20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
পরিশ্রমী প্রধানমন্ত্রীর বিশ্রাম দরকার: জাফরুল্লাহ

পরিশ্রমী প্রধানমন্ত্রীর বিশ্রাম দরকার: জাফরুল্লাহ

বিশ্রাম বলতে কী বুঝিয়েছেন, তারও ব্যাখ্যাও দেন বিএনপিপন্থী এই বুদ্ধিজীবী। বলেন, ‘ওনার (প্রধানমন্ত্রী) উচিত এখন একটা সুষ্ঠু নিরপেক্ষ মধ্যবর্তী নির্বাচন দিয়ে ক্ষমতা ছেড়ে দেয়া।’

প্রধানমন্ত্রী অনেক পরিশ্রম করেন মন্তব্য করে তাকে বিশ্রাম নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন জাফরুল্লাহ চৌধুরী। বলেছেন, ‘তার (শেখ হাসিনা) এখন মানসিক ও শারীরিকভাবে সুস্থ থাকা দরকার।’

মঙ্গলবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে এ কথা বলেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ।

বিশ্রাম বলতে কী বুঝিয়েছেন, তারও ব্যাখ্যাও দেন বিএনপিপন্থী এই বুদ্ধিজীবী। বলেন, ‘ওনার (প্রধানমন্ত্রী) উচিত এখন একটা সুষ্ঠু নিরপেক্ষ মধ্যবর্তী নির্বাচন দিয়ে ক্ষমতা ছেড়ে দেয়া।’

আগের দিন নারায়ণগঞ্জে নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নার ওপর হামলার প্রতিবাদে এই মানববন্ধনের আয়োজন করা হয়।

বিএনপি নেতা তৈমূর আলম খন্দকারের জন্মদিনের অনুষ্ঠানে গিয়েছিলেন মান্না। সেখানে একদল যুবক দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে হামলা করে। তারা অনুষ্ঠান স্থল তছনছ করে, মান্নার গাড়ির কাঁচ ভাঙচুর করে। তবে মান্না ও তৈমূরের কোনো ক্ষতি হয়নি।

হামলার নিন্দা জানিয়ে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘তিনি (শেখ হাসিনা) এখন সবদিক নজর দিতে পারেন না। উনি এখন ক্লান্ত থাকেন। বাংলাদেশের ১৮ কোটি মানুষের ভার তিনি এখন আর নিতে পারেন না।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক মানববন্ধনে বক্তরা। ছবি: নিউজবাংলা

‘অতিরিক্ত পরিশ্রমের ফলে তিনি মানসিকভাবে বিপর্যস্ত, শারীরিকভাবেও বিপর্যস্ত। এই কারণে দেশ আস্তে আস্তে মাফিয়া চরিত্রে পরিণত হচ্ছে।

‘আমি প্রধানমন্ত্রীর অনেক কাজের প্রশংসা করি। কিন্তু যখন এমন ঘটনা হয় তখন মনে হয় ওনার কাছে সঠিক সংবাদ পৌঁছায় না। তার গোয়েন্দা বাহিনী তাকে সব সংবাদ ঠিক মত দিতে চায় না।’

নারায়ণগঞ্জের হামলা সরকার সমর্থকদের কাজ অভিযোগ করে জাফরুল্লাহ বলেন, ‘ওনি (প্রধানমন্ত্রী) কি জানেন না কারা করেছে? ওনার সোনার ছেলেরা।’

বঙ্গবন্ধু বেঁচে থাকলে এই ঘটনার জন্য মান্নার কাছে ক্ষমা চাইতেন মন্তব্য করে জাফরুল্লাহ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর উচিত ছিল ফোন দিয়ে মান্নার কাছে ক্ষমা চাওয়া। উনি যদি সুষ্ঠুভাবে দেশ পরিচালনা করতেন তবে যারা মান্নার উপর হামলা করেছে তারা আজ হাজতে থাকত।’

হামলার বর্ণনা দিয়ে মান্না বলেন, “আমি মাত্র ১০ মিনিট বক্তব্য দিয়েছি। এর মধ্যে ‘জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু’ বলে হাতে রামদা, চাপাতি নিয়ে আমাদের উপর হামলা করেছে। কেউ কি জয় বাংলা বা বঙ্গবন্ধুর নাম নিয়ে এমন করতে পারে? এটা কীভাবে সম্ভব!’

গণসংহতি আন্দোলনের নেতা জুনায়েদ সাকি বলেন, ‘যেভাবে মান্নার উপর হামলা হয়েছে তা রুখে দিতে দিতে হলে আমাদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন চাই। সারাদেশে এমন অত্যাচার চলে আসছে। এই দেশ আরো ভয়াবহ হয়ে উঠবে যদি গণতন্ত্রের ব্যবস্থা কার্যকর না থাকে।’

শেয়ার করুন

মন্তব্য