উপকারী ইঁদুর

উপকারী ইঁদুর

ইঁদুর ভয়ে বলল, ‘মহারাজ, আমি না জেনে অপরাধ করেছি। ক্ষমা করুন। আমায় প্রাণ দান করুন। আপনি সমস্ত পশুর রাজা, আমার মতো ক্ষুদ্র প্রাণীকে হত্যা করলে আপনার কলঙ্ক লাগবে।’

আফ্রিকার বনে রাগী এক সিংহ ছিল।

সবাই তাকে ভয় পেত।

কেউ তার কাছে যেতে চাইত না।

সেই রাগী সিংহটা একদিন ঘুমাচ্ছিল।

পাশ দিয়ে এক ইঁদুর যাওয়ার সময় সিংহের শরীরের উপর উঠে গেল।

হঠাৎ ইঁদুরটা খেয়াল করল, সে সিংহের পিঠের উপরে।

সে লুকোতে চাইল।

তাড়াহুড়া করতে গিয়ে সে সিংহের নাকের মধ্যে ঢুকল লুকাবার জন্য।

যেই না ইঁদুর সিংহের নাকের মধ্যে গেল, ওমনি সিংহ জেগে উঠল।

দিল এক হাঁচি।

হাঁচির তোড়ে ইঁদুর ছিটকে বেড়িয়ে এলো।

এই বেয়াদবির জন্য সিংহ ইঁদুরের ওপর খুব রাগ করল এবং তাকে হত্যা করতে চাইল।

ইঁদুর ভয়ে বলল, ‘মহারাজ, আমি না জেনে অপরাধ করেছি। ক্ষমা করুন। আমায় প্রাণ দান করুন। আপনি সমস্ত পশুর রাজা, আমার মতো ক্ষুদ্র প্রাণীকে হত্যা করলে আপনার কলঙ্ক লাগবে।’

ইঁদুরের কথা শুনে সিংহের মনে দয়া হলো। সে ইঁদুরটিকে ছেড়ে দিল।

কিছুদিন পর, সিংহ বনের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছিল। সিংহ ধরার জন্য এক জায়গায় চোরা শিকারিরা জাল পেতে রেখেছিল।

বেখেয়ালে সিংহ যে জালের উপরে পা দিল অমনি সে আটকা পড়ল।

অনেক চেষ্টা করেও সে জাল থেকে বের হতে পারল না।

অগত্যা ভয়ে সে উচ্চস্বরে গর্জন করতে লাগল।
সেই ইঁদুরটি আশপাশেই ঘুরে বেড়াচ্ছিল।

সিংহের গর্জন সে শুনতে পেল।

ব্যাপার কী দেখার জন্য সে খুব তাড়াতাড়ি ঘটনাস্থলে পৌঁছাল।

গিয়ে দেখে, সিংহ জালে আটকা পড়ে আছে।

সে বিন্দু দেরি না করে জাল কেটে দিল।

এভাবে অল্প কিছুক্ষণের মধ্যে ইঁদুর সিংহকে জাল থেকে মুক্ত করল।

সিংহ বলল, ‘তুমি আমার খুব উপকার করলে। সেদিন তোমাকে মুক্তি না দিলে আজ আমি বেঁচে থাকতাম না।’

ইঁদুর হেসে বলল, ‘এ জন্যই ছোট-বড় সবার উপকার করতে হয়। কে কখন কাজে লেগে যায় কেউ বলতে পারে না।’

শেয়ার করুন

মন্তব্য