20201002104319.jpg
করোনা: বাংলাদেশে পুরুষের মৃত্যু আরও বেশি

করোনা: বাংলাদেশে পুরুষের মৃত্যু আরও বেশি

সারা বিশ্বে যত মানুষ মারা গেছে, তাদের মধ্যে পুরুষ ৭৩ শতাংশ হলেও বাংলাদেশে এটি ৭৭ শতাংশ। প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে বাংলাদেশে পুরুষদের মৃত্যুহার বেশি। এর কারণ জানতে হয়নি কোনো গবেষণা।

করোনাভাইরাসে নারীর চেয়ে পুরুষের মৃত্যু বেশি সারা বিশ্বেই। বাংলাদেশে এই অনুপাত আরও বেশি।

করোনাভাইরাসজনিত রোগে (কোভিড-১৯) বিশ্বে যত মানুষ মারা গেছেন তাদের ৭৩ শতাংশ পুরুষ; ২৭ শতাংশ নারী। তবে বাংলাদেশে পুরুষের মৃত্যু হার ৭৭ শতাংশেরও বেশি।

বাংলাদেশে পুরুষের মৃত্যুর হার বিশ্বের গড় তো বটেই, প্রতিবেশী ভারত-পাকিস্তানের চেয়েও বেশি।

এর কারণ কী, তা নিয়ে বাংলাদেশে কোনো বৈজ্ঞানিক গবেষণা হয়নি। ফলে সুনির্দিষ্টভাবে কারণ বলার সুযোগ নেই। যদিও স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা তাদের ধারণা থেকে কিছু কারণের কথা বলছেন।

শনিবার পর্যন্ত সারা বিশ্বে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা তিন কোটি ৯৬ লাখ ৮৩ হাজার ২৩৮ জন। আক্রান্তদের মধ্যে মারা গেছে ১১ লাখ ১০ হাজার ৫৩৬ জন।

দেশের স্বাস্থ্য অধিদফতের পরিসংখ্যান বলছে, দেশে করোনাভাইরাসে মোট শনাক্তের সংখ্যা তিন লাখ ৮৭ হাজার ২৯৫। মারা গেছে পাঁচ হাজার ৬৪৬।

নিহতদের মধ্যে পুরুষ চার হাজার ৩৪৫ জন, আর নারী এক হাজার ৩০১ জন। শতাংশ হিসেবে পুরুষের মৃত্যুর হার ৭৬ দশমিক ৯৬। নারীর ৩২ দশমিক ৪ শতাংশ।

করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের সংখ্যা ও প্রাণহানির পরিসংখ্যান রাখা ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য বলছে, ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা ৭৪ লাখ ৩২ হাজার ৬৮০ জন। এর মধ্যে মারা গেছে এক লাখ ১৩ হাজার ৩২ জন। এদের মধ্যে পুরুষের সংখ্যা ৭০ শতাংশ; ৩০ শতাংশ নারী।

পাকিস্তানে তিন লাখ ২২ হাজার ৪৫২ জন রোগীর মধ্যে মারা গেছে ছয় হাজার ৬৩৮ জন। এদের মধ্যে পুরুষ ৭২ শতাংশ, নারী ২৮ শতাংশ।

সারা বিশ্বেই করোনায় মৃত্যু তাদেরই বেশি, যাদের কঠিন রোগ বা (কো মরবিডিটি) রয়েছে। ডায়াবেটিক, উচ্চ রক্তচাপ, হাইপারটেনশন, দীর্ঘমেয়াদী কিডনি রোগ, মেদবাহুল্য যাদের রয়েছে, তারাই মারা যাচ্ছেন বেশিরভাগ ক্ষেত্রে।

বাংলাদেশে আরও বেশি হারে পুরুষের মৃত্যুর কারণ হিসেবে অস্বাস্থ্যকর জীবনাচরণ, উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ, ফুসফুসে ক্যান্সার, কিডনি রোগের আধিক্যের বিষয়ে বলেছেন একজন বিশেষজ্ঞ।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে এসব রোগ নারীদের তুলনায় পুরুষের বেশি। এ ছাড়া মদ ও ধূমপানের অভ্যাসও তাদের মধ্যেই বেশি।

আবার রোগে আক্রান্ত হলেও পুরুষদের চিকিৎসা নেয়ার প্রবণতা কম- বলেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য নজরুল ইসলাম।

নিউজবাংলাকে এই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা পুরুষের থেকে নারীর বেশি থাকে। তবে অন্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশে পুরুষের মৃত্যুর হার কেন বেশি- এ বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্তে আসা সহজ নয়। কারণ, আমার জানা মতে এ বিষয়ে তেমন কোনো গবেষণা নেই। তবে আবাহাওয়াজনিত কারণে পুরুষের মৃত্যুর হার বেশি হতে পারে।’

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এ পর্যন্ত ৫ হাজার ৬৪৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে পুরুষ ৪ হাজার ২৪৫ ও নারী ৪৭৬ জন।

সেই হিসাবে মারা যাওয়াদের ৭৯ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ পুরুষ এবং ২০ দশমিক ৯২ শতাংশ নারী।

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত চিকিৎসক ও ইউজিসির অধ্যাপক এ বি এম আবদুল্লাহ নিউজবাংলাকে বলেন, ‘নারী থেকে পুরুষদের মৃত্যুর কারণ পুরুষরা অসংক্রামক রোগে বেশি ভোগে। এ ছাড়া উচ্চ রক্তচাপ, কিডনি, লিভারের ক্যান্সার, স্ট্রোক পুরুষদের বেশি আক্রান্ত।’

তিনি আরও বলেন, ‘নেশাজাতীয় দ্রব্য পুরুষ বেশি গ্রহণ করে থাকে। ফলে করোনা আক্রান্ত হয়ে পুরুষদের মৃত্যু ঝুঁকিও বেশি থাকে। তবে অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের পুরুষরা করোনায় বেশি মারা যায় কেন, এই বিষয়ে এই মুহূর্তে কিছু বলা সম্ভব না।’

শেয়ার করুন