ঈদে থাকবে রোদ-বৃষ্টির খেলা

ঈদে থাকবে রোদ-বৃষ্টির খেলা

মেঘাচ্ছন্ন আকাশ। ছবিটি মাওয়া হাইওয়ে থেকে তুলেছেন সাইফুল ইসলাম।

ঈদের আগের দিন ২০ জুলাই বৃষ্টি হবে। এরপর রংপুর, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, সিলেট অঞ্চলে হালকা থেকে মাঝারি, আবার কোনো কোনো সময় একটু ভারী বৃষ্টিও হতে পারে। ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল অঞ্চলে হালকা বৃষ্টি হবে।

মৌসুমি বায়ুর সক্রিয়তা কমে গেছে। কয়েক দিন ধরে সারা দেশ বৃষ্টিহীন। সহসা বৃষ্টি হলেও তা ভারী বর্ষণে পরিণত হচ্ছে না। তবে ঈদের সময় অঞ্চলভেদে বৃষ্টির দেখা দিতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, সারা দেশে সব অঞ্চলেই বৃষ্টি হবে, তবে সেটা ভারী বর্ষণ নয়।

রোববার আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ নিউজবাংলাকে এই পূর্বাভাসই দিয়েছেন।

ঈদে দেশের আবহাওয়া কেমন থাকবে, জানতে চাইলে বজলুর রশিদ বলেন, ‘আমরা সারা দেশে একটা বিশ্লেষণ করেছি। তাতে ঈদের আগের দিন ২০ তারিখে বৃষ্টি হবে। এরপর দেখা যাচ্ছে রংপুর, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, সিলেট–এসব অঞ্চলে হালকা থেকে মাঝারি, আবার কোনো কোনো সময় একটু ভারী বৃষ্টিও হতে পারে। আমরা আশা করছি ঢাকা, খুলনা, বরিশাল এসব অঞ্চলে হালকা বৃষ্টি হবে। আবার ড্রাই থাকার সম্ভাবনাও আছে। ওই রকম বেশি বৃষ্টি হবে না ঈদের দিনে।’

ঈদ পর্যন্ত ভেঙে ভেঙে বৃষ্টি হবে জানিয়ে তিনি বলেন, এক পশলা করে বৃষ্টি হবে আবার থেমে যাবে। গরম থাকবে। ভারী বর্ষণ থাকবে না। এখন মৌসুমি বায়ুর সক্রিয়তা কমে গেছে। তবে ঈদের পরে একটা নিম্নচাপ হবে। সেটি ২২ বা ২৩ জুলাইয়ের দিকে। সেটি হওয়ার পর বৃষ্টি বাড়বে।

বর্ষার মৌসুম চললেও হঠাৎ বৃষ্টির দেখা নেই দেশে। রাজধানীতে গত এক সপ্তাহ ধরে বৃষ্টি হয়নি। এর আগে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছিল, মৌসুমি বায়ুর সক্রিয়তা কম থাকায় এমন হয়েছে। তবে আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে আবার বৃষ্টির দেখা দেবে, যা টানা ঈদ পর্যন্ত চলতে পারে।

সাধারণত, জুলাই মাসে দেশে সর্বোচ্চ পরিমাণ বৃষ্টি হয়ে থাকে। এ মাসে আবহাওয়ার তিন মাস মেয়াদি পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, জুলাই মাসে গড়ে দিনে ৪৯০ থেকে ৫৭০ মিলিমিটার বৃষ্টি হতে পারে। জুলাই মাসে বাংলাদেশে সার্বিকভাবে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হবে।

তবে গত কয়েক দিন যে বৃষ্টি হয়নি, তা পূর্বাভাসেও পাওয়া গেল। রোববার দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে নেত্রকোণায়, ৯৪ মিলিমিটার। এ ছাড়া দেশের অন্য কোথাও উল্লেখযোগ্য বৃষ্টি হয়নি।

রোববারের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ুর অক্ষের বর্ধিতাংশ রাজস্থান, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, বিহার, হিমালয়ের পাদদেশীয় পশ্চিমবঙ্গ ও বাংলাদেশের মধ্যাঞ্চল হয়ে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। এর একটি বর্ধিতাংশ উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে দুর্বল থেকে মাঝারি অবস্থায় বিরাজ করছে।

সেখানে আরও বলা হয়েছে, রাজশাহী, রংপুর, ময়মনসিংহ, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, খুলনা ও বরিশাল বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি/বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে। সারা দেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে।

আরও পড়ুন:
ঈদ যাত্রায় থাকবে বৃষ্টির বাগড়া
বৃষ্টিস্নাত জুলাই নিয়ে আসছে বন্যা
বৃষ্টির তীব্রতা কমতে আরও একদিন
শাটডাউন-ছুটি-বৃষ্টিতে ঘুমাচ্ছে ঢাকা
মৌসুমি বায়ু সক্রিয়, নগরীতে ভারী বর্ষণ

শেয়ার করুন

মন্তব্য