× হোম জাতীয় রাজধানী সারা দেশ অনুসন্ধান বিশেষ রাজনীতি আইন-অপরাধ ফলোআপ কৃষি বিজ্ঞান চাকরি-ক্যারিয়ার প্রযুক্তি উদ্যোগ আয়োজন ফোরাম অন্যান্য ঐতিহ্য বিনোদন সাহিত্য ইভেন্ট শিল্প উৎসব ধর্ম ট্রেন্ড রূপচর্চা টিপস ফুড অ্যান্ড ট্রাভেল সোশ্যাল মিডিয়া বিচিত্র সিটিজেন জার্নালিজম ব্যাংক পুঁজিবাজার বিমা বাজার অন্যান্য ট্রান্সজেন্ডার নারী পুরুষ নির্বাচন রেস অন্যান্য স্বপ্ন বাজেট আরব বিশ্ব পরিবেশ কী-কেন ১৫ আগস্ট আফগানিস্তান বিশ্লেষণ ইন্টারভিউ মুজিব শতবর্ষ ভিডিও ক্রিকেট প্রবাসী দক্ষিণ এশিয়া আমেরিকা ইউরোপ সিনেমা নাটক মিউজিক শোবিজ অন্যান্য ক্যাম্পাস পরীক্ষা শিক্ষক গবেষণা অন্যান্য কোভিড ১৯ শারীরিক স্বাস্থ্য মানসিক স্বাস্থ্য যৌনতা-প্রজনন অন্যান্য উদ্ভাবন আফ্রিকা ফুটবল ভাষান্তর অন্যান্য ব্লকচেইন অন্যান্য পডকাস্ট আমাদের সম্পর্কে যোগাযোগ প্রাইভেসি পলিসি

কিড জোন
The foxs intellect
hear-news
player
print-icon
ছোটদের মজার গল্প

শেয়ালের বুদ্ধি

শেয়ালের-বুদ্ধি
কি করে কচ্ছপটাকে খাবে, বাঘ তার কোনো কায়দা করতে পারছে না। কচ্ছপের পিঠের আবরণ এত শক্ত যে তাতে দাঁত ফোটে না। নখ বসে না। কোনো রকমে জুত করতে না পেরে বাঘ এদিক-ওদিক তাকায়। উপায় খোঁজে।

গভীর বনের ধারে গাছগাছালি আর ঝোপঝাড়ে ঘেরা একটি পুকুর। সেই পুকুরে বাস করে এক কচ্ছপ, আর বড় একটি গাছের গোড়ার গর্তে এক শেয়াল। দুজনের মধ্যে ভারি বন্ধুত্ব।

এক দিনের কথা। তারা সুখ-দুঃখের গল্প করছিল। সেই মুহূর্তে আচমকা সেখানে লাফিয়ে পড়ল এক গেছো বাঘ। ক্ষিপ্রগতির ধূর্ত শেয়াল বাউলি মেরে সটকে পড়ল। কিন্তু চাকা লাগানো গোল চাকতির মতো কচ্ছপ তো গড়াতে গড়াতে পুকুরের দিকে যেতেই তার ওপর হামলে পড়ে গেছো বাঘ। পা দিয়ে তাকে চেপে ধরে ঘাড় মটকাতে গিয়ে দেখে ভারি বজ্জাত আর কৌশলী তার শিকার। ঘাড় নেই, গলা আছে—তবে সুরুত করে তাকে শরীরের ভেতর লুকিয়ে ফেলে।

কী করে কচ্ছপটাকে খাবে, বাঘ তার কোনো কায়দা করতে পারে না। কচ্ছপের পিঠের আবরণ এত শক্ত যে তাতে দাঁত ফোটে না। নখ বসে না। কোনো রকমে জুত করতে না পেরে বাঘ এদিক-ওদিক তাকায়। উপায় খোঁজে। শেয়াল তখন আপন ডেরার নিরাপদ আশ্রয় থেকে মুখ বার করে একটু ফেচকি হাসে।

তারপর বলে, ‘মামা, তুমি এক নচ্ছার জীবকে ধরেছ। এ জিনিস খেতে ভালো, একেবারে মুরগির মাংসের স্বাদ পাবে। তবে কিনা ওই খোসা নরম করার কায়দাটা না জানলে শত চেষ্টা করেও জিহ্বার সুখ পাবে না।’

বাঘ বলে: ভাগ্নে, জলদি বলনা ছাই, এই জিনিস খাওয়ার কায়দাটি কী? আমার আর তর সইছে না।

শেয়াল: ওই জিনিসের খোসা নরম করার একটাই উপায়। ওকে পানিতে ফেলে দাও। খানিকক্ষণ ভিজলে খোসা নরম হয়ে ভেসে উঠবে। তখন টেনে এনে মজাসে খাও।

বোকা বাঘ তাই করে। কচ্ছপ দ্রুত জলে মিলিয়ে যায়।

শেয়াল বলে: মামা, বসে বসে অপেক্ষা করো। তোমার খাবার তৈরি হয়ে ভেসে উঠবে।।

শেয়াল বন্ধুকে বাঁচাতে পেরে খুব খুশি।

গিন্নিকে বলে: বউ, একটু সরষের তেল দে। নাকে দিয়ে ঘুমাই। বিকেলে ঘুম থেকে উঠে বন্ধুর সঙ্গে আড্ডা দেব আর বোকা বাঘের পিণ্ডি চটকাব।

আরও পড়ুন:
দৈত্য ও নাপিত
তৈয়ব আখন্দের আশ্চর্য বাগান
ভাগাভাগি
রানির হাসি
জয়ী

মন্তব্য

পরিদর্শক

পরিদর্শক
বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

স্কুলে পরিদর্শক এসেছেন। ছাত্রদের মেধা যাচাই করতে ক্লাসে ঢুকে তিনি প্রশ্ন করলেন-

পরিদর্শক: আচ্ছা বলো তো, টুইন টাওয়ার কে ভেঙেছিল?

ছাত্ররা: আমরা ভাঙিনি স্যার।

পাশে দাঁড়ানো শিক্ষক: স্যার, যে-ই ভেঙে থাকুক, ফাজিলের দল স্বীকার করবে না।

-

বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

আরও পড়ুন:
উপদেশ
ভালো কাজ
গুন্ডাগিরি
সাইনবোর্ড
পরীক্ষার রেজাল্ট

মন্তব্য

কিড জোন
giant animal

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি
ফটোশপ অ্যাপস ব্যবহার করে একদল শিল্পী এ কাজটাই করেছেন। বড় করে ফেলেছেন হাঁস, বিড়াল, জিরাফসহ আরও অনেক পশুপাখিকে।

আমাদের পরিচিত পশুপাখিগুলো যদি হঠাৎ করে আকারে অনেক বড় হয়ে যায়, তাহলে কেমন হবে?

নিশ্চয়ই ব্যাপারটা খুব অদ্ভুত হবে, তাই না।

ফটোশপ অ্যাপস ব্যবহার করে একদল শিল্পী এ কাজটাই করেছেন। বড় করে ফেলেছেন হাঁস, বিড়াল, জিরাফসহ আরও অনেক পশুপাখিকে। চলো তাদের ছবিগুলো দেখে নিই।

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

বিশালাকার পশুপাখি

আরও পড়ুন:
ফুরলানি চাচ্চুর পাথরের পশুপাখি
দু-পেয়ে প্রাণী
হাইপার রিয়েলিস্টিক চিত্রকর্ম
কাছ থেকে দেখা
ফল ও সবজির আর্ট

মন্তব্য

কিড জোন
One day in class

ক্লাসে এক দিন

ক্লাসে এক দিন
বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

শিক্ষক: মনে করো সাগরের মাঝখানে একটা লেবুগাছ। তুমি কীভাবে সেই গাছ থেকে লেবু পেড়ে আনবে?

বনি: পাখি হয়ে উড়ে যাব স্যার! তারপর লেবু পেড়ে আনব।

শিক্ষক: কী উল্টোপাল্টা বলছিস! মানুষ কখনো পাখি হয় নাকি?

বনি: উল্টোপাল্টা কথা তো আপনিই শুরু করলেন স্যার। আগে বলুন, সাগরের মাঝখানে লেবুগাছ হয় নাকি?

-

বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

আরও পড়ুন:
উপদেশ
ভালো কাজ
গুন্ডাগিরি
সাইনবোর্ড
পরীক্ষার রেজাল্ট

মন্তব্য

কিড জোন
Learn about Mars

মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে জেনে নাও

মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে জেনে নাও পৃথিবী ও মঙ্গল গ্রহ
মঙ্গল গ্রহে ২৪ ঘণ্টা ৩৭ মিনিটে এক দিন হয়। এক বছর হতে পৃথিবীর ৬৮৭ দিন সময় লাগে।

১. সৌরজগতের চতুর্থ গ্রহের নাম মঙ্গল গ্রহ। ইংরেজিতে এর নাম মার্স। রোমান যুদ্ধের দেবীর নাম অনুসারে এই নাম রাখা হয়েছে।

২. মঙ্গল গ্রহকে লাল গ্রহও বলা হয়। কারণ এটা দেখতে লাল। মঙ্গলের মাটিতে আয়রন অক্সাইড নামের পদার্থ থাকার কারণে এটাকে লাল দেখায়।

মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে জেনে নাও
মঙ্গল গ্রহ দেখতে লাল রঙের।

৩. আকারের দিক থেকে মঙ্গল সৌরজগতের দ্বিতীয় ক্ষুদ্রতম গ্রহ। সবচেয়ে ক্ষুদ্র গ্রহের নাম বুধ। মঙ্গলের ব্যাস প্রায় ৬ হাজার ৭৯১ কিলোমিটার। এটা আকারে পৃথিবীর প্রায় অর্ধেক।

৪. মঙ্গল গ্রহের আবহাওয়া বেশ ঠান্ডা। বিষুব রেখায় তাপমাত্র ২০ ডিগ্রি সেন্টিগ্রেড উঠলেও মেরু অঞ্চলে তাপমাত্রা থাকে সাধারণত মাইনাস ১৪০ ডিগ্রি।

৫. সৌরজগতের গ্রহগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি পর্বত আছে মঙ্গলে। এর অলিম্পাস মন্স পর্বতটি আমাদের এভারেস্ট পর্বতের চেয়ে তিন গুণ উঁচু।

মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে জেনে নাও
অলিম্পাস মন্স পর্বত

৬. মঙ্গলের মাধ্যাকর্ষণ শক্তি পৃথিবীর চেয়ে তিন গুণ কম। তাই পৃথিবীতে লাফ দিয়ে তুমি যতটুকু উঁচুতে উঠতে পারো, মঙ্গলে তার চেয়ে তিনগুণ বেশি উচ্চতায় উঠতে পারবে।

৭. পৃথিবীর চাঁদ একটি, কিন্তু মঙ্গল গ্রহের চাঁদ দুটি। ওদের নাম ফোবোস ও ডিমোস।

মঙ্গল গ্রহ সম্পর্কে জেনে নাও
মঙ্গল গ্রহের দুটি চাঁদ, ফোবোস ও ডিমোস।

৮. মঙ্গল গ্রহে ২৪ ঘণ্টা ৩৭ মিনিটে এক দিন হয়। এক বছর হতে পৃথিবীর ৬৮৭ দিন সময় লাগে।

৯. মঙ্গল গ্রহের বাতাস পৃথিবীর চেয়ে হালকা। ওখানকার বাতাসে অক্সিজেন নেই বললেই চলে। তার বদলে আছে কার্বন ডাই-অক্সাইড, নাইট্রোজেন ও আর্গন। পৃথিবীর মতো মঙ্গল গ্রহেও ঋতু পরিবর্তন হয়।

আরও পড়ুন:
মঙ্গলে সূর্যগ্রহণ দেখল ‘পারসিভারেন্স’
মঙ্গলে ডেল্টার অস্তিত্ব পেল অধ্যবসায়

মন্তব্য

পড়াশোনা

পড়াশোনা
বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

ছেলে: জানো বাবা, গতকাল না আমি রাত ২টা পর্যন্ত পড়াশোনা করেছি।

বাবা: মিথ্যা কথা বলছ কেন? গতকাল রাত ১২টা থেকে তো লোডশেডিং ছিল।

ছেলে: ওহ, তাই না কি! আসলে আমি পড়াশোনায় এতই মনোযোগী ছিলাম যে টেরই পাইনি।

-

বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

আরও পড়ুন:
উপদেশ
ভালো কাজ
গুন্ডাগিরি
সাইনবোর্ড
পরীক্ষার রেজাল্ট

মন্তব্য

বুদ্ধিমান বাবা

বুদ্ধিমান বাবা
বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

বাবা: সব কিছুতে তর্ক করিস না। আমি কি তোর থেকে কম জানি?

ছেলে: বাবারা কি সব কিছুই ছেলের থেকে বেশি জানেন?

বাবা: অবশ্যই।

ছেলে: বলো তো, মাধ্যাকর্ষণ কে আবিষ্কার করছিল?

বাবা: নিউটন।

ছেলে: তাহলে নিউটনের বাবা ওটা আবিষ্কার করতে পারেননি কেন?

-

বন্ধুরা, চাইলে তোমরাও আমাদের কাছে জোকস লিখে পাঠাতে পারো। পাঠানোর ঠিকানা: [email protected]

আরও পড়ুন:
উপদেশ
ভালো কাজ
গুন্ডাগিরি
সাইনবোর্ড
পরীক্ষার রেজাল্ট

মন্তব্য

কিড জোন
I and the train

আমি ও রেলগাড়ি

আমি ও রেলগাড়ি
বন্ধুরা, তোমরাও ছবি ছড়া লিখতে পারো, তবে পাঠিয়ে দাও আমাদের কাছে। ঠিকানা: [email protected]

রেলগাড়ি কই যাবে?

থামো দেখি ফের।

থামব না থামব না

কাজ আছে ঢের।

-

কই যাবে রেলগাড়ি

দূরে কতদূর?

যাব আজ ঢাকা হতে

ওই রংপুর।

-

লোকজন ঢের আছে

সময় তো নাই

যাই তবে আজ। পরে

কথা হবে ভাই।

-

যাও তবে রেলগাড়ি

সাবধানে যেও,

পরে যদি আসো তুমি

আমাকেও নিয়ো।

-

ছড়াটি পাঠিয়েছে ফকিরপাড়া, দিনাজপুর থেকে আমাদের বন্ধু শাকিব হুসাইন।

বন্ধুরা, তোমরাও ছবি ছড়া লিখতে পারো, তবে পাঠিয়ে দাও আমাদের কাছে। ঠিকানা: [email protected]

মন্তব্য

p
উপরে