ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ে ৫ পরিচালক নিয়োগ হাইকোর্টের

ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ে ৫ পরিচালক নিয়োগ হাইকোর্টের

খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘কোর্ট কিছুর ব্যক্তির নাম দিয়ে জানতে চাইল, এদের বিরুদ্ধে কোনো মামলা বা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে কিনা। সেটা দুদককে দিলাম। দুদক দেখল তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা আছে। কোনো উপযুক্ত আদালত থেকে জামিন না নেওয়ার আগ পর্যন্ত তারা আইনের দৃষ্টিতে পলাতক। এ অবস্থায় তারা কোম্পানি চালাবে কীভাবে? এরপর আদালত কয়েকজন স্বাধীন পরিচালক নিয়োগ দেয়।’

প্রশান্ত কুমার হালদারের (পিকে হালদার) তিন হাজার কোটি টাকা লোপাট করে পলাতক হওয়ার ঘটনায় আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের পরিচালনা বোর্ডে নতুন করে পাঁচজন পরিচালক নিয়োগ করে দিয়েছে হাইকোর্ট।

কোম্পানিটির চেয়ারম্যান (আদালত নিযুক্ত) এন আই খান ছাড়া বাকি পরিচালকরা মামলায় অভিযুক্ত। এ কারণে আদালত সাতজনকে বাদ দিয়ে নতুন করে পাঁচ ব্যক্তিকে স্বাধীন পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দিয়েছে।

নিয়োগকৃত পাঁচ পরিচালক হলেন অগ্রণী ব্যাংক, প্রাইম ব্যাংক ও সাউথইস্ট ব্যাংকের সাবেক সিইও সৈয়দ আবু নাসের বখতিয়ার, অবসরপ্রাপ্ত সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ এবং দুদকের সাবেক পরিচালক শফিকুল ইসলাম, অবসরপ্রাপ্ত ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মিটফুল করিম, ব্যারিস্টার আশরাফ আলী ও এনামুল হাসান এফসিএ।

এ পরিচালকদের নামের তালিকা বাংলাদেশ ব্যাংকে পাঠাতে এবং প্রত্যেক বোর্ড মিটিংয়ে যোগদানের জন্য তাদের সম্মানী হিসেবে ২৫ হাজার টাকা করে দিতেও ইন্টারন্যাশনাল লিজিংকে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের হাইকোর্ট বেঞ্চ গত ১৬ জুন সংক্ষিপ্ত এ আদেশ দেয়। কিন্তু সম্প্রতি লিখিত আদেশটি প্রকাশ করা হয়েছে।

আদেশে যে সাতজনকে বাদ দেওয়া হয়েছে তারা হলেন বোর্ডের সদস্য মো. নুরুল আলম, নাসিম আনোয়ার, বিশ্বদেব ব্যানার্জি, নওশীরুল ইসলাম, মো. আনোয়ার কবির, ব্যারিস্টার নুরুজ্জামান ও মো. আবুল হাসান।

আদালতে দুদকের পক্ষে ছিলেন খুরশীদ আলম খান। কোম্পানিটির পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মাহফুজুর রহমান মিলন।

খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘কোর্ট কিছু ব্যক্তির নাম দিয়ে জানতে চাইল, এদের বিরুদ্ধে কোনো মামলা বা গ্রেপ্তারি পরোয়ানা আছে কিনা। সেটা দুদককে দিলাম।

‘দুদক দেখল তাদের বিরুদ্ধে ফৌজদারি মামলা আছে। কোনো উপযুক্ত আদালত থেকে জামিন না নেওয়ার আগ পর্যন্ত তারা আইনের দৃষ্টিতে পলাতক। এ অবস্থায় তারা কোম্পানি চালাবে কীভাবে? এরপর আদালত কয়েকজন স্বাধীন পরিচালক নিয়োগ দেয়।’

ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্স সার্ভিসেস লিমিটেডের সাবেক এমডি পিকে হালদারের অর্থ পাচারের ঘটনায় আলোচনায় আসে প্রতিষ্ঠানটি। পরে কোম্পানিটির অবসায়নের জন্য আবেদন করা হয়। এরপর হাইকোর্ট গত বছরের ১৯ জানুয়ারি আদেশ দিয়েছিল।

সে সময় প্রতিষ্ঠানটির আগের চেয়ারম্যান অপসারণ করে সেখানে নতুন করে এন আই খানকে নিয়োগ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে প্রতিষ্ঠানের পরিচালকসহ বিভিন্ন কর্মকর্তাদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট জব্দ করার আদেশ দেয়া হয়। তারই ধারাবাহিকতায় নতুন করে পাঁচজন পরিচালক নিয়োগ দেয় হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন:
ধর্ষণ-হত্যা মামলায় ফাঁসির ২ আসামি খালাস
১০ শতাংশ মামলা আইনজীবীদের ফ্রি করা উচিত: প্রধান বিচারপতি
জোর করে স্বীকারোক্তি: দুই তদন্ত কর্মকর্তাকে তলব
৪০ বছরের যুদ্ধে জিতে আত্মহারা মুক্তিযোদ্ধা ওবায়দুল
আড়াই টাকা অনিয়ম: ৪০ বছরের যুদ্ধে জয় মুক্তিযোদ্ধার

শেয়ার করুন

মন্তব্য