20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
বেগমগঞ্জে নারী নির্যাতন: হাইকোর্টের তদন্ত কমিটির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

বেগমগঞ্জে নারী নির্যাতনের মামলার মূল দুই আসামিকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। ফাইল ছবি।

বেগমগঞ্জে নারী নির্যাতন: হাইকোর্টের তদন্ত কমিটির ঘটনাস্থল পরিদর্শন

নির্যাতিতার বক্তব্য গ্রহণে পুলিশের কোনো অবহেলা আছে কিনা তা অনুসন্ধান করতে ৫ অক্টোবর হাইকোর্ট একটি কমিটি করে দেয়। নোয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা এবং চৌমুহনী সরকারী এস এ কলেজের অধ্যক্ষকে তা অনুসন্ধান করে ১৫ দিনের মধ্যে হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে নারীকে বিবস্ত্র করে নির্যাতনের ঘটনায় হাইকোর্টের নির্দেশে গঠিত কমিটির তদন্ত শুরু হয়েছে। এ কমিটি বুধবার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

তদন্তের প্রথম দিন মঙ্গলবার কমিটির সদস্যরা বেগমগঞ্জে গিয়ে থানার ওসিসহ সংশ্লিষ্ট পুলিশ সদস্য, উপজেলা প্রশাসনের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা-কর্মচারী, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ও সংশ্লিষ্ট কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের জবানবন্দি রেকর্ড করেন।
কমিটির প্রধান অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ইসরাত সাদমীন বুধবার বলেন, ‘এলাকাবাসী ও নির্যাতিতার সঙ্গে কথা বলেছি। এ বিষয়ে বিস্তারিত পরে বলব।’

বেগমগঞ্জে দেলোয়ার বাহিনীর সদস্যরা ২ সেপ্টেম্বর রাতে ওই গৃহবধূর বাড়িতে ঢুকে তাকে বিবস্ত্র করে নির্যাতন চালায়। এ ঘটনার ভিডিও ধারণ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে টাকাও দাবি করে তারা। ৪ অক্টোবর ভিডিওটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়। এ ঘটনায় দেশ জুড়ে প্রতিবাদ-বিক্ষোভ শুরু হয়।

ওই ঘটনায় নির্যাতিতার বক্তব্য গ্রহণে পুলিশের কোনো অবহেলা আছে কিনা তা অনুসন্ধান করতে ৫ অক্টোবর হাইকোর্ট একটি কমিটি করে দেয়। নোয়াখালীর অতিরিক্ত জেলা প্রশাসকের নেতৃত্বে জেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা এবং চৌমুহনী সরকারী এস এ কলেজের অধ্যক্ষকে তা অনুসন্ধান করে ১৫ দিনের মধ্যে হাইকোর্টের রেজিস্ট্রারের কাছে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়।

শেয়ার করুন