করোনায় মেয়াদ বাড়ল ইউনিয়ন পরিষদ প্রতিনিধিদের

করোনায় মেয়াদ বাড়ল ইউনিয়ন পরিষদ প্রতিনিধিদের

ফাইল ছবি

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয়েছে, মেয়াদোত্তীর্ণ এবং মেয়াদ শেষ হওয়ার পথে রয়েছে এমন ইউনিয়ন পরিষদগুলোর ভোট না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান পরিষদই দায়িত্ব পালন করে যাবে। স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ১০১ ধারা অনুযায়ী প্রশাসনিক অসুবিধা দূর করতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঊর্ধ্বমুখী থাকায় মেয়াদ শেষ হলেও ইউনিয়ন পরিষদগুলোতে আপাতত নির্বাচন না দেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। বলা হয়েছে, বর্তমান প্রতিনিধিদেরই দায়িত্ব চালিয়ে যেতে।

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের এক পরিপত্রে সরকারের এই নির্দেশনার কথা জানিয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, মেয়াদোত্তীর্ণ এবং মেয়াদোত্তীর্ণ হওয়ার পথে রয়েছে এমন ইউনিয়ন পরিষদগুলোর ভোট না হওয়া পর্যন্ত বর্তমান পরিষদই দায়িত্ব পালন করে যাবে। স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ১০১ ধারা অনুযায়ী প্রশাসনিক অসুবিধা দূর করতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

এ বছরেই ভোট করার জন্য মেয়াদ শেষের পথে থাকা ইউনিয়ন পরিষদগুলোর একটি তালিকা করে নির্বাচন কমিশন। এ তালিকায় রয়েছে নির্বাচনের যোগ্য ৩ হাজার ৯৯৮টি ইউপির নাম।

এর মধ্যে মার্চে মেয়াদ শেষ হয়েছে এক হাজার ৩৩০টির, এপ্রিলে ৬১১টির ও মে মাসে ১ হাজার ৩৬০টির। এই তিন মাসেই ৩ হাজার ৩০১টি ইউপির মেয়াদ শেষ হয়েছে।

জুনে শেষ হতে যাচ্ছে ৬৯২টি ইউনিয়ন পরিষদের, আর জুলাইতে শেষ হবে আরও ৫টির মেয়াদ। চূড়ান্ত তালিকায় মেয়াদ শেষ হওয়া ইউপির সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

এর মধ্যে ২১ জুন ৩৭১টি ইউপিতে ভোট হওয়ার কথা থাকলেও হয়েছে ১৩টি জেলার ৪১টি উপজেলার ২০৪টি ইউনিয়নে।

আরও পড়ুন:
মালার গলায়ই জয়ের মালা
আরও ৬৩ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী

শেয়ার করুন

মন্তব্য