রোহিঙ্গা ভোটার: ইসি পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা

রোহিঙ্গা ভোটার: ইসি পরিচালকের বিরুদ্ধে মামলা

মামলার বাদী শরীফ উদ্দিন নিউজবাংলাকে জানান, ২০১২ সালে নির্বাচন কমিশনের সাতটি ল্যাপটপ হারিয়ে যায়। এ বিষয়ে বেশ কয়েকটি মামলা হলেও তৎকালীন জেলা নির্বাচন অফিসারসহ আসামিরা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি। বরং হারিয়ে যাওয়া একটি ল্যাপটপ দিয়ে রোহিঙ্গাসহ মোট ৫৫ হাজার ৩১০ জনকে অবৈধভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

রোহিঙ্গাসহ ৫৫ হাজার ৩১০ জনকে অবৈধভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের (ইসি) সচিবালয়ের পরিচালকসহ চারজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের সমন্বিত জেলা কার্যালয় চট্টগ্রাম-২-এর উপসহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন বুধবার দুপুরে এই মামলা করেন।

মামলার চার আসামি হলেন চট্টগ্রাম জেলার সাবেক সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা ও ইসি সচিবালয়ের বর্তমান পরিচালক খোরদেশ আলম, জেলা নির্বাচন অফিসের সাবেক উচ্চমান সহকারী মাহফুজুল ইসলাম, সাবেক অফিস সহায়ক রাসেল বড়ুয়া ও পাঁচলাইশ থানা নির্বাচন অফিসের সাবেক টেকনিক্যাল এক্সপার্ট মোস্তফা ফারুক।

মামলার বাদী শরীফ উদ্দিন নিউজবাংলাকে জানান, ২০১২ সালে নির্বাচন কমিশনের সাতটি ল্যাপটপ হারিয়ে যায়। এ বিষয়ে বেশ কয়েকটি মামলা হলেও তৎকালীন জেলা নির্বাচন অফিসারসহ আসামিরা কোনো পদক্ষেপ নেয়নি।

বরং হারিয়ে যাওয়া একটি ল্যাপটপ দিয়ে রোহিঙ্গাসহ মোট ৫৫ হাজার ৩১০ জনকে অবৈধভাবে ভোটার তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘আসামিরা মূলত একে অপরের যোগসাজশে ক্ষমতার অপব্যবহার করে দণ্ডবিধির ২০১, ৪০৯, ১০৯ ধারাসহ ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫ (২) ধারায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ করেছেন।’

আরও পড়ুন:
রোহিঙ্গা ইস্যুতে জাতিসংঘের জরুরি পদক্ষেপ চায় বাংলাদেশ
ভোটার তালিকায় রোহিঙ্গা ‘ডাকাত’, দুদকের জালে ইসি কর্মকর্তা
‘রোহিঙ্গাদের হাতে এনআইডি তুলে দেন ইসি কর্মী-জনপ্রতিনিধিরা’
রোহিঙ্গার ঘরে গর্তে ৩ লাখ এমফিটামিন, ১৮ ভরি স্বর্ণ
রোহিঙ্গাদের সনদ: সাবেক কাউন্সিলরের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

শেয়ার করুন

মন্তব্য