্রচার আছে।

শুক্রবার মেয়র জাহাঙ্গীর যেখানে সমাবেশ করেছেন, তার অদূরে মামুনের কার্যালয় ঘিরে যে কর্মসূচি পালন করেন, তাতে আজমত অনুসারীদেরকেও দেখা গেছে, যদিও তিনি নিজে সেখানে যাননি।

কী করবেন জাহাঙ্গীর

দেশে ফিরেই মেয়র এক ভিডিও বার্তায় বলেছিলেন, এই ভিডিও (ভাইরাল রেকর্ড) বানোয়াট, কথা কেটে কেটে বসানো হয়েছে। ভিডিওগুলো ফেসবুক থেকে ডিলিট করার আহ্বান জানিয়েছেন, বলেছেন, নইলে আইনি ব্যবস্থা নেবেন।

শুক্রবারের সমাবেশেও মেয়র বলেছেন, তিনি চক্রান্তকারীদের মুখ উন্মোচন করে দেবেন। তবে এগুলো যে মাঠের রাজনীতির কথা, সেটি নিউজবাংলাকে দেয়া তার সাক্ষাৎকারেই স্পষ্ট।

গাজীপুরে কি অবস্থান হারাবেন মেয়র জাহাঙ্গীর
বিক্ষোভে মেয়রের বিরুদ্ধে নেতা-কর্মীদের অবস্থায়। ফাইল ছবি

কার বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেবেন, এমন প্রশ্নে জাহাঙ্গীর বলেন, ‘এখন মামলার ব্যবস্থা নিতাছি, এখন বাদী, বিবাদী কে এটাই তো মিলাইতে পারতেছি না। কে এটা করছে? আমি তো ছিলাম দেশের বাইরে। আসছি কালকে। আর আমাদের যারা আছে তারা সবাই এটা নিয়ে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে। আমরা যেকোনো মূল্যে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে সহযোগিতা চাইব, বলব কারা এটা করেছে, বাইর কইরা দিতে।’

‘প্রমাণ করতে হবে যে এই ভিডিও তার না’

মেয়র যে বক্তব্য রেখেছেন, তার প্রতিক্রিয়ায় নিউজবাংলাকে আজমত উল্লাহ খান বলেন, ‘মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে প্রমাণ করতে হবে যে এই ভিডিও তার না।’

তিনি বলেন, ‘উনি (জাহাঙ্গীর আলম) বলেছেন ওই ভিভিও অসত্য। কিন্তু বক্তব্যের কণ্ঠ তো তার। তাকেই প্রমাণ করতে হবে যে এই ভিডিও তার না।’

গাজীপুর তিনদিন ধরে উত্তপ্ত থাকলে প্রধানমন্ত্রী দেশের বাইরে থাকায় চুপ রয়েছে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ। ঢাকা বিভাগের দায়িত্বশীলদের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলে, তারাও কোনো মন্তব্য করছেন না। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে বলে মনে করছেন গাজীপুরের নেতারা।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

রাবির ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে মেস

রাবির ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের জন্য বিনামূল্যে মেস

রাজশাহী মহানগরীর মেস মালিক সমিতির সভাপতি এনায়েতুর রহমান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো ধরনের অর্থ নেয়া হবে না। তাদের কোনো ধরনের সমস্যা হলে তারও সমাধান করা হবে। আশা করি সকল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী নিরাপদে মেসে থেকে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে।’

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০২০-২১ সেশনে স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে মেসে থাকতে পারবে।

রাজশাহী মেস মালিক সমিতির সঙ্গে বৈঠক শেষে শুক্রবার সন্ধায় বিষয়টি নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যায়ের প্রক্টর লিয়াকত আলী।

তিনি বলেন, ‘মহানগর মেস মালিক সমিতির সঙ্গে আমাদের বৈঠক হয়েছে। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীরা ও তাদের সঙ্গে আসা অভিভাবকদের বিনামূল্যে মেসে রাখা হবে বলে আশ্বস্ত করেছে মেস মালিকরা।’

প্রক্টর লিয়াকত জানান, যদি কোনো মেস মালিক টাকা চায় বা টাকার জন্য চাপ দেয়, তাহলে ভুক্তভোগীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে বিষয়টি জানাবেন।

তিনি বলেন, ‘কোনো সমস্যা হলে মেসের নাম ও মালিকের নম্বর আমাকে (প্রক্টর) পাঠালে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মাধ্যমে দ্রুত সমাধানের চেষ্টা করা হবে।’

রাজশাহী মহানগরীর মেস মালিক সমিতির সভাপতি এনায়েতুর রহমান বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে কোনো ধরনের অর্থ নেয়া হবে না। তাদের কোনো ধরনের সমস্যা হলে তারও সমাধান করা হবে। আশা করি সকল ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী নিরাপদে মেসে থেকে পরীক্ষায় অংশ নিতে পারবে।’

করোনার কারণে গত বছরের মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের হল। এ কারণে ২০২০-২১ শিক্ষাবর্ষে ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে তাদের রাজশাহীতে অবস্থান করা নিয়ে শঙ্কায় পড়ে প্রশাসন। এমন পরিস্থিতিতে রাজশাহী মেস মালিক সমিতিগুলো ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের তাদের মেসে বিনামূল্যে রাখার ঘোষণা দেয়।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

ক্ষতি পোষাতে একসঙ্গে ১১টি জাহাজ ভেড়াচ্ছে বন্দর

ক্ষতি পোষাতে একসঙ্গে ১১টি জাহাজ ভেড়াচ্ছে বন্দর

ফাইল ছবি

চট্টগ্রাম বন্দর পরিচালক (পরিবহন) এনামুল করিম বলেন, ‘শুক্রবার থেকে আমরা ১১টি কনটেইনার জাহাজ জেটিতে ভেড়ানোর পদক্ষেপ নিয়েছি। যাতে দ্রুত আমরা আগের অবস্থায় ফিরতে পারি।’

ধর্মঘটের ধকল সামাল দিতে ও ক্ষতি পুষিয়ে নিতে একসঙ্গে ১১টি কনটেইনার জাহাজ জেটিতে ভেড়াচ্ছে চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষ।

পরিবহন শ্রমিক-মালিকদের ৩৬ ঘণ্টা ধর্মঘটের কারণে সৃষ্ট জট সামলে বহির্নোঙরে জাহাজের লাইন আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনতে এ উদ্যোগ নিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ।

চট্টগ্রাম বন্দর পরিচালক (পরিবহন) এনামুল করিম বলেন, ‘বহির্নোঙরে জাহাজের জট আছে বলা যাবে না। জাহাজের অপেক্ষমাণ সময় যে আমরা ব্যাপকভাবে কমিয়ে এনেছিলাম, সেটাতে কিছুটা বিঘ্ন ঘটেছে।

‘গত দেড় মাস ধরে আমরা ৫০ শতাংশ জাহাজ কোনো অপেক্ষা ছাড়াই জেটিতে ভেড়াতে পেরেছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘শুক্রবার থেকে আমরা ১১টি কনটেইনার জাহাজ জেটিতে ভেড়ানোর পদক্ষেপ নিয়েছি। যাতে দ্রুত আমরা আগের অবস্থায় ফিরতে পারি।’

চট্টগ্রাম বন্দরের বহির্নোঙরে বৃহস্পতিবার ১১টি কনটেইনার জাহাজ ছিল। যার মধ্যে একটি জাহাজ চার দিন অপেক্ষায় ছিল। ৭টি জাহাজের মধ্যে তিন দিন, দুই দিন করে অপেক্ষমাণ ছিল। বাকি তিনটি জাহাজ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বহির্নোঙরে পৌঁছায়।

গত ২১ সেপ্টেম্বর পরিবহন শ্রমিক-মালিকদের ধর্মঘটের কারণে চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্য ওঠানামা বন্ধ ছিল। বন্দর থেকে পণ্য ডেলিভারি পুরোপুরি বন্ধ ছিল। রপ্তানি পণ্য বন্দর জেটিতে না পৌঁছানোয় ও আমদানি পণ্য জাহাজ থেকে নামাতে না পারায় নির্ধারিত দুটি কনটেইনার জাহাজ চট্টগ্রাম বন্দর জেটি ছাড়তে পারেনি।

কনটেইনার পরিবহনকারী গাড়িতে চট্টগ্রামের ১৮টি ডিপো থেকে বন্দরে আমদানি-রপ্তানি ও খালি কনটেইনার আনা-নেয়া হয়। কর্মবিরতির কারণে ডিপো থেকে কনটেইনার আনা-নেয়া বন্ধ ছিল।

কনটেইনার পরিবহনকারী প্রাইম মুভার ট্রেইলর গাড়িতে রপ্তানি পণ্যবাহী কনটেইনার বন্দরে নেয়া হয়। আবার আমদানি পণ্যবাহী কনটেইনার বন্দর থেকে ডিপোতে আনা হয়। এ ছাড়া খালি কনটেইনার ডিপো ও বন্দরে নিয়মিত আনা-নেয়া হয় এসব গাড়িতে। ধর্মঘটের কারণে কনটেইনার পরিবহন বন্ধ ছিল। গাড়ি না থাকায় জাহাজ থেকে কনটেইনার ওঠানো-নামানোর কার্যক্রমও ব্যাহত ছিল।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

কিশোরী ধর্ষণ মামলায় মুয়াজ্জিন কারাগারে

কিশোরী ধর্ষণ মামলায় মুয়াজ্জিন কারাগারে

সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক জানান, ধর্ষণের ঘটনায় শুক্রবার সকালে কিশোরীর বাবা সীতাকুণ্ড থানায় মামলা করেন। দুপুরে অভিযান চালিয়ে তারা মুয়াজ্জিন হৃদয়কে গ্রেপ্তার করেন।

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে ১৫ বছরের কিশোরী ধর্ষণ মামলায় এক মুয়াজ্জিনকে কারাগারে পাঠিয়েছে আদালত।

শুক্রবার দুপুরে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠানো হয়। গ্রেপ্তার মুয়াজ্জিন তৌহিদুল আলম হৃদয়ের বাড়ি চট্টগ্রামের সন্দ্বীপের মুছাপুরে।

এজাহারে বলা হয়, স্থানীয় মসজিদের মুয়াজ্জিন হিসেবে হৃদয় ওই কিশোরীর ছোট ভাইকে আরবি পড়াতেন। সেই সূত্রে ওই কিশোরীর সঙ্গে তার পরিচয় হয়। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে হৃদয় ওই কিশোরীকে তার কক্ষে নিয়ে যান।

সেখানে কথাবার্তার একপর্যায়ে কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করেন তিনি। ওই কথা কাউকে জানাতে নিষেধ করে কিশোরীকে পরে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন হৃদয়। বাড়ি ফেরার পর কিশোরী তার মাকে ঘটনাটি জানায়।

সীতাকুণ্ড থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) সুমন বণিক জানান, ধর্ষণের ঘটনায় শুক্রবার সকালে কিশোরীর বাবা সীতাকুণ্ড থানায় মামলা করেন। দুপুরে অভিযান চালিয়ে তারা মুয়াজ্জিন হৃদয়কে গ্রেপ্তার করেন। পরে আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেয়।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

নির্মাণাধীন ভবনের দেয়াল ধসে গৃহবধূর মৃত্যু

নির্মাণাধীন ভবনের দেয়াল ধসে গৃহবধূর মৃত্যু

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় নির্মাণাধীন ভবনের ধসে পড়া দেয়াল। ছবি: নিউজবাংলা

পুলিশ জানায়, বাসা পরিবর্তন করার জন্য জিন্নাত ও মেয়ে ময়না বিকেলে ঘর থেকে বের হয়ে প্রধান সড়কের দিকে হেঁটে যাচ্ছিলেন। ওই সময় নির্মাণাধীন একটি বাড়ির দেয়াল তাদের উপর ধসে পড়ে।

নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় নির্মাণাধীন ভবনের দেয়াল ধসে ময়না বেগম নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন তার বাবা জিন্নাত আলী।

সদর উপজেলার মাসদাইর তালা ফ্যাক্টরি এলাকায় শুক্রবার বিকেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত ময়না ও তার বাবা ফ্যাক্টরি এলাকায় থাকতেন।

পুলিশ জানায়, বাসা পরিবর্তন করার জন্য জিন্নাত ও মেয়ে ময়না বিকেলে ঘর থেকে বের হয়ে প্রধান সড়কের দিকে হেঁটে যাচ্ছিলেন। ওই সময় নির্মাণাধীন একটি বাড়ির দেয়াল তাদের উপর ধসে পড়ে।

স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক ময়নাকে মৃত ঘোষণা করেন। আর গুরুতর আহত অবস্থায় তার বাবাকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ফতুল্লা মডেল থানার পরিদর্শক তারিকুল ইসলাম নিউজবাংলাকে জানান, ঘটনার তদন্ত করছে পুলিশ। পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় কোনো অভিযোগ দেয়া হয়নি।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

ডাকাতির প্রস্তুতি নেয়ার সময় গ্রেপ্তার ৬

ডাকাতির প্রস্তুতি নেয়ার সময় গ্রেপ্তার ৬

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম জানান, একটি দল ত্রিশাল উপজেলায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে-এমন তথ্য পেয়ে তারা ওই এলাকায় অভিযান চালান। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় ছয়জনকে আটক করা হয়।

ময়মনসিংহের ত্রিশালে ডাকাতির প্রস্তুতি নেয়ার সময় ছয়জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। তাদের কাছ থেকে একটি ট্রাক ও চাইনিজ কুড়ালসহ ছয়টি দেশীয় অস্ত্র জব্দ করা হয়েছে।

ত্রিশাল উপজেলার বগার বাজার চৌরাস্তা গুজিয়াম এলাকায় অভিযান চালিয়ে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে তাদের আটক করা হয়।

গ্রেপ্তার ছয়জন হলেন ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার আতিকুল ইসলাম, নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলার আলতাফ হোসেন, শরীয়তপুরের সখিপুর উপজেলার হানিফ, বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলার আনিস, সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার আমিনুল ইসলাম ও আব্দুল লতিফ।

শুক্রবার সন্ধ্যায় জেলা ডিবি পুলিশ কার্যালয় থেকে পাঠানো সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সফিকুল ইসলাম জানান, একটি দল ত্রিশাল উপজেলায় ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে-এমন তথ্য পেয়ে তারা ওই এলাকায় অভিযান চালান। তাদের উপস্থিতি টের পেয়ে পালানোর সময় ছয়জনকে আটক করা হয়।

তিনি আরও জানান, এই চক্রে আরও কয়েকজন ডাকাত রয়েছেন বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা গেছে। তাদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।

গ্রেপ্তার ছয়জনের বিরুদ্ধে ত্রিশাল থানায় মামলা হয়েছে জানিয়ে ওসি সফিকুল বলেন, বিকেল ৪টার দিকে তাদেরকে ময়মনসিংহ মুখ্য বিচারিক হাকিম আদালতে পাঠানো হলে বিচারক কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন

ডুমুরিয়ায় ট্রাক-অটোরিকশা খাদে পড়ে নিহত ৫

ডুমুরিয়ায় ট্রাক-অটোরিকশা খাদে পড়ে নিহত ৫

খুলনার ডুমুরিয়ায় অটোরিকশা ও ট্রাক খাদে পড়ে পাঁচজন নিহত হয়েছেন

ডুমুরিয়া থানার ওসি ওবায়দুর জানান, শরাফপুর গ্রাম থেকে একটি বালুবোঝাই ট্রাক এবং একটি অটোরিকশা খুলনার দিকে যাচ্ছিল। ট্রাকটিকে ওভারটেক করতে গিয়ে এর বাম্পারে আটকে যায় অটোরিকশাটি। এ সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুটি যানই খাদে পড়ে যায়।

খুলনার ডুমুরিয়ায় সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ট্রাক খাদে পড়ে অটোরিকশায় থাকা পাঁচজনই নিহত হয়েছেন।

উপজেলার পূর্ব ঝিলেরডাঙ্গা এলাকায় খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কে শুক্রবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিউজবাংলাকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন ডুমুরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ওবায়দুর রহমান।

নিহতরা হলেন উপজেলার শরাফপুর গ্রামের অটোরিকশাচালক ইলিয়াস সরদার, একই গ্রামের মো. বাবু ও তার স্ত্রী শিউলী, রুদাঘরা গ্রামের রেশমা খাতুন এবং গজেন্দ্রপুর গ্রামের রিজাউল গাজীর মেয়ে শারমিন।

ওসি ওবায়দুর জানান, শরাফপুর গ্রাম থেকে একটি বালুবোঝাই ট্রাক এবং একটি অটোরিকশা খুলনার দিকে যাচ্ছিল। ট্রাকটিকে ওভারটেক করতে গিয়ে এর বাম্পারে আটকে যায় অটোরিকশাটি।

এ সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে দুটি যানই খাদে পড়ে যায়। ঘটনার পর পর রেশমা নামে এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। অটোরিকশার ওপর ট্রাকটি পড়ায় এটি খাদের পানিতে ডুবে যায়। এর কারণে সিএনজি থেকে কেউ বের হতে পারেনি।

ওসি আরও জানান, ডুমুরিয়া ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলের ৪ ঘণ্টার চেষ্টায় বিকেল ৫টার দিকে আরও তিন জনের মরদেহ উদ্ধার করে।

খর্ণিয়া থানার ওসি মেহেদী হাসান জানান, রাত ১০টার দিকে অটোরিকশাটি উদ্ধার করা হয়। এ সময় শারমিন নামের আরেক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় ট্রাকচালক রাকিব শেখকে আটক করা হয়েছে। তার বাড়ি দিঘলিয়া উপজেলায়। মরদেহগুলো ডুমুরিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি মেহেদী।

এদিকে দুর্ঘটনার পর উদ্ধার কাজের জন্য খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক প্রায় ৪ ঘণ্টা বন্ধ ছিল। এ কারণে রাস্তার দুই পাশে আটকে পড়ে কয়েক শ যানবাহন। বিকেল ৫টায় ফায়ার সার্ভিসের উদ্ধার কাজ শেষে সড়কটিতে পুনরায় যান চলাচল শুরু হয়।

আরও পড়ুন:
সব সেবা দিতে ভূমি ভবন কমপ্লেক্সের উদ্বোধন সেপ্টেম্বরে
হাইতিতে বড় ভূমিকম্প, সুনামির সতর্কতা
চট্টগ্রামে মৃদু ভূমিকম্প
ভূমি জরিপের ভোগান্তি কমাতে উদ্যোগ
আলাস্কায় ৮.২ মাত্রার ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা

শেয়ার করুন