20201002104319.jpg
20201003015625.jpg
‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র ব্রেইল সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন

‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’র ব্রেইল সংস্করণের মোড়ক উন্মোচন

বঙ্গবন্ধুর ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ বইয়ের ব্রেইল সংস্করণের মোড়ক উন্মোচিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বুধবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এই মোড়ক উন্মোচন করেন।

দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী পাঠকের কথা বিবেচনা করে ‘মুজিববর্ষ’ উদযাপন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনীমূলক গ্রন্থটির ব্রেইল সংস্করণ বের করা হয়েছে। প্রথম ধাপে ১০০ সেট (প্রতিটি ৬ খণ্ড) ব্রেইল সংস্করণ মুদ্রণ করেছে সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়।

মোড়ক উন্মোচনের সময় শেখ হাসিনা বলেন, বাংলাদেশের অভ্যুদয়, স্বাধীনতা ও বাঙালি জাতির স্বকীয়তা বঙ্গবন্ধুর জীবনের সঙ্গে নিবিড়ভাবে জড়িত।

তিনি বলেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবন ইতিহাসের মধ্য দিয়ে গেলে আমরা বাংলাদেশের উত্থানের ইতিহাস, স্বাধীনতা ও বাঙালি জাতির স্বকীয়তা জানার সুযোগ পেতে পারি।’

বইটিতে বঙ্গবন্ধুর জীবনের একটি প্রতিচ্ছবি বর্ণিত হয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,‘এই বইটিতে ভাষা আন্দোলন থেকে দেশের স্বাধীনতা অর্জন পর্যন্ত সমস্ত সংগ্রামের ইতিহাস রয়েছে। যে কেউ এই বই থেকে অনেক তথ্য পেতে পারেন।’

শেখ হাসিনা জানান, ‘বঙ্গবন্ধুর এই বইটি ১৪টি ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে এবং আরও কয়েকটি ভাষায় এটি প্রকাশের অনুমতি দেয়া হয়েছে।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘জাতির পিতাকে হত্যার পর ভাষা আন্দোলন ও স্বাধীনতার সংগ্রামের সমস্ত ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছিল এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নাম সব জায়গা থেকে মুছে ফেলা হয়েছিল। এই বইটি প্রকাশের পর আমরা ইতিহাস বিকৃতি থেকে কিছুটা স্বস্তি পেয়েছি।’

শেখ হাসিনা বলেন, ‘পাকিস্তানের গোয়েন্দা শাখার প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে বইটি প্রকাশিত হলে দেশের সংগ্রামের ইতিহাস বিশেষ করে জাতির পিতার সংগ্রাম ও স্বাধীনতার পদক্ষেপগুলো সামনে আসতে শুরু করে।’

পাকিস্তানি গোয়েন্দা শাখার প্রতিবেদনের ওপর ভিত্তি করে আরও বই ভবিষ্যতে প্রকাশিত হবে বলে প্রধানমন্ত্রী জানান।

প্রধানমন্ত্রী ব্রেইল সংস্করণে বইটি প্রকাশের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানান। তাদের এই বইটি লাইব্রেরিগুলোতে সংরক্ষণের পরামর্শ দেন যাতে দৃষ্টিপ্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা বঙ্গবন্ধু ও দেশের সত্যিকারের ইতিহাস সম্পর্কে জানতে পারে।

সূত্র: ইউএনবি

শেয়ার করুন