20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
আইন পেশায় ৩ মাস নিষিদ্ধ ইউনুছ আলী

আইন পেশায় ৩ মাস নিষিদ্ধ ইউনুছ আলী

রায়ে এ আইনজীবীকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

বিচার বিভাগ নিয়ে ‌‘বিরূপ মন্তব্য’ করায় আইনজীবী হিসেবে আগামী তিন মাস কোনো মামলায় লড়তে পারবেন না ইউনুছ আলী আকন্দ।

সোমবার প্রধান বিচারপতিসহ সাত বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ রায় দেয়।

রায়ে এ আইনজীবীকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেয়া হয়।

এর আগে রোববার এ বিষয়ে দীর্ঘ শুনানি হয়। শুনানি শেষে সোমবার রায়ের জন্য দিন ধার্য করা হয়েছিল।

সকালে রায়ের শুরুতে প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন আইনজীবী ইউনুছ আলীর উদ্দেশে বলেন, ‘আপনি নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে আবেদন দিয়েছেন, আমরা তা পড়েছি। এখন আমরা রায় ঘোষণা করব। এটা আমাদের সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত।’

তিনি আরও বলেন, ‘মিস্টার ইউনুছ আলী আকন্দের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। তিনি আদালত অবমাননা করেছেন। এ কারণে আজ থেকে তিন মাস আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগে আইন প্র্যাকটিস থেকে দূরে থাকবেন।’

এর আগে ‘বিরূপ মন্তব্যের’ জন্য আদালতের কাছে নিঃশর্ত ক্ষমা চান আইনজীবী ইউনুছ আলী।

এ রায়ের পর আইনজীবী সমিতির সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস কাজল বলেন, ‘এটি আইনজীবীদের জন্য সতর্কবার্তা। কেউ যাতে বিচার বিভাগ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কটূক্তি না করে, এটিই উদাহরণ হয়ে থাকবে।’

গত ২৭ সেপ্টেম্বর আদালত নিয়ে ইউনুছ আলীর ফেসবুকের স্ট্যাটাস আমলে নিয়ে তাকে দুই সপ্তাহের জন্য নিষিদ্ধ করে আপিল বিভাগ। ওই দিন ইউনুছ আলীকে ১১ অক্টোবর আদালতে হাজির হতে বলা হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য