ছাত্র অধিকারের ৩০ নেতা-কর্মী রিমান্ড শেষে কারাগারে

ছাত্র অধিকারের ৩০ নেতা-কর্মী রিমান্ড শেষে কারাগারে

মতিঝিল শাপলা চত্বরে গত ২৫ মার্চ পুলিশ সদস্যের ওপর বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ কর্মীদের হামলা। ফাইল ছবি

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের প্রতিবাদে গত ২৫ মার্চ বিক্ষোভ মিছিল করে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ। মিছিল চলাকালে পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়েন তারা। এরপর ছাত্র অধিকার পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক রাশেদ খান, ফারুক হাসানসহ ৫১ জনের বিরুদ্ধে মামলা হয়।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের প্রতিবাদে বিক্ষোভ থেকে গ্রেপ্তার বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদের ৩০ নেতা-কর্মীকে দুই দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার বিকেলে ঢাকার মুখ্য মহানগর আদালতের হাকিম সাদবীর ইয়াছির আহসান চৌধুরী এ আদেশ দেন।

রিমান্ড শেষে আসামিদের আদালতে হাজির করে কারাগাবাসের আবেদন করেন মতিঝিল থানার উপপরিদর্শক (এসআই) সফিকুল ইসলাম আকন্দ৷

অপরদিকে আসামি পক্ষে আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম, খাদেমুল ইসলাম ও তৌফিক শাহরিয়ার আসামিদের জামিনের আবেদন করেন।

শুনানি শেষে বিচারক জামিন আবেদন নাকচ করে তাদের কারাগারে আটক রাখার আদেশ দেন।

একই দিনে সন্দেহজনকভাবে গ্রেপ্তার হওয়া ইলিয়াস মিয়া নামের এক আসামিকে একদিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়।

এর আগে গত ২৬ মার্চ ছাত্র অধিকারের ৩০ নেতা-কর্মীর দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফরের প্রতিবাদে গত ২৫ মার্চ বিক্ষোভ মিছিল করে বাংলাদেশ ছাত্র ও যুব অধিকার পরিষদ। মিছিল চলাকালে পুলিশের সঙ্গে সংঘাতে জড়িয়ে পড়েন তারা।

এরপর ছাত্র অধিকার পরিষদের ভারপ্রাপ্ত আহ্বায়ক রাশেদ খান, ফারুক হাসানসহ ৫১ জনকে আসামি করে মামলা হয়। এর মধ্যে ৩১ নেতা-কর্মীকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে ।

শেয়ার করুন

মন্তব্য