20201002104319.jpg
ভিপি নুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহযোগিতার মামলা

ভিপি নুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহযোগিতার মামলা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ ডাকসুর সহ-সভাপতি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে ধর্ষণে সহযোগিতার অভিযোগ এনে মামলা হয়েছে। ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়েছে বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে।। 

বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের এক ছাত্রী ঢাকার লালবাগ থানায় রোববার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে মামলাটি করেন। তবে অভিযোগের বিষয়ে বিস্তারিত কিছু প্রকাশ করেনি পুলিশ।

নুর অবশ্য এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি ভারতবিরোধী অবস্থানের কারণে মামলাটি করা হয়েছে বলে পাল্টা অভিযোগ করেন। 

মামলায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি। তদন্ত কর্মকর্তা লালবাগ থানার পরিদর্শক (অপারেশনস) আসলাম উদ্দিন বলেন, ‘এখনও মামলাটি প্রাথমিক তদন্ত পর্যায়ে রয়েছে। বিস্তারিত পরবর্তীতে জানানো যাবে।’

ঢাকা মহানগর পুলিশের লালবাগ জোনের সহকারী কমিশনার হাফিজ আল আসাদ জানান, হাসান আল মামুনের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ আনা হয়েছে। ভিপি নুরসহ বাকিদের বিরুদ্ধে সহযোগিতার অভিযোগ করেছেন বাদী। 

মামলার অভিযোগে বলা হয়, বাদীর সঙ্গে মামুনের প্রেমের সম্পর্ক ছিল। মামুনের লালবাগের বাসায় ধর্ষণের শিকার হন বাদী। পরবর্তী সময়ে এ বিষয়ে জানানো হলে প্রথমে বিষয়টি নিয়ে মামুনের সঙ্গে বসে মীমাংসার আশ্বাস দেন নুর। 

অভিযোগে আরও বলা হয়, মীমাংসার আশ্বাস দিয়ে গত জুন মাসে বাদীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন নুর। কিন্তু মীমাংসা না করে বাদীকে এ বিষয়ে বাড়াবাড়ি না করতে বলেন ডাকসুর ভিপি। বাদী বাড়াবাড়ি করলে ভক্তদের দিয়ে বাজে পোস্ট ও তাকে 'পতিতা' বলে প্রচার করার হুমকিও দেন নুর।

অভিযোগের বিষয়ে প্রধান আসামি হাসান আল মামুনের কোনও বক্তব্য পাওয়া যায়নি। 

তবে নুর তুলেছেন অপরাজনীতির অভিযোগ। তিনি বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে আমরা সরকার দুঃশাসনের বিরুদ্ধে আন্দোলন সংগ্রাম করে যাচ্ছি। এর আগেও আমার বিরুদ্ধে অনেকগুলা মামলা হয়েছে। ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাই এগুলো করছে।’

‘এখন আমরা বিশেষ করে ভারতের বিরুদ্ধে সোচ্চার হচ্ছি। এসব কারণে মামলা করে হয়রানি ও মানসম্মান ক্ষুণ্ন করার চেষ্টা করছে সরকার।’

শেয়ার করুন