× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট বাংলা কনভার্টার নামাজের সময়সূচি আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

google_news print-icon

ইফতারের দোয়া

ইফতার
ইফতারের সময় দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর সন্তুষ্টি কামনা করা হয়। ছবি: সংগৃহীত
শাইখ মুহাম্মদ বিন সালেহ আল-উছাইমীনকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ‘ইফতারের সময় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণিত মাসনুন (সুন্নাহতে প্রমাণিত) দোয়া আছে কি? এই দোয়া করার সময়ই বা কখন? একজন রোজা পালনকারী কি মোয়াজ্জিনের সঙ্গে আজান পুনরাবৃত্তি করবেন নাকি তার ইফতার চালিয়ে যেতে থাকবেন?’ উত্তরে তিনি বলেন, ‘নিঃসন্দেহে ইফতারের সময় দোয়া কবুলের সময়। কারণ এটি একটি ইবাদত পালনের শেষ মুহূর্ত।’

সিয়াম সাধনার মাস রমজানে আল্লাহর সন্তুষ্টি অর্জনের জন্য ভোররাতে সেহরি করে সারা দিন পানাহার বর্জন করেন মুসলিমরা। সন্ধ্যায় তারা ইফতারের মধ্য দিয়ে আবার খাদ্য ও পানীয় গ্রহণ করেন। এ সময়টাতে কোন ধরনের দোয়া পড়তে হয় কিংবা আদৌ কোনো দোয়া আছে কি না, তা জানার আগ্রহ আছে অনেকের।

ইসলামি প্রশ্নোত্তরভিত্তিক ওয়েবসাইট ইসলাম কিউএ ডটইনফোর এক উত্তরে বলা হয়, ‘হাদিসে এমন কিছু দোয়া বর্ণিত হয়েছে, যে দোয়াগুলো একজন রোজাদার ইফতারের সময় তথা রোজা ভাঙার সময় পড়বেন। যেমন: রোজাদার বলবেন

ذَهَبَ الظَّمَأُ وَ ابْتَلَّتِ العُرُوْقُ وَ ثَبَتَ الأَجْرُ إنْ شَاءَ الله।’

উল্লিখিত দোয়াটির অর্থ হলো ‘পিপাসা দূরীভূত হলো, শিরা-উপশিরা সিক্ত হলো এবং আল্লাহ চাহে তো সওয়াব সাব্যস্ত হলো।’

এর বাইরে রোজাদার তার পছন্দমত যেকোনো দোয়া করতে পারেন বলে প্রশ্নোত্তরে জানানো হয়।

ইসলাম কিউএ জানায়, এই দোয়া করার কারণ এই নয় যে, রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের আদর্শ (সুন্নাহ) থেকে সুনির্দিষ্টভাবে এ ক্ষেত্রে কোনো উদ্ধৃতি আছে; বরং এ জন্য যে, এটি একটি ইবাদতের সমাপ্তি পর্ব। এ ধরনের সময়ে একজন মুসলমানের দোয়া করা শরিয়তসম্মত।

ওয়েবসাইটটিতে উল্লেখ করা হয়, শাইখ মুহাম্মদ বিন সালেহ আল-উছাইমীনকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ‘ইফতারের সময় নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণিত মাসনুন (সুন্নাহতে প্রমাণিত) দোয়া আছে কি? এই দোয়া করার সময়ই বা কখন? একজন রোজা পালনকারী কি মোয়াজ্জিনের সঙ্গে আজান পুনরাবৃত্তি করবেন নাকি তার ইফতার চালিয়ে যেতে থাকবেন?’

উত্তরে মুহাম্মদ বিন সালেহ আল-উছাইমীন বলেন, ‘নিঃসন্দেহে ইফতারের সময় দোয়া কবুলের সময়। কারণ এটি একটি ইবাদত পালনের শেষ মুহূর্ত। তা ছাড়া অধিকাংশ ক্ষেত্রে ইফতারের সময় রোজাদার দুর্বল থাকে। আর মানুষ যত বেশি দুর্বল থাকে ও অন্তর যত নরম থাকে, সে তত বেশি আল্লাহর প্রতি অনুগত ও বিনয়ী হয়। ইফতারের সময়ের মাসনূন দোয়া হলো

اَللهُمَّ لَكَ صُمْتُ وَ عَلَى رِزْقِك أَفْطَرْتُ।’

ওই দোয়াটির অর্থ হলো, ‘হে আল্লাহ আমি আপনার জন্য রোজা পালন করলাম এবং আপনার দেয়া রিজিক দিয়ে ইফতার করলাম।’

ওয়েবসাইটে বলা হয়, ‘ইফতারের বিষয়ে আরও একটি দোয়া মহানবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম থেকে বর্ণিত হয়েছে

ذَهَبَ الظَّمَأُ وَ ابْتَلَّتِ العُرُوْقُ وَ ثَبَتَ الأَجْرُ إنْ شَاءَ الله।’

ওই দোয়ার অর্থ হলো, ‘পিপাসা দূরীভূত হলো, শিরা উপশিরা সিক্ত হলো এবং আল্লাহ চাহে তো সওয়াব সাব্যস্ত হলো।’

ইসলাম কিউএ ডটইনফোর প্রশ্নোত্তরে বলা হয়, “রোজার বিষয়ে উল্লিখিত হাদিস দুটি সাব্যস্তের ক্ষেত্রে দুর্বলতা থাকলেও আলেমদের কেউ কেউ এই হাদিস দুটিকে ‘হাসান’ হাদিস হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। যাই হোক, আপনি ইফতারের সময় এই দোয়া দুটি পড়তে পারেন অথবা অন্য যেকোনো দোয়া করতে পারেন। এটি দোয়া কবুল হওয়ার মুহূর্ত।”

আরও পড়ুন:
রমজানে বাজার মনিটরিং করবে পুলিশ
হাওরে বৃষ্টির জন্য দোয়া
রমজানে রাত ১০টা পর্যন্ত দোকান খোলা রাখতে চান ব্যবসায়ীরা
কেন রমজানের আগেই সব কিনতে হবে, প্রশ্ন বাণিজ্যমন্ত্রীর 
রাশিয়ায় পুতিনের সঙ্গে বসছেন এরদোয়ান

মন্তব্য

আরও পড়ুন

জীবনযাপন
Kubi student temporarily expelled for insulting religion

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার

ধর্ম অবমাননার অভিযোগে কুবি শিক্ষার্থী সাময়িক বহিষ্কার কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস। ফাইল ছবি
এ ঘটনায় স্বপ্নীলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউট থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

মহানবী হযরত মোহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটূক্তি ও ইসলাম ধর্ম অবমাননার দায়ে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের ২০২১-২২ বর্ষের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল মুখার্জিকে সাময়িক বহিষ্কার করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। এর আগে তার কাছে ধর্ম অবমাননার কারণ ব্যাখ্যা চেয়েছিল বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার অভিযুক্ত স্বপ্নীলকে সাময়িক বহিষ্কারের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার মো. আমিরুল হক চৌধুরী। রেজিস্ট্রারের স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তিতে নিউজবাংলার হাতে এসেছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী স্বপ্নীল মুখার্জীকে গত ১৫ মে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলাম ধর্মের অবমাননা ও মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-কে নিয়ে কটুক্তি করার বিষয়ে কারণ দর্শানোর নোটিশ প্রদান করা হয়। কিন্তু নোটিশের জবাব প্রদান না করায় কর্তৃপক্ষের নির্দেশক্রমে তাকে সাময়িক বহিষ্কার করা হলো।

উল্লেখ্য, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর থেকে বিভিন্ন সময়ে স্বপ্নীলের বিরুদ্ধে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটুক্তির অভিযোগ উঠেছে। প্রথমে বিষয়টি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার সহপাঠী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীরা ক্ষোভ ঝাড়েন। পরে এ নিয়ে গত বুধবার শিক্ষার্থীরা বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধন করে প্রক্টর বরাবর তাকে স্থায়ী বহিষ্কারের আবেদন জানান।

স্বপ্নীলের বাড়ি যশোর জেলার কেশবপুরে। সনাতন বিদ্যার্থী সংসদ, বাংলাদেশের কার্যনির্বাহী সংসদ ২০২৩-২৪ এর প্রচার সম্পাদক তিনি।

এ ঘটনায় তাকে বিশ্ববিদ্যালয়ের রোভার স্কাউট থেকেও বহিষ্কার করা হয়েছে।

মন্তব্য

জীবনযাপন
The agency will not be able to collect the Qurbani money from the pilgrims

হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি

হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি
হজ এজেন্সিগুলোকে হজ ফ্লাইট ডাটা যথাসময়ে এন্ট্রি করতে হবে। এছাড়া হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টন না পাঠানোসহ আরও কিছু বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোকে হুঁশিয়ার করেছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

হজযাত্রীদের কাছ থেকে কোরবানির অর্থ না নেয়ার জন্য হজ এজেন্সিগুলোকে সতর্ক করে দিয়েছে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়। একইসঙ্গে হজ ফ্লাইট ডাটা যথাসময়ে এন্ট্রি করার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এছাড়া হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টন না পাঠানোসহ আরও কিছু বিষয়ে হজ এজেন্সিগুলোকে হুঁশিয়ার করেছে মন্ত্রণালয়।

রোববার বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় জুম প্লাটফর্মে সৌদি হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের জেদ্দা এয়ারপোর্ট সার্ভিসের মহাপরিচালক আব্দুর রহমান ঘ্যানামের সঙ্গে সভা শেষে এসব নির্দেশনা জারি করে ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়।

ওই সভায় ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় ছাড়াও বাংলাদেশ হজ অফিস, মক্কা ও জেদ্দার কর্মকর্তা এবং হজ এজেন্সির মালিকরা অংশ নেন।

মন্ত্রণালয় সোমবার এ বিষয়ে একটি নির্দেশনা পত্র জারি করেছে।

ওই সভায় সৌদি আরবের পক্ষ থেকে বলা হয়, হজ প্যাকেজে উল্লেখ থাকা সত্ত্বেও অনেক এজেন্সি হজযাত্রীদের কাছ থেকে হজে যাওয়ার আগে কুরবানি বাবদ অর্থ নিচ্ছে। হজযাত্রী তার ইচ্ছামাফিক সৌদি সরকারের ব্যাংকের কুপন কিনে বা তার নিজের ব্যবস্থাপনায় কুরবানি সম্পন্ন করবেন।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্দেশনায় বলেছে, এজেন্সি কোনোভাবেই কুরবানির টাকা নিতে পারবে না। এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগ পাওয়া গেলে সংশ্লিষ্ট এজেন্সির বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

হজ এজেন্সি কর্তৃক ফ্লাইট ডাটা সঠিকভাবে ও নিয়মিত সৌদি ই-হজ সিস্টেমে এন্ট্রি না দেয়ায় সভায় অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়। এতে বলা হয়, হজ ফ্লাইট ডাটা এন্ট্রি না দেয়ার কারণে মদিনা ও জেদ্দা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ হজযাত্রীদের প্রয়োজনীয় তথ্য জানতে পারছে না। ফলে কোন ফ্লাইটে কতজন হজযাত্রী আসছে, তারা কোন মোয়াল্লেমের হজযাত্রী এবং কোন হোটেল বা বাড়িতে তাদের আবাসন ইত্যাদি বিষয়ে সমস্যা হচ্ছে।

এছাড়া হজযাত্রী ও তাদের লাগেজ পরিবহনের ক্ষেত্রেও সমস্যা হচ্ছে। মোয়াল্লেমের প্রতিনিধিও হোটেল বা বাড়িতে সার্ভিস দেয়ার জন্য উপস্থিত থাকছে না। এ কারণে হজযাত্রীদের কাঙ্ক্ষিত সেবা দেয়া যাচ্ছে না এবং রুট-টু-মক্কার সুবিধা থেকে হজযাত্রীরা বঞ্চিত হচ্ছেন।

সভায় হজ ফ্লাইট যাত্রা শুরুর আগেই সঠিকভাবে ফ্লাইট ডাটা সৌদি ই-হজ সিস্টেমে এন্ট্রি করার অনুরোধ করা হয়। অন্যথায় সংশ্লিষ্ট এজেন্সির বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয় হজ এজেন্সিগুলোকে আরও কিছু ত্রুটি-বিচ্যুতি সম্পর্কে সতর্ক করেছে। বলা হয়েছে, কিছু এজেন্সি তাদের হজযাত্রীদের মাধ্যমে জর্দার কার্টন পাঠিয়েছে, যা জেদ্দা বিমান বন্দরে আটক হয়েছে। এতে দেশের সম্মান নষ্ট হচ্ছে। অনেক এজেন্সি হজযাত্রীদের সঙ্গে হজ গাইড বা প্রতিনিধি না পাঠানোর কারণে হজযাত্রীরা বিড়ম্বনায় পড়ছেন।

আরও পড়ুন:
হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব
সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা
ভিসা ছাড়াই ওমরাহ করতে পারবেন ২৯ দেশের নাগরিক

মন্তব্য

জীবনযাপন
Inauguration of Bimans Hajj flight from Chittagong

চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন

চট্টগ্রাম থেকে বিমানের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন ছবি: সংগৃহীত
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইটে ৩৯৮ জন যাত্রী মদিনার পথে যাত্রা করেন।

চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের হজ ফ্লাইট উদ্বোধন হয়েছে মঙ্গলবার। এদিন সকালে বিমানের ডেডিকেটেড হজ ফ্লাইটটি চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর থেকে হজযাত্রীদের নিয়ে সৌদি আরবের উদ্দেশে যাত্রা করে।

ফ্লাইটের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী।

বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স জানায়, চট্টগ্রাম থেকে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রথম হজ ফ্লাইটে ৩৯৮ জন যাত্রী মদিনার পথে যাত্রা করেন।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের পরিচালক (বিপণন ও বিক্রয়) মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তাসলিম আহমেদ ও বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) বোসরা ইসলাম।

আরও পড়ুন:
হজযাত্রীদের থেকে কোরবানির টাকা নিতে পারবে না এজেন্সি
হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব
সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা
ভিসা ছাড়াই ওমরাহ করতে পারবেন ২৯ দেশের নাগরিক

মন্তব্য

জীবনযাপন
The outer skin cannot enter Dhaka for seven days after Eid

ঈদ-পরবর্তী সাতদিন বাইরের চামড়া ঢাকায় ঢুকতে পারবে না

ঈদ-পরবর্তী সাতদিন বাইরের চামড়া ঢাকায় ঢুকতে পারবে না মতিঝিলে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে রোববার টাস্কফোর্সের সভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: নিউজবাংলা
টাস্কফোর্সের সভায় শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেন, ‘কোরবানির ঈদ সামনে রেখে চামড়া শিল্প খাতের উন্নয়নে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি করণীয় নির্ধারণ করা হয়েছে। চামড়া ব্যবসায়ী ও পাইকাররা যাতে সহজ শর্তে ঋণ পান সে বিষয়েও পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।’

ঈদুল আজহা-পরবর্তী সাতদিনের মধ্যে বাইরে থেকে কোরবানির পশুর চামড়াবাহী গাড়ি ঢাকার ভেতরে ঢুকতে পারবে না। সিইটিপি’র পরিশোধন ক্ষমতা বিবেচনায় চামড়ার সরবরাহ সীমিত রাখার লক্ষ্যে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

‘চামড়া শিল্প খাতের উন্নয়নে সুপারিশ প্রদান ও কর্মপরিকল্পনা প্রণয়নের লক্ষ্যে গঠিত টাস্কফোর্স’-এর সপ্তম সভায় এমন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

রোববার রাজধানীর মতিঝিলে শিল্প মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এই সভায় অনুষ্ঠিত হয়।

শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন ছাড়াও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব জাকিয়া সুলতানাসহ টাস্কফোর্সের সদস্যরা সভায় অংশ নেন।

সভায় শিল্পমন্ত্রী বলেন, ‘কোরবানির ঈদ সামনে রেখে চামড়া শিল্প খাতের উন্নয়নে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদি করণীয় নির্ধারণ করা হয়েছে। বিসিক ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে নীতিগত সহযোগিতাসহ এসব করণীয় বাস্তবায়নে সব ধরনের সহায়তা দেয়া হবে।

তিনি বলেন, ‘আমাদের চামড়া শিল্প খাতে সংরক্ষণ সুবিধা বাড়াতে হবে, যাতে চামড়া নষ্ট না হয়। চামড়া ব্যবসায়ী ও পাইকাররা যাতে পুঁজির সমস্যায় না পড়েন ও সহজ শর্তে ঋণ পান, সে বিষয়েও পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে।’

সভায় অন্যান্য বছরের মতো এবারও আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহায় কোরবানির পশুর চামড়ার মূল্য নির্ধারণ এবং চামড়া সঠিকভাবে ছাড়ানো, সংগ্রহ ও সংরক্ষণের জন্য বিজ্ঞাপন ও টিভিসি আকারে বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচারের ব্যবস্থা করা, স্থানীয়ভাবে চামড়া সংগ্রহ এবং পর্যাপ্ত লবণ দিয়ে চামড়া সংরক্ষণের জন্য কৌশলগত স্থানে অস্থায়ী সংরক্ষণাগার নির্মাণ, কোরবানির পশুর চামড়ার পাচার রোধ, চামড়া সংগ্রহ ও পরিবহন কার্যক্রমে কোনো ধরনের চাঁদাবাজি, বিশৃঙ্খলা বা বাধার সৃষ্টি না হয় এবং চামড়া নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়াসহ গণমাধ্যমে যেন কোনো গুজব না ছড়ায় সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এছাড়াও সিইটিপি’র পরিশোধন ক্ষমতার মধ্যে সীমিত রাখার লক্ষ্যে কোরবানির পরবর্তী সাতদিনের মধ্যে বাইরে থেকে যাতে কোরবানির পশুর চামড়া ঢাকার ভিতরে প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় গৃহীত অন্যান্য সিদ্ধান্তের মধ্যে রয়েছে- চামড়া শিল্প নগরীতে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে রেশনিং পদ্ধতিতে ইফ্লুয়েন্ট ডিসচার্জ করা, সারাদেশে পর্যাপ্ত লবণ সরবরাহ নিশ্চিতকরণসহ এতিমখানাগুলোতে বিনামূল্যে লবণ সরবরাহ করতে বিসিক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ।

মন্তব্য

জীবনযাপন
Hajj visa processing time increased again

হজযাত্রীদের ভিসা প্রক্রিয়াকরণের সময় ফের বাড়ল

হজযাত্রীদের ভিসা প্রক্রিয়াকরণের সময় ফের বাড়ল ফাইল ছবি।
হজযাত্রীদের ভিসার জন্য আবেদনের সময় নির্ধারিত ছিল ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত। প্রথম দফায় ৭ মে পর্যন্ত সময় বাড়ানো হয়। তারপরও অনেক এজেন্সি ভিসার কার্যক্রম শেষ করতে ব্যর্থ হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয় দফায় ১১ মে পর্যন্ত সময় বাড়াল ধর্ম মন্ত্রণালয়।

হজযাত্রীদের ভিসা প্রক্রিয়াকরণের সময় আবারও বাড়ানো হয়েছে। এই পর্যায়ে ১১ মে পর্যন্ত সময় বৃদ্ধি করা হয়েছে।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. আবুবকর মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই বর্ধিত সময়ের মধ্যে ভিসার কার্যক্রম শেষ করা না হলে সংশ্লিষ্ট এজেন্সিকেই তার দায় নিতে হবে।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের হজ অনুবিভাগ সব হজ এজেন্সিকে এ বিষয়ে চিঠি দিয়েছে।

এর আগে হজযাত্রীদের ভিসার জন্য আবেদনের সময় নির্ধারিত ছিল ২৯ এপ্রিল পর্যন্ত। ওই সময়ের মধ্যে ভিসার কার্যক্রম শেষ না হওয়ায় প্রথম দফায় ৭ মে পর্যন্ত সময় বাড়ায় মন্ত্রণালয়। তারপরও ২৫৯টি বেসরকারি হজ এজেন্সির অনেকেই এই বর্ধিত সময়ের মধ্যেও ভিসার কার্যক্রম শেষ করতে ব্যর্থ হয়। এর পরিপ্রেক্ষিতে দ্বিতীয় দফায় সময় বাড়াল মন্ত্রণালয়।

আরও পড়ুন:
হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব
হজ ফ্লাইট শুরু হচ্ছে ৯ মে
ভিসা ছাড়াই ওমরাহ করতে পারবেন ২৯ দেশের নাগরিক
হজে গিয়ে ভিক্ষা করলে ৭ বছরের কারাদণ্ড

মন্তব্য

জীবনযাপন
Hajj Visa Excludes Makkah Madinah and Jeddah Saudi Arabia

হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব

হজ্ব ভিসায় মক্কা, মদিনা ও জেদ্দার বাইরে নয়: সৌদি আরব ছবি: সংগৃহীত
সৌদি আরবের হজ্ব ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, ২০২৪ সালে হজ্ব ভিসায় সৌদি আরবে যাওয়া যাত্রীরা কেবল পবিত্র হজ্বের আনুষ্ঠানিকতা পালনের অনুমতি পাবেন। জেদ্দা, মদিনা ও মক্কা শহরের বাইরে এই ভিসা বৈধ হবে না। কাজের জন্য কিংবা দেশটিতে বসবাসের জন্য এই ভিসা কাজ করবে না।

চলতি ২০২৪ সালে হজ্ব ভিসায় সৌদি আরবে গমনকারীরা কেবল পবিত্র হজ্বের আনুষ্ঠানিকতা পালনের অনুমতি পাবেন। সেক্ষেত্রে নির্দিষ্ট তিনটি শহরের বাইরে ভ্রমণ করা যাবে না।

হজ্ব ভিসা দেয়ার ক্ষেত্রে নতুন এই বিধিনিষেধ ঘোষণা করেছে সৌদি সরকার। তাতে উল্লেখ করা হয়েছে- হজ্ব ভিসা কেবল জেদ্দা, মদিনা ও মক্কা ভ্রমণের অনুমতি দেবে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইভিত্তিক সংবাদ মাধ্যম গালফ নিউজে প্রকাশিত প্রতিবেদনে এসব তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সৌদি আরবের হজ্ব ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় স্পষ্ট করে জানিয়েছে যে ২০২৪ সালে হজ্ব ভিসায় সৌদি আরবে যাওয়া যাত্রীরা কেবল পবিত্র হজ্বের আনুষ্ঠানিকতা পালনের অনুমতি পাবেন।

হজ্ব ভিসা কেবল জেদ্দা, মদিনা ও মক্কা শহরের মধ্যে ভ্রমণের অনুমতি দেবে। নির্ধারিত এই তিন শহরের বাইরে এই ভিসা বৈধ হবে না। কাজের জন্য কিংবা দেশটিতে বসবাসের জন্য এই ভিসা কাজ করবে না। শুধুমাত্র হজ্ব মওসুমের জন্যই এটা বৈধ হবে।

হজ্ব ও ওমরাহ মন্ত্রণালয় আরও জানিয়েছে, এই বিধিনিষেধ লঙ্ঘন করলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে নিজ দেশে ফেরত পাঠানো হবে। এছাড়া ভবিষ্যতে হজ্বব্রত পালনের উদ্দেশ্যে সৌদি আরবে গমনের ক্ষেত্রে তিনি সম্ভাব্য নিষেধাজ্ঞার আওতায় পড়তে পারেন।

আরও পড়ুন:
সৌদিতে কোরবানি ঈদের সম্ভাব্য তারিখ ঘোষণা
ভিসা ছাড়াই ওমরাহ করতে পারবেন ২৯ দেশের নাগরিক

মন্তব্য

জীবনযাপন
Hajj flights start on May 9

হজ ফ্লাইট শুরু হচ্ছে ৯ মে

হজ ফ্লাইট শুরু হচ্ছে ৯ মে ফাইল ছবি
ঢাকা হজ অফিসের পরিচালক মুহম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘এখনও শিডিউল ঘোষণা করা হয়নি। দ্রুত শিডিউল ঘোষণা করে যাত্রীদের জানানো হবে।’

আগামী ৯ মে থেকে শুরু হচ্ছে চলতি মৌসুমের হজ ফ্লাইট। হজযাত্রীদের নিয়ে ঢাকা থেকে ওইদিনই প্রথম ফ্লাইট সৌদি আরবের উদ্দেশে রওনা দেবে। সব ফ্লাইটের সূচি এখনও চূড়ান্ত না হলেও শিডিউল অনুযায়ী পরবর্তী ফ্লাইটগুলো ছাড়া হবে বলে জানা গেছে।

ঢাকা হজ অফিসের পরিচালক মুহম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, ‘এখনও শিডিউল ঘোষণা করা হয়নি। দ্রুত শিডিউল ঘোষণা করে যাত্রীদের জানানো হবে।’

ধর্ম মন্ত্রণালয় জানায়, গত বছর এক লাখ ১৯ হাজার ৬৯৫ জন হজযাত্রী বহন করার জন্য বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স, সৌদি এরাবিয়ান এয়ারলাইন্স (সৌদিয়া) ও সৌদির বেসরকারি এয়ারলাইন্স ফ্লাইনাস মোট ৩৩৫টি হজ ফ্লাইট ঘোষণা করেছিল। চুক্তি অনুযায়ী, মোট হজযাত্রীর অর্ধেক বহন করে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স এবং বাকি অর্ধেক বহন করে সৌদিয়া ও ফ্লাইনাস এয়ার। এবারও এই তিন এয়ারলাইনস হজযাত্রীদের বহন করবে।

জানা গেছে, চলতি বছর সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজ পালন করতে যাবেন ৮৩ হাজার ২০২ জন। এর মধ্যে সরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ৪ হাজার ৩০৭ জন এবং বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় যাবেন ৭৮ হাজার ৮৯৫ জন।

চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ১৬ জুন পালিত হতে পারে পবিত্র হজ। প্রতিবছর একমাস আগে থেকে শুরু হয় হজ ফ্লাইট। তার আগে হজযাত্রীদের ভিসা, ফ্লাইট শিডিউল সংক্রান্ত কাজ সম্পন্ন করে ধর্ম মন্ত্রণালয় ও এয়ারলাইন্সগুলো।

মন্তব্য

p
উপরে