রাতে বসল হাইকোর্ট, জামিন পেল চার শিশু

রাতে বসল হাইকোর্ট, জামিন পেল চার শিশু

বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই তাদের যশোর থেকে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মাইক্রোবাসে করে অভিভাবকের কাছে পৌঁছে দিতেও যশোর জেলা প্রশাসককে আদেশ দেয় হাইকোর্ট।

হাইকোর্টের আদেশের পরপরই জামিন পেয়েছে বাকেরগঞ্জের ধর্ষণ মামলায় কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো ছয় থেকে নয় বছরের চার শিশু।

বৃহস্পতিবার রাত ৯টার দিকে বসে বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহিউদ্দিন শামীমের হাইকোর্ট বেঞ্চ।

এই বেঞ্চ বরিশাল নারী ও শিশু আদালতকে বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যেই তাদের জামিন নিষ্পত্তির আদেশ দেয়। এর পরপরই চার শিশুকে জামিন দেয় বরিশালের আদালত।

গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবদেন আমলে নিয়ে রাতেই বাসে হাইকোর্ট বেঞ্চ। তাদের যশোর থেকে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত মাইক্রোবাসে করে অভিভাবকের কাছে পৌঁছে দিতেও যশোর জেলা প্রশাসককে আদেশ দেয় হাইকোর্ট।

চার শিশুকে কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর আদেশ প্রদানকারী বরিশাল বাকেরগঞ্জের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটকে আগামী ১১ অক্টোবর হাজির হতে বলেছে হাইকোর্ট।

বাকেরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও ওই ৪ শিশুকে তাদের অভিভাবকসহ ওই দিন হাজির হতেও বলেছে উচ্চ আদালত।

ধর্ষণের মামলায় ছয় থেকে নয় বছরের চার শিশুকে যাশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠালো আদালত- শিরোনামে একটি বেসরকারি টিভিতে ওই প্রতিবেদন প্রচার হয় বুধবার।

বরিশাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে ১১ অক্টোবর সাড়ে ১০টার মধ্যে ভিকটিম শিশুর ধর্ষণ সংক্রান্ত মেডিকেল রিপোর্টও দাখিল করতে বলা হয়েছে হাইকোর্টে।

আদেশে বৃহস্পতিবার রাতের মধ্যে শিশুদেরকে তাদের পিতা-মাতার কাছে পৌঁছে শুক্রবার সকাল ১০টার মধ্যে টেলিফোনের মাধ্যমে বিষয়টি জানাতে বলা হয়েছে।

বুধবার বিকালে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বাকেরগঞ্জ আমলি আদালতের বিচারক এনায়েত উল্লাহর নির্দেশে ওই চার শিশুকে যশোর কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়।

এর আগে বুধবারই বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলায় চার নাবালক শিশুর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়। এ ঘটনায় তাদের গ্রেফতার করে আদালতে সোপর্দ করে পুলিশ।

তবে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে ওই শিশুদের ফাঁসানো হয়েছে বলে দাবি করেন স্বজনরা।

এর আগে গত ৩ অক্টোবর টেলিভিশনের লাইভ দেখে মধ্যরাতে আদালত বসিয়েছিল হাইকোর্টে। আদালতের নির্দেশে সেই রাতেই দুটি শিশু বাবার বাড়িতে ঢুকেছিল।

শেয়ার করুন