20201002104319.jpg
সাড়ে ৮ হাজার ডিজিটাল ডাকঘর হচ্ছে: জব্বার

ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার

সাড়ে ৮ হাজার ডিজিটাল ডাকঘর হচ্ছে: জব্বার

দেশে আট হাজার ৫০০ ডিজিটাল ডাকঘর গড়ে তোলা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার।

শুক্রবার ‘বিশ্ব ডাক দিবস’ উপলক্ষে স্মারক ডাকটিকিট ও উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত এবং ডেটা কার্ড প্রকাশ অনুষ্ঠানে তিনি এ তথ্য জানান বলে ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

মন্ত্রী বলেন, ডিজিটাল প্রযুক্তি বর্তমান বিশ্বকে একটি গ্লোবাল হোমে পরিণত করেছে। ডাকসেবা জনবান্ধব করতে ডাকঘরকে প্রযুক্তিনির্ভর করতে হবে। এ উদ্যোগের অংশ হিসেবে গ্রামীণ আট হাজার ৫০০ ডাকঘরকে ডিজিটাল ডাকঘর হিসেবে গড়ে তোলা হচ্ছে। পাশাপাশি বিদ্যমান জনবলকে ডিজিটাল উপযোগী করে গড়ে তুলতে উদ্যোগ নেয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘সরকার গৃহীত কর্মসূচির ফলে একসময়ে অস্তিত্বের সংকটে পড়া ডাকঘর আজ জনগণের কাছে অত্যাবশ্যকীয় হিসেবে গড়ে উঠেছে।’

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দিবসটি উপলক্ষে ডাক অধিদপ্তর দশ টাকা দামের স্মারক ডাকটিকিট ও দশ টাকা দামের উদ্বোধনী খাম অবমুক্ত করেছে। এছাড়া পাঁচ টাকা দামের একটি ডেটা কার্ড প্রকাশ করা হয়।

শুক্রবার স্মারক ডাকটিকিট ও উদ্বোধনী খাম ঢাকা জিপিওর ফিলাটেলিক ব্যুরো থেকে বিক্রি করা হয়। পরে দেশের সব ডাকঘর থেকে এ স্মারক ডাকটিকিট বিক্রি করা হবে। উদ্বোধনী খামে ব্যবহারের জন্য চারটি জিপিওতে বিশেষ সিলমোহরের ব্যবস্থা থাকবে।

১৮৭৪ সালের ৯ অক্টোবর সুইজারল্যান্ডের বার্নে ২২ দেশের অংশগ্রহণে গঠিত হয় ইউনিভার্সেল পোস্টাল ইউনিয়ন (ইউপিইউ)। ১৯৬৯ সালে দিনটি স্মরণীয় রাখতে ৯ অক্টোবরকে ‘বিশ্ব ডাক ইউনিয়ন দিবস’ ঘোষণা করা হয়। ১৯৮৪ সালে দিবসটির নাম পরিবর্তন করে ‘বিশ্ব ডাক দিবস’ রাখা হয়।

শেয়ার করুন

মন্তব্য