20201002104319.jpg
মাছ ধরার নেশায় কৈ আটকে গেল গলায়

কৈ মাছের ফাইল ছবি (বাঁয়ে), মাছ শিকারি শফিক

মাছ ধরার নেশায় কৈ আটকে গেল গলায়

আটকে যাওয়া মাছটি অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে বের করতে সময় লেগেছে ১ ঘণ্টা

বন্ধুদের সঙ্গে খালি হাতে বিলে মাছ শিকারে নামেন শফিকুল ইসলাম। একটি কৈ ধরার সময় পায়ের নিচে আটকা পড়ে আরও একটি। সেটি ধরার উপায় হিসেবে যে কৌশল নিলেন শফিক, তাতে তৈরি হয় জীবন সংশয়।

হাতের কৈ মাছটি দাঁতে কামড়ে আরেকটি ধরার চেষ্টার সময়ে ঘটে ভয়ঙ্কর দুর্ঘটনা। জ্যান্ত কৈ মাছ গলায় ঢুকে আটকে যায়। ছটফট করতে থাকা শফিককে দ্রুত স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে যান বন্ধুরা। এরপর প্রায় ১ ঘণ্টা অস্ত্রোপচার শেষে বের করা হয় কৈ মাছটি।

শফিকের ছোট ভাই মো. কাজল নিউজবাংলাকে জানান, মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে স্থানীয় বাইলা বিলে মাছ ধরছিল শফিক। হঠাৎ তাকে ছটফট করতে দেখা যায়। এরপর তাকে করিমগঞ্জ উপজেলা সদরের রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। আটকে যাওয়া মাছটি অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে বের করতে সময় লাগে প্রায় এক ঘণ্টা।

হাসপাতালের নাক, কান ও গলা বিভাগের প্রধান ডা. কামিনী কুমার ত্রিপুরার নেতৃত্বে একদল চিকিৎসক শফিকের গলা থেকে কৈ মাছ বের করেন।

হাসপাতালের অধ্যক্ষ ডা. আ ন ম নৌশাদ খান জানান, ‘শফিক সংকট মুক্ত হলেও তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে।’

শফিকের বাড়ি করিমগঞ্জ উপজেলার নোয়াবাদ ইউনিয়নের নোয়াবাইদ গ্রামে। তিনি কৃষিকাজে জড়িত। 

 

শেয়ার করুন