20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
রায়হানের মৃত্যু নিয়ে তিন পুলিশের জবানবন্দি

রায়হানের মৃত্যু নিয়ে তিন পুলিশের জবানবন্দি

সোমবার বিকেলে সিলেটের অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে সাক্ষী হিসেবে তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে। পিবিআই'র পরিদর্শক মহিদুল ইসলাম জানান, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবেই তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

বন্দরবাজার ‘পুলিশ ফাঁড়িতে মারা যাওয়া’ রায়হানের মৃত্যুর ঘটনায় আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন তিন পুলিশ সদস্য। এরা হলেন ওই ফাঁড়ির কনস্টেবল সাইদুর রহমান, শামীম আহমেদ ও দেলোয়ার হোসেন।

সোমবার বিকেলে সিলেটের অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারায় সাক্ষী হিসেবে তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) পরিদর্শক মহিদুল ইসলাম জানান, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী হিসেবেই তাদের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

সিলেট আইনজীবী সমিতির সদস্য মঈনুল হক বুলবুল বলেন, ‘ঘটনার দিনের সাক্ষী হিসেবে এই তিন পুলিশ সদস্যের জবানবন্দি সাক্ষ্য হিসেবে নেয়া হয়েছে। এটি আসামিদের আইনী প্রক্রিয়ায় আনার প্রথম ধাপ হিসেবে দেখছি আমরা।’

পুলিশের দাবি, গত রোববার (১১ অক্টোবর) ভোরে নগরের কাস্টঘর এলাকায় ছিনতাইকারী সন্দেহে গণপিটুনিতে প্রাণ হারান রায়হান।

তবে পরিবারের অভিযোগ, পুলিশের নির্যাতনেই রায়হানের প্রাণ গেছে। ফাঁড়ি থেকে ফোন দিয়ে তাদের কাছে ১০ হাজার টাকাও চাওয়া হয়েছিল।

এ ঘটনায় রায়হানের স্ত্রী একটি মামলা করেন। ১৪ অক্টোবর মামলার তদন্ত শুরু করে পিবিআই।

নিহত রায়হান দুই বছর ধরে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম মার্কেটের এক চিকিৎসকের চেম্বারে সহকারীর কাজ করছিলেন। তার প্রায় তিন মাস বয়সী এক কন্যা রয়েছে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য