20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
বিদেশফেরত ৮৩ জনের তদন্ত স্থগিত করল হাইকোর্ট

ভিয়েতনাম ফেরত বাংলাদেশিরা। ফাইল ছবি

বিদেশফেরত ৮৩ জনের তদন্ত স্থগিত করল হাইকোর্ট

পুলিশ জানায়, প্রবাসে থাকার সময় তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অপরাধের অভিযোগ আছে। এ কারণে গত ১৮ আগস্ট তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়। দেশে আসার পর তাদের কোয়ারেনটাইনে রাখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পরে গত ১ সেপ্টেম্বর ৮৩ জনকে গ্রেফতার দেখানো হয়।

ভিয়েতনাম ও কাতার ফেরত ৮৩ বাংলাদেশির বিরুদ্ধে তদন্ত কার্যক্রম তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছে হাইকোর্ট।

ভিয়েতনাম ফেরত মো. রহমানের করা আবেদনের শুনানি নিয়ে বৃহস্পতিবার এই আদেশ দেয় বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন জ্যোতির্ময় বড়ুয়া ও ফুয়াদ হাসান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল সারোয়ার হোসেন।

জ্যোতির্ময় বড়ুয়া বলেন, ফৌজদারি কার্যবিধির ৫৬১/এ ধারায় তুরাগ থানার জিডির যাবতীয় কার্যক্রম বাতিল চেয়ে আবেদন করা হয়। আদালত শুনানি নিয়ে দুই সপ্তাহের রুল জারি করে হাইকোর্ট। একই সঙ্গে জিডির যাবতীয় কার্যক্রম পরবর্তী তিন মাসের জন্য স্থগিত করে।

বিদেশ ফেরত ৮১ জন ও কাতার ফেরত দুইজনসহ মোট ৮৩ জন শ্রমিকের মুক্তি চেয়ে গত ১৩ সেপ্টেম্বর রিট করা হয়েছিল। ওই রিটের শুনানি নিয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর ৮৩ বাংলাদেশিকে কেন মুক্তির নির্দেশ দেওয়া হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করে হাইকোর্ট।

গত ১ সেপ্টেম্বর ৮৩ জনকে ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন ঢাকা ম্যাট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট সতব্রত সিকদার।

পরে পুলিশ জানায়, রাজধানীর উত্তরা দিয়াবাড়ি এলাকায় তারা কোয়ারেনটাইনে ছিলেন। কিন্তু সেখান থেকে তারা নিজ নিজ বাড়িতে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন।

তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে তাদের ৫৪ ধারায় গ্রেফতার দেখানোর কথাও জানানো হয়। পুলিশ জানায়, প্রবাসে থাকার সময় তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ধরনের অপরাধের অভিযোগ আছে। এ কারণে গত ১৮ আগস্ট তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হয়।

দেশে আসার পর তাদের কোয়ারেনটাইনে রাখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

শেয়ার করুন

মন্তব্য