প্রেমে ভাবির বাধা, ভাতিজিকে খুন

প্রেমে ভাবির বাধা, ভাতিজিকে খুন

ডাল ভাজা দেয়ার লোভ দেখিয়ে সানজিদাকে পুরাতন ভূমি অফিসের বাড়িতে ডেকে নেয়া হয়। মারধরের এক পর্যায়ে সানজিদাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে ফুপু।

অষ্টম শ্রেণি পড়ুয়া ননদের প্রেমের সম্পর্ক মেনে নিতে পারেননি ভাবি। এ নিয়ে প্রায়ই বলতেন ‘কটু কথা’। দুই জনের এই বিরোধের জেরে সন্তান হারিয়েছেন ভাবি। তার ছয় বছরের শিশু কন্যাকে শ্বাসরোধে হত্যা করেছেন ননদ।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলায় হরিনারায়ণপুরের পূর্ব আব্দালপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন সদর থানার ওসি মুস্তাফিজুর রহমান।

তিনি জানান, সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়ার জ্যেষ্ঠ বিচারিক হাকিম সেলিনা হোসেনের আদালত শিশুটির ফুপু এসব কথা স্বীকার করে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দিও দিয়েছে।

জবানবন্দিতে মেয়েটি বলেছে, প্রেমের সম্পর্কের কথা তার ভাবি রেবেকা খাতুন জেনে ফেলেন। এ নিয়ে প্রায়ই তাকে বকাঝকা করতেন। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে ভাতিজি সানজিদাকে হত্যার পরিকল্পনা করে সে।

পরিকল্পনা অনুসারে রোববার ডাল ভাজা দেয়ার লোভ দেখিয়ে সানজিদাকে পুরাতন ভূমি অফিসের বাড়িতে ডেকে নেয়া হয়। মারধরের এক পর্যায়ে সানজিদাকে শ্বাসরোধে হত্যা করে সে। পরে মরদেহ ফেলা দেয়া হয় পরিত্যক্ত শৌচাগারে।

এ ঘটনায় শিশুটির মা রেবেকা খাতুন মামলা করেন। এরপরই তাকে আটক করে পুলিশ।

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মেয়েটি হত্যার কথা স্বীকার করে। পরে তাকে আদালতে পাঠানো হয়।

শিশু সানজিদা হরিনারায়ণপুরের পূর্ব আব্দালপুর গ্রামের সোহাগ হোসেনের মেয়ে।

শেয়ার করুন

মন্তব্য