20201002104319.jpg
রায়হানকে ৪ ঘণ্টা নির্যাতন, ১১১ আঘাতের চিহ্ন

রায়হানকে ৪ ঘণ্টা নির্যাতন, ১১১ আঘাতের চিহ্ন

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান জানিয়েছেন, আঘাতগুলো লাঠির। তার পাকস্থলি খালি ছিল। অতিরিক্ত আঘাতে শিরা ফেটে রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয় বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

বন্দরবাজার 'পুলিশ ফাঁড়িতে মারা যাওয়া' রায়হানের মরদেহের প্রথম দফার ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন শনিবার রাতে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রধান ডা. শামসুল ইসলাম প্রতিবেদন হস্তান্তরের সময় জানান, রায়হানকে মৃত্যুর আগে চার ঘণ্টা নির্যাতন করা হয়। প্রতিবেদনে রায়হানের দেহে ১১১টি আঘাতের চিহ্ন ও নখ উপড়ে ফেলার কথাও আছে।

শামসুল ইসলাম বলেন, ‘রায়হানের দেহে ১১১টি আঘাতের চিহ্নের মধ্যে ৯৭টি কালশিটে দাগ এবং ১৪টি জখমের দাগ আছে। তার নখ উপড়ে ফেলা হয়েছে।’

তিনি জানান, আঘাতগুলো করা হয়েছে লাঠি দিয়ে। তার পাকস্থলি খালি ছিল। অতিরিক্ত আঘাতে শিরা ফেটে অভ্যন্তরীণ রক্তক্ষরণে তার মৃত্যু হয় বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এদিকে রায়হান হত্যার বিচার দাবিতে সিলেট শহরে বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। রোববার দুপুরে রায়হানের আখালিয়া নেহারিপাড়ার বাড়িতে সংবাদ সম্মেলন ডেকেছেন পরিবারের সদস্যরা।

বৃহস্পতিবার দ্বিতীয় দফা ময়নাতদন্ত শেষে বিকেল তিনটায় নগরীর আখালিয়া পঞ্চায়েত গোরস্থানে রায়হানের মরদেহ ফের দাফন করা হয়। একই দিন সকালে দুজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের উপস্থিতিতে ময়নাতদন্তের জন্য তার মরদেহ উত্তোলন করা হয়।

পুলিশের দাবি, গত রোববার (১১ অক্টোবর) ভোরে নগরের কাস্টঘর এলাকায় ছিনতাইকারী সন্দেহে গণপিটুনিতে প্রাণ হারান রায়হান।

তবে পরিবারের অভিযোগ, পুলিশের নির্যাতনেই রায়হানের প্রাণ গেছে। ফাঁড়ি থেকে ফোন দিয়ে তাদের কাছে ১০ হাজার টাকাও চাওয়া হয়েছিল।

এ ঘটনায় রায়হানের স্ত্রী একটি মামলা করেন। বুধবার সকালে মামলার তদন্ত শুরু করে পিবিআই। ওইদিন পিবিআইর একটি দল বন্দরবাজার পুলিশ ফাঁড়ি ও কাস্টঘর এলাকা পরিদর্শন করে।

ওই দিনের ঘটনায় ফাঁড়ির পুলিশ সদস্যদের কর্তব্যে অবহেলা ও অদক্ষতার প্রমাণ পাওয়ায় প্রাথমিকভাবে চারজনকে সাময়িক বরখাস্ত ও তিনজনকে প্রত্যাহার করা হয়।

নিহত রায়হান দুই বছর ধরে সিলেট জেলা স্টেডিয়াম মার্কেটের এক চিকিৎসকের চেম্বারে সহকারীর কাজ করছিলেন। তার প্রায় তিন মাস বয়সী এক কন্যা রয়েছে।

শেয়ার করুন