20201002104319.jpg
শেখ হাসিনার জন্মদিনে স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

শেখ হাসিনার জন্মদিনে স্মারক গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিনে তার জীবন ও রাজনীতির ওপর প্রকাশিত হয়েছে স্মারক গ্রন্থ।

‘পিতা থেকে কন্যা: স্বাধীনতা থেকে অর্থনৈতিক মুক্তি’ শিরোনামের বইটি সম্পাদনা করেছেন কানাডিয়ান ইউনিভার্সিটি অফ বাংলাদেশ ও পদ্মা ব্যাংকের চেয়ারম্যান চৌধুরী নাফিজ সরাফাত।

তথ্য মন্ত্রণালয়ে সোমবার তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন। অনুষ্ঠানে বইয়ের সম্পাদক নাফিজ সরাফাত, প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান জয়ীতা প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ইয়াসীন কবির, প্রচ্ছদশিল্পী শাহরিয়ার খান বর্ণ উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ বলেন, বইটির নামকরণ অত্যন্ত যথার্থ হয়েছে। এর প্রকাশকালও অত্যন্ত তাৎপর্যপূর্ণ।

এ ধরনের সময়োপযোগী বই সম্পাদনা করে জাতির সামনে তুলে ধরায় চৌধুরী নাফিজ সরাফাতকে ধন্যবাদ জানান তথ্যমন্ত্রী।

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে লেখা এই বই একদিকে প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনকে মহিমান্বিত করেছে। অন্যদিকে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার জীবনকর্ম জানতে ও শিখতে বর্তমান তরুণ প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করবে।’ 

 বঙ্গবন্ধু কন্যার অবদান তুলে ধরে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘শেখ হাসিনার কারণে বাংলাদেশ আজ গর্বিত। বঙ্গবন্ধুর কারণে আমরা স্বাধীনতা পেয়েছি। শেখ হাসিনার কারণে আমরা এখন অর্থনৈতিক মুক্তির পথে এগিয়ে চলছি।’

অনুষ্ঠানে চৌধুরী নাফিজ সরাফাত বলেন, “বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বঙ্গবন্ধু ও শেখ হাসিনার জীবনকর্মকে গুরুত্ব দিয়ে বইটির নাম রাখা হয়েছে ‘পিতা থেকে কন্যা: স্বাধীনতা থেকে অর্থনৈতিক মুক্তি। পাশাপাশি শেখ হাসিনার জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাতেই বই প্রকাশের সময় বেছে নেয়া হয়েছে তার জন্মদিনকে।”

‘পিতা থেকে কন্যা : স্বাধীনতা থেকে অর্থনৈতিক মুক্তি’র মুখবন্ধ লিখেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। ১৫০ পৃষ্ঠার বইয়ে ৫টি অধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বর্ণাঢ্য কর্মময় জীবন এবং বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে বঙ্গবন্ধুকন্যার নিরন্তর সংগ্রামের তথ্যবহুল বিবরণ ও বহু দুর্লভ ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে।

বইটিতে রয়েছে বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার জন্ম, বেড়ে ওঠা, ছাত্রজীবন, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের নেতৃত্ব গ্রহণ এবং সুদক্ষ ও বলিষ্ঠভাবে দল পরিচালনাসহ নানা চড়াই-উতরাই পেরিয়ে ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে জনরায়ে প্রথমবার প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হওয়ার বিবরণ। ২০০৮ সালের ২৯ ডিসেম্বরের নির্বাচনে নিরঙ্কুশ জয় পায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ এবং ২০০৯ সালের ৬ জানুয়ারি সরকার গঠন করে প্রধানমন্ত্রী নির্বাচিত হন শেখ হাসিনা। নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলেন।

শিক্ষা, বিদ্যুৎ, কৃষি, মৎস্য, খাদ্য, তৈরি পোশাকশিল্প, ব্যবসা-বাণিজ্যসহ প্রতিটি ক্ষেত্রে সামনের সারিতে অবস্থান করে উন্নয়নের মহাপরিকল্পনা নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের রিজার্ভ ও রেমিট্যান্স সর্বকালের রেকর্ড অবস্থানে রয়েছে। তিনি ভিশন ২০২১, উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গঠন ২০৪১ ও ডেল্টা প্ল্যান ২১০০ নামে সবিশেষ কর্মসূচি নিয়েছেন। স্বপ্নের পদ্মা সেতু, বঙ্গবন্ধু টানেল, মেট্রোরেলসহ ১২টি মেগা প্রকল্পের কাজ সমাপ্ত হলে বদলে যাবে বাংলাদেশের দৃশ্যপট।

বাংলাদেশের বিস্ময়কর উন্নয়ন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্ব আজ বিশ্বসভায় প্রভূত প্রশংসিত। এ জন্য তিনি জাতিসংঘ ও বিভিন্ন দেশের সরকারপ্রধানদের কাছ থেকে সম্মানজনক অসংখ্য পদকে ভূষিত হয়েছেন। বাংলাদেশের ইতিহাসে চতুর্থ মেয়াদে তিনি প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেশ পরিচালনা করছেন।

জয়ীতা প্রকাশনী থেকে বের হওয়া বইটির দাম ধরা হয়েছে ১৪০০ টাকা।

শেয়ার করুন