20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
ইসির নেই লজ্জা-শরম: ফখরুল

ঢাকা ও নওগাঁর দুটি আসনে উপনির্বাচনে ভোটে কারচুপির অভিযোগে ঢাকায় বিএনপির বিক্ষোভে মির্জা ফখরুল। ছবি: নিউজবাংলা

ইসির নেই লজ্জা-শরম: ফখরুল

‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন একটা ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে বসে আছে। তাদের লজ্জা-শরম বলে কিছু নাই। তাদের আর কোন ক্ষমতা নেই যে তারা সুষ্ঠু নির্বাচন করবে।’

বর্তমান নির্বাচন কমিশনের লজ্জা-শরম নেই। তারা সুষ্ঠু নির্বাচন করতেই পারবে না। তাই এদের বাদ দিয়ে নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশন করতে হবে।

রাজধানীতে এক বিক্ষোভ সমাবেশে এই কথা বলেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

ঢাকা-৫ ও নওগাঁ-৬ আসনের উপনির্বাচনের ভোটে কারচুপির অভিযোগে দেশজুড়েই সোমবার বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে বিএনপি। রাজধানীর বিক্ষোভ হয়েছে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে।

বর্তমান সরকারের আমলে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি দাবি করে নির্বাচন কমিশনের কঠোর সমালোচনা করেন ফখরুল।

সরকারের উদ্দেশে বিএনপি নেতা বলেন, ‘অতীতের সকল নির্বাচন বাতিল করে দিয়ে একটি নিরপেক্ষ কমিশনের অধীনে সুষ্ঠ নির্বাচন করুন।

‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন একটা ঠুঁটো জগন্নাথ হয়ে বসে আছে। তাদের লজ্জা-শরম বলে কিছু নাই। তাদের আর কোন ক্ষমতা নেই যে তারা সুষ্ঠু নির্বাচন করবে।’

শনিবার ইভিএমে নেয়া ভোটে বিএনপির ধানের শীষে ঢাকা ও নওগাঁয় পাঁচ শতাংশেরও কম ভোট পড়েছে।

ফখরুল বলেন, ‘এই সরকারের অধীনে আর কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না। এখন যেসব নির্বাচন হচ্ছে তাতে ভোটের কোনো দেখা নেই। সব নির্বাচন এখন সাজানো নির্বাচন।
ভোটে কারচুপির অভিযোগে বিএনপির বিক্ষোভ

‘সরকার পুলিশসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে একতরফা নির্বাচন করে আসছে। দমনপীড়ন করে মানুষকে তাদের ভোটাধিকার থেকে বঞ্চিত করছে।’

বিএনপি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে বলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্যেরও জবাব দেন ফখরুল। বলেন, ‘নির্বাচন তো আগে থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে আছে, এখন আর কী প্রশ্নবিদ্ধ হবে?

‘নির্বাচন ২০১৪ সাল থেকেই প্রশ্নবিদ্ধ। এই সরকার মানুষের ন্যায্য অধিকার কেড়ে নিয়েছে। তাদের ভোটের অধিকার ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর থেকে আর নেই। এখন আর কোনো নির্বাচন সুষ্ঠ হচ্ছে না।’

সারাদেশে মেগা প্রজেক্টের নামে ‘মেগা দুর্নীতির মহামারি’ চলছে বলেও অভিযোগ করেন ফখরুল। বলেন, ‘এখন ২০০০ কোটি টাকা পাচার হয়ে যায় বিদেশে। কোনো হদিস থাকে না। সারা বাংলাদেশ এখন দুর্নীতির আখড়ায় পরিণত হয়েছে।’

সরকার বাক স্বাধীনতা হরণ করেছে অভিযোগ করে বিএনপি নেতা বলেন, ‘আইনশৃঙ্খলা বাহিনীসহ নানা বাহিনী দিয়ে ভয়ভীতি দেখিয়ে মানুষকে আর কথা বলতে দেয়া হচ্ছে না। এটা কেমন দেশ যেখানে কোনো কথা?বলা যাবে না।’

সরকারকে ‘ফ্যাসিস্ট’, ‘কর্তৃত্ববাদী’ আখ্যা দিয়ে দেশের মানুষকে রক্ষায় নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ারও তাগিদ দেন বিএনপি মহাসচিব।

মানববন্ধনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি হাবিবুন্নবী খান সোহেল বলেন, ‘সূর্য যদি পশ্চিমে উঠে, পুর্ব দিকে অস্ত যায়, তবে সেটাও মেনে নেয়া যায়, কিন্তু আওয়ামী লীগের অধীনে কোনো নির্বাচন মেনে নেয়া যায় না।’

শেয়ার করুন

মন্তব্য